Slideshows

http://bostonbanglanews.com/index.php/components/com_gk3_photoslide/images/stories/components/com_gk3_photoslide/thumbs_big/605744Finding_Immigrant____SaKiL___0.jpg

কুইন্স ফ্যামিলি কোর্টে অভিবাসী

হাকিকুল ইসলাম খোকন/বাপ্‌স নিউজ/প্রবাসী নিউজ ঃ বষ্টনবাংলা নিউজ ঃ দ্যা ইন্টারফেইস সেন্টার অব নিউইয়র্ক ও আইনী সহায়তা সংগঠন নিউইয়র্ক এর উদ্যোগে গত ২৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল ৯ See details

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

যুক্তরাষ্ট্রের খবর

সংবাদপত্র প্রকাশে অশুভ প্রতিযোগিতা নিউইয়র্কের শীর্ষ ১০ সম্পাদকের উদ্বেগ

বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্রে বাংলা সংবাদপত্রের পাঠক চাহিদা এবং বিজ্ঞাপন বাজার যাচাই না করে বিশেষ উদ্দেশ্যে রাতারাতি পত্রিকা প্রকাশের অশুভ প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে স্থানীয় কমিউনিটিতে। বিশেষ করে বাংলাদেশের বিত্তবান ব্যবসায়ী মহলের মালিকানাধীন দৈনিক পত্রিকার সাপ্তাহিক সংস্করণ যুক্তরাষ্ট্রে প্রকাশ এবং এ ধরণের আরো কয়েকটি পত্রিকা প্রকাশের প্রস্তুতি চলছে এমন সংবাদে কমিউনিটিতে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। বিজ্ঞাপনের সীমিত বাজারে ব্যবসায়ীদের উপর বাড়তি চাপ ছাড়াও বিব্রত বোধ করছেন তারা। পক্ষান্তরে দীর্ঘ তিন দশক ধরে কমিউনিটির কল্যাণ ও উন্নয়নে নিবেদিত প্রাণ সংবাদপত্রগুলোকে মুখোমুখি হতে হচ্ছে অসম ও অশুভ প্রতিযোগিতার। এহেন পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে নিউইয়র্কের শীর্ষ স্থানীয় ১০টি পত্রিকার মালিক/সম্পাদক উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

Picture

জ্যাকসন হাইটসের বেলাজিনো পার্টি হলে গত ১২ ফেব্রুয়ারী সোমবার সন্ধ্যায় আয়োজিত মালিক/সম্পাদকদের তৃতীয় বৈঠকে অংশ নেন সাপ্তাহিক ঠিকানার সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এমএম শাহীন, সাপ্তাহিক বাঙালী সম্পাদক কৌশিক আহমেদ, সাপ্তাহিক পরিচয় সম্পাদক নাজমুল আহসান, সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা সম্পাদক আবু তাহের, সাপ্তাহিক বাংলাদেশ সম্পাদক ডা: ওয়াজেদ এ খান, সাপ্তাহিক জন্মভূমি সম্পাদক রতন তালুকদার, সাপ্তাহিক আজকাল এর প্রধান সম্পাদক জাকারিয়া মাসুদ জিকো, সাপ্তাহিক বর্ণমালা সম্পাদক মাহফুজুর রহমান, সাপ্তাহিক প্রবাস সম্পাদক মোহাম্মদ সাঈদ। সাপ্তাহিক দেশবাংলা ও বাংলা টাইমস এর প্রধান সম্পাদক ডা: চৌধুরী সারোয়ারুল হাসান বৈঠকে উপস্থিত থাকতে না পারলেও সকলের সিদ্ধান্তের সঙ্গে ঐকমত্য পোষণ করেন।
সম্পাদকবৃন্দ বলেন, আমেরিকার বাংলাদেশী ইমিগ্রান্ট কমিউনিটির ক্রমবিকাশ এবং আজকের এ অবস্থান সৃষ্টির নেপথ্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে বাংলা সংবাদপত্রগুলো। বাংলাদেশী কমিউনিটিকে আরো শক্তিশালী ও মর্যাদাবান করার লক্ষ্যে পত্রিকাগুলো ঐক্যবব্ধভাবে কাজ করবে বলে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন তারা। প্রবাসীদের প্রাত্যহিক জীবনযাত্রা, তাদের সুখ-দু:খ, কৃতিত্ব এবং বাংলাদেশী ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের আর্থিক উন্নয়ন, নতুন প্রজন্মের সন্তানদের শিক্ষা ও চাকুরি ক্ষেত্রে সাফল্য গাঁথা তুলে ধরার মাধ্যমে বাংলা ভাষার পত্রিকাগুলো কমিউনিটি তথ্য প্রবাহের ক্ষেত্রে ভিন্ন মাত্রা সংযোজন করেছে বলে মন্তব্য করেন সম্পাদকবৃন্দ। পত্রিকাগুলোর বিরামহীন প্রকাশনা ও উত্তরণে পৃষ্ঠপোষকতার জন্য কমিউনিটির ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন শ্রেনী পেশার নেতৃবৃন্দের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তারা। সম্পাদকবৃন্দ বলেন, বাংলাদেশী কমিউনিটির সীমিত ব্যবসায় বাণিজ্য এবং বিজ্ঞাপন বাজারে ভূঁইফোড় সংবাদপত্র প্রকাশনা সুস্থ প্রতিযোগিতার পর্যায়ে পড়ে না। সাংবাদিকতায় পেশাদারিত্ব বজায় রাখার পাশাপাশি স্থানীয় মিডিয়া জগতে সুস্থ ও নির্মল প্রতিবেশ গড়ে তোলার ব্যাপারে সকলের সহযোগিতার উপর গুরুত্বারোপ করেন সম্পাদকগণ। এ লক্ষ্যে অচিরেই সংবাদপত্র ও সাংবাদিকতা বিষয়ের উপর কমিউনিটি ভিত্তিক একটি সেমিনার আয়োজনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় বৈঠকে।

বৈঠকে পত্রিকা প্রকাশ, বিতরণ ও বিজ্ঞাপন সহ বিভিন্ন স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। সম্পাদকদের পরবর্তী বৈঠক মার্চের প্রথম সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হবে।


যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাম্প্রতিক কর্মকান্ডে শেখ হাসিনা সন্তুষ্ট

বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

Picture

রোম থেকে টেলিফোনে নিউইয়র্কে এ সংবাদদাতাকে এসব তথ্য জানিয়ে ড. সিদ্দিকুর রহমান আরো বলেন, ‘নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কন্স্যুলেটে হামলার ষড়যন্ত্র আওয়ামী লীগের সকলে নস্যাত করে দিয়েছি-এ সংবাদও জেনেছেন সভানেত্রী।’ একইচেতনায় আওয়ামী পরিবারের লোকজন নিজ নিজ এলাকার সিনেটর-কংগ্রেসম্যানসহ মার্কিন নীতি-নির্দ্ধারকদের সাথে বাংলাদেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে অগ্রগতিসাধনের তথ্যও সবিস্তারে অবহিত করছেন বলে শেখ হাসিনাকে অবহিত করেন ড. সিদ্দিক।

আমেরিকা থেকে এক হাজার প্রবাসী যাচ্ছি বাংলাদেশে নির্বাচনী প্রচারাভিযানে অংশ নিতে-এটি জেনে খুবই খুশী হয়েছেন জননেত্রী। এ সময় সেখানে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ এবং নির্বাহী সদস্য শাহানারা রহমানও ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব নজিবুর রহমানসহ উর্দ্ধতন কর্মকর্তারাও ছিলেন সেখানে।


মামলা নিষ্পত্তিতে ৪ লাখ ডলার : অবশেষ মসজিদ নির্মাণে সম্মত হলো নিউজার্সি সিটি

বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

বাপ্ নিউজ : নিউজার্সি (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে :ফেডারেল কোর্টে মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ৪ লাখ ডলার ক্ষতিপূরণ দিয়ে মসজিদ নির্মাণের অনুমতির পথ সুগম করলো নিউজার্সি অঙ্গরাজ্যের বেয়নে সিটি প্রশাসন। গত দু’ বছর ধরেই এই অনুমতির বিপক্ষে অবস্থান নেয় সিটি প্রশাসন। ‘আবাসিক এলাকায় মসজিদ নির্মিত হলে এলাকায় জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটবে’, ‘ইসলাম হচ্ছে মানবতার দুশমন’ ইত্যাদি স্লোগান উঠার পরই সিটির জোনিং বোর্ড  স্থানীয় মুসলমানদের আবেদন নাকচ করে।

Picture

এফ এভিনিউ এবং ১০৯ ইস্ট ২৪ স্ট্রিটে সেন্ট হেনরী’জ চার্চ স্কুলকে মসজিদ ও কম্যুনিটি সেন্টার নির্মাণের নকশা ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে জমা দেয়া হয়েছিল সিটি সমীপে। এই স্কুলভবন ভাড়া নেয়া হয় তার ৭ বছর আগে। এক পর্যায়ে মুসল্লীরা তহবিল সংগ্রহ করে ভবনটি ক্রয় করেন।সিটির ইস্ট সাইডে মসজিদ নির্মাণের বিরুদ্ধে এলাকার শ্বেতাঙ্গরা মানববন্ধন করেন এবং শান্তি-শৃঙ্খলার স্বার্থে মসজিদ নির্মাণের অনুমতি না দেয়ার দাবি জানান। শুধু তাই নয়, প্রস্তাবিত মসজিদ ও কম্যুনিটি সেন্টারের ভবনের দেয়ালে ইসলাম বিদ্বেষমূলক কথাবার্তা ও মুসলমানদের হুমকি দিয়ে পোস্টার-প্লেকার্ডও লাগানো হয়। মসজিদে হামলার ঘটনাও ঘটেছিল ২০১৬ সালের প্রথমার্ধে। এ নিয়ে শীর্ষস্থানীয় মার্কিন মিডিয়ায় বেশ কটি প্রতিবেদনও প্রচার ও প্রকাশিত হয়েছে।alt

মুসলমানদের পক্ষে দাঁড়িয়েছেন এলাকার প্রগতিশীল চিন্তা-চেতনার শ্বেতাঙ্গরা। এক পর্যায়ে মসজিদের নেতৃবৃন্দ ফেডারেল কোর্টে মামলা করেন। সিটি প্রশাসন মামলার নোটিশ পেয়ে হতভম্ব হয়। ঘাবড়েও যান সকলে। কারণ, যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান সকল ধর্মের মানুষের অবাধ ধর্মচর্চার অধিকার সুরক্ষা করেছে।  মামলার নথিপত্র পর্যালোচনার সময়েই যুক্তরাষ্ট্র বিচার বিভাগও পৃথক একটি তদন্ত করেছিল সিটির জোনিং বোর্ডের সিদ্ধান্ত যাচাই করার। সবকিছু চলমান থাকাবস্থায়ই সিটির আইনজীবীরা প্রস্তাব করেন আপসের। তারই সুফল হিসেবে গত বুধবার জোনিং বোর্ড তাদের সিদ্ধান্ত পাল্টে নেয় এবং মসজিদ ও কম্যুনিটি সেন্টারের পথ সুগম হলো। একইসাথে সিটির পক্ষ থেকে মসজিদ নির্মাণের জন্যে ৪ লাখ ডলার প্রদানের অঙ্গিকারও পাওয়া গেছে। এই অর্থ ক্ষতিপূরণ হিসেবে মনে করা হলেও মূলত: তা ব্যবহার করা হবে মসজিদ ভবন নির্মাণে। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, চলতি মাসের শেষার্ধেই আরেকটি গণশুনানী হবে প্রকল্পের ব্যাপারে চ’ড়ান্ত অনুমোদনের জন্যে। এলাকাবাসী মসজিদ কমিটিকে অভয় দিয়েছেন যে, কেউই আর বিরোধিতা করবেন না।


অবশেষে স্থগিত হল ডিপোর্টেশন, আমেরিকায় অস্থায়ীভাবে থাকার অনুমতি মিলল অধ্যাপক জামালের

মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : ভিসার মেয়াদ উত্তীর্ণ হবার পরেও ইমিগ্রেশন জাজের নির্দেশ মোতাবেক আমেরিকা ত্যাগ না করে পরিবারের সংগে থেকে যাবার অভিযোগে বিগত ২৪শে জানুয়ারি সকালে ইমিগ্রেশন আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ICE (Immigration and Customs Enforcement) কতৃর্ক গ্রেফতার হয়ে ডিটেনশানপ্রাপ্ত বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক সৈয়দ জামাল আহমদের ভাগ্যে অবশেষে জুটল আমেরিকায় অস্থায়ী অনুমতি।অতি সম্প্রতি আমেরিকার অন্যতম জাতীয় টিভি চ্যানেল এনবিসি নিউজ(চ্যানেল ৪ )-কে দেয়া এক বিবৃতিতে ICE জানিয়েছে , জনাব জামালের ইমিগ্রেশন কেসটি পুন: চালু করার মোশন নির্ধারিত না হওয়া পর্যন্ত তাঁকে আমেরিকায় থাকার অনুমতি প্রদান করেন এক ফেডারেল ইমিগ্রেশন জাজ ।

মিসৌরি অংগরাজ্যের পার্ক ইউনিভার্সিটির রসায়নের অধ্যাপক জনাব জামাল(৫৫)-এর আইস কর্তৃক গ্রফতার হয়ে ডিটেনশান প্রাপ্তির ঘটনাটি আমেরিকার মূলধারার প্রায় সব টিভি চ্যানেল, পত্রপত্রিকা ও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে ফলাও করে প্রচার হয় । ফলে সুনামের সহিত শিক্ষকতায় সম্পৃক্ত এই বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত অধ্যাপকের প্রতি ধর্ম বর্ণ গোত্র নির্বিশেষে সর্বস্তরের আমেরিকানদের সহানুভূতি জন্মায় এবং তাঁর মুক্তি ও তাঁকে আমেরিকায় স্থায়ীভাবে থাকতে দেয়ার স্বপক্ষে প্রবল জনমত গড়ে ওঠে । এমনকি এর অংশ হিসেবে তাঁর পক্ষে Change.org নামের একটি অনলাইন পিটিশনও খোলা হয় যাতে এ পর্যন্ত প্রায় আটান্ন হাজার স্বাক্ষর সংগৃহীত হয় । একই সংগে তাঁর পরিবার যাতে তাঁর জন্য আইনগত লড়াই চালিয়ে যেতে পারে তজ্জন্য Gofundme নামে একটি ফান্ড গঠিত হয়, যে ফান্ডে সতের হাজার ডলারেরও বেশি অর্থ সংগঠিত হয় । ধারণা করা হচ্ছে , সংবাদ মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারণা ও জনমতের চাপে এবং তাঁর কোনপ্রকার ক্রিমিন্যাল রেকর্ড না থাকায় সর্বোপরি তাঁর এটর্ণির জোরালো ভূমিকা পালনের রেশ ধরে ফেডারেল ইমিগ্রেশন আদালত আপাতত: নমনীয় হয়ে তাঁর প্রতি সদয় হন এবং তাঁকে অস্থায়ীভাবে থাকার অনুমতি মন্জুর করেন ।

Picture

তাঁর এটর্ণী শর্মা ক্রফোর্ড বলেন, আদালত সাময়িক অনুমতি দিয়েছেন তাঁকে এদেশে থাকার । তবে এটাও বা কম কিসে । নাই মামার চেয়ে কানা মামাতো ভাল । তাছাড়া এই কেস কবে রিওপেন হবে , তারপর নানা ধাপ পেরিয়ে কবে কোন বছর চূড়ান্ত নিষ্পত্তির দিকে যাবে তাতো নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না । ততদিনতো আদালতের আদেশে তিনি নিশ্চিন্তে এদেশে থাকতে পারছেন ।পরিপাটি ভদ্রলোক ও স্থানীয় বাংলাদেশী কম্যুনিটির সক্রিয় এবং গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হিসেবে স্বীকৃত জনাব সৈয়দ জামাল আহমেদের আমেরিকায় জন্ম নেয়া দুই পূত্র ও এক কন্যা সন্তান হয়েছে যাদের হয়স যথাক্রমে ১৪,১২ এবং ৭ । উল্লেখ্য, গত ২৪ জানুয়ারি সকালে জনাব জামাল তাঁর ছেলেমেয়েদেরকে স্কুলে পৌঁছে দেবার জন্য ক্যানসাস অংগরাজ্যের লরেন্স শহরে তাঁর বাড়ি থেকে বাইরে আসা মাত্র আগে থেকে অপেক্ষমান আইস- এর এজেন্টরা বাড়ির লন থেকে তাঁকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায় ডিটেনশান সেন্টারে ।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তাঁকে মিসৌরীর ডিটেনশান সেন্টার থেকে সরিয়ে টেক্সাস অংগরাজ্যের একটি ডিটেনশান সেন্টারে এনে রাখা হয়েছে যেখান থেকে তাঁর মুক্তির প্রক্রিয়া সম্পন্ন করছে আইস । ধারণা করা হচ্ছে যে কোন সময় মুক্তি পেয়ে আপন গৃহকোণে আপন পরিবারের সান্নিধ্যে ফিরে যাবেন ।


আমেরিকানদের 'জরুরি ভাষা'র তৃতীয়তে বাংলা

মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

পেইজ গিয়ারমোনা সিএলএস স্কলারশিপ ডট ওআরজি সাইটে লেখেন, “মাই ফেভারিট বেঙ্গলি ফ্রেইজ ইজ, ‘মেঘ ডাকছে’, ‘হুইচ মিনস’, ‘রোলিং থান্ডার’ (ঘূর্ণায়মান বজ্র)। গিয়ারমোনা লিখেছেন, ‘মেঘ ডাকছে’র ইংরেজি অনুবাদ করা যায় ‘দ্য ক্লাউড ইজ কলিং’। কিন্তু ‘মেঘ ডাকছে’ কথাটির গভীরতা এই ইংরেজি বাক্যে ধরা পড়ে না। এই ধারণা থেকেই আমি উপলব্ধি করতে শুরু করি যে দ্বিতীয় কোনো সংস্কৃতির ভাষা মানেই হচ্ছে এর ভেতরে জটিলতা থাকবে, গভীরতাও থাকবে।”

গিয়ারমোনা আরো লেখেন, ‘এখন বাংলা আমার জীবনের অনেক অংশ জুড়েই আছে। এর সংস্কৃতি, দেশ,মানুষ, ইতিহাস—সবই সুন্দর, সমৃদ্ধ ও মনোলোভা। বাংলা ভাষা বুদ্ধিমত্তা ও আবেগে ঋদ্ধ। এই ভাষা দিয়ে মানবিক অভিজ্ঞতার এমন কিছু অংশ দেখার সুযোগ হয়, যা ইংরেজি বা অন্য কোনো জার্মানিক মৌলের ভাষা দিতে পারে না।’

Picture

একই বৃত্তিতে বাংলা শিখেছেন লিজ টমাস। সিএলএস স্কলারশিপের সাইটে লিজ লেখেন, “স্বীকার করছি, প্রথমবার বাংলাদেশে যাওয়ার আগে দেশটির স্বাধীনতার ইতিহাস আমার তেমন জানা ছিল না। তবে তাদের স্বাধীনতা লাভের পেছনে যে ভাষার একটা ভূমিকা রয়েছে এ বিষয়টি একটু জানতাম। বাংলাদেশের মানুষ তাদের ইতিহাস ও ভাষাকে কী দরদ দিয়ে ভালোবাসে তাও আমার জানা হতো না বাংলাদেশে না গেলে। আসলে বিষয়টি আপনিও বুঝবেন না, যদি না দেশটিতে কিছু সময় কাটান।’

নিবন্ধের ‘ইন এ ওয়ার্ড’ অংশে লিজকে বাংলা ভাষা নিয়ে কিছু কথা লিখতে হয়েছে। লিজ লেখেন, “ইংরেজি লাভ শব্দটি বাংলা ভাষায় নানা শব্দেই বোঝানো সম্ভব। তবে আমার কাছে সবচেয়ে ভালো লেগেছে ‘ভালোবাসা’ কথাটি। এখানে আমি ভালো থাকার সঙ্গে জীবনযাপনের যোগসূত্র খুঁজে পাই।”

লিজ এখন আমেরিকার ওয়াশিংটনে কর্মস্থলে। আছেন জনস হপকিনস ব্লুমবার্গ স্কুল অব পাবলিক হেলথের গবেষক পদে। বাংলা ভাষা শেখার সুফল জানাতে গিয়ে লিজ লেখেন, ‘বাংলাদেশ, লাইবেরিয়া এবং নর্থ ও সাউথ ডাকোটার মানুষের পানি ও স্যানিটেশনের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে আমি গবেষণা করি। ব্যক্তিগত ও পেশাগত দুই জীবনেই আমি প্রতিদিন বাংলা ব্যবহার করি। আমার অনেক দায়িত্বের মধ্যে একটি হচ্ছে প্রকল্পের জন্য বিভিন্ন লেখা তৈরি। এ ক্ষেত্রে এই নিশ্চয়তাটা দেওয়ার চেষ্টা করি যে ইংরেজি থেকে বাংলায় অনুবাদটি যথার্থ হয়েছে। স্থানীয় জনগণ কথাবার্তায় ব্যবহার করে এমন প্রচলিত শব্দ ব্যবহার করাটাকে আমি বরাবরই প্রাধান্য দিই।’ সিএলএস বাংলা প্রগ্রামের আওতায় লিজ প্রথম বাংলাদেশে আসেন ২০১৩ সালে। পরের  বছরও তাঁকে এই কর্মসূচির জন্য বাছাই করা হয়।

সিএলএস বাংলা প্রগ্রামের আওতায় পেইজ গিয়ারমোনাকে ২০১৬ সালে কলকাতায় পাঠানো হয়েছিল। পেইজ লেখেন, ‘বাংলা শেখার অনুপ্রেরণা আমাকে দিয়েছিল আমার বেস্ট ফ্রেন্ড, যে কি না প্রথম প্রজন্মের একজন আমেরিকান-বাঙালি’। বাংলায় প্রথম স্বচ্ছন্দে কথা বলার অভিজ্ঞতাটিও তার দারুণ। পেইজ লেখেন ‘প্রগ্রামের শেষ দিককার একটি স্মৃতি। বিখ্যাত মানুষ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতিবিজড়িত শান্তিনিকেতনে গিয়েছি বন্ধুর সঙ্গে সাপ্তাহিক ছুটিতে। ট্রেনে করে ফিরে আসব হোস্ট নগরীতে। কিন্তু আমাদের দেরি হয়ে যাচ্ছিল। দ্রুত বাক্সপেটরা গুছিয়ে রিকশা ডাকলাম (স্থানীয় বাসিন্দাদের একে বলে টুকটুক)। পথে রিকশাওয়ালার সঙ্গে একটু ভাববিনিময় করতে গিয়ে আবিষ্কার করি আমি তার সব কথাই বুঝতে পারছি, আমার কথাও তার বুঝতে অসুবিধা হচ্ছিল না।’


নিউইয়র্ক-গোলাপগঞ্জ সোসাইটির আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে :নিউইয়র্ক-গোলাপগঞ্জ সোসাইটির ক্রুজ পিকনিক আগামী ১ জুলাই আয়োজন করা হচ্ছে। ৫ ফেব্রুয়ারি কুইন্সের জ্যামাইকায় অনুষ্ঠিত নিউইয়র্ক-গোলাপগঞ্জ সোসাইটির আয়োজিত সভায় সর্বসম্মতভাবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সংগঠনের সভাপতি শেরওয়ান আহমদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক হেলিম উদ্দিন আহমদের সঞ্চালনায় সভায় ক্রুজ পিকনিককে সফল করতে এবাদ চৌধুরীকে আহ্বায়ক, আবদুল মোমিত চৌধুরী উমেলকে যুগ্ম আহ্বায়ক, ওয়াহিদ পারভেজকে সদস্যসচিব এবং শেখ আতিকুল ইসলামকে সমন্বয়কারী করে ৯ সদস্যের উপকমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন—নুর উদ্দিন, সৈয়দ সেলিম, মুকতারুল ইসলাম, রাফাত চৌধুরী, আলবাব আহমদ চৌধুরী ও সাজিদুল হক।
একই উদ্দেশ্যে একটি শক্তিশালী উপদেষ্টা কমিটি গঠন হয়। উপদেষ্টা কমিটির সদস্যরা হলেন ওয়াহিদুর রহমান মুক্তা, হান্নান চৌধুরী, ফরহাদ চৌধুরী ও আলতাফ হোসাইন।

Picture
ক্রুজের আসন সীমিত থাকায় ২০১৭ সালে বিপুলসংখ্যক গোলাপগঞ্জবাসীকে টিকিট দেওয়া সম্ভব হয়নি। সে অভিজ্ঞাকে সামনে রেখে এ বছর আরও বেশি সংখ্যক গোলাপগঞ্জবাসীদের নিয়ে আবার ক্রুজ পিকনিক করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এবারে ক্রুজে ৪৫০টি আসনের ব্যবস্থা থাকবে।
টিকিটের হার মাথাপিছু ৫০ ডলার। আগে আসলে আগে পাবেন ভিত্তিতে টিকিট দেওয়া হবে। আসন সীমিত হওয়ায় উৎসাহী গোলাপগঞ্জবাসীদের অগ্রিম টিকিট সংগ্রহ করতে সংগঠনের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও আহ্বায়ক কমিটির সঙ্গে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ক্রুজ বনভোজনে আকর্ষণীয় র‍্যাফেল ড্রসহ মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা থাকবে।
টিকিট ও অন্যান্য তথ্য জানার জন্য ৬৪৬-৪৯৬-৩৮৩৮, ৬৪৬-২৫৮-৬৪৭৩, ৯১৭-৪০৩-৯৯০৫, ৯১৭-৩৭৪-৭০৪৪, ৩৪৭-৫৭৩-৫৫৭২, ৯১৭-৪৯৯-৫৫৪২, ৩৪৭-২৩৩-৭২৯৪ ও ৬৪৬-৩৬৩-৮১৫৫ নম্বরে যোগাযোগের অনুরোধ জানানো হয়েছে।
সভায় গোলাপগঞ্জ উপজেলার ফুলবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান দেওয়ান আবদুল বাসিত, সাবেক সাংসদ ফাতেমা চৌধুরীর স্বামী আবুল বাশার চৌধুরী, গোলাপগঞ্জ উপজেলার পরিষদের চেয়ারম্যান মরহুম ফজলুল হক তানু মিয়ার স্ত্রী, সৈয়দ মুজিব উদ্দিন ও জার্সিসের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে তাদের রুহের মাগফিরাত কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানানো হয়।


জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রত্যাশিত সংস্কারের জন্য পরিষদের কর্মকান্ডে অধিকতর মানবিক সম্পৃক্ততা প্রয়োজন - জাতিসংঘে রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন

মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ:নিউইয়র্ক, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ :জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রত্যাশিত সংস্কারের জন্য পরিষদের কর্মকান্ডে অধিকতর মানবিক সম্পৃক্ততা প্রয়োজন বলে নিরাপত্তা পরিষদের কার্যপদ্ধতির উপর এক উন্মুক্ত আলোচনায় মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন। তাঁর বক্তব্যে তিনি রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতনের অভিজ্ঞতা বর্ণনা ও তাদের বক্তব্য তুলে ধরার জন্য  নিরাপত্তা পরিষদে রোহিঙ্গা প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানানোর তাগিদ দিয়েছেন। পরিষদের সভাপতি হিসেবে কুয়েত আজকের এ উন্মুক্ত আলোচনার আয়োজন করে।
স্থায়ী প্রতিনিধি তাঁর বক্তব্যে জাতিসংঘ সনদের ৯৯ ধারা অনুযায়ী গত সেপ্টেম্বরে নিরাপত্তা পরিষদে রোহিঙ্গাদের মানবিক বিপর্যয়ের উপর জাতিসংঘ মহাসচিবের প্রেরিত চিঠির কথা উল্লেখ করে মহাসচিবকে যে কোন জরুরী মানবিক প্রয়োজনে এ ধরনের আরো উদ্যোগ নেবার আহ্বান জানান। তিনি নিরাপত্তা পরিষদকে বেসামরিক মানুষের উপর নিপীড়ন ও নৃশংসতা বন্ধে ও হত্যাযজ্ঞের ক্ষেত্রে ‘ভেটো’ ক্ষমতা ব্যবহার না করারও অনুরোধ জানান।
রোহিঙ্গাদের উপর গত ২৫ আগস্টের পর সংঘটিত অপরাধের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার উপর জোর দিয়ে স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বলেন, “এটা রোহিঙ্গাদের নিরাপদ, স্বেচ্ছায় ও সম্মানজনক প্রত্যাবসনের ক্ষেত্রে তাদের আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনবে”।

Picture
রাষ্ট্রদূত মাসুদ রোহিঙ্গাদের মানবিক বিপর্যয়ের প্রেক্ষিতে গত বছর গৃহীত নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতির বক্তব্য কে ভিত্তি ধরে একটি রেজুলেশন পাস করার আহ্বান জানান। পাশাপাশি নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদেরকে শীঘ্রই বাংলাদেশ ও মিয়ানমারে সফর করে রোহিঙ্গাদের বর্তমান অবস্থা সরজমিনে প্রত্যক্ষ করা এবং তাদের প্রত্যাবাসনের বিষয়টি নিশ্চিত করার আহ্বান জানান।
নিরাপত্তা পরিষদের কার্যপদ্ধতির উপর আজকের আলোচনায় ৬০টিরও বেশী দেশ অংশ নিয়ে বিভিন্ন ধরনের প্রস্তাবনা পেশ করে। এর মধ্যে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী প্রেরণকারী অধিকাংশ দেশই নিরাপত্তা পরিষদ ও তাদের মধ্যে শান্তিরক্ষা বিষয়ে আরো গভীর মতবিনিময়ের উপর গুরুত্বারোপ করেন।

Security Council reform should be aimed at enhancing its human face - Bangladesh Ambassador to the UN

alt
The much anticipated reform of the Security Council should be aimed at further enhancing its human face and interactions, said Ambassador Masud Bin Momen of Bangladesh at a Security Council Open Debate on its working methods today. The Bangladesh Ambassador urged the Council to invite Rohingya representatives to share their narratives with the Council and thus amplify their voice.
The Open Debate was organised by the delegation of Kuwait in its capacity as Council President for the month of February 2018. The Bangladesh Ambassador recalled the Secretary General’s letter to the Council about the Rohingya humanitarian crisis in September 2017 under Article 99 of the Charter, and recommended that the Secretary General consider using this provision more often in case of similar humanitarian exigencies.

alt
Ambassador Masud joined many other delegations in calling for avoiding the use of veto in the Security Council in case of mass atrocity crimes committed against civilians.
He underscored the importance of ensuring accountability for the serious crimes committed against the Rohingya since 25 August 2017. “This would be critical for restoring their confidence in their safe, dignified and voluntary return to Myanmar”, he added.
The Bangladesh Ambassador urged the Council members to demonstrate unity and pragmatism towards adopting a Resolution in response to the Rohingya humanitarian crisis, building on the Presidential Statement adopted last year.
He stressed the usefulness of the Council’s visits to the field and recommended an early visit to Bangladesh and Myanmar for the Council members to witness the current situation with the possible repatriation of the Rohingya to Myanmar.
Nearly 60 Member States took part in the Open Debate and made a range of recommendations on further improving and democratizing the working methods of the Council.
A large number of troop and police contributing countries to UN peacekeeping operations emphasized the need for in-depth consultations between the Council and the concerned delegations.


যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সামছুদ্দীন আজাদ এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহম্মদ

মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে : ইতালিতে International Fund for Agricultural Development, (IFAD) সম্মেলনেযোগ দেয়ার জন্য গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সম্মেলনে অংশগ্রহন করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের সম্মানীত সভাপতি ড: সিদ্দিকুর রহমান ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ ইতালীর উদ্দেশ্যে নিউইয়র্ক জেএফকে বিমান বন্দর ত্যাগ করেন অদ্য সন্ধ্যা ৭টায়।

Picture

তাদের অনুপুস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের নেতৃত্বের গতিশীলতা ও ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসাবে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের অন্যতম সহ সভাপতি সামছুদ্দীন আজাদ এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের পদে দায়িত্ব পালন করবেন সংগঠনের প্রথম সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক আহম্মদ।


যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগ ওসহযোগী সংগঠন এর শান্তি সমাবেশ

মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে :৯ই ফেব্রুয়ারি শুক্রবার নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ড সিটির বাংলাদেশ কন্সাল জেনারেল অফিসের সন্মূখে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগ, নিউইয়র্ক স্টেট আ:লীগ, নিউইয়র্ক সিটি আ:লীগ, যুক্তরাষ্ট্র স্বেচ্ছাসেবকলীগ, যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগ, যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনে বিএনপি, জামাত সন্ত্রাসীরা যে ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়েছে তার তীব্র নিন্দা জানাতে এক সমাবেশের আয়োজন করে।

Picture

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের সভাপতি ড.সিদ্দিকুর রহমানের নেতৃত্বে সমাবেশের কার্যকলাপ পরিচালিত হয় । সমাবেশ থেকে লন্ডনের হাইকমিশনে যে সমস্ত সন্ত্রাসীরা বংগবন্ধুর ছবির অবমাননা এবং ভাংচুর করেছে তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে দৃস্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জন্য সরকারের প্রতি জোড় দাবি জানায় । এই ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরনকারীদের বক্তারা দেশদ্রোহী বলে আখ্যায়িত করেন । যে মূহুর্তে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ সঠিক পথে এগিয়ে যাচ্ছে এবং বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি অনেক উজ্জ্বল হয়েছে সে মূহুর্তে প্রতিক্রিয়াশীল চক্রের এ ধরনের হটকারীতা কঠোর হস্তে দমন করা উচিত ।

alt

বক্তারা সাম্প্রতিক জিয়া অরফানেজ দুর্নীতি মামলার রায়ের প্রতিক্রিয়ায় বলেন বিচারক সঠিক রায় দিয়েছেন এবং এটি আবারও প্রমানিত হলো কেহই আইনের উর্ধ্বে নন।এই রায় সকল দুর্নীতিবাজদের জন্য একটি শিক্ষণীয় মাইল ফলক ।আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে সকল মত পার্থক্যকে ভুলে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করার দৃঢ় শপথের মাধ্যমে সমাবেশের সমাপ্তি ঘটে ।

alt

সমাবেশ --সন্চালনায় ছিলেন . যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ এর ভার প্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আবদুস ছামাদ আজাদ .উপস্হিত ছিলেন .যুক্তরাষ্ট আওয়ামীলীগ এর মাহবুব রহমান .সামছুদ্দীন আজাদ .মহিউদ্দীন দেওয়ান মো:মুনছুর খান .হাজী এনাম .ড:মাছুদ .মোজাহিদুলইসলাম আজিজুর রহমান ড:বাতেন .কাজী কয়েস .আবদুল মালেক সামচুল আবেদীন .মো: জাহাঙ্গীরআলম. সাহানারা রহমান নুরুল .আফসার সেন্টু ইমদাদ চৌরুরী . রফিকুল ইসলাম .আলমগীর হেসেন .কানিজ ফাতেমা .আনিছুর রহমান, স্বেচ্ছাসেবকলীগ মো: সাখাওয়াত বিশ্বাস . নুরজ্জামান সরদার .দুরুদমিয়া রনেল . কবির আলি .জাহিদ মিয়া .সুবল দেবনাথ .গোলাম কিবরিয়া . কামাল হোসেন রাকিব .ফারুক আহম্মেদ .আবুল কাসেম ভুইয়া .মস্তফা কামাল .নান্টু মিয়া নুরেআজম বাবু .সাইফুল ইসলাম আরো অনেক নেতা কর্মি . শান্তি সমাবেশে উপস্হিত ছিলেন ।


খালেদার দন্ডে জর্জিয়া আওয়ামী লীগের আনন্দ-উল্লাস

মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

Picture

অসহায় “এতিমদের” অর্থ আত্মসাৎ করায় এবং যথাযথ ভাবে ‘দুর্নীতি’ প্রমাণিত হওয়ার কারণেই ‘বিজ্ঞ আদালত’ বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের ‘কারাদন্ডে’ দন্ডিত করেছেন। তার ‘দুর্নীতিবাজ’ সুপুত্র তারেক রহমানসহ অন্য আসামীদের ১০ বছরের সশ্রম ‘কারাদন্ড’ দিয়েছেন, ‘মহামান্য আদালত’। এ রায়ের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থার নিরপেক্ষতারই স্পষ্ট প্রকাশ ঘটলো।’ ‘কেউই আইনের উর্দ্ধে নন-অপরাধ করে কেউই রেহাই পাবে না’-বর্তমান সরকারের সে নীতির প্রতি প্রবাসীদেরও পূর্ণ সমর্থন রয়েছে।

alt
উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন , যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি  ডাঃ মুহম্মদ আলী মানিক ।অনুষ্ঠানে অন্যান্য আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন- জর্জিয়া আওয়ামী লীগের বিদায়ী সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী হোসেন , জর্জিয়া আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি দিদারুল আলম গাজী , জর্জিয়া আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এম মাওলা দিলু , জর্জিয়া আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হুমায়ূন কবীর কাউসার, সহ সভাপতি শেখ জামাল , মোহাম্মদ কায়দ্দুজামান, সোহরাব আহাম্মেদ, মিনহাজুল ইসলাম বাদল , নজরুল ইসলাম, সাজিব আহাম্মেদ, শাখাওাত হোসেন সহ  আরও  অনেকে।

alt
নেতারা বলেন, “জিয়া অরফানেজ ট্রাষ্ট দুর্নীতি” মামলায়-আদালত প্রদত্ত ‘ঐতিহাসিক’ ঔ ‘রায়ে’ ন্যায় বিচারের পাশাপাশি দেশে আইনের শাসনও সুপ্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এই ‘রায়ে’ সন্তোষ প্রকাশ করে, ‘রায়’ প্রদানের সত ও নিষ্ঠাবান বিচারক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান এর প্রতি অভিনন্দন, ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন, এই সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ। তারা, সরকার পক্ষকেও অভিনন্দন, ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। ‘মহামান্য আদালতে’র বিচারে ‘দোষী’ প্রমাণ হয়ে ‘মা’ বেগম খালেদা জিয়া এবং ‘ছেলে’ তারেক রহমান, একই সাথে-“দুর্নীতিবাজ” হলেন। ইহা বাংলাদেশের জন্য বিশ্বে একটি কলঙ্কজনক দৃষ্টান্ত স্থাপন হয়ে-থাকলো। যা জাতির জন্য খুবই লজ্জার এবং ঘৃণার।

alt
সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আরও বলেনঃ তৎকালীন সময়ে-দেশের একজন প্রধানমন্ত্রী হয়ে, বেগম খালেদা জিয়া, কি করে, অসহায় “এতিমদের” টাকা মেরে খেলেন-ইহা কল্পনাও করা যায় না। “এতিমদের” টাকা আত্মসাৎ করার কারণেই আজ তাকে ‘কারাগারে’ নিক্ষেপ করেছে, ‘বিজ্ঞ আদালত’। ‘মহামান্য আদালতে’ এই দুর্নীতি মামলার বিচারে, প্রদত্ত ‘রায়ে’ প্রমাণিত হয়েছে, ‘অপরাধী’ যত শক্তিশালী বা যত বড়ই হোক-আইনের উর্ধেব কেউ নন। “এতিমদের” টাকা মেরে খেলেও যে নায্য “বিচার” হয়, আদালত প্রদত্ত ‘রায়’ই এর জলন্ত উদাহারণ।


রোমে গেলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ

মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

বাপ্ নিউজ : ইতালি গেলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। ১১ ফেব্রুয়ারি রোববার রাতের ফ্লাইটে নিউইয়র্ক থেকে ইতালির উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়েছেন এ সংগঠনের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান, সেক্রেটারি আব্দুস সামাদ আজাদ এবং নির্বাহী সদস্য শাহানারা রহমান।

Picture

রওয়ানা দেয়ার প্রাক্কালে এ সংবাদদাতাকে নেতৃবৃন্দ জানান, ‘বাংলাদেশে চলমান উন্নয়ন-অগ্রগতির প্রতি মার্কিন প্রবাসীদের অকুন্ঠ সমর্থনের কথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানোর পাশাপাশি সামনের নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে এক হাজার প্রবাসী বাংলাদেশে যাবার চ’ড়ান্ত প্রস্তুতির তথ্যও অবহিত করবো। দুর্নীতির মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার দন্ডাদেশের পর আন্তর্জাতিক বন্ধুরা বর্তমান সরকারের ন্যায়-নিষ্ঠার প্রতি ইতিবাচক ধারণা পোষণ করেছেন-এ তথ্যও সবিস্তারে জানাবো বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে।’