Slideshows

http://bostonbanglanews.com/index.php/components/com_gk3_photoslide/thumbs_big/images/banners/images/banners/components/com_gk3_photoslide/thumbs_big/components/com_gk3_photoslide/thumbs_big/605744Finding_Immigrant____SaKiL___0.jpg

কুইন্স ফ্যামিলি কোর্টে অভিবাসী

হাকিকুল ইসলাম খোকন/বাপ্‌স নিউজ/প্রবাসী নিউজ ঃ বষ্টনবাংলা নিউজ ঃ দ্যা ইন্টারফেইস সেন্টার অব নিউইয়র্ক ও আইনী সহায়তা সংগঠন নিউইয়র্ক এর উদ্যোগে গত ২৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল ৯ See details

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

যুক্তরাষ্ট্রের খবর

মিলিয়ন ডলার প্রতারণার ফাঁদে শত শত বাংলাদেশি ওয়ার্ল্ডওয়াইড অফিসে তালা : মালিক লাপাত্তা

শনিবার, ২৪ জুন ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,মো:নাসির,বিশেষ প্রতিনিধি: শংকর পি মন্ডল থাকেন নিউইয়র্কের এলমহার্স্টে। তিন দিন ধরে বারবার ফিরে আসছেন জ্যাকসন হাইটসের ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেল সার্ভিসেসের অফিসে। যদি কোনো খবর মেলে। যদি টিকেট পাওয়া যায়। যদি অর্থ ফেরত পাওয়া যায়। গত দুদিনে আজকাল অফিসেই এসেছেন চারবার। এসে বারবার কান্নায় ভেঙে পড়েছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ফোন করেছেন একজন নারী। তিনি অভিযোগ জানাতে গিয়ে প্রচন্ড কান্নায় কথাই শেষ করতে পারলেন না। অপর এক নারীর বুকফাটা কান্নায় জ্যাকসন হাইটসের বাতাস ভারী হয়ে আসে। স্বামী নিউইয়র্কে ক্যান্সারে মারা গেলে ওই নারী স্বদেশে ফিরে যাওয়ার জন্য মনস্থির করেন। সহায় সম্বলহীন তিনি বিভিন্নজনের কাছ থেকে চেয়ে ডলার সংগ্রহ করে দেশে যাওয়ার টিকেট কিনেছিলেন। তিনিও ঠকেছেন। এখন প্রতিদিন তার কান্নার শব্দ শুনছেন জ্যাকসন হাইটসের ৩৭ এভিনিউ ও ৭৪ স্ট্রিটের ব্যবসায়ী ও বাসিন্দারা।
এমন শত শত প্রবাসী বাংলাদেশির টিকেটের টাকা হাতিয়ে নিয়ে রোববার থেকে লাপাত্তা হয়েছেন ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেলের স্বত্ত্বাধিকারী নাজমুল হুদা এবং নিউইয়র্কে তাঁর প্রতিষ্ঠানের চারটি অফিসের কর্মচারীরা।
প্রতারিত প্যাসেঞ্জারদের প্রায় সবাই একাধিক টিকেট কিনেছিলেন। এ সংখ্যা কারো তিনটি, কারো পুরো পরিবার মিলে ১০টি। প্রতারিত এসব প্যাসেঞ্জারেরা প্রতিদিন প্রতিষ্ঠানটির জ্যাকসন হাইটস, ব্রঙ্কস, ব্রুকলিন ও জ্যামাইকার অফিসগুলোর সামনে ভিড় করছেন। প্রতিকারের আশায় ছুটে এসেছেন পএিকার কার্যালয়ে। গত পাঁচ দিনে দুইশ’রও বেশি প্রতারিত যাত্রীরা তাদের অভিযোগ জানিয়েছেন।
২৮ বছর ধরে সুনামের সাথে ব্যবসা করে আসা ওয়াল্ড ওয়াইড ট্রাভেলের এই প্রতারণায় হতভম্ব হয়ে পড়েছে বাংলাদেশি কমিউনিটি। এ পর্যন্ত যাদের অভিযোগ পাওয়া গেছে তাদের মোট অর্থের পরিমাণ মিলিয়ন ডলারের কম নয়।
এ ঘটনায় মনিরুজ্জামান নামে প্রতারিত এক ব্যক্তি বুধবার ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেল সার্ভিসেস-এর বিরুদ্ধে ম্যানহাটানের সিভিল কোর্টে মামলা করেছেন।

Picture
বৃহস্পতিবার ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেলের জ্যাকসন হাইটস অফিসে গিয়ে দেখা যায় বন্ধ দুয়ারে মাথা ঠুকছেন একজন। তিনি বাপসিিনঊজ’কে বলেন, বাবার মৃত্যুর সংবাদ শুনে পরিবারের সবাই মিলে দেশে যাওয়ার জন্য টিকেট কেটেছিলেন কিন্তু তাদের আর দেশে যাওয়া হলো না। আটজনের টিকেট ক্রয়ের সাড়ে সাত হাজার ডলার তিনি কিভাবে উদ্ধার করবেন সেই চিন্তায় এই প্রতিবেদকের সামনে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি।
এদিকে, ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেলের প্রতারণার শিকার শত শত প্যাসেঞ্জারের অভিযোগ নিয়ে বুধবার এক জরুরি বৈঠকে বসে জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশি বিজনেস এসোসিয়েশন-জেবিবিএ। বৈঠক শেষে জেবিবিএ’র সভাপতি জাকারিয়া মাসুদ জিকো ’ বাপসনিঊজকে বলেন, আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেল সার্ভিসেসের স্বত্ত্বাধিকারী নাজমুল হুদার সাথে সর্বক্ষণ যোগাযোগের চেষ্টা করছি। কিন্তু তার সাথে আমরা কথা বলতে পারিনি। তিনি শুধুমাত্র এসএমএস’র মাধ্যমে জানিয়েছেন, তিনি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে আছেন। ভুক্তভোগীদের ধৈর্য্য ধরার আহ্বান জানিয়ে জেবিবিএ সভাপতি জিকো বলেন, আমরা সবাই আপনাদের পাশে আছি।
নিউইয়র্কের বৃহৎ ট্রাভেল ব্যবসায়ী জ্যাকসন হাইটসের ডিজিটাল ওয়ান ট্রাভেলের অন্যতম স্বত্ত্বাধিকারী বেলায়েত হোসেন বাপসনিঊজ’কে বলেন, সম্মানিত প্যাসেঞ্জারদের উদ্দেশ্যে আমি বলবো সস্তার মিষ্টি কথায় ভুলবেন না। ১০/১৫ ডলার বেশি হলেও বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান থেকে সবাইকে টিকেট কেনার অনুরোধ জানান তিনি। বেলায়েত হোসেন বলেন, ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেল যত কম দামে টিকেট দিচ্ছিল তাতে সবাই সন্দিহান হয়ে উঠেছিল।
ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেলের প্রতারণার শিকার হয়ে গত কদিনে পএিকার কার্যালয়ে যারা অভিযোগ জানাতে এসেছেন তারা হলেন মনিরুজ্জামান, তাহমিনা চৌধুরী,  মহিন চৌধুরী, মাইশা মমতাজ,  মফিজুর রহমান, জাহানারা বেগম,  শফিঊদিদন কামাল, মোফফাজল হোসেন, মমতাজ বেগম, গোলাম এম শহিদুল্লাহ্, সৈয়দ ই আলম, শামীমা নাসরিন, মাহিন আলম, আহসাফ আলম, মো: শাহবুদ্দিন, মখিইভা জারিন, শাফায়াত জামিল, নাসরিন সুলতানা জাহান, জসিম উদ্দিন, শরিফ মামুন, আজিজুর রহমান, মাহমুদুর রহমান, মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম, মারিয়াম আক্তার, বিজনী সেন, রবীন্দ্র দাস, মনোরঞ্জন দেবনাথ, স্বপন দেবনাথ, সেতু দেবনাথ, ফয়সাল আহমদ, নাদিয়া জামান, মাহির আহমদ, সেহাল আহমদ, রেহান আহমদ, তানিসা আহমদ, মালিক জাবিন, আতিফ, আনিয়া,  জালাল হোসেন, কাজী হোসেন, কাজী ফেরদৌসী আহমদ, কাজী মাঈসা আহমদ, আহমদ সাইকা কাজী, আহমদ, সাইরা কাজী, ইসলাম খান, জুলফা খানম, মালিহা খান, নাবিদ খান, নাহিয়ান খান, সামিয়া খান, মোহাম্মদ হোসেন, তৌহিদ, মো: জামান, মো: মাসুদুর রহমান, সামিউল হোসেন, জাহানারা বেগম, হারুন রশিদ, নুর বানু, লায়লা বেগম, মোল্লা নওশাদ, মুন্নি শামসাদ, মোল্লা মুন্তাহির, মোল্লা মুস্তাহির, বিশ্বজিৎ কর্মকার, আফতাব খান, বিপ্লব কে রায়, সান্তনা রায়, থরনিম রায়, ক্রিস রায়, টুম্পা সাহা, ঋত্তিকা পাল, মন্ডল সরকার, সীমা আর মন্ডল, সুমিত কে মন্ডল, সারা চাদ মন্ডল, শংকর পি মন্ডল, মোজাফফর হোসেন, শিল্পী সুলতানা, আমীনা হোসেন স্মৃতি, তাহানা তাসিন হোসেন, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, প্রিয় লাল মন্ডল, মিন্টু রানী মন্ডল, সৌরভ কুমার মন্ডল, মোজাফফর, রহিম, বেগম মমতাজ, গোলাম মো: শহিদুল্লাহ্, ফয়সাল আহমদ, সেন লক্ষী, এমদাদুল হক, শামীমা ইয়াসমীন, আয়ন হাসান, কনক বড়য়া, শাহরিয়ার ফিজু, মজিবুর রহমান, তাহমিনা ইসলাম, তারিফ খান, জারা খান, ইনায়া খান, আবুল কাশেম, খালেদা বেগম, মোছাম্মৎ সালমা আক্তার, সিনদিদ রহমান হৃদ, ইমদাদুল হক, শামীমা ইয়াসমীন, আয়ান হাসান, মোরশেদ হোসেন, সাদিয়া হোসেন, ইমতিয়াজ হোসেন, রোকশানায়া বেগম,  আদিল হোসেন, ফারজানা এফ নিপা,  অর্ণব হোসেন, আফশিনা অর্নিতা, বেগম সাহিদা, গোহার খান, আয়াদ খান, সুধীর চন্দ্র বর্মন, জয়ত্রীময় বর্মন, পারুল রানী বর্মন, জুথি রানী বর্মন,  সোহেল রানা, নওশাদ এইচ মোল্লা, শামশেদ কে মুন্নি, মুনতাহির মোল্লা, মুস্তাহির মোল্লা, সৈয়দ অহিদ আহমেদ, কাফি খান, তাহরিমা খান, মাহদি খান, মাদিহা খান, মাহবুবুল লতিফ, খালেদা মাহবুব, সোমা বেগম, মাহাম্মদ সুল্লাহ, ফেরদৌসী বেগম, হারুন উর রশীদ, সাঈদ আনোয়ার, খাদিজা তুন কোবরা প্রমুখ।
এ রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত আরো অনেকেই পএিকার অফিসে আসছেন ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেলের বিরুদ্ধে তাদের অভিযোগ নিয়ে।


ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে জেএসডি’র শুভেচ্ছা

শনিবার, ২৪ জুন ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন, বাপ্ নিউজ : জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি- যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি হাজী আনোয়ার হোসেন লিটন এবং সাধারণ সম্পাদক সামছুদ্দিন আহমেদ শামীম এক বিবৃতিতে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে বাংলাদেশ ও বিশে^র মুসলমানদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেছেন, এ উপলক্ষে পশু কোরবানীকে অর্থবহ করতে হলে প্রত্যেকের মনের হিংসা-বিদ্বেষ, লোভ-লালসা, পরশ্রীকাতরতা ও নারীর প্রতি কুদৃষ্টি সহ সকল পাশবিক বোধকে কোরবানী করতে হবে। নেতৃবৃন্দ কোরবানী উপলক্ষে বিত্তশালীদের দাম্ভিকতা বাদ দিয়ে গরীব দু:খী মানুষকেও এ আনন্দে অংশীদার করার উদ্যোগ গ্রহনের আহবান জানিয়েছেন।


জাতীয় পার্টির জরুরী সভায় সাদত সিকদারের মৃত্যুতে শোক জ্ঞাপন

শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খাকন,বাপসনিঊজ : গত ১৯ জুন সোমবার সন্ধ্যা ৭ টায় জ্যাকসন হাইটস্থ ইত্যাদি রেষ্টুরেন্টে জাতীয় পার্টির এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় সদস্য ও প্রাদেশিক পরিষদ বাস্তবায়ন কমিটির যুক্তরাষ্ট্র শাখার আহ্বায়ক মাহবুবুর রহমান চৌধুরী। সভা পরিচালনা করেন সাংগঠনিক সম্পাদক ওসমান চৌধুরী।খবর বাপসনিঊজ।
সভায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সদস্য ও সিনিয়র সহ সভাপতি যুক্তরাষ্ট্র শাখা জসিমউদ্দিন চৌধুরী, কেন্দ্রীয় সদস্য ও প্রধান সমন্বয়কারী আব্দুন নূর বড় ভূইয়া, উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল খান আনসারী, সহ সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সদস্য মাহবুবুর রহমান অনিক, কেন্দ্রীয় সদস্য আলতাফ হোসেন, কেন্দ্রীয় সদস্য আব্দুর নূর, সহ সভাপতি সব্বির লস্কর, তোফায়েল আহমেদ চৌধুরী, কে এ নাসিম, ফয়েজ উল্লাহ নাইম, জাতীয় যুব সংহতির কেন্দ্রীয় সদস্য নজরুল ইসলাম, জাতীয় যুব সংহতি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি আব্দুল কাদের লিপু, সাবেক সভাপতি শাহজাহান সাজু, জাতীয় মহিলা পার্টির সভানেত্রী সুজাতা সরকার, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদিকা রোকসানা হাবিব, জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টির আহ্বায়ক জহিরুল কবির, সদস্য সচিব উত্তম কুমার ডাকুয়া, আব্দুল আউয়াল কাজী প্রমুখ।

Picture
সভায় জাতীয় যুব সংহতির কেন্দ্রীয় সভাপতি আলমগীর সিকদার লোটন এর পিতা ভাষা সৈনিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাবেক সাংসদ, বিশিষ্ট শিল্পপতি সাদত সিকদারের মৃত্যুতে এক শোক জ্ঞাপন করা হয়। শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়।
সভায় জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার বর্তমান প্রেক্ষাপট নিয়ে বিশদ আলাপ আলোচনা হয়। সভায় এক প্রস্তাবে নেতৃবৃন্দ গত ১৮ই  জুন ইফতার মাহফিলে পুলিশ নিয়ে আসায় বর্তমান ঘোষিত অবৈধ পকেট কমিটির নেতৃত্বের প্রতি তীব্র ঘৃণা ও ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়। ভবিষ্যতে এ ধরনের হীন কার্যকলাপ থেকে তাদেরকে বিরত থাকার জন্য হুশিয়ার করা হয়। পরিশেষে সভাপতি সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে সভার শেষ করেন ।


ভার্জিনিয়ার নিহত কিশোরীর ধর্ষণের সত্যতা প্রমাণে ময়না তদন্ত হচ্ছে

শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭

বাপ্ নিউজ : ভার্জিনিয়া (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে : যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ার নিহত কিশোরীকে খুন করার পূর্বে ধর্ষণ করা হয়েছিল কি না। এ বিষয়ে নিশ্চিত হতে নাবরা হুসাইনের মৃতদেহ ময়না তদন্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন এই মামলার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ প্রধান এডউইন রোসলার।

১৭ বছর বয়সী মুসলিম কিশোরী নাবরা হুসাইনকে রাস্তায় নির্মমভাবে বেসবল খেলার ব্যাট দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। এই ঘটনার পর থেকে বিষয়টিকে ধর্মীয় জাতি বিদ্বেষের দৃষ্টিকোণ থেকে ব্যাখ্যা করা হচ্ছে। এমনকি নাবরার পরিবারেরও বিশ্বাস যে শুধুমাত্র মুসলিম হওয়ার কারণেই তাদের মেয়েকে অকালে এমন নির্মমভাবে প্রাণ হারাতে হলো।

Picture

তাই এই বিষয়টি নিয়ে যাতে ধর্মীয় কোন উত্তেজনা সৃষ্টি না হয়, সেজন্য ঘটনাটিকে ভালোভাবে খতিয়ে দেখছে পুলিশ। অবশ্য পুলিশের দাবি জাতিগত কোন বিদ্বেষের কারণে নয়। শুধুমাত্র ব্যক্তিগত বাক বিতন্ডার কারণেই খুন হয়েছেন নাবরা। তারপরও পুলিশ এর সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে বার বার ঘটনাটিকে খতিয়ে দেখছে। নাবরার মৃতদেহের ময়না তদন্তের রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করছে তারা। মৃত্যুর পূর্বে নাবরাকে ধর্ষণ করা হয়েছিল কি না। এই বিষয়ে নিশ্চত হতেই ময়না তদন্তের রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করা হচ্ছে।

নাবরার হত্যাকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আগামী জুলাইয়ে তার বিচার সম্পন্ন করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। রোসলার একথাও বলেছে যদি কেউ প্রমাণ করতে পারে যে, জাতি বিদ্বেষের কারণেই নাবরাকে খুন করা হয়েছে। তাহলে এর জন্য আসামীকে সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ করবে আদালত।


জেএসডি নেতা মোয়াজ্জেম হোসেন এর ইন্তেকাল

শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭

বাপ্ নিউজ : জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি চুয়াডাঙ্গা জেলার অন্যতম নেতা, আলমডাঙ্গা উপজেলা জেএসডি’র সহ সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন ( মোয়াজ্জেম মেম্বার) গত রাত ৩.৪৫ ঘটিকায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে আলমডাঙ্গা উপজেলার খুদিয়াখালী গ্রামস্থ নিজ বাড়ীতে ইন্তেকাল করেছেন ( ইন্নালিল্লাহি.............. রাজেউন)।  আজ বাদ জোহর গ্রামের বাড়ীর চত্বরে নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন হয়। মৃত্যুকালে তিনি বৃদ্ধা মাতা, স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলেসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি  সভাপতি জনাব আ স ম আবদুর রব ও সাধারণ সম্পাদক  জনাব আবদুল মালেক রতন এক বিবৃতিতে মোয়াজ্জেম হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ, মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন। 


লাইলাতুল কদর পালিত, ২৫ জুন রবিবার যুক্তরাষ্ট্রে পবিত্র ঈদুল ফিতর

শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭

বাপ্‌স নিউজ : ওয়াশিংটন: যথাযথ পবিত্রতা, মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা লাইলাতুল কদর পালন করেছেন। আগামী ২৫ জুন রবিবার যুক্তরাষ্ট্র সহ উত্তর আমেরিকায় বসবাসরত মুসলমান সম্প্রদায় পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করবে। গতকাল ২১জুন বুধবার ২৬ রমজান দিবাগত রাত ছিল লাইলাতুল কদর। হাজার মাসের চেয়ে শ্রেষ্ঠ ও পুণ্যময় এ রজনীতে ওয়াশিংটনের ভার্জিনিয়াস্থ বাংলাদেশী বায়তুল মোকারম মসজিদে ইবাদত বন্দেগির জন্য ইফতার ও মাগরিবের নামাজ শেষে ধর্মপ্রাণ মুসলমানগণ মসজিদগুলোতে জমায়েত হতে শুরু করেন। মুসলিম নারীরা মসজিদে ও ঘরে ঘরে এ রাতের ইবাদতে মশগুল থাকেন।

alt

মুসলমানদের জন্য মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের বিশেষ রহমত এবং অনুগ্রহের রজনী হচ্ছে লাইলাতুল কদর। রমজান মাসের এ রজনীতেই মহানবী হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাহে ওয়া সাল্লামের প্রতি পবিত্র কোরআন নাজিল শুরু হয়েছিল। এ রাতের ইবাদত বন্দেগিকে নাজাতের উছিলা এবং হাজার মাসের ইবাদতের চাইতে উত্তম বলে পবিত্র কোরআনে বর্ণিত হয়েছে।

নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাহে ওয়া সাল্লাম এ রাতে নিজে ইবাদতে মশগুল থাকতেন এবং তাঁর সাহাবিদেরও বেশি বেশি ইবাদত করার নির্দেশ দিতেন। বায়তুল মোকাররমসহ প্রতিটি মসজিদে বিপুল সংখ্যক মুসল্লি জমায়েত হয়ে রাতভর ইবাদত বন্দেগি করেন। বায়তুল মোকাররমসহ যুক্তরাষ্ট্র সহ উত্তর আমেরিকার প্রতিটি মসজিদেই আখেরি মোনাজাতে দেশ ও জাতির শান্তি সমৃদ্ধি এবং বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর জন্য শান্তি কামনা করা হয়।


যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশী অভিবাসীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ।। এ লজ্জা কার?

শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭

বাপ্ নিউজ : এক সপ্তাহের মধ্যে বাংলাদেশের দুই উচ্চপদস্থ নাগরিক নিউইয়র্কে গৃহকর্মী নির্যাতন ও নিয়মমাফিক বেতন না দেওয়ার অভিযোগের সম্মুখীন হয়েছেন। তাঁদের একজন নিউইয়র্কে বাংলাদেশের ডেপুটি কনসাল জেনারেল শাহেদুল ইসলাম, জামিনের অর্থ সময়মতো জমা না দিতে পারায় তাঁকে এক রাত হাজতে কাটাতে হয়েছে। অন্যজন জাতিসংঘের সামাজিক ও অর্থনীতিবিষয়ক দপ্তরের অন্যতম পরিচালক হামিদুর রশীদ। তাঁরা দুজনেই এখন জামিনে মুক্ত রয়েছেন।

ঘটনা দুটি অভিবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে গভীর উদ্বেগের সঞ্চার করেছে। অভিযুক্ত ব্যক্তিদ্বয় শুধু উচ্চপদস্থ কর্মচারীই নন, সামাজিকভাবে অত্যন্ত সম্মানিত। ডেপুটি কনসাল জেনারেল হিসেবে শাহেদুল ইসলাম বাংলাদেশ সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ভাষণ দিতে অভ্যস্ত ছিলেন। অন্যদিকে অর্থনীতিবিদ ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা হামিদুর রশীদ দারিদ্র্য ও দুর্নীতি বিষয়ে একজন বিশেষজ্ঞ। 

তাঁরা দুজনেই সুবিধাভোগী শ্রেণির অন্তর্গত। তাঁদের হাতে নিম্নবিত্ত মানুষের নিগৃহীত হওয়ার ঘটনা সত্যি হলে তা একদিকে লজ্জার, অন্যদিকে গভীর বেদনার। যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যমে ঘটনা দুটির সঙ্গে বাংলাদেশের নামটি জড়িয়ে ফেলায় এর সঙ্গে জাতীয় সম্মানের প্রশ্নটিও চলে এসেছে।

তাঁদের উভয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ, যে বেতনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাঁরা বাংলাদেশ থেকে গৃহকর্মী নিয়োগ করেছিলেন, সেই বেতন তাঁরা দেননি। কুইন্সের ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি রিচার্ড ব্রাউন তাঁর অভিযোগনামায় জানিয়েছেন, শাহেদুল ইসলাম তাঁর গৃহকর্মীকে আদৌ কোনো বেতন দিতেন না। মাঝেমধ্যে তাঁর অতিথিদের কেউ কেউ খুশি হয়ে যে দু-চার ডলার গৃহকর্মীর হাতে গুঁজে দিতেন, সে অর্থই চেক আকারে শাহেদুল তাঁর গৃহকর্মীকে দিতেন। নিয়মিত বেতন দিচ্ছেন, এমন ‘মিথ্যা প্রমাণ’ তৈরি ছিল শাহেদুলের ওই প্রতারণার লক্ষ্য। তাঁর বিরুদ্ধে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগও রয়েছে।

Picture

হামিদুর রশীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আরও গুরুতর। জাতিসংঘের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা হিসেবে এই সংস্থার মাধ্যমে বিশেষ ভিসায় তিনি বাংলাদেশে তাঁর সাবেক গৃহপরিচারিকাকে নিউইয়র্কে নিয়ে আসেন। প্রতি সপ্তাহে তাঁকে ৪২০ ডলার বা ঘণ্টাপ্রতি সাড়ে ১০ ডলার বেতন দেবেন, এই মর্মে একটি চুক্তিপত্র সম্পাদন করে ও তাঁর অনুলিপি জাতিসংঘে বিভাগীয় দপ্তরে জমা দেন তিনি। গৃহকর্মীকে প্রতিশ্রুত বেতন নিয়মিত দিচ্ছেন, এই প্রমাণপত্রও তিনি নিয়মিত দপ্তরে জমা দিতেন। কিন্তু ম্যানহাটনের অস্থায়ী ফেডারেল কৌঁসুলি আদালতে তাঁর অভিযোগনামায় বলেছেন, রশীদ তাঁর গৃহকর্মীর সঙ্গে একটি দ্বিতীয় চুক্তি করেন, যাতে সাপ্তাহিক বেতনের পরিমাণ ধার্য করা হয় ২৯০ ডলার বা ঘণ্টাপ্রতি ৭ ডলার ২৫ সেন্ট। শুধু তাই নয়, খাওয়া ও থাকা বাবদ ৭৫ ডলার কেটে নিতে পারবেন এমন শর্তও তাতে অন্তর্ভুক্ত করেন। ফলে গৃহকর্মীটির ঘণ্টাপ্রতি বেতন কমে দাঁড়ায় সাড়ে তিন ডলারে। তাঁর অপরাধের এখানেই শেষ নয়। তিনি তাঁর গৃহকর্মীর নামে নিজে একটি ব্যাংক হিসাব খোলেন, নিজের নাম ব্যবহার করে তাঁর বেতনের টাকা তিনি নিজেই জমা দিতেন ও তুলতেন। গৃহকর্মীকে সরাসরি দেওয়ার পরিবর্তে বাংলাদেশে তাঁর স্বামীর কাছে সে অর্থ পাঠানোর ব্যবস্থা করতেন হামিদুর। তিনি গৃহকর্মীর ব্যাংক হিসাবের বিপরীতে একটি কার্ড নিয়ে নিজে ব্যবহার করতেন, এর প্রমাণ (‘এটিএম ইমেজ’) তাঁর হাতে রয়েছে বলে সরকারি কৌঁসুলি আদালতকে জানান।

তৃতীয় বিশ্বের কূটনীতিক ও আন্তর্জাতিক কর্মকর্তাদের হাতে গৃহকর্মী নির্যাতনের ঘটনা এটাই প্রথম নয়। কুয়েত, সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের ধনী দেশসমূহের কূটনীতিকদের হাতে গৃহকর্মী নির্যাতনের ব্যাপক নজির আছে। নব্বইয়ের দশকে জাতিসংঘে বাংলাদেশের একজন স্থায়ী প্রতিনিধিও একই অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছিলেন। চার বছর আগে নিউইয়র্কে ভারতের ডেপুটি কনসাল জেনারেল একই অভিযোগে গ্রেপ্তার হলে এ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে বড় রকমের বচসার সূচনা হয়।

মানবাধিকার নিয়ে কাজ করে এমন বিভিন্ন সংস্থার মতে, কূটনীতিকদের হাতে গৃহকর্মী নির্যাতন ও বেতন না দেওয়ার ঘটনা নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা। আমেরিকান সিভিল লিবার্টিজ ইউনিয়নের হিসাব অনুসারে, যুক্তরাষ্ট্রে বছরে কূটনৈতিক সূত্রে দুই হাজার বা তার চেয়েও বেশি কর্মীকে গৃহভৃত্যকে আনার সুযোগ দেওয়া হয়। অনেক সময় এরা বিভিন্ন নির্যাতনের সম্মুখীন হয়। বেতন কম দেওয়া বা আদৌ না দেওয়ার ঘটনা ছাড়াও অনেক ক্ষেত্রেই এরা দৈহিক নির্যাতন, পাসপোর্ট লুকিয়ে রাখা, পুলিশে ধরিয়ে দেওয়ার মতো ভয়ভীতির সম্মুখীন হয়।

তৃতীয় বিশ্বের বাইরে অন্য কোনো কূটনীতিক বা আন্তর্জাতিক কর্মকর্তার ক্ষেত্রে গৃহকর্মীর সঙ্গে অপব্যবহারের এ ধরনের অভিযোগ কার্যত নেই। শুধু আমাদের মতো দেশের কূটনীতিকদের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ ওঠে কেন, এমন প্রশ্নের জবাবে ভারতের সাবেক ভারতীয় কূটনীতিক এই প্রতিবেদককে জানান, নিজের দেশে গৃহভৃত্যের সঙ্গে এমন ব্যবহার করে এরা অভ্যস্ত। কূটনীতিক হলেও এঁরা খুব স্বল্প বেতন পেয়ে থাকেন, যুক্তরাষ্ট্রে গৃহকর্মীদের জন্য নির্ধারিত বেতন দেওয়া তাঁদের পক্ষে কার্যত অসম্ভব। জাতিসংঘ কর্মীদের ক্ষেত্রেও গৃহকর্মীদের স্থানীয়ভাবে নির্ধারিত ন্যূনতম বেতনের কম দেওয়া যাবে না, এই নিয়ম রয়েছে।

জাতিসংঘে কাজ করেন এমন একাধিক বাংলাদেশি এ ঘটনায় তাঁদের লজ্জার কথা জানিয়েছেন। বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ নজরুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, তাঁদের সহকর্মীদের কেউ কেউ এ নিয়ে বিদ্রূপ করছেন। তিনি উল্লেখ করেন, নিউইয়র্ক টাইমস এ নিয়ে যে প্রতিবেদনটি ছেপেছে, তাতে কিছুটা পরিহাসের সঙ্গে বলা হয়েছে, হামিদুর রশীদ দারিদ্র্য ও দুর্নীতিবিরোধী কাজ করেছেন।

এ কথা উল্লেখ করা দরকার যে অভিযুক্ত হলেও এই দুই বাংলাদেশির কেউ এখন পর্যন্ত দোষী প্রমাণিত হননি। নির্যাতন করেও কূটনৈতিক নিষ্কৃতি বা ইমিউনিটির অজুহাতে এসব কূটনীতিক অনেক সময় ছাড়া পেয়ে যান। জাতিসংঘে কর্মরত ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে অবশ্য এই কূটনৈতিক নিষ্কৃতি কার্যকর নয়, জাতিসংঘের একজন মুখপাত্র ইতিমধ্যেই সে কথা জানিয়েছেন। দোষী প্রমাণিত হলে এই দুই বাংলাদেশি ১৫ বছর বা তার চেয়েও বেশি সময়ের জন্য সাজা ভোগ করতে পারেন।

বিদেশে কূটনীতিকদের অনৈতিক ব্যবহার ঠেকাতে বাংলাদেশ সরকারের, বিশেষত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কোনো দায়দায়িত্ব আছে কি না, জানতে চাইলে বাংলাদেশের একজন শীর্ষস্থানীয় কূটনীতিক প্রথম আলোকে বলেন, এ ব্যাপারে কঠোর নীতিমালা প্রণয়ন করা যেতে পারে। ‘কিন্তু আসল দায়িত্ব তো আমাদের, অর্থাৎ কূটনীতিকদের। নীতিমালা করা যায়, কিন্তু যাঁরা সে নীতিমালা পালন করবেন তাঁরা যদি নিজের দায়িত্ব বিষয়ে উদাসীন হন, তাহলে সরকার একা কী করতে পারে?’


CMBBA Press Conference at Green House Brooklyn

শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭

Bapsnews:New York: - On Tuesday June 20th, 2017 A special CMBBA press conference was held at Green House Restaurant, in Kensington at 90 Church avenue in Brooklyn. Many Business owners in this Kensington area had joined this press conference. Kamal Uddin acting as president of CMBBA and was speaking at the press conference and was  held after Zohar prayer where the Bangladeshi Businessmen gathered. Program hosted by the prominent Businessman and Community activist Mohammad Mahab, whom had delivered a speech on behalf of this press conference.

They chanted slogan of the few members who had created a committee which was unconstitutionally created. They demand a fair new Election as soon as possible. Lustful Karim who is residing in this locality for more the 35 years and reputed businessman urges everyone to cooperate with each other. CMBBA Treasurer renowned Mohammed Anwar Hossain gave a speech on behalf this occasion. Abu Ahmed the owner of Ador printing and AH Khonodokar Juglu also gave a special speech and demanded early election as soon as possible. Many electronic printing media participated at this press conference. Handouts were distributed during the press conference.


বৃহত্তর নোয়াখালী জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি, যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক আয়োজিত প্রথম টাউন হল মিটিং

শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭

বাপ্ নিউজ : আমন্ত্রণ - LEGAL NETWORK INTERNATIONAL, LLC এবং বৃহত্তর নোয়াখালী জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি, যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক আয়োজিত প্রথম টাউন হল মিটিং
 
সুপ্রিয় সম্পাদক/প্রকাশক,
 
দেশের সার্বিক বিবেচনা করলে কারোই অস্বীকার করার উপায় নেই যে আমাদের দেশকে টিকাতে  হলে "জাতীয় ঐক্যের বিকল্প নেই।  কিন্তু আমাদের দেশে এমন কি  কোন দল বা ব্যাক্তি আছে যার ডাকে দেশের  ১৭ কোটি মানুষ দেশের অস্তিত্বের কথা বিবেচনা করে ঐক্যের প্রশ্নে একমত হবে?
 
দেশের বৃহত্তম দলগুলো জাতীয় ঐক্য চায় এর কোনো প্রমান নেই। বুদ্ধিজীবিরা পরিণত হয়েছে দালালজীবীতে।
ফলশ্রুতিতে আমাদের জাতি হিসেবে ব্যক্তিগত মূল্যবোধ, সংস্কৃতি এবং আত্মপরিচয় হারিয়ে যেতে বসেছে।
 
যোগ্যতার বিচারে আমাদের অবস্থান কোথায় তা আমরা জানিনা। তবে জাতীয় ঐক্য গড়ার লক্ষ্যে লিগ্যাল নেটওয়ার্ক ইন্টারন্যাশনাল এলএলসি বাংলাদেশী প্রবাসীদের নিয়ে প্রথম টাউন হল মিটিং এর আয়োজন করেছে।
 
টাউন হল মিটিং এর তারিখ এবং স্থান: সন্ধ্যা ৭.০০ পি.ম.  ২১ মে ২০১৭ রাঁধুনী রেস্টুরেন্ট, ৪৮৩ McDonald Avenue Brooklyn NY ১১২১৮
আলোচ্য বিষয়: কম্যুনিটির সেবায় সক্রিয়  অংশগ্রহণ, ইমিগ্রেশন / লিগ্যাল সমস্যা, USDHS কর্তৃক প্রণয়নকৃত UNDECLARED TIER III  TERRORIST ORGANIZATION এর  লিস্ট থেকে বিনপি'র নাম বাদ দেয়া, বিরোধী দলীয় নেতা এবং সদস্যদের কিডন্যাপ এবং EXTRA JUDICIAL KILLING প্রসঙ্গ, ভারতীয় নাগরিকদের সরকারী  চাকুরীতে নিয়োগ, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন এবং জাতীয়  সংহতি।
             
উক্ত টাউন হল মিটিং এ আপনার মূল্যবান পেশাগত উপস্থিতি আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টাকে ফলপ্রসূ এবং অনুপ্রাণিত করবে।
 
P.S: WE WILL DISH UP BANQUET)
 
আমরা আপনার/আপনার নিযুক্ত কারো  পেশাগত উপস্থিতি  কামনা করছি।
 
ধন্যবাদান্তে
 
NIRU S. NIRA
DIRECTOR (OPERATION)
Legal Network International, LLC


আওয়ামীলীগের ৬৮ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে মুজিব সেনা নিউজের শুভেচ্ছা

শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭

বাপ্ নিউজ : জর্জিয়া থেকে : আওয়ামীলীগের ৬৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মুজিব সেনা নিউজের সম্পাদক মণ্ডলির সভাপতি ও জর্জিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী হোসেন। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে রাজনৈতিক দল হিসেবে-শৈশব, কৈশোর, যৌবন কাটিয়ে আওয়ামী লীগ এখন অনেক অনেক পরিণত। জন্মের পর থেকেই অর্ধ শতাব্দীর বেশী সময় ধরে-ঐতিহ্যবাহী এই দলটি বেঁচে আছে দেশের সবচেয়ে প্রাচীন, বৃহত্তম ও গণতান্ত্রীক দল হিসেবে। ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন, আজকের এইদিনে ঢাকার ঐতিহাসিক রোজ গার্ঢেনে প্রতিষ্ঠিত হয় ‘আওয়ামী মুসলীম লীগে’র। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৬৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে-সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী ও শামসুল হকসহ দলটির প্রতিষ্ঠাতা সকল নেতৃবৃন্দদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন।

তিনি আরও বলেনঃ ১৯৫৫ সালে বঙ্গবন্ধুর আন্তরিক প্রচেষ্টায় ‘মুসলিম’ শব্দটি বাদ দেয়া হয়।সে থেকেই দলটি ধাবিত হয়ে আসছে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় ও গণতান্ত্রিক পথে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রয়েছে, সুদীর্ঘ আন্দোলনের ঐতিহ্যবাহী ইতিহাস। ৫২-এর, ভাষা আন্দোলন, ৫৪-এর, যুক্তফ্রন্ট, ৬২-এর, আইয়ুব খানের সামরিক বিরোধী আন্দোলন, ৬৬-তে মুক্তির সনদ বঙ্গবন্ধুর ছয় দফা, ৬৮-এর, আগরতলার ষড়যন্ত্র মামলা, ৬৯-এর, গণঅভ্যূত্থান, ৭০-এর, নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্টতা লাভ এবং ৭১-এ, বঙ্গবন্ধু তথা এই ঐতিহ্যবাহী দলের নেতৃত্বেই-দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী মহান মুক্তিযুদ্ধের পর, অর্জিত হয় বাঙ্গালীর মহান স্বাধীনতা। বাংলাদেশ সৃষ্টি এবং সৃষ্টির পর থেকে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠাসহ যা কিছু অর্জিত হয়েছে, এসবই ঐতিহ্যবাহী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আন্দোলন-সংগ্রামের ফসল।

Picture

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জন্মের পর থেকেই অনেক চড়াই-উৎড়াই পেরিয়ে ও সীমাহীন ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে, এপর্যন্ত এসেছে অতি গৌরবের সঙ্গে।১৫ই আগষ্ট ১৯৭৫, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যা করা হয়। এরপর, দলটির ওপর নেমে আসে চরম বিপর্যয়।১৯৮১ সালের ১৭ই মে, নির্বাসিত জীবন থেকে দেশে ফিরে-চরম দুঃসময়ে দলের হাল ধরেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা, দেশরত্ন-জননেত্রী শেখ হাসিনা।

১৯৮১ সাল থেকে ২০১৭, প্রায় ৩৭টি বছর এই সর্ববৃহত্তম দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ‘সভাপতি’র দায়িত্ব পালন ও দলকে সুসংগঠিত রাখতে পুরোপুরি সক্ষম ও সফল হয়েছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা, বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনা। শুধু তাই নয়, তিনি তাঁর দক্ষ নেতৃত্বে-দলকে তিন’বার ক্ষমতায় আনতে ও দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত করে, দেশের অপিরসীম উন্নয়ন সাধন করতেও সম্পূ্র্ণভাবে সক্ষম এবং সফল হয়েছেন। আজ আমরা দ্ব্যার্থহীনকণ্ঠে বলতে পারি, ১৭ই মে, ১৯৮১, যদি জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশপ্রত্যাবর্তন না হতো, তাহলে আজ বাংলাদেশে উন্নয়নের যে ধারা সূচিত হয়েছে এবং বাংলাদেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের ‘রোল মডেল’ হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে, তা কখনও সম্ভব ছিল না।

জননেত্রী শেখ হাসিনা আজ শুধু বিশ্বশান্তির প্রতীকই নয়, বিশ্ব নেতৃত্বের প্রতীক। বিশ্বে-নারীর ক্ষমতায়নের প্রতিক। সমুদ্র বিজয় এবং প্রায় ৬৪ বছরের অমিমাংসিত ছিটমহলাবাসীর সমস্যার স্থায়ী সমাধানসহ তাঁর রয়েছে, ঐতিহাসিক অজস্র অর্জন। তাঁর নায়কোচিত নেতৃত্বে বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমুর্তি দারুণভাবে উজ্জল হয়েছে এবং তা অব্যাহত রয়েছে, থাকবে। বাংলাদেশের ইতিহাসে বঙ্গবন্ধু কন্যা, জননেত্রী শেখ হাসিনা তিন বারের সফল প্রধানমন্ত্রী ও দক্ষ ‘রাষ্ট্র্রনায়ক’।
বাংলাদেশে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে জননেত্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের কোন রকম বিকল্প নেই। আজকের এই দিনে আমরা তাঁর সু-স্বস্থ ও দীর্ঘায়ু কামনা করি এবং তাঁকে জানাই কৃতজ্ঞতায় ভরা ‘শ্রদ্ধাঞ্জলী’ ও অভিনন্দন।

বঙ্গবন্ধু এবং তাঁর প্রিয় দল, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আদর্শে উজ্জীবিত থেকে, জঙ্গীবাদ-সন্ত্রাস নির্মুলসহ সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায়-জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে-এবং ভিশন২০২১, বাস্তবায়ণের লক্ষ্যে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আমরা আরও শক্তিশালী করবো, আজকের দিনে ইহাই হোক আমাদের সম্মিলিত অঙ্গীকার।


প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ও আ:লীগের দপ্তর সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ এখন নিউইয়র্কে

বুধবার, ২১ জুন ২০১৭

Picture

ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ আজ সন্ধ্যায় নিউইযর্কে জ্যাকসন হাইটসে হাটবাজার রেস্টুরেন্টে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে এক চা চক্রে মিলিত হন এই সময সেখানে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক আহম্মেদ , যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য আব্দুল হামিদ ,নিউইযর্ক স্টেট আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শাহীন আজমল. নিউইযর্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ইমদাদ চৌধরী, নিউইযর্ক মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্নসাধারন সম্পাদক আইয়ুব আলী , দুরুদ মিয়া রনেল , নান্টু মিয়া প্রমুখ। ড, আব্দুস সোবহান গোলাপ নেতাকর্মীদের সাথে একান্ত আলাপচারিতায তিনি বলেন সামনে নির্বাচন তাই সবাই কে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা এবংসজীব ওয়াজেদ জয়ের ডিজিটাল বাংলা গডতে হলে ঐক্যের কোন বিকল্প নেই, সকল দিধাদন্ধ ভুলে গিয়ে ২০৪১ সালের উন্নত দেশ হিসাবে গড়ে তুলতে যে সপ্ন মাননীয প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা জাতিকে দেখিয়েছে তা বাস্তবায়ন করতে সবাই কে যার যার জায়গা থেকে কাজ করতে হবে । ড. গোলাপ নিউইযর্কে অবস্থান কালিন সময দলীয় বিভিন্ন কর্মসূচীত্ অংশ গ্রহন করবেন, আগামী শুরুবার নিউইযর্ক মহানগর আওয়ামী লীগের ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন ।