Slideshows

http://bostonbanglanews.com/index.php/components/components/com_gk3_photoslide/thumbs_big/605744Finding_Immigrant____SaKiL___0.jpg

কুইন্স ফ্যামিলি কোর্টে অভিবাসী

হাকিকুল ইসলাম খোকন/বাপ্‌স নিউজ/প্রবাসী নিউজ ঃ বষ্টনবাংলা নিউজ ঃ দ্যা ইন্টারফেইস সেন্টার অব নিউইয়র্ক ও আইনী সহায়তা সংগঠন নিউইয়র্ক এর উদ্যোগে গত ২৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল ৯ See details

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

নিউয়র্কের খবর

সাহিত্য একাডেমি নিউইয়র্ক ' এর বিজয় দিবসের প্রতি যথাযথ শ্রদ্ধা

বৃহস্পতিবার, ০৪ জানুয়ারী ২০১৮

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ:ঝড়, বৃষ্টি, তুষারপাত সে যাই হোক না কেন মাসের শেষ শুক্রবারটি যেন নিউইয়র্ক শহরে বসবাসরত সাহিত্যমোদীদের জন্য সাহিত্য একাডেমিকে ঘিরে একটি আনন্দের দিন। বছরের নিয়মিত শেষ আসরটিতে এবারো তার ব্যতিক্রম হয়নি।

Picture

হাঁড় কাঁপানো শীতেও বিপুল সংখ্যক সাহিত্যপ্রেমীরা প্রাণের টানে ছুটে এসেছেন সাহিত্য একাডেমিতে। বাহিরে প্রবাহিত শৈত্য প্রবাহের আধিপত্য, ভেতরের চা- কফির উষ্ণ আতিথেয়তায় যেন দূর হয়ে গেছে!বিজয় দিবসের প্রতি যথাযথ শ্রদ্ধা জানিয়ে পুরো অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন 'সাহিত্য একাডেমি, নিউইয়র্ক ' এর পরিচালক মোশাররফ হোসেন। আলোচনার মাঝে মাঝে এবারও প্রায় ৩০ জনের মত লেখক, কবি তাদের লেখা পাঠ করেন।

alt
আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন হাসান ফেরদৌস, ফজলুর রহমান, তমিজ উদদীন লোদী, আহমাদ মাযহার, ফকির ইলিয়াস, এবিএম সালেহ উদ্দীন।নিজেদের লেখা কবিতা, গল্প, প্রবন্ধ এবং আবৃত্তি করেন সুরীত বড়ুয়া, নাসিরুল্লাহ মোহাম্মদ, ইশতিয়াক রুপু, আবুল বাশার, কাজী আতিক, রানু ফেরদৌস, শামীম আরা আফিয়া, স্বফন দেওয়ান, ফারহানা ইলিয়াস তুলি, বেগম সোনিয়া কাদির, ফকির ইলিয়াস, আহম্মদ হোসেন বাবু, মমতাজ বেগম (আলো), শাহীন ইবনে দিলওয়ার, নাসিমা আকতার, কামরুন নাহার রীতা, পলি শাহীনা, তাহমিনা সাইদ, আবু সাঈদ রতন, নীরা কাদরী, মোশাররফ হোসেন, সালেহীন সাজু, আনোয়ার সেলিম, পারভীন পিয়া, উইলি মুক্তি প্রমুখ।

alt
শুরুতেই লেখক আহমাদ মাযহার তার আলোচনায় বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনকে তুলে ধরেন। সময়ের পরিক্রমায় লেখকের সৃষ্টিকর্ম তাঁকে অধিষ্ঠিত করেন মহামানবের আসনে। ৯-ই ডিসেম্বর 'বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেন'এর জন্মদিন উপলক্ষে আহমাদ মাযহার তাঁর ' সুলতানার স্বপ্ন' উপন্যাসটির উপরে আলোকপাত করে বলেন,' বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেন শুধুমাত্র একজন সমাজ সংস্কারক নয় সাহিত্যের দৃষ্টিকোণ থেকে আলোচনা করলে তিনি ছিলেন একজন সৃজনশীল মানুষ। ' তিনি আরো বলেন,  ' সুলতানার স্বপ্ন উপন্যাসটির গঠন অসাধারণ হওয়া সত্বেও বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসের দিকে তাকালে দেখা যায় সে সময়টায় তার কথা কোথায়ও তেমন উল্লেখযোগ্য ভাবে আসেনি। হিন্দু সমাজ খেয়াল-ই করেনি যে মুসলমানরা সাহিত্য চর্চা শুরু করেছেন। '

alt
এরপর কবি তমিজ উদদীন লোদী তার নির্ধারিত বক্তব্যে গণমানুষের কবি দিলওয়ারকে তুলে ধরেন। মহকালের ইতিহাসে লেখকের রচিত সাহিত্যই কথা বলবে। বাংলা একাডেমি ও একুশে পদকপ্রাপ্ত গণমানুষের কবি' দিলওয়ার' সম্পর্কে আলোচনা করতে গিয়ে কবি তমিজ উদদীন লোদী বলেন, ' কবি দিলওয়ার একজন অসাধারণ মানুষ ছিলেন। কবিতা লেখার জন্য যারাই যেতেন তাঁর কাছে সবাইকে পরম মমতায় কাছে টেনে নিতেন। ছন্দের প্রতি তার প্রবল নিষ্ঠা ছিল। মাত্রাবৃত্ত, অক্ষরবৃত্ত, স্বরবিত্তে লিখতেন তিনি। সাধারণ মানুষদের সাথে মিশে যেতেন অনায়াসেই। সবসময় পড়ার মধ্যেই থাকতেন। কবি দিলওয়ার একজন প্রথম সারির গীতিকার ছিলেন। গীতিকবিতা যারা লিখেছেন কবি দিলওয়ার ছিলেন তাঁদের মধ্যে অন্যতম।তাঁর আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এবং কবি দিলওয়ারের অপ্রকাশিত রচনাবলী যেন প্রকাশিত হয় সে আশা পোষণ করে তমিজ উদ্দিন লোদী তার আলোচনার ইতি টানেন।

alt
কবির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে কবিপুত্র শাহীন ইবনে দিলওয়ার এবং মোশাররফ হোসেন একটি করে কবিতা পড়েন। এরপরেই শুরু হয় লেখকদের লেখা পাঠ।এই পর্যায়ে পঠিত লেখার উপরে আলোকপাত করেন কবি ফকির ইলিয়াস। তিনি বলেন, ' অগ্রজ কবিরা কি বলেছেন তা জানা দরকার, তাঁদের বই পড়া আবশ্যক। কবির কবিতা একজন মানুষের সাথে কিভাবে শক্তিশালী সংযোগ তৈরি করেন তা বর্ণনা করতে গিয়ে ফকির ইলিয়াস উল্লেখ করেন কবি দিলওয়ারের কথা। তাঁর কবিতা পড়ে কিভাবে ঢেউ আঁচড়ে পড়ে পিলারের গায়ে তা দেখার জন্য নৌকা করে তিনি সে জায়গাটি পরিদর্শনে যান। '

alt
পাঠকদের ভালোবাসা, আদরে লেখকরা থাকেন তাদের হৃদয়ে। প্রতিটি মানুষের জীবন যেন অলিখিত গল্পের একেকটি মহাসমুদ্র। সাপ্তাহিক ঠিকানা পত্রিকার প্রধান সম্পাদক ফজলুর রহমান বলেন, ' ভালোবাসা দিয়ে খুব সহজে মানুষকে তুষ্ট করা যায়। এখানে ভালোবাসা পাই তাই ফিরে ফিরে আসি। গণমানুষের কবি দিলওয়ার, বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের মত আলোকিত মানুষেরা ছিলেন বলেই আমরা বাঙালীরা গর্ব করতে পারি।অনুষ্ঠানে উপস্থিত সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি বলেন, বেশী বেশী পড়বেন, লিখবেন এবং ভালো মানুষ হবার চেষ্টা করবেন। '

alt

লেখক এবিএম সালেহ উদ্দিন বলেন, ' আনন্দ এবং বেদনা দুটোই রয়েছে এই বছর জুড়ে। সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে সামনের দিনগুলো যেন সবার জন্য মঙ্গলময় হয় সে প্রত্যাশা করেন।বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি' শহীদ কাদরী'র ' সদ্য প্রকাশিত কবিতার বই ' গোধূলির গান' থেকে কবিতা পাঠ করেন কবি পত্নী নীরা কাদরী।ভেদ-ক্লেদ ভুলে প্রতিটি প্রাণ জেগে উঠুক নতুন বছরে প্রাণের আনন্দে। কবি কাজী আতিক সবাইকে আগাম নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়ে তার নিজের দুটো কবিতা পাঠ করেন।

alt
কবি তার লেখায় মহাকালের ছবি এঁকে যান। কবি সোনিয়া কাদির বলেন, ' কবি দিলওয়ারের লেখা থেকে তিনি উপকৃত, অনুপ্রাণিত হয়েছেন। তাঁর অফুরন্ত স্নেহের ঢালি থেকে তিনি নিজেকে সমৃদ্ধ করেছেন।লেখক হাসান ফেরদৌস নিজ বই থেকে পাঠকৃত প্রবন্ধে উঠে এসেছে ইতিহাসে দূষ্ট লোকেরাও কবিতা লিখেছেন যেমন, হিটলার, মুসোলিনী প্রমুখ। 'কবিতা লেখকের ভাবনা দৃষ্টির আয়না হলেও লেখকরা অন্যরকম বিশেষ শ্রেণীর মানুষ। তারা চিন্তা, চেতনায় সবাই নিজের জায়গায় আলাদা স্বত্বা। ' তাঁর প্রবন্ধটি পাঠ শেষে বিষয়বস্তুর সাথে সংশ্লিষ্ট কিছু কিছু প্রশ্নের উত্তর দেন।অনুষ্ঠানের প্রায় শেষ পর্যায়ে এসে কবি তমিজ উদদীন লোদী ও ফকির ইলিয়াসকে সাহিত্য একাডেমির পক্ষ হতে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানো হয়।সকলকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে এবং জানুয়ারি মাসের শেষ শুক্রবার আবারো সাহিত্য একাডেমি'র মাসিক আসরে মিলিত হবার প্রত্যাশা রেখে একাডেমি'র পরিচালক মোশাররফ হোসেন অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানেন।


মানবজাতির মঙ্গল কামনায় বড়দিন উদযাপন করেছে বেথেল ব্যাপ্টিষ্ট চার্চ নিউইয়র্ক

বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন ,বাপসনিউজ: যথাযথ ধর্মীয় আচার , মানবজাতির মঙ্গল কামনায় আনন্দ -উদ্দীপনা আর বর্নিল আয়োজনে সামবার উদযাপিত হয়েছে খিষ্ট ধর্মাবল্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব বড়দিন। এই দিনে খ্রিস্টধর্মের প্রবর্তক যিশুখ্রিস্ট বেথলেহেমে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। খ্রিস্টধর্মাবলম্বীরা বিশ্বাস করেন, সৃষ্টিকর্তার মহিমা প্রচার এবং মানবজাতিকে সত্য ও ন্যায়ের পথে পরিচালিত করতে প্রভু যিশুর এই ধরায় আগমন ঘটেছিল।

alt
বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও বড়দিন উপলক্ষে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। গির্জাগুলোতে রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে পালন করা হয় এই উৎসব। গির্জাগুলোতে রাতেই প্রার্থনার আয়োজন করা হয়। যিশু খ্রিস্টের আগমনের এ দিনকে ঘিরে চলে রাতের প্রার্থনা। বেথেল ব্যাপ্টিস্ট চার্চ বর্ণিল সাজে সাজানো হয়। চার্চগুলোতেও খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীরা উত্সাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দিনটি উদযাপন করছেন। খ্রিস্টজাগ (প্রার্থনা) ছাড়াও ছিল কীর্তন, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

alt

বর্ণিল আলোকসজ্জায় সাজানো হয়েছে বড় দিনের ক্রিসমাস ট্রি, প্রতীকী গোশালা, গির্জার পাশে স্বজনদের সমাধি ফুলে ফুলে ঢেকে দেয়া হয়। গির্জাগুলোর প্রবেশপথে শুভেচ্ছা কার্ডসহ উপহারসামগ্রী বিক্রির দোকান বসেছে।

alt
বড়দিন উপলক্ষ্যে নিউইয়র্কে বাঙ্গালীদের অন্যতম বেথেল ব্যাপ্টিষ্ট চার্চ নিউইয়র্ক বিভিন্ন অনুষ্টানের আয়োজন করে ।৭২-০১, ৪৩ এভিনিউ,উডসাইড নিউইয়র্কের বেথেল ব্যাপ্টিষ্ট চার্চে গত ২৫ ডিসেম্বর সোমবার সকাল সাড়ে ১১টায় বিশেষ বক্তব্য রাখেন। উদোধনী প্রার্থনা করেন শিলা বিশ^াস ।

alt

ক্রিসমাচের উপর বিশেষ আলোকপাত করেন ড. টমাস দুলু রায়,ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন ড. রাসেল বিশ^াস, ওয়ার - সঙ্গীত শুন্য সুরংগ.দুতার রব।

alt
বড়দিনের প্রার্থনা ও অভিবাদন জানান রেভারেন্ড ও পেষ্টোর লিটন অধিকারী । বিশেষ সঙ্গীত ও বড়দিনের সঙ্গীত করেন মুক্তি বরতা নিয়া, মানু, তোরজু,মায়া মন্ডল,লিয়া ,সাবরিনা , জেসম, রতœা, ডিপ জুলি, মাহমুদা রহমান, প্রমুখ । বিশেষ প্রার্থনা করেন রাসেল ও শিল্পী ইসলাম পিটার এস ম্যাক ফিল্ড।

alt
বড়দিনের তাৎপর্যপূর্ন বক্তব্য রাখেন রেভারেল্ড ও পেষ্টর লিটন অধিকারী , দিপিকা দাস। আয়োজকদের পক্ষ্য থেকে বিশেষ আলোকপাত করেন মাইক্যাল মাধু, নিলিমা, মিজান , হালিম , মনসুর রহমান, শাওন প্রমুখ। প্রার্থণা করেন পাষ্টর মার্টিন ব্যারল,বড় দিনের বিশেষ সংগীত পরিবেশন করেন মায়া মন্ডল,শিলা বিশ^াস,আর্ণল্ড বিশ^াস,প্রার্থনা করেন শিল্পী,যমুনা চক্রবর্তী, যুহানা বিশ^াস, নিলীমা বিনতে অন্তরা হালদার, শ্যামল হালদার সহযোগীতায় মাইকেল মধু, নীলিমা, শ্যামল, মঞ্জু, ক্রিষ্টফার, বেবী, শাবানী,মায়া মন্ডল, দরুথী, লিয়া, অন্তরা, শিলা, আর্ণল্ড মুনমুন, মঞ্জু, শ্যামলী, রতœা, জেমস, প্রকৃতি।

alt
অতিথিদের মাঝে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ, অতিথিদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক একেএম রুহুল আমীন ও আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন-এর সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকনসহ প্রবাসের বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, শিল্পী ,সাহিত্যিক, সাংবাদিক, লেখক, কবি এবং বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ রেভারেল্ড ও পেষ্টর লিটন অধিকারী আমন্ত্রিত অতিথিদের বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানান।সান্ডখøজ উপস্থিত সবাইকে উপহার বিতরণ করেন। রকমারী আয়োজনে মধ্যাহ্ন ভোজে আপ্যায়ন করা হয়। ছোট মনি জেমিমার জন্মদিনের কেককাটা হয়।

alt
বড়দিনের তাৎপর্যপূর্ন বক্তব্য রেভারেল্ড ও পেষ্টর লিটন অধিকারী এক শুভেচ্ছা বাণীতে বলেন, “শুভ বড়দিন উপলক্ষে আমরা বাংলাদেশ সহ বিশ্বের সব খৃস্ট ধর্মাবলম্বীকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। তাদের সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করি। সত্য-ন্যায়ের পথ প্রদর্শক যীশুখৃস্ট এদিনে জন্মগ্রহণ করেন। খৃস্ট ধর্মাবলম্বীর কাছে তাই এ দিনটি অত্যন্ত মহিমান্বিত ও মর্যাদাপূর্ণ। সব ধর্মের মর্মবাণী শান্তি ও মানবকল্যাণ। যুগে যুগে মহামানবরা মানুষের সৎ পথে চলার দিশারী হয়েছিলেন। মানুষকে অনুপ্রাণিত করেছিলেন ন্যায় ও কল্যাণের পথে। মহান যীশুখৃস্টও একইভাবে তাদের অনুসারীদের সৎকর্ম ও ন্যায় প্রতিষ্ঠায় উদ্বুদ্ধ করে গেছেন।তিনি আরো বলেন, “শুভ বড় দিন একটি সার্বজনীন ধর্মীয় উৎসব। আর প্রতিটি ধর্মীয় উৎসবের অন্তর্লোক হচ্ছে সম্প্রীতি, সহাবস্থান ও শুভেচ্ছ। মানুষ হিসেবে আমাদের কর্তব্য- দেশ, সমাজ ও মানুষের কল্যাণে যার যার অবস্থান থেকে কাজ করে যাওয়া, হিংসা-বিদ্বেষ পরিহার হরে সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠা এবং সব ধরনের অন্যায় অবিচার প্রতিরোধে ব্রতী হওয়া।”

alt
শেষ রকমারী মজাদার আয়োজনে মধ্যাহ্ন ভোজে আপ্যায়ন করা হয় অতিথি ও অভ্যাগতদের ।দিনটি উপলক্ষে অনেক খ্রিস্টান পরিবারে কেক তৈরি ও বিশেষ খাবারের আয়োজন করা হয়। আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার জন্য অনেকে বড়দিনকে বেছে নেন।বড়দিন উপলক্ষে অনেক জায়গায় আয়োজন করা হয়েছে প্রীতিভোজের। এদিন সরকারি ছুটি ছিল। টেলিভিশন চ্যানেল ও রেডিও স্টেশনগুলো বড়দিন উপলক্ষে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। সংবাদপত্র এবং অনলাইনে বিশেষ নিবন্ধে দিনটির তাত্পর্য তুলে ধরা হচ্ছে।

alt
রাতে কেক কাটা ও প্রার্থনার পর সকালে আবারো গির্জায় একত্রিত হন খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীরা। সকালের প্রার্থনার পর বাড়িতে ফিরে ছোটরা বড়দের আশীর্বাদ নেয়। শিশুদের মধ্যে বড়দিনের বাড়তি আমেজ ছড়িয়ে দিতে গির্জায় গির্জায় প্রধান ফটকেই সান্ডাক্লজ শিশু-কিশোরদের জন্য বিশেষ উপহার নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন। শিশু-কিশোররা চকোলেট, ক্যান্ডি পাওয়ার পাশাপাশি শান্ডাক্লজকে পেয়ে বাড়তি আনন্দ পায়। রেভারেন্ড ও পেষ্টোর লিটন অধিকারী পুণ্যার্থীদের মধ্যে মিষ্টি খাবার বিতরণ করেন। তিনি বাণী পাঠ ও বিশ্লেষণ করে শোনান পুণ্যার্থীদের। তিনি বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠায় সব মানুষকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।


নিউইয়র্কে জমজমাট আয়োজনে ‘এনআরবি তারকা অ্যাওয়ার্ড-২০১৭’ অনুষ্ঠিত

বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৭

Picture

হাকিকুল ইসলাম খোকন ,বাপসনিউজ:বিগত বছরগুলোর মতো এবারো নিউইয়র্কে জমজমাট আয়োজনে অনুষ্ঠিত হলো ‘এনআরবি তারকা অ্যাওয়ার্ড-২০১৭’। সিটির উডসাইডের কুইন্স প্যালেসে গত ২৩ ডিসেম্বর শনিবার সন্ধ্যায় শো-টাইম মিউজিক এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে দেশ ও প্রবাসের জনপ্রিয়

 তারকাদের পরিবেশনায় ছিলো মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

alt

বিশেষ করে বাংলাদেশ থেকে আগত শিল্পী দিনাত জাহান মুন্নীর সঙ্গীত আর নতুন প্রজন্মের চিত্র নায়িকা জলি ও প্রিয়া বিপাসা এবং রোকসানা মির্জার পরিবেশনা উপস্থিত দর্শক-শ্রোতাদের মুগ্ধ করে।

alt

এছাড়াও অনুষ্ঠানে ছিলো মনোজ্ঞ ফ্যাশন শো সহ দেশী-প্রবাসী শিল্পীদের নাচ-গান। সন্ধ্যা ৮টা থেকে মধ্যরাত সাড়ে ১২টা পর্যন্ত অনুষ্ঠানটি চলে। 

এদিকে প্রবাসের বুকে বেড়ে উঠা প্রতিভাকে আরো সমৃদ্ধ করতে বিনোদন জগতের অন্যতম ‘এনআরবি তারকা অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচার করে টাইম টেলিভিশন।

alt

বর্ণাঢ্য এ আয়োজনটি ছিল শো-টাইম মিউজিকের নবম তারকা অ্যাওয়ার্ড আসর। যাতে দেশের খ্যাতিম্যান তারকা ও সংস্কৃতি জগতের শিল্পীদের পাশাপাশি ছিল প্রবাসী শিল্পীদের এক মিলন মেলা।

শো-টাইম মিউজিকের কর্ণধার আলমগীর খান আলমের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন নিউইয়র্ক বাংলাদেশ কনস্যুলেট’র কনসাল জেনারেল শামীম আহসান। আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী, গীতিকার ও সুরকার এস আই টুটল। অনুষ্ঠানের গ্র্যান্ড স্পন্সর ছিলেন বাংলাদেশী মালিকানাধীন কম্পিউটার প্রশিক্ষণ স্কুল ‘শিফট’। পাওয়ার্ড বাই উৎসব কুরিয়ারের এই অনুষ্ঠানের গ্র্যান্ড স্পন্সর ছিলো পিপল এন টেক। 

অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ ছাড়াও টাইম টেলিভিশন-এর পক্ষে জেসিকা তারতিলা শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। এসময় টাইম টেলিভিশনের বিজনেস কনসালটেন্ট নুসরাত শারমীন তিসাম উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান শেষে টাইম টেলিভিশনের কাছে নিজেদের অনুভূতির কথা তুলে ধরেন অংশগ্রহণকারী শিল্পী ও কলাকূশলীরা।

অনুষ্ঠানে জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী রিজিয়া পারভীন সহ বিভিন্ন ক্যাটাগরীতে প্রবাসের ৩৫জন শিল্পী, ব্যবসায়ী, সংগঠককে অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যরা হলেন:  শিফট’র কর্ণধার ড. ইফতেখার ইভান, বাংলাদেশ সোসাইটির স্কুল ও শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আহসান হাবিব, সংগঠক খন্দকার এ এইচ জগলু, ডিজিটাল ওয়ান-এর বেলাল আহমেদ, প্রিমিয়াম সুইটসের সত্ত্বাধিকারী সোহাগ আজম, প্রবাসী শিল্পী রানো নেওয়াজ, চন্দ্রিকা দে, স্বম্পা জামান, বীনা বর্মণ, লাল্টু, মনিকা দাস, মল্লিকা, ফেরদৌসী, নিশা, চন্দ্রিকা দে প্রমুখ এবার অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন।

alt

এবার পড়ালেখা বিষয়ে অংক পরিবেশনার জন্য স্পেশাল ট্যালেন্ট হিসেবে ফাতিহা আয়াতকে ‘এনআরবি তারকা অ্যাওয়ার্ড- ২০১৭’ প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে কনসাল জেনারেল শামীম আহসান বলেন, প্রবাসে এমন অনুষ্ঠান আয়োজনে শিল্পী-সংস্কৃতিসেবী সহ প্রবাসীরা আরো ভালো কাজে উৎসাহীত হবে। পাশাপাশি বাংলা ভাষা, বাংলা সংস্কৃতি আরো বিকশিত হবে। 

শিল্পী এস আই টুটুল বলেন, নিউইয়র্কে এসে মনে হচ্ছে আমরা বাংলাদেশীই আছি। তিনি অনুষ্ঠানটি আয়োজনের প্রশংসা করে বলেন, শিল্পী সহ প্রবাসের জ্ঞানী-গুণীজনরা সম্মানিত হবে আমরা আরো ভালো কিছু উপহার দিতে পারবো।

alt

প্রসঙ্গত তিনি আরো বলেন, আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল বলেই আজকের অনুষ্ঠানে কোন গান গাইবো। আমি কোন আইন ভাঙতে চাই না। আমি আমেরিকায় অনেকবার এসেছি, গানও করেছি। কিন্তু এবার আমেরিকায় আসার ভিসার শর্ত মোতাবেক আমি গান গাইতে পারবো না। তবে আগামীতে আবার আসবো এবং গান করবো। 

গানের ফাঁকে ফাঁকে শিল্পী দিনাত জাহান মুন্নী নিউইয়র্ক তথা উত্তর আমেরিকার বাংলাদেশী অডিএন্সের প্রশংসা করে বলেন, এখানকার দর্শক-শ্রোতা খুব ভালো। মনে হচ্ছে বাংলাদেশেই গান করছি। প্রবাসী শ্রোতাদের মুখে মুখে তার নিজের গাওয়া গান শুনে তিনি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। 

alt

অনুষ্ঠানটি সফল করার জন্য আয়োজক আলমগীর খান আলম উপস্থিত সকল দর্শক-শ্রোতাকে ধন্যবাদ জানান এবং বিশেষ কারণে শিল্পী এস আই টুটুল গান পরিবেশন করতে না পারায় আগামী বছরের এপ্রিল মাসে তাকে (এস আই টুটুল) ও অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওন-কে নিয়ে একটি অনুষ্ঠান আয়োজনের ঘোষনা দেন। 

alt

সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকার সম্পাদক ও টাইম টেলিভিশন-এর সিইও আবু তাহের, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্যানেল চেয়ারম্যান ডেইজী সারোয়ার এবং অনুষ্ঠানের গোল্ড স্পন্সর এবং এনওয়াই ইন্সুরেন্স ইনক’র প্রেসিডেন্ট শাহ নেওয়াজ ছাড়াও কমিউনিটির উল্লেখযোগ্য নেতৃবৃন্দ ও বিশিষ্ট ব্যক্তির মধ্যে ড. এনামুল হক, নাদিম আহমেদ, হাজী আব্দুর রহমান, আবু তালেব চৌধুরী চান্দু, ফকু চৌধুরী, শিফট’র ডাইরেক্টর অব এডুকেশন শায়লা ইফতেখার প্রমুখ সহ বিপুল সংখ্যক দর্শক-শ্রোতা অনুষ্ঠানটি উপভোগ করেন।

alt

অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনায় ছিলেন আবীর আলমগীর ও মোহাম্মদ সেলিম ইব্রাহীম। 

alt

অনুষ্ঠানটি সদস্য প্রয়াত বাংলাদেশের জনপ্রিয় শিল্পী বারী সিদ্দিকীর স্মরণে উৎসর্গ করা হয়।


‘এনআরবি তারকা অ্যাওয়ার্ড’ ২২ ডিসেম্বর,সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন

বৃহস্পতিবার, ২১ ডিসেম্বর ২০১৭

হাকিকুল  ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ:এনআরবি তারকা এওয়ার্ড ২০১৭ এর বর্ণাঢ্য লাইভ কনসার্টের প্রস্তুতি সম্পন্ন ,সাংবাদিক সম্মিলন করে এমনটি জানালেন শো- টাইম মিউজিক এর কর্ণধার আলমগীর খান আলম ।নিউইযর্কে শিফট নিবেদিত এবং শো-টাইম মিউজিক আয়োজিত এনআরবি তারকা এওয়ার্ড ২০১৭ এর বর্ণাঢ্য লাইভ কনসার্ট অনুষ্ঠানটি আগামী ২২ শে ডিসেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় উডসাইডের কুইন্স প্যালেসে অনুষ্টিত হবে ।শিফট নিবেদিত এবং শো-টাইম মিউজিক আয়োজিত এনআরবি তারকা এওয়ার্ড ২০১৭ এর বর্ণাঢ্য লাইভ কনসার্টটি সরাসরি সম্প্রচার করবে টাইমস টেলিভিশন ও ইউএস বাংলা২৪.কম। কণ্ঠশিল্পী এস আই টুটুল সহ সবাই বর্তমানে এখন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্হান করছে।


জমকাল এই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে আসেছেন বিশিষ্ট কণ্ঠশিল্পী এস আই টুটুল, দিনাত মুন্নী, সেফালী সারগাম, মিতুয়া হেমা এবং মডেল ও অভিনেত্রী তমা মির্জা, পিয়া বিপাশা ও জলি প্রমুখ। প্রবাসের জনপ্রিয় শিল্পীদের মধ্যে অংশগ্রহণ করবেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী রানু নেওয়াজ, চন্দ্রিকা দে সহ আরো অনেকে। এছাড়াও রয়েছে মাজেদ ডিজাইর এর আকষর্নীয় ফ্যাশন শো।অনুষ্ঠানে প্রবেশমূল্য রয়েছে। ২০ ডলার, ৩৫ ডলার এবং ভিআইপি তিন ধরনের টিকেটের ব্যবস্থা। আসন সংখ্যা সীমিত হওয়ায় টিকেট ফুরিয়ে যাবার পূর্বেই দর্শকশ্রোতাদের এবং আগ্রহীদের টিকেট সংগ্রহ করতে হবে। এবছর অনুষ্ঠানটির টাইটেল স্পন্সর হিসেবে রয়েছে শিফট। পাওয়ার্ড বাই উৎসব কোরিয়ার এবং গ্রান্ড স্পন্সর পিপল্স এন্ড টেক, ডায়মন্ড স্পন্সর বিসমিল্লাহ্ প্লোল্ট্রি, গোল্ড স্পন্সর এনওয়াই ইন্সুরেন্স। এসএমপি’র কর্ণধার আলমগীর খান আলম প্রবাসী সকলকে অনুষ্ঠান উপভোগের আমন্ত্রন জানিয়েছেন। বিস্তারিত তথ্যের জন্য ৬৪৬-৫৪৬-৬০৩৮ নম্বরে যোগাযোগ করা যেতে পারে।


ম্যানহাটানে আকায়েদ উল্লাহর বোমা হামলা - ক্ষোভের আগুনে জ্বলছে বাংলাদেশিরা

রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ রিপোর্ট: নিউইয়র্কের ম্যানহাটন পোর্ট অথরিটি বাস টার্মিনালে বোমা বিস্ফোরণকারী ‘আকায়েদ উল্লাহ’ প্রবাসী বাংলাদেশিদের কাছে এখন একটি ঘৃণিত নাম। বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে যেখানেই দু‘জন মিলে কথা হয় সেখানেই ঘুরে ফিরে আসে আকায়েদ উল্লাহর নাম। কথা উঠতেই আকায়েদ উল্লাহর প্রতি ছড়িয়ে দেয়া হচ্ছে ঘৃণা। সঙ্গে সঙ্গে প্রকাশ করা হচ্ছে ক্ষোভ। নিউইয়র্কের সব বাংলাদেশিরা আকায়েদ উল্লাহর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চায়। প্রবাসী বাংলাদেশিদের একটাই কথা, আকায়েদ উল্লাহ বাংলাদেশের কলঙ্ক। আকায়েদ উল্লাহ বাংলাদেশিদের ডুবিয়েছে। তার একার কর্মকান্ড পুরো বাংলাদেশির উপর চাপতে পারে না।


এ সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন  বলেন, আকায়েদ উল্লাহকে সংঘবদ্ধভাবে ঘৃণা দেখাতে হবে। আকায়েদ উল্লাহরা বাংলাদেশিদের প্রতিনিধিত্ব করতে পারে না। ওরা মানবতার দুশমন হিসেবে চিহ্নিত হয়েই থাকবে।,আমেরিকা-বাংলাদেশ এলাইন্সের প্রেসিডেন্ট ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারন সম্পাদক এমএ সালাম বলেন, কেউ যেন আগ বাড়িয়ে নিজেদের দোষ স্বীকার করতে মাঠে না নামেন। এই শহরে হাজার হাজার বাংলাদেশি ইতিবাচক ভূমিকা রাখছেন। একজন সন্ত্রাসীর দায় কেন বাংলাদেশের পুরো কমিউনিটি নিতে যাবে। আগে দেখা যাক, এই ঘটনার তদন্তে আসল ঘটনা কী বেরিয়ে আসে।যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা প্রদীপ রঞ্জন কর বলেন, আমি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। আকায়েদ উল্লাহারা বাংলাদেশের দুশমন, সমাজের দুশমন, প্রবাসী বাংলাদেশিদের দুশমন। বাংলাদেশ বা পৃথিবীর যে কোন দেশে যাতে আরেকজন আকায়েদ উল্লাহর জন্ম না হয় সেদিকে সবাইকে নজর দিতে হবে।
যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা মাসুদুল হাসান বলেন, আকায়েদ উল্লাহর কর্মকান্ডের প্রতিবাদ জানানোর ভাষা আমাদের নেই। তার প্রতি শুধু ছড়িয়ে দিতে চাই ঘৃণা আর ঘৃণা। তিনি ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, আমরা তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।
সাংবাদিকওসমান গনি বলেন, এ রকম ঘটনা বা শঙ্কা আমরা চাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছি অনেকবার। আমাদের ছেলেমেয়েরা জিহাদি কর্মকান্ডে উদ্বুদ্ধ হচ্ছে কি না, তা প্রত্যেক বাংলাদেশিদের খতিয়ে দেখা দরকার।
 সংগঠক হেলাল মাহমুদ বলেন, ধিক্কার জানাই তাদের, যাদের ঘৃণিত কর্মের দ্বারা দেশ ও জাতির বদনাম হয়। ‘সন্ত্রাসের কোনো ধর্ম নেই, জাতীয়তা নেই। একমাত্র পরিচয় সে সন্ত্রাসী এবং তাদের সর্বোচ্চ শাস্তিই প্রাপ্য।
সিনিয়র সাংবাদিক সৈয়দ মোহাম্মদ উল্লাহ বলেন, সন্ত্রাস শব্দটাই ঘৃণার। যে কোন ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখতে হবে। যারা মানবতা বিবর্জিত কাজ করে তাদেরকে ঘৃণা করতেই হবে।
ক্যাব চালক আজিমুল হক বলেন, আকায়েদ উল্লাহ বাংলাদেশিদের কাছে একটি ঘৃণার নাম হয়ে গেছে। এ নাম যাতে ভবিষ্যতে কেউ না রাখে সে জন্য আমি সব বাংলাদেশির প্রতি আহবান জানাচ্ছি।
ম্যানহাটানের গিফটশফে কাজ করেন আলাউদ্দিন। তিনি বলেন, যখন থেকে এ ঘটনা শুনেছি তখন থেকে শঙ্কায় আছি। একজন কুলঙ্গার (আকায়েদ উল্লাহর) কর্মকান্ডে পুরো বাংলাদেশিরা যাতে ক্ষতিগ্রস্থ না হয়!
আলাউদ্দিন বলেন, আমি মূলধারার রাজনীতিকদের উদ্দেশ্যে বলবো, আপনারা আমাদের পাশে থাকুন। একজন আকায়েদ উল্লাহ মানে বাংলাদেশ নয়। আমরা শান্তিপ্রিয় বাংলাদেশি, আমরা শান্তিপ্রিয় মুসলমান। আমরা সব ধরনের সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে। আমরা আকায়েদ উল্লাহকে মন থেকে ঘৃণা করি।


  বলেন, ‘এটা একটা জঘন্য দিন আমাদের জন্য। একেকটি ঘটনা ঘটলে আমরা কিছু নিয়মতান্ত্রিক প্রতিবাদ করছি আর ঘৃণা জানিয়েই আমাদের দায়িত্ব শেষ করছি। কিন্তু এই ধরনের ঘটনার যেন পুনরাবৃত্তি না হয়, তার জন্য কোনো সচেতনতামূলক প্রচার চালাচ্ছি না।
ম্যানহাটনে টাইম স্কয়ার সাবওয়ে স্টেশন থেকে বাস স্টেশনে যাতায়াতের ভূগর্ভস্থ পথে বোমা হামলা হয় সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবস সোমবার স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে সাতটার দিকে। সন্দেহভাজন বোমা হামলাকারী হিসেবে বাংলাদেশি আকায়েদ উল্লাহকে গ্রেফতার করা হয়। ২৭ বছরের আকায়েদ উল্লাহ সাত বছর আগে নিউইয়র্কে আসেন। ব্রুকলিনে থাকেন তিনি।
এদিকে আকায়েদ উল্লাহর প্রতি ঘৃণা জানাতে বাংলাদেশি অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটস, জ্যামাইকা, ব্রঙ্কস ও ব্রুকলীনে প্রতিবাদ কর্মসূচী পালিত হচ্ছে। সব কর্মসূচী থেকে আকায়েদ উল্লাহর প্রতি ঘৃণা জানানো ও ক্ষোভ প্রকাশ করা হচ্ছে। সর্বশেষে বুধবার সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের হাটবাজার পার্টি হলে বাংলাদেশি আমেরিকান ব্যানারে এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সিটি কাউন্সিলম্যান ডেভিড উইপ্রিনসহ বিভিন্নস্তরের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। তাদের মধ্যে সিনিয়র সাংবাদিক সৈয়দ মোহাম্মদ উল্লাহ, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আবদুস সামাদ আজাদ, মূলধারার রাজনীতিক মোর্শেদ আলম,আসে।যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সাংবাদিকহাকিকুল ইসলাম খোকন  ,সাংবাদিক হাসান ফেরদৌস, কমিউনিটি এক্টিভিস্ট রানু ফেরদৌস, মুজাহিদ আনসারী, মিনহাজ আহমেদ সহ কমিউনিটির বিভিন্নস্তরের নেতৃবৃন্দ। এলাকার সিটি কাউন্সিলর ডেভিড উইপ্রিন বলেন, ‘এটা অবশ্যই একটি ঘৃণা জানানোর উপলক্ষ। কিন্তু আমাদের মনে রাখতে হবে, সন্ত্রাসীর কোনো দেশ বা ধর্ম নেই। কেউ যেন এই ঘটনার পর বাংলাদেশি কমিউনিটিকে সন্ত্রাসের সঙ্গে স্টিগমাটাইজড না করতে পারে, সেদিকেও নজর দিতে হবে।


বিনম্র শ্রদ্ধায় যুক্তরাষ্ট্রে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন

শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭

Picture

বক্তারা উল্লেখ করেন, ‘মুক্তিযুদ্ধে জাতির মেধাবী সন্তানদের আত্মদানের কথা তরুণ প্রজন্মের কাছে সঠিকভাবে তুলে ধরতে হবে এবং জাতিকে মেধাশুন্য করার হীন কাজে যারা সহযোগীতা করেছিল তাদেরও বিচার করতে হবে ।’ মিনহাজ আহমেদ সাম্মুর সঞ্চালনায় পরে অনুষ্ঠান স্থল থেকে প্রদীপ হাতে সকলে জ্যাকসন হাইটসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানা হয়।


দ্যা ক্লিন্টন ডেমোক্রেটিক ক্লাবের নৈশ ভোজ সভা হলিডে পার্টিতে দুই বাংলাদেশ প্রতিনিধির যোগদান

শনিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৭

alt

ছবিতে ডান থেকে ৩য়  প্রধান অতিথি কাউন্সিলম্যান পল এ ভ্যালন, বা থেকে ডা:ভিপল পটেল, মেলানি শাহ,দেলওয়ার মানিক,সিনিয়র সাংবাদিশ হাকিকুল ইসলাম খোকন ও দেভেনরা ভোরাকে দেখা য়াচেছ।ছবিঃবাপসনিউজ।

alt

ক্লাবের প্রেসিডেন্ট চাক এপেক সভার প্রারম্ভে উপ¯ি’ত সবাইকে আšতরিক শুভেচছা জানান।

Picture

সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিল-১৯ ডিষ্ট্রিক এর কাউন্সিলম্যান পল এ ভ্যালন।

alt

সম্মানিত বিশেষ অথিতি হিসাবে এতে আমন্ত্রিত ছিলেন বাংলাদেশ কমিউনিটির প্রতিনিধি আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন,সাবেক ব্যাংকার ও কমিউনিটি এক্ট্রিভিষ্ট দেলওয়ার মানিক।

alt

মূলধারার রাজনীতিক, সাংবাদিক, কবি, বিভিন্ন কমিউনিটি নেতৃবৃন্দসহ প্রায় শতাধিত অতিথি উপস্থিত ছিলেন।

alt

এছাড়াও নির্বাচিত প্রতিনিধিবৃন্দ। বাংলাদেশ প্রতিনিধিদের মূলধারায় অংশ নেয়ার জন্য ধন্যবাদ জানান নেতৃবৃন্দ।

alt

শেষে নৈশ ভোজে সবাইকে আপ্যায়ন করা হয়।
alt

বাকি ছবিগুলুতে দ্যা ক্লিন্টন ডেমোক্রেটিক ক্লাবের নৈশ ভোজ সভা ও হলিডে পার্টি র অংশ দেখা য়াচেছ।ছবি ঃ বাপসনিউজ।


নিউয়র্কের জ্যাকসন হাইট্স, ঢাকার সুপ্রিম কোর্ট ও গুলশান থেকে টেলি-ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সাম্প্রতিক বিশ্বে সংঘঠিত ঘটনা প্রবাহ সম্পর্কে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠনের জরুরী সভা ও এজিএম অনুষ্ঠিত

মঙ্গলবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ:নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইট্স, ঢাকার সুপ্রিম কোর্ট ও গুলশান থেকে ধারবাহিক ভাবে টেলি-ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রস্তাবিত প্রগতি মিডিয়া ইন্টারন্যাশনাল এর অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠনের উদ্যোগে আলোচনা সভা, সেমিনার এবং বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হয়। ১২ নভেম্বর, ২৮ নভেম্বর এবং ০৩ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং তারিখে অনুিষ্ঠত সভাসমুহে অংশগ্রহণ করেন, প্রগতি ইন্টারন্যাশনাল ইনকর্পোরেশন, প্রোগ্রেসিভ সোস্যাল অরগানাইজেশন, ইন্টারন্যাশনাল রাইটার্স এন্ড জার্নালিষ্ট অ্যাসোশিয়েশন (ওডঔঅ), ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিন্যাল জাষ্টিস ও ক্রাইম রিপোর্টার্স সোসাইটি, ওঔঅইঃা (ইজাবটিভি) বাংলাদেশ-ইউএসএ, কমিটি ফর ডেমোক্রেসি এন্ড ইলেকশন ওয়াচ, চেতনায়-৭১, আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন এবং প্রস্তাবিত প্রগতি মিডিয়া ইন্টারন্যাশনাল এর প্রতিনিধিবৃন্দ । সভায় সভাপতিত্ব করেন আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন শিক্ষাবিদ ও আইনজিবী অধ্যাপক ড. এম. মাকসুদ রহমান চৌধুরী ঊঝছ, এটর্নি এট ল’ ও জুরিষ্ট।
আলোচনা সভায় রোহিঙ্গা ইস্যু, সাংবাদিক ও লেখকদের বিভিন্ন সমস্যাবলী যেমন; সাংবাদিকদের পেশাগত কাজে হুমকি-ধমকি ও বিভিন্নভাবে হয়রানী না করার ব্যাপারে বর্তমান সরকার, বিশেষ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।
তাছাড়া বিভিন্ন দেশে যেমন মিয়ানমার সহ অন্যান্য দেশে মানবাধিকার লঙ্ঘন, গণহত্যা, ধর্ষন, দেশত্যাগে বাধ্য করা, উন্নত বিশ্বের বিভিন্ন দেশ কর্তৃক রিফিউজিদের গ্রহণ না করার সিদ্ধান্তের নিন্দা জানানো হয়। তবে বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং ওআইসি কর্তৃক রোহিঙ্গাদের প্রতি উদার মনোভাবের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর সিদ্ধান্ত সর্বসম্মত ভাবে গৃহীত হয়। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হকের অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয়। সভায় অংশগ্রহণকারী সংগঠনগুলো সর্বসমম্মতভাবে প্রগতি ইন্টারন্যাশনাল ইনকর্পোরেশন  এবং প্রোগ্রেসিভ সোস্যাল অরগানাইজেশন নিউইয়র্ক, ইউএসএ এর সিষ্টার কনসার্ন হিসেবে একিভুত হওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। ধারাবাহিক সভাসমূহে ইন্টারন্যাশনাল রাইটার্স এন্ড জার্নালিষ্ট অ্যাসোশিয়েশন (ওডঔঅ), প্রোগ্রেসিভ সোস্যাল অরগানাইজেশন, ওঔঅইঃা (ইজাব টিভি) বাংলাদেশ-ইউএসএ, রঃা (আইটিভি) ইউএসএ, দুবাই বাংলা টিভি, রাইটার্স এন্ড জার্নালিষ্ট অ্যাসোশিয়েশন, প্রগতি টিভি এন্ড নিউজ ডটকম, মানবাধিকার গবেষণা কেন্দ্র, আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন, সেন্টার ফর হিউম্যান রাইটস মুভমেন্ট (ঈঐজগ), হলিঊডবাংলানিঊজ ডটকম, বোষ্টনবাংলানিঊজ ডটকম, এনজেবিডিনিউজ ডটকম, কটিয়াদিনিউজ ডটকম, প্রবাসেরনিউজ২৪ ডটকম, বাংলাদেশ মানবাধিকার গবেষণা পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র, বঙ্গবন্ধু প্রচারকেন্দ্র  সমাজকল্যান পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাষ্ট্রস্থ সোহরাওয়ার্দী স্মৃতি পরিষদ, ঢাকা এসোসিয়েশন যুক্তরাষ্ট্র, ময়মনসিংহ বিভাগীয় সমিতি যুক্তরাষ্ট্র, এনওয়াইবিডিনিউজ, শিরি শিশু সাহিত্য কেন্দ্র, বনলতা -শিল্পী-সাহিত্যিক সাংবাদিক গোষ্ঠী নিউইয়র্ক, বিক্রমপুর-মুন্সিগঞ্জ এ্যাসোসিয়েশন, বৃহত্ত্বর ঢাকা জেলা কল্যান সমিতি, আমেরিক বাংলাদেশ এলাইন্স, শেরে বাংলা স্মৃতি পরিষদ, ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিন্যাল জাষ্টিস ও ক্রাইম রিপোর্টার্স সোসাইটি, বাংলাদেশ সোসাইটি নিউইয়র্ক এলাইমনি এ্যাসোসিয়েশন, বিবেক সংসদ পলিটিক্যাল ইনষ্টিটিউট, দ্যা রিজিওনাল রিপোর্টিং সোসাইটি, ন্যাশনাল ফ্রেন্ডশীপ সোসাইটি, ফোবানা এলাইমনি সোসাইটি ঢাকা’র প্রতিনিধি বৃন্দ অংশগ্রহন করেন।
বার্ষিক সাধারণ সভায় আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন শিক্ষাবিদ ও আইনজিবী অধ্যাপক ড. এম মাকসুদ রহমান চৌধুরী ঊঝছ,এটর্নি এট ল’ ও জুরিষ্ট কে সভাপতি ও সিইও, সিনিয়র সাংবাদিক ও কলামিষ্ট হাকিকুল ইসলাম খোকনকে কার্যকরী সভাপতি, সেলিনা এ. সেলিনকে মহাসচিব ও হিউম্যান রাইটস বিষয়ক সম্পাদক করে ২০১৭-২০১৯ ইং মেয়াদের জন্য প্রগতি ইন্টারন্যাশনাল ইনকর্পোরেশন, প্রোগ্রেসিভ সোস্যাল অরগানাইজেশন, ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিন্যাল জাষ্টিস ও ক্রাইম রিপোর্টার্স সোসাইটি ও ইন্টারন্যাশনাল রাইটার্স এন্ড জার্নালিষ্ট অ্যাসোশিয়েশন (ওডঔঅ) এর কার্য নির্বাহী কমিটি গঠিত হয়। খবর বাপসনিঊজ।
কমিটিতে লাইফটাইম অনারেবল প্রেসিডিয়াম মেম্বার হিসেবে মনোনীত হয়েছেন, মোঃ হোসেন সেরনিয়াবাত (প্রধান উপদেষ্টা), সংসদ সদস্য ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন (প্রধান পৃষ্ঠপোষক এবং  উপদেষ্টা), সাবেক প্রধান বিচারপতি এটিএম. আফজাল (সাংগঠনিক ন্যায়পাল), বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অব:) আবুল কালাম আজাদ, মোঃ লুৎফর রহমান, কাজী রফিকুল আলম (উপদেষ্টা এবং পৃষ্ঠপোষক), মোঃ আক্তার হোসেন (উপদেষ্টা এবং পৃষ্ঠপোষক), নাঈমা খান, নার্গিস আহমেদ, ডাঃ এম এম বিল্লাহ, সৈয়দ টিপু সুলতান (উপদেষ্টা এবং পৃষ্ঠপোষক), ইঞ্জিনিয়র ফরাসাত আলী (উপদেষ্টা এবং পৃষ্ঠপোষক), গজনফর আলী চৌধুরী, অধ্যাপক ড. পূরবী দত্ত, ড. জহিরুল হক, অধ্যাপক ড. রনধীর চইন, অধ্যাপক গোলাম রহমান, ব্যারিষ্টার তানিয়া আমির, এ্যাড.আব্দুর রহমান হাওলাদার, সিনিয়র সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদ, সিনিয়র সাংবাদিক সাইফুল আলম, সিনিয়র সাংবাদিক মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু, এ্যাড. শাহ আজিজুল হক, এ্যাড.মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু, এ্যাড. মমতাজ উদ্দিন মেহেদী, এ্যাড.আব্দুল হাই সরকার, ড. এ্যাড. জিয়াউর রহমান, এ্যাড. আতাউর রহমান, এ্যাড. সাদিয়া সুলতানা, এ্যাড. গোলাম মর্তুজা চৌধুরী রাজা, আই. ভিক্টোরিয়া লুইস কাপালী, ড. লোরী, ড.এহসান ইমদাদ, কনি চাঙ, এলেক্স এম. তাদভা আফরি শিয়াব খটক, এঞ্জেলিনা টেলর, মিশেল লা. বান্টি, ব্যারিষ্টার সাজিয়া হাফিজ খাঁন।
সিনিয়র সহ সভাপতি পদে নিযুক্ত হয়েছেন, মোঃ আনোয়ার হোসেন (সাবেক ডিআইজি), ড. বশির উদ্দিন, এম. কাওসার হোসেন, ড. জিয়াউর রহমান, মিসেস নাসিম পারভীন পারু, মিসেস ফাতেমাতুজ জোহরা, এ্যাড. রায়হান মোরশেদ,(ক্রাইম কোর্ট রিপোর্টার, আইনজিবী-লেখক ও গবেষক সমন্বয়কারী), ড. মোজাহাদুল ইসলাম মুজাহিদ (আন্তর্জাতিক হিউম্যান রাইটস ও অভিবাসন (রিফিউজি) সহায়তা বিষয়ক লিঁয়াজো প্রধান)।


সহ সভাপতি পদে পদায়িত হয়েছেন, এম. এম. মিজানুর রহমান (মুখপাত্র বাংলাদেশ), আইনজিবী ও সাহিত্যিক এস ইবাদুল ইসলাম, মুহাম¥দ শহিদুল্লাহ (মুখপাত্র নিউইয়র্ক), খালিদ ইয়াহিয়া এবং এম. এস ভিক্টোরিয়া লুইস (মুখপাত্র যুক্তরাজ্য),  শ্রী বিশ্বজিৎ সাহা (আন্তর্জাতিক গবেষণা ও প্রকাশনা বিষয়ক পরিচালক)।
বিশিষ্ট সাংবাদিক ও অধ্যাপক এ আর ফররুখ আহম্মেদ খসরু এবং মোঃ জসিম মাহমুদকে সভাপতি ও সিইও, নির্বাহী সভাপতি এবং মহাসচিবের বিশেষ উপদেষ্টা হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে।
নাঈমা খাঁনকে সিনিয়র সমন¦য়কারী (আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক, শিল্পকলা, সামাজিক সংগঠন সমুহ, এ্যাড. বশির উল্লাহকে বিশেষ সমন¦য়কারী (আন্তর্জাতিক ক্রাইম ও কোর্ট রিপোর্টার এ্যাসোসিয়েশন), মোঃ হানিফ আলীকে সমন¦য়কারী (শিক্ষা ও গবেষনা), রফিকুল্লাহ গাজ্জালীকে আন্তর্জাতিক সমন্বয়কারী (গণ সংযোগ), আনিসুল কবিরকে আন্তর্জাতিক সমন¦য়কারী (ইলেকট্রোনিক ও প্রিন্ট মিডিয়া) হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছে।
এ্যাড. আঞ্জুমানারাকে সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব, আবু হেনা মোস্তফা সাদেককে যুগ্ম মহাসচিব পদে মনোনীত করা হয়েছে।
সাংগঠনিক সম্পাদক নিযুক্ত হয়েছেন, এস এম আলমগীর কবির (বাংলাদেশ), মোঃ শাহাদাত হোসেন (যুক্তরাষ্ট্র) এবং মিসেস তাসলিমা রহমান (আন্তর্জাতিক)।
সম্পাদকমন্ডলীর অন্যান্য পদে নিযুক্ত হয়েছেন, কোষাধ্যক্ষ : আলী আহসান, মোহাম্মদ কাওসার, নাসরিন জাহান, সবিতা দাশ, আইন ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক : এ্যাড. কাজী শাহানার ইয়াসমিন, সহযোগী আইন ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক : এ্যাড. সাদিয়া আফরোজ, মুক্তিযুদ্ধ, প্রজন্ম-৭১ বিষয়ক গবেষনা সম্পাদক : ডা: নুজহাত চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল আহমেদ, তথ্য বিষয়ক সম্পাদক : জামিল আহমেদ, দপ্তর সম্পাদক : রাহাত হুসাইন, তারেক নাসরুল্লাহ,  আন্তর্জাতিক মহিলা বিষয়ক সাংগঠনিক সম্পাদক : বিউটি বেগম (যুক্তরাষ্ট্র), মিসেস মাহবুবা আক্তার (বাংলাদেশ), প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক : সাদেক মাহবুব জয় (বাংলাদেশ), নাসিম সিকদার, সাহিত্য সম্পাদক : সাদেক মাহবুব চৌধুরী, সংস্কৃতি ও শিল্পকলা  বিষয়ক সম্পাদক : রেশমা তোহা, প্রচার সম্পাদক : এ এইচ এম তারেক চৌধুরী, সাংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক : সবিতা দাশ (যুক্তরাষ্ট্র),  যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক : আব্দুল্লাহ আবু সাঈক (যুক্তরাষ্ট্র), আলাউদ্দিন বুলু (বাংলাদেশ), চলচ্চিত্র বিষয়ক সম্পাদক : খাঁন শওকাত (যুক্তরাষ্ট্র), মোঃ সালাম মাহমুদ (বাংলাদেশ), তথ্য, প্রযুক্তি ও বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক : মাহবুবুর রহমান বাবু, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক : হাফেজ মোঃ আবু সাঈদ, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক : অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন জাফরী, মাহবুবা আক্তার, ত্রান বিষয়ক সম্পাদক : নিসাত শাহরিয়ার, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক : অধ্যাপক ডাঃ শিউলী আজাদ,  ডাঃ  লুনা চাকমা (বাংলাদেশ), ডাঃ মলি বিল্লাহ (যুক্তরাষ্ট্র), ক্রাইম ও কোর্ট রিপোর্টার বিষয়ক সম্পাদক : রাবেয়া জাহিদ, লিগ্যাল এইড বিষয়ক সম্পাদক : আব্দুল শামীম সেরনিয়াবাত, শিশু বিষয়ক সম্পাদক : আয়শা আক্তার রুবী, ফটোগ্রাফি (ফটো সাংবাদিক) বিষয়ক সম্পাদক : নাসিম সিকদার, ইয়াসিন বাবুল, আপ্যায়ন সম্পাদক : মনিরুল আলম, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক : নেয়ামত উল্লাহ, মুশফিক মাহবুব চৌধুরী, নূরানী জাহিদ সুমী, নির্বাহী সদস্য : ড. শেখ এ. সালাম, এ্যাড. বশির উদ্দিন, এমএ করিম জাহাঙ্গীর, এস. নাসরিন মুনা, সাদিয়া আফরোজ,  ব্যারিষ্টার সাজিয়া,  হাফিজ খান, শিখা রায়, ডাঃ মাহফুজুল হক, অরূপ বাড়ৈ।
আলোচনা সভা ও এজিএম-এ পর্যবেক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রোগ্রেসিভ পার্টি বাংলাদেশ এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও মহাসচিব। অনুষ্ঠানের সভাপতি অধ্যাপক ড. এম মাকসুদ রহমান চৌধুরী ঊঝছ,এটর্নি এট ল’ ও জুরিষ্ট  উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে আগামী ১৭ ডিসেম্বর আন্তঃমহাদেশীয় সভা অনুষ্ঠানের এবং শীঘ্রই একটি আন্তর্জাতিক সিম্পোজিয়াম আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছেন।


MOIA (মইয়া) কমিউনিটিতে সে¦চ্ছাসেবক হওয়ার প্রশিক্ষণে বাঙ্গালীদের অংশ

সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৭

Picture

গত ৩০ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৫টায় ২৫৩ বড়ওয়ের ১৪ তলায় নিউইয়র্ক সিটি মেয়র অফিস ইমিগ্রেশন এ্যাফেয়ার্স হল রুমে প্রশিক্ষণের প্রারম্ভে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন  ও সূচনা বক্তব্য রাখেন মেয়র অফিস ইমিগ্রেশন এ্যাফেয়ার্সেও উর্দতন কর্মকর্তা সিলভিয়া সানচেজ।

alt

প্রশিক্ষণের উপস্থাপনা করেন মেয়র অফিসের ইমিগ্রেন্ট সার্ভিসের কর্ডিনেটর একমাত্র বাঙ্গালী নাইমা সুলতানা।

alt

মেয়র অফিস ইমিগ্রেশন এ্যাফেয়ার্স-এর নেভারহুড অরগ্রেনাজার তাহিতুন মরিয়াম বক্তব্য রাখেন। খবর বাপসনিউজ।

alt

প্রথমবারের ন্যায় নিউইয়র্ক সিটি মেয়র অফিস ইমিগ্রেন্ট এ্যাফেয়ার্স এর উদ্যোগে (MOIA) কমিউনিটিতে স্বেচ্ছাসেবক হওয়ার প্রশিক্ষণ কর্মসূচীতে অংশ নেন আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন সভাপতি ও বাপসনিউজ এডিটর সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন,নারী ম্যাগাজিন সম্পাদক পপি চৌধুরী, প্রকাশ ও চীপ রির্পোটার তপন চৌধুরী, সঙ্গীত শিল্পী বাবলী হক, কবি ও উপস্থাপক লুভনা কাইজার, মোশাররফ হোসেন এবং আরো ২ জন প্রবাসী বাঙ্গালী।

alt

প্রশিক্ষণ কর্মসূচীতে উপস্থাপক নাইমা সুলতানা গঙওঅ’র কার্যকলাপ,স্বেচ্ছাসেবীরা কি করেন, গঙওঅ কর্মসূচী, গঙওঅ কার্য নির্বাহী আদেশ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোকপাত করেন।

alt

মেয়রের অভিবাসন বিষয়ক কার্যালয় এই প্রথম বাঙ্গালী কমিউনিটির জন্য কমিউনিটিতে স্বেচ্ছাসেবক হওয়ার প্রশিক্ষণ কর্মসূচী চালু করেছেন।

alt


নিউয়র্কের জ্যাকসন হাইট্স, ঢাকার সুপ্রিম কোর্ট ও গুলশান থেকে টেলি-ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সাম্প্রতিক বিশ্বে সংঘঠিত ঘটনা প্রবাহ সম্পর্কে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠনের জরুরী সভা ও এজিএম অনুষ্ঠিত

সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ:নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইট্স, ঢাকার সুপ্রিম কোর্ট ও গুলশান থেকে ধারবাহিক ভাবে টেলি-ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রস্তাবিত প্রগতি মিডিয়া ইন্টারন্যাশনাল এর অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠনের উদ্যোগে আলোচনা সভা, সেমিনার এবং বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হয়। ১২ নভেম্বর, ২৮ নভেম্বর এবং ০৩ ডিসেম্বর  ২০১৭ ইং তারিখে অনুিষ্ঠত সভাসমুহে অংশগ্রহণ করেন, প্রগতি ইন্টারন্যাশনাল ইনকর্পোরেশন,  প্রোগ্রেসিভ সোস্যাল অরগানাইজেশন, ইন্টারন্যাশনাল রাইটার্স এন্ড জার্নালিষ্ট অ্যাসোশিয়েশন ((IWJA), ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিন্যাল জাষ্টিস ও ক্রাইম রিপোর্টার্স  সোসাইটি, IJABtv(ইজাবটিভি) বাংলাদেশ-ইউএসএ, কমিটি ফর ডেমোক্রেসি এন্ড ইলেকশন ওয়াচ, চেতনায়-৭১, আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন এবং প্রস্তাবিত প্রগতি মিডিয়া ইন্টারন্যাশনাল এর প্রতিনিধিবৃন্দ । সভায় সভাপতিত্ব করেন আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন শিক্ষাবিদ ও আইনজিবী অধ্যাপক ড. এম. মাকসুদ রহমান চৌধুরী ঊঝছ, এটর্নি এট ল’ ও জুরিষ্ট।
আলোচনা সভায় রোহিঙ্গা ইস্যু, সাংবাদিক ও লেখকদের বিভিন্ন সমস্যাবলী যেমন; সাংবাদিকদের পেশাগত কাজে হুমকি-ধমকি ও বিভিন্নভাবে হয়রানী না করার ব্যাপারে বর্তমান সরকার, বিশেষ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।
তাছাড়া বিভিন্ন দেশে যেমন মিয়ানমার সহ অন্যান্য দেশে মানবাধিকার লঙ্ঘন, গণহত্যা, ধর্ষন, দেশত্যাগে বাধ্য করা, উন্নত বিশ্বের বিভিন্ন দেশ কর্তৃক রিফিউজিদের গ্রহণ না করার সিদ্ধান্তের নিন্দা জানানো হয়। তবে বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং ওআইসি কর্তৃক রোহিঙ্গাদের প্রতি উদার মনোভাবের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর সিদ্ধান্ত সর্বসম্মত ভাবে গৃহীত হয়। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হকের অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয়। সভায় অংশগ্রহণকারী সংগঠনগুলো সর্বসমম্মতভাবে প্রগতি ইন্টারন্যাশনাল ইনকর্পোরেশন  এবং প্রোগ্রেসিভ সোস্যাল অরগানাইজেশন নিউইয়র্ক, ইউএসএ এর সিষ্টার কনসার্ন হিসেবে একিভুত হওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। ধারাবাহিক সভাসমূহে ইন্টারন্যাশনাল রাইটার্স এন্ড জার্নালিষ্ট অ্যাসোশিয়েশন (ওডঔঅ), প্রোগ্রেসিভ সোস্যাল অরগানাইজেশন, ওঔঅইঃা (ইজাব টিভি) বাংলাদেশ-ইউএসএ, রঃা (আইটিভি) ইউএসএ, দুবাই বাংলা টিভি, রাইটার্স এন্ড জার্নালিষ্ট অ্যাসোশিয়েশন, প্রগতি টিভি এন্ড নিউজ ডটকম, মানবাধিকার গবেষণা কেন্দ্র, আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন, সেন্টার ফর হিউম্যান রাইটস মুভমেন্ট (ঈঐজগ), হলিঊডবাংলানিঊজ ডটকম, বোষ্টনবাংলানিঊজ ডটকম, এনজেবিডিনিউজ ডটকম, কটিয়াদিনিউজ ডটকম, প্রবাসেরনিউজ২৪ ডটকম, বাংলাদেশ মানবাধিকার গবেষণা পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র, বঙ্গবন্ধু প্রচারকেন্দ্র ,সমাজকল্যান পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাষ্ট্রস্থ সোহরাওয়ার্দী স্মৃতি পরিষদ, ঢাকা এসোসিয়েশন যুক্তরাষ্ট্র, ময়মনসিংহ বিভাগীয় সমিতি যুক্তরাষ্ট্র, এনওয়াইবিডিনিউজ, শিরি শিশু সাহিত্য কেন্দ্র, বনলতা শিল্পী-সাহিত্যিক সাংবাদিক গোষ্ঠী নিউইয়র্ক, বিক্রমপুর-মুন্সিগঞ্জ এ্যাসোসিয়েশন, বৃহত্ত্বর ঢাকা জেলা কল্যান সমিতি, আমেরিক বাংলাদেশ এলাইন্স, শেরে বাংলা স্মৃতি পরিষদ, ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিন্যাল জাষ্টিস ও ক্রাইম রিপোর্টার্স সোসাইটি, বাংলাদেশ সোসাইটি নিউইয়র্ক এলাইমনি এ্যাসোসিয়েশন, বিবেক সংসদ পলিটিক্যাল ইনষ্টিটিউট, দ্যা রিজিওনাল রিপোর্টিং সোসাইটি, ন্যাশনাল ফ্রেন্ডশীপ সোসাইটি, ফোবানা এলাইমনি সোসাইটি ঢাকা’র প্রতিনিধি বৃন্দ অংশগ্রহন করেন।      


বার্ষিক সাধারণ সভায় আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন শিক্ষাবিদ ও আইনজিবী অধ্যাপক ড. এম মাকসুদ রহমান চৌধুরী ঊঝছ,এটর্নি এট ল’ ও জুরিষ্ট কে সভাপতি ও সিইও, সিনিয়র সাংবাদিক ও কলামিষ্ট হাকিকুল ইসলাম খোকনকে নির্বাহী সভাপতি, সেলিনা এ. সেলিনকে মহাসচিব ও হিউম্যান রাইটস বিষয়ক সম্পাদক করে ২০১৭-২০১৯ ইং মেয়াদের জন্য প্রগতি ইন্টারন্যাশনাল ইনকর্পোরেশন, প্রোগ্রেসিভ সোস্যাল অরগানাইজেশন, ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিন্যাল জাষ্টিস ও ক্রাইম রিপোর্টার্স সোসাইটি ও ইন্টারন্যাশনাল রাইটার্স এন্ড জার্নালিষ্ট অ্যাসোশিয়েশন (ওডঔঅ) এর কার্য নির্বাহী কমিটি গঠিত হয়। খবর বাপসনিঊজ।
কমিটিতে লাইফটাইম অনারেবল প্রেসিডিয়াম মেম্বার হিসেবে মনোনীত হয়েছেন,  মোঃ হোসেন সেরনিয়াবাত (প্রধান উপদেষ্টা), সংসদ সদস্য ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন (প্রধান পৃষ্ঠপোষক এবং  উপদেষ্টা), সাবেক প্রধান বিচারপতি এটিএম. আফজাল (সাংগঠনিক ন্যায়পাল), বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অব:) আবুল কালাম আজাদ, মোঃ লুৎফর রহমান, কাজী রফিকুল আলম (উপদেষ্টা এবং পৃষ্ঠপোষক), মোঃ আক্তার হোসেন (উপদেষ্টা এবং পৃষ্ঠপোষক), নাঈমা খান, নার্গিস আহমেদ, ডাঃ এম এম বিল্লাহ, সৈয়দ টিপু সুলতান (উপদেষ্টা এবং পৃষ্ঠপোষক), ইঞ্জিনিয়র ফরাসাত আলী (উপদেষ্টা এবং পৃষ্ঠপোষক), গজনফর আলী চৌধুরী,  অধ্যাপক ড. পূরবী দত্ত, ড. জহিরুল হক, অধ্যাপক ড. রনধীর চইন,  অধ্যাপক গোলাম রহমান, ব্যারিষ্টার তানিয়া আমির, এ্যাড.আব্দুর রহমান হাওলাদার, সিনিয়র সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদ, সিনিয়র সাংবাদিক সাইফুল আলম, সিনিয়র সাংবাদিক মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু, এ্যাড. শাহ আজিজুল হক, এ্যাড.মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু, এ্যাড. মমতাজ উদ্দিন মেহেদী, এ্যাড.আব্দুল হাই সরকার,  ড. এ্যাড. জিয়াউর রহমান, এ্যাড. আতাউর রহমান, এ্যাড. সাদিয়া সুলতানা, এ্যাড. গোলাম মর্তুজা চৌধুরী রাজা, আই. ভিক্টোরিয়া লুইস কাপালী, ড. লোরী, ড.এহসান ইমদাদ, কনি চাঙ, এলেক্স এম. তাদভা আফরি শিয়াব খটক, এঞ্জেলিনা টেলর, মিশেল লা. বান্টি, ব্যারিষ্টার সাজিয়া হাফিজ খাঁন।
সিনিয়র সহ সভাপতি পদে নিযুক্ত হয়েছেন, মোঃ আনোয়ার হোসেন (সাবেক ডিআইজি), ড. বশির উদ্দিন, এম. কাওসার হোসেন, ড. জিয়াউর রহমান, মিসেস নাসিম পারভীন পারু, মিসেস ফাতেমাতুজ জোহরা, এ্যাড. রায়হান মোরশেদ,(ক্রাইম কোর্ট রিপোর্টার, আইনজিবী-লেখক ও গবেষক সমন্বয়কারী), ড. মোজাহাদুল ইসলাম মুজাহিদ (আন্তর্জাতিক হিউম্যান রাইটস ও অভিবাসন (রিফিউজি) সহায়তা বিষয়ক লিঁয়াজো প্রধান)।
সহ সভাপতি পদে পদায়িত হয়েছেন,, এম. এম. মিজানুর রহমান (মুখপাত্র বাংলাদেশ), আইনজিবী ও সাহিত্যিক এস ইবাদুল ইসলাম, মুহাম¥দ শহিদুল্লাহ (মুখপাত্র নিউইয়র্ক), খালিদ ইয়াহিয়া এবং এম. এস ভিক্টোরিয়া লুইস (মুখপাত্র যুক্তরাজ্য),  শ্রী বিশ্বজিৎ সাহা (আন্তর্জাতিক গবেষণা ও প্রকাশনা বিষয়ক পরিচালক)।
বিশিষ্ট সাংবাদিক ও অধ্যাপক এ আর ফররুখ আহম্মেদ খসরু এবং মোঃ জসিম মাহমুদকে সভাপতি ও সিইও, নির্বাহী সভাপতি এবং মহাসচিবের বিশেষ উপদেষ্টা হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে।
নাঈমা খাঁনকে সিনিয়র সমন¦য়কারী (আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক, শিল্পকলা, সামাজিক সংগঠন সমুহ,  এ্যাড. বশির উল্লাহকে বিশেষ সমন¦য়কারী (আন্তর্জাতিক ক্রাইম ও কোর্ট রিপোর্টার এ্যাসোসিয়েশন), মোঃ হানিফ আলীকে সমন¦য়কারী (শিক্ষা ও গবেষনা), রফিকুল্লাহ গাজ্জালীকে আন্তর্জাতিক সমন্বয়কারী (গণ সংযোগ), আনিসুল কবিরকে আন্তর্জাতিক সমন¦য়কারী (ইলেকট্রোনিক ও প্রিন্ট মিডিয়া) হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছে।
এ্যাড. আঞ্জুমানারাকে সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব, আবু হেনা মোস্তফা সাদেককে যুগ্ম মহাসচিব পদে মনোনীত করা হয়েছে।
সাংগঠনিক সম্পাদক নিযুক্ত হয়েছেন, এস এম আলমগীর কবির (বাংলাদেশ), মোঃ শাহাদাত হোসেন (যুক্তরাষ্ট্র) এবং মিসেস তাসলিমা রহমান (আন্তর্জাতিক)।
সম্পাদকমন্ডলীর অন্যান্য পদে নিযুক্ত হয়েছেন, কোষাধ্যক্ষ : আলী আহসান, মোহাম্মদ কাওসার, নাসরিন জাহান, সবিতা দাশ, আইন ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক : এ্যাড. কাজী শাহানার ইয়াসমিন, সহযোগী আইন ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক : এ্যাড. সাদিয়া আফরোজ, মুক্তিযুদ্ধ, প্রজন্ম-৭১ বিষয়ক গবেষনা সম্পাদক : ডা: নুজহাত চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল আহমেদ, তথ্য বিষয়ক সম্পাদক : জামিল আহমেদ, দপ্তর সম্পাদক : রাহাত হুসাইন, তারেক নাসরুল্লাহ,  আন্তর্জাতিক মহিলা বিষয়ক সাংগঠনিক সম্পাদক : বিউটি বেগম  (যুক্তরাষ্ট্র), মিসেস মাহবুবা আক্তার (বাংলাদেশ),  প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক : সাদেক মাহবুব জয় (বাংলাদেশ), নাসিম সিকদার, সাহিত্য সম্পাদক : সাদেক মাহবুব চৌধুরী, সংস্কৃতি ও শিল্পকলা  বিষয়ক সম্পাদক : রেশমা তোহা,  প্রচার  সম্পাদক : এ এইচ এম তারেক চৌধুরী, সাংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক : সবিতা দাশ (যুক্তরাষ্ট্র),  যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক : আব্দুল্লাহ আবু সাঈক (যুক্তরাষ্ট্র), আলাউদ্দিন বুলু (বাংলাদেশ), চলচ্চিত্র বিষয়ক সম্পাদক : খাঁন শওকাত (যুক্তরাষ্ট্র), মোঃ সালাম মাহমুদ (বাংলাদেশ), তথ্য, প্রযুক্তি ও বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক : মাহবুবুর রহমান বাবু, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক : হাফেজ মোঃ আবু সাঈদ, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক : অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন জাফরী, মাহবুবা আক্তার,  ত্রান বিষয়ক সম্পাদক :  নিসাত শাহরিয়ার,  স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক : অধ্যাপক ডাঃ শিউলী আজাদ,  ডাঃ  লুনা চাকমা (বাংলাদেশ), ডাঃ মলি বিল্লাহ (যুক্তরাষ্ট্র), ক্রাইম ও কোর্ট রিপোর্টার বিষয়ক সম্পাদক : রাবেয়া জাহিদ, লিগ্যাল এইড বিষয়ক সম্পাদক : আব্দুল শামীম সেরনিয়াবাত, শিশু বিষয়ক সম্পাদক : আয়শা আক্তার রুবী, ফটোগ্রাফি (ফটো সাংবাদিক) বিষয়ক সম্পাদক : নাসিম সিকদার, ইয়াসিন বাবুল, আপ্যায়ন সম্পাদক : মনিরুল আলম, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক : নেয়ামত উল্লাহ, মুশফিক মাহবুব চৌধুরী, নূরানী জাহিদ সুমী, নির্বাহী সদস্য : ড. শেখ এ. সালাম, এ্যাড. বশির উদ্দিন, এমএ করিম জাহাঙ্গীর, এস. নাসরিন মুনা, সাদিয়া আফরোজ,  ব্যারিষ্টার সাজিয়া,  হাফিজ খান, শিখা রায়, ডাঃ মাহফুজুল হক, অরূপ বাড়ৈ।
আলোচনা সভা ও এজিএম-এ পর্যবেক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রোগ্রেসিভ পার্টি বাংলাদেশ এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও মহাসচিব। অনুষ্ঠানের সভাপতি অধ্যাপক ড. এম মাকসুদ রহমান চৌধুরী ঊঝছ,এটর্নি এট ল’ ও জুরিষ্ট  উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে আগামী ১৭ ডিসেম্বর আন্তঃমহাদেশীয় সভা অনুষ্ঠানের এবং শীঘ্রই একটি আন্তর্জাতিক সিম্পোজিয়াম আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছেন।


নিউইয়র্কে ‘বাংলাদেশের রাজনীতিতে ছাত্রলীগের ভূমিকা’ শীর্ষক সেমিনার

শুক্রবার, ০১ ডিসেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,হেলাল মাহমুদ, বাপসনিউজ, নিউইয়র্ক থেকে : ‘তলাবিহীন ঝুড়ির অপবাদ ঘুচিয়ে বাংলাদেশ আজ উপচে পড়া ঝুড়ির দেশে পরিণত হয়েছে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার দূরদরির্শতাপূর্ণ নেতৃত্ব গুণে’-এমন অভিমত পোষণ করেছেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির প্রভাবশালী সদস্য আব্দুল মান্নান এমপি। মান্নান বলেন, ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতার পরই মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত শক্তির পুনর্বাসন কেন্দ্রে পরিণত হয়েছিল জাসদ নামক সংগঠনটি।

Picture

সদ্যস্বাধীন বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করার মতলবে বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্রের তকমা লাগিয়ে ঐতিহ্যবাহী ছাত্রলীগে ভাঙনের জঘন্য চেষ্টা চালানো হয়। শুধু তাই নয়, পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট হত্যাকান্ডের প্লট তৈরীর ক্ষেত্রেও এই বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্রের ব্যানারে অনেক কাজ হয়েছে, যা এখন সংশ্লিষ্টরা অনুধাবনে সক্ষম হয়েই বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ গড়ার কাজে মনোনিবেশ করেছেন।’

alt
২৯ নভেম্বর বুধবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে মেজবান পার্টি হলে ‘বাংলাদেশের রাজনীতিতে ছাত্রলীগের ভূমিকা’ শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান বক্তা হিসেবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল মান্নান আরো বলেন, ‘একাত্তরে যারা মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে ছিল, যারা পাক হায়েনাদের দালালী করেছে, সেই শ্রেণীর মানুষেরা এখনও ছাত্রলীগের ঐতিহাসিক ইমেজ বিনষ্টের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। ছাত্রলীগের সংগ্রামী ইতিহাসকে খাটো করতে ওরা সংঘবদ্ধভাবে ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অবিচল আস্থাশীল একজনকেও বিভ্রান্ত করা সম্ভব হবে না।’

alt
যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ আয়োজিত এ সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান। স্বাগত বক্তব্য দেন সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ। সেমিনার সঞ্চালনা করেন সাংগঠনিক সম্পাদক  ফারুক আহমেদ। বিষয়বস্তুর ওপর লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন সংগঠনের অন্যতম সহ-সভাপতি শামসুদ্দিন আজাদ।

alt
সেমিনারে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক নেতা-কর্মীদের অনেকেই ছিলেন। এর অন্যতম হলেন সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম এ সালাম, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য হাকিকুল ইসলাম খোকন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের অন্যতম সহ-সভাপতি আকতার হোসেন এবং সৈয়দ বসারত আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন দেওয়ান এবং আবুল হাসিব মামুন, প্রচার সম্পাদক হাজী এনাম, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মোজাহিদুল ইসলাম, যুব সম্পাদক মাহবুবুর রহমান টুকু, ত্রাণ সম্পাদক জাহাঙ্গির হোসেন, ,নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী,ভারপ্রাপ্ত  সাধারণ সম্পাদক নুরল আমিন বাবু, সহ-সভাপতি মাসুদ হোসেন সিরাজি, আবুল হুসেন, মোর্শেদা জামান,আব্দুল কাদের মিয়া এবং আলমগীর মিয়া, যুগ্ম সম্পাদক খায়রোল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক শিবলী সাদিক, নান্টু মিয়া, মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী এবং সুমন মাহমুদ,  স্বেচ্ছাসেবক লীগের আন্তর্জাতিক সম্পাদক সাখাওয়াত বিশ্বাস, আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহানারা রহমান, খোরশেদ খন্দকার, প্রমুখ।

alt
সেমিনারে অংশগ্রহণকারি সকলেই দৃপ্ত প্রত্যয়ে ঘোষণা করেন যে, বায়ান্নর ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে উনত্তরের গণঅভ্যুত্থান, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ এবং নব্বইয়ের স্বৈরাচার পতন আন্দোলনে অবিস্মরণীয় ভূমিকা পালনকারি ছাত্রলীগের বর্তমান ও সাবেক নেতাদের মধ্যে যারা এই প্রবাসে রয়েছেন, তাদের ইস্পাতদৃঢ় ঐক্যে ফাটল ধরানো চলবে না।

alt
সভাপতির সমাপনঅী বক্তব্যে ড. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘ছাত্রলীগের ভূমিকা স্বর্ণাক্ষরে লেখা রয়েছে বাংলাদেশের ইতিহাসে। সুতরাং এ নিয়ে বিভ্রান্তির অবকাশ থাকতে পারে না।’ ড. সিদ্দিক বলেন, ‘সামনের বছর জাতীয় নির্বাচন।

alt

এটি বাংলাদেশের এগিয়ে চলার ক্ষেত্রে বিশেষ গুরুত্ব বহন করছে। এই নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষের প্রার্থীদের বিপুল বিজয় দিয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে চলমান উন্নয়ন-কর্মকান্ড অব্যাহত রাখতে হবে। এজন্যে সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে।’

alt
ছাত্রলীগের সাবেক নেতা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী এ সেমিনার প্রসঙ্গে গণমাধ্যমকে বলেন, ‘একাত্তরের পরাজিত শক্তির দোসরেরা এই প্রবাসেও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ও তার নেতৃত্বাধীন সরকারের বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছে। প্রতিদিনই ওরা বাংলাদেশের ইমেজ বিপন্ন হওয়ার মত প্রপাগান্ডা চালাচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ চিহ্নিত মিডিয়ার মাধ্যমে। এহেন অপতৎপরতা রুখে দিতে মুজিব সৈনিকদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। বিশেষ করে ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতা-কর্মীকে অতন্দ্র প্রহরীর ন্যায় কাজ করতে হবে।’

alt

‘এটা ভুলে গেলে চলবে না যে, বাংলাদেশের স্বাধীনতাসহ যত অর্জন-তার সবটাই এসেছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা রচনার পথও সুগম হয়েছে তারই কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষণতাপূর্ণ নেতৃত্বে’-উল্লেখ করেন ছাত্রলীগের সাবেক সংগঠক জাকারিয়া চৌধুরী।