Slideshows

http://bostonbanglanews.com/index.php/components/components/com_gk3_photoslide/thumbs_big/605744Finding_Immigrant____SaKiL___0.jpg

কুইন্স ফ্যামিলি কোর্টে অভিবাসী

হাকিকুল ইসলাম খোকন/বাপ্‌স নিউজ/প্রবাসী নিউজ ঃ বষ্টনবাংলা নিউজ ঃ দ্যা ইন্টারফেইস সেন্টার অব নিউইয়র্ক ও আইনী সহায়তা সংগঠন নিউইয়র্ক এর উদ্যোগে গত ২৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল ৯ See details

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

যুক্তরাষ্ট্রের খবর

২৫ মার্চ ‘গণহত্যা দিবসে’ এক মিনিটের ‘ব্ল্যাক আউট’ পালন করবে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ

শনিবার, ২৪ মার্চ ২০১৮

 ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে ঢাকায় পাকিস্তান হানাদার বাহিনী কর্তৃক বর্বরোচিত হামলার সেই বিয়োগান্তক ঘটনার স্মরণেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে এক মিনিটের ‘ব্ল্যাক আউট।যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ  এর সভাপতি ড.সিদ্দিকুর রহমান আরো জানান, সুশৃঙ্খল পরিবেশে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে এবারের জাতীয় দিবস শান্তিপূর্ণভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে কাজ করছে।বাংলাদেশে আগামী ২৫ মার্চ রাত ৯টায় সারাদেশে সাথে  তালমিলিয়ে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ২৫ মার্চ সকাল ৭টায়  এক মিনিটের জন্য ‘ব্ল্যাক আউট’ কর্মসূচি পালন করা হবে যুক্তরাষ্ট্র।

Picture

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে ঢাকায় পাকিস্তান হানাদার বাহিনী কর্তৃক বর্বরোচিত হামলার সেই বিয়োগান্তক ঘটনার স্মরণেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। গণহত্যা দিবস পালন এবং স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে ‘আলোর মিছিল’ অনুষ্ঠিত হবে ২৫ মার্চ রাতে।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ  এর সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান আরও জানান, রাতে ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে ঢাকায় পাকিস্তান হানাদার বাহিনী কর্তৃক বর্বরোচিত হামলার সেই বিয়োগান্তক ঘটনার স্মরণেই ব্যক্তি পর্যায়ে সবাই তার বাতি নিভিয়ে দেবেন মাত্র এক মিনিটের জন্য। এটি হবে প্রতীকী। ২৫ মার্চ কালো রাতে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন ও মহান স্বাধীনতা দিবস আলোচনা সভা উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সকল স্তরের সমর্থক ও শুভাকাংখীদের আগামী ২৫ শে মার্চ রোববার সন্ধ্যাঁ ৮ টায় মেজবান রেষ্টুরেন্টে জ্যাকসন হাইটস উপস্থিত থাকতে অনুরোধ করেছেন।এছাড়াও নিউইর্য়কসহ সব ষ্টেটে স্বাধীনতা দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করার আহবান জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ এর সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান ও ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদ আব্দুস সামাদ আজাদ।


নিউইয়র্কের স্কুলগুলোতে প্রতি ১০ জনে ১ জন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী!

শনিবার, ২৪ মার্চ ২০১৮

সাহেদ আলম : বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে :নিউইয়র্কের বিশেষায়িত স্কুলগুলোতে এখন প্রতি ১০ জন শিক্ষার্থীর ১ জন বাংলাদেশি! অবিশ্বাস্য হলেও এটিই সম্ভব করে দেখিয়েছে নিউইয়র্কের বাংলাদেশি পরিবারগুলো। অবশ্য এর পেছনে বাঙালি কমিউনিটির কোচিং সেন্টারগুলোর অবদান অনস্বীকার্য। কোচিং ভালো না খারাপ— সে বিতর্ক থাকলেও নিউইয়র্কের তুমুল প্রতিযোগিতামূলক শিক্ষা ব্যবস্থায় বিশ্বের নানা জাতির বাচ্চাদের সঙ্গে বাংলাদেশি পরিবারের বাচ্চারা প্রতিযোগিতা করে এগিয়ে যেতে এই বাঙালি কোচিং সেন্টারের দ্বারস্থ হতেই হচ্ছে— এটাই এখন বাস্তবতা।
নিউইয়র্কের আটটি বিশেষায়িত স্কুলে এবার ভর্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিল ২৮ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী। এদের মধ্যে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে মাত্র ৫ হাজার ৭৮ জন। এর মধ্যে পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থীই বাংলাদেশি। অর্থাৎ ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের ১০ শতাংশই বাংলাদেশি। এটাকে বড় অর্জন হিসেবেই দেখছেন সংশ্লিষ্টরা।
এবারের ভর্তিযুদ্ধে আফ্রিকান স্ট্যাটেন আইল্যান্ডের টেকনিক্যাল স্কুলে একজন মাত্র আফ্রিকান-আমেরিকান শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পেয়েছে। আর স্টাইভস্টান্ট স্কুলে আফ্রিকান-আমেরিকান শিক্ষার্থী ভর্তি হতে পেরেছে ১৩ জন। বাকি ছয়টি বিশেষায়িত স্কুলের প্রতিটিতে আফ্রিকান-আমেরিকান শিক্ষার্থী ভর্তির সংখ্যা ১০-এর নিচে। নিউইয়র্কের ল্যাটিন-আমেরিকান পরিবারগুলোরও চিত্র এই রকমই। তবে উল্টো চিত্র এশীয় এবং শ্বেতাঙ্গ শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে। এই তথ্য দিয়েছে নিউইয়র্কের শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘চকবিট’।

চকবিটের প্রতিবেদনে এশীয়দের এগিয়ে যাওয়ার কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করা হয়েছে। অবশ্য নির্দিষ্ট কোনো দেশের নাম ধরে কিছু বলেনি প্রতিষ্ঠানটি। তবে কমিউনিটিতে খোঁজ নিয়ে দেখা যাচ্ছে, বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের বিশেষায়িত স্কুলের ভর্তি পরীক্ষায় কৃতকার্য হওয়ার হার আফ্রিকান-আমেরিকান বা ল্যাটিন-আমেরিকান কমিউনিটিগুলোর থেকে বেশি। বাংলাদেশি মালিকানাধীন টিউটোরিয়াল সেন্টারগুলোর তথ্যমতে, শীর্ষ স্কুল স্টাইভস্টান্টে ৮০-১০০ জন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পেয়েছে। আর বাদবাকি সাতটি স্কুল মিলিয়ে এই সংখ্যা ৫০০-এর বেশি।
এ বছর স্টাইভস্টান্ট স্কুলে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে হিলসাইডের শিক্ষার্থী ইতিহা আহমেদ। তারা বাবা হেলিমউদ্দীন গর্বভরে জানান, পুরো নিউইয়র্কে ভর্তি পরীক্ষায় দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে তার মেয়ে।
বিশেষায়িত স্কুল নিয়ে এত কথা বলা হচ্ছে কারণ, আমেরিকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে প্রতি বছর এই বিশেষায়িত স্কুলগুলো থেকেই সর্বোচ্চসংখ্যক শিক্ষার্থী স্কলারশিপসহ ভর্তির সুযোগ পায়। ফলে ইতিহার মতো যারাই বিশেষায়িত স্কুলে সুযোগ পেয়েছে, মাঝপথে ঝরে না পড়লে আমেরিকার বড় বড় বিশ্ববিদ্যালয়গুলো স্কলারশিপসহ ভর্তির সুযোগ তারা পেতে পারে। আর এই সম্ভাব্যতাই বিশেষায়িত স্কুলে ভর্তির প্রেরণার মূল কারণ।
তবে বাচ্চাকে বিশেষায়িত স্কুলে ভর্তি করাটাও চাট্টিখানি কথা না! আমেরিকায় গিয়ে নতুন পাঠ্যসূচি মুখোমুখি হতে হয় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের। এ ছাড়া রয়েছে অন্য বাস্তবতাও। আর এ কারণেই তাদের ছুটতে হয় বিভিন্ন টিউটোরিয়াল তথা কোচিং সেন্টারে।
২০১৫ সাল থেকেই নিউইয়র্ক নগরের বিশেষায়িত স্কুলে ভর্তিতে বাংলাদেশি বাচ্চাদের ব্যাপক হারে সাফল্য চোখে পড়ছে। বিশেষায়িত স্কুলগুলোর মধ্যে স্টাইভস্টান্ট, ব্রঙ্কস সায়েন্স, ব্রুকলিন টেক, স্ট্যাটেন আইল্যান্ড টেক, ব্রুকলিন ল্যাটিন, লাগোর্ডিয়া হাইস্কুল অব মিউজিক অ্যান্ড আর্টস, হাইস্কুল ফর ম্যাথ, সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিটি কলেজ), হাইস্কুল অব আমেরিকান স্টাডিজ অ্যাট লিম্যান কলেজ, কুইন্স কোহাইস্কুল ফর দ্য সায়েন্স অ্যাট ইয়র্ক কলেজ প্রভৃতি স্কুলে প্রতি বছরই পাঁচ শতাধিক বাংলাদেশি-আমেরিকান শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পাচ্ছে। নিয়মিত পড়াশোনার বাইরে এদের বেশির ভাগই নো না কোনো টিউটোরিয়াল সেন্টারের সঙ্গে যুক্ত ছিল বলে বাংলাদেশি অভিভাবকেরা জানান।
নিউইয়র্কের সাংস্কৃতিক সংগঠন বিপা’র প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক অ্যানি ফেরদৌস বলেন, ‘আমি আমার নিজের সন্তানকেও কোচিংয়ে দিয়েছিলাম অল্প কিছু দিনের জন্য। অস্বীকার করার উপায় নেই, আমরা অনেক সময়ই এ দেশীয় শিক্ষা বুঝি না। এদের পাঠ্যসূচি আমাদের জানা বিদ্যা দিয়ে সম্পূর্ণ পড়ানো সম্ভব হয় না। ডাইভার্সিটি ভিসা (ডিভি) লটারিতে আসা অভিভাবকদের বেলায় এটা আরও বড় সমস্যা। তাঁদের অধিকাংশই উচ্চশিক্ষিত না হওয়ায় পুরোটাই নির্ভর করতে হয় এসব কোচিং সেন্টারের ওপর।’
নিউইয়র্কে বসবাসরত সব বাংলাদেশি পরিবারের গল্পই মোটামুটি এই রকম। ভালো স্কুলে ভর্তির আকাশ ছোঁয়া স্বপ্ন নিয়ে টিউটোরিয়াল সেন্টারগুলোর সামনে ধরনা দিয়ে দিন গোনেন বাবা-মায়েরা। বাবা-মায়েদের মধ্যে মুখ্য আলোচনার বিষয়ই থাকে, কার সন্তান ব্রঙ্কস সায়েন্সে ভর্তির সুযোগ পেল, কার সন্তান স্টাইভস্টান্টে সুযোগ পেল এসব।
তবে প্রতিটি সাধারণ বা বিশেষায়িত স্কুলে ভর্তির জন্য বিনা মূল্যে কোচিং পরিষেবা রয়েছে নিউইয়র্ক নগরের শিক্ষাবোর্ডের। কিন্তু সেখানকার কোচিংয়ের ভর্তি সফলতার হার বেসরকারি কোচিংয়ের থেকে অনেক কম। তাই বাবা-মায়েরা ভরসা করে উঠতে পারেন না। তাঁরা ছয় মাসের কোর্স ফি ৪ হাজার ৬০০ থেকে ৫ হাজার ডলার খরচ করে হলেও এসব কোচিং সেন্টারে বাচ্চাকে পাঠিয়ে ভালো স্কুলে ভর্তির নিশ্চয়তা খোঁজেন।
উচ্চশিক্ষায় এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে কোচিং সেন্টারের প্রশংসা যেমন আছে, তেমনি আছে বিতর্কও। এ বিষয়ে অ্যানি ফেরদৌস বলেন, ‘কোচিং একটা মহামারি হয়ে উঠেছে আমাদের কমিউনিটিতে। শুধু আমাদের কমিউনিটিতেই নয়, চীনা ও কোরীয়দের মধ্যেও এই প্রবণতা ভয়াবহ। এর পরেই সম্ভবত বাংলাদেশিরা। এখানে পরিবারগুলোর মধ্যে জনপ্রিয় ধারণা, বিশেষায়িত স্কুলে বাচ্চাকে ভর্তি করাতে না পারলে জীবনই বৃথা। সন্তানের জন্য কোন কোচিং করলে ভালো হবে না হবে, অন্যদের সেই চিন্তা আমাকেও প্রভাবিত করেছিল আমার বাচ্চার ভর্তির সময়।’
ইনভেস্টোপিডিয়া ওয়েবসাইটের তথ্যমতে, ২০১৬ সালে নিউইয়র্কের দ্রুত বর্ধমান ছয় ব্যবসার একটি হলো এই টিউটোরিয়াল বা শিক্ষা সংক্রান্ত পরিষেবার ব্যবসা। শেয়ারবাজার, স্বাস্থ্যসেবা, প্রফেশনাল বা টেকনিক্যাল সার্ভিস, খুচরা দোকান, ক্ষুদ্রশিল্পের পরেই স্থান করে নিয়েছে কোচিং ব্যবসা।
অ্যানি ফেরদৌস অকপটেই বললেন, ‘আসলেই কোচিং একটা ব্যবসাই বটে। অথচ টিউটোরিয়াল সেন্টারগুলো প্রচার করে, তারা কমিউনিটির সেবা করছে। এটাকে সেবা দেখিয়ে অনেক কোচিং জাতীয় বাহবাও নিচ্ছেন। কমিউনিটি সেবা হলে এত উচ্চমূল্যে পরিশোধ করতে হতো না।’
তবে এই ধারণার বিপরীতে অবস্থান মামুন’স টিউটোরিয়ালের প্রতিষ্ঠাতা শেখ আল মামুনের। তিনি বলেন, ‘ব্যবসা বলা যায় ম্যানহাটনসহ বিত্তবান অধ্যুষিত এলাকাগুলোয় স্থাপিত টিউটোরিয়ালগুলোর ক্ষেত্রে। তারা ঘণ্টায় ৫০ থেকে ১০০ ডলার পর্যন্ত সার্ভিস চার্জ নেন। সেটাকে তাই ব্যবসা বলা যায়। কিন্তু আমরা নেই ঘণ্টায় ৭-১০ ডলার। আমরা কমিউনিটি সেবা করছি বলেই এত কম পয়সায় আমাদের ছেলে-মেয়েদের উচ্চশিক্ষার পথ করে দিচ্ছি।’
শেখ আল মামুন বলেন, ‘বাংলাদেশের কোচিং বাণিজ্য আর আমাদের কোচিং পরিষেবার মধ্যে কিন্তু পার্থক্য আছে। বাংলাদেশে শিক্ষার মান এবং আমেরিকায় শিক্ষার মানের মধ্যে তফাৎ আছে। এই দেশের শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় ভর্তির যোগ্যতায় কোনো শিথিলতা দেখানো হয় না। এখানে স্কলারশিপ পেতে হলে অনেক বেশি যোগ্যতার পরিচয় দিতে হয়। বিশেষায়িত স্কুলগুলো থেকেই স্কলারশিপসহ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারার সংখ্যা বেশি। কোচিংগুলোর কেউ হয়তো কম, কেউ বেশি টাকা নেয়। কিন্তু কোচিংগুলো লেগে না থাকলে এত বেশি সংখ্যক বাংলাদেশি শিক্ষার্থীকে ভালো স্কুলে পাঠাতে পারতাম না।’
নিউইয়র্কে বাংলাদেশি কমিউনিটিতে সফলতায় সবচেয়ে এগিয়ে খান’স টিউটোরিয়াল। বর্তমানে ১০টি শাখায় পরিষেবা দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। এই প্রতিষ্ঠান থেকে অনেক শিক্ষার্থীই প্রতি বছর ভর্তির সুযোগ পাচ্ছে বিশেষায়িত স্কুলগুলোতে। খান’স টিউটোরিয়ালের চেয়ারপারসন নাঈমা খান বলেন, ‘খানস টিউটোরিয়ালে খান ফাউন্ডেশন ও ড. মুনসুর অপরচ্যুনিটি স্কলার স্কিমের আওতায় অসংখ্য শিক্ষার্থীকে বিনা মূল্যে পড়ার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। এর বাইরে কোনো অভিভাবক যদি আমার কাছে এসে তার আর্থিক পরিস্থিতি খারাপের কথা জানান, আমি নিয়মের বাইরেও তাদের জন্য সার্ভিস চার্জ কমিয়ে দিই।’
তিনি, ‘প্রতিটি স্কুলে বিশেষায়িত স্কুল ভর্তির জন্য কোচিং রয়েছে। শিক্ষাবোর্ডের অর্থায়নে সেখানে বিনা বেতনে পড়া যায়। কিন্তু আমাদের বাবা-মায়েরা সেখানে পড়াতে ভরসা পান না। আমরাও মনে করি যে, আমরা বাচ্চাদের একটু উঁচু স্তরের প্রস্তুতিই সম্পন্ন করাই। এ জন্য আমাদের সাফল্য বেশি।’


পেনসিলভিনিয়ায় পিপলএন

বৃহস্পতিবার, ২২ মার্চ ২০১৮

পিপলএনটেক প্রথম থেকেই বদ্ধপরিকর যেন প্রত্যেক যোগ্য ব্যক্তি ওড জব না করে যার যার যোগ্যতা অনুযায়ী কর্ম সংস্থান করতে পারেন। যুক্তরাষ্টের বর্তমান অবস্থায় চাকুরীর ক্ষেত্রে আই টি প্রফেশন অপার সম্ভাবনার দ্বার খুলে দিয়েছে। শুধু মাত্র স্বল্পকালীন কোর্স করেও অনেকে পেয়ে যাচ্ছেন তার কাঙ্খিত চাকুরী যার মাদ্যমে তারা স্ব পরিবার  উপভোগ করতে পারছেন অত্যন্ত উন্নত জীবন ধারা।  তাই এই বিষয়ে অভিজ্ঞরা সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়ার বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মনে করেন।

Picture

এই পরিপ্রেক্ষিতে পিপলএনটেক পেনসিলভিনিয়ায় আয়োজন করতে যাচ্ছে জব সেমিনার এর। যেখানে পিপলএনটেক এর সাবেক শিক্ষার্থীরা যারা এই মুহর্তে আমেরিকার বিভিন্ন স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন তাদের অভিজ্ঞতা ও পরামর্শ বিনিময় করবেন। এই অনুষ্ঠানে  পিপলএনটেক সি ই ওপ্রকৌশলী আবুবকর হানিপ , পেনসিলভিনিয়া শাখার এডমিনিস্ট্রেটর ও কাউন্সিল ভাইস প্রেসিডেন্ট অব মিলবোর্ন মোহাম্মদ নুরুল হাসান  ছাড়াও উপস্থিত থাকবেন পেনসিলভিনিয়ার বিশিষ্ট সাংবাদিক ও সম্মানিত ব্যাক্তিবর্গ যাদের মধ্যে আপার ডার্বি কাউন্সিল ম্যান শেখ সিদ্দিক ,কাউন্সিল ওম্যান শেকেলা কোলস ,বি এ ডি এ এর সাবেক প্রেসিডেন্ট ডক্টর ইমরুল চৌধুরী , বি টি এস পির প্রেসিডেন্ট সাইফুল ইসলাম , সেক্রেটারি এ বি এম আলতামাস বাবুল ,বাংলাদেশ সোসাইটির ইফতেখার হোসাইন ফরহাদ, মিলবার্ন এর কাউন্সিল ম্যান মোহাম্মদ মনসুর আলী ,পিপলএনটেক এর বিসনেস ডেভেলপমেন্ট এক্সেকিউটিভে আসিফ ফাহাদ উল্লেখযোগ্য।

পেনসিলভিনিয়ায় অবস্থানরত বিভিন্ন কমিউনিটির যারা আই টি প্রফেশন এ কাজ করতে ইচ্ছুক তাদের কে পিপলএনটেক এর পেনসিলভিনিয়ার কার্যালয়ে 6796 Market St,Upper Darby, PA 19082,United State,Contact: 1-855-562-7448 এ যোগাযোগের আহবান করা হচ্ছে।
Website: www.piit.us

Social Networks:YouTube | Facebook | No more Odd Jobs-


নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যেগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন পালন

বৃহস্পতিবার, ২২ মার্চ ২০১৮

Picture

বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্হিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠন িক সম্পাদক আব্দুর রহিম বাদশা , সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য কাজী কয়েস আহমেদ , এড. শাহ মো: বকতিয়ার , সদস্য শরীফ কামরুল হিরা , নিউইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শাহিন আজমল , নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সহ- সভাপতি সাইকুল ইসলাম , সদস্য আবুল কালাম , স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক বাবু সুবল দেব , যুব লীগের আহবায়ক তারিকুল হায়দার চৌধুরী, সদস্য আব্দুল ওয়াহেদ , আমিনুল হোসেন , রিয়াজুল কাদির লস্কর মিঠু , খন্দকার জাহিদ হোসেন, শ্রমিক লীগের সহ- সভাপতি মন্জু চৌধুরী , ছাএলীগের সাবেক সভাপতি জেড এ জয় ,মহিলা লীগের সভাপতি অধ্যাপিকা শাহনাজ মমতাজ , সহ সাধারন সম্পাদকমিসেস রোমনা বকতিয়ার , প্রমুখ ।

alt

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন বাংলাদেশ সরকার বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়তে কাজ করে যাচ্ছে। দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে । দেশ এখন মধ্য আয়ের দেশের তালিকায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।বাংলাদেশ এখন পৃথিবীর মধ্যে উন্নয়নের রোল মডেল । তিনি নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সকল নেতা কর্মীকে সুন্দর একটি অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য ধন্যবাদ জানান এবং আগামী জাতীয় নির্বাচনে প্রবাসের সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য আহবান জানান।


যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে এই প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ডিসি বইমেলা ২০১৮

বৃহস্পতিবার, ২২ মার্চ ২০১৮

দেওয়ান আরশাদ আলী বিজয় ,বাপ্ নিউজ : (ওয়াশিংটন ডিসি ): যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে এই প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ডিসি বইমেলা ২০১৮।ওয়াশিংটনের অতি পরিচিত সংগঠন আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশন কতৃক আয়োজিত এই বই মেলা আগামি জুন মাসের ৩০ তারিখে ওয়াশিংটনের অদুরে নোভা এনানড্যাল ক্যাম্পাসে সারাদিন ব্যাপী  অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যেই এই বই মেলাকে ঘিরে কমিউনিটিতে ব্যাপক সাড়া পড়েছে।  আয়োজকরা দুই বাংলার আমন্ত্রীত অথিতিদের তালিকা প্রস্তুত করে ফেলেছেন। বাংলাদেশ এবং ভারত থেকে বেশ কিছু নামকরা লেখক,প্রকাশক এবং প্রচ্ছদ শিল্পী এই মেলায় আসবেন বলে আয়োজক কমিটি নিশ্চিত করেছেন।এ ব্যাপারে আমরা বাঙালি সংগঠনের সাধারন সম্পাদক  দস্তগীর জাহাঙ্গীর বলেন উত্তর আমেরিকা তথা যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গ রাষ্ট্রে বসবাসরত বহু বাঙালি লেখক ছড়িয়ে আছে। রত্নের ছড়াছড়ি চারিদিক। আমাদের খুঁজে বের করতে হবে সকলকে। অনেক অনেক প্রতিষ্ঠিত লেখকগন আছেন যাদের লিখা পাবার জন্য প্রকাশকেরা নিয়ত যোগাযোগ রাখেন, আবার কেও কেও নিজ আয়োজনেও বই প্রকাশ করেন। তবে আমাদের সকলই প্রাপ্তিযোগ।

Picture

এই প্রথমবারের মত আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশন ওয়াশিংটন ডিসি তে বই মেলার আয়োজন করছে। যে সকল লেখকদের বই ইতিমধ্যে প্রকাশিত হয়েছে তাদের সকলের নতুন বই নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠান, মোড়ক উন্মোচন এর ব্যবস্থা করা হবে। আমাদের আরেকটি ব্যবস্থা হল যারা এখনো বই ছাপাননি কিন্তু পাণ্ডুলিপি তৈরি আছে , আমাদের আমরা বাঙালি প্রকাশনা থেকে তা মুদ্রণ করা হবে বই মেলা উপলক্ষে।চর্যাপদ থেকে আজকের বাংলা... সকল প্রকারে বই নিয়ে আমাদের এই বই মেলা।সংগঠনটির সভাপতি  জীবক কুমার বড়ুয়া বলেন বৃহত্তর ওয়াশিংটন এলাকায় প্রায় ৫০/৬০ হাজার বাংলাদেশীর বসবাস । এই এলাকায় বিভিন্ন দেশীয় ঐতিহ্যবাহী অনুষ্ঠান নিয়মিত হলেও বইমেলা এই প্রথম।এখানে প্রচুর প্রতিষ্ঠিত লেখক,কবি,সাহিত্যিক বসবাস করেন । এবং বেশ কিছু প্রতিভাবান নতুন লেখক যারা নিয়মিত বই প্রকাশ করেন। আমরা চাই এ এলাকার  বাঙালিদের দীর্ঘদিনের একটি স্বপ্ন ছিলো বই মেলা ।আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশন সবসময় চেস্টা করে বাঙালি ঐতিহ্যকে পরবর্তি প্রজন্মের কাছে সঠিক ভাবে পৌছে দেয়া।এ ব্যপারে তিনি সবার সহযোগিতা কামনা করেন।
ইতিমধ্যেই একঝাঁক তরুন প্রজন্মের লেখক,সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্বদের সমন্বয়ে এই মেলাকে সফল করার জন্য একটি শক্তিশালী টীম গঠন করা হয়েছে যার নেত্রীত্ব দেবেন
লেখক কবি ও সফল স্থপতি আনোয়ারুল ইকবাল কচি।
তিনি ১ম ডিসি বই মেলার প্রধান সমন্বয়কারী , আরো আছেন হিরন চৌধুরী ,দিপু খাঁন, তানিম মোস্তফা,সৈয়দ এইচ অন্জন,শফি দেলওয়ার কাজল,সুবীর কাস্মীর পেরেইরা,আসিফ এন্তাজ রবি,তারেক মেহেদী,তৌফিক হাসান,রাহাত এ আফজা।
প্রধান সমন্বয়ক আনোয়ার ইকবাল কচি সকল লেখক কবিদের নাম ও যোগাযোগ মাধ্যম সহ যোগাযোগ করতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান।তিনি বলেন সকলের সহযোগিতায় আমরা আমাদের মাঝে সকল লেখক কবিদের খুঁজে বের করে বই মেলায় নিয়ে আসতে পারব।

প্রবাসে থেকে আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশনের এরকম একটি সাহসি উদ্দোগ  নি:সন্দেহে প্রশংসার দাবি রাখে।


বীর প্রতীক কাকন বিবি’র মৃত্যুতে প্রোগ্রেসিভ ফোরাম ইউএসএ’র শোক প্রকাশ প্রকাশ

বৃহস্পতিবার, ২২ মার্চ ২০১৮

বাপ্ নিউজ : ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদানকারী বীর প্রতীক কাকন বিবি’র মৃত্যুতে প্রোগ্রেসিভ ফোরাম ইউএসএ’র সভাপতি খোরশেদুল ইসলাম ও সাধারন সম্পাদক আলীম উদ্দিন গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।
নেতৃবৃন্দ এক বিবৃতিতে বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা কাকন বিবি দেশের টানে ১৯৭১ সালে মাত্র তিন দিনের কন্যা সখিনাকে রেখে যুদ্ধে চলে যান। যুদ্ধে তিনি আটক হয়ে  পাকিস্থানী হানাদার বাহিনীর হাতে চরম নির্যাতন ভোগ করেন। তিনি বেশ কয়েকটি সম্মূখ যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। ১৯৭১ সালের নভেম্বরে  টেংরাটিলা যুদ্ধে তিনি শত্রুর বুলেটে আহত হওয়ার চিহ্ন মৃত্যু পর্যন্ত গৌরবের সাথে বহন করেছেন।
নেতৃবৃন্দ বীর প্রতীক কাকন বিবি’র মৃত্যুতে তার স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও ভালবাসা জ্ঞাপন করেছেন।


বঙ্গবন্ধু’র ৯৮তম জন্মদিন পালন করলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ

মঙ্গলবার, ২০ মার্চ ২০১৮

Picture

উক্ত অনুষ্ঠানে যথাক্রমে যুক্তরাষ্ট্র স্টেট আওয়ামী লীগ, মহানগর আওয়ামী লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, শ্রমিক লীগ, ছাত্রলীগ ও অন্যান্য সংগঠনের মধ্যে জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেত্রীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

alt

প্রথমে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়ায়াত করেন কারী রহমত আলী ও গীতা পাঠ করেন সবিতা দাস। কারী রহমাত উল্লাহ প্রধানন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারে উন্নয়ন ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন এবং ইউএস বাংলা বিমান বিধ্বস্থে নিহতদের রূহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং আহতদের সুস্থ্যতা কামনা করে মুনাজাত করেন। জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে শিশু কিশোরদের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর পতিকৃতির উপর চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার আয়োজন করেন এবং বিজয়ী শিশুদের মধ্যে পুরস্কার বিতরন করেন।

alt

উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান এবং অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব প্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি, এম.পি.।

alt

সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান তার বক্তব্যে বলেন আজ বঙ্গবন্ধুর অসম্পন্ন কাজ তার সুযোগ্য কন্যা  শেখ হাসিনা সম্পন্ন করিতেছেন। তাই জাতিসংঘ বাংলাদেশ কে উন্নয়নীল রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষনা দেওয়ায় যুক্তরাষ্ট্র  আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধু কন্যা, দেশ নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান।

alt

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন  কাজী রোজী এম.পি., যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মোহাম্মদ আখতার হোসেন, সৈয়দ বসারত আলী, মাহবুবুর রহমান, সামছুদ্দিন আজাদ, লুৎফুল করিম, যুগ্ম সম্পাদক নিজাম চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক আহমেদ, মহিউদ্দিন দেওয়ান, আবদুল হাসিব মামুন, মানবাধিকার সম্পাদক মেসবাহ আহমেদ, শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক ফরিদ আলম, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আশ্রাফুজ্জামান, প্রচার সম্পাদক হাজী এনাম, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মোজাহিদুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ আবুল মনসুর খান, প্রবাসী কল্যান সম্পাদক সোলায়মান আলী,  ত্রান ও পূর্নভাসন  বিষয়ক সম্পাদক  জাহাঙ্গীর হোসেন , ইমিগ্রেশন  বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রহমান মামুন,  যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান টুকু, উপ দপ্তর সম্পাদক  আব্দুল মালেক, উপ প্রচার সম্পাদক তৈয়বুর রহমান টনি, সদস্য শাহানারা রহমান, ডেনী চৌধুরী, সামসুল আবেদীন, আমিনুল ইসলাম কলিন্স, আলী হোসেন গজনবী, আসাদ, আবদুল হামিদ, মুক্তিযোদ্ধা মুজিব মাওলা, নুরুল আবসার সেন্টু, খোরশেদ খন্দকার। সাপ্তাহিক ঠিকানার প্রধান সম্পাদক ফজলুর রহমান, অধ্যাপিকা হোসনে আরা বেগম, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুস সালাম, জাতীয় পাটির  সাধারণ সম্পাদক আবু তালেব চান্দু, উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা আবদুল জলিল। স্টেট আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি শেখ আতিক, রফিকুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু আইনজীবি  পরিষদের   সভাপতি মোরশেদা জামান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শিবলী সাদিক, প্রধান উপদেষ্টা নুরুল আমিন, মাহফুজ, সুমন, আলমগীর, কফিল চৌধুরী,  মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহনাজ মমতাজ,  সহ সভাপতি সেলিনা আজাদ, রওশন আরা বেগম, কানিজ ফাতেমা, যুবলীগের জামাল হোসেন, সেবুল মিয়া, হুমায়ুন চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শাখাওয়াত বিশ্বস, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কবির আলী, সহ সভাপতি আশরাফ উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক কিবরিয়া জামান, রাকিবুল ইসলাম, মনিরুল ইসলাম দিপু, আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ আনিসুর রহমান, নুরে আজম বাবু, হিরু ভূইয়া, নান্টু মিয়া ও আরো অনেকে।

alt

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন প্রধামন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য আজ দেশের সর্বস্তরে নারীর প্রত্যক্ষ অংশগ্রহন ভেরেছে। অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর পতিকৃতিতে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান নেতৃত্বে উপস্থিত সকলে পুষ্পার্ঘ অর্পন করে শ্রদ্ধাঞ্জলী জ্ঞপন করেন  এবং কেক কেটে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করেন।


জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন ও বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল নিউইয়র্ক এর যৌথ আয়োজনে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতির পিতার ৯৯তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন

সোমবার, ১৯ মার্চ ২০১৮

Picture

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন ও নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল যৌথভাবে ১৭ মার্চ যথাযোগ্য মর্যাদায় ও অসংখ্য শিশুর আনন্দঘন উপস্থিতির মধ্য দিয়ে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস ২০১৮ উদযাপন করে। এতে অংশ নেয় যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত শতাধিক বাঙালি শিশু-কিশোর। পুরো মিলনায়তন পরিণত হয় শিশুমেলায়।

alt

এর আগে গত ১০ মার্চ উপরিউক্ত প্রতিষ্ঠান দু’টির যৌথ আয়োজনে নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ড সিটিতে অবস্থিত বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল-এর মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় চিত্রাঙ্কণ ও রচনা প্রতিযোগিতা। বয়সের ভিত্তিতে শিশুদের ‘ক’, ‘খ’ ও ‘গ’ গ্রুপে বিভক্ত করা হয়। ‘ক’ ও ‘খ’ গ্রুপের জন্য নির্ধারিত ছিল চিত্রাঙ্কণ আর এর বিষয় ছিল যথাক্রমে ‘বাংলাদেশের প্রকৃতি’ ও ‘মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশ’। আর ‘গ’ গ্রুপের জন্য নির্ধারিত ছিল ‘বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা’ বিষয়ক রচনা প্রতিযোগিতা। রঙতুলি আর বর্ণিল সাজে আয়োজিত এ চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বিচারক ছিলেন খ্যাতিমান প্রবাসী চিত্রশিল্পী তাজুল ইমাম, ওবায়দুল্লাহ মামুন ও মিজ্ কানিজ ফাতেমা। চিত্রাঙ্কণ ও রচনা প্রতিযোগিতায় স্থানীয় প্রবাসী বাঙালি, বাংলাদেশ মিশন ও কনস্যুলেট পরিবারের ৭৬ জন শিশু অংশগ্রহণ করে।

alt

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেলের কনসাল জেনারেল শামীম আহসান, এনডিসি। স্বাগত বক্তব্যে তিনি বলেন, “জাত ির পিতার সম্মোহনী নেতৃত্বে আমরা পেয়েছি প্রিয় বাংলাদেশ। বাঙালির জীবনে এমন কোন অধ্যায় নেই, এমন কোন পর্ব নেই যেখানে ন্যায় ও অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য বঙ্গবন্ধুর বলিষ্ঠ কণ্ঠ স্বোচ্ছার হয়নি”। তিনি আরও বলেন, “জাতির পিতা শিশুদের ভালোবাসতেন। যা আমাদের জন্য একটি অনুকরণীয় আদর্শ হয়ে বেঁচে আছে”।অনুষ্ঠানটিতে দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মোঃ আব্দুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী প্রদত্ত বাণী পাঠ করা হয়।

alt
বানী পাঠের পর সমবেত শিশুদের উদ্দেশ্যে জাতির পিতার জীবন ও কর্মের নানা দিক নিয়ে আলোচনা করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা মুকিত চৌধুরী, শহীদ পরিবারের সন্তান ড. মাসুদুল হাসান। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান উপস্থিত শিশু-কিশোরদের অভিভাবকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, “আপনারা শিশু-কিশোরদেরকে এই অনুষ্ঠানে নিয়ে এসেছেন। চিত্রাঙ্কণ ও রচনা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ করে দিয়েছেন। এর থেকে প্রতীয়মান হয় আপনারা প্রবাসে থাকলেও দেশকে ও বঙ্গবন্ধুকে ভুলেননি”। প্রতিটি শিশু যাতে জাতির পিতার আদর্শ নিয়ে বড় হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে তিনি অভিভাবকদের প্রতি আহ্বান জানান”।

alt

এরপর শুরু হয় বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। শিশুদের নৃত্যের প্রেক্ষাপটে “শোনো, একটি মুজিবরের থেকে লক্ষ মুজিবরের কন্ঠস্বরের ধ্বনি, প্রতিধ্বনি আকাশে বাতাসে ওঠে রণি” গানটির সূর-মূর্ছনা অনুষ্ঠানটিতে সৃষ্টি করে ভিন্ন রকম এক আবহ। নৃত্যানুষ্ঠানটি পরিবেশন করে স্থানীয় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘শতদল’। সাংস্কৃতিক পর্বে সহযোগিতা করে বহ্নিশিখা সংগীত নিকেতন। শিশুদের আবৃত্তি ও সংগীত ও দলীয় নৃত্য পরিবেশন ছিল অত্যন্ত আর্কষনীয়।

alt

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন। তিনি বলেন, “আমাদের উচিত প্রত্যেক শিশুকেই জাতির পিতা, মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ সমন্ধে জানানো। জাতির পিতার জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এই চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে শিশুরা বাংলাদেশ সম্পর্কে অনেক গৌরবের বিষয় জানার সুযোগ পাচ্ছে যা তাদেরকে আগামী দিনের সুনাগরিক হতে অনুপ্রেরণা যোগাবে”।

alt

স্বল্পোন্নতদেশের ক্যাটাগরি থেকে উত্তীর্ণ হওয়ার সাফল্যের কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত মাসুদ বলেন, “জাতির পিতার সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন পূরণের পথে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আমরা এখন স্বল্পোন্নত দেশের ক্যাটাগরি থেকে উত্তরণের সকল নির্ণায়ক পূর্ণ করেছি। জাতিসংঘ থেকে এসংক্রান্ত স্বীকৃতিপত্র পেয়েছি। আমরা উন্নয়নশীল দেশের পথে, আরও উন্নত হওয়ার পথে এক ধাপ এগিয়ে গেলাম”।
রূপকল্প ২০২১ ও রূপকল্প ২০৪১ বিনির্মাণের মাধ্যমে বাংলাদেশ পৃথিবীর বুকে উন্নত-সমৃদ্ধ ও মর্যাদাশীল দেশে পরিণত হবে মর্মে রাষ্ট্রদূত মাসুদ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

alt

এরপর চিত্রাঙ্কণ ও রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে “বঙ্গবন্ধু ক্রেস্ট”, জাতির পিতার অসমাপ্ত আত্মজীবনীর ইংরেজি ভার্সন “দ্যা আনফিনিস্ড মেমোর্য়াস” পুরস্কার হিসেবে প্রদান করা হয়। পুরস্কার প্রদান করেন রাষ্ট্রদূত মাসুদ। চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগিতায় ক-গ্রুপে প্রথম স্থান অধিকার করে শিশু আলিনা রহমান এবং খ গ্রুপে শিশু আয়মান হুমায়রা রিয়া। রচনা প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করে দামিতা সৌরিন সবুর। সকল অংশগ্রহণকারী শিশুকে সনদপত্র এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অসমাপ্ত আত্মজীবনী অবলম্বনে রচিত গ্রাফিক নভেল চিত্রণ কার্টুন বই প্রদান করা হয়। পুরস্কার বিতরণ শেষে সমবেত শিশুরা কেক কেটে জাতির পিতার জন্মদিন উদযাপন করে।অনুষ্ঠানে নিউইয়র্ক প্রবাসী বিশিষ্ট বাংলাদেশী নাগরিকগণ, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনসমূহের নেতা-কর্মী ও মিডিয়া প্রতিনিধিসহ বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাঙালি উপস্থিত ছিলেন।


সন্ত্রাস জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে বিশ্বসম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ হবার আহ্বান জানালেন আসাদুজ্জামান নুর

সোমবার, ১৯ মার্চ ২০১৮

Picture

বাপ্ নিউজ : ওয়েষ্ট পাম বীচ, ফ্লোরিডা: সন্ত্রাস জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হবার উদাত্ত আহ্বান জানালেন গণ প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর। ১৭ মার্চ সন্ধ্যায় ফ্লোরিডার ওয়েষ্টপাম বীচস্থ ফেয়ারগ্রাউন্ড এক্সপো সেন্টারে ২৫তম এশিয়ান ট্রেড ফুড এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এই আহ্বান জানান।

alt

এ সময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব ফ্লোরিডার সভাপতি মোহাম্মদ এমরান সাধারন সম্পাদক এম রহমান জহির, অনুষ্ঠানের গ্রান্ড স্পন্সর উৎসব ডট কমের মোহাম্মদ আমিন, এনটিভি প্রতিনিধি আবীর আলমগীর, ড. শামসাদ বেগম, ড. সালাউদ্দীন, ফোবানার প্রাক্তন চেয়ারম্যান আজাদুল হক, খবর ডট কম সম্পাদক শিব্বীর আহমেদ, উপদেষ্টা আরিফ আহমেদ আশরাফ, আবদুল ওয়াহেদ মাহফুজ, চেয়ারম্যান মাজহারুল ইসলাম, কনভেনার গোলাম মোস্তফা, সাধারন সম্পাদক তামান্না আহমেদ, পামবীচ সিটি মেয়র ডেমোক্রেট ডেলিগেট সহ আরো অনেকে।

alt

অনুষ্ঠানের মুলমঞ্চে লালফিতা ও কেক কেটে ২৫তম এশিয়ান ট্রেড ফুড এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর বলেন, বাংলাদেশ সহ বিশে^র বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন সমাজে সন্ত্রাস জঙ্গীবাদ ছড়িয়ে পড়ছে। ভিন্ন ভিন্ন দেশে ভিন্ন ভিন্ন নামে সন্ত্রাস জঙ্গীবাদ মাথা তুলে দাঁড়াতে চেষ্টা করছে। এই সন্ত্রাস জঙ্গীবাদকে রুখে দিতে বিশ^ সম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

alt

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ৯৮তম জন্মবার্ষিকি উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে সকল প্রতিকুলতা মোকাবেলা করে বাংলাদেশ আজ মধ্যবিত্ত আয়ের দেশে পরিনত হয়েছে।

alt

জঙ্গীবাদ আর সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জিরো টলারেন্স নীতির ফলে বাংলাদেশে জঙ্গীবাদকে কঠোর হস্তে দমন করে একটি শান্তি প্রিয় দেশ হিসাবে বাংলাদেশ বিশে^ পরিচিতি লাভ করতে শুরু করেছে। দেশের মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্যে প্রতিনিয়ত কাজ করে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত করেছেন যার স্বীকৃতি বিশ^ দিয়েছে জাতিসংঘ দিয়েছে।

alt

উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর অনুষ্ঠানস্থল ঘুরে ঘুরে দেখেন। মেলায় বাংলাদেশ দূতাবাসের কনস্যুলার সার্ভিসে গিয়ে তিনি দূতাবাসের কর্মকান্ডের বিভিন্ন খোঁজ খবর নেন। পরে তিনি প্রায় ঘন্টা ধরে বিভিন্ন দেশের পরিবেশিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ শেষে ঢাকার উদ্দেশ্যে ফ্লোরিডা ত্যাগ করেন।

alt

২৫তম এশিয়ান ট্রেড ফুড এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী দিনে মধ্যরাত পর্যন্ত চলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এশিয়ার প্রায় ত্রিশটি দেশের নেৃতৃবন্দ এবং প্রতিনিধিরা নিজ নিজ দেশের বিভিন্ন খাদ্য পন্য সহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নিয়ে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করে। ১৮ মার্চ রবিবার পর্দা নামবে ২৫তম এই অনুষ্ঠানের জমকালো আসর।


নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের স্মরণে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের দোয়া মাহফিল

সোমবার, ১৯ মার্চ ২০১৮

বাপ্ নিউজ : ইউএসবাংলা ফ্লাইট – ২১১ বিধ্বস্তে নিহতদের স্বরনে গত ১৬ মার্চ নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের মেজবান রেস্টুরেন্টে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এক বিশেষ দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। নিহতদের স্মরণে দোয়া মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান এবং পরিচলনা করেন ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ । দোয়া মাহফিলে নিহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে ড. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, সত্যি জাতি আজ অনেক তাজা প্রাণ হারালো।

Picture

স্মরণকালের এই বিমান দুর্ঘটনা আমাদের বাকরুদ্ধ করে দিয়েছে। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে আরো বলেন, এমন নির্মম ঘটনার পর রাস্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ সফর সংক্ষেপ করে সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফেরা এবং নিহতদের স্মরণে জাতীয় শোক ঘোষণা করে তিনি সত্যিকারের মানব প্রেম দেখিয়েছেন। এছাড়া তিনি প্রতিনিয়ত আহতদের খোঁজ খবর নিচ্ছেন । ড. সিদ্দিকুর রহমান আরো বলেন, শুধু যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ না আওয়ামী লীগের প্রতিটি স্টেট,মহানগর ও সহযোগী কমিটির সকল নেতৃবৃন্দকে নিহতদের স্মরণে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করতে অনুরোধ করেন ।

দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মাহাবুব রহমান, প্রচার সম্পাদক হাজী এনাম , প্রবাসী কল্যাণ সম্পাদক সোলাযমান আলী , উপদপ্তর আব্দুল মালেক , যুক্তরাস্ট্র আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য শাহানারা রহমান , আব্দুল হামিদ নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক নূরুল আমিন বাবু , সেচ্ছাস্বক লীগের কেন্দ্রীয় নেতা সাখাওয়াত বিশ্বাস প্রমুখ ।


দুই ঈদে ছুটির দাবিতে নিউইয়র্ক রাজ্য পার্লামেন্টে বাংলাদেশিরা

সোমবার, ১৯ মার্চ ২০১৮

বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক : শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশির একটি দল ১৩ মার্চ একত্রিত হন নিউ ইয়র্ক রাজ্যের রাজধানী শহর আলবেনীতে। বেশ কিছু দাবি আদায়ের জন্যে গত ৭ বছর ধরেই বছরের একটি নির্দিষ্ট সময়ে বাংলাদেশি আমেরিকান এডভোকেসি গ্রুপ (বিএএজি) এর ব্যানারে অঙ্গরাজ্য পার্লামেন্টের উভয় কক্ষের নীতি-নির্ধারকসহ নিউ ইয়র্ক রাজ্য গভর্নরের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সাথে দেন-দরবার করছেন।

এসব দাবিগুলো হল নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে হালাল খাদ্য সরবরাহ, দুই ঈদের দিন ছুটি ঘোষণা, শিশুকালে মা-বাবার সাথে যুক্তরাষ্ট্রে আসার পর এখন পর্যন্ত যারা ইমিগ্রেশনের বৈধ স্ট্যাটাস পাননি তাদের নিরাপদে বসবাস ও কাজের সুযোগদানের লক্ষ্যে ড্রিম এ্যাক্ট তৈরি, ড্রিমারদের উচ্চ শিক্ষার্থে স্কলারশিপ প্রবর্তন, পরিবেশ সুরক্ষায় যথাযথ আইন, ধর্মীয় পোশাকের সুরক্ষা, ট্যাক্সি ড্রাইভারদের নিরাপত্তায় আইন তৈরি, ইত্যাদি।

বিএএজির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন বলেন, সমগ্র মুসলিম জনগোষ্ঠির পক্ষে এ দাবি আদায়ের চেষ্টায় আছি। একেবারেই ভিন্ন একটি পরিবেশের জনপ্রতিনিধিগণের সমর্থন আদায় করা যতটা জটিল মনে হয়েছিল, ৭ বছরের ব্যবধানে তা আর মনে হচ্ছে না। অনেকেই আমাদের দাবির সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন।

Picture

জয়নাল আবেদীন বলেন, ইতিমধ্যে স্টেট সিনেটর ডেমক্র্যাট এন্থনী আভেলা জুনিয়র এবং স্টেট এ্যাসেম্বলিম্যান ডেভিড ওয়েপ্রিন ঈদের দু'দিন ছুটি, ধর্মীয় পোশাকের বৈষম্য বিরোধী বিধি এবং ড্রিম এ্যাক্ট বিল উত্থাপন করেছেন অঙ্গরাজ্য পার্লামেন্টে। এছাড়া, ড্রিমারদের উচ্চশিক্ষায় স্কলারশিপ প্রদানের বিধি তৈরির জন্যে দুটি বিল উঠিয়েছেন সিনেটর হোযে প্যারাল্টা এবং স্টেট এ্যাসেম্বলিম্যান ফ্রান্সিসকো ময়া। অর্থাৎ আমাদের দেন-দরবারের প্রভাব ধীরে ধীরে কাজ করছে।

নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্য পার্লামেন্টে পাবলিকানদের সমর্থন ব্যতিত কোন আইন করা সম্ভব হয় না। জয়নাল আবেদীন বলেন, আমরা হতাশ হইনি। রীতি অনুযায়ী দেন-দরবার চালাচ্ছি। এবার ২৩টি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে আমরা বৈঠক করেছি ৬৬ জন সিনেটর এবং এ্যাসেম্বলিমেনের সাথে। অভিভাবকদের মধ্যে যারা শুধু বাংলায় কথা বলতে পারেন, তারাও ছিলেন। তাদের বক্তব্য সাথে সাথে অনুবাদকের মাধ্যমে জনপ্রতিনিধিদের কাছে উপস্থাপন করা হয়। অধিকাংশই আমাদের দাবির সাথে সংহতি প্রকাশ করেছেন এবং সহকর্মীদের সাথে তারা এ নিয়ে কথা বলবেন বলে অঙ্গীকার করেছেন। এটিই আমাদের সাফল্য।

প্রসঙ্গত, দু’বছর আগে নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিলে পাশ হওয়া আইন অনুযায়ী এই সিটির সকল পাবলিক স্কুল-কলেজে দুই ঈদের দিন ছুটি ঘোষিত হচ্ছে। সেই বিধি পুরো অঙ্গরাজ্যে পাবলিক স্কুল-কলেজে প্রসারিত করতে চাচ্ছেন মুসলিম সম্প্রদায়।

বিএএজির পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান কামাল ভূইয়া এবং ট্রেজারার মোহাম্মদ রহমান ছিলেন গ্রুপভিত্তিক এসব বৈঠকের সমন্বয়কারী।কম্যুনিটির অধিকার ও মর্যাদা নিয়ে লাগাতার তদবিরের প্রশংসা বাক্য উচ্চারণ করে অঙ্গরাজ্য গভর্নরের পক্ষ থেকে বিএএজিকে স্বাধীনতা দিবসের প্রক্লেমেশন প্রদান করেন ডেপুটি গভর্নর ক্যাথি হকুল। উল্লেখ্য, ডেপুটি গভর্নর ছাড়াও গভর্নরের শিক্ষা সচিব এন্থনী লফরোমেন্টোর সাথেও বৈঠক করেছেন কর্মকর্তারা।