Slideshows

http://bostonbanglanews.com/index.php/images/stories/2015/April/00/01/images/banners/components/com_gk3_photoslide/thumbs_big/605744Finding_Immigrant____SaKiL___0.jpg

কুইন্স ফ্যামিলি কোর্টে অভিবাসী

হাকিকুল ইসলাম খোকন/বাপ্‌স নিউজ/প্রবাসী নিউজ ঃ বষ্টনবাংলা নিউজ ঃ দ্যা ইন্টারফেইস সেন্টার অব নিউইয়র্ক ও আইনী সহায়তা সংগঠন নিউইয়র্ক এর উদ্যোগে গত ২৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল ৯ See details

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

যুক্তরাষ্ট্রের খবর

কুইন্স বাংলাদেশী সোসাইটির নতুন কার্যকরি কমিটি ঘোষণা

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

Picture

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ:গত ৮ই এপ্রিল রবিবার সন্ধ্যা ৮ টায় জ্যাকসন হাইটস্থ খাবার বাড়ী চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে কুইন্স বাংলাদেশী সোসাইটির কর্মকর্তাবৃন্দের উপস্থিতিতে ২০১৮-২০১৯ সালের জন্য নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। সভায় শামসুউদ্দিনকে সভাপতি, জে মোল্লা সানিকে সাধারণ সম্পাদক এবং মঈনুল ইসলামকে অর্থ সম্পাদক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি ঘোষনা করা হয়।

alt

কার্যকরি কমিটিতে সহ সভাপতি- মাসুক মিয়া, কাজী তোফায়েল ইসলাম, তরিকুল হুসেন বাদল, সহ সাধারণ সম্পাদক মফিজুল ইসলাম ভূইয়া রুমি, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ মোঃ ফারুক ইসলাম, প্রচার সম্পাদক মনিরুল ইসলাম মনির, সাহিত্য ও ক্রীড়া সম্পাদক-জাবেদ উদ্দিন, কার্যকরি সদস্য আজিমুর রহমান বোরহান, মাসুদুল হক ছানু, আব্দুর রহমান, মোঃ সাদি মিন্টু, শাহাদাৎ হুসেন, ফাহাদ সোলায়মান, আবুল হুসেন, শাওন বাবলা, জোসেব চৌধুরী, মোঃ বাবুল ও ফখর উদ্দিন।


ফ্লোরিডায় কারিগর প্রডাকশন'র বর্ণাঢ্য বর্ষ বরনউৎসব

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

শোভা যাত্রা উদ্বোধনে আবৃতিকার কেয়া রোজারিও বলেন "বাঙ্গালীর সার্বজনীন এই প্রাণের উৎসবে যা কিছু পচা গলা অশুভ, অমঙ্গল - তা আমরা বর্জন করি, সকল কূপমণ্ডূকতা - জীর্ণতাকে বুড়া আঙ্গুল দেখিয়ে আজ শুধু ঢাকাতে নয় - বাংলাদেশের আনাচে কানাচে এমন কি বিদেশের মাটিতেও আমরা আয়োজন করছি এই মঙ্গল শোভা যাত্রা" উল্লেখ্য জাতিসংঘের অঙ্গসংস্থা ইউনেস্কো ২০১৬ -এর ৩০শে নভেম্বর বাংলাদেশের ‘‘মঙ্গল শোভাযাত্রা’’ কে বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ অধরা সাংস্কৃতিক ঐতিহ‌্যের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেছে।

Picture

পরে স্থানীয় শিল্পীদের প্রাণবন্ত অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানটি দর্শকদের মাতিয়ে রাখে। শিশু -কিশোর শিল্পীদের মধ্যে অংশগ্রহণ করে মানহা,মুনিবা, রাইকা, রাইসা, লামিযা, তাহিয়া, জইতা, সাহিরা, অনিমেষ, সামারা, সুহাইরা, সারিনা, তাজরিয়ান, রাফি, রিফাত, অর্ক,এলমা,তামারা, মাটি, মন্টি, তাহিয়াত, নাতিফা, অনিমেষ, আরিক, আফ্রা, মাইশা, ও নওরীন। নৃত্য পরিচালনায় ছিলেন দেবযানী ও পাভিত্রা।

অংশ গ্রহণ করেন ফ্লোরিডার অন্যান্য সাংস্কৃতিক সংগঠন গুলো - এদের মধ্যে উল্লেখ যোগ্য একতার, ডায়না ড্যান্স, সোমা দাস ও তার দল, প্রকৃতির নূর। কবিতা আবৃতি করেন ডঃ সুলতান সালাউদ্দীন, কেয়া রোজারিও, ডঃ রোকসানা অ্যানি ও মাহবুবুর রহমান, ফ্লোরিডার সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব ও ফোবানা ২০১৮ - এর চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান।

alt

সঙ্গীত পরিবেশন করেন সামীরা জাহাঙ্গীর, মোফাজ্জল হক রনী, অনীক দে, মাফিয়া রহমান, শিপ্লু রহমান, টিপু আলম ও দেবজ্যোতি সেন। মির্জা আউয়াল ও রোজিনা করিমের দ্বৈত কণ্ঠের গান দর্শকদের মাতিয়ে রাখে। অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে পরিবেশিত "যাত্রা" দর্শকদের প্রচুর আনন্দ প্রদান করে। যাত্রায় অভিনয় করেন লাকি, এল্মা, হৃদি, যাহিনা, শাইখ, রিপন, রিমা, অর্ণব ও তাসবিন ঝড় - বৃষ্টির জন্য অনুষ্ঠান  কিছুটা বিঘ্ন ঘটলেও দর্শক তা উপেক্ষা করে পুরো অনুষ্ঠানটি উপভোগ করে। সামগ্রিক অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনায় ছিলেন নন্দিনী ভৌমিক ও সামিয়া রহমান।

অনুষ্ঠান সহযোগিতায় ছিলেন মীম ও শাইখ । দর্শক জরিপে সাউথ ফ্লোরিডায় এটি একটি ভিন্ন ধর্মী অনুষ্ঠান - যা মানুষকে আনন্দে ভরপুর করে রাখে। পুরো অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন কারিগরের পরিচালক টিপু আলম, তাহমিদা আনিস রিমা বিশিশঠ সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব ও সংগঠক চিত্রা সুলতানা।

Youtube Channhttps://www.youtube.com/channel/UCuCoWCGFy8vPoBy565It7kg


জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন ও নিউইয়র্ক কনস্যুলেট জেনারেল এর যৌথ উদ্যোগে ঐতিহাসিক ‘মুজিবনগর দিবস’ উদযাপন

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন ও নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল এর যৌথ উদ্যোগে ঐতিহাসিক ‘মুজিবনগর দিবস’ উদযাপন করা হয়। জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয়। এরপর মুজিবনগর সরকারের রাষ্ট্রপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, উপ-রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম এবং প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদসহ এ সরকারের সকল নেতৃবৃন্দের স্মৃতির উদ্দেশ্যে একমিনিট নীরবতা পালন করা হয়। অত:পর দিবসটি উপলক্ষ্যে প্রদত্ত রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করে শুনানো হয়।

Picture

আলোচনা পর্বের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য দেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন। তিনি তাঁর বক্তৃতায় মুজিবনগর দিবসের তাৎপর্য ও ইতিহাস তুলে ধরেন। তিনি আরও বলেন মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল গঠিত স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার মেহেরপুর জেলার বৈদ্যনাথতলার আম্্রকাননে ১৭ই এপ্রিল শপথ গ্রহণ করে, আর সেদিন থেকে এই স্থানটি পরিচিতি পায় মুজিবনগর নামে। মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রাতিষ্ঠানিক স্বীকৃতির জন্য এই সরকারের কোন বিকল্প ছিল না মর্মে উল্লেখ করেন রাষ্ট্রদূত মাসুদ।

alt alt    
রাষ্ট্রদূত মাসুদ বলেন, “মুজিবনগর সরকারের অসংখ্য চ্যালেঞ্জ ছিল, কিন্তু তা সত্ত্বেও তারা সুচারুরূপে সরকার পরিচালনা করেছেন। এর উৎকৃষ্ট প্রমাণ তারা সে সময়ের আয়-ব্যয়ের হিসাব পর্যন্ত রেখেছিলেন। এর থেকে প্রমাণিত হয় এ সরকার অন্যান্য ক্ষেত্রেও ছিল অত্যন্ত সফল”।

altalt
প্রবাসী বাংলাদেশীগণ যাতে বাংলাদেশ ভ্রমণকালে তাদের সন্তানদের মুজিবনগর পরিদর্শনের সুযোগ করে দেন সে বিষয়ে রাষ্ট্রদূত মাসুদ আহ্বান জানান। তিনি বলেন, “এর মাধ্যমে নতুন প্রজন্ম মুজিবনগর দিবসের ইতিহাস জানবে, তাৎপর্য অনুধাবন করবে এবং স্থানটি ঐতিহাসিক টুরিস্ট স্পট হিসেবেও আরও গুরুত্ব পাবে”। রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল এর কনসাল জেনারেল শামীম আহসান এনডিসি বলেন, “মুজিবনগর সরকার শুধু মুক্তিযুদ্ধই পরিচালনা করেননি, প্রতিকূল পরিবেশ মোকাবিলা করে বিশ্ব জনমতকে পক্ষে এনেছে”।

altalt
মুজিবনগরে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকারের শপথ গ্রহণের ফলেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের অধীনে কর্মরত উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশী কূটনীতিকগণ সকল প্রতিকূলতাকে উপেক্ষা করে পাকিস্তানের পক্ষ ত্যাগ করে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আনুগত্য আনেন যা বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের স্বীকৃতি অর্জনে সহায়ক ভূমিকা রেখেছিল।আলোচনা পর্বে আরও বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মুকিত চৌধুরী ও আব্দুল বাতেন। আলোচনা পর্ব শেষে মুজিবনগর সরকারের প্রয়াত সকল সদস্য, জাতীয় চার নেতা ও মহান মুক্তিযুদ্ধের ত্রিশ লাখ শহীদ এর আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।অনুষ্ঠানটিতে বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাঙালি, মুক্তিযোদ্ধা, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ও সাংস্কৃতিক কর্মীসহ বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন ও কনস্যুলেট জেনারেল এর সকল স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারি উপস্থিত ছিলেন।


কিশোরগঞ্জ ডিস্ট্রিক্ট এসোসিয়েশনের বর্ষবরণ ১৪২৫

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

Picture

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে :বাংগালীর প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ ১৪২৫ উদযাপন করলো প্রবাসের অন্যতম বৃহত্তম সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন কিশোরগঞ্জ ডিস্ট্রিক্ট এসোসিয়েশন ইউ.এস.এ ইনক। গত রবিবার নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের মেজবান রেস্টুরেন্টের পার্টি হলে সংগঠনের সভাপতি মো: আনোয়ার উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

দুই পর্বে অনুষ্ঠিত প্রথম পর্ব নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময় ও ‘প্রবাসে নববর্ষের মিলন মেলা’ শীর্ষক আলোচনা সভা সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো: এনামুল হকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়। নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময়ের পর বক্তারা বলেন বাংগালীর নববর্ষ আজ আন্তর্জাতিক রূপ পাচ্ছে। বিশ্বের যেখানেই বাংগালী সেখানেই প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ উদযাপিত হয়। আগামী প্রজন্ম ও বিশ্ববাসীর কাতারে আমাদের নববর্ষের সাংস্কৃতিক বৈশিষ্ট তুলে ধরতে হবে। অনুষ্ঠানে নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময় ও বক্তব্য রাখেন ট্রাষ্ট্রি বোর্ড সদস্য মো: আবদুল আউয়াল সিদ্দিকী, ট্রাষ্ট্রি বোর্ড সদস্য একেএম আশরাফুল হক, ট্রাষ্ট্রি বোর্ড সদস্য হাবিব রহমান হারুন, ট্রাষ্টি বোর্ডের সদস্য মো: জাইদুল কবীর খান সারোয়ার, উপদেষ্টা হেলাল উদ্দিন আহমেদ,

 

উপদেষ্টা বাবু তারক চন্দ্র পন্ডিত, উপদষ্টো মো: শহীদুল হাসান, উপদেষ্টা এ.কে.এম. রফিকুল ইসলাম ডালিম, সহ সভাপতি বাবু জয়ন্ত শর্মা বিশ্ব, সহ সভাপতি মো: হুমায়ুন কবীর, সহসভাপতি মো: ইমরুল হাসান ফেরদৌস, সহ সভাপতি মীনা ইসলাম, সহ সভাপতি মো: আলী আহসান আকন্দ শামীম, সহ সাধারণ সম্পাদক জাবির হোসেন তাকবীর, সহ সাধারণ সম্পাদক মুহিবুর রশিদ সুজন, প্রচার সম্পাদক ফয়সাল কবীর, ক্রীড়া সম্পাদকজাহাঙ্গীর জামিল দিপু, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো: গোলাম হায়দার শামীম, শিক্ষা সম্পাদক তানবীর রায়হান মিঠু, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক খালেদা আক্তার কিরণ, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক বাবু তপন বিশ্বাস, কার্যকরী সদস্য আশরাফুল আলম হিমেল, সদস্য রাফিউল করীম খান সাজ্জাদ, সদস্য হাবিবুর রহমান কামাল, সদস্য মো: সাইফুল ইসলাম প্রমুখ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জ উপজেলা সদরের ভাইস চেয়ারম্যান কামরুন্নাহার লুনা, মো: আ: হালিম, মো: আলী আকবর, মো: নজরুল ইসলাম, বাবু লিটন চন্দ্র সাহা, সহ কমিটির সকল সদস্যদের পরিবার বর্গ নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্ব শুরু হয় সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো: গোলাম হায়দার শামীমের উপস্থাপনায় দলীয় সংগীত পরিবেশন করে তারার আলোর সদস্যবৃন্দ, নৃত্য পরিবেশন করেন অনন্যা শর্মা পিয়া, নববর্ষের ক্রাউন হিসেবে আনন্দ পরিবেশন করেন মি. মাইক এবং সমগ্র অনুষ্ঠানটি মাতিয়ে রাখেন প্রবাসের অন্যতম কন্ঠশিল্পী সোমা রহমান। পান্তা ইলিশ ও হাওড় বাউরের অন্যতম প্রসিদ্ধ হিদল ভর্তায় নৈশ ভোজের পর সভাপতি মো: আনোয়ার উদ্দিন বর্ষবরণ ১৪২৫ সমাপ্তি ঘোষণা করেন এবং ২২শে জুলাই বার্ষিক চড়–ইভাতি অনুষ্ঠানে স্বপরিবারে যোগ দেওয়ার আমন্ত্রণ জানান।


কর্তব্যরত অবস্থায় নিহত শান্তিরক্ষী ও বেসামরিক কর্মীদের স্মরণ করল জাতিসংঘ- স্মরণের এ তালিকায় স্থান পেল আত্মোৎসর্গকারী পাঁচ বাংলাদেশী শান্তিরক্ষী

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

Picture

এর মধ্যে বাংলাদেশের শান্তিরক্ষীগণ হলেন ২০১৬ সালের ১৩ অক্টোবর মালি মিশনে কর্তব্যরত অবস্থায় নিহত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সিপাহী মো: আবুল বাশার, ২০১৭ সালের ৫ জানুয়ারি সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক মিশনে কর্তব্যরত অবস্থায় নিহত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সৈনিক মো: আব্দুর রহিম, ২০১৭ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর মালি মিশনে কর্তব্যরত অবস্থায় নিহত সিপাহী মো: মনোয়ার হোসেন, ল্যান্স কর্পোরাল মো: জাকিরুল আলম সরকার ও সার্জেন্ট মো: আলতাফ হোসেন।

alt

জাতিসংঘ সদরদপ্তরের ট্রাস্টিশীপ কাউন্সিলে আয়োজিত এই স্মরণ সভায় অংশ নেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন এবং স্থায়ী মিশনের ডিফেন্স অ্যাডভাইজর ব্রিগেডিয়ার জেনারেল খান ফিরোজ আহমেদ। এছাড়া জাতিসংঘে কর্মরত বাংলাদেশ সেনা, নৌ, বিমান ও পুলিশ বাহিনীর কর্মকর্তাগণও এ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।কর্তব্যরত অবস্থায় আত্মোৎসর্গকারী জাতিসংঘের শান্তিরক্ষীসহ বেসামরিক নাগরিকগণের পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে আয়োজিত এই স্মরণ সভা শুরু করা হয় ভায়োলিনের করুন সুর পরিবেশনের মাধ্যমে। মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করে নিহতদের স্মরণ করেন জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেজ (অহঃষ্টহরড় এঁঃবৎৎবং), জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সভাপতি মিরোস্লাভ লাইচ্যাক (গরৎড়ংষধা খধলčপ্সশ) ও নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতি গুস্তাভো মেজা-কোয়াড্রা (এঁংঃধাড় গবুধ-ঈঁধফৎধ)। জাতিসংঘ মহাসচিবের আহ্বানে নিহতদের স্মরণে একমিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

alt

জাতিসংঘ মহাসচিব আত্মোদানকারী জাতিসংঘের সকল শান্তিরক্ষী ও বেসমরিক কর্মীর প্রতি গভীর শোক এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের সহনশীলতা ও উদারতার প্রতি শ্রদ্ধা এবং সহমর্মিতা জ্ঞাপন করেন। সমবেত সুধিমন্ডলীর উদ্দেশ্যে জাতিসংঘ মহাসচিব বলেন, “জাতিসংঘের নীল পতাকা বিশ্বের অসহায় মানুষের শান্তি, নিরাপত্তা ও উন্নত ভবিষ্যতের সুযোগ সৃষ্টির ক্ষেত্রে আশার প্রতীকে পরিণত হয়েছে। অসহায় এই মানুষেরা তাঁদেরই উপর নির্ভর করে যাঁরা জাতিসংঘে সেবা দেওয়ার জন্য নিজেদেরকে নিবেদিত করেছেন। আজ, আমরা আত্মদানকারী সকল সহকর্মীদের স্মরণ করছি এবং তাদের উদারতা ও অবদানের প্রতি স্বীকৃতি জানাচ্ছি”।তিনি আরও বলেন, “আমাদের শান্তিরক্ষী, মানবিক সহায়তাদানকারী এবং অন্যান্য সহকর্মীদের সাহস ও প্রতিশ্রুতি ব্যতীত, আমরা প্রতিদিন যা করছি, তা অর্জন করতে পারতাম না। বিশেষ করে কঠিন ও বিপজ্জনক পরিবেশে”।

alt
জাতিসংঘ মহাসচিব বলেন, “এটা আমাকে ক্ষুব্ধ করে যখন দেখি খুব সামান্য কোন কারণে আমাদের উপর আক্রমন হয় যা কোন কোন ক্ষেত্রে যুদ্ধপরাধের শামিল”।মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেজ জাতিসংঘের শান্তিরক্ষীকর্মীদের উপর আক্রমণকারীদের প্রতিহত করতে এবং শান্তিরক্ষা মিশনসমূহের নিরাপত্তা উন্নত করতে তাঁর দৃঢ় প্রতিশ্রুতির কথা ব্যক্ত করেন।
জাতিসংঘ নিযুক্ত সদস্য রাষ্ট্রসমূহের স্থায়ী প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কূটনৈতিক, সামরিক ও পুলিশ বাহিনীর কর্মকর্তা এবং জাতিসংঘের কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ অনুষ্ঠানটিতে উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশ একটি অন্যতম বৃহৎ শান্তিরক্ষী সরবরাহকারী দেশ। ১৯৮৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত শান্তিরক্ষা মিশনে কর্তব্যরত অবস্থায় বাংলাদেশের ১৪৩ জন শান্তিরক্ষী মৃত্যুবরণ করেছেন।


কুইন্স লাইব্রেরিতে ‘শেকড়ের খোঁজ’ গ্রন্থ নিয়ে আলোচনা

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’-র পর এবার পাঠকের পাতা নির্বাচন করেছে কাজী জহিরুল ইসলামের ইতিহাস ভিত্তিক গ্রন্থ ‘শেকড়ের খোঁজ’। ক্লাবের সদস্যরা কুইন্স লাইব্রেরির হলিস শাখা থেকে বইটি সংগ্রহ করে পড়ছেন। লাইব্রেরিয়ান আবদুল্লাহ জাহিদের তথ্যমতে অনেকেই বেশ আগ্রহ নিয়ে লাইব্রেরি থেকে গ্রন্থটি সংগ্রহ করছেন, এ ছাড়া কেউ কেউ বাণিজ্যিক বিক্রয়কেন্দ্র থেকেও কিনে নিয়েছেন। ২১ মার্চ শনিবার গ্রন্থটি নিয়ে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছে কুইন্স লাইব্রেরি। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন ড. বিলকিস রহমান দোলা। অন্যান্যের মধ্যে আলোচনা করবেন ড. মাহবুব হাসান, ওবায়েদুল্লাহ মামুন, ফরহাদ ইসলাম প্রমূখ। যেহেতু এটি বাংলা নববর্ষের মাস, তাই ক্লাবের সদস্যরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবার অনুষ্ঠান শুরু হবে দুপুর বারোটায়, প্রথম দুই ঘণ্টা ১৪২৫ বঙ্গাব্দ বরণ উপলক্ষে থাকবে নানান স্বাদের পিঠার সমাহার, বৈশাখী গান ও কবিতা পাঠ। সঙ্গীতে অংশ নেবেন শারমীন মোহসীন, সূতপা মণ্ডল, ভায়লা সালিনা লিজা, মুক্তি জহির, কনিকা, রুমা দিলরুবা প্রমূখ। কবিতা আবৃত্তি করবেন শ্যামা শ্যামলিপি, নজরুল কবীর, মোহাম্মদ মোহসীন ও রাজিয়া নাজমী।

শেকড়ের খোঁজ গ্রন্থটি রচিত হয়েছে বাংলা ভাষার উৎপত্তি ও সাহিত্য চর্চার মধ্য দিয়ে এর বিকাশ, বাংলার শাসন ব্যবস্থার ইতিহাস, মহাত্মা গান্ধী ও বঙ্গবন্ধুর জীবন, ৫২র ভাষা আন্দোলন এবং ৭১-এর মুক্তিযুদ্ধসহ সব গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ঘটনার ধারাবাহিক ইতিহাস প্রভৃতি ঘটনাপ্রবাহকে কেন্দ্র করে। গ্রন্থটির ফ্ল্যাপ থেকে জানা যায়, ‘আমি বাঙালী, বাংলা আমার ভাষা। এই ভাষাকে মহিমান্বিত করেছে একুশ। সংস্কৃত মাগধী প্রাকৃত হয়ে,  চর্যাপদের লুইপা কাহ্নপা’র হাত ধরে, চন্ডীদাসের মস্তিস্কের কোষে কোষে বসত করে,  বঙ্কিম,  মাইকেল হয়ে রবীন্দ্রনাথের স্পর্শে যে ভাষা এনেছে নোবেলের সম্মান,  কতটুকু আমি জানি তার শেকড়ের খোঁজ? বাংলা নববর্ষের উত্থান পুনরুত্থানের গল্পই বা কী। কিভাবে ছাব্বিশে মার্চ হলো স্বাধীনতা দিবস আর কিভাবেই বা হলো ষোলই ডিসেম্বর আমাদের মহান বিজয় দিবস?  এইসব প্রশ্নের উত্তর একটি ধারাবাহিক গল্প প্রবাহের মধ্য দিয়ে পরিস্ফুট হয়েছে এই গ্রন্থে। মহাত্মা গান্ধীর জীবনপ্রবাহের মধ্যে যেমন রয়েছে ভারতবর্ষের স্বাধীনতার ইতিহাস তেমনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন প্রাবাহের মধ্য দিয়েই উৎসারিত হয়েছে বাংলাদেশের স্বাধীনতা। এইসবই আমাদের শেকড়ের খোঁজ।’

Picture

বাংলা ভাষার জন্মকথা অনুচ্ছেদে লেখক উল্লেখ করেন, ‘প্রায়শই আমরা প্রাচ্য এবং পাশ্চাত্য শব্দ দুটি শুনে থাকি। এখন যে অঞ্চলের মানুষ বাংলা ভাষায় কথা বলে অর্থাৎ বাংলাদেশ এবং ভারতের পশ্চিমবাংলা,  প্রাচীনকালে এর নাম ছিল প্রাচ্য। তাই আমাদের শিল্প, সাহিত্য, অর্থনীতি ইত্যাদি বোঝাতে আমরা এখনো প্রাচ্যের শিল্প, সাহিত্য বা অর্থনীতি বলে থাকি। আর পাশ্চাত্য  অর্থ হচ্ছে ইওরোপ। তাই ইওরোপের কোনো কিছু বোঝাতে পাশ্চাত্যের বলে থাকি।

মগধ রাজ্যের শাসন ও সংস্কৃতির আধিপত্য ছিল প্রাচ্যে। তাই আজকের বাংলা ভাষা মাগধী ভাষা থেকেই এসেছে বলে পণ্ডিতেরা মনে করেন। এটি ইন্দো-ইওরোপীয় ভাষা পরিবারের একটি ভাষা। ইন্দো-ইওরোপীয় ভাষারই একটি শাখা ভারতীয়-আর্য ভাষা। এই ভাষায়ই বেদ রচিত হয়েছে। তাই একে বৈদিক সংস্কৃত ভাষা বলা হয়। সংস্কৃত ভাষা থেকে এসেছে মাগধী প্রাকৃত,  যা থেকে বাংলা ভাষার উৎপত্তি হয় বলে পণ্ডিতেরা মনে করেন। মাগধী প্রাকৃত কোনো মৌলিক ভাষা নয়। এর উৎপত্তি বৈদিক সংস্কৃত থেকে। মাগধী প্রাকৃত বলে কোনো ভাষা আজ আর ব্যবহৃত হয় না। কিন্তু ধর্মশাস্ত্র বেদ সংস্কৃত ভাষায় রচিত হয়েছে বলে সংস্কৃত ভাষার চর্চা এখনো রয়েছে। তাই আমরা বলবো বাংলা ভাষার উৎস সংস্কৃত। সংস্কৃত থেকেই বাংলা ভাষা এসেছে।’

উল্লেখ্য যে কুইন্স লাইব্রেরির পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলা বুক ক্লাব গড়ে ওঠে এ বছরই ফেব্রুয়ারী মাসে। প্রতি মাসে কর্তৃপক্ষ একটি গুরুত্বপূর্ণ বাংলা বই নির্বাচন করে, সদস্যরা বইটি লাইব্রেরি থেকে সংগ্রহ করে সারা মাস পাঠ করেন এবং মাসের একটি নির্দিষ্ট দিনে একত্রিত হয়ে বইটি নিয়ে আলোচনা করেন। একজন মূল আলোচক থাকেন, তিনি লিখিত প্রবন্ধ পাঠ করেন, অন্যরা মুক্ত আলোচনা করেন। এই আলোচনা প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে গ্রন্থটি সম্পর্কে নিজস্ব পাঠলব্ধ ধারণা অন্যদের সাথে শেয়ার করার সুযোগ পান।


বর্ণিল আয়োজনে নেত্রকোনা জেলা এসোসিয়েশন ইউএসএ’র বাংলা বর্ষ বরণ

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

Picture

বর্ষ বরণ উৎসবে নেত্রকোনা প্রবাসীদের ঢল নামে। প্রবাসের জনপ্রিয় শিল্পীদের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা ছাড়াও জমজমাট এ উৎসবে ছিল ইলিসসহ বাঙালী সব খাবার-দাবার।

 alt

নেত্রকোনা জেলা এসোসিয়েশন ইউএসএ’র সভাপতি মো. বজলুর রহমান সভাপতিত্বে এবং জাহাঙ্গীর হোসেন খান শামীমের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধান উপদেষ্টা বাংলাদেশের সাবেক ডিআইজি জহুরুল হক।

 alt
আনন্দঘন ও উৎসবমুখর পরিবেশে তিনি এ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ঘোষণা করেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন সংগঠনের উপদেষ্টা ইকবাল হায়াৎ খান ও বজলুর রহমান নয়ন, প্রধান পৃষ্ঠপোষক উপদেষ্টা মো. বশির ফারুক।

alt

স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম আনোয়ার।

alt
অনুষ্ঠানে অতিথিরা ছাড়াও বর্ষবরণ কমিটির আহ্বায়ক জামাল উদ্দিন, প্রধান সমন্বয়কারী মো. আনোয়ারুল আলম ভূইয়া, সমন্বয়কারী অধ্যাপক ¯েœহাংশু সরকার, অর্থ সচিব হাবিবুর রহমান হাবিব, নাসির উদ্দিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

alt

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, পহেলা বৈশাখ উৎসব প্রিয় বাঙালীদের প্রাণের উৎসব। হাজার বছরের ঐতিহ্যে লালিত এ সংস্কৃতি প্রবাস প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে।

alt
এ আয়োজন প্রবাসে জন্ম নেয়া ও বেড়ে ওঠা আমাদের নতুন প্রজন্মকে বাংলাদেশের কৃষ্টি-কালচারের সাথে পরিচিত করার একটি বড় সুযোগ। আলোচনার ফাঁকে বিভিন্ন জন বৃহত্তর ময়মনসিংহ সহ নেত্রকোনা জেলার হাস্য রসাত্বক ও ঐতিহ্যমন্ডিত কৌতুক পরিবেশন করেন।

alt

পরে সাংস্কৃতিক পর্বে প্রবাসের জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী শশী, সম্পা জামান ও নাজিয়া নীনা সঙ্গীত এবং সাদিয়া নৃত্য পরিবেশন করেন। সাউন্ড সিস্টেমে ছিলেন অনুপ।

alt
 বিপুল সংখ্যক প্রবাসী অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন সংগঠনের কর্মকর্তাগণ।


নিউজার্সিতে আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

বিশ্বজিৎ দে বাবলু ,বাপসনিঊজ,নিউজার্সি প্রতিনিধি ।। নিউজার্সিতে সাংগঠনিক সফরে আসা যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামিলীগ-এর তিন নেতা ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ ,সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হাসিব মামুন ,ও মহিউদ্দিন দেওয়ান-এর সাথে নিউজার্সি আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের  মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত , ৮ এপ্রিল রবিবার সন্ধ্যায় প্যাটারসনের চেম্বারলাইন এভিনিউর হালাল ফুড রেস্টুরেন্টে আয়োজিত ওই সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আব্দুল মালিক চুন্নু ।

766
সম্মেলনসহ সাংগঠনিক বিষয়ে নিয়ে আয়োজিত ওই সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামিলীগ-এর আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক দেওয়ান বজলু, নিউজার্সি আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মোশারফ আলম, ফয়সাল আহমেদ,  লোকমান তরফদার, সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ ,যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক বিশ্বজিৎ দে বাবলু ,সাংগঠনিক সম্পাদক রকিবুল হাসান রিপন,প্রচার সম্পাদক নৃপেন্দ্র পাল,  শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সাইদুর রহমান সাইদ, ত্রাণ ও সমাজ কল্যান সম্পাদক মোঃ আব্দুল হান্নাণ,  প্রবাসী কল্যাণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলম, দপ্তর সম্পাদক আব্দুর রকিব লুলু, নিউজার্সী আওয়ামী সাবেক আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক কমিটির সিনিয়র সদস্য সেলিম আহমেদ চৌধুরী, আবুল কে মজুমদার,  সৈয়দ আলী, আহমাদুর নোমান, শাহাব উদ্দিন ,মোহাম্মদ রব্বানী শাহীন প্রমুখ।


জাতিসংঘের ৩টি গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনে বাংলাদেশের বিজয়

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

বাপ্ নিউজ : জাতিসংঘের ইকোসক চেম্বারে জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কমিশন (ইকোসক) এর সহযোগী অঙ্গসমূহের (ঊঈঙঝঙঈ ঝঁনংরফরধৎু নড়ফরবং) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে ইকোসকের ৫৪টি সদস্য রাষ্ট্র ভোটে অংশগ্রহণ করে। ইকোসকের বিভিন্ন সহযোগী অঙ্গসমূহের এই নির্বাচনে বাংলাদেশ এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে এবং নির্বাচিত হয়। যে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গে বাংলাদেশ নির্বাচিত হয়েছে তার বিবরণ নি¤œরূপ :
১)কমিশন অন দ্যা স্ট্যাটাস অব উইমেন (সিএসডব্লিউ) এর ১১ সদস্যের নির্বাচন: মেয়াদ ৪ বছর (২০১৯-২০২২)। ফলাফল: এশিয়া ও প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়া নির্বাচিত।
২)ইউনিসেফ এর তহবিল পরিচালনা পরিষদের ১৪ সদস্যের নির্বাচন: মেয়াদ ৩ বছর (২০১৯-২০২১)। ফলাফল: এশিয়া ও প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে বাংলাদেশ, মঙ্গোলিয়া ও পাকিস্তান নির্বাচিত।
৩)ইউএন উইমেন এর পরিচালনা পরিষদের ১৭ সদস্যের নির্বাচন: মেয়াদ ৩ বছর (২০১৯-২০২১)। ফলাফল: এশিয়া ও প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে বাংলাদেশ, ভারত, মঙ্গোলিয়া, নেপাল ও সৌদিআরব নির্বাচিত।

ইকোসকের উপরিউক্ত যে ৩টি সহযোগী অঙ্গে বাংলাদেশ নির্বাচিত হয়েছে তা আমাদের নারী ও শিশুদের অধিকার সুরক্ষা এবং জীবনমান উন্নয়নের জন্য বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। নারীর ক্ষমতায়নে বর্তমান সরকারের অবদান, অব্যাহত সাফল্য ও আর্ন্তজাতিক স্বীকৃতির কারণে তাৎপর্যপূর্ণ এই নির্বাচনগুলোতে বাংলাদেশ জয়ী হতে পেরেছে। সিএসডব্লিউ এর বর্তমান সদস্য রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ আরও ৪ বছরের জন্য পুন: নির্বাচিত হলো। এরফলে নারীর অধিকার সুরক্ষা ও অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে বিশেষ গুরুত্ব বহনকারী এই কমিশনে বাংলাদেশ আগামী বছরগুলোতে আরও সক্রিয় ভূমিকা পালনে সক্ষম হবে। উল্লেখ্য চলতি বছরে সিএসডব্লিউ-এর ৬২তম অধিবেশনে বাংলাদেশ বুরে‌্যর ‘ভাইস চেয়ার’ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছে।
এছাড়া ইউনিসেফ এবং ইউএন উইমেন এর পরিচালনা পরিষদের সদস্য হওয়াতে বাংলাদেশ আগামী তিন বছর সক্রিয়ভাবে সংস্থা দুটির কার্যাবলী, অর্থ সংস্থান ও এর যথাযথ ব্যবহারে ভূমিকা রাখতে পারবে। বাংলাদেশসহ উন্নয়নশীল দেশসমূহের স্বার্থ সংরক্ষণ এবং ‘এজেন্ডা ২০৩০’ এর বাস্তবায়নেও সংস্থা দুটিকে আরও ভালোভাবে কাজে লাগাতে পারবে।
উপরিউক্ত ৩টি গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনে বিজয় আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের অব্যাহত কূটনৈতিক অগ্রযাত্রার সাফল্য প্রমাণ করে। এই নির্বাচনে বিজয়ের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের অবস্থান আরও সুসংহত হলো।


ওয়াশিংটনে ইমিগ্রান্ট বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

বাপ্ নিউজ : ওয়াশিংটন: ওয়াশিংটনে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস এবং বাংলাদেশস্থ আমেরিকান দূতাবাসের যৌথ উদ্যোগে ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত হল ”ইমিগ্রান্ট ভিষা পদ্ধতি সহজীকরন” বিয়ষক সেমিনার। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ও শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দীন এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া বার্নিকাট।

অনুষ্ঠানে সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন ওয়াশিংটস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের মিনিষ্টার কনস্যুলার শামসুল আলম চৌধুরী। অনুষ্ঠানে মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশে নিযুক্ত আমেরিকার কন্সাল জেনারেল শ্যারন অ্যান ওয়েভার রিভেরা। আমেরিকার কন্সাল জেনারেল শ্যারন অ্যান ওয়েভার রিভেরা তার বক্তব্যে ইমিগ্রান্ট ভিসা সহজীকরন সংক্রান্ত নানা বিষয় যেমন স্পন্সরশীপ, পুলিশ ভেরিফিকেশন সার্টিফিকেট, ডাক্তারী পরীক্ষা, ছবি, ভিষা ফি ইত্যাদি নানা বিষয়ে সঠিক পদ্ধতি করনীয় বিষয়ে স্লাইডের মাধ্যমে উপস্থিত দর্শক শ্রোতাদের সামনে তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন রাজ্য থেকে আগত প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যবসায়ী কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক বুদ্ধিজীবী সহ বৃহত্তর ওয়াশিংটন প্রবাসী বাংলাদেশীরা অংশগ্রহন করেন। আমেরিকার কন্সাল জেনারেল শ্যারন অ্যান ওয়েভার রিভেরা তার মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন শেষে প্রশ্নোত্তর পর্বে দর্শক শ্রোতাদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া বার্নিকাট এ ধরনের একটি সেমিনার আয়োজনের জন্য বাংলাদেশ দূতাবাসের ভুঁয়সী প্রশংসা করেন। রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দীন প্রবাসীদেরকে বাংলাদেশের প্রতি তাদের দায়িত্বের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে এগিয়ে আসার জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশস্থ আমেরিকান দূতাবাসের বিভিন্ন কর্মকর্তা ষ্টেট ডিপার্টমেনট এবং হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্টের কর্মকর্তা সহ বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দ অংশগ্রহন করেন। রাতের খাবারের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করা হয়।

More Video on this YouTube channel:

https://www.youtube.com/channe l/UCuCoWCGFy8vPoBy565It7kg


প্রবাসীরা ড. নীনা আহমেদকে পেনসিলভেনিয়ার লেফটেন্যান্ট গভর্নর দেখতে চান

রবিবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৮

হাকিকুল ইসলাম খোকন, বাপসনিঊজ,বিশেষ প্রতিনিধি, যুক্তরাষ্ট্র,:প্রবাসী বাংলাদেশিরা প্রেসিডেন্ট ওবামার আমলের উপদেষ্টা ড. নীনা আহমেদকে যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভেনিয়া রাজ্যের লেফটেন্যান্ট গভর্নর পদে দেখতে চান । তিনি এই রাজ্যের ফিলাডেলফিয়া সিটির ডেপুটি মেয়র ছিলেন। আসন্ন প্রাইমারিতে জয়ী হলে নীনা আহমেদ ডেমোক্রেটিক পার্টি থেকে লেফটেন্যান্ট গভর্নর পদে লড়ার সুযোগ পাবেন। প্রাইমারিতে জয়ী হতে তিনি জোরেশোরে প্রচার কাজ শুরু করেছেন।

Picture

নির্বাচনী প্রচারের অংশ হিসাবে শনিবার দুপুরে ড. নীনা আহমেদ নিউইয়র্কের বাংলাদেশি অধ্যুষিত কুইন্সে একটি সমাবেশ করেছেন। দুই শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি ওই সমাবেশে যোগ দিয়ে তাকে বিজয়ী করতে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। 

     alt

৩১ মার্চ নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে বেলজিনো পার্টি হলে ‘ফ্রেন্ডস অব ড. নীনা’ ব্যানারে অনুষ্ঠিত এ সমাবেশে নীনা আহমেদ বলেন, ব্যালট যুদ্ধে ব্যাপকভাবে অংশ নিয়ে আমাদের অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। যারা যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব গ্রহণ করেছেন, তাদের ভোটার হিসেবে তালিকাভুক্ত হওয়া জরুরি বলে মত দেন ড. নীনা আহমেদ।

alt
সমাবেশ সঞ্চালনা করেন আয়োজক কমিটির কো-চেয়ার ও মার্কিন শ্রমিক ইউনিয়নের নেতা মাফ মিসবাহউদ্দিন ও জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন অব নর্থ আমেরিকার সাধারণ সম্পাদক জেড চৌধুরী জুয়েল এবং আমেরিকা বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের (এবিপিসি) সভাপতি লাবলু আনসার।

alt

সমাবেশে অনেকের মধ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন নিউইয়র্ক সফররত জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, নিউজার্সির কাউন্সিলম্যান ও মুক্তিযোদ্ধা ড. নূরন নবী, সমাজকর্মী ডা. জিয়াউদ্দিন আহমেদ,‘পিপলএনটেক’-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও আবু হানিফ বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম, রিয়েল এস্টেট ইনভেস্টর আনোয়ার হোসেন।

alt
ড. নীনার সমর্থনে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন পেনসিলভেনিয়ার আপার ডারবি সিটির কাউন্সিলম্যান শেখ সিদ্দিক, মিলবোর্ন বরোর ভাইস প্রেসিডেন্ট নূরুল হাসান, কাউন্সিলম্যান মনসুর আলী মিঠু, নিউইয়র্কের হাডসন সিটির কাউন্সিলম্যান শেরশাহ মিজান, নিউজার্সির হেলিডন সিটির ম্যানচেস্টার ইউটিলিটিস অথরিটির কমিশনার দেওয়ান বজলু চৌধুরী, নিউইয়র্কের সাবেক স্টেট সিনেটর প্রার্থী ও মূলধারার রাজনীতিক গিয়াস আহমেদ প্রমুখ।

alt

জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ড. নীনা আহমেদ একজন বাঙালি নারী। সবকিছুর ওপরে তিনি মানবিক বিবেকসম্পন্ন একজন মানুষ। এজন্য দলমত নির্বিশেষে সকলেই তাকে সমর্থন দিচ্ছেন।

alt
নিউজার্সির কাউন্সিলম্যান নূরন নবী বলেন, এখন সময় হচ্ছে ঘুরে দাঁড়ানোর। ড. নীনার মত সৎ, পরিশ্রমী, উদ্যমী মানুষকে নির্বাচিত করার মধ্য দিয়েই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বাঙালির উত্থানের পথ সুগম হতে পারবে।

alt

‘পিপলএনটেক’-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও আবু হানিফ বলেন, প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে ড. নীনা নিজের সামগ্রিক যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখেছেন।

alt
সেই ধারাবাহিকতায় লেফটেন্যান্ট গভর্নরের পথ ধরে স্টেট গভর্নর ও পরবর্তীতে ইউএস সিনেটর হতে সক্ষম হবেন, যদি আমাদের সমর্থন অব্যাহত রাখতে পারি।

  alt
সমাবেশের শুরুতে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। এছাড়া সাম্প্রতিক বাংলাদেশ,

  alt
যুক্তরাষ্ট্রসহ সারাবিশ্বে জঙ্গি হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

alt

alt