Slideshows

http://bostonbanglanews.com/index.php/media/system/images/stories/2015/April/05/modules/mod_gk_news_highlighter/scripts/components/com_gk3_photoslide/thumbs_big/605744Finding_Immigrant____SaKiL___0.jpg

কুইন্স ফ্যামিলি কোর্টে অভিবাসী

হাকিকুল ইসলাম খোকন/বাপ্‌স নিউজ/প্রবাসী নিউজ ঃ বষ্টনবাংলা নিউজ ঃ দ্যা ইন্টারফেইস সেন্টার অব নিউইয়র্ক ও আইনী সহায়তা সংগঠন নিউইয়র্ক এর উদ্যোগে গত ২৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল ৯ See details

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

বিনোদন

তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনিরের ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী আজ

সোমবার, ১৪ আগস্ট ২০১৭

বাপ্ নিউজ : উপমহাদেশের অন্যতম খ্যাতিমান চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদ এবং বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন নিউজের সাবেক প্রধান সম্পাদক ও প্রধান নির্বাহী মিশুক মুনিরের ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী আজ রবিবার।খ্যাতিমান এই ব্যক্তিদ্বয়ের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চলচ্চিত্র সংসদসহ বিভিন্ন সংগঠন শুক্রবার থেকে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনিরের ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী আজ


২০১১ সালের ১৩ আগস্ট মানিকগঞ্জে এক ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনায় এ দু’জনসহ পাঁচ জন প্রাণ হারান। নতুন চলচ্চিত্র ‘কাগজের ফুল’-এর শুটিংয়ের স্থান দেখতে তারেক মাসুদ ও মিশুক মুনির সহকর্মীদের নিয়ে মানিকগঞ্জে যান। ফেরার পথে মানিকগঞ্জেই সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান তারা।


ঢাকায় এসেছেন নিউইয়র্ক প্রবাসী মডেল ও অভিনেত্রী মিলা হোসেন

শুক্রবার, ১১ আগস্ট ২০১৭

বাপ্ নিউজ : ঢাকা থেকে :দুটি নতুন বিজ্ঞাপন এবং দুটি ঈদ নাটকের শুটিংয়ে অংশ নিতে ঢাকায় এসেছেন নিউইয়র্ক প্রবাসী মডেল ও অভিনেত্রী মিলা হোসেন। গেল ২রা আগস্ট স্বামী জাকারিয়া মাসুদ জিকোসহ তিনি ঢাকায় আসেন। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাৎ, ঘোরাফেরা এবং শুটিংয়ে অংশ নিতেই এবার প্রায় এক মাসের জন্য মিলা হোসেনের ঢাকায় আসা। আজ তিনি চূড়ান্ত করবেন কবে বিজ্ঞাপন দুটির শুটিংয়ে অংশ নিবেন। এদিকে আগামী ১২, ১৩ ও ১৪ই আগস্ট মিলা সুমন আনোয়ারের নির্দেশনায় একটি নাটকের শুটিংয়ে অংশ নিবেন।

Picture

তবে পরবর্তী নাটকের শুটিং শিডিউল এখনো চূড়ান্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন এ অভিনেত্রী। একবছর বিরতির পর আবারো ঢাকায় ফেরা প্রসঙ্গে মিলা বলেন, সবসময়ই দেশে ফিরতে এক অনাবিল আনন্দ মনের মধ্যে কাজ করে। কারণ দেশে ফিরলেই প্রিয় প্রিয় মুখগুলোর সঙ্গে দেখা হয়, কথা হয়, জমে উঠে আড্ডা। এরইমধ্যে কয়েকজনের সঙ্গে দেখা হয়েছে। শুটিংয়ের ফাঁকে ফাঁকে সবার সঙ্গে আশা করছি দেখা হবে ইনশাআল্লাহ। এবার যে বিজ্ঞাপন ও নাটকে কাজ করবো সেগুলো যেন ভালোভাবে শেষ করতে পারি এটাই এখন একান্ত কাম্য।

alt

সবার সহযোগিতা নিয়ে কাজগুলো শেষ করতে চাই ভালোভাবে। সব কাজ শেষে মিলা হোসেন ও তার স্বামী নিউ ইয়র্ক থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক আজকাল পত্রিকার সম্পাদক জাকারিয়া মাসুদ জিকোসহ নিউ ইয়র্কে ফিরে যাবেন। চাইলেই তো ঈদটা করে যেতে পারতেন? এমন প্রশ্নের জবাবে মিলা হোসেন বলেন, নিউ ইয়র্কে অনেক কাজের চাপ। সেই চাপের মধ্যেই আসলে ঢাকায় আসা। এখানকার কাজগুলো ভালোভাবে শেষ করেই তাড়াতাড়ি ফিরে যেতে চাই। প্রসঙ্গত, মিলা হোসেন অভিনীত প্রথম নাটক ছিলো ‘আমার আছো তুমি’। এটি নির্মাণ করেছিলেন আখতারুজ্জামান। দেশে ফেরার আগে সৈয়দ জামিমের নির্দেশনায় নিউ ইয়র্কে মিলা হোসেন ‘অনাহুত’ নামের একটি নাটকের কাজ শেষ করেছেন। এতে তার বিপরীতে আছেন টনি ডায়েস। এর আগে টনি ডায়েসের বিপরীতে মিলা ১৫ বছর আগে দুটি নাটকে অভিনয় করেছিলেন তাপসের নির্দেশনায়। গত বছর ঈদে মাহফুজ আহমেদের নির্দেশনায় সাত পর্বের একটি ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করেন তিনি। মিলা হোসেনের প্রথম বিজ্ঞাপন ছিলো ‘গ্রীনমিন্ট’। এটি নির্মাণ করেছিলেন বিশিষ্ট বিজ্ঞাপন নির্মাতা আফজাল হোসেন। নিউ ইয়র্ক থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক আজকাল’র ব্যবস্থাপনা সম্পাদক হিসেবেও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করছেন মিলা হোসেন। এছাড়া ‘কালারস’ ম্যাগাজিনেরও ব্যবস্থাপনা সম্পাদক তিনি।


শপথ গ্রহণ করল চলচ্চিত্রগ্রাহক সংস্থার নতুন কমিটি

শনিবার, ০৫ আগস্ট ২০১৭
শপথ গ্রহণ করল চলচ্চিত্রগ্রাহক সংস্থার নতুন কমিটি

বাপ্ নিউজ : শিল্পে আজকের দিনে যত কিছু দৃষ্টিনন্দন, চমৎকার, অপূর্ব পরিবেশনা দেখি তার অনেকটা প্রযুক্তির অবদান। কিন্তু এর নেপথ্যে এগুলো পরিচালনার যে কারিগররা থাকেন তাদের অন্যতম হলেন ক্যামেরাম্যান। এখন পর্যন্ত অসংখ্য চিত্রগ্রাহক ঢাকাই চলচ্চিত্রকে আজকের অবস্থানে নিয়ে আসতে ভূমিকা রেখেছেন।

একটি সিনেমার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম চিত্রগ্রহণ। একজন শিল্পীকে কীভাবে হাজির করা হবে সেটা ভাবেন চিত্র নির্মাতা, কিন্তু তাকে কেমন করে উপস্থাপন করা যাবে সেই সিদ্ধান্ত থাকে চিত্রগ্রাহকের হাতে। কিন্তু এ ক্যামেরাম্যানরা সবসময়ই থেকে গেছেন আলোচনার বাইরে।

অবশ্য এ নিয়ে তাদের ক্ষোভও নেই। দিন দিন অনেক কিছুই আগের চেয়ে বদলেছে। সামনে আরও অনেক ইতিবাচক কিছু হবে। এমনটাই প্রত্যাশা করেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্রগ্রাহক সংস্থার নবনির্বাচিত সভাপতি আব্দুল লতিফ বাচ্চু।

গতকাল শুক্রবার বিকেল ৫টায় চলচ্চিত্রগ্রাহক সংস্থার নবনির্বাচিতরা শপথ পাঠ করে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। তাদের শপথ পাঠ করান পরিচালক সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম খোকন। এসময় উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেতা ফারুক।

গেল ১৯ জুলাই অনুষ্ঠিত হয়েছে নির্বাচন। বাংলাদেশ চলচ্চিত্রগ্রাহক সংস্থার নতুন মেয়াদে সভাপতি হয়েছেন আব্দুল লতিফ বাচ্চু ও সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মজনু।

প্রসঙ্গত, ঢাকাই ছবিতে চিত্রগ্রাহক নিয়ে কথা বলতে গেলে প্রথমেই চলে আসে চিত্রগ্রহণের প্রতিষ্ঠাতা পঞ্চখুঁটির কথা। এই পঞ্চখুঁটি হলেন বেবী ইসলাম (১৯২৭-২০১০), কিউ এম জামান (১৯৩১-১৯৯৭), সাধন রায় (১৯১৪-১৯৮৮), আফজাল চৌধুরী (১৯৩১-বর্তমান) আর আব্দুস সামাদ (১৯৩৭-২০০৪)। পাঁচ জনই হচ্ছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের চিত্রগ্রহণের মূল ভিত্তি। এদের হাত ধরেই বিকশিত হয়েছে ক্যামেরাম্যানদের ইতিহাস।

ধারাবাহিকতায় স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে নতুন দিগন্তে ডানা মেলেছিলো ঢাকাই ফিল্মের ইন্ডাস্ট্রি। বাড়ছে শিল্পী ও কলাকুশলী। বাড়ছে ছবির সংখ্যা। স্বভাবতই বাড়ছিলো ক্যামেরাম্যানদের ব্যস্ততা ও চাহিদা। নবীন প্রবীনের সমারোহে ক্রমেই বড় হতে থাকলো ক্যামেরাম্যানদের তালিকা। বাধ্য হয়েই নিজেদের জন্য একটা স্থায়ী আশ্রয় অনুভব করলেন তারা।

সেই অনুভবের হাত ধরে ১৯৭২ সালে যাত্রা শুরু করে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র গ্রাহক সংস্থা। সংস্থার প্রথম সভাপতি নির্বাচিত হন আব্দুস সামাদ এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন মাসুদুর রহমান। এর পরেরবার মাসুদুর রহমান সাধারণ সম্পাদক বহাল থাকলেও সভাপতিত্ব নেন কিউ এম জামান। তিনি একটানা ১৯৮৪ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।

Camera

তার শাসনামলকে ক্যামেরাম্যানরা সংস্থার সোনালী যুগ মনে করেন। কিউ এম জামান নিজের টাকা দিয়ে দুটি ক্যামেরা কিনে দেন সংস্থাকে। সেগুলো থেকে অর্জিত আয় দিয়েই চলতো সংস্থার মোটা অংকের খরচ।

ধারাবাহিকতায় এই সংগঠনটির সভাপতি হয়েছেন রেজা লতিফ তিনবার, আফজাল চৌধুরী একবার এবং সর্বোচ্চ ছয়বার এই পদ অলংকৃত করেছেন আব্দুল লতিফ বাচ্চু।

সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন মাসুদুর রহমান দুইবার, আবু হেনা বাবলু একবার, এম এ মবিন তিনবার, আব্দুল লতিফ বাচ্চু একবার, রেজা লতিফ চারবার, জেড এইচ মিন্টু তিনবার। সর্বশেষ এই পদে দায়িত্ব নিলেন আসাদুজ্জামান মজনু।

পথচলার ধারাবাহিকতায় গ্রাহক সংস্থার নতুন করে কমিটিতে এসেছে বেশ কিছু পরবির্তন। দুই বছর মেয়াদে নির্বাচনের মাধ্যমে গঠিত হয় নতুন কমিটি। একটানা দুই মেয়াদ ক্ষমতায় থাকা ব্যক্তি আর কখনো সভাপতি বা সাধারণ সম্পাদক পদের প্রার্থি হতে পারবেন না। বর্তমান কমিটিতে সর্বমোট ৫৮ জন ক্যামেরাম্যান সদস্য হিসেবে রয়েছেন। এই সদস্যদের ভোটেই নির্বাচিত হন তাদের প্রতিনিধিরা।


অভিনয় ছেড়ে ধর্মকর্ম নিয়ে ব্যস্ত এই তারকারা!

শনিবার, ০৫ আগস্ট ২০১৭

বাপ্ নিউজ : মানুষের মন প্রকৃতির মতই সুন্দর। ঠিক তেমনি মানুষের মনে কখন যে কী ঘটে যায় তা আসলে বলা যায় না। যারা একসময় লাইট ক্যামেরা, অ্যাকশেন কাটের মধ্য দিয়ে দিন থেকে রাত পার করতেন তারাই আবার এখন ধর্মকর্ম  নিয়ে ব্যস্ত হয়েছেন। ইসলাম ধর্মের বাণী এবং সম্পূর্ণ নিয়মকানুন মেনেই তারা জীবন-যাপন করছেন। শুধু কী তাই? আর অভিনয়তো দূরের কথা ক্যামেরার সামনেই দাঁড়াতে যেন লজ্জা বা ভয় পান। ইতিহাস ঘাটলে এমনটা আর কোন তারকাদের করতে দেখা যায়নি বাংলাদেশে। আর যদিও বা দেখা যায় তাহলে তার সংখ্যা খুবেই কম। বাংলাদেশের এমন কিছু তারকারা কথাই আজকে বলব আপনাদের। তারা হলেন চিত্র জগতের জনপ্রিয় জুটি নাঈম-শাবনাজ, চিত্রনায়িকা শাবানা, চিত্রনায়িকা, ববিতা-সুচন্দা, চিত্রনায়ক অনন্ত জলিল, ও তরুণ মডেল হ্যাপি। 

Picture

নাঈম-শাবনাজ: ঢাকাই ছবির নব্বই দশকের তুমুল জনপ্রিয় জুটি ছিলেন নাঈম-শাবনাজ। চলচ্চিত্র নির্মাতা এহতেশাম পরিচালিত ‘চাঁদনী’ ছবির মাধ্যমে এই জুটির অভিষেক হয়। তারপর থেকে রুপালি পর্দায় তারা জুটি বেঁধে দারুণ সাড়া ফেলেন। নাঈম-শাবনাজ অভিনীত অধিকাংশ ছবিই ছিল ব্যবসা সফল।
 
তার মধ্যেই নাঈম-শাবনাজ একে অন্যের মন রদবদল করেন। তাদের প্রেম পূর্ণতা পায় বিবাহের মাধ্যমে। ১৯৯৪ সালের আজকের এই দিনে (৫ অক্টোবর) তারা দুজন বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। বিয়ের পর থেকেই তারা চলচ্চিত্র থেকে নিজেদের গুটিয়ে নেন। তাদের ঘরে রয়েছে দুই কন্যাসন্তান। দাম্পত্য জীবনের ২৩ বছর পার করে ফেলেছেন তারা। নাঈম-শাবনাজ বর্তমানে চলচ্চিত্র ছেড়ে দূরে আছেন। নাঈম মনোযোগী তার ব্যবসা নিয়ে এবং শাবনাজ ব্যস্ত সংসার নিয়ে। তারা জুটি বেঁধে ২০টির মতো ছবিতে অভিনয় করেন। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে ‘জিদ, ‘লাভ, ‘চোখে চোখে, ‘অনুতপ্ত, ‘বিষের বাঁশি’, ‘সোনিয়া’, ‘টাকার অহংকার’, ‘সাক্ষাৎ’ ও ‘ঘরে ঘরে যুদ্ধ’।
alt

দম্পতি নাঈম-শাবনাজ। ছবি: সংগৃহীত।

শাবানা: ঢালিউডের বিউটি কুইনখ্যাত জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবানা এখন ইসলাম ধর্মের পরিপূর্ণ অনুসারী। বড় পর্দার শাবানার সাথে বাস্তবের শাবানার এখন কোনো মিল নেই। ফুলহাতা কামিজ ও হিজাব সেই শাবানাকে সম্পূর্ণ পাল্টে দিয়েছে। এখন তার দেখা পাওয়া সাধারণ মানুষের পক্ষে তো বটেই, কোনো সাংবাদিকের পক্ষেও প্রায় অসম্ভব। স্বামী ওয়াহিদ সাদিক, দুই মেয়ে সুমী ও উর্মি এবং একমাত্র পুত্র নাহিনকে নিয়ে তিনি বসবাস করছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সিতে। তবে বর্তমানে ঢাকায় রয়েছেন তিনি। কোটি দর্শকের স্বপ্নের নায়িকা হিজাবপরা শাবানাকে এখন দেশে-বিদেশে দেখলে তার পরিচিতরা অবাক হন। একজন শীর্ষস্থানীয় নায়িকা হঠাৎ পর্দার অন্তরালে নিজেকে এভাবে লুকিয়ে রাখবেন এটা তারা ভাবতেও পারেন না। শাবানা তার ঘনিষ্ঠদের জানিয়েছেন, হজ করার পর তিনি আর ছবি না করে পর্দা করার সিদ্ধান্ত নেন।
alt

শাবানা, ছবি: সংগৃহীত।

ববিতা-সুচন্দা: তারা দুজনই একসময়কার জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা। অভিনয় করেছেন অসংখ্য চলচ্চিত্রে। পেয়েছেন তারকা খ্যাতি। কিন্তু হঠাৎ করেই তারা নিজেদের চলচ্চিত্র থেকে নিজেদের গুটিয়ে নেন। এমনকি হজও করে এসেছেন এই চিত্র নায়িকারা। আর ক্যামেরারর সামনেই আসতে নারাজ এই দুই অভিনেত্রী। তবে হুটহাট করেই ক্যামেরার সামনে পাওয়া যায় তাদের। আর বাকি সময় তারা ধর্মের কাজ নিয়েই ব্যস্ত থাকেন।
alt

দুইবোন ববিতা ও সুচন্দা। ছবি: সংগৃহীত।

অনন্ত জলিল: সময়ের সব থেকে আলোচিত এক নাম অনন্ত জলিল। তবে চিত্রনায়ক থেকে বদলে গেছেন অনন্ত জলিল। নিজেকে টম ক্রুজের সঙ্গে তুলনা করা এ নায়ক বেশ-ভূষায় আচরণে আর আগের মতো নেই। প্রতিদিন ভোরে ঘুম ভেঙেই নামাজ পড়ছেন অনন্ত জলিল। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ, আর সময় পেলেই হাদিসের বই অনন্তর হাতে, গাড়িতেও যাত্রাপথে পড়ছেন ইসলামী বই। অফিসের কাজের বিরতিতে কুরআনও পড়ছেন। আর সুযোগ পেলেই ছুটে যাচ্ছেন ধানমন্ডি ৩২ এর তাকওয়া মসজিদে। এ মসজিদের খতিব মাওলানা উসামার সঙ্গে গত একবছর ধরেই সময় দিচ্ছেন অনন্ত জলিল।

গত ২৯ জুলাই থেকে টানা তিনদিনের জন্য এ মসজিদে তাবলীগে জামাতে অংশ নিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকেও ইসলামি পোশাকে প্রোফাইল পিকচার পরিবর্তন করেছেন তিনি। প্রকাশ করেছেন মসজিদের ভেতর তারা নানা কর্মকাণ্ড। গত ২৯ জুলাই তিনি তাকওয়া মসজিদে শিশুদের সঙ্গে সময় কাটান। দুপুরের খাবার থেকে শুরু করে রাতের আহারও সারেন শিশুদের সঙ্গেই। এমন একটি ভিডিও প্রকাশ পেয়েছে তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে।
alt

অনন্ত জলিল, ছবি: সংগৃহীত।

নাজনীন আক্তার হ্যাপী: আলোচিত চিত্রনায়িকা নাজনীন আক্তার হ্যাপী  মিডিয়াজগৎ থেকে আগেই নিজেকে আড়াল করেছেন। মিডিয়ায় তাঁর কখনো আর ফেরার ইচ্ছে নেই। এখন তিনি রাজধানীর একটি কওমি মাদ্রাসায় পড়াশোনা করছেন।

হ্যাপীর বদলে যাওয়া জীবন নিয়ে সম্প্রতি একটি বই প্রকাশ করেছে মাকতাবাতুল আযহার প্রকাশনা। বইটির নাম ‘হ্যাপী থেকে আমাতুল্লাহ’। সাক্ষাৎকারধর্মী বইটি লিখেছেন সাদিকা সুলতানা সাকী। বইটির প্রকাশকের নাম মাওলানা উবায়েদুল্লাহ।

মাওলানা উবায়েদুল্লাহ গণমাধ্যমে বলেন, ‘বইটি  চলতি সপ্তাহে আমরা বাজারে এনেছি। এখন পর্যন্ত  এক হাজার ৭০০ কপি বিক্রি হয়েছে। অনেক ভালো সাড়া পাচ্ছি আমরা। একজন শোবিজ তারকা এখন ধর্মীয়ভাবে জীবনযাপন করছেন, এ বিষয়টা সবাইকে জানাতে মূলত বইটি আমরা প্রকাশ করেছি। একজন স্টার কেন তাঁর জীবনযাপনে পরিবর্তন এনেছেন এই বিষয়ের প্রতি সবার অনেক আগ্রহ আছে।’

বইটি প্রসঙ্গে নাজনীন আক্তার হ্যাপী ফেসবুকে লিখেছেন, ‘নতুন বইয়ের ঘ্রাণে আমার ঘর সুবাসিত হয়ে আছে, আলহামদুলিল্লাহ! ১০০ কপি বই পাঠিয়েছেন মাকতাবাতুল আযহার থেকে। অনেক অনেক জাযাকাল্লাহ  মাকতাবাতুল আযহারের প্রকাশক ভাইকে এবং বইটির সম্পাদক ভাইয়া এবং তার আহলিয়াকে যিনি আমার সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। এবং প্রচণ্ড কষ্ট করে সবকিছু ম্যানেজ করেছেন। আমি কৃতজ্ঞ। আল্লাহ আপনাদের কবুল করুন। অন্তর থেকে আপনাদের জন্য আমার দোয়া ছাড়া আর কিছু করার নেই। অনেক খুশি লাগছে আলহামদুলিল্লাহ! বইটা কল্পনার চেয়েও বেশি সুন্দর হয়েছে মাশাআল্লাহ! হাতে না নিলে এই বইয়ের সৌন্দর্য বোঝা সম্ভব নয়। অনেক বেশি সুন্দর।’

নাজনীন আক্তার হ্যাপী  ‘কিছু আশা কিছু ভালোবাসা’ ও ‘রিয়েল ম্যান’  নামে দুটি ছবিতে অভিনয় করেছেন। এ ছাড়া শফিক হাসান পরিচালিত ‘ধূমকেতু’ ছবির একটি আইটেম গানে তিনি নেচেছেন। বেশ কিছু মিউজিক ভিডিওর মডেল হয়েও আলোচিত হয়েছিলেন হ্যাপী। গত বছরের অক্টোবরে হঠাৎ করে বিয়ে করেন হ্যাপী। তাঁর স্বামী একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। পারিবারিকভাবে তাঁদের বিয়ে হয়। 

২০১৫ সালে দেশের তারকা ক্রিকেটার রুবেলের সঙ্গে হ্যাপীর সম্পর্ক নিয়ে ব্যাপক কথাবার্তা ছড়ায়। উভয়ের সম্পর্কের বিষয়টি শেষে আদালত পর্যন্ত গড়ায়। এ কারণে রুবেলকে স্বল্প সময়ের জন্য জেলেও যেতে হয়। পরে জামিনে মুক্ত হয়ে বিশ্বকাপগামী দলে যোগ দেন পেসার রুবেল।
alt

হ্যাপী এখন আমানতুল্লাহ। ছবি: সংগৃহীত।

পরিশেষে বলতে হয়, মানুষের মনে কখন কী ঘটে তা আসলে কেউ জানেনা। নিজেকে বদলাতে হলে আগে নিজেকে জানতে হয়। নিজেকে জানুন এবং বদলে যান।


চার বাংলাদেশি বিকিনি গার্ল!

শুক্রবার, ০৪ আগস্ট ২০১৭

বিনোদন ডেস্ক:এইতো গত বছরই সত্তর বছর পূর্ণ করল এই স্নান পোশাক। সুন্দরী মডেল, হলিউডি, বলিউডি অভিনেত্রীরা যেমন এই পোশাকে ঝড় তোলেন বহু হৃদয়ে, ঠিক তেমনি বাংলাদেশি অনেকেই চেষ্টাকরে যাচ্ছেন নিজেকে বিকিনিতে দেখাতে। তবে আমাদের সামাজিক অবস্থা বা সংস্কৃতির কারণে ঠিক এই পোশাকটির সঙ্গে খোলামেলা সমালোচনা থেকেই যায়। কিন্তু বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে গিয়ে বাংলাদেশি বেশ কয়েকজন মডেল এই বিকিনিতে নিজেদের দেখিয়েছেন। কিন্তু দেশ-বিদেশের হাজার হাজার বিচে এই পোশাকে ছুটি উপভোগ করেন সাধারণ মহিলারাও। আর কোনও পোশাক আছে যা একই সঙ্গে ক্যাজুয়াল, কমফর্টেবল, সেক্সি আবার দুর্দান্ত ফ্যাশনেবল? বাংলাদেশি বিকিনি এই গার্লদের নিয়েই প্রিয়.কম এর বিশেষ আয়োজন।

Picture

জান্নাতুল ফেরদৌস পিয়া: তিনি ২০০৭ সালে মিস বাংলাদেশ খেতাব অর্জন করেন। অভিনয় জগতে পদার্পণের পূর্বে তিনি মডেল হিসেবে খ্যাত ছিলেন। তার পেশা জীবন প্রায় সময়ই সমালোচিত হয়েছে এবং গণমাধ্যমে ব্যাপক প্রচার লাভ করেছে। এরপর কর্মজীবন শুরু করেন র‌্যাম্প মডেলিং-এর মাধ্যমে ২০০৮ সালে। ফ্যাশন মডেল হিসেবে পাশাপাশি একাধিক ব্র্যান্ডের টেলিভিশন বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন। তিনি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠানসমূহে অংশ নিয়েছেন বাংলাদেশের প্রতিনিধি হয়ে। ২০১১ সালে দক্ষিণ কোরিয়ায় আয়োজিত ‘ওয়ার্ল্ড মিস ইউনিভার্সিটি’ শিরোপা অর্জন করেন। এছাড়া মিশরে অনুষ্ঠিত ‘ওয়ার্ল্ড টপ মডেল’ প্রতিযোগিতায় শীর্ষ মডেল হওয়ার সাফল্য অর্জন করেন পিয়া। সেই আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতাগুলোতেই তিনি বিকিনি পরেছিলেন। আর এ নিয়ে কিন্তু বেশ সমালোচনায় পরতে হয় তাকে। সেই সমালোচনার কোন তোয়াক্কা না করেই তিনি নিজেকে প্রতিনিয়ত মেলে ধরছেন। ২০১২ সালে ‘চোরাবালি’ চলচ্চিত্রে সুজানা চরিত্রে অভিনয় করেন। ২০১৩ সালে বাহরাইনে আয়োজিত ‘ইন্টারন্যাশনাল প্রিন্সেস’ প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। একইবছর বাংলাদেশি সংগীতদল শিরোনামহীনের ‘শিরোনামহীন’ শিরোনামহীন অ্যালবামের ‘আবার হাসিমুখ’ গানের মিউজিক ভিডিওতে তাকে দেখতে পাওয়া যায়। পরবর্তীতে ২০১৪ সালে তিনি একই সাথে বেশ কটি চলচ্চিত্রে কাজ করছেন। এর মধ্যে রয়েছে, ‘গ্যাংস্টার রিটার্নস’, ‘দ্য স্টোরি অব সামারা’ এবং ‘প্রবাসীর প্রেম’।
alt

আন্তর্জাতিক মডেলিং এ পিয়া।

মাকসুদা আক্তার প্রিয়তি: মাকসুদা আক্তার প্রিয়তি। তিন শব্দের এই নামটির সঙ্গে অনেক কিছুই জুড়ে নিয়েছেন। আয়ারল্যান্ডে বসবাস করছেন এসব তথ্য পাঠকের কাছে নতুন না হলেও একটি বিষয় এখনও অনেকের কাছে অজানা থাকতে পারে। তা হলো, তার সাহস। যদিও তিনি বসবাস করছেন বাংলাদেশ ছেড়ে সুদূর আয়ারল্যান্ডে, কিন্তু তাতেই যে তিনি সাহসী হয়ে উঠেছেন এমনটা নয়। অনেক আগে থেকেই তার মনে ছিল কীভাবে বাঙালি হয়েও সাহসী হয়ে ওঠা যায়, সব বাঙালির আইডল হওয়া যায়। হয়তো এই ভাবনা থেকেই আজ তিনি বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের কোটি মানুষের আইডল।

বর্তমানে সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দুর্বার গতিতে তিনি এগিয়ে যাচ্ছেন নানা দেশের ফটোশুটে। আর দেশের বাইরের বিভিন্ন ফটোশুটগুলোর মধ্যে রয়েছে বিকিনি ফটোশুট। এর আগেও বিকিনিতে প্রিয়তি বিভিন্ন ফটোশুট করেছেন। করেছেন নগ্ন হয়ে ফটোশুটও। সম্প্রতি নগ্ন শরীরে পেইন্ট করে ও লাল বিকিনি পরা ছবি দিয়ে বেশ সমালোচিত হয়েছেন। কিন্তু এই ছবির মাধ্যমে প্রিয়তি আবারও প্রমাণ করলেন তিনি একজন সাহসী মডেল। নিজেকে ভেঙেচূড়ে প্রতিনিয়ত গড়ছেন তিনি। বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে অনেকেই প্রিয়তির কাছে ফ্যাশন বা মডেলিং বিষয়ক নানা প্রশ্ন করে থাকেন। প্রিয়তিও খোলামনে সবাইকে নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন।
alt

লাল বিকিনিতে প্রিয়তি।

নায়লা নাঈম: নায়লা নাঈম। সময়ের আলোচিত ও সমালোচিত একটি নাম। নিজের মডেলিং ক্যারিয়ারে এতটা জোয়ার না আসলেও তার খোলামেলা বা বিকিনি পোশাকে এসেছে জোয়ার। আর সেই জোয়ারেই ভেসে চলছে তার মিডিয়ার ক্যারিয়ার। তার খোলামেলা পোশাক নাটক কিংবা চলচ্চিত্রে খুব বেশি একটা দেখা না গেলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক তার খোলামেলা পোশাকের ছবিতে সরব থাকে। আর সেই খোলামেলা ছবি দিয়ে বেশ আলোচিত ও সমালোচিত হচ্ছেন প্রতিনিয়ত। কিন্তু শুনতে নারাজ তার এই সাহসীকতা দিনে দিনে বেড়েই যাচ্ছে।
alt

বাংলাদেশেই বিকিনিতে বিতর্কিত নায়লা নাঈম।

ফাতেমা-তুজ-জোহরা ইতিশা: ইতিশা ‘লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার ২০১২’ প্রতিযোগিতায় চতুর্থ হন। মডেলিং এর পাশাপাশি অভিনয় করছেন বেশ কিছু নাটক ও চলচ্চিত্রে। অনেকগুলো বিজ্ঞাপনচিত্রের মডেলও হয়েছেন। এই যখন অবস্থা তখন তিনি বিকিনি পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। শুধু যে তিনি দেশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থেকেছেন তান কিন্তু নয়। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে তিনি আন্তর্জাতিক ভাবে অনেকগুলো সুন্দরী প্রতিযোগতিায় অংশ নিয়েছেন তিনি। যার মধ্যে রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ায় অনুষ্ঠিত মিস এশিয়া প্যাসিফিক ওয়ার্ল্ড ট্যালেন্ট, আজারবাইজানের বাকুতে হয়ে যাওয়া তুরস্কের মিস গ্লোব ইন্টারন্যাশনাল প্রতিযোগিতায়, তাইওয়ানের ফেইস অব বিউটি, মিস হেরিটিজসহ আরও বেশ কিছু প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছেন তিনি।

এতো গেল বাংলাদেশের বিকিনি গার্লদের কথা। বহিবিশ্বের অভিনেত্রী থেকে শুরু করে সাদারণ মানুষও বিকিনি পড়ছেন কিন্তু এই বিকিনি’ প্রচলন আসল কোথা থেকে। চলুন পাঠক জেনে আসি বিকিনি’র ইতিহাস।
alt

বিকিনি পরে সুইমিং পুলে পোজ দিচ্ছেন লাক্সতারকা ইতিশা।

বিকিনির ইতিহাস: বিকিনি (ইংরেজি: Bikini) মূলত মেয়েদের ব্যবহৃত একপ্রকার সাঁতারের পোষাক। দুই প্রস্থ কাপড় দ্বারা এটি তৈরি, যা শরীরকে স্বল্পভাবে ঢেকে রাখে। এর একটি অংশ স্তন ও অপর অংশটি উরুসন্ধি এবং নিতম্বকে ঢেকে রাখে। যদিও নিতম্ব ঢেকে রাখার শর্তটি ঐচ্ছিক। এর দুইটি অংশের মধ্যবর্তী অংশ সাধারণত অনাবৃত থাকলেও ট্যানকিনি ধরনের বিকিনির ক্ষেত্রে তা প্রযোজ্য নয়। সাধারণত গরম আবহাওয়ায় এবং সাঁতার কাটার সময় বিকিনি পরিধান করা হয়। বিকিনির দুইটি অংশ মেয়েদের পৃথক দুটি অন্তর্বাস হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে। নিচের অংশটি সীমা থং বা জি-স্ট্রিং থেকে শুরু করে তুলনামূলক আবৃত চৌকোণা শর্টস পর্যন্ত হতে পারে। মারিয়াম-ওয়েবস্টার অভিধানে (১১তম সংস্করণ) বিকিনিকে ‘মেয়েদের দুই প্রস্থ বিশিষ্ট গোসলের পোষাক’, ‘ছেলেদের ব্রিফ সাঁতারের পোষাক’, এবং ‘ছেলে বা মেয়েদের লো-কাট ব্রিফ’ হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে। আধুনিক বিকিনির আবিস্কার হয় ১৯৪৬ সালে, এবং আবিস্কারক ছিলেন ফরাসী অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ার লুই রিয়ার্ড। একই বছরের জুলাইয়ে, প্রশান্ত মহাসাগরের দ্বীপ বিকিনি অ্যাটলে অনুষ্ঠিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পারমাণবিক পরীক্ষা অপারেশ ক্রসরোডসের নামানুসারে তিনি তাঁর সদ্য আবিস্কৃত পোশাকের নাম রাখেন বিকিনি। এই নামটি রাখার কারণ সম্ভবত পোশাকটির কারণে জনমানুষের মধ্যে বিদ্যমান উত্তেজনার বিস্ফোরণ, যা অনেকটা পারমাণবিক বিস্ফোরণের মতোই ব্যাপক ছিল।


ফেসবুকে নিষিদ্ধ ভিডিও ছড়াচ্ছেন নায়লা নাঈম!

মঙ্গলবার, ০১ আগস্ট ২০১৭

বিনোদন ডেস্ক:নায়লা নাঈম। সময়ের আলোচিত ও সমালোচিত একটি নাম। নিজের মডেলিং ক্যারিয়ারে এতটা জোয়ার না আসলেও তার খোলামেলা পোশাকে এসেছে জোয়ার। আর সেই জোয়ারেই ভেসে চলছে তার মিডিয়ার ক্যারিয়ার। তার খোলামেলা পোশাক নাটক কিংবা চলচ্চিত্রে খুব বেশি একটা দেখা না গেলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক তার খোলামেলা পোশাকের ছবিতে সরব থাকে।

Picture

তার এসব ছবির ভক্তকুলও কিন্তু কম নয়। একটি ছবি বা একটি ভিডিও শেয়ার করলে বেশ সাড়া পড়ে। আর এই কারণে কিন্তু তিনি গত দুই বছর ধরে নিজের ফেসবুকের ভেরিফাইড পেইজে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ভিডিও, তথ্য ও ছবি প্রকাশ করে অর্থ উপার্জন করছেন বেশ। জনপ্রিয় মাধ্যম থেকে উপার্জন করাও কিন্তু বুদ্ধিমত্তার পরিচয়। কিন্তু অর্থ উপার্জনের নাম করে বর্তমানে নাইলা নাঈমের ফেসবুক থেকে অশ্লীল ভিডিও আপলোড দেওয়া হচ্ছে। তাও আবার সেই সব ভিডিও আপলোড করা হচ্ছে যা চলচ্চিত্র কিংবা মিউজিক ভিডিও থেকে কেটে ফেলা হয়েছে বা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তার ফেইসবুক পেইজটিতে বর্তমানে সাড়ে ২৭ লাখ ফলোয়ার রয়েছেন। যারা প্রতিনিয়ত তাকে ফলো করছেন।
alt
তিনি কি পারতেন না জন সচেতন মূলক কিছু পোস্ট করে তার ফলোয়ারদের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে। কিন্তু না তিনি তা করেননি। বরং টাকার বিনিময়ে হোক আর নাইবা হোক এত লক্ষ মানুষের মাঝে তিনি কিভাবে অশ্লীল ভিডিও আপলোড দিচ্ছেন? এখন এটাই প্রশ্ন হয়ে উঠেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। গত বেশ কিছুদনি ধরে তিনি নিষিদ্ধ ভিডিওগুলো আপলোড দিয়ে যাচ্ছেন। যেই ভিডিওগুলো তিনি আপলোড করছেন সেগুলো কিন্তু বেশির ভাগই সেন্সর বোর্ড থেকে কেটে ফেলে দেওয়াে হয়েছে। সেই ভিডিও আপলোড করে কী তিনি অপরাধ করছেন না? বা আদৌ কি ঠিক হচ্ছে এই ধরনের ভিডিও আপলোড করা?

প্রশ্ন দুটি করা হয়েছে তারই পেইজের একজন একনিষ্ঠ ফলোয়ারের কাছে। যিনি প্রতিনিয়ত তাকে ফলো করছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এই ব্যক্তি বলেন, ‘আসলে সামাজিক ভাবে এটা ঠিক নয়। কারণ ফেসবুক বাংলাদেশে জনপ্রিয় মাধ্যম। সেই মাধ্যমে আসলে এভাবে অশ্লীল ভিডিও আপলোড দেওয়া ঠিক নয়। যদিও আমি বলছি না যে মডেলিং এর জন্য খোলামেলা পোশাকে তাকে মানাচ্ছে না বা খারাপ কাজ করছেন। কারণ যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়েই চলতে হয়। তাই বলে আমি তো আর অশ্লীলতার পক্ষে কথা বলতে পারি না। সাবলীল ভাবে নগ্ন হয়েও ছবি তোলা যায়। আমি এটাই বিশ্বাস করি।’

পাঠক আপনি চাইলেই ঘুরে আসতে পারেন নাইলা নাঈমের পেউজ থেকে এখানে ক্লিক করে।

alt


আমেরিকার পথে ঘাটে বাংলাদেশের নাটকের শুটিং

শুক্রবার, ২৮ জুলাই ২০১৭

আয়েশা আকতার রুবী,বাপসনিঊজ:স্ত্রী সন্তান নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই প্রবাস জীবন যাপন করছেন টনি ডায়েস। বলা যায় অভিনয় থেকেই দূরেই আছেন তিনি। তবে সম্প্রতি আমেরিকায় একটি একক নাটকের শুটিংয়ে দেখা গেল তাকে। জানা যায় নাটকটির নাম ‘অনাহূত’। লিপি মনোয়ারের রচনায় নাটকটি নির্মাণ করছেন সৈয়দ জামিম। আর নাটকে টনির সঙ্গে অভিনয় করছেন মিলা হোসেন, শামসুজ্জামান বকুল, শিরিন বকুল এবং আনিসুর রহমান দীপু। নিউইয়র্ক সিটির বিভিন্ন রাস্তা-ঘাট, রেষ্টুরেন্ট, শপিং মল, নদীর ধারে এই নাটকটির শুটিং হয়েছে।

Picture

নাটকটি সম্পর্কে অভিনেতা আনিসুর রহমান দীপু তার ফেসবুকে লিখেন, ‘ইনশাল্লাহ্ আজ আবার আমরা নাটকের শুটিং করছি! আমার সহধর্মিনী পলিকে ধন্যবাদ, তার সহযোগিতার জন্য। তার অনাগ্রহ আমাকে কষ্ট দিত, যন্ত্রণা দিত। ধন্যবাদ মনোয়ার ভাইকে। উনি নিউইয়র্ক আসায় আমার স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে। অনেক দিন ধরেই টনি ভাই, পাখি ভাইকে অনুরোধ করছিলাম। কিন্তু সাহস হচ্ছিল না। ধন্যবাদ টনি ডায়েস ভাই আপনি সম্মত হওয়ায়। সৈয়দ জামিম ভাইকে প্রথম পাচ্ছি, তারপরও ধন্যবাদ ব্যস্ততার মধ্যেও পরিচালনার দ্বায়িত্ব নেয়ায়। অর্নব ছোট ভাই কিন্তু কাজে অনেক বড়। আমাদের চিল্ড্রেন্স থিয়েটারে ছিল। এখানে ক্যামেরায় অনেক বড় কাজ করছে দেশি-বিদেশী প্রযোজনায়। তার জন্যও ধন্যবাদ এই টিমে যোগ দেয়ায়। লিপি মনোয়ার ভাবীর চমৎকার স্ক্রীপ্ট’।


বাংলাদেশি মেয়েরা যাচ্ছে মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায়

বৃহস্পতিবার, ২৭ জুলাই ২০১৭

বাপ্ নিউজ : মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতার ৬৭ তম আসরে অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশি মেয়েরা। এবারের আসরটি অনুষ্ঠিত হবে চীনের ক্রাউন অব বিউটি থিয়েটার সানইয়াতে। পর্দা উঠবে আগামী ১৮ নভেম্বর। আর এবারের ‘মিস ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতাকে ঘিরে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে বাংলাদেশি প্রতিযোগীরা।

Picture

এ উদ্দেশ্যে দেশের অভ্যন্তরেও শুরু হচ্ছে প্রতিযোগিতা, যার তত্ত্বাবধানে রয়েছে ‘অন্তর শোবিজ’। এ নিয়ে বৃহস্পতিবার (২৭ জুলাই) এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছে প্রতিষ্ঠানটি। উক্ত অনুষ্ঠানে জানানো হবে যে- দেশের প্রতিযোগীরা কীভাবে এই সম্মানজনক এ আসরে অংশ নেবেন।

alt

‘মিস ওয়ার্ল্ড’ আসরের জন্য ইতোমধ্যে নিবন্ধিত হয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ প্রতিযোগিতাটি হবে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর । এতে সম্পৃক্ত থাকবেন ‘মিস ওয়ার্ল্ড’ কর্তৃপক্ষ। এর পরই চীনের মূল আসরে যোগ দেবেন বাংলাদেশি প্রতিযোগীরা।


জয়ার দেশপ্রেমের প্রশংসা করলেন প্রধানমন্ত্রী

বুধবার, ২৬ জুলাই ২০১৭

বাপ্ নিউজ : ঢাকা থেকে : রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ৪০তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৫ সালের চলচ্চিত্রের জন্য সেরাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। সোমবার (২৪ জুলাই) বিকেলে থেকে শুরু হওয়া এই অনুষ্ঠানে অনিমেষ আইচের জিরো ডিগ্রি ছবির জন্য সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার নিয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান। প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে পুরস্কার নেন তিনি।

এসময় জয়ার সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। পরে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দিতে এসে জয়া আহসানের দেশপ্রেম ও দেশীয় চলচ্চিত্রের প্রতি মমত্ববোধের প্রশংসা করেন তিনি। শেখ হাসিনা বলেন, ‘চলচ্চিত্রে দেশপ্রেমকে জাগ্রত রাখতে হবে। চলচ্চিত্রের শিল্পী ও কলাকুশলীদের নিজের দেশ ও দেশীয় চলচ্চিত্রকে হৃদয়ে ধারণ করতে হবে। আমি শুনে খুব খুশি হয়েছি জয়ার আজ কলকাতায় একটি অ্যাওয়ার্ড নেয়ার কথা ছিল। বিদেশের মাটিতে সে বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের প্রতিনিধিত্ব করছে। এটা খুবই ইতিবাচক। তবুও জয়া সেই অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে না গিয়ে নিজ দেশের স্বীকৃতিকে প্রাধান্য দিয়ে এখানে এসেছে।

Picture

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, শিল্পীদের মধ্যে এই ইতিবাচক ভাবনা সমাজেও ইতিবাচক প্রভাব ফেলে। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে পুরস্কার নিয়ে উচ্ছ্বসিত জয়া বাপ্ নিউজকে বলেন, ‘আমাদের জননেত্রী শেখ হাসিনা অসাধারণ একজন মানুষ। তিনি খুব সহজেই অনুপ্রাণিত করতে জানেন। নিজের বক্তব্যে আমাকে নিয়ে কিছু কথা বলে তিনি আমাকে অনেক অনুপ্রাণিত করেছেন। তার কাছে আমি কৃতজ্ঞ। যতদিন বাঁচি, অভিনয় নিয়েই থাকতে চাই।’

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জয় করায় আনন্দিত জয়া তার ভক্ত, বাংলা ছবির দর্শক ও জিরো ডিগ্রি ছবির সঙ্গে জড়িত সকলকে ধন্যবাদ জানান।


স্মরণে ও স্মৃতির চারণে শিল্পী লাকি আখান্দকে নাগরিক শ্রদ্ধা

সোমবার, ২৪ জুলাই ২০১৭

বাপ্ নিউজ : ঢাকা থেকে : টুকরো মধুর স্মৃতিচারণ আর এককালীন সৃষ্টিপাগল দিনগুলো স্মরণের মধ্য দিয়ে সদ্যপ্রয়াত শিল্পী লাকি আখান্দকে ‘নাগরিক শ্রদ্ধা’ জানালেন তার জীবনের বিভিন্ন পর্বের সহযোদ্ধা, সহকর্মী, সহশিল্পীর পাশাপাশি সর্বস্তরের নাগরিকজন। অভিন্ন উপলব্ধিতে এক বাক্যে সবাই তারা বললেন, বিস্ময়কর অজস্র গানের জন্ম দিয়ে বাংলা গানের ভুবনে এক বিস্ময়পুত্র হয়ে, চিরকাল বেঁচে থাকবেন চিরতরুণ শিল্পী লাকি আখান্দ।

 Picture
শিল্পী লাকি আখান্দের সৃষ্টিকর্ম উদযাপন এবং তার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর আয়োজন করা হয় গতকাল শনিবার বিকাল সাড়ে ৫টায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় সংগীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্র মিলনায়তনে। দেশের সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও সঙ্গীতাঙ্গনের প্রায় সকলেই হাজিরা দেন এ আয়োজনে। এছাড়া গণমাধ্যম প্রতিনিধি ও সমাজের শীর্ষস্তরের ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে প্রয়াত শিল্পীকে ঘিরে শিল্পী আর গুণীদের এক মিলনমেলায় পরিণত হয় এ শ্রদ্ধা আয়োজন। লাকীকে নিয়ে স্মৃতিচারণা করেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক, শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী, গীতিকার আসিফ ইকবাল।
 alt
লাকি আখান্দের বাল্যবন্ধু শিল্পী ফেরদৌস ওয়াহিদ গেয়ে শোনান ‘আগে যদি জানিতাম’ গানটি। শিল্পীরা সমবেত কন্ঠে গেয়ে শোনান ‘আবার এলো যে সন্ধ্যা’ ‘এই নীল মনিহার’ গান দুটি, গান দুটি গাওয়ার সময় মিলনায়তনে উপস্থিত প্রতিটি মানুষ এতে কন্ঠ মেলান।

alt
 
তথ্যমন্ত্রী বলেন, শিল্পকলা একাডেমি ও সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়কে সঙ্গে নিয়ে পরবর্তী প্রজন্মের জন্য লাকী আখান্দের গানগুলো সংরক্ষণের ব্যবস্থা করবেন তাঁরা।সংস্কৃতিমন্ত্রী বলেন, লাকী জীবন, সৃষ্টি ও ভালোবাসার যন্ত্রণা ধারণ করেছিলেন। তাঁর ভেতরে বর্তমান বিদ্যমান ও বিরাজমান ছিল মুক্তিযুদ্ধের চেতনা। লাকীকে নিয়ে একটি তথ্যচিত্র দেখানো হয়। যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে শিল্পীর পাশে ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশ মিউজিক্যাল ব্যান্ডস অ্যাসোসিয়েশন (বামবা) এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি।


আমেরিকায় বন্ধুর জন্মদিনে অন্যরকম অভিনেত্রী নাফিজা!

রবিবার, ২৩ জুলাই ২০১৭

আয়েশা আকতার রুবী,বাপসনিঊজ:জন্মদিন মানেই এক আনন্দঘন সময়। দেশের এক সময়কার জনপ্রিয় অভিনেত্রী অভিনয় ছেড়ে এখন স্বামী সংসার নিয়ে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন নাফিজা জাহান। বলতে গেলে সংসার নিয়ে মহা খুশি একসময়কার এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী। শুধু কী তাই! নিজের পরিবার তার স্বামীর পরিবার, বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন নিয়ে বেশ উচ্ছ্বাসিত তিনি। এসব হয়তো কিছুই জানা যেত না।

Picture

অনলাইনের এই সময়ে ফেসবুকের কল্যাণে এখন সবই জানা যায়। আপনি যেখানেই থাকেন না কেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ছবি পোস্ট করার প্রবণতা দিনে দিনে বাড়ছে। প্রতিটি মুহূর্তই এখন সবাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে পোস্ট করে থাকেন।

alt

তেমনি নাফিজা জাহান আমেরিকাতে থাকলেও সেখানকার প্রতিটি মুহূর্ত ভক্ত, শুভাকাঙ্খীদের সঙ্গে শেয়ার করে থাকেন। গতকাল নাফিজা জাহানের এক বন্ধুর জন্মদিন ছিল সেই জন্মদিনের অনেকগুলো ছবি পোস্ট করেছেন ফেসবুকে। ছবিতে তার বন্ধু ও আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে বেশ উচ্ছ্বাসিত দেখা যাচ্ছে তাকে।