Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

দেশে আইন-শৃংখলা ও দায়িত্ববোধের চরম অধ:পতন ঘটেছে .........জেএসডি

মঙ্গলবার, ০৬ অক্টোবর ২০১৫

আয়েশা আকতার রুবি,বাপসনিঊজ:জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব ও সাধারন সম্পাদক আবদুল মালেক রতন এক বিবৃতিতে বলেছেন, দেশের আইন শৃংখলা ও কর্তা ব্যক্তিদের  দায়িত্ববোধের চরম অধ:পতন ঘটেছে। সম্প্রতি গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে এমপি কর্তৃক হেলা-খেলার মত বিনা কারনে এক কিশোরের পায়ে গুলি বর্ষন, টাঙ্গাইলের কালিহাতিতে ছেলের সামনে মাকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন এবং এর বিরুদ্ধে বিক্ষুব্দ জনতার উপর গুলিবর্ষন করে চারজনকে হত্যা, অসংখ্য গ্রেপ্তার ও শত শত মানুষকে আসামী করে মামলা দায়ের,  পর পর দুইজন বিদেশী নাগরিককে   গুলি করে হত্যা, হত্যার জন্য কারা দায়ী – এ প্রশ্নে সরকারের কর্তা ব্যক্তিদের তদন্তে বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারক বক্তব্য-বিবৃতি, র‌্যাব এর হাতে গ্রেপ্তারকৃত ইউজিসি অফিসারের মৃত্যু এবং মেডিক্যাল ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস ও এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারী ও নতুন প্রশ্নপত্রের ভিত্তিতে পুনরায় পরীক্ষা গ্রহনের দাবীতে আন্দোলনরত ছাত্র - অভিভাবকদের পুলিশ কর্তৃক চরমভাবে লাঠিপেটা ও গ্রেপ্তার দেশের আইন-শৃংখলা পরিস্থিতির চরম অবনতির সুস্পষ্ট লক্ষন। কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে মানব পাচারের মাধ্যমে তাদেরকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া, বৌদ্ধদের উপর হামলা, হিন্দুদের বাড়ী-ঘর-সম্পত্তি দখল, সারা দেশে হত্যা, খুন, ধর্ষন, অপহরন, দখলবাজী চলছে অব্যাহত গতিতে। খবর বাপসনিঊজ;
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছেন সেজন্য আমরা তাঁকে অভিনন্দন জানাই। কিšু‘ তিনি যখন পুরস্কার আনতে যান তখন ঢাকা শহরে নৌকা চলাচলের মত অবস্থা। প্রতি বছরের মত এবারও নদী ভাঙ্গনে হাজার হাজার মানুষ গৃহ হারা হলো। সরকার এ সবের কারন নির্ধারন করে তা সমাধানের উদ্যোগ নিলে প্রধানমন্ত্রীর পুরস্কার গ্রহন জনগনের কাছে আরো আনন্দের বিষয়ে পরিনত হতো এবং জনগন সরকারের দায়িত্বশীলতার পরিচয় পেতো।
নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশে ভোটার বিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে গঠিত সরকার ক্ষমতায় থাকার কারনেই এ ধরনের ঘটনা ঘটছে। জনগনের  গনতান্ত্রিক ও মৌলিক মানবাধিকার এবং অবাধে মিছিল-মিটিং সহ সকল ধরনের রাজনৈতিক কর্মকান্ড করার সুযোগ থাকলে সন্ত্রাসবাদের বিস্তার  হতোনা এবং জীবন দিতে হতোনা বিদেশী দুই নাগরিককে। দেশে অব্যাহত গতিতে বৃদ্ধি পেতোনা হত্যা, খুন, লুটপাট, হাইজ্যাক, ধর্ষন ও অপহরনের মত ঘটনা। এ সব থেকে জাতিকে মুক্ত করার জন্য আজ প্রয়োজন -১,জনগণের ভোটাধিকারসহ মৌলিক মানবাধিকার এবং একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন নিশ্চিত করা।২,দেশে ৯টি প্রদেশ, দ্বি-কক্ষ বিশিষ্ট পার্লামেন্ট, স্ব-শাসিত উপজেলা পরিষদ গঠন এবং প্রতিটি উপজেলায় শিল্পাঞ্চল গড়ে তুলে প্রবাসী বাঙালীদের বিনিয়োগ নিশ্চিত করা।৩,‘দ্বি-কক্ষ পার্লামেন্ট’ গঠন করে এর ‘উচ্চ কক্ষ’ থেকে নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের বিধান করা।৪,বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, ভুটানের সাথে চীন ও বার্মাকে যুক্ত করে উপআঞ্চলিক সহযোগীতা জোটকে পূর্ণতা প্রদান করা এবং সমগ্র উপঅঞ্চল ব্যাপী কানেকটিভিটি গড়ে তোলে-ট্রান্সপোর্ট ইকোনমি শক্তিশালী করা।৫,সংবিধানের যুগোপযোগী সংস্কার সাধনসহ জেএসডি’র ১০ দফা বাস্তবায়ন করা।
প্রয়োজন উপরোক্ত পাঁচ দফার আলোকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ধারক-বাহক সকল গণতান্ত্রিক, প্রগতিশীল রাজনৈতিক দল, পেশাজীবি ও সুশীল সমাজের সংগঠনসমূহের প্রতিনিধিদের নিয়ে দুই জোটের বিকল্প হিসেবে ‘তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি’ গড়ে তোলার মাধ্যমে জাতীয় ঐক্যের পথ প্রশস্ত করা।


Add comment


Security code
Refresh