Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

শিশুদের সঙ্গে অন্যরকম দিন শেখ রেহানার

শনিবার, ১৮ মার্চ ২০১৭

বাপ্ নিউজ : ঢাকা থেকে : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনে শিশুদের সঙ্গে অন্যরকম দিন কাটালেন জাতির জনকের কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানা। তিনি বলেছেন, আমি যখন তোমাদের মতো ছোট ছিলাম, তখন আমার বাবা বেশির ভাগ সময় জেলেই থাকতেন। বাবার হাত ধরে স্কুলে যাওয়ার সৌভাগ্য আমার হয়নি। বাবা বাসায় থাকলে তার সঙ্গে স্কুলে যাওয়ার বায়না ধরতাম। তাই বাবা অফিস থেকে ফেরার সময় আমাকে স্কুল থেকে নিয়ে আসতেন। এ সময় ঈদের মতো আনন্দ হতো।

Picture

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ১৭ মার্চ শুক্রবার দিনভর ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে শিশু-কিশোরদের নিয়ে একটি বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই)। শিশুদের কাছে বঙ্গবন্ধুর শৈশবকাল, রাজনৈতিক জীবন, সংগ্রামের কথা তুলে ধরার লক্ষ্যেই এ অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে শেখ রেহানা তার ছেলে রেদওয়ান মুজিব সিদ্দিকসহ উপস্থিত হন। অনুষ্ঠানে আগত বাচ্চাদের সঙ্গে বসে বাবার সঙ্গে তার বিভিন্ন ঘটনার স্মৃতিচারণ করেন।

alt

ধানমন্ডি ৩২ এর বাড়িতে তাদের জীবনের বিভিন্ন ঘটনাও বাচ্চাদের বলেন শেখ রেহানা। বয়স যখন ৩-৪ তখন তারা এই বাড়িতে এসে ওঠেন। বাড়ির উঠানে বাস্কেটবল খেলতেন, বাবা মুক্ত থাকলে বাসায় থাকতেন আর তখন পরিবারের সবাই মিলে ব্যাডমিন্টন খেলতেন। বিভিন্ন রকমের ফুলে ভরে থাকত বাসার বাগান, বারান্দা। সকালের খবরের কাগজ পড়ে স্কুলে যাওয়ার আগে ফুল কুড়িয়ে মালা বানাতেন। তিনি বলেন, ‘বাবা সকালে পুরো ধানমন্ডিতে হাঁটতেন, আমি আর ভাইয়েরা শুধু ৩২ নম্বরেই তার সঙ্গে হাঁটতাম, কিন্তু বোঝাতাম আমরাও পুরোটা হেঁটেছি। উনাকে তো আমরা সব সময় কাছে পেতাম না, তাই যখনই তিনি বাসায় থাকতেন, বাচ্চারা সবাই তার সঙ্গে খেলত, তার কারাগারে থাকার গল্প শুনত, তার হাতে ভাত খেত।’

তিনি বাচ্চাদের জিজ্ঞেস করেন তারা বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ শুনেছে কিনা। তখন বাচ্চারা সবাই শেখ রেহানার সঙ্গে উচ্চারণ করে, ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।’

প্রতিবেদন থেকে আরও জানা যায়, বঙ্গবন্ধু কোথায় জন্মেছিলেন, তার বাবা-মার নাম কি?— শেখ রেহানা এ প্রশ্নগুলো করলে প্রতিটি প্রশ্নের সঠিক উত্তর দেয় বাচ্চারা। বাবা কেমন শাসন করতেন, একজন শিশুর এমন প্রশ্নে শেখ রেহানা বলেন, ‘মারধর তো দূরের কথা কখনো বকাও দিতেন না। শুধু এমনভাবে তাকাতেন যে আমরা বুঝে ফেলতাম, কোনো ভুল করে ফেলছি। ’ শেখ রেহানা বলেন, বঙ্গবন্ধু শিশুদের অনেক ভালোবাসতেন। তিনি হেসে বলেন, বাবার চেয়ে মা বেশি শাসন করতেন।