Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

মে দিবসে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ট্রাম্পবিরোধী বিক্ষোভ করবেন অভিবাসীরা

শনিবার, ২৯ এপ্রিল ২০১৭

বাপ্ নিউজ : আসন্ন মে দিবসে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ট্রাম্পবিরোধী বিক্ষোভ প্রদর্শন করবেন অভিবাসীরা। অভিবাসীবান্ধব মার্কিনিরাও বিক্ষোভে অংশ নেবেন। এসব বিক্ষোভ থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার প্রশাসনের বিভিন্ন নীতির প্রতিবাদ জানাবেন বিক্ষোভকারীরা। যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরে মিছিল-সমাবেশ থেকে ট্রাম্পের নীতির বিরুদ্ধে নিজেদের অবস্থানের জানান দেবেন তারা।

অ্যাক্টিভিস্টরা জানিয়েছেন, নিউইয়র্ক, শিকাগো এবং লস অ্যাঞ্জেলসের মতো গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোতে বিক্ষোভে অংশ নেবেন লাখখানেক মানুষ। ১ মে সোমবার সকালে এসব বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হবে।

মিয়ামির উপকণ্ঠে ফিনিক্সে কৃষকরা বিক্ষোভ করবেন। মিছিল নিয়ে হোয়াইট হাউস অভিমুখে যাত্রা করবেন বিক্ষোভকারীরা। সিয়াটলে অভিবাসীপন্থীদের পুঁজিবাদবিরোধী মিছিল ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হবে। শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো অবরোধের পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।

নিউইয়র্ক ইমিগ্রেশন কোয়ালিশন-এর নির্বাহী পরিচালক স্টিভেন চই বলেন, আমরা অপ্রত্যাশিত কর্মকা- লক্ষ্য করছি। অভিবাসীদের বিরুদ্ধে ট্রাম্প প্রশাসনের বিভিন্ন নীতির ফলে তাদের মধ্যে এ সক্রিয়তা শুরু হয়েছে।

Picture

বিশ্বজুড়ে ১ মে শ্রমিকদের অধিকার রক্ষার দিন হিসেবে পালিত হলেও যুক্তরাষ্ট্রে তা এখন অভিবাসীদের বিক্ষোভের দিন হিসেবে পরিণত হয়েছে। ২০০৬ সালে ইমিগ্রেশন এনফোর্সমেন্ট বিল-এর প্রতিবাদে রাস্তায় নামেন প্রায় ১০ লাখ মানুষ। এরপর থেকে প্রতিবছর মে দিবসে অভিবাসীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করে আসছেন।

আয়োজক ও অ্যাক্টিভিস্টরা আশা করছেন, গত কয়েক বছরের তুলনায় এবার বিক্ষোভে অংশ নেবেন অনেক বেশি সংখ্যক মানুষ। কারণ দায়িত্ব নিয়েই ট্রাম্পের অভিবাসীবিরোধী বিভিন্ন নীতি মানুষ পছন্দ করেনি। এছাড়া ট্রাম্পবিরোধী নারী শোভাযাত্রা, ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটারস এবং মুসলিম অধিকার আন্দোলনের মতো কর্মসূচিগুলোতে অভিবাসী অধিকারকর্মীরা সক্রিয়ভাবে কাজ করেছেন। ফলে অভিবাসীদের কর্মসূচিতে তাদের দিক থেকেও সমর্থন পাওয়া যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

অবৈধ অভিবাসীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে বলে জানিয়েছেন অ্যাক্টিভিস্টরা। তাদের আশঙ্কা, মে দিবসকে সামনে রেখে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অভিযানে নামতে পারে। বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারীদের ব্যাপকতা দেখেও প্রশাসন আরও কঠোর হতে পারে।

সিইআইইউ ইউনাইটেড সার্ভিস ওয়ার্কার্স ওয়েস্ট-এর সভাপতি ডেভিড হুয়ের্তা। তিনি বলেন, আপনি যদি লস অ্যাঞ্জেলসে বসবাসরত অভিবাসী হয়ে থাকেন; তাহলে সোমবার আপনার জন্য সবচেয়ে নিরাপদ হচ্ছে শহরতলীর বিক্ষোভে অংশ নেওয়া।

এদিকে, দায়িত্ব নেওয়ার শততম দিন উপলক্ষে অভিবাসীদের বিরুদ্ধে আরও কঠোর হওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। এরইমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধভাবে প্রবেশের অভিযোগে কয়েক হাজার অভিবাসনপ্রত্যাশীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।