Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

শ্রমিক শ্রেনীকে অধিকার বঞ্চিত রেখে কাংখিত গণতন্ত্র, উন্নয়ন কিছুই সম্ভব নয় .... আ স ম আবদুর রব

মঙ্গলবার, ০২ মে ২০১৭

বাপ্ নিউজ : জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জেএসডি সভাপতি জনাব আ স ম আবদুর রব বলেছেন, শ্রমিক শ্রেনীকে অধিকার বঞ্চিত রেখে কাংখিত গণতন্ত্র, উন্নয়ন কিছুই সম্ভব নয়। তাদের অধিকার বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে হলে কল-কারখানা ও অর্থলগ্নি প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজমেন্টে এবং পার্লামেন্ট ও স্থানীয় সরকারে শ্রমিকদের প্রতিনিধিত্ব প্রদান করতে হবে। দেশ স্বধীন হওয়ার ৪৬ বছরেও তাদের ৮ ঘন্টা শ্রমের দাবী, সুস্থ কর্ম পরিবেশ, সর্বত্র ট্রেড ইউনিয়ন করার অধিকার ও বেঁচে থাকার জন্য ন্যূনতম ১৫০০০ টাকা মাসিক মজুরী নিশ্চিত করা হয়নি। সরকারী কর্মচারীদের বেতন বেড়েছে এবং বছর বছর বৃদ্ধির বিধান করা হয়েছে। কিন্তু বেসরকারী কর্মচারীসহ শ্রমিকদের আজও চাকুরীর নিশ্চয়তা নেই। যারা শ্রম দেন তাদের অনেককে আজও তিন থেকে চার হাজার টাকা মাসিক মজুরীতে কাজ করতে হয়। তাদের জন্য কোন মজুরী কমিশন আজও ঘোষিত হয়নি। শ্রমিকরা আন্দোলন করলে তাদেরকে কর্মচ্যুত করা হয়, পুলিশী নির্যাতন করা হয়, গ্রেপ্তার করা হয়। এমতাবস্থায় শুধুমাত্র ট্রেড ইউনিয়ন আন্দোলনের মাধ্যমে এ সকল সমস্যার সমাধান হবে না। এর জন্য গণতন্ত্র, অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচন ও শ্রমিক বান্ধব সরকার নিশ্চিত করার জন্য শ্রমিক শ্রেনীকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

জেএসডি সাধারন সম্পাদক জনাব আবদুল মালেক রতন বলেছেন, অধিকার আদায়ের সংগ্রাম করার অপরাধে অনেক শ্রমিক নেতাকে হত্যা করা হয়েছে। এর কোন বিচার আজও হয়নি। যেই রানা প্লাজা ধ্বসের কারনে ১১ থেকে ১২ শত শ্রমিক নিহত হয়েছে, যাদের খোজ এখনও পাওয়া যায়নি তার জন্য যথাযথ পদক্ষেপ নিতে সরকার পারেনি। রানা প্লাজা ধ্বসের জন্য দায়ীদের বিচারও আজ পর্যন্ত হয়নি।

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক জোটের সাধারন সম্পাদক জনাব মোশাররফ হোসেন বলেছেন, সরকারের ভুল শ্রম ও শিল্পনীতির কারনে যুক্তরাষ্ট্রে জিএসপি সুবিধা বাতিল হয়েছে, ইউরোপে বাতিল হওয়ার উপক্রম হয়েছে। গত কয়েক বছরে অসংখ্য গার্মেন্টস কারখানা বন্ধ হয়েছে, অসংখ্য শ্রমিক-কর্মচারী বেকার হয়েছে। চামড়া শিল্প সম্পর্কে সরকারের ভুল নীতি ও পদক্ষেপের কারনে তা আজ ধ্বংস হতে চলেছে। সমস্ত শিল্পে গ্যাস,বিদ্যুৎ লাইন, বর্জ্য শোধনাগারের ব্যবস্থা ও শ্রমিকদের আবাসন, তাদের শিক্ষা-চিকিৎসার ব্যবস্থা না করে হাজারী বাগে সমস্ত কারখানার গ্যাস-বিদ্যুৎলাইন কেটে দিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এমতাবস্থায় চামড়া শিল্পের মত বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী একটি গুরুত্বপুর্ন সেক্টরে একত্রে শ্রমিক-মালিকদেরকে বেকার করে দেয়া হয়েছে। এ ধরনের অবস্থা নিরসনের জন্য সরকারকে অনতিবিলম্বে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে।

আজ সকাল ১১টায় মহান মে দিবস উপলক্ষে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক জোট আয়োজিত র‌্যালী পরবর্তী সমাবেশে নেতৃবৃন্দ এ সকল কথা বলেন।

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক জোটের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জনাব এয়ার আহমদ বলীর সভাপতিত্বে পল্টন মোড়স্থ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেএসডি সভাপতি জনাব আ স ম আবদুর রব, সাধারন সম্পাদক জনাব আবদুল মালেক রতন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আতাউল করিম ফারুক, মো: সিরাজ মিয়া, সহ-সভাপতি মিসেস তানিয়া রব, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক জোটের সাধারন সম্পাদক মোশারফ হোসেন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক রাজা, সহ-সভাপতি আবদুল আউয়াল, এবিএম জামাল উদ্দিন, আবুল হোসেন, এ্যাড. নাজিম উদ্দিন প্রমুখ।