Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

বিএমএসএফ ১৫ জুলাই ৫ পেরিয়ে ৬ বছরে: কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন

রবিবার, ১৬ জুলাই ২০১৭

বাপ্ নিউজ : হাটি হাটি পা করে আজ ১৫ জুলাই মফস্বল সাংবাদিকদের প্রানের সংগঠন বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) আজ ৬ বছরে পা দিচ্ছে। নানা ঘাত-প্রতিঘাত আর চড়াই-উৎড়াই পেরিয়ে বিএমএসএফ তার নিজস্ব গতিধারায় সাংবাদিকদের অধিকার আর দাবী আদায়ের একটি প্লাটফর্মে রুপ নিতে চলছে। শোষন আর নিষ্পেষনের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে শুরু করছে মফস্বলের সাংবাদিকরা। আজ ১৫ জুলাই দেশব্যাপী সংগঠনটির শাখা কমিটি বর্ণাঢ্য আয়োজনে শোভাযাত্রা, ফেষ্টুন, কেক কাটা, আলোচনা সভা ও প্রশিক্ষন কর্মশালার আয়োজন করেছে।  
মফস্বল সাংবাদিকদের অধিকার আর ন্যায্য পাওনা থেকে বঞ্চিত হওয়ার দিন শেষ হয়ে গেছে। তারা আজ প্রতিবাদী ও ঐক্যবদ্ধ। মফস্বলের এই সকল সাংবাদিকরা এক সময়ে ছিল চরম শোষন আর নির্যাতনের শিকার। তাই বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ২০১৩ সালের ১৫ জুলাই আত্মপ্রকাশ করে সংগঠিত করার চেষ্টা চালায়। বিএমএসএফ আজ দেশের গন্ডি পেরিয়ে দেশের বাইরে বাংলাদেশী সাংবাদিকদের পক্ষেও কথা বলছে। বিএমএসএফ আজ দেশে একটি বৃহৎ সাংবাদিক সংগঠনে পরিনত হয়েছে। ইতিমধ্যে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা/উপজেলা মিলিয়ে দেড় শতাধিক শাখা কমিটি রয়েছে। রয়েছে ব্যাপক অনলাইন প্রচারণা। সুদূর আমেরিকা, মালয়েশিয়া এবং ইউকে লন্ডনেও গঠিত হয়েছে পৃথক ৩টি শাখা কমিটি। কমিটি গুলো দেশের সাংবাদিকদের দাবী, অধিকার, সমস্যা আর সম্ভাবনার ব্যাপারে স্বোচ্চার রয়েছে। কোথাও কোন সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটলে বিএমএসএফ’র সদস্যরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে প্রতিরোধ-প্রতিকারের উদ্যোগ গ্রহন সহ সাংবাদিক নির্যাতনের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ওঠে। এক কথায় বিএমএসএফ আজ সারাদেশের সাংবাদিকদের একটি ঐক্য আর বিশ্বাসের স্থান হয়ে দাড়িয়েছে। বিএমএসএফ প্রতিষ্ঠার পর সারাদেশের সাংবাদিকদের মতামতের ভিত্তিতে ১৪ দফা দাবী সরকার এবং সংশ্লিষ্ট গণমাধ্যমসমুহের নিকট তুলে ধরে তা কার্যকর এবং বাস্তবায়নের চেষ্টা চালায়।

 ইতিমধ্যে বিএমএসএফ’র দাবীর প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু’র প্রচেষ্টায় সারাদেশের পেশাদার সাংবাদিকদের একটি জাতীয় তালিকা প্রনয়নের কাজ সরকার গ্রহন করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় গত ১৬ জানুয়ারী ২০১৭ তারিখে জাতীয় প্রেস কাউন্সিল চেয়ারম্যান বিচারপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ সারাদেশের জেলা প্রশাসকদের কাছে সাংবাদিকদের তালিকা চেয়ে চিঠি পাঠিয়ে তালিকা প্রণয়ন করছেন।

সাংবাদিকদের এই জাতীয় তালিকা দ্রুত ঘোষণাসহ ১৪ দফা দাবী এখন মফস্বল সাংবাদিকদের প্রানের দাবীতে পরিনত হয়েছে। দাবীসমুহের মধ্যে অনতিবিলম্বে জেলা/উপজেলার পেশাদার সাংবাদিকদের তালিকা দ্রুত ঘোষণা, সাংবাদিক নিয়োগ নীতিমালা প্রণয়ন, সাংবাদিক নির্যাতন বন্ধে যুগোপযোগি আইন প্রনয়ন, ৫৭ ধারা বাতিল, তদন্তে দোষী প্রমানিত হওয়ার আগে কোন সাংবাদিককে গ্রেফতার না করা, সরকার কর্তৃক সাংবাদিকদের মাসিক সম্মানী ভাতা প্রদান, পেশাগত কাজে কোন সাংবাদিক হামলা-মামলার শিকার হলে তার ব্যয়ভার বহন করা,  সরকারী ও বেসরকারী পর্যায়ে পিআরও নিয়োগে প্রকৃত সাংবাদিককে অগ্রাধিকার প্রদান, ৬ষ্ঠ থেকে উচ্চতর ক্লাশে গণমাধ্যম বিষয়ক একটি অধ্যায় চালু করা, পূর্বের মত পত্রিকাগুলোকে প্রয়োজনীয় কাগজ বরাদ্দ দেয়া, মফস্বল পর্যায়ে ওয়েজ বোর্ড সুবিধা প্রদান, উপজেলা পর্যায়ে বিটিভি, বেতার ও বাংলাদেশ রেডিও’র প্রতিনিধি নিয়োগ প্রদান, গণমাধ্যমকে পূর্নাঙ্গ শিল্প ঘোষণাসহ সকল দাবীই সাংবাদিক ও গণমাধ্যম বান্ধব। এ সকল দাবীগুলোকে বাস্তবে রুপ দিতে চাই দেশের সাংবাদিকদের জাতীয় ঐক্য এবং সকলের আন্তরিক সহযোগিতা। বিএমএসএফ’র ৫ম বর্ষপূর্তিতে দেশের সকল সাংবাদিক, গণমাধ্যম সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক ভালোবাসা ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন সংগঠনটি কেন্দ্রীয় সভাপতি শহীদুল ইসলাম পাইলট ও সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আবু জাফর। আগামীতেও আপনাদের ভালবাসা ও সহযোগিতায় আমরা একটি সুন্দর ও সুখী সমৃদ্ধ গণমাধ্যম অঙ্গন উপহার দিতে পারবো এমন আশা রাখছি।