Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

বানভাসি মানুষ ও রোহিঙ্গাদের পাশে স্টুটগার্ট প্রবাসী

মঙ্গলবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭

রাশা বিনতে মহিউদ্দিন: বাপ্ নিউজ : জার্মানির স্টুটগার্ট থেকে : বানভাসি মানুষ ও রোহিঙ্গাদের জন্য রাস্তায় অর্থ সংগ্রহ কার্যক্রমদেশের উত্তরাঞ্চলে বন্যার্তদের সহায়তা দিতে পাশে দাঁড়িয়েছে জার্মানির বাডেনউটেনবার্গ প্রদেশের স্টুটগার্ট শহরের প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

Picture

স্টূটগার্ট শহরের কেন্দ্রে ব্যস্ত সড়কের পাশে একটি তাঁবুতে বন্যা আক্রান্ত এলাকার বানভাসি মানুষ এবং সেই সঙ্গে মিয়ানমার থেকে আগত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সাহায্য করতে অর্থ সংগ্রহের উদ্যোগ নেওয়া হয়। সেখানে তাঁবুতে বানভাসি মানুষ ও রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ছবি সংবলিত পোস্টার ও প্ল্যাকার্ড পাশাপাশি শোভা পায়। বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষে অর্থ সংগ্রহে রাস্তায় নেমে পড়েন এবং দুই দিনব্যাপী (৯ ও ১০ সেপ্টেম্বর) এই কার্যক্রম চালান। এই অর্থ সংগ্রহে শিশুরাও যোগ দেয়।

alt

সংগ্রহ করা অর্থ অধিকাংশই বন্যার্তদের মাঝে বিতরণ করা হবে বলে আয়োজকেরা জানান। তবে এর মধ্যে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের পুনর্বাসন এবং সহযোগিতার ব্যাপারেও আয়োজকদের মধ্যে অনেকে আগ্রহ প্রকাশ করেন।দেশে বানের পানি বাড়তে থাকার সঙ্গে সঙ্গে মানুষের দুর্ভোগ বাড়তে থাকে বলেই দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়াতে উদ্যোগ নেয় জার্মানির বাডেনউটেনবার্গ প্রদেশের বাংলাদেশি কমিউনিটি। অর্থ সংগ্রহে তারা নিরলস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন এবং আগামী দিনগুলোতেও সেটা অব্যাহত থাকবে বলেই জানিয়েছেন।

alt
বানভাসি মানুষ ও রোহিঙ্গাদের জন্য রাস্তায় অর্থ সংগ্রহ কার্যক্রমঅংশগ্রহণকারীরা বলেন, দেশের এমন কঠিন সময়ে আমাদের এগিয়ে আশা দায়িত্ব বলে মনে করি। ফলে আমরা আমাদের সাধ্যমতো বানভাসি মানুষের পাশে ত্রাণ সহায়তা দিতে এগিয়ে এসেছি। আমাদের মতো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা প্রবাসীদেরও এগিয়ে আশা উচিত বলে করি। মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতি এবং ওই অঞ্চল থেকে আগত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের দুর্ভোগ নিয়েও তারা গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন। পাশাপাশি সহিংসতা বন্ধে মিয়ানমারের নোবেল বিজয়ী অং সান সুচি ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্রে মোদীসহ জাতিসংঘের দ্রুত কার্যকরী হস্তক্ষেপ প্রত্যাশা করেন তারা।


Add comment


Security code
Refresh