Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

সিনেট নির্বাচনে জয়ী ডেমোক্র্যাট প্রার্থী আলাবামায় ট্রাম্পেরই হার

বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭

বাপ্ নিউজ : গল্প নয় সত্যি। ‘গভীর লাল’ নামে পরিচিত রিপাবলিকান-নিয়ন্ত্রিত আলাবামার বিশেষ সিনেট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী ডাগ জোন্স প্রায় ২৫ হাজার ভোটের ব্যবধানে বিতর্কিত রিপাবলিকান প্রার্থী রয় মোরকে পরাজিত করেছেন। রয় মোর অবশ্য পরাজয় মেনে না নিয়ে ভোট পুনর্গণনার দাবি জানিয়েছেন।

আলাবামার আইন অনুসারে ভোটের ব্যবধান অর্ধ শতাংশের (শূন্য দশমিক ৫ শতাংশ) কম হলে ভোট পুনর্গণনার নিয়ম রয়েছে। ডাকযোগে পাঠানো কিছু ভোট এখনো গণনা বাকি। তবে ভোটের ব্যবধান ১ শতাংশের বেশি হওয়ায় এই ফলাফল বদলে যাওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছেন নির্বাচন বিশ্লেষকেরা।

সিনেটর জেফ সেশন্স প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মন্ত্রিসভায় যোগ দেওয়ায় এই আসনটি শূন্য হয়। এই নির্বাচনের ফলে মার্কিন সিনেটে রিপাবলিকানদের নিয়ন্ত্রণে থাকল ৫১টি আসন, প্রতিপক্ষ ডেমোক্র্যাটদের ৪৯টি।

নাবালিকাদের ওপর যৌন হয়রানির অভিযোগ রয়েছে রয় মোরের বিরুদ্ধে। কমপক্ষে পাঁচ নারী অভিযোগ করেছেন, ৩০-৪০ বছর আগে রয় মোরের কাছে তাঁরা যৌন হয়রানির শিকার হয়েছিলেন। তবে রিপাবলিকান এই নেতা সব অভিযোগ মিথ্যা বলে উড়িয়ে দিয়েছেন। আলাবামার নির্বাচনে তাঁর পরাজয় রিপাবলিকান দলের জন্য একটি বড় আঘাত হলেও দলের নেতারা সম্ভবত খুশিই হয়েছেন। যৌন হয়রানির অভিযোগে অভিযুক্ত একজন সিনেট সদস্যকে নিজেদের মধ্যে স্বাগত জানানো শুধু বিব্রতকরই নয়, ২০১৮ সালের মধ্যবর্তী নির্বাচনে তাঁদের জন্য ভয়াবহ ক্ষতির কারণ হতে পারে। ডেমোক্র্যাটরা এমনিতেই ২০১৮ সালে কংগ্রেসের উভয় কক্ষ নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এই নির্বাচনী বিজয়ের মাধ্যমে তাঁদের সে চেষ্টা আরও বেগবান হবে।

Picture

তবে এ পরাজয় কেবল রিপাবলিকান পার্টিই নয়, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জন্যও বড় ধরনের একটি চাপড়। তিনি দলের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের পরামর্শ অগ্রাহ্য করে তাঁর সাবেক উপদেষ্টা স্টিভ ব্যাননের প্রভাবে রয় মোরকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে অনুমোদন দিয়েছিলেন। ২০১৬ সালের নির্বাচনে ট্রাম্প নিজে এই অঙ্গরাজ্যে ৬২ শতাংশ ভোট পেয়ে বিপুল ব্যবধানে বিজয়ী হন। তাঁর ব্যক্তিগত আবেদন আলাবামার রক্ষণশীল ভোটাররা উপেক্ষা করবেন না, এই ছিল তাঁর বিশ্বাস। কিন্তু দেখা গেল, আলাবামার ভোটাররা রয়কে মেনে নিতে রাজি হননি। মধ্যপন্থী রিপাবলিকান সিনেটর জেফ ফ্লেক টুইটারে মন্তব্য করেছেন, শেষ পর্যন্ত ভদ্রতা বিজয়ী হলো।

ট্রাম্প অবশ্য এই পরাজয়ের জন্য নিজের কোনো দায়দায়িত্ব মানতে রাজি নন। গতকাল বুধবার স্থানীয় সময় সকালে এক টুইট বার্তায় তিনি লেখেন, ‘আমি আগেই বলেছিলাম রয় মোর জিতবে না।’ আগের রাতে আরেক টুইটার বার্তায় ট্রাম্প অবশ্য ডাগ জোন্সকে বিজয়ের জন্য অভিনন্দন জানিয়েছিলেন।

রিপাবলিকান দলের ভেতর রয় মোরের প্রার্থিতা নিয়ে বিতর্ক আগে থেকেই ছিল, এখন তা আরও বাড়বে। রক্ষণশীল সদস্যদের দাবি, রিপাবলিকান এস্টাবলিশমেন্ট, বিশেষত রয় মোরের বিরুদ্ধে সিনেট নেতা মিচ ম্যাককনেল অবস্থান নেওয়ায় আলাবামায় এই ভরাডুবি হলো। সেখানকার রিপাবলিকান দলের প্রধান ম্যাককনেলের পদচ্যুতি দাবি করেছেন। অন্যদিকে দলের বাস্তবপন্থী অংশ সব দোষ চাপিয়েছে স্টিভ ব্যাননের ওপর। আলাবামার নির্বাচনী বিপর্যয়ের পর একাধিক রিপাবলিকান নেতা স্টিভ ব্যাননকে ‘ছুড়ে ফেলার’ দাবি তুলেছেন।

আলাবামার সেক্রেটারি অব স্টেট বলেছেন, এই রাজ্যের আইন অনুসারে চূড়ান্ত গণনা শেষে ২৭ ডিসেম্বর ও ৩ জানুয়ারির মধ্যে সরকারিভাবে ফল ঘোষিত হবে। রয় মোর আপাতত সব দায়দায়িত্ব ঈশ্বরের হাতে ছেড়ে দিয়ে প্রার্থনায় বসেছেন বলে দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।