Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

টরন্টোয় গ্রেটার বরিশাল ক্লাবের জমজমাট পিঠা পার্টি

শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী ২০১৮

কামাল মোস্তফা হিমু। বাপ্ নিউজ : টরন্টো থেকে ।।ঐতিহ্যবাহী বাংলাদেশের পিঠা নানান স্বাদের হয়। নোনতা পিঠা আবার ঝাল পিঠাও হয়। নতুন জামাইকে ঠকানোর জন্য জামাই ঝাল পিঠার অস্তিত্বও বরিশালে পাওয়া যায়। তবে প্রবাদ বলে “পিঠা মানেই মিঠা”, আর এমন মিঠা পিঠার আয়োজনে, মিষ্টি মধুর সুললিত গান ও মিষ্টি ছন্দের নাচের তালে মুখরিত ছিল টরন্টোতে বৃহত্তর বরিশাল ক্লাবের পিঠা পার্টি। রবিবার মনে রাখার মতো একটি সুন্দর পরিচ্ছন্ন পিঠা পার্টি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সফল আয়োজন ও সমাপন করলেন এবারের বৃহত্তর বরিশালের পিঠা পার্টির কনভেনার জাকির হোসেন।

Picture

পিঠার কথা আলোচনা হলে আমাদের সেই টোনাটুনির গল্পের কথা মনে পরে যায় । তবে বরিশালের পিঠা পার্টির আয়োজকরা অতিথি উপস্থিত হলে টোনাটুনির মতো টুন্ টুন্ করে মগডালে উঠে বসে থাকেনি। বরিশালের হাজার বছরের পুরনো ঐতিহ্য ধরে রেখে, অতিথি আপ্যায়নের কোনো ত্রুটি তারা করেনি। অনুষ্ঠান পরিকল্পনা, পরিচালনা ও দর্শক নন্দন সব দিকেই ছিল আয়োজকদের নজর, তাদেরকে অবশ্যই ধন্যবাদ দেয়া যায়।

25791227_158155661578348_6237001144701358661_o

বাংলাদেশের চিরায়ত কুয়াশায় ঢাকা সকালে, কিংবা সন্ধ্যায়, মাঘের হিম হিম ঠাণ্ডায় পিঠা খাওয়ার মতো না হলেও, শুভ্র সাদা তুষার আচ্ছাদিত টরন্টোতে, পেজা পেজা তুষারপাতের মধ্যে, হিমাঙ্কের নিচের তাপমাত্রায়, এই পিঠা পার্টির আমেজ মোটেও কম ছিলনা। একটি অনুষ্ঠানের দর্শক পরিতুষ্টির ব্যারোমিটার উঠানামা করে অনুষ্ঠান পরিচালনাকারীর উপস্থাপনার ওপর। সেক্ষেত্রে আমাদের এবারের সফল কনভেনার জাকির হোসেনের জীবন সাথী, পাপিয়া জাকির খুবই সফল হয়েছেন। আর পিঠার সেই মৌ মৌ গন্ধে, ৫০ ড্যানফোর্থ রোডস্থ শালিমার বাঙ্কোয়েট হলে আয়োজিত পিঠা পার্টিতে, স্বপরিবারে অংশগ্রহণ করেছিল টরন্টোয় বসবাসরত বৃহত্তর বরিশালবাসী। উপস্থিত সকলে জিভে জল আনা ঐতিহ্যবাহী বিভিন্ন পিঠার মিঠা স্বাদের পাশাপাশি, মন রাঙানো মিষ্টি সুরের সুললিত গান ও নাচের সাংস্কৃতিক অংশটিও দর্শকদের অনুভূতিতে সুখকর স্মৃতি হিসেবে থাকবে বহুদিন।

এটা ছিল একটি অনন্য আনন্দ আয়োজন। অভিনন্দন ও অভিবাদন সেই সব সুচিন্তক বৃহত্তর বরিশাল ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা উদ্যোক্তাদের। তাদের প্রত্যয়ী পদক্ষেপে এমন দর্শক নন্দন ও নাচ গানের সাথে পিঠা ও রাতের খাবারের সংমিশ্রণে, মন ভোলানো কিছুটা সময় যেন পেয়েছিল নিজ দেশে, সহজ সরল জীবনের আনন্দ আয়োজনের ছোঁয়া। এ কৃতিত্ব সকলের তবুও বিশেষ করে এবারের কনভেনার জাকির হোসেন বিশেষভাবে প্রশংসা পাওয়ার দাবিদার।

26063450_158155131578401_2464036382344868486_o

এমনই অনেক অনুঠান সফলকারী নান্না মিয়া ওরফে আমাদের নান্না ভাই বহু বছর ধরে অনেক টার্মের দক্ষ সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন শেষে, এই অনুষ্ঠানে দায়িত্ব অর্পণ করলেন নতুন অপেক্ষাকৃত নবীন অথচ জনপ্রিয় দক্ষ কর্মী বিপ্লব কর্মকারকে। আর পুরাতন প্রশংসনীয় কর্মসহায়ক প্রেসিডেন্ট মাইনুল আলম খান, বহাল থাকলেন তার স্বপদে আরো দুই বছরের জন্য।
গভীর রাতে সমাপ্তি ঘটে সমস্ত আয়োজনের। কিছুক্ষণ আগেও যে বাঙ্কোয়েট হলটি ছিল সকলের পদচারণায় ও কলরবে মুখরিত, তা ধীরে ধীরে শূন্য হতে থাকে। আয়োজকরাও গুটিয়ে নেন তাদের সমস্ত আয়োজন। ধীরে ধীরে এক সময়ে খালি হয়ে যায় বাঙ্কোয়েট হল। অভ্যার্থনাস্থলে দাঁড়িয়ে তখনো কেউ কেউ আলাপচারিতায় মগ্ন। অনেকে ইতোমধ্যে নেমে পড়েছেন তুষারে আবৃত গাড়ি পরিষ্কার করার উদ্দেশে। চারিদিকে শুভ্র সাদা তুষার আবৃত রাস্তাঘাট, গাড়ী, সবকিছু। আর সেই তুষার কণায় প্রতিবিম্বিত আলোয়, তাদের মনে রয়ে গেল অভিবাসী প্রেক্ষাপটে সুন্দর বরিশালীয় আমেজের পিঠা পার্টির একটি আনন্দ অভিজ্ঞতা।


Add comment


Security code
Refresh