Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

প্রবাসীদের খবর

টরন্টোয় ‘জন্ম ঝড়ের বাংলাদেশ’ গ্রন্থ নিয়ে আলোচনা

শুক্রবার, ০৬ অক্টোবর ২০১৭

বাপ্ নিউজ : টরন্টো ,কানাডা থেকে : আগামী ৭ অক্টোবর শনিবার টরন্টোয় আয়োজিত হতে যাচ্ছে বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. নূরুন নবী রচিত ‘জন্ম ঝড়ের বাংলাদেশ’ গ্রন্থ নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠান।টরন্টোর ৩০০০ ড্যানফোর্থ অ্যাভিনিউ এর মিজান কমপ্লেক্স অডিটোরিয়ামে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শুরু হবে এই আলোচনা অনুষ্ঠান। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে বিশ্বখ্যাত কাদেরিয়া বাহিনীর সদস্য ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. নূরুন নবী। তাঁর রচিত মুক্তিযুদ্ধকালীন ও বিজয়ের অব্যবহিত সময়কার প্রামাণ্য স্মৃতিকথার সংকলন এই ‘জন্ম ঝড়ের বাংলাদেশ’ গ্রন্থটি।

Picture
অনুষ্ঠানে আলোচনা করবেন কবি ড. দিলারা হাফিজ, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষক তাজুল মোহাম্মদ, প্রাবন্ধিক ও সাহিত্য বিষয়ক গবেষক সুব্রত কুমার দাস ও পুরস্কারপ্রাপ্ত কথাশিল্পী সালমা বাণী।
তাঁর সময় ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা এবং শ্রোতাদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেবেন গ্রন্থকার ড. নূরুন নবী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন একুশে পদকে সম্মানিত কবি আসাদ চৌধুরী।


রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন বন্ধের দাবিতে ফ্রান্সের তুলুজে মানববন্ধন

শুক্রবার, ০৬ অক্টোবর ২০১৭

আবু তাহির, বাপ্ নিউজ : প্যারিস, ফ্রান্স থেকে : মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন বন্ধ ও তাদের অধিকার ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে ফ্রান্সের তুলুজে মানববন্ধন করেছে ইউরোপিয়ান প্রবাসী বাংলাদেশি অ্যাসোসিয়েশন (ইপিবিএ)। তুলুজ মেরির সামনে গত রোববার (১ অক্টোবর) রাতে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

Picture

মানববন্ধনে বাংলাদেশিদের পাশাপাশি অনেক ফরাসিও যোগ দেন। ইপিবিএর কেন্দ্রীয় সভাপতি শাহনুর খান, সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী ওসমান হোসেন, লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটসের সাবেক স্পিকার খালিস উদ্দিন ও শওকত হোসেইনসহ সংগঠনের বিভিন্ন শাখার নেতারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া ফ্রান্স বাংলাদেশ এডুকেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অ্যাসোসিয়েশন ও বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

alt
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, দীর্ঘ সময় ধরে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে রাখা সম্ভব নয়। তাই বিশ্ব সম্প্রদায়ের উচিত তাদের নিজ আবাসনে ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য চেষ্টা করা।


হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি নারী শেখ হাসিনা

বৃহস্পতিবার, ০৫ অক্টোবর ২০১৭

ড. শাখাওয়াৎ নয়ন : বাপ্ নিউজ : সিডনি থেকে: অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার ৭১তম জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভা এবং দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বাদ মাগরিব সিডনি’র লাকেম্বাস্থ বনফুল রেস্তোরাঁয় ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ড. আবুল হাসনাৎ মিল্টনের সঞ্চালনায় ওই অনুষ্ঠানে সিডনি এবং নিউক্যাসল প্রবাসী উল্লেখযোগ্য সংখ্যক পেশাজীবীসহ, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এবং আওয়ামী রাজনৈতিক ঘরানার বিভিন্ন সংগঠনের নেতা-কর্মীরা অংশগ্রহণ করেন। শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ড. আব্দুর রাজ্জাক, ড. শাখাওয়াৎ নয়ন, ড. বায়েজীদুর রহমান, ড. মাইনুল হোসেন পাভেল, আল-নোমান শামীম এবং নবনির্বাচিত কাউন্সিলর হুদা।

Picture

আলোচনা সভায় ড. আব্দুর রাজ্জাক তার সঙ্গে বঙ্গবন্ধু পরিবারের সম্পর্ক বিষয়ক স্মৃতিচারণমূলক বক্তব্য রাখেন। ড. শাখাওয়াৎ নয়ন তার বক্তব্যে শেখ হাসিনার রাজনৈতিক জীবন ও কর্ম, বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে তথা বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করা এবং দেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠায় শেখ হাসিনার অবদান বিষয়ে নাতিদীর্ঘ বক্তব্য রাখেন। তিনি শেখ হাসিনাকে বাঙালি জাতির হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ নারী হিসেবে ভূষিত করেন। আল-নোমান শামীম বিভিন্ন ষড়যন্ত্রকারীদের ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকার বিষয়ে গুরত্বারোপ করেন। অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ড. বায়েজীদুর রহমান শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু এবং সুস্থতা কামনা করে পরম করুনাময় আল্লাহর কাছে মোনাজাত এবং দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন।


প্যারিসে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন

মঙ্গলবার, ০৩ অক্টোবর ২০১৭

বাপ্ নিউজ : প্যারিস থেকে : প্যারিস মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন পালিত হয়েছে। প্যারিসের একটি হোটেলে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।প্যারিস মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক আমিনুর রহমান ফারুকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জন্মদিনের অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক বিলাল হোসেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ কাশেম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফ্রান্স আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতা বেনজির আহমেদ সেলিম, ফ্রান্স আওয়ামী লীগের প্রধান উপদেষ্টা নাজিম উদ্দিন আহমেদ, সহ সভাপতি শাহেদ আলী, সহ সভাপতি ছালেহ আহমেদ চৌধুরী, সহ সভাপতি সুব্রত ভট্টাচার্য শুভ, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মো: মুজিবুর রহমান, বিশেষ অতিথি হিসেবে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক রানা চৌধুরী, ফয়ছল আহমেদ সহ নেতৃবৃন্দ।

Picture

সভায় প্যারিস আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য সেলিম আহমেদ সহ অর্ধশতাধিক নেতা কর্মী উপস্থিত ছিলেন।জন্মদিনের অনুষ্ঠানের প্রারম্ভে প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু ও সুস্বাস্থ্য কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।বক্তারা প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনটি মানবতা দিবস হিসেবে পালনের দাবী জানিয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রী আজ বিশ্বে মানবতার একটি মডেল হিসেবে ্আবির্ভুত হয়েছেন। উনার সঠিক নেতৃত্বের কারনে বাংলাদেশ আজ পাচ লাখেরও বেশী রোহিঙ্গা শরনার্থীকে আশ্রয় দিয়ে বিশ্ব দরবারে মানবদরদী দেশ হিসেবে পরিচিত হয়েছে।

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জননেত্রী শেখ হাসিনা কুটনৈতিকভাবেও সফল হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন নেতৃবৃন্দ। জননেত্রীর জন্মদিনে উনার দীর্ঘ জীবন কামনা করে নেতৃবৃন্দ বলেন, আমাদের নেত্রী সুস্থ থাকলে বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে আরো বেশী মর্যাদা লাভ করবে।

প্যারিস মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর আসন্ন ফ্রান্স সফর নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন করার জন্য সব ধরনের উদ্যোগ নেয়া হবে বলে মহানগর নেতৃবৃন্দ আশ্বস্ত করেন। স্বাধীনতা বিরোধী চক্রের সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে মহানগর আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ থাকবে বলে বক্তারা জানান।

প্রসঙ্গত, রোহিঙ্গা শরনার্থীদের প্রতি সহানুভুতি প্রদর্শন করে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের অনুষ্ঠানে সকল বাহুল্য বর্জনের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে কেক কাটা থেকে বিরত থাকে প্যারিস মহানগর আওয়ামী লীগ।


মিয়ানমারে গণহত্যার প্রতিবাদে ভেনিসে বিক্ষোভ

মঙ্গলবার, ০৩ অক্টোবর ২০১৭

বিক্ষোভ মিছিলটি মেসত্রের ট্রেন স্টেশন থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রাণ কেন্দ্র পিয়াচ্ছা ফেরেত্তোয় এসে শেষ হয়। সেখানে বাংলা স্কুলের সভাপতি সৈয়দ কামরুল সরোয়ারের সভাপতিত্বে এক সংক্ষিপ্ত সভার মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শেষ করা হয়।

Picture

সমাবেশে বক্তারা বলেন, মিয়ানমার সরকার সে দেশের রাখাইন রাজ্যে প্রায় এক মাসেরও বেশি সময় ধরে গণহত্যা অব্যাহত রেখেছে। অথচ ইতালিসহ ইউরোপের অধিকাংশ দেশ চোখ বন্ধ করে আছে। তারা এ বিষয়ে কিছুই বলছে না। বরং রাশিয়া, চীন এবং ভারত সরাসরি গণহত্যার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে। যা ইতিহাসে এক জঘন্যতম অধ্যায় হিসেবে লিপিবদ্ধ থাকবে।

বক্তারা অবিলম্বে রোহিঙ্গা গণহত্যা বন্ধ করে তাদের নাগরিক অধিকার ফিরিয়ে দিতে মিয়ানমারের ওপর চাপ প্রয়োগের জন্য ইতালি সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

italy2

এসময় গোটা শহর জুড়ে যানজট লেগে যায়। নগরীর অন্যতম প্রধান সড়ক ভিয়া পিয়াভের দু'পাশে দাঁড়িয়ে বিপুল সংখ্যক ইতালিয়ান এবং অন্যান্য দেশের নাগরিকরা হাত নেড়ে মিছিলকারীদের প্রতি সমর্থন জানান।

বিক্ষোভ মিছিলে নেতৃত্ব দেন ভেনিস বাংলা স্কুলের সভাপতি সৈয়দ কামরুল সরোয়ার, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান প্রমুখ।


টরন্টোয় শেখ হাসিনার জন্মদিন পালন

সোমবার, ০২ অক্টোবর ২০১৭

Picture

বাপ্ নিউজ : টরন্টো থেকে : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭১তম জন্মদিন পালন করেছে কানাডা আওয়ামী লীগ, অন্টারিও আওয়ামী লীগ এবং কানাডা ছাত্রলীগ।গত শুক্রবার টরন্টোর ড্যানফোর্থের ক্যাফে ডি তাজ রেস্তোরাঁয় কেক কেটে জন্মদিন উদযাপন করেন দলটির নেতাকর্মীরা।অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া করা হয়৷

ছবি কৃতজ্ঞতাঃ সোহেল শাহরিয়ার
এ সময় কানাডা আওয়ামী লীগ, অন্টারিও আওয়ামী লীগ এবং কানাডা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


ইতালিতে শেখ হাসিনার জন্মদিনে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল

শনিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৭

বাপ্ নিউজ : ইতালি প্রতিনিধি : প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার ৭১তম জন্মদিনে দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভা করেছে মহিলা আওয়ামী লীগ ইতালি শাখা।২৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় রোমের তরপিনাতারার একটি হল রুমে এই দোয়া মিলাদের আয়োজন করা হয়।এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ইতালি আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলী আহম্মদ ঢালী।প্রধান আলোচক হিসাবে বক্তব্য দেন ইতালি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাসান ইকবাল। মহিলা আওয়ামী লীগের ইতালি শাখার সভাপতি ইয়াসমিন আক্তার রোজীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নয়না আহমেদের পরিচালনায় বক্তব্য দেন কে এম লোকমান হোসেন, জসিম উদ্দিন, এম এ রব মিন্টু, শোয়েব দেওয়ান, আব্দুর রহমান, জামান মোক্তার, মলি জামান, হাবীব মকদম, এলিন আহমেদ মিঠু, ফারুক ফরাজী, এনায়েত করিম, শেখ মামুন, খলিল বন্দুকছী, মাসুদ রান, মহিউদ্দিন তফাদর, নিলুফার নীলা, পপি শামীমা, বাবলি ইউসুব, উম্মে হানিফা, রীনা কবির, মুজাহিদ রতনসহ আরও অনেকে।

Picture

দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন হাফেজ মতিউর। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়। পাশাপাশি মানবিক কারণে হাজার হাজার রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেওয়ায় প্রবাসীদের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা হয়।


মানবতার জননী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার জন্মবার্ষিকী পালনঃ ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ

শনিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৭

ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের    সভাপতি মোস্তফা মজুমদার বাচ্চু  সভাপতিত্বে   ও  সাধারণ  সম্পাদক মাহবুবুর রহমানের সঞ্চারনায়  বক্তব্য রাখেন ডেনমার্ক স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন, ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের  যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকঃ  সফিউল সাফি ,  নুরুল ইসলাম টিটু,   নাইম উদ্দিন বাবু  সহ-সভাপতিঃ নাসির উদ্দিন সরকার, খোকন মজুমদার  ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের    উপদেষ্টা  রাফায়েত হোসেন মিঠু,  রিয়াজুল হাসনাত রুবেল  ও প্রধান বক্তা ছিলেন ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের   উপদেষ্টা  মাহবুবুল হক ।

অনুষ্ঠানে কোরআন থেকে তেলোয়াত মাধ্যমে শুরু   ভাষা শহীদ , জাতির পিতা ‘বঙ্গবন্ধু’ , বঙ্গমাতা, জাতীয় চারনেতা, ১৯৭৫এর ১৫ই আগস্ট শহীদ  ও  মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করে তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন  অর্থ সম্পাদক মোহাম্মদ  মোসাদ্দিকুর রহমান রাসেল, রাজু আহম্মদ, মোহাম্মদ আশরাফ ফরাদ, মশিউর রহমান শাওন , রনি, ওমর,আমির জীবন , ফজলে রাব্বি  , সামসুল আলম, সোহেল আহমেদ, সাফায়েত অন্তর, শামীম খান ,তাসবির হোসেন,মাঞ্জুর আহমেদ মামুন, মনসর আহমেদ, মোহাম্মাদ ইউসুফ, মাসুম বিল্লাহ, শাওন রহমান , সাইদুর রহমান, নাজমুল ইসলাম, আরিফুল ইসলাম, হাসান শাহীন, তুহীন, আরিফুল হক আরিফ, আজাদুর রহমান, রাজ্জাক, নাজমুল হোসেন, দোলন,   সহ সকল নেতৃবৃন্দ। বিবৃতে আরো সম্মতি জানানঃ  বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ ডেনমার্ক শাখা, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ডেনমার্ক শাখা ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ডেনমার্ক শাখার  সকল নেতৃবৃন্দ।

Picture

আলোচনায় বক্তারা জানানঃ   জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের জ্যেষ্ঠ সন্তান শেখ হাসিনা ১৯৪৭ সালের এই দিনে মধুমতি নদী বিধৌত গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর শৈশবকাল কাটে পিত্রালয়ে। ৫৪’র নির্বাচনের পর শেখ হাসিনা বাবা-মার সঙ্গে ঢাকায় চলে আসেন। রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান হিসেবে ছাত্রজীবন থেকে প্রত্যক্ষ রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত হন তিনি। বর্তমানে শুধু জাতীয় নেতাই নন, তিনি আজ তৃতীয় বিশ্বের একজন বিচক্ষণ বিশ্বনেতা হিসেবে অবতীর্ণ হয়েছেন নতুন ভূমিকায়।   শুধু বাঙালী নয়; বিশ্বের নির্যাতিত মানুষের মনের গহীন কোণে আজ বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা আসন গেড়েছেন, তার আকাশসম বিশাল মানবিকতা হৃদয়  উজাড় করা ভালবাসা আর মানব কল্যাণে নিজেকে উৎসর্গ করার মাধ্যমে। পিতা শেখ মুজিব তখন কলকাতায় ভারত ভাগের পরবর্তী রাজনৈতিক পরিস্থিতি, দাঙ্গা প্রতিরোধ এবং লেখাপড়া নিয়ে মহাব্যস্ত। ১৯৪৭ সালের এ দিন টুঙ্গিপাড়া গ্রামে তাঁর জš§ হয়। গ্রামের নদী-নালা-খাল-বিলের স্রোতের শব্দ এবং সবুজ প্রকৃতির গন্ধ মেখে তার শৈশব কাটে। সেখানেই শিক্ষা জীবন শুরু হয়। মা ফজিলাতুন্নেছা রেণুর ছায়াসঙ্গী হয়ে পিতার রাজনৈতিক জীবনকে খুব ঘনিষ্ঠভাবে দেখেন এবং নিজেকে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে একজন আদর্শময়ী হিসেবে গড়ে তোলেন। বঙ্গবন্ধুর সেই আদরের নয়নমণি ছোট্ট ‘হাচুমণি’ মানবিকতা আর ন্যায়বোধ দিয়ে বাংলাদেশের প্রিয় নেত্রী হয়ে বিশ্বনেত্রীর মর্যাদায় নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

’৭৫ থেকে ’৮১ স্বাধীনতাবিরোধীদের হাতে পুরো পরিবারকে হারিয়ে প্রবাসে কষ্টের জীবন কাটাতে হয় ছয় বছর। অভিবাসী হন পরিবারের বেঁচে থাকা দুই বোন শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। স্বাধীনতার স্থপতিকে হারানো ভাগ্যহারা বাঙালীর স্বর্ণোজ্জ্বল অধ্যায়, ১৭ মে ১৯৮১ সাল। সুদীর্ঘ ছয় বছর প্রবাস আশ্রিত জীবন শেষে আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়ে বাংলার মাটিতে পা রাখেন  আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ক্যু-হত্যা-গুম-খুনের বিরুদ্ধে শুরু হয় প্রধানমন্ত্রীর মানবিকতার সংগ্রাম। ভোট ও ভাতের অধিকার নিশ্চিত করার মধ্য দিয়ে জনগণের মানবাধিকার নিশ্চিত করেন তিনি। নিকট অতীতে তার হাত দিয়ে সম্পন্ন হয় বেশিরভাগ চিহ্নিত যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, জঙ্গীবাদ প্রতিরোধ, বঙ্গবন্ধুর অস্বীকৃত খুনীদের বিচার, পার্বত্য চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তি সম্পাদন, একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃতি, বিনামূল্যে কোটি শিক্ষার্থীর হাতে বই বিতরণ, উপবৃত্তির মতো বিভিন্ন ক্ষেত্রের অভাবনীয় সফলতা। ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণের কাণ্ডারি শেখ হাসিনা জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ফুটিয়ে তুলেছেন নিজের মানবিক রূপ। এ সময়ে বার বার শেখ হাসিনার প্রাণনাশের চেষ্টা হয়েছে। ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বিএনপি-জামায়াতের প্রত্যক্ষ মদদে ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা করা হয়। এত কিছুর পরও শেখ হাসিনাকে মানবতার সংগ্রাম থেকে ফেরানো যায়নি।

আজকে শেখ হাসিনা শুধু জাতীয় নেতাই নন, তিনি আজ তৃতীয় বিশ্বের একজন বিচক্ষণ বিশ্বনেতা হিসেবে অবতীর্ণ হয়েছেন। মানবিকতা, অসাম্প্রদায়িকতা, উদার, প্রগতিশীল, গণতান্ত্রিক ও বিজ্ঞানমনস্ক জীবনদৃষ্টি তাকে করে তুলেছে এক আধুনিক, অগ্রসর রাষ্ট্রনায়কে। একবিংশ শতাব্দীর অভিযাত্রায় দিন বদল ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার কাণ্ডারি তিনি। সারাবিশ্বের নির্যাতিত, নিপীড়িত মানুষের ভরসাস্থল।

সর্বশেষ, বিশ্বের সব গণমাধ্যম শেখ হাসিনাকে বলেছে, ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’ (মানবতার জননী)। ২০১৬ সালে শান্তিতে নোবেল জয়ী কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোস বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘বিশ্ব মানবতার বিবেক’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। আরেক নোবেল জয়ী কৈলাস সত্যার্থী শেখ হাসিনাকে ‘বিশ্ব মানবতার আলোকবর্তিকা’ হিসেবে তুলনা করেছেন। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান, শেখ হাসিনাকে একজন ‘বিরল মানবতাবাদী নেতা’ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ এক বক্তৃতায় শেখ হাসিনার প্রশংসা করে বলেছেন, ‘বাবার মতোই বিশাল হƒদয় তাঁর। সেখানে ভালবাসার অভাব নেই।’ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী বলেছেন, ‘শেখ হাসিনা দেখিয়ে দিলেন বাঙালীর হƒদয় কত বড়। তিনি বাঙালীর গর্ব।’ গার্ডিয়ান পত্রিকায় রোহিঙ্গা ইস্যুতে এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী যে বিশাল মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছেন, তা বিরল। তিনি যে একজন হƒদয়বান রাষ্ট্রনায়ক- তা তিনি আগেও প্রমাণ করেছেন, এবারও প্রমাণ করলেন।’ ইন্ডিয়া টুডে তাদের দীর্ঘ এক প্রতিবেদনে বলেছে, ‘শেখ হাসিনার হƒদয় বঙ্গোপসাগরের চাইতেও বিশাল। যেখানে রোহিঙ্গাদের আশ্রয়ে কার্পণ্য নেই।’

আসলে শেখ হাসিনার হƒদয়ের গভীরতার সঙ্গে বঙ্গোপসাগর বা আটলান্টিকের গভীরতার তুলনা প্রতীকী। হƒদয়ের গভীরতা উপলব্ধি করতে হয় হƒদয় দিয়ে; এর পরিমাপ হয় না। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতনে প্রাণ বাঁচাতে ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে আসা লাখ লাখ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে ভূ-রাজনীতি, অর্থনৈতিক ও নিরাপত্তার ঝুঁকি নিয়ে যিনি আশ্রয় দিয়ে জীবন বাঁচিয়েছেন, খাবার দিয়ে ক্ষুধা নিবারণ করেছেন, সেই শেখ হাসিনার হƒদয়ের গভীরতা উপলব্ধি করে বিদগ্ধজন প্রতীকী তুলনা করার চেষ্টা করেছেন। আসলে শেখ হাসিনার তুলনা তিনি নিজেই। একসঙ্গে ১০ লাখ শরণার্থীকে এমন একটি ছোট দেশে আশ্রয় দেয়ার সাহস! সারা বিশ্ব দেখল মানবিকতা এমনও হতে পারে!

এমন একজন গর্বিত মা, গণতন্ত্র ও মানবতার জননী, সফল রাষ্ট্রনায়ক, বিশ্ব মানবতার বিবেক শেখ হাসিনার সুস্থতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করেছে ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। উপস্থিত নেতৃবৃন্দদের   সম্মানে আয়োজিত নৈশভোজের   মাধ্যমে অনুষ্ঠান সমাপ্তি করা হয়।


আয়ারল্যান্ডে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উদযাপন

শনিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৭

বাপ্ নিউজ : আয়ারল্যান্ড থেকে : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭১তম জন্মদিন উপলক্ষে ও নেত্রীর রোগমুক্তি কামনা করে আয়ারল্যান্ড আ’লীগের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।বৃহস্পতিবার আয়ারল্যান্ডের কর্ক সিটিতে সাইদুর রহমানের সভাপত্বিতে ও প্রতিষ্ঠাতা  সাংগঠনিক সম্পাদক রফিক খানের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন- আয়ারল্যান্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফয়জুল্লা সিকদার, জিল্লুর রহমান, মিজানুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইনজামুল হক জুয়েল, টিপন  বরুয়া, রুপেশ বরুয়া, দিপন খান, আমিনুল আমিন খোকন, আয়ারল্যান্ড আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি তৌহিদ হাসান, ওমর আলি, আয়ারল্যান্ড ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মো. নোমান চৌধুরী, ছাত্রলীগ নেতা হাসিব হাসান, সালাউদ্দিন ভূইয়া, রিয়াদ চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা মিজানুর রহমান, হেমায়েত উদ্দিন প্রমুখ।

Picture

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ একদিন বিশ্বের উন্নত রাষ্ট্রের মর্যাদায় আসীন  হবে। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর হাতে যতদিন থাকবে এদেশ, ততদিন পথ হারাবে না বাংলাদেশ। বাংলাদেশ এখন বিশ্বব্যাপী একটি উন্নয়নের রোড মডেল। বক্তারা শেখ হাসিনা সরকারের ভিশন ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়নে সরকারকে সহয়োগিতা করার জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান জানান।এছাড়াও বক্তৃতায় সর্বইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি অনিল দাশ গুপ্ত ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীম হকের বলিষ্ঠ নেতৃত্বে ইউরোপে মুজিব আদর্শের সংগঠনগুলোকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানানো হয়।সবশেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রোগমুক্তি এবং দীর্ঘায়ু কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।


যুক্তরাজ্যের লন্ডনে প্রবাসী ভুক্তভোগীদের সমস্যা সমাধানে ২ দিন ব্যাপি ফ্রী কনসালটেশনে অংশগ্রহন

বৃহস্পতিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭

যুক্তরাজ্যের লন্ডনে প্রবাসী ভুক্তভোগীদের সমস্যা সমাধানে ২ দিন ব্যাপি ফ্রী কনসালটেশনে অংশগ্রহন করে HRPB প্রেসিডেন্ট এডভোকেট মনজিল মোরসেদ বিভিন্ন আইনগত সহায়তা প্রদান করেন।

বাপ্‌স নিউজ : গত ১১ ও ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ তারিখে যুক্তরাজ্যের লন্ডনে প্রবাসীদের বাংলাদেশে বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আইনগত সহায়তা প্রদানের লক্ষে হিউম্যান রাইটস এন্ড পীস ফর বাংলাদেশ ইউকে’ শাখার পক্ষ থেকে ফ্রী কনসালটেশনের আয়োজন করা হয়। পুর্বলন্ডনে এইচআরপিবি ইউকে শাখার অফিসে আয়োজিত বিপুল সংখক প্রবাসি উক্ত দুদিনের ফ্রী কনসালটেশনে অংশগ্রহন করেন এবং বিভিন্ন বিষয় তাদের বাংলাদেশে সম্পত্তি/মামলার সমস্যাগুলি তুলে ধরেন।

হিউম্যান রাইটস এন্ড পীস ফর বাংলাদেশ (HRPB) এর কেন্দ্রীয় প্রেসিডেন্ট এডভোকেট মনজিল মোরসেদ ফ্রী কনসালটেশনে উপস্থিত থেকে ভুক্তভোগীদের বিভিন্ন সমস্যা সরাসরি শুনেন ও তাদের কাগজপত্র পরীক্ষা/পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় আইনগত পদক্ষেপ সম্পর্কে দিক নির্দেশনা দেন। অনুষ্ঠানে দশজন প্রবাসি HRPB এর নিকট বাংলাদেশে তাদের সমস্যা সমাধানে ফ্রি লিগাল এইড এর আবেদন করলে তা গ্রহন করা হয় । অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন এইচআরপিবি ইউকে শাখার সভাপতি রহমত আলি, টাওয়ার হ্যমলেটস কাউন্সিলের ডেপুটি স্পিকার কাউন্সিলার আয়াছ মিয়া, গ্রেটার সিলেট কাউন্সিল ইউকে এর ভাইস প্রেসিডেন্ট মুক্তিযুদ্ধা এম এ মান্নান, বাংলাদেশ জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সেক্রেটারী বদরুজ্জামান বাবুল, কমিউনিটি লিডার ও ঐজচই সদস্য মোঃ সানু মিয়া, ফারুক আলি, আবাব হোসনে, খয়রুল ইসলাম,আবদুল লতিফ, ফারুক মিয়া প্রমুখ।


গত ২৩ সেপ্টেম্বর হিউম্যান রাইটস এন্ড পীস ফর বাংলাদেশ ইউকে’ শাখার এক সভা সংগঠনের কার্য্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সভাপতি রহমত আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, এইচআরপিবি কেন্দ্রীয় প্রেসিডেন্ট এডভোকেট মনজিল মোরসেদ। এতে বিভিন্ন সংগঠন ও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন, টাওয়ার হ্যমলেটস কাউন্সিলের সাবেক মেয়র কাউন্সিলার গোলাম মর্তুজা, সাবেক স্পীকার আব্দুল মুকিত চুনু এমবিই, ডেপুটি স্পিকার কাউন্সিলার আয়াছ মিয়া, গ্রেটার সিলেট কাউন্সিল ইউকে এর ভাইস প্রেসিডেন্ট মুক্তিযুদ্ধা এম এ মান্নান, শাহ মোদাব্বির হোসেন মধু মিয়া, বাংলাদেশ জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সেক্রেটারী বদরুজ্জামান বাবুল, বিশ^নাথ এডুকেশন ট্রাস্ট এর সাবেক সেক্রেটারী নজরুল ইসলাম, কমিউনিটি নেতা সুলেমান আলী, সুনামগঞ্জ ডিস্ট্রিক্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি আব্দুল আজিজ, কমিউনিটি নেতা মৌলানা রফিক আহমদ, সাংবাদিক সৈয়দ জহুরুল হক, মিসবাহ জামাল, মাস্টার আমির উদ্দিন, মোহাম্মদ ইসলাম উদ্দিন, চমক আলী নুর, সরফরাজ খান চপল, আজাদ খান এবং মোহাম্মদ আজাদ খান, সাজিদ আলী মেনন,আব্দুল হান্নান, সুবান আলী (বারী), আব্দুল হক হাবিব, রুপি আমিন, ও হাবিবুর রহমান প্রমূখ। সভায় সাংগঠনিক বিষয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয় এবং সর্বসন্মতিক্রমে কাউন্সিলার আয়াছ মিয়াকে ঐজচই ইউকে কমিটির সেক্রেটারী এর দায়িত্ব প্রদান করা হয়।


অনুষ্ঠানে এডভোকেট মনজিল মোরসেদের মাধ্যমে দেশে প্রেরিত প্রবাসীদের সমস্যা সংক্রান্ত বিভিন্ন অভিযোগের অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়। প্রধান অতিথি এ ব্যাপারে বিভিন্ন অভিযোগের অগ্রগতির বর্ণনা দেন ও কিভাবে অভিযোগ দায়ের করলে সুফল পাওয়া যায় সে ব্যাপারে আলোকপাত করেন। সাথে সাথে এবার ফ্রি কনসাল্টেশনে যেসব ফ্রি লিগাল এইড এর আবেদন এসেছে সে ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলে আশ^স্থ করেন।

 


বন্যার্তদের জন্য সিডনিতে একখন্ড বাংলাদেশ

বৃহস্পতিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭

Picture

মুলত এস এম আমিনুল ইসলাম রুবেলের আহবানেই সবাই জড়িয়ে যায় নাড়ির টানে, যার সফল সমাপ্তি টানে প্রবাসিদের অন্যতম সংগঠন ডিজাস্টার রিলিফ কমিটি। ৩৫টি টেবিলের সব ক’টি টেবিলই বিক্রি হয়ে যায় অনুষ্ঠানের কয়েকদিন আগেই। প্রায় ৪০০ প্রবাসী, ২৫টির মতো সংগঠনের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকরা তাঁদের সদস্য ও পরিবারদের নিয়ে প্রোগ্রামে যোগ দেন স্বতঃফুর্তভাবে। সাথে যোগ দেন সিডনির প্রখ্যাত সব শিল্পীরা, তাঁদের নেতৃত্ব দেন সিরাজুস সালেকীন, এহসান আহমেদ, অমিয়া মতিন, সাথে যোগ দেন প্রায় ৩০জন শিল্পীর বহর। শুধূ গান শোনানোই না, সাথে হাত খুলে দানও করেন শিল্পীরা। আর এসেছিলেন প্রবাসীরা, দলে বলে, একা কিংবা পরিবার নিয়ে, কেউ এসেছিলেন সন্তানের হাত ধরে, দূরে ফেলে আসা এক মায়ের কষ্টের সাথে একাত্বতা ঘোষণা করতে।

alt

আয়োজনটি ছিলো নিপাট, পরিমার্জিত ও বাহুল্যতা বর্জিত। কেউ বক্তব্য রাখতে চাননি, কেউ সামনেও বসতে চাননি। সরবে এসেছেন, নীরবে দান করেছেন। শিল্পীরা জনপ্রিয় সব গান গেয়ে মাতিয়েছেন হল ভর্তি দর্শকের মন, যন্ত্র শিল্পীরা সারাটি সময় একাগ্র থেকেছেন তাঁদের পরিবেশনায়। আওয়ামী লীগ, বিএনপি, লেবার পার্টি - কে আসেনি, হিন্দু-মুসলিমদের সংগঠন, বাংলাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর এল্যামনাই, এলাকা ভিক্তিক সংগঠন, ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন এ্যাসোসিয়েশন, ক্লাব ও সাংস্কৃতিক পরিষদ, সবাই এসেছেন। এতো বড় সাংগঠনিক  মিলনমেলা যে আর হয়নি এই সিডনির বুকে। ডঃ আব্দুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে এসেছে অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগ, মনিরুল হক জর্জ নেতৃত্ব দিয়েছেন বিএনপির, একে এম শফিক এসেছেন নিউ সাউথ ওয়েলস বাংলাদেশ এ্যাসোসিয়েশন নিয়ে, এমনি করে প্রতীতি, একুশে একাডেমী, পুজা এ্যাসোসিয়েশন, অস্ট্রেলিয়ান মুসলিম ওয়েলফেয়ার, বিভিন্ন মসজিদ কমিটি, কাউন্সিলর মাসুদ চৌধুরীর নেতৃত্বে লেবার পার্টি, জালালাবাদ এ্যাসোসিয়েশন, অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বড় সাংবাদিক ফোরাম বাংলাদেশ প্রেস এন্ড মিডিয়া ক্লাব, অসড়েলিয়া বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিল, ভিকারুন্নেচ্ছা এলামনাই, ঢাকা ইউনিভার্সিটি এলামনাই, এক্স-ক্যাডেট গ্রুপ, মেডিক্যাল এ্যাসোসিয়েশন, রে হোয়াইট রিয়েল এস্টেট, লিসেন ফর, স্টাডি নেট, কৃষিবিদরা, কোয়ান্টাস গ্রুপ, বাজ প্রোডাকশন, ইস্টার্ন সাবার্ব ইসলামিক প্রোগ্রাম, সেন্ট জর্জ গ্রুপ, গ্রামীন সাপোর্ট গ্রুপ, ইস্টার্ন সিডনি ইসলামিক সার্ভিস সহ সিডনির জুড়ে থাকা প্রবাসী শিল্পীরা ও সাধারন মানুষ। হাটবাজার রেস্টুরেন্ট ৫টি ১০০ ডলারের ডিনার টিকেট ফ্রি করে দেয়, যা নিলামে উঠান আমিনুল ইসলাম রুবেল এবং মুহুর্তের মধ্যে তা বিক্রি হয়ে যায়। সিডনির সবার পক্ষ্য থেকে বক্তব্য রাখেন প্রখ্যাত কলামিস্ট অজয় দাশগুপ্ত। এসময় গামা আব্দুল কাদির, নেহাল লেয়ামুল বারী, মুক্তিযোদ্ধা এনায়েতুর রহমান বেলাল, মুনির আহমেদ, মেরাজ হোসেইন, মোফাজ্জল ভুইয়া, মফিজুল হক, ডঃ আব্দুর রাজ্জাক, জামিল হোসেইন, ডাঃ আব্দুল ওয়াহাব, মোবারক হোসেন, মুকিতুর রহমান, আলাউদ্দীন অলোক, ডঃ কাউয়ুম পারভেজ,  এলিজা আজাদ, কাজী সিমি, শাওন অরিজিত, হায়াত মাহমুদ, আবুল কালাম আজাদ খোকন, চঞ্চল চৌধুরী, নির্মল্য তালুকদার, অপু সারোয়ার, আসাওয়াদুল বাবু সহ সিডনির গন্যমান্য প্রবাসীরা বিপুল সংখ্যায় উপস্থিত ছিলেন।

alt

অনুষ্ঠানটি স্বাগত বক্তব্য দিয়ে শুরু করেন আফসার আহমেদ,ডিনারের আগে সংগঠনের কার্য্যক্রম ও বন্যার্তদের জন্য সহায়তার বিষয়াদি বিস্তারিত ব্যাখ্যা করেন সভাপতি ডঃ মাকসুদুল বারী। ডিসাস্টার রিলিফ কমিটির সাথে অতোপ্রতোভাবে সহযোগিতা করেছেন সময় টিভি’র আমিনুল ইসলাম রুবেল,  মুক্তমঞ্চ সম্পাদক নোমান শামীম, ডিজাস্টার রিলিফ কমিটির ডঃ মাসুদ পারভেজ, বিদেশ বাংলা টেলিভিশনের রহমতুল্লাহ, নিউ সাউথ ওয়েলস এসোসিয়েশন-এর সভাপতি একেএম শফিক, এহসান আহমেদ, মহিউদ্দীন মহী, চমন রহমানসহ একঝাক তারুন্য।

alt

প্রখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী সিরাজুস সালেকীন, এহসান আহমেদ ও আব্দুল মতিনের সমন্বয়ে শিল্পীদের বিশাল দল যোগ দেয় এই সন্ধ্যায়। গান শুনিয়ে মাতিয়ে রাখেন রোকসানা বেগম, আনিসুর রহমান, মিজানুর রহমান মিজান, নাবিলা, মিঠু, অমিয়া মতিন, আবৃত্তি করেন লরেন্স ব্যারেল, যন্ত্র শিল্পী ছিলেন তাইফ রহমান, আলী কাওসার, রাকিব ফেরদৌস।

alt

খাবারে বিরাট অংকের ছাড় দিয়ে একটি বড় অংশ দান করে রেড রোজ ফাংশন সেন্টার সবার হাততালি কুড়ায়। এছাড়া প্রিন্টিং-এর যাবতীয় কাজ নিজ খরচে কেরে দেয় A1 প্রিন্টিং ও তার টিম, লিসেন ফর তাঁদের টিকেটও চ্যারিটি করে আর লাকেম্বাস্থ রে হোয়াইট বড়ো অংকের ইন্সেনটিভ ঘোষণা করে বন্যার্তদের সহযোগিতায়। বড্ডো ভালোলাগায় কেটেছে সময়টা, বললেন অনেকেই। দেশের জন্য কিছু করতে পারার একটা দারুন অনুভুতি নিয়ে সবাই গাড়িতে উঠেন, হয়ত চোখের কোনে জমে উঠা পানি সামলে নিজেকেই বলেন, আমরা আছি মা, তোমার কোটি সন্তান এই বিদেশ বিভূঁইয়ে, কোনো ভয় নেই তোমার।