Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

প্রবাসীদের খবর

শেখ হাসিনার নিরাপত্তা চেয়ে যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাই-কমিশনে স্মারকলিপি

শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০১৫

Picture

বাপসনিঊজ:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিরাপত্তা চেয়ে যুক্তরাজ্যের বাংলাদেশ হাই-কমিশনে স্মারকলিপি দিয়েছে যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবকলীগ।বৃহস্পতিবার এ স্মারক লিপি দেয়া হয়।এতে, উল্লেখ করা হয়, প্রধানমন্ত্রীর নেদারল্যান্ডস সফরে সিলেট প্রবাসী এক যুবদল নেতাকে প্রধানমন্ত্রীর পাশে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। ওই যুবক অস্ত্র মামলার আসামি বলেও দাবি করা হয় ওই স্মারকলিপিতে।সংগঠনের সভাপতি সায়েদ আহদ সাদ, সাধারণ সম্পাদক সানু মিয়ার নেতৃত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন, যুক্তরাজ্য মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার শুশান্ত দাস গুপ্ত, জয়নাল উদ্দীন, আহবাব মিয়, মাহবুব আহমেদসহ আরও অনেকে।


ফ্রান্সে সন্ত্রাসীদের হাতে নিহতদের স্মরণে প্যারিস-বাংলা প্রেসক্লাবের ফুলেল শ্রদ্ধা

শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:১৩ নভেম্বর ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে তথাকথিত ধর্মের নামে সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের স্মরণে ফুলেল শ্রদ্ধা জানিয়েছে প্যারিস-বাংলা প্রেস ক্লাব ফ্রান্স। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে ফ্রান্সের ঐতিহাসিক রিপাবলিক চত্বরে ফুলেল শ্রদ্ধার মাধ্যমে এ সমবেদনা জানানো হয়।শুরুতেই সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের স্মৃতির প্রতি এক মিনিট নিরবতা জানানো হয়।

Picture

প্যারিস-বাংলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবু তাহিরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এনায়েত হোসেন সোহেলের পরিচালনায় এ সময় সংক্ষিপ্ত আলোচনায় বক্তব্য রাখেন ক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক লুত্ফুর রহমান বাবু, কোষাধ্যক্ষ ফেরদৌস করিম আখনজি, প্রচার সম্পাদক নয়ন মামুন, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক দোলন মাহমুদ, দপ্তর সম্পাদক সেলিম চৌধুরী, সদস্য জুনেদ ফারহান প্রমুখ।এই সময় বক্তারা বলেন, সন্ত্রাস ও সন্ত্রাসীদের কোন ধর্ম নেই, যারা ইসলাম ধর্মের দোহাই দিয়ে শান্তি প্রতিষ্ঠার নামে নিরীহ মানুষ হত্যা করে তারা প্রকৃত মুসলমান হতে পারে না। তারা কাপুরুষ। তারা শুধু সন্ত্রাসী। তারা মানবতার শত্রু, সকল ধমের্র শত্রু। প্যারিস-বাংলা প্রেসক্লাব পরিবার এই সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানাচ্ছে। সেই সাথে নিহতদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।

প্যারিসে সন্ত্রাসীদের হাতে নিহতদের স্মরণে প্যারিস-বাংলা প্রেস ক্লাবের ফুলেল শ্রদ্ধা
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, প্যারিস-বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্য খন্দকার জামিল আবেদ, জাকির হোসেন, মনির সরদার, সরোয়ার হোসেন, মাহতাব আহমদ সেলিম, গোলাম মোস্তফা হিমেল, মিসবাহ উদ্দিন, শাহ মোহা, যাকারিয়া, সানজিদা খানম রুমি, জহিরুল রানা, আইনুল হক ও আপন প্রমুখ।


আমিরাতে উড়বে বাংলাদেশের পতাকা আজ

শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:সংযুক্ত আরব আমিরাতের ৪৪তম জাতীয় দিবস উপলক্ষে প্রতি বছরের মতো এ বছরও অধিবাসী-অভিবাসীদের নিয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উড়ানো হবে বাংলাদেশের লাল-সবুজের জাতীয় পতাকা। শনিবার বিকাল ৩টা থেকে অনুষ্ঠিতব্য প্যারেডে বাংলাদেশ টিম পরিচালনার দায়িত্ব পালন করবে বাংলাদেশ সোশ্যাল ক্লাব ও সহায়তায় থাকবে এনআরবি কেয়ার ফোর গালফ।আমিরাতের বাণিজ্যিক শহর দুবাইয়ের ডাউনটাউনে প্যারেডে অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশের থিম হবে টিম টাইগার। ক্রিকেট বিশ্বে বাংলাদেশ দলের শক্তিশালী অগ্রযাত্রাকে জানান দিতে এই থিম নির্বাচন করা হয়েছে। প্রতীকী টাইগার, ৩৫ মিটার ব্যাট ও বল নিয়ে ক্রিকেট খেলার মতোই প্যারেডে অংশগ্রহণ করবে বাংলাদেশিরা। এ ছাড়া সাতটি গ্রুপে আলাদাভাবে বর্ণিল সাজে সজ্জিত হয়ে অংশ নেবে টিম বাংলাদেশ।

Picture
 
সাতটি গ্রুপের প্রথমে থাকবে আমিরাত ও বাংলাদেশর পতাকা বহনকারী দল। এরপর থাকবে বাংলাদেশর ঐতিহ্যের সাজে বৈশাখী দল। তারপর থাকবে বাউলের দল, ঘুড়ি বহনকারী দল, বাসন্তী সাজে মেয়েদের দল, প্রতীকী টাইগার বহনকারী দল। সবশেষে থাকবে ক্রিকেট ব্যাট বহনকারী দল। প্রতিটি গ্রুপের মাঝামাঝি থাকবে তিনটি বড় আকৃতির পাতা। পাতাগুলো হবে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা, বাঘ ও আমিরাতের পতাকা সংবলিত।


ভাষাসৈনিক গোলাম আকবর চৌধুরীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ - জনাব এম. এ. গনি

বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০১৫

Eu Awami League 1
বাপসনিঊজ:লন্ডন- সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব এম এ গনি , বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ , ভাষাসৈনিক ও সমাজসেবক গোলাম আকবর চৌধুরীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি শোক  সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। ব্যক্তিগত জীবনে খুব ঘনিষ্ঠ ছিলেন গোলাম আকবর চৌধুরী। ভাষা আন্দোলনে চট্টগ্রামে তার সভপতিত্বে সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ গঠিত হয়েছিল। সেই অনুষ্ঠানে আমি ও উপস্তিত ছিলাম। তিনি মুক্তিযুদ্ধকালে মুজিবনগর সরকারের পরিকল্পনা সেলের সদস্য ছিলেন। তিনি আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বেগম সাজেদা চৌধুরীর স্বামী।  গোলাম আকবর চৌধুরীর সাথে লন্ডন ও বাংলাদেশে অনেক সুখময়  স্মৃতি আছে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দুসময়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করেছিলেন। বাঙালি জাতি গোলাম আকবর চৌধুরীকে আজীবন শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে।


আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে মিলান লোম্বার্দিয়া যুবলীগ

বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০১৫

alt

পরিবারসহ সকল শহিদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে সকল নিহতদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। আলোচনা সভায় অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন  মিলান লোম্বার্দিয়া আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মান্নান মালিতা,সাধারণ সম্পাদক নাজমুল কবির জামান,প্রবীন আওয়ামিলিগ নেতা আকরাম হোসেন,রহমান খান,সিরাজুল ইসলাম গাফফার,লুত্ফুর রহমান,দেলওয়ার খান,লোম্বার্দিয়া আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক  রয়েল তালুকদার।

alt

এছাড়া সভায় বক্তব্য রাখেন যুবলীগের সাবেক আহবায়ক সারোয়ার হোসেন,যুবলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি আবু লেইচ,যুগ্ম সম্পাদক ফজলুল হক,সাংগঠনিক সম্পাদক এনায়েত হাওলাদার,সহ সভাপতি ফারুক আহমেদ,রাজু খান সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি তোফায়েল আহমেদ খান তপু,পেশাজীবী লীগের সভাপতি তুহিন মাহমুদ,শ্রমিক লীগের মনসুর খালাসী,নারী নেত্রী আসমা জাকির সহ মিলান লোম্বার্দিয়া আওয়ামিলিগ, যুবলীগ ,সেচ্ছাসেবক লীগ,শ্রমিক লীগ,পেশাজীবী লীগ এর নেতৃবৃন্দরা।

alt

সভায় বক্তারা বলেন  যে কোন আন্দোলন-সংগ্রামে যুবলীগ অগ্রণী ভুমিকা পালন করে আসছে। আগামীতেও  বিরোধী দলের যে কোন আন্দোলন মোকাবিলা করতে যুবলীগ , ছাত্রলীগসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মিরা এক হয়ে কাজ কর যাবে। যুবলীগ দেশের সর্ববৃহৎ যুব সংগঠন।এই সংগঠনকে তৃণমূল পর্যন্ত গতিশীল ও যুগোপযোগী জ্ঞান ভিত্তিক আদর্শ সংগঠন হিসেবে গড়ে তুলতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

Picture

আলোচনা সভায় টেলি কনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন ইতালি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাসান ইকবাল ও ইতালি যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম এ রব মিন্টু। সভা শেষে দুই যুদ্ধাপরাধী সাকা ও মুজাহিদের ফাসি কার্যকর করায় শেখ হাসিনা কে ধন্যবাদ জানান এবং আনন্দ মুখর পরিবেশে ফাসি কে স্বাগত জানিয়ে একে অপরকে মিষ্টি মুখ করানো হয়। 


ফাঁসির কার্যকর হওয়ায় জার্মান আওয়ামী নবীন লীগের মিষ্টি বিতরণ

মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:রাতে জার্মান সময় নয়টা ত্রিশ মিনিটে জার্মান আওয়ামী নবীন লীগের সভাপতি মেহেদী হাসান মুন্না, সাধারণ সম্পাদক কায়সার উল আলম ও সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে জার্মানীর প্রাণ কেন্দ্র ফ্যান্কফুটে বাংলাদেশ আওয়ামী নবীন লীগের জার্মান শাখার কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে রাজাকার আলবদর সালাউদ্দিন কাদের ও আলী আহসান মুহাম্মদ মুজাহিদ এর ফাঁসির রায় কার্যকর হওয়ায় নেতা কর্মীদের মধ্যে মিষ্টি বিতরণ ও মহান আল্লাহর দরবারে জননেতী দেশরত্ন শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করা হয়।

Picture

এই সময় নেতা কর্মীদের মধ্যে আনন্দ পূর্ণ মুহূর্তের সৃষ্টি হয় যখন নবীন লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আমাদের প্রাণের নেতা লুৎফর রহমান সুইট ভাই তার মূল্যবান সময় থেকে সময় বের করে স্কাইপের মাধ্যমে  এই আনন্দ পূর্ণ মুহূর্তে যোগ দেন এবং নেতা কর্মীদের ধন্যবাদ গ্যাপন পূর্বক ইউরোপের মাটি আওয়ামী নবীন লীগের ঘাটি আরো মজবুত ও জননেতী দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য কাজ করার উপদেশ দেন। এই সময় নেতারা জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু বলতে বলতে সুইট ভাইকে বিদায় দেন।


পিঠাপুলি উৎসবে মাতলো হেলসিংকি

সোমবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৫

Picture

সঙ্গে ছিল খুদেকণ্ঠের জাদুতে সঙ্গীত পরিবেশনা।শীতের সাথে পিঠার সম্পর্ক নিবিড়। বাংলাদেশের সংস্কৃতি আর ঐতিহ্যের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ পিঠা। এই উৎসবে-আনন্দে মিশে গিয়েছিল নানা নামের রকমারি পিঠা। প্রবাসে বেড়ে ওঠা নুতন প্রজন্মের কাছে এই পিঠাপুলি উৎসব বাংলার গ্রামীণ সংস্কৃতির কথা মনে করিয়ে দেবে।

alt

ফিনল্যান্ড প্রবাসী বাংলাদেশি মহিলাদের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘অনন্যা’ বাঙালির আদি সংস্কৃতির অঙ্গ পিঠাপুলির এ উৎসবের আয়োজক।হেলসিংকির এই বর্ণিল পিঠা উৎসবে প্রধান অতিথির আসন অংলকৃত করেন ফিনল্যান্ডে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত অশোক কুমার শর্মা। অতিথিদের মধ্যে আরো ছিলেন ফিনল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশের সরকারের অনারারি কনস্যুল জেনারেল হ্যারি ব্লেসার, স্থানীয় সিটি কাউন্সিলর রনবীর সদহী, পরিবেশ ও মানবাধিকার বিশেষজ্ঞ কাই লাকশনেন প্রমুখ।

alt

উৎসবে আলো, পলি, হাসনা ও বীথির পসরায় সাজানো ছিল বাংলাদেশে প্রচলিত প্রায় ৩০ রকমের পিঠা। এর মধ্যে দুধচিতই, ভাপা পিঠা, গোলাপ পিঠা, মুগ পাক্কন, পাটিসাপ্টা, তেলের পিঠা, মাংসের পিঠা, ডালের পিঠা, ঝিলমিল পিঠা, সাগুর পিঠা, ফুল পিঠা, তালের পিঠা, মেরা পিঠা, বিবিখানা পিঠা, ভাজা কলই পিঠা, ডিম রোল পিঠা, ছিটরুটি পিঠা, নিমকি পিঠা, চিড়া পিঠা, ভাপ কলাই পিঠা, ভর্তা চিতি পিঠা, ডিম ছিট রুটি, ডিম মেরা পিঠা, ছাচের পিঠা, প্যান কেক, পুডিং, দইবড়া, চালের রুটি, দই পিঠা, সেমাই পিঠা, সরু পিঠা, গরুর কারি, আমলকি আচারসহ আরো বাহারি নামের পিঠা।


যুদ্ধাপরাধী সাকা চৌ ও মুজাহিদের ফাসি কার্যকরে বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ -ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ

সোমবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব মোহাম্মদ আলী মোল্লা লিংকন ও সাধারণ সম্পাদক ড. বিদ্যুত বড়ুয়া  এক বিবৃতিতে ,শীর্ষ যুদ্ধাপরাধী সালাউদ্দিন কাদের  চৌধুরী ও মুজাহিদ এর ফাসির রায় কার্যকরে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০৮ সালে নির্বাচনী মেনিফেস্টোতে অত্যন্ত জোড়ালো ভাবে উল্লেখ করেছিলেন , বাংলাদেশের সকল যুদ্ধাপরাধীর বিচার করবেন। বাংলাদেশের জনগণ সেইদিন জননেত্রী শেখ হাসিনার উপর আস্থা রেখে ২০০৯ সালের নির্বাচনে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারকে ম্যান্ডেট দিয়েছিল বিপুল ভোটে।  সেই আস্থার প্রতিদান  বর্তমান সরকার প্রধান্ শেখ হাসিনা দিয়ে যাচ্ছেন অত্যন্ত বিশ্বস্ততার সাথে।  ১৯৭৫ সালে জারির জনক বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর বাংলাদেশে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তিকে বাংলাদেশে আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়ে সামাজিক ও অর্থনৈতিক ভাবে প্রতিষ্টিত করেছিল খুনি জিয়া, খালেদা জিয়া ও এরশাদ।  শুধু প্রতিষ্টিত করেনি বাংলাদেশের সকল শহীদ দের অসন্মান করে এই সব যুদ্ধাপরাধীদের মন্ত্রী বানিয়ে জাতীয় পতাকা তুলে দিয়েছিল। বাংলাদেশের মানুষ যখন যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হবে অনেকটা স্বপ্নের মত  ভাবছিল তখন  বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা অত্যন্ত দীপ্ত কন্ঠে ঘোষনা দিয়েছিলেন  তাদের বিচার করার।  অনেকেই সেই সময় জননেত্রী শেখ হাসিনার কথাকে রাজনৈতিক স্ট্যান্ড বাজি মনে করেছিলেন।  আজ প্রমাণিত হয়েছে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব এক মাত্র শেখ হাসিনার কাছে নিরাপদ।  তিনি ১৬  কোটি বাংলাদেশের জনগনের  আস্থা ও বিশ্বাসের ঠিকানা। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ শক্তির একমাত্র ভ্যান গার্ড।

Picture
বিবৃতিতে সম্মতি জানান , তাইফুর রহামন ভুইয়া , শাহাবুদ্দিন ভুইয়া ,সহ সভাপতি জনাব আনম আরিফ খালেক , ইকবাল হোসেন মিঠু , জামাল আহমেদ ,যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক  সাব্বির আহমেদ , সামি দাশ , জাহাঙ্গীর আলম , সাংগঠনিক সম্পাদক মানজুর লিমন , বোরহান উদ্দিন , মোতালেব ভুইয়া , মোহাম্মদ ইউসুফ , হিল্লোল বড়ুয়া , আমির হোসেন ,আবু সাইদ রবিন , রেজাউল হক ,কাউসার আহমেদ সুমন ,রেজাউল করিম , বেলাল হোসেন রুমি ,তায়মুল শোয়েব ,হুমায়ুন কবির রানা,  শাহ আলম ,সেতু আহমেদ ,কবির আহমেদ , শাহজালাল পিন্টু ,খাদিজা খাতুন মিনি ,কোহিনুর আখতার মুকুল ,ডা. অমিত কুমার রায়, শামসুল আলম চৌধুরী, আব্দুল্লাহ আল জাহিদ ,আবু আশরাফ মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ ,নিহারুল ইসলাম রুম্মান , মোহাম্মদ রাব্বী ,কচি মিয়া ,রাশেদুল হাসান রুবেল ,সুমন দাশ ,বদিউজাম্মান শান্ত ,মাহফুজুর রহমান নয়ন এ কিউ এম হ্যাপী ,সবুজ মল্লিক , অধ্যাপক টুটুল ,জামাল আহমেদ সোহাগ ,শাহীন মিয়া , মোকলেসুর রহমান , পরাগ পারিয়াল ,দীপঙ্কর পাল ,সুজন সাহা , দেবাশিস বড়ুয়া মোহাম্মদ নাজমুল ,মোহাম্মদ আরাফাত ,শামসুদ্দিন  ইয়াকিন ,সৈয়দ পাভেল ,নাসির রানা ,প্রত্যয় সাহা , কাজী হামিদ , রাইসুল রাহান ,মোহাম্মদ শহীদ ,মিজানুর রহমান , সুমন বিশ্বাস ,কানাই  পোদ্দার ,মাইনুল হাসান ,হুমায়রা আখতার জাসিয়া , লিন্ডা হাসান, জাহেদুর রহমান ,অমিত বড়ুয়া  , মাকসুদুল হাসান সহ , মোহামদ কামাল, আশিক কামাল আরো অনেকেএছাড়াও যুবলীগ ডেনমার্ক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জামিল আখতার কামরুল ও সাধারণ সম্পাদক আমির জীবন এবং ডেনমার্ক ছাত্রলীগ সভাপতি ইফতেখার সম্রাট ও সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির নিরু সহ আরো অনেকে।


টরন্টোতে শেষ হলো দু’দিনব্যাপী বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল

সোমবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৫

Picture

সাইফুল্লাহ মাহমুদ দুলাল, কানাডা থেকে : কানাডার টরন্টোতে শেষ হলো দু’দিনব্যাপী বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল। ২২ নভেম্বর জমজমাট অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিনে গান করেন গায়ক কুমার বিশ্বজিত, শিল্পী চন্দন সিনহা, শিল্পী নিলুফার বানু লিলি, গায়িকা মৌটুসী এবং উপস্থিত ছিলেন জনপ্রিয় নায়ক ফেরদৌস আহমেদ।

টরন্টোতে শেষ হলো দু’দিনব্যাপী বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল 

স্থানীয় সাপ্তাহিক বাংলা মেইলের চতুর্থ বর্ষ পদার্পণ উপলক্ষ্যে টরন্টো ইন্টারন্যাশনাল প্যাভিলিয়ানে অনুষ্ঠিত এ ফেস্টিভ্যালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন- ড. বোরহান উদ্দিন খান জাহাঙ্গীর, ড. মোজাম্মেল খান, অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদ, পত্রিকার সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিন্টু, ফেস্টিভ্যাল চেয়ারম্যান রেজাউল কবির, কানাডা-বাংলাদেশ বিজনেস চ্যাম্বারের প্রেসিডেন্ট সুবির দে, আব্দুল হালিম মিয়া, জসীম মল্লিক, কাজী আলম বাবু, প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বাংলা একাডেমী প্রদত্ত সৈয়দ ওয়ালিউল্লাহ পুরস্কারপ্রাপ্ত দুই লেখক ইকবাল হাসান এবং সৈয়দ ইকবালকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন দুই বিশেষ অতিথি কবি আসাদ চৌধুরী এবং ছড়ালেখক লুৎফর রহমান রিটন। এছাড়াও  স্থানীয় শিল্পীরা নাচ, গান, কবিতা পাঠ করেন।

সঙ্গীত তারকা  কুমার বিশ্বজিত ফেস্টিভ্যাল সম্পর্কে বলেন, বেশ ভালো লাগছে। প্রবাসের একটি পত্রিকার এ ধরণের ফেস্টিভ্যাল স্বদেশের সংস্কৃতিকেই তুলে ধরে। নায়ক ফেরদৌস আগামীতে একটি স্লটে আমাদের চলচ্চিত্র প্রদর্শণী যুক্ত করার আহ্বান জানান। আয়োজক শহিদুল ইসলাম মিন্টু বলেন, এখন থেকে প্রতি বছর বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যালের আয়োজন করা হবে এবং চলচ্চিত্র অন্তর্ভূক্ত করা হবে। প্রথম বারের মতো এই ফেস্টিভ্যাল যোগ দেন একমাত্র প্রকাশক রয়েল প্রকাশনীর জামাল উদ্দিন উদ্দিন আহমেদ। তিনি উৎসব সম্পর্কে বলেন- এবার ঘুরতে আসছি, দেখতে আসছি। আগামী বছর বইয়ের ষ্টল নিয়ে আসবো। কারণ, এখানে অনেক বইয়ের চাহিদা আছে।


প্যারিসে হামলার ঘটনায় স্মরণসভা প্রবাসীদের শ্রদ্ধার্ঘ্য

রবিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৫

এছাড়াও বাংলাদেশ হেরিটেজ এন্ড এথনিক সোসাইটি  অব  আলবার্টার সাবেক সাঃ সম্পাদক আহসান উল্লাহ, এশিয়ান নিউজ এন্ড ভিউজ এর সাইফুর হাসান, শান, রবিন, মিজান,নিগার, নাভিল, আহাদ প্রমুখ বেদিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা  জানান। অতঃপর হামলায় নিহতদের স্মরণে  এক মিনিট নিরবতা ও পালন করা হয় ও নিহতদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।বাংলাদেশ  প্রেসক্লাব অব আলবার্টা সভাপতি  দেলোয়ার জাহিদ নিহতদের স্মরণে গভীর শোক প্রকাশ করে তার বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন বিশ্বকে বিভক্ত করার এ যুদ্ধ বন্ধ করতে হবে। ধর্মান্ধতার উর্ধ্বে উঠে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে হবে। এছাড়াও শ্রদ্ধা জানিয়েছে বাংলাদেশ হেরিটেজ মিউজিয়াম, মাহিনুর জাহিদ মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশন, ডাইভার্স এডমন্টন  ও পেশাজীবি সম্প্রদায়।


ফাঁসি কার্যকরকে স্বাগত জানিয়েছেন: প্রেসক্লাব সভাপতি ও মুক্তিযোদ্ধা দেলোয়ার জাহিদ

রবিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৫

Picture

বিশ্ব গণমাধ্যমে খবরটি কিছু কিছু ক্ষেত্রে নেতিবাচক ভাবে প্রকাশিত হওয়ায়  তীব্র ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন এ মুক্তিযোদ্ধা ও লেখক সাংবাদিক দেলোয়ার জাহিদ। ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের কাছ থেকে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার সময় সংঘটিত যুদ্ধ ও মানবতা বিরোধী অপরাধের দায়ে এদের বিচার ও ফাঁসির দন্ড কার্যকর করা হয়েছে এটা সন্দেহাতিত।দেলোয়ার জাহিদ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে ১৬ কোটি মানুষ, গণজাগরণ মঞ্চ, গণমাধ্যম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্দিপ্ত সকল রাজনৈতিক দলের মানুষের এ বিজয় বলে জানান। এ বিজয় শুধু উচ্ছাস প্রকাশের নয় বরং বিশাল দায়িত্ববোধের বলে তিনি উল্লেখ করেন।

আরো তথ্য জানতে দয়া করে যোগাযোগ করুনঃ বিপিসিএ ফোনঃ (৭৮০) ২০০-৩৫৯২