Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

প্রবাসীদের খবর

ডেনমার্কের পাকিস্থান দুতাবাস এর সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ কর্মসূচি

শুক্রবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী মোল্লা লিংকন ও সাধারণ সম্পাদক ড. বিদ্যুত বড়ুয়া এক বিবৃতিতে জানান, আগামী ২১ শে ডিসেম্বর, সোমবার দুপুর দুইটায় ডেনমার্ক এর পাকিস্থান দুতাবাস এর সামনে ৭১ এর গণহত্যা অস্বিকার এর প্রতিবাদে এক বিক্ষোভ সমাবেশ এর আয়োজন করা হয়েছে। বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে পাকিস্থান এর রাষ্ট্রদূত কে স্মারক লিপি প্রদান করা হবে।

12172015_16_PAKISTAN_STATEMENT 

ইতিমধ্যে বিক্ষোভ সমাবেশে ডেনিশ পুলিশ সহ সংশ্লিস্ট প্রশাসনের অনুমতি নেয়া হয়েছে। উক্ত বিক্ষোভ সমাবেশে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ শক্তির সকল নাগরিকদের উপস্থিত থাকার অনুরোধ করা যাচ্ছে। ঠিকানা- পাকিস্থান দুতাবাস সম্মুখ Valeursvej 17,2900 Hellerup


ডেনমার্কে বাংলাদেশ দুতাবাসে বিজয় দিবস উদযাপিত

বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:ডেনমার্ক :ডেনমার্কের কোপেনহেগেন এ বাংলাদেশ দুতাবাস হাউসে যথাযোগ্য মর্যাদায় বিজয় দিবস উদযাপিত হয়।উল্লেখ ডেনমার্কে দুতাবাস প্রতিষ্ঠা হয় এবছর। বিকাল ৩ টায় জাতীয় সঙ্গীত এর মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। এর পরে বাঙালি জাতির মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ও স্বাধীনতা যুদ্ধে নিহত সকল শহীদদের আত্মার শান্তি কামনায় এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। মহামান্য রাষ্ট্রপতির বাণী পরে শুনান মহামান্য রাষ্ট্রদূত জনাব এম. মুহিত। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ,পররাষ্ট্র মন্ত্রী , পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এর বাণী পাঠ করেন দুতাবাস এর প্রথম সচিব জনাব শাকিল শাহরিয়ার।

12162015_14_DENMARK_AWAMI_LEAGUE

মহামান্য রাষ্ট্রদূত সৌজন্য ভাষণে মহান বিজয় দিবসের এই দিনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান সহ সকল মুক্তিযুদ্ধের আত্ম্ত্যাগের কথা স্মরণ করেন। তিনি বলেন , আজ বাংলাদেশ সৃষ্টি নাহলে আজ এমন দিনে আমরা সবাই বসে বাংলাদেশের কথা বলতে পারতাম না। প্রবাসের সকল বাঙালি এক এক জন দেশের প্রতিনিধি। আমাদের সকলের ঐক্যবদ্ধ ভাবে আমাদের দেশের কল্যানে আজ করতে হবে। ডেনমার্কের প্রবাসী বাঙালিদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব মোহাম্মদ আলী মোল্লা লিংকন , সাধরণ সম্পাদক ড. বিদ্যুত বড়ুয়া , তাইফুর রহমান ভুইয়া , শাহবুদ্দিন ভুইয়া ,রুহুল আমিন কাজল , ইকবাল হোসেন মিঠু , আ ন ম আরিফ খালেক , জামাল আহমেদ , সাব্বির আহমেদ , সামি দাস ,মঞ্জুর আহমেদ লিমন , মোতালেব ভুইয়া , আমির হোসেন , রেজাউল করিম , ফাহমিদ আল মাহিদ,রেজাউল হক , রাশেদুল হাসান রুবেল, রবিন সায়ীদ , মাসুদ রানা , কবির হোসেন , শেখ কামাল সহ আরো অনেকে।


যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের বিজয় দিবস উদযাপন

বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫

Picture
সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুদ্দিন খান, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক।সভার দ্বিতীয় পর্বে অনুষ্টিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন যুক্তরাজ্য যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক সাজিয়া সুলতানা স্নিগ্ধা। বিলেতের স্বনামধন্য অনেক শিল্পীরা এতে গান পরিবেশন করেন।


রিয়াদ দূতাবাসে বিজয় দিবস উদযাপন

বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫

Picture

বিজয় দিবসে রাষ্ট্রপতির বানী পাঠ করেন দূতাবাসের কাউন্সিলর খায়রুল আলম, প্রধানমন্ত্রীর বানী পাঠ করেন ইকোনমিক কাউন্সিলর ডঃ আবুল হাসান, পররাষ্ট্র মন্ত্রীর বানী পাঠ করেন লেবার কাউন্সিলর সরওয়ার আলম, পররাষ্ট্র প্রতি মন্ত্রীর বানী পাঠ করেন সোনালী ব্যাংক প্রতিনিধি আঃ ওহাব।
এক সংক্ষিপ্ত আলোচনায় রিয়াদ আওয়ামী লীগের সভাপতি সালাহউদ্দিন আহমেদ ফারুক বলেন, রিয়াদে জামাত-শিবিরের সরকার বিরোধী কার্যকলাপ প্রবাসীদের মধ্যে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। প্রবাসী সাংবাদিকদের মধ্যে জামাতী কর্মকাণ্ড এখন ওপেন সিক্রেট হিসেবে প্রতিভাসিত হচ্ছে। তিনি দূতাবাসকে এ বিষয়ে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান। তিনি সন্দেহ প্রকাশ করে বলেন, দূতাবাসের ভেতরে জামাত আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা দরকার। কেননা ইতিপূর্বে দূতাবাস থেকে নানা অনুষ্ঠানের দাওয়াত নিয়ে যথেষ্ট সমালোচনা রয়েছে। এ সব সমালোচনায় জামাত-শিবিরের লোকদের প্রতি দূতাবাসের আগ্রহের বিষয়টি ফুটে উঠেছে। তিনি আরো বলেন, রিয়াদে এমনও বাংলাদেশি রয়েছেন যারা লক্ষ লক্ষ রিয়াল কামাই করে এসব টাকা বাংলাদেশে প্রেরণ না করে ইউরোপ-আমেরিকায় প্রেরণ করেন। বাংলাদেশ রেমিট্যান্স থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। আর এসব নাগরিকদের প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে দূতাবাসে।
রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ বলেন, রিয়াদের সকল মিডিয়ার সাংবাদিকদের সঠিক তালিকাটি তার কাছে নেই। তিনি সাংবাদিকদের একটি তালিকা দূতাবাসে প্রণয়ন করার জন্য অনুরোধ করেন।

ইতিপূর্বে সৌদি আরবে অবস্থানরত ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ারদের সঠিক তালিকাটি দূতাবাসে না থাকার কারণে রাষ্ট্রদূত তাদের ব্যক্তিগত আমন্ত্রণ জানিয়ে তালিকা প্রস্তুত এবং বাংলাদেশ থেকে এই পেশায় অভিজ্ঞদের রিক্রুইট করার জন্য নানা রকমে টেকনিক্যাল বিষয়গুলি আহরণ করার জন্যই তাদের বিভিন্ন সময়ে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

সৌদি আরবে বাংলাদেশ দূতাবাসের শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তার দুর্নীতির প্রসঙ্গ টেনে রাষ্ট্রদূত বলেন, পূর্বে এদূতাবাসে অনেক দুর্নীতি হয়েছে যা এখন আমরা খতিয়ে দেখছি। সময় মত এসব খতিয়ান বাস্তবায়ন হবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।তিনি এসব দুর্নীতির পেছনে রিয়াদের প্রভাবশালী ব্যক্তিদের সংশ্লিষ্টতার কথা ইঙ্গিত দেন।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতাকে সৌদি আরবে সমুন্নত রাখার প্রচেষ্টায় আমরা কাজ করছি। ইতিমধ্যে বৃহৎ আকারে ডেলিগেশন বাংলাদেশে যাওয়া সম্ভব হয়েছে আমাদের অক্লান্ত চেষ্টায়। খুব শিগরির পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সৌদি আরব সফর করার নিশ্চিত রয়েছে। এর পর পরই বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সরকারী সফর ত্বরান্বিত হবে বলে আমরা আশা করছি।তিনি রিয়াদে আওয়ামী পরিবারভুক্ত সকল সংগঠনগুলোকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান।


বিজয় দিবসের অঙ্গীকার ---- যুদ্ধাপরাধী ও তাদের দোসর মুক্ত বাংলাদেশ গড়তে হবে - ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ

বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী মোল্লা লিংকন ও সাধারণ সম্পাদক ড. বিদ্যুত বড়ুয়া এক বিবৃতিতে সবাইকে বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। বিজয়ের ৪৪ বছর পর আজ বাংলাদেশ অনেক শীর্ষ যুদ্ধাপরাধী মুক্ত বাতাসে বিজয় দিবস উদযাপিত হতে যাচ্ছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা বিরোধীদের সমূলে উত্পাটন করার অঙ্গীকার করতে হবে। বাংলাদেশের প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে যুদ্ধাপরাধী মুক্ত করতে যে অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছিলেন নির্বাচনী মেনিফেস্টো তে তা অক্ষরে অক্ষরে পালন করছেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের বিরোধিতাকারী বিএনপি মন্ত্রী বানিয়ে পুরস্কৃত করেছিল সেইদিন বাংলাদেশের সকল জনগনকে অপমান করেছিল। আজ বঙ্গকন্যা শেখ হাসিনা যুদ্ধাপরাধীর বিচার সম্পন্ন করে বাংলাদেশের বিজয় দিবসকে মহিমান্নিত করেছেন। আজকের মত আগামী দিনে সবাইকে জন নেত্রী শেখ হাসিনার পাশে থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে হবে।

12152015_19_DENMARK_AL

বিবৃতিতে সম্মতি জানান ,সহসভাপতি আ ন ম আরিফ খালেক ,জনাব ইকবাল মিঠু ,জামাল আহমেদ ,সুমি দাশ , যুগ্ম-সম্পাদক জনাব সাব্বির আহমেদ মুন্সী , সামি দাশ ,জাহাঙ্গীর আলম , সাংগঠনিক সম্পাদক মানজুর আহমেদ লিমন , জনাব মোতালেব ভুইয়া , বোরহান উদ্দিন , মোহাম্মদ ইউসুফ হিল্লোল বড়ুয়া , আমির হোসেন ,আবু সাইদ রবিন , রেজাউল হক ,কাউসার আহমেদ সুমন ,রেজাউল করিম , বেলাল হোসেন রুমি ,তায়মুল শোয়েব ,হুমায়ুন কবির রানা, শাহ আলম ,সেতু আহমেদ ,কবির আহমেদ , শাহজালাল পিন্টু ,খাদিজা খাতুন মিনি ,কোহিনুর আখতার মুকুল ,ডা. অমিত কুমার রায়, শামসুল আলম চৌধুরী , সাফিউল সাফী , আব্দুল্লাহ আল জাহিদ ,আবু আশরাফ মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ ,নিহারুল ইসলাম রুম্মান , মোহাম্মদ রাব্বী ,কচি মিয়া ,রাশেদুল হাসান রুবেল ,সুমন দাশ ,বদিউজাম্মান শান্ত ,মাহফুজুর রহমান নয়ন এ কিউ এম হ্যাপী ,সবুজ মল্লিক , অধ্যাপক টুটুল ,জামাল আহমেদ সোহাগ ,শাহীন মিয়া , মোকলেসুর রহমান , পরাগ পারিয়াল ,দীপঙ্কর পাল ,সুজন সাহা , দেবাশিস বড়ুয়া মোহাম্মদ নাজমুল ,মোহাম্মদ আরাফাত ,শামসুদ্দিন ইয়াকিন ,সৈয়দ পাভেল ,নাসির রানা ,প্রত্যয় সাহা , কাজী হামিদ , রাইসুল রাহান ,মোহাম্মদ শহীদ ,মিজানুর রহমান , সুমন বিশ্বাস ,কানাই পোদ্দার ,মাইনুল হাসান ,হুমায়রা আখতার জাসিয়া , লিন্ডা হাসান, জাহেদুর রহমান ,অমিত বড়ুয়া , মাকসুদুল হাসান সহ আরো অনেকে। যুবলীগ ডেনমার্ক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জামিল আখতার কামরুল ও সাধারণ সম্পাদক আমির জীবন এবং ডেনমার্ক ছাত্রলীগ সভাপতি ইফতেখার সম্রাট ও সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির নিরু।


টরেন্টোতে বিজয়ের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

মঙ্গলবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে সম্প্রতি টরেন্টোতে মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদ কানাডার উদ্যোগে “বিজয়ের পুনর্মিলনী” শীর্ষক এক আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এডভোকেট নাজমা কায়সারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও কলামিস্ট ড. মোজাম্মেল খান। বিশেষ অতিথি ছিলেন শিক্ষাবিদ ড. আবদুল আওয়াল।

torontopic141215


অনুষ্ঠানের শুরুতেই টরন্টো’র খ্যাতিমান শিল্পীরা সমবেত কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত ও দেশাত্মবোধক গান পরিবেশন করেন। তারপর আবুল বাশারের সঞ্চালনায় শুরু হয় বিজয় দিবসের আলোচনা অনুষ্ঠান। ’৭১ এর বিজয়ের বীরগাঁথা নিয়ে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইফুল আলম চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল মালিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজমুল হক মনা, সাবেক ছাত্রনেতা ফায়জুল করিম, কানাডা আওয়ামীলীগ নেতা আজিজুর রহমান প্রিন্স, সাপ্তাহিক আজকাল পত্রিকার সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি সৈয়দ আবদুল গফফার ও মিজানুর রহমান।
আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে টরন্টো’র স্থানীয় শিল্পীরা মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সঙ্গীত পরিবেশন করেন। গানে গানে মাতিয়ে রাখেন শিল্পী ফারহানা শান্তা, মুক্তি প্রসাদ, সুমি বর্মন, সঙ্গীতা মুখার্জী, সুনীতি সর্দার, নবিউল হক বাবলু, জুঁই প্রমুখ।
স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে প্রচারিত এম আর আখতার মুকুল পরিবেশিত সাড়া জাগানো চরম পত্র পাঠ করে শোনান টরন্টো’র বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও নাট্যকর্মী আহমেদ হোসেন। আবৃত্তিতে ছিলেন লেখক তাসরীনা শিখা, কবি মৌ মধুবন্তী, রিনি সাখাওয়াত ও আফিয়া বেগম  এবং নৃত্য পরিবেশন করে রিধী রহমান। অনুষ্ঠানটির শব্দ নিয়ন্ত্রনে ছিলেন শরিফ চৌধুরী, শিল্পীদের গানের সঙ্গে তবলায় সহযোগিতা করেন তানভীর এবং সার্বিক তত্ত্ববধানে ছিলেন শায়লা রহমান। প্রতিবেদনঃ সাংবাদিক সাদেরা সুজন, ছবিঃ মুনির বাবু, কানাডা-বাংলাদেশ নিউজ এজেন্সি, টরেন্টো।


গণহত্যাকারী আল্বদর নেতাদের সর্বনিম্ন শাস্তি হতে হবে মৃত্যুদন্ড : শাহরিয়ার কবির

মঙ্গলবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ আয়োজিত ” যুদ্ধাপরাধী বিচারে প্রবাসী বাঙালিদের ভুমিকা ও ভবিষ্যত করনীয় “শীর্ষক গোল টেবিল আলোচনায় মুখ্য আলোচক ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জনাব শাহরিয়ার কবির বলেন ,গণ হত্যাকারী আল্ বদর নেতাদের সর্বনিম্ন শাস্তি হতে হবে মৃত্যুদন্ড। ১৯৭১ সালে আলবদর রাজাকার বাংলাদেশে জাতির শ্রেষ্ট সন্তান বুদ্ধিজীবিদের হত্যা করে বাংলাদেশকে মেধাশুন্য করতে চেয়েছিল। পাকিস্থানি হানাদার বাহিনীকে প্রত্যক্ষ ভাবে সহয়তা করেছিল বাংলাদেশের আলবদর রাজাকার বাহিনী। মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি ক্ষমতায় আছে বলেই আজ যুদ্ধাপরাধীর বিচার হচ্ছে।

12142015_11_SHAHRIAR_KABIR_DENMARK

কিন্তু দীর্ঘ ৪৪ বছর পর বিচার ও রায় কার্যকর হলে এতদিনে যুদ্ধাপরাধী ও দোসররা অর্থনৈতিক ভাবে শক্ত ভিত গড়েছে। তাই অর্থের বিনিময়ে প্রবাসে বিভিন্ন লবিস্ট নিযোগ বিচার সম্পর্কে মিথ্যা বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। প্রবাসের প্রগতিশীল সকল প্রবাসী বাঙালিকে সজাগ থাকার পরামর্শ দেন। ২৫ সে মার্চ আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস ঘোষণার জন্য যথাযত তথ্য সংবলিত প্রচার ও উদ্বুদ্ধ করার জন্য আহবান জানান। প্রবাসে থাকলে ও বাংলাদেশের ভাল মন্দের মতামত দেওয়া এবং সেই বিষয়ে কার্যকরী ভুমিকা সবাইকে নিতে হবে। প্রত্যক্ষ রাজনীতি কেউ না করলে ও প্রতেক্যে রাজনীতি সচেতন হওয়া জরুরি বলে উলেখ করেন। শেষ যুদ্ধাপরাধীর বিচার না হওয়া পর্যন্ত আমাদের সংগ্রাম অব্যাহত রাখতে হবে। যুদ্দাপরাধীর বিচার কার্যকর করার জন্য বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

মুঠোফোনে সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব এম এ গনি সংক্ষিপ্ত আলোচনায় বলেন , শেখ হাসিনার সাহসী ভূমিকার কারণে যুদ্ধপরাধীর বিচার এর রায় কার্যকর হচ্ছে। ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব মোহাম্মদ আলী মোল্লা লিঙ্কন এর সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক ড.বিদ্যুত বড়ুয়ার সঞ্চালনায় আলোচনা করেন তাইফুর রহমান ভুইয়া ,আ ন ম আরিফ খালেক, সাব্বির আহমেদ ,মানজুর আহমেদ লিমন , মোতালেব ভুইয়া , হিল্লোল বড়ুয়া , কাওসার সুমন ,আমির হোসেন ,রেজাউল করিম ,মোহাম্মদ ইউসুফ , ইফতেখার সম্রাট।


শহীদ বুদ্ধিজীবিদের প্রতি শ্রদ্ধাঃ ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ

মঙ্গলবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:১৪ই ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস। বাঙ্গালি জাতির জন্য এক বেদনাঘন দিন। স্বাধীনতার জন্য প্রানদানকারী সকল শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি বিন¤্র শ্রদ্ধা ও সম্মান জ্ঞাপন করেছেন ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সকল নেতা-কর্মীবৃন্দ। এই দিনে দেশের কৃতি সন্তান (লেখক, চিকিৎসক, শিক্ষক) বুদ্ধিজীবীদের পাকিস্থানি ঘাতক বাহিনী ও তাদের সহযোগী রাজাকারদের সহযোগীতায় বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে হাত পা চোখ বেধে হত্যা করেছিল। শহীদ বুদ্ধিজীবী পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান ডেনমার্ক আওয়াামী লীগের সভাপতি জনাব মোস্তফা মজুমাদার বাচ্চু ও সাধারণ সম্পাদক জনাব মাহবুবুর রহমান। সাথে সাথে বুদ্ধিজীবিদের হত্যাসহ ১৯৭১ সালের রাজাকার যুদ্ধাপরাধীদের পক্ষ নেওয়ায় পাকিস্থান সরকারের সাথে বাংলাদেশ সরকারের সকল সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য দাবি জানানো হয়।

Picture

যুদ্ধাপরাধীদের সকল সম্পদ বাজেয়াপ্ত করার জন্য জননেত্রী ও সফল রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছেন ডেনমার্ক আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তফা মজুমদার বাচ্চু , সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান, সহসভাপতি মজুমদার খোকন, নিজাম উদ্দিন, জাহিদ বাবু, নাসরু হক, কাজী আনোয়ার, মোহাম্মদ সহিদ।আরো শোক প্রকাশ করেন ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ এর উপদেষ্টা বাবু সুভাষ ঘোষ, তাইফুর রহমান ভুঁইয়া, মাহবুবুল হক, শাহাব উদ্দিন ভুঁইয়া, হাসনাত রুবেল, কামরুল ইসলাম, জাহিদ, রুহুল আমিন কাজল, মল্লিক, সাইফুল আলম, ইনসান ভুঁইয়া, মাসুদ চৌধুরী । যুগ্ম সম্পাদক নঈম বাবু, নুরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদকঃ সরদার সাঈদুর রহমান, মোহাম্মদ সেলিম, গোলাম কিবরিয়া শামীম, গোলাম রাব্বি। মহিলা সম্পাদিকা তানিয়া সুলতানা চাঁপা, অর্থ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক দেবাশীষ দাস। আরও সাথে আছেন, হুমায়ন কবির, কবির হোসেন, পরিতোষ সাহা, নাজমুল হোসেন, সাজ্জাদ হোসেন, সাইফুল আলম, সামছুদ্দিন, সামসুদ্দোহা একিন, তাসবির আহম্মেদ, অনু মিয়া, সালেহ আহম্মেদ, রশিদ মামুন, অমিত সরকার , দোলন, মুখলেছুর রহমান, সেলিনা হাসনাত, শামীমা আক্তার, জেনী হক, জেসমিন আক্তার, ফিরোজ আহম্মেদ, আরিফুল ইসলাম, আইশা আক্তার, জেনী আক্তার, সাহেরা জেসমিন, সুমন দাস, ফরাদ হোসেন, আইয়ুব আলী, ফিরোজ আহম্মেদ, হাসান, পিনু, ইকবাল হোসেন, আলিমুজ্জামান মুন, নয়ন, শাহীন মজুমদার, জিল্লুর রহমান, সাহাব উদ্দিন, রাসেল, শামিমজ্জুমান ও রাজ্জাক সহ আরও অনেকে ।
এছাড়াও আছেন ডেনমার্ক যুবলীগের আহ্বায়ক আমীর হোসেন জীবন, ডেনমার্ক আওয়ামী নবীন লীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন খাঁন, সহসভাপতি সাইদুর রহমান, বদরুল আলম রনি (সাধারণ সম্পাদক, ডেনমার্ক নবীন লীগ), সাফকাত অন্তর (প্রকাশনা সম্পাদক), যুগ্ম সম্পাদক আরিফুল ইসলাম আরিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আজাদুর রহমান এবং তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক রুবেল আহম্মেদ সহ আরও অনেকে।


জন্মদিনে লন্ডনে শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় সিক্ত গাফফার চৌধুরী

সোমবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:৮২তম জন্মদিনে লন্ডনে ফুলেল শুভেচ্ছা, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সিক্ত হলেন একুশের গানের রচয়িতা বিশিষ্ট সাংবাদিক ও সাহিত্যিক আবদুল গাফফার চৌধুরী।চ্যানেল আই ইউরোপ আয়োজিত ‘যতদিন বেঁচে আছো মুক্ত হয়ে বাঁচো, আকাশ ও মাটির কণ্ঠে শুনি যেন তুমি বেঁচে আছো’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে ভক্ত-শুভানুধ্যায়ীরা শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় সিক্ত করেন বাঙালির ইতিহাসের এই সূর্য সন্তানকে।শনিবার (১২ ডিসেম্বর) স্থানীয় সময় বিকেল সাড়ে ৫টা থেকে দুই ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠানটি লাইভ প্রচার করে চ্যানেল আই ইউরোপ।

চ্যানেল আই ইউরোপের সিইও রেজা আহমদ ফয়সাল চৌধুরী শুয়েবের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে সাংবাদিক, রাজনীতিক, সংষ্কৃতিকর্মীসহ বাঙালি কমিউনিটির শীর্ষ ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

Picture

গাফ্ফার চৌধুরীকে অগ্রসর চিন্তার পথিকৃত আখ্যায়িত করে ভক্ত-শুভানুধ্যায়ীরা বলেন, তিনি বাঙালি জাতির বাতিঘর, এই বাতিঘর মুক্তিযুদ্ধ ও অসাম্প্রদায়িক চেতনার আলোকে আলোকিত করে বাংলাদেশকে। মৌলবাদ, সাম্প্রদায়িকতা ও ধর্মান্ধতা বিরোধী আন্দোলনে গাফ্ফার চৌধুরী বাঙালির প্রেরণা। তিনি কালের স্বর্ণোজ্জ্বল এক দীপ্যমান নক্ষত্র, আমাদের ইতিহাসের এক রত্নভাণ্ডার।

এ সময় গাফফার চৌধুরী বলেন, জীবনের শেষ প্রান্তে এসেও আপনাদের ভালোবাসা আমাকে আরও বেঁচে থাকার লোভ দেখায়। আমি দেশ ও আপনাদের জন্যে কী করতে পেরেছি তা জানি না, তবে দেশ ও আপনারা আমাকে অনেক দিয়েছেন। বাঙালির উজাড় করে দেয়া ভালোবাসা এখনও আমাকে শক্তি যোগায়, প্রেরণা দেয়। যতোদিন বেঁচে আছি, আপনাদের এই ভালোবাসা নিয়েই বেঁচে থাকতে চাই।

আলোচনা শেষে অতিথিদের নিয়ে জন্মদিনের কেক কাটেন গাফ্ফার চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- ব্রিটেনে মুক্তিযুদ্ধের প্রবীন সংগঠক সুলতান শরীফ, বাংলাদেশ হাইকমিশনের মিনিস্টার প্রেস নাদিম কাদির, সাপ্তাহিক জনমতের প্রধান সম্পাদক সৈয়দ নাহাস পাশা, সাংবাদিক ইসহাক কাজল, মতিয়ার চৌধুরী, আনসার আহমেদ উল্লা, সংস্কৃতিকর্মী গোলাম মোস্তফা, সাজিয়া স্নিগ্ধা, কবি দিলু নাসের, রাজনীতিক খসরুজ্জামান খসরু, লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশন কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম কবির, নির্মাতা মইনুল হোসেন মুকুল, যুবনেতা জামাল খান, কমিউনিটি নেতা নুর উদ্দিন আহমেদ, সাংবাদিক জুয়েল রাজ, শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বেলাল, মোহাম্মদ শাহেদ রাহমান, রাকিব রুহেল, আনজুমান আরা অঞ্জু প্রমুখ।

একুশের গান ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানোর একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি…’ এর রচয়িতা, বাংলাদেশের সাংবাদিকতা জগতের জীবন্ত কিংবদন্তী আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী ১৯৩৪ সালের ১২ ডিসেম্বর বরিশালে জন্মগ্রহণ করেন।


আইফেল টাওয়ারে বাংলাদেশের বীরত্বগাঁথা

সোমবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৫

আবু তাহির,বাপসনিঊজ: প্যারিস থেকে : বিজয় ব্যাজের আনুষ্ঠানিক ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে ফ্রান্সের প্যারিসে। শুক্রবার বিকেলে আইফেল টাওয়ারের মানবাধিকার চত্বরে এ ক্যাম্পেইন শুরু হয়। বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে পরিচয় করিয়ে দিতে প্যারিস-বাংলা প্রেসক্লাব এ আয়োজন করে। পুরো ডিসেম্বর মাস জুড়েই চলবে এ ক্যাম্পেইন। 

Picture

বিভিন্ন দেশের মানুষের বুকে বিজয় ব্যাজ পরিয়ে দেয়ার মাধ্যমে প্যারিসে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্যারিস-বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আবু তাহির।  

এ সময় তিনি বলেন, বিজয় ব্যাজের মতো প্রতীকী কর্মসূচি পালনের মাধ্যমে ভিনদেশি যারা এখনো বাংলাদেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য সম্পর্কে ’অপরিচিত’ তাদের মাঝে মুক্তিযোদ্ধাদের বীরত্বগাঁথা ইতিহাস-চেতনা-অর্জনগুলো সহজেই তুলে ধরার অবকাশ রয়েছে। এর মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত বাংলাদেশকে বহির্বিশ্বে তুলে ধরার একটি সুযোগ।

alt

ফ্রান্সে বসবাসকারী বাংলাদেশি কমিউনিটি ও বিদেশিদের কাছে বিজয় ব্যাজকে ছড়িয়ে দিতে এবং বাংলাদেশ ও মহান স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাস তুলে ধরে অনুষ্ঠানের শুরুতেই বক্তব্য রাখেন প্যারিস-বাংলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদন এনায়েত হোসেন সোহেল। আরো আলোচনা করেন সাংবাদিক ফেরদৌস করিম আখনজি, সাংবাদিক নয়ন মামুন, সায়মন, দোলন মাহমুদ, খন্দকার আবেদ, আইনুল হক প্রমুখ। 

বিজয় ব্যাজ পরিয়ে দেয়ার পাশাপাশি এ সময় মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে ফরাসী ভাষায় লিফলেটও বিতরণ করা হয়।


রিয়াদে প্রবাসী সাংবাদিক ফোরামের বিজয় মেলা

সোমবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৫

Picture


রিয়াদে প্রবাসী সাংবাদিক ফোরামের বিজয় মেলামেলাকে পরিপূর্ণরূপ প্রদানে বসানো হয় রকমারি দোকান। ছিলো দেশিয় পিঠাপুলি, অন্যান্য খাবার, ব্যাংক, রিয়েল এস্টেট, মোবাইল, মেডিকেল ক্লিনিক, শিশুদের খেলনা, র‍্যাফেল ড্র। নিউ সাফা মক্কা এবং ঢাকা মেডিকেল ক্লিনিকের ব্যবস্থাপনায় দর্শনার্থীদের ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প ছিলো মেলার ব্যতিক্রমী সংযোজন।মেলার অন্যতম আকর্ষণ ছিলো রিয়াদের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের সমন্বয়ে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সাংস্কৃতিক পর্ব সঞ্চালনা করেন প্রসাফ’র দফতর সম্পাদক আব্দুল হালিম নিহন। সাংস্কৃতিক পর্বে দেশাত্ববোধক গান, কবিতা আবৃতি আর নৃত্যের অপূর্ব সমন্বয়।
প্রসাফ’র বিজয় মেলা উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ বাংলা শাখায় অনুষ্ঠিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন কমিউনিটির বিশিষ্টজনরা।জেদ্দা, দাম্মাম, মদীনা, আল কাছিম, হাইল থেকে আগত বাংলাদেশি সাংবাদিক এবং কমিউনিটি নেতৃবৃন্দকে প্রসাফ’র পক্ষ থেকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।