Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

বিনোদন

দুই সুন্দরী

বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:গত রবিবার ঢাকায় আসেন বলিউড সুন্দরী সুস্মিতা সেন। ইউনিলিভারের আমন্ত্রণে ঢাকায় একটি অনুষ্ঠানে অংশ নেন তিনি। সুস্মিতা সেন ছাড়াও সেখানে উপস্থিত ছিলেন দেশের অনেক তারকারা। অনুষ্ঠানে পরে দেশের অনেক তারকার সাথেই কিছু সময় আড্ডায় মেতে ওঠেন বলিউড এই সুন্দরী।

দুই সুন্দরী 

আড্ডার এক ফাঁকে সুস্মিতা সেনের সাথে ফ্রেমবন্দি হন দেশের এ সময়ে জনপ্রিয় অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মীম।মীম বলেন, ‘ছোটবেলা থেকেই সুস্মিতা সেনের অভিনয় দেখছি। এখনও মনে হয় তার বয়সটা সেখানেই আটকে আছে। কথার এক পর্যায়ে এই গোপন রহস্যটা জানতে চেয়েছিলাম। তিনি খানিকটা মুচকি হাসলেন। স্মরণীয় একটি মুহূর্ত ছিল সময়টা।’ 


নিউ জার্সিতে আশা ভোশলের কনসার্টে আশরাফুল

মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:ক্রিকেট থেকে সাময়িক নির্বাসিত মোহাম্মদ আশরাফুল এখন আছেন আমেরিকায়। আর সেখানে সময়টা যে তিনি বেশ উপভোগ করছেন, তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন সময়ে প্রকাশ হওয়া তার ছবিগুলো থেকেই বোঝা যায়।কিছুদিন আগেই মডেল হিসেবে কাজ করলেন একটি গানের মিউজিক ভিডিওতে। এবার তো তাকে পাওয়া গেল একটা কনসার্টেই। আমেরিকার নিউ জার্সিতে প্রখ্যাত ভারতীয় সঙ্গীতশিল্পী আশা ভোশলে ও তালাত আজিজের 'দ্য আইকনিক ট্যুর' নামক কনসার্টে উপস্থিত হয়েছিলেন আশরাফুল। সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশের সংগীতশিল্পী সোমা এ রহমান ও তার স্বামী সাবেক ক্রিকেটার আতিয়ার রহমানও।

alt 

সঙ্গীতের প্রতি আশরাফুলের এমন ভালবাসা নতুন কিছু নয়। ২০১১ সাথে বাংলাদেশের মাটিতে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গায়িকা মমতাজের গানের তালে তালে তার মাথা দুলিয়ে ঠোঁট মেলানোর দৃশ্য দারূণ সাড়া ফেলেছিল তার ভক্তদের মাঝে।

 


নতুন অ্যালবাম নিয়ে ব্যস্ত শিল্পী শামীম সিদ্দিকী

শনিবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫

হাকিকুল ইসলাম খোকন, বাপসনিউজ:নতুন একটি অ্যালবামকে ঘিরে ব্যবস্ততা শুরু হয়েছে হালের জনপ্রিয় শিল্পী শামীম সিদ্দিকীর। ছোটকাল থেকে যে গানের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছিলেন তাতেই এখনও আছেন তিনি। এরমধ্যেই তিনি প্রবাসেই গান করেছেন দেড় যুগের মতো।শামীম সিদ্দীকি তার অর্জনটুকু করেছেন নিজের ইচ্ছায় ও একাগ্রতায়। এ ইচ্ছা যেমন তার চলার পথে পাথেয় হয়েছে ঠিক গানের প্রতি মনোনিবেশই তাকে আজ এ পর্যন্ত নিয়ে এসেছ বলে মনে করেন  নর্থ  আমেরিকান জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী শামীম সিদ্দিকী।
Singer BAPS
ছোটবেলা থেকে গানের সঙ্গে জড়িয়ে যাওয়া শামীম সিদ্দিকী পরিচিতি নিজেই তৈরি করে নিয়েছেন। তবে দশর্মক শ্রোতেিদর ভালবাসা প্রতিনয়িত গানে উৎসাহ যোগাচ্ছে শিল্পী শামীম সিদ্দিকীকে। বাবার চাকুরির সুবাদে সিলেটে বড়ো হওয়া শামীম সিদ্দিকী বাংলাদেশেও কম জনপ্রিয় নয়। ওস্তাদ নাইম উদ্দিনের মত মানুষের কাছ থেকে তালিম নিেেয়ছেন নর্থ আমেরিকার এ জনপ্রি শিল্পী। বাংলাদেশ বেতারে গান করেছেন তিনি। বাবা মরহুম শারাফাত সিদ্দিকী ও মা হাসনা সিদ্দিকী তার অনুপ্রেরণায় উৎস। শামীম সিদ্দিকীর মিউিজিক অ্যালবাম এইম (ব্যান্ড), মা  সোলো অ্যালবাম) দিল কি দয়া হয় না (মিঃ অ্যালবাম) রাধাকৃ , ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। তার সম্মাননা সনদ, আমেকিার সিটি কাউন্সিল সম্মাননা সনদ, ছয় বার সেরা শিল্পী অ্যাওয়ার্ড (ঢালিউড অ্যাওয়াডর্) শো বীজি অ্যাওয়ার্ড, ফোবানা অ্যাওয়ার্ড, এনআরবি অ্যাওয়ার্ড, ভাসাভী মোস্ট পপুলার সিঙ্গার অ্যাওয়ার্ড ও জেমিনি সেলিব্রিটি সিঙ্গার অ্যাওয়ার্ডতো আছেই তার অর্জনরে মধ্যে। তিনি থাকেন ব্রুকলিনে।

হাসন রাজার গান গেয়ে অতি পিরিচিতি পাওয়া শিল্পী হিসেবে সুনামের অধিকারী শামীম সিদ্দিকী ব্যস্ত এখন আমেরিকার অনেক স্টেটের স্টেজ শেঅ নিয়েও। এর সধ্যে তিনি আমেরিকার অনেক স্টেট শো করার পাশপাশি কানাডায়ও শো করেছেন।গত কাল শুক্রবার  বাপসনিঊজ-এর সঙ্গে আলাপকালে জানান, সামনে আসছে তার একটি অ্যালবাম। যেটিতে ফুয়াদ আল মোক্তাদিরের মত শ্পিীর কম্পোজিশনও থাকছে হালের জনপ্রিয় শিল্পী শামীম সিদ্দিকীর নতুন অ্যালবামে। তিনি সবার সহয়োগীতা কামনা করেছেন।


ইমরান হাশমির সঙ্গে অভিনয়ের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিলেন বাংলাদেশের প্রিয়তি

শুক্রবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫

Picture

বাপসনিঊজ: প্রিয়তি, মিস আয়ারল্যান্ড ও একজন পাইলট। এবার মিস আর্থ প্রতিযোগীতার জন্য তৈরী হচ্ছেন। অক্টোবরে জ্যামাইকাতে অনুষ্ঠিত হবে মিস আর্থ প্রতিযোগিতা। তার কাছে বলিউডের নায়ক ইমরান হাশমির সঙ্গে অভিনয়ের প্রস্তাব আসলে তিনি ফিরিয়ে দেন।মাকসুদা প্রিয়তি

এর আগে তিনি হলিউডের একটি মুভিতে অভিনয়ের প্রস্তাবও ফিরিয়ে দিয়েছিলেন, মিস আর্থ প্রতিযোগীতায় ব্যস্ততার কারণেই সেখানে অভিনয় করেত পারেননি তিনি। তবে এরই মধ্যে আইরিশ পরিচালক কিয়ারন ডেভিসের ‘ওয়ান্ডারল্যান্ড’ চলচ্চিত্রের গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রিয়তি। সিনেমাটি এখন মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে।

২০১৪ সালে ৭০০ প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে মিস আয়ারল্যান্ড নির্বাচিত হয়ে চমকে দেন তিনি। ঢাকার মেয়ে প্রিয়তি ১৪ বছর আগে ব্যবসায় ব্যবস্থাপনায় পড়তে আয়ারল্যান্ডে পাড়ি জমিয়েছিলেন। এরপর কর্মজীবন শুরু করেন মাইক্রোসফটে। প্রশিক্ষণ নেন বিমান চালনার। বর্তমানে বিমান চালনা আর মডেলিং নিয়েই ব্যস্ত রয়েছেন প্রিয়তি।

পেশাগতভাবে বিমানের পাইলট প্রিয়তি বলেন, ‘মডেলিং কিংবা সিনেমায় অভিনয় আমার কাছে পেশা নয়। ভাললাগার জায়গা থেকে এর সঙ্গে যুক্ত। তাই মানহীন কোনো কাজ করে নিজের ব্যক্তিত্ব নষ্ট করতে চাই না। ’


পুস্পিতার মাথায় গানের মুকুট

শুক্রবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫

আয়েশা আকতার রুবী,বাপসনিঊজ: গাইবান্ধার মেয়ে নুজহাত সাবিহা পুস্পিতার মাথায় উঠেছে ‘বুস্টার এনার্জি বিস্কুট-চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ ২০১৫’ প্রতিযোগিতার সেরার মুকুট। শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রতিযোগীতাটির গ্র্যান্ড ফিনাল মহোৎসবে পুস্পিতার মাথায় মুকুট পরিয়ে দেন কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লা। এছাড়া অন্যান্য পুরস্কার তুলে দেন ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লিমিটেড ও চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ, গ্লোব বিস্কুট অ্যান্ড ডেইরি মিল্ক লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক হারুনুর রশিদ। এসময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন প্রতিযোগিতার প্রধান দুই বিচারক ফেরদৌস আরা ও এসআই টুটুল।

alt 

‘বুস্টার এনার্জি বিস্কুট-চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ ২০১৫’ প্রতিযোগীতায় সারাদেশ থেকে প্রায় ৬৫ হাজার ক্ষুদে সংগীতশিল্পী অংশ নেয়। দীর্ঘ সাত মাস শেষে চূড়ান্ত পর্বে সাতজন  প্রতিযোগী অংশ নেন।  তুমুল লড়াইয়ের পর এবারের ‘চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ' নির্বাচিত হন পুষ্পিতা। প্রথম রানারআপ রায়া শারমিলা ইসলাম রাফতি আর দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছে মাহফুজ আহমেদ মাহিন।

চ্যাম্পিয়নের পুরস্কার হিসেবে ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ডের একটি মুকুটের পাশাপাশি পুস্পিতা পেয়েছে পাঁচ লাখ টাকার চেক। সঙ্গে ক্যামব্রিয়ান স্কুল অ্যান্ড কলেজের ১০ বছরের জন্য শিক্ষাবৃত্তি, জাপান-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতালের সৌজন্যে স্কুলজীবন পর্যন্ত বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা।

alt 

প্রথম রানারআপ রায়া শারমিলা ইসলাম রাফতির বাড়ি বগুড়ায়। পুরস্কার হিসেবে তাকে দেওয়া হয় তিন লাখ টাকা। দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছে মাহফুজ আহমেদ মাহিন ময়মনসিংহের ছেলে। তার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে নগদ ২ লাখ টাকা। তারাও পেয়েছে শিক্ষাবৃত্তি ও চিকিৎসা সেবার সুযোগ।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লাকে দেওয়া হয় আজীবন সম্মাননা। মূলত সংগীত জীবনের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে উপমহাদেশের কিংবদন্তী এই শিল্পীকে সম্মাননা জানায় চ্যানেল আই। 

উল্লেখ্য, ইজাজ খান স্বপনের পরিকল্পনা ও পরিচালনায় গ্র্যান্ড ফিনালের পুরো অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচার করেছে চ্যানেল আই। 


মন্ট্রিয়লে সুনিধি চৌহানের মেগা শো। কাউন্ট ডাউন শুরু

বুধবার, ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৫

সদেরা সুজন : বাপসনিঊজ: কাউন্ট ডাউন শুরু হয়ে গেছে। আর মাত্র ক’দিন তারপরই দীর্ঘ অপেক্ষার শেষ দিন। মন্ট্রিয়ল প্রবাসীর কাঙ্ক্ষিত সঙ্গীত শিল্পী সুনিধি চৌহানের মেগা শো ‘লাইভ ইন মন্ট্রিয়াল’ অনুষ্ঠিত হবে।এই প্রথমবারের মতো মন্ট্রিয়ল কাঁপাতে আসছেন সদলবলে বলিউডের অন্যতম প্লেব্যাক তারকা ‘শীলা কি জাওয়ানি খ্যাত’ সুনিধি চৌহান। আগামী ২০ সেপ্টেম্বর রোববার মন্ট্রিয়লের ডাউনটাউনের সেন্ট ডেনিস থিয়েটারের বিশাল হলে অনুষ্ঠিত হবে মেগা শোটি। ইতিমধ্যে এ কনসার্ট আয়োজনের সব প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন হয়েছে বলে জানা গেছে।সুনিধি চৌহানের গানের পাশাপাশি থাকছে নৃত্যসহ রকমারি আয়োজন।উল্লেখ্য, বর্তমান সময়ে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে যে ক’জন প্লে-ব্যাক সিঙ্গার রয়েছেন তাদের মধ্যে সুনিধি চৌহান অন্যতম প্রধান। একের পর এক হিট সিনেমার গান করে সুনিধি  চৌহান এখন সবার প্রিয় সঙ্গীত শিল্পী। ভারত বাংলাদেশ ছাড়াও বিশ্বের প্রতিটি দেশে  রয়েছে সুনিধির অসংখ্য লাখো ভক্ত। শুধু গান গাওয়াই নয় দীর্ঘদিন ধরে তিনি ইন্ডিয়ান আইডলের বিচারক হিসেবেও কাজ করছেন। মন্ট্রিয়লের ‘সুনিধি চৌহান লাইভ ইন কনসার্ট’ নিজের জনপ্রিয় হিন্দি ও বাংলা গান গেয়ে শোনাবেন সুনিধি।

মন্ট্রিয়লে সুনিধি চৌহানের মেগা শো। কাউন্ট ডাউন শুরু  

বিশেষ উল্লেখযোগ্য যে, ভারত উপমহাদেশের তারকা খচিত কন্ঠ শিল্পী সুনিধি সৌহানের ‘লাইভ ইন মন্ট্রিয়ল’এর আয়োজক স্পার্ক ম্যানেজন্টের কর্ণধার তানভীর, আরিফ ও নন্দন। মন্ট্রিয়লের সাংস্কৃতিক সাংগঠনিক অঙ্গনে স্পার্ক ম্যানেজমেন্ট এক বিশ্বস্ত অদ্বিতীয় সেরা প্রতিষ্ঠান বলে অনেকেই মনে করেন। এই সংগঠনের কর্ণধার ত্রিরত্নরা ইতিপূর্বে সুন্দর সুন্দর-অসাধারন, অবিশ্বাস্য- সুশৃঙ্খলভাবে  বেশ ক’টি মেগা শো মন্ট্রিয়লে করেছেন ফলে দর্শক শ্রোতাদের মধ্যে তাদের আলাদা ক্লিন ইমেজ রয়েছে। বিগত বছরগুলোতে তারকা শিল্পী মিকা সিং, বাল্লাম, শ্রেয়া ঘোষাল, রুনা লায়লার মতো খ্যাতিনামা সঙ্গীত শিল্পীদেরকে নিয়ে মেগা শো করে মন্ট্রিয়লে বসবাসরত দর্শক শ্রোতাদেরকে যে উপহার দিয়েছেন তাতে সুনিধি সৌহানের বিশাল মেগা শোতে তেমন কষ্ট পেতে হবে না বলে সঙ্গীত প্রেমীকদের অভিমত রয়েছে। তাদের প্রতিটি মেগা শো ই ছিলো দর্শক নন্দিত এবং বিশাল হলে তিল ধারনেই ঠাঁই ছিলো না।

তারকা শিল্পী সুনিধি চৌহানের মেগা শো এখন কাউন্ট ডাউন শুরু হয়ে গেছে। আর মাত্র ক’দিন। অপেক্ষায় আছে সঙ্গীত প্রেমিক দর্শক শ্রোতারা। এখনো যারা টিকিট সংগ্রহ করতে পারেননি টিকিট কিংবা অন্য যেকোন বিষয়ে যোগাযোগ করতে পারেন তানভির ৫১৪ ৯৬২ ৮৬৬২, আরিফ ৫১৪ ৮১৪ ৫২১৫, নন্দন ৫১৪ ৯৯৯ ৬১৫৩ কিংবা ফেসবুক SUNIDHI CHAUHAN Live in Montreal এবংwww.sparkmanagement.net নামের ওয়েবসাইটে।


বলিউডের ইমরান হাশমির সঙ্গে বাংলাদেশের নুসরাত ফারিয়া

বুধবার, ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৫

Picture

বাপসনিঊজ:বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা ইমরান হাশমির সঙ্গে নায়িকা হয়ে অভিনয় করতে যাচ্ছেন বাংলাদেশের মডেল ও অভিনেত্রী নুসরাত ফারিয়া। নুসরাত অভিনীত ‘আশিকী’ ছবির সেটে ‘দ্য উইটনেস’র কাস্টিং পরিচালক অপূর্ব জোসফের নজরে পড়েন তিনি। সেখানেই তার সঙ্গে অভিনয়ের ব্যাপারে কথা হয়। ছবিটি পরিচালনা করবেন বিষ্ণু দত্ত। ইমরান হাশমি ছাড়াও সেখানে বলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা নওয়াজ উদ্দিন সিদ্দিকীও অভিনয় কবেন বলে ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়।

নুসরাত ফারিয়া কলকাতায়

ঐ সূত্রে জানা গেছে, ‘গাওয়া- দ্য উইটনেস’ নামের সিনেমাটি হবে থ্রিলিং ধরনের। এতে ইমরান একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তার চরিত্রে অভিনয় করবেন। আর তার প্রেমিকা হিসেবে থাকবেন ফারিয়া। ছবিটির কাজ আগামী নভেম্বরে শুরু হবে। দৃশ্যধারণ হবে পুনে ও কলকাতাতে। এতে অপর নায়িকা হিসেবে থাকছেন কলকাতার পায়েল সরকার।

এই বিষয়ে নুসরাত প্রিয়.কমকে বলেন, ‘মূলত ‘আশিকী’ ছবির শ্যুটিং স্পটে ‘দ্য উইটনেস’র কাস্টিং পরিচালক অপূর্ব জোসেফ উপস্থিত ছিলেন। তিনি আমার কথা হাশমি ও পরিচালককে বলেছিলেন বলে জেনেছি। এরপর ‘আশিকী’ গানটি দেখে তারা চূড়ান্ত আলোচনা করেন আমার সঙ্গে। আমি খুবই আনন্দিত যে ছবিটিতে কাজ করতে পারছি। ইমরান হাশমি এবং নওয়াজ উদ্দিনের মত বড় তারকাদের কাছ থেকে অনেক কিছু শিখতে পারবো এ কাজটি করে। ’

বলিউডের ছবিতে নুসরাত ফারিয়া

অন্যদিকে দেড় মাস আগে ছবিটির বিষয়ে চূড়ান্ত কথা হয় নুসরাতের সঙ্গে। সে সময় নুসরাতের স্ক্রিন টেস্ট নেওয়া হয়। এবং তিনি হিন্দি ভাষায় সংলাপ বলতে পারবেন কিনা তাও পরীক্ষা করে দেখেন কাস্টিং ডিরেক্টর। তিনি আরো জানান ছবিটি টালিউড এবং বলিউডের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হবে।


সিলেটি বিয়ে করছেন পাওলি

বুধবার, ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৫

কলকাতার আবেদনময়ী বাঙালি অভিনেত্রী পাওলি দাম। ‘কালবেলা’ দিয়ে চমকপ্রদ শুরুর পর হারিয়ে গিয়েছিলেন ‘ছত্রাক’য়ের ভাইরাসে। আবার জমজমাট কামব্যাক। পাওলির নতুন পৃথিবীতে অবশ্য নতুন ছবিই শুধু নেই। আছে ভরপুর প্রেম আর বিয়ের সংকেতও। তার জীবনের এদিক-সেদিক নিয়ে এক চমৎকার ইন্টারভিউ নিয়েছে আনন্দবাজার।  

alt

ডেটটা তা হলো কবে?
পাওলি: (হেসে) কীসের ডেট?

আমার সিনিয়র সহকর্মী বলছিলেন ডিসেম্বরে নাকি ডেট!
পাওলি: কী আছে ডিসেম্বরে? কীসের ডেট?

আপনার বিয়ের..
পাওলি: (হাসি) আপনার ওই সহকর্মীকে বলুন জার্নালিজম ছেড়ে গোয়েন্দাগিরি করতে। বিয়ে করবো তো বটে, তবে এই ডিসেম্বরে নয়...

তা হলে পরের বছর জানুয়ারি?
পাওলি: নাথিং ইজ ফিক্সড। মোটামুটি বিয়ে যে করবো সেটা ফাইনাল। কিন্তু ডেট ফিক্স করিনি।

আপনার বয়ফ্রেন্ডের নাম তো অর্জুন...
পাওলি: ইয়েস, অর্জুন দেব। গুয়াহাটিতে বাড়ি।

গত এক সপ্তাহ ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায় এপিসোড দেখে গুয়াহাটি শুনলেই কেমন লাগে...
পাওলি: হা হা। আমার কিছু বন্ধু তাই বলছিল। কিন্তু আমার কোনো চিন্তা নেই।

আপনার বয়ফ্রেন্ড বাঙালি তো?
পাওলি: হ্যাঁ হ্যাঁ, অবশ্যই বাঙালি। সিলেটী। শুঁটকি মাছ খায়। আবার সুশিও ভালবাসে। আমি ভীষণ লাকি টু হ্যাভ ফাউন্ড অর্জুন।

আপনাদের এই লাভ স্টোরিতে রাইমা সেনের নাকি বিরাট হাত ছিল?
পাওলি: রাইমা বলেছে, না?

altনা, রাইমা বলেননি...
পাওলি: হ্যাঁ, আছে রাইমার হাত। কিন্তু এ ব্যাপারে আমি কিছুই বলবো না। তবে ইতালিয়ান কনসাল জেনারেলের একটা পার্টিতে প্রথম মিট করি অর্জুনকে। সেই পার্টিতে দেব ছিল। ঋতু দি ছিল। রাইমা আমার দারুণ বন্ধু। রাইমা শুধু আমাকে বলেছে, ওর বিয়ের আগে যেন আমি বিয়ে না করি। আচ্ছা এটা কি শুধুই ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে ইন্টারভিউ, নাকি...

তা কেন হবে! একটু ব্যক্তিগত, একটু কাজ... ফ্ল্যাকচুয়েট করবে ইন্টারভিউ...
পাওলি: বুঝেছি। এখনও অবধি তো ফ্ল্যাকচুয়েট করছে না, তাই বলছি... (হাসি)

এবার করবে। ‘নাটকের মতো’তে তো ভূয়সী প্রশংসা আপনার। অনেকে আপনার কামব্যাক বলছেন...
পাওলি: হ্যাঁ ‘নাটকের মতো’ ছবিটা কিন্তু ভীষণ ডিফিকাল্ট ছিল। আমি ‘খেয়া’র সঙ্গে একেবারে ইনভল্ভড হয়ে পড়েছিলাম। প্রায় পাঁচ মাস অন্য কোনো কাজ করিনি। আর প্রশংসা যা পেয়েছি, তা অকল্পনীয়। এতো ভালোবাসা পেয়ে এক কথায় আমি ওভারহোয়েল্মড। দেবুদা (দেবজ্যোতি মিশ্র) আমাকে বলেছে, এটা সিনেমা নয়, একটা সময়ের দলিল। কিন্তু কামব্যাক বললেন কেন?

কারণ আছে। ৯ সেপ্টেম্বর ২০১১ আনন্দবাজার পত্রিকায় ‘ছত্রাক’‌য়ের সেই খবর বেরোনোর পর হঠাৎ করে পাওলিকে নিয়ে সাংঘাতিক নেগেটিভিটি শুরু হয়েছিল। এখন সেপ্টেম্বর ২০১৫। অনেকটা পাল্টে গেল চার বছরে আপনার জীবনটা।
পাওলি: হ্যাঁ, সেই সেপ্টেম্বর আর এই সেপ্টেম্বরে আকাশপাতাল তফাৎ। সেই সময়টা হঠাৎ করে সব কী রকম পাল্টে গিয়েছিল একদিনে। কাছের মানুষদের ব্যবহার যে এতো বদলে যাবে বুঝিনি। সেটা খুব দুঃখ দিয়েছিল। আজকে ‘নাটকের মতো’তে আমার অভিনয় প্রশংসিত... ব্যক্তিগত জীবনে আমি হ্যাপি। পুরোটাই একটা জার্নি।

আরো ভালো অভিনেত্রী হতে সাহায্য করেছে এই জার্নিটা? বঞ্চনা, গুঞ্জন থেকে আজকের স্বীকৃতি...
পাওলি: অবশ্যই সাহায্য করেছে। যে কোনো অভিনেতা তো ব্যক্তিগত জীবনের অভিজ্ঞতাই কাজে লাগায় তার অভিনয়ে। আমি কিন্তু কিছু রিগ্রেট করি না। ‘ছত্রাক’ ভুল ছিল, সেটাও মানি না। কিন্তু ‘ছত্রাক’‌য়ের ইনসিডেন্ট আমাকে নাড়িয়ে দিয়েছিল। আমি গুম মেরে থাকতাম। আজকে অভিনয়ের সময় কোনো রিঅ্যাকশনে, কোনো পজে, সেই টার্বুলেন্ট সময়ের অভিজ্ঞতা অবশ্যই কাজে লাগাই।

অর্জুন দেখেছেন ‘ছত্রাক’‌য়ের সেই ক্লিপটা?
পাওলি: আমি তো ‘ছত্রাক’ ছবিটা আগে দেখিনি। অর্জুনের সঙ্গেই প্রথমবার দেখেছি ছবিটা। সঙ্গে ওই সিনটা।

চার বছরে কোনো দিন ওই ক্লিপটা দেখেননি...
পাওলি: কী দেখব? আমি তো অভিনয় করেছি। দেখতেও ইচ্ছে হয়নি। অর্জুনের সঙ্গেই প্রথম দেখেছি।

অর্জুনের রিঅ্যাকশন কী ছিল?
পাওলি: ও বললো, হি হ্যাজ নো প্রবলেম উইথ দ্য সিন। সঙ্গে এটাও বললো, ফালতু ফালতু কেন এটার পাইরেটেড ভার্সান বেরিয়েছিল কে জানে!

কিন্তু এটা মেনে নেয়া তো সহজ নয়। বেশির ভাগ পুরুষই খুশি হবেন না এটা জেনে যে, পুরো পৃথিবী তার বৌ বা গার্লফ্রেন্ডকে সম্পূর্ণ বিবস্ত্র অবস্থায় দেখে ফেলেছে...
পাওলি: হ্যাঁ, আমি জানি। ইট ইজ নট ইজি। কিন্তু অর্জুন মানুষটাকে এই জন্যই আমি এতো ভালোবাসি। হি ইজ আ ডিফারেন্ট পার্সন অলটুগেদার। ও জানে আমার সিনেমাবোধ সেই সময় যা ছিল, আজও তাই আছে। আমার এই বোধটাকে ও রেসপেক্ট করে। এবং সে জন্যই আমার ওর প্রতি যতোটা ভালোবাসা, ঠিক ততোটাই রেসপেক্ট রয়েছে। আমার থেকে যদিও ছোট, হিজ ম্যচিওরিটি ইজ অ্যামেজিং।

কতো ছোট?
পাওলি: পাঁচ বছর।

‘ছত্রাক’ নিয়ে বোধ হয় ওর অসুবিধে নেই কারণ সেই সময় উনি ছিলেন না আপনার জীবনে। কিন্তু আজকে নাকি অর্জুন নানা রেস্ট্রিকশন এনেছেন আপনার জীবনে...
পাওলি: (হেসে) সেই সিনিয়র সহকর্মী নিশ্চয়ই?

altসাংবাদিকদের তো সোর্স বলতে নেই।
পাওলি: বুঝে গেছি আপনার সোর্স। (হাসি) না না কোনো রেস্ট্রিকশন আনেনি অর্জুন। বলছি না, হি ইজ মাই বেস্ট ফ্রেন্ড। সব নিয়ে ওর সঙ্গে কথা বলতে পারি। তাই এতো হ্যাপি থাকি...

আপনার হ্যাপি থাকাটা চোখে পড়ার মতো। ‘ছত্রাক’‌য়ের পর যখনই কথা হয়েছে মনে হয়েছে আপনি ভীষণ নেগেটিভ স্পেসে রয়েছেন। অসম্ভব সিনিক্যাল। নিজের ছবি ছাড়া সব ছবি খারাপ, এ রকম একটা মাইন্ড সেট। এটা কি সেই সময় আপনার ঘনিষ্ঠতম পরিচালকের ইনফ্লুয়েন্স ছিল বলে?
পাওলি: যার কথা বলছেন তার ইনফ্লুয়েন্স ছিল না। সেই সময় সিনেমা নিয়ে একটা পাগলামো আমাকে গ্রাস করেছিল। খালি মনে হতো আরো কীভাবে অভিনেত্রী হিসেবে নিজেকে পুশ করবো। আজও পাগলামিটা যে নেই তা নয়। কিন্তু সেটার মধ্যে একটা ব্যালান্স এসেছে।

লোকে সেই সময় বলতো আপনি প্রেম করছেন বাপ্পাদিত্য বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে।
পাওলি: ‘নাটকের মতো’ ছবিতে একটা ডায়লগ আছে, ‘দু’জন ক্রিয়েটিভ মানুষ একটা পথ ধরে হাঁটতে গেলে একটা বন্ডিং তৈরি হয়। সেই বন্ডিংটা কিন্তু প্রেম নয়।’ বাপ্পাদার সঙ্গে দু’টো ছবি করেছি। ভুলে যাবেন না বাপ্পাদা আমাকে রবীন্দ্রনাথ করার সুযোগ দিয়েছিল। ‘এলার চার অধ্যায়’ আমার জীবনে খুব ইম্পর্ট্যান্ট একটা ছবি। সেই সময় আমাকে দিয়ে যে রবীন্দ্রনাথের গল্পের নায়িকা করা যায় এটা কেউ ভাবেনি। তাই বাপ্পাদার সঙ্গে একটা বন্ডিং তৈরি হয়েছিল। কিন্তু শুধু আলাদা করে বাপ্পাদা নয়। আমার সব পরিচালকের সঙ্গেই একটা বন্ডিং হয়। দেবেশদা, কমলদা...

কাজ না করলেও তো বন্ডিং তৈরি হয় আপনার?
পাওলি: (হাসি) আবার ফ্ল্যাকচুয়েট করছে...

হ্যাঁ করছে। সৃজিতের সঙ্গে তো কোনো ছবি করেননি, কিন্তু পাটায়াতে রাতে সমুদ্রস্নানে গেলেন...
পাওলি: (হাসি) আমি একা গিয়েছি নাকি! কেজি (কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়) ছিল...

বাজে কথা। কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় ডাঙায় ছিলেন...
পাওলি: হ্যাঁ, কৌশিকদা ডাঙায় ছিল, কিন্তু রানাদা (রানা সরকার) ছিল। আপনি ছিলেন। ওটাকে গণস্নান আপনারা বানিয়েছিলেন। শুধু আমার আর সৃজিতের স্নান কোনো দিন ছিল না।

সৃজিতের পরের ছবিতে নাকি আপনি অভিনয় করছেন?
পাওলি: কই জানি না তো! তবে সৃজিতের সঙ্গে কথা হয় প্রায়ই। যখন ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড পেলো, খুব খুশি হয়েছিলাম। যখন অ্যাক্সিডেন্ট হলো, খুব দুঃখ পেয়েছিলাম।

গিয়েছিলেন তাকে দেখতে? হিরোইনরা তো প্রায় তীর্থে যাওয়ার মতো সৃজিতের বাড়িতে যাচ্ছেন...
পাওলি: আমি যিশুর স্ত্রী নীলাঞ্জনার সঙ্গে ফলটল নিয়ে গিয়েছিলাম। গিয়ে দেখলাম, পর্ক মোমো খাচ্ছে। পর্ক মোমো নিয়ে গেলেই ভালো হতো। (হাসি)

‘নাটকের মতো’র পর আর কী কী ছবি করছেন?
পাওলি: ‘অরণি তখন’ বলে একটা বাংলা ছবি করছি। এছাড়া ঋক বসুর ‘দেবী’ বলে দুর্দান্ত ইন্টারেস্টিং একটা ছবি করছি। এটা ‘দেবদাস’‌র একটা ডিকনস্ট্রাকশন। তাছাড়া কমলদার ছবিটা করলাম বুম্বাদার সঙ্গে। দু’জনের একশো এপিসোডের একটা সিরিয়ালের কথাও চলছে।

altশুনছিলাম ছবিতে নাকি প্রচুর হট সিন আপনার আর প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের...
পাওলি: সে তো ছবি দেখে জানতে পারবেন। তবে বুম্বাদার সঙ্গে কাজ করার মধ্যে একটা কমফোর্ট ফ্যাক্টর আছে। কমার্শিয়াল বাংলা ছবি তো করেছি বুম্বাদার সঙ্গে। আবার ‘মনের মানুষ’ও করেছি। তাই বুম্বাদার সঙ্গে একটা ন্যাচারাল আন্ডারস্ট্যান্ডিং আর কেমিস্ট্রি আছে।

শোনা যাচ্ছে বুদ্ধদেব দাশগুপ্তের পরের ছবিও আপনি করছেন?
পাওলি: গত সপ্তাহেই কথা হয়েছে একবার। ফাইনাল এখনো কিছু হয়নি। কিন্তু খুব ইচ্ছে আছে ছবিটা করার...

আর হিন্দি ছবি করবেন না?
পাওলি: একটা হিন্দি ছবি করছি। ইন্ডি ফিল্ম। পরিচালক শিলাদিত্য মৌলিক।

ওই নামটা তো তাহলে আর পিছু ছাড়লো না আপনার। শিলাদিত্য?
পাওলি: বাপ রে বাপ! কোথা থেকে কোথায় লিংক করলেন! তবে ওই যে বললাম মৃত্যু, আনন্দ, খ্যাতি, সবটাই নিয়ে আজকের আমি। দশ বছর হয়ে গেলো এই জার্নির।

মৃত্যু মানে তো অভিনেতা শিলাদিত্য পত্রনবিশের মৃত্যু?
পাওলি: হ্যঁ, ওর মৃত্যু। আমার লাইফটা কিন্তু ওপেন বুক। আমি কোনোদিন কিছু লুকোইনি। যে কোনো সম্পর্কের ব্যাপারে আমি অনেস্ট থেকেছি...

ফিরে তাকালে কি মনে হয় বিক্রমের সঙ্গে সম্পর্কটা ভুল ছিল...?
পাওলি: না, মনে হয় না।

সেই সময় বিক্রম স্ট্রাগলিং অ্যাক্টর। আপনি নামী হিরোইন। সামঞ্জস্য ছিল?
পাওলি: এটা পরে আমাকে অনেকেই বলেছেন। কিন্তু আমি যখন কারও সঙ্গে বন্ধুত্ব করি তার ব্যাংক ব্যালান্স কী তার স্টেটাস কিন্তু দেখি না। মানুষটাকে দেখি। কিন্তু কিছু কিছু জিনিস বোধহয় হওয়ার নয়।

অর্জুন জানেন আপনার সম্পর্কগুলোর ব্যাপারে?
পাওলি: ইয়েস। আমি কোনোদিন কিছু লুকোইনি। অর্জুনের কাছ থেকে তো লুকোবই না। আর শুধু ও না, ওর ফ্যামিলির সঙ্গে আমার একটা সাংঘাতিক বন্ডিং। ওর মায়ের সঙ্গে সেদিন কামাক্ষ্যা মন্দিরে গেলাম। ওরা আমাকে ভীষণ ভালোবাসেন। শপিং করি ওদের সঙ্গে।

কী কিনে দিলেন ওরা?
পাওলি: মেখলা। আরো অনেক কিছু...(হাসি)

বিয়ে করে কলকাতায় থাকবেন, না গুয়াহাটি?
পাওলি: না, না, কলকাতায় থাকবো। ওদের কলকাতায় বাড়ি আছে। তাছাড়া গুয়াহাটি তো রইলই। প্ল্যান আছে প্রচুর ঘুরবো আমরা।

আপনারা গিয়েছিলেন তো ছুটিতে।
পাওলি: হ্যাঁ, ব্যাংকক গিয়েছিলাম, সিঙ্গাপুর গিয়েছিলামা। পরের মাসে আমার জন্মদিনে ও আমাকে হংকং আর ম্যাকাও নিয়ে যাচ্ছে। টাচ উড, লাইফ ইজ গুড।

টাচ উড। শেষ প্রশ্ন। ডেট যখন বললেন না, তাহলে এটা বলুন হানিমুনটা কোথায়?
পাওলি: কোনো প্ল্যানিং হয়নি তো।

আপনাকে অর্জুন ম্যারেজ প্রোপোজ করেছেন, একসঙ্গে বেড়াতে যাচ্ছেন আপনারা। হানিমুনের প্ল্যান হয়নি, এটা কেউ বিশ্বাস করবে...?
পাওলি: অনেকগুলো জায়গা আছে লিস্টে। কোনো একটা ঠিক নেই।

আপনার লিস্টে এক নম্বর জায়গা কোনটা?
পাওলি: নিউজিল্যান্ড। তবে আমাদের যা শিডিউল, শেষে দেখলেন টাইমই হলো না। (হাসি) তখন দেখবেন হয়তো কাজিরাঙ্গা ন্যাশনাল পার্কে আমাদের হানিমুন হলো।


নিউইয়র্ক সুন্দরী প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বে বাংলাদেশি মৌমিতা

মঙ্গলবার, ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৫

হাকিকুল ইসলাম খোকন:বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে :যুক্তরাষ্ট্রে মিস নিউইয়র্ক সুন্দরী প্রতিযোগিতায় শেষ পর্যন্ত চূড়ান্ত পর্বেও টিকে গেলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মৌমিতা খন্দকার। মিস ইন্টারকন্টিনেন্টাল প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট জিতে নিয়েছেন তিনি। আগামী ৯ অক্টোবর মেরিল্যান্ডে মিস ইন্টারকন্টিনেন্টাল ইউএসএ’র ফাইনাল রাউন্ড অনুষ্ঠিত হবে। ফাইনাল পর্বে মৌমিতার থাকবে প্রতিদ্বন্দ্বী ৫১ জন সুন্দরী।

Picture

মিস ইন্টারকন্টিনেন্টাল ইউএসএ বিজয়ী হতে তাই বাঙালিসহ সবার সমর্থন চেয়েছেন মৌমিতা। নিউ ইয়র্কের লং আইল্যান্ডের ডিক্সহিলে মা ডিনা খন্দকার ও বাবা খন্দকার মাহবুবের সঙ্গে বসবাস করেন মৌমিতা।


এমার স্ট্যাটাসে বাংলাদেশ

মঙ্গলবার, ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ:কিছুদিন আগে মুক্তি পেয়েছে দ্য ট্রু কস্ট নামের একটি তথ্যচিত্র। সাধারণত তথ্যচিত্র নিয়ে এতটা হুল্লোড় পড়ে না হলিউডে। কিন্তু দ্য ট্রু কস্ট নিয়ে দারুণ আলোচনা চলছে এখন। খোদ হলিউড অভিনেত্রী এমা ওয়াটসন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই তথ্যচিত্রে নিয়ে কথা বলেন। তাঁর মতে এটি নাকি ফ্যাশনসচেতন সবার দেখা উচিত। সঙ্গে তিনি এও বলেন, এই তথ্যচিত্র সবাইকে বুঝিয়ে দেবে কেন তিনি নিভৃতে বাংলাদেশ সফরে এসেছিলেন।

বাংলাদেশি এক পোশাকশ্রমিকের সেঙ্গ এমা ওয়াটসন l ছবি: টুইটার 

এন্ড্রু মরগ্যান পরিচালিত দ্য ট্রু কস্ট তথ্যচিত্রটি তৈরি হয়েছে পোশাকশিল্পকে ঘিরে। বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর নিত্যনতুন আরামদায়ক পোশাকের পেছনে কাদের পরিশ্রম জড়িয়ে আছে, তা দেখানো হয়েছে এতে। তাই স্বাভাবিকভাবেই তথ্যচিত্রে উঠে এসেছে তৈরি পোশাক রপ্তানির তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা বাংলাদেশের চিত্র। ইতিবাচক ও নেতিবাচক—দুই দিক থেকেই পরিচালক তুলে ধরেছেন বাংলাদেশকে। তথ্যচিত্রে বাংলাদেশ, চীন, ভারতসহ বিভিন্ন দেশের পোশাকশিল্পের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের কথা তুলে ধরা হয়েছে। এমা ওয়াটসন তাঁর ফেসবুক পেজ, টুইটার, ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন বাংলাদেশের কথা। তিনি লেখেন, ‘বেশ কিছু সময় ধরেই আমি এটা নিয়ে লেখার চেষ্টা করছিলাম। দেখে নাও কেন আমি পিপল ট্রির হয়ে কাজ করা শুরু করি, বাংলাদেশ সফরে যাই এবং ইকো এজ গ্রিন কার্পেট চ্যালেঞ্জ নিই। দ্য ট্রু কস্ট ছবিটি দেখো।’ ২৬ আগস্ট এই পোস্টটি করেন হ্যারি পটার–খ্যাত এমা।

এমা ওয়াটসন
পরিবেশবান্ধব পোশাক তৈরির প্রতিষ্ঠান পিপল ট্রির মুখপাত্র এমা ওয়াটসন। ২০১০ সালে এই প্রতিষ্ঠানের হয়েই বাংলাদেশ সফরে আসেন তিনি। সে সময় ঢাকার বেশ কিছু পোশাক তৈরির কারখানাও তিনি ঘুরে দেখেন। দ্য ট্রু কস্ট দেখার পর তাঁর সেই বাংলাদেশ ভ্রমণের কথাই মনে পড়ে গেল আবার।
দ্য ট্রু কস্ট ছবি নিয়ে নিজের মত প্রকাশের পাশাপাশি এমা বলেন তাঁর ইকো এজ গ্রিন কার্পেট চ্যালেঞ্জের কথাও। তিনি বলেন, নিজের পোশাকের বৃত্তান্ত সবাইকে জানানোর জন্য রেড কার্পেটই উপযুক্ত স্থান। এমা বলেন, এখন থেকে যেকোনো রেড কার্পেট অনুষ্ঠানে যে পোশাক পরবেন, তার আদ্যোপান্ত তিনি সবাইকে জানাবেন ফেসবুক, টুইটার ও ইনস্টাগ্রামের মাধ্যমে। পোশাকবৃত্তান্তে তিনি তাঁর পরনের পোশাকের নকশাকারী, কোন দেশ থেকে সেই পোশাক তৈরি হয়ে এসেছে, সেগুলোর উল্লেখ করবেন। সঙ্গে জানাবেন পোশাক তৈরিতে কোনো ক্ষতিকারক রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহৃত হয়েছে কি না।


চিরকুটের যুক্তরাষ্ট্র যাত্রা

মঙ্গলবার, ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৫

বাপসনিঊজ: প্রায়ই দেশের বাইরে গান করতে যাচ্ছে জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘চিরকুট’। অনেকটা রুটিনের মতো। আজ কানাডা, তো কাল ইংল্যান্ড। রুটিন অনুযায়ী দলটি এবার যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রে । সেখানে বসবাসরত বাঙালীদের গান শোনাবেন তারা।

alt 

জানা গেছে, দলটি নিউইয়র্কের ইয়র্ক কলেজ সিটি ইউনিভার্সিটির পারফর্মিং আর্ট সেন্টারে গান গাইবে। আগামী ৪ থেকে ৬ সেপ্টেম্বর তিনদিন জুড়ে চলবে অনুষ্ঠান চলবে। এছাড়া আরো ডালাস, বোস্টনও আটলান্টা অঙ্গরাজ্যের কয়েকটি অনুষ্ঠানে তাদের গান করার কথা রয়েছে। অনুষ্ঠানে যোগ দিতে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ৩ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বেন দলের সদস্যরা। সব মিলিয়ে দিন বিশেক যুক্তরাষ্ট্রে থাকবেন তারা।