Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

বিনোদন

৬৯তম কান চলচ্চিত্র উৎসবে -“আয়নাবাজি”

বুধবার, ১৮ মে ২০১৬

Picture

পরিচালক অমিতাভ রেজা বলেছেন,‘চলচ্চিত্র নির্মাণ একটি দলবদ্ধ উদ্যোগ এবং আগত দর্শকদের ভালোলাগা দেখে বলতেই পারি, আমাদের দলটি অসাধারন কাজ করেছে।’টপ অফ মাইন্ড- এর সিইও এবং চলচ্চিত্রটির প্রযোজক জিয়াউদ্দিন আদিল বলেছেন, ‘চলচ্চিত্রটি সকল দর্শকদের ভীষন ভালোবাসায় বরণ করে নিয়েছে; যার ছাপ দেখতে পাচ্ছি প্রদোর্শনে আশা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের দর্শকদের চেহারায়। এটি একেবারেই ভিন্নধর্মী এবং প্রাণবন্ত চলচ্চিত্র।’গাওসুল আলম শাওন বলেছেন, ‘বাংলাদেশের দর্শকবৃন্দ এই চলচ্চিত্রটির জন্য অধির আগ্রহে অপেক্ষা করছেন। আমার বিশ্বাস, কান চলচ্চিত্র উৎসবের এই সাফল্য তাদের আগ্রহকে আরও দ্বিগুন করে দিবে।’

alt

আয়নাবাজি সম্পর্কে:
এই চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, নাবিলা, লুৎফর রহমান জর্জ, হিরা চৌধুরী, শওকত ওসমান, গাওসুল আলম শাওনসহ আরও অনেকে। চলচিচ্চত্রটির মুল ভাবনা গাওসুল আলম শাওনের; চিত্রনাট্যও তিনি রচনা করেছেন, অনম বিশ্বাসের সঙ্গে যৌথভাবে। নির্বাহী প্রযোজক ছিলেন এশা ইউসুফ। ‘আয়নাবাজি’ পরিচালনা করেছেন পরিচালনা করেছেন অমিতাভ রেজা।

কাহিনী সংক্ষেপ:
এই শহরের ভিতরে আরও একটা শহর আছে.. যার গল্প এখন আমরা আর শুনি না। সিনেমা নাটকেও তাকে দেখা যায় না। “আয়নাবাজি” Ñ সেই শহরের গল্প। যে শহরে এখনও সকালে দুধওয়ালা আসে, ফেরিওয়ালারা হাঁকডাক দেয়, বাচ্চারা দল বেঁধে নাটক শিখতে যায়। মহল্লার পুরীর দোকানে চা খাওয়া হয়, ঠাট্টা-মশকরা করা বখাটেরা। আয়না সেই শহরের একজন বাসিন্দা। সহজ আর সরল, সেখানে তার একাকী জীবন আর ছোট বাচ্চাদের নিয়ে একটা নাটকের দল। তার মাঝে হঠাৎ হয়ে যায় একটা সহজাত প্রেম- হৃদি। জীবনের প্রয়োজনে সে নতুন শহরে আসে। কিন্তু মুখোশ পাল্টিয়ে, অন্য মানুষ হয়ে, চেনা কিছু মানুষের ডাকে। সেই মানুষগুলোর জন্য আয়না কাজ করে জীবিকার প্রয়োজনে, তারপর ফিরে যায় তার ছোট্ট মহল্লায়। এ’রকম আসা-যাওয়ার মাঝে কখনো আটকে পড়ে নষ্ট শহরের বেড়াজালে। বের হয়ে ছুটে যাওয়ার চেষ্টা করেও পারে না তার মহল্লার একজন আয়না হতে। রঙিন মুখোশ আর খুলতে পারে না আয়না। আয়না তার ফেলে আসা প্রেম আর নাটকের স্কুলের কাছে যেন আর ফিরে যেতে পারে না।

alt

যে অভিনয়কে ভালোবেসে আয়না এই শহরকে মঞ্চ বানাতে চায়, সেই মঞ্চ একদিন হয়ে যায় ফাঁসির মঞ্চ- যার জল্লাদের হাসির কাছে এই শহরের সেরা অভিনেতা পরাজয়ের শেষ বিন্দুতে দাঁড়িয়ে থাকে। এই যুগের স্পার্টাকাস আয়না যেন তার শেষ নাটকের মঞ্চে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করে মানুষখেকো মানুষগুলোর।


জমকালো সন্ধ্যায় প্রাপ্তির হাসি

বৃহস্পতিবার, ১২ মে ২০১৬

আয়েশা আকতার রুবী,বাপসনিঊজ:ঢাকা থেকে :শিল্পীরা, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিবর্গ এবং পরিচিত-অপরিচিত অনেক মুখ। ধীরে ধীরে সবাইকে দেখা যাচ্ছিল আজ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে। বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সময় জুড়ে অনুষ্ঠিত হল ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৪।’

Picture

এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৪ তে আজীবন সম্মাননা পেলেন যৌথভাবে সৈয়দ হাসান ইমাম ও রাণী সরকার। তাঁদের কর্মজীবনের খণ্ড খণ্ড অংশ আর বিবরণী প্রদর্শিত হল পর্দাজুড়ে।

রুনার জন্য আলমগীর, মিশার জন্য মৌসুমী

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৪’র সেরা ছবি নির্বাচিত হল ‘নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ’। সেরা কাহিনিকার হিসেবে নির্বাচিত করা হল ‘মেঘমল্লা’ এর জন্য লেখক আখতারুজ্জামান ইলিয়াস-কে। তাঁর ভাই লেখকের পক্ষ থেকে এ পুরস্কার গ্রহণ করলেন। একই ছবির জন্য জাহিদুর রহিম অঞ্জন ‘সেরা সংলাপ রচয়িতা’ ও সেরা পরিচালকের পুরস্কার পেলেন। সাধারণ পোষাকে জাহিদুর রহিম অঞ্জন ঠিক যেমন থাকেন তেমনভাবে এ অনুষ্ঠানেও উপস্থিত হয়েছিলেন। 'মেঘমল্লার' এর জন্য সেরা শব্দগ্রাহক হিসেবে রতন পাল এবং 'শিশুশিল্পী' বিশেষ শাখায় মারজান হোসাইন জারা পুরস্কার পেলেন। এবার সেরা অভিনেতা হয়েছেন ফেরদৌস। সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার গ্রহণ করলেন যৌথভাবে মৌসুমী ও বিদ্যা সিনহা সাহা মিম। মৌসুমী কালো শাড়িতে সেজে উপস্থিত হয়েছিলেন, অন্যদিকে মীম সাদা পোষাকে উপস্থিত হয়েছিলেন অনুষ্ঠানে।

এই প্রাপ্তির অনুভূতি প্রকাশের ভাষা আমার জানা নেই 

করতালিতে মুখরিত হল রুমে চেনা ভঙ্গিতে হেঁটে সেরা গায়ক হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার হাতে নিতে মঞ্চে উঠলেন সংগীতশিল্পী জেমস। যৌথভাবে সেরা গায়িকা নির্বাচিত হলেন রুনা লায়লা ও মমতাজ। এছাড়াও সেরা সঙ্গীত পরিচালক, গীতিকার, সুরকার ও রূপসজ্জা শিল্পী হিসেবে পুরস্কার গ্রহণ করলেন যথাক্রমে সাইম রানা, মাসুদ পথিক, বেলাল খান ও আবদুর রহমান। পোশাক ও সাজসজ্জা বিভাগে শ্রেষ্ঠ হিসেবে নাম লেখালেন কনকচাঁপা চাকমা। সেরা খল চরিত্রের জন্য তারিক আনাম খান এবার জাতীয় পুরস্কার গ্রহণ করলেন। সেরা চিত্রনাট্যকার সৈকত নাসির ও সেরা সম্পাদক হিসেবে তৌহিদ হোসেন চৌধুরী প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে পুরস্কার গ্রহণ করেন। এ আসরে মিশা সওদাগর সেরা কৌতুক অভিনয়শিল্পীর পুরস্কার গ্রহণ করলেন। সেরা পার্শ্ব অভিনেতা হিসেবে এজাজুল ইসলাম ও পার্শ্ব অভিনেত্রীর পুরস্কার নিলেন চিত্রলেখা গুহ।

alt

পুরস্কার বিতরণের পর শুরু হল জমজমাট আলো ঝলমলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। নাচ-গান আর হৈ চৈ এর এ পর্বে উপস্থাপনায় ছিলেন অভিনেতা রিয়াজ এবং  অভিনেত্রী নওশীন। নৃত্যশিল্পী মৌ তাঁর দলসহ উঠে এলেন মঞ্চে। ফাহমিদা নবীর কন্ঠে ‘লুকোচুরি লুকোচুরি গল্প’ গানের সুরে মজে উঠলেন দর্শক-শ্রোতা। সঙ্গীতশিল্পী মমতাজের কন্ঠে ছিল নিশি পঙ্খী- গানটি। সেই সাথে বহু চেনা 'আগে যদি জানতামরে বন্ধু’ গানটিও। পারফর্ম করলেন অমিত হাসান, ওমর সানী, নিরব, ইমন, তমা মির্জা, পরীমনি, আইরিন এবং ভাবনা। নাচে-গানে-আড্ডায় ধীরে ধীরে শেষের দিকে এগোচ্ছিল তখন উৎসবের সন্ধ্যা।


সেরাকণ্ঠ তারকা মেহেদীর প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ

বুধবার, ১১ মে ২০১৬

বিনোদন প্রতিবেদক :মেহেদী হাসান ‘চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ’র আবিষ্কার। জমকালো এক আয়োজনের মধ্য দিয়ে প্রকাশ হলো তার প্রথম একক অডিও অ্যালবাম ‘আয়না ফিরে’।এটি বাজারে এনেছে গানচিল প্রকাশনী। অ্যালবামটির প্রকাশনা উপলক্ষে ১০ মে, মঙ্গলবার বিকেলে চ্যানেল আই ভবনে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংগীতজ্ঞ আজাদ রহমান, খালিদ হোসেন, শেখ সাদী খান, বাসু দেব, ভাস্কর রাসা, ফেরদৌস আরা, সাদী মহম্মদ, শাহিন সামাদ, ইমন সাহা, অনিমা রায়, অভিনেত্রী কংকন, শিরীন বকুল ও সেরাকণ্ঠের শিল্পীরা।

সেরাকণ্ঠ তারকা মেহেদীর প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ  

মেহেদী জানান, অ্যালবামে রয়েছে আটটি গান। সেগুলো হলো গানওয়ালা, আয়না ফিরে, ভালোবাসা, দু’চোখের খামে, অবহেলা, নীল আকাশ, না বলা কবিতা এবং তুমি ছাড়া আমি একা। গানগুলো লিখেছেন আমীরুল ইসলাম, রবিউল জীবন, ওমর ফারুক, আবদুর জাহের রুবেল, অন্তরা, এইচ, এম, রিপন এবং সুর করেছেন সাজেদুর সাহেদ ও মেহেদী হাসান।


যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে বাংলাদেশের ছবি 'মাটির প্রজার দেশে'

সোমবার, ০৯ মে ২০১৬

বাপ্ নিউজ : যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে যাচ্ছে বাংলাদেশের তরুণ নির্মাতা বিজনের চলচ্চিত্র 'মাটির প্রজার দেশে।' বিশ্বে যতগুলো ফিল্ম স্কুল আছে তার মধ্যে অন্যতম একটি হলো ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়া, লস আঞ্জেলেস-এর ফিল্ম টেলিভিশন অ্যান্ড থিয়েটার বিভাগটি। প্রতিবছর সারা পৃথিবী থেকে মাত্র ১৮ জন ডিরেক্টর সুযোগ পেয়ে থাকেন এখানে ফিল্ম বিষয়ে পড়ার জন্য। ফ্রান্সিস কপোলা, অ্যালেক্সান্ডার পেইন, পল স্রেডার, টিম রবিন্স এর মতো আরও অনেক কিংবদন্তিরা পড়েছেন এই প্রতিষ্ঠানে। এখানে পড়েছেন বাংলাদেশের বিজন। চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা করেছেন আরিফুর রহমান।

Picture

১০ বছরের ছোট শিশু জামালকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা ছবিতে বিশ্লিষ্ট হবে একসাথে অনেকগুলো বিষয়। জামালের আশপাশে ঘটে যাওয়া বিষয়গুলো জামালকে বিচলিত করে তোলে। তার বোনের অল্প বয়সে বিয়ে হয়ে যাওয়া, স্কুলে যাওয়ার তীব্র ইচ্ছা, আবার স্কুলে গিয়েও তার নিজের বাবার নাম না বলতে পারা- অদ্ভুত সব ঘটনার যোগসূত্রে নির্মিত হয়েছে 'মাটির প্রজার দেশে।' ছবিতে জামালের চরিত্রে অভিনয় করেছে শিশু মাহমুদুর অনিন্দ্য। এ ছাড়াও রোকেয়া প্রাচী, জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, মনির আহমেদ শাকিল, চিন্ময়ী। আগামী ২৮ মে ও ২৯ মে 'মাটি প্রজার দেশে'র ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হবে সিয়াটলে।বিজন বলেন, চেষ্টা করেছি একটা ভালো চলচ্চিত্র নির্মাণের। এখানে বিশ্বের ভালো ভালো চলচ্চিত্রই সুযোগ পেয়ে থাকে। সিয়াটল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল কর্তৃপক্ষ ছবিটি নির্বাচন করেছেন এটা অনেক আনন্দের একটি বিষয়। বলা যায় একটা অ্যাচিভমেন্ট আমাদের।


টরন্টোর বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যালে তারকামেলা

রবিবার, ০৮ মে ২০১৬

বাপ্ নিউজ : কানাডা প্রতিনিধি : আগামী ২১ ও ২২ মে টরন্টোর ৭২০ মিডল্যান্ড এভিনিউতে আয়োজন করা হয়েছে রূপায়ন বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল ২০১৬। প্রথম ফেস্টিভ্যাল সাফল্যের পর দ্বিতীয়বারের এ উৎসব মাতাতে আসছেন একঝাঁক খ্যাতিমান তারকা। এই তালিকায় রয়েছেন সঙ্গীতশিল্পী সামিনা চৌধুরী, আঁখি আলমগীর, চিত্রনায়িকা মৌসুমী, নায়ক ফেরদৌস, ওমর সানি, আজিজুল হাকিম, স্মাইল শো খ্যাত উপস্থাপক খন্দকার ইসমাইল ও নাট্যকার জিনাত হাকিমসহ আরো অনেকে।

Picture

এছাড়াও থাকবে স্থানীয় শিল্পীদের নানান পরিবেশনাও। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, এনজিও, পোশাক, খাদ্যদ্রব্য এবং স্থানীয় ব্যবসায়ীদের স্টল থাকছে এই আয়োজনে। মঞ্চে বাংলাদেশকে তুলে ধরতে থাকবে বেশ কিছু অনবদ্য পরিবেশনা। ইতোমধ্যে কানাডার বাণিজ্যিক রাজধানী টরন্টোর সিটি মেয়র জন টরি ও অন্টারিওর প্রিমিয়ার ক্যাথলিন উইন  বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যালে আমন্ত্রিত অতিথি এবং দর্শকদের আগাম শুভেচ্ছা জানিয়ে অফিসিয়াল বার্তা পাঠিয়েছেন।বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল কমিটির কনভেনর শহিদুল ইসলাম মিন্টু জানিয়েছেন, পুরো অনুষ্ঠানটি ধারণ করবে কানাডার প্রথম ২৪ ঘন্টার বাংলা টিভি চ্যানেল এনআরবি টিভি।


‘কান চলচ্চিত্র উৎসব’ এবং এক টুকরো বাংলাদেশ

বুধবার, ০৪ মে ২০১৬

বাপসনিঊজ:বিশ্ব চলচ্চিত্র আসরে সবচেয়ে প্রভাবশালী এবং মর্যাদাপূর্ণ অনুষ্ঠান ‘কান চলচ্চিত্র উৎসব’। ১৯৪৬ সাল থেকে প্রতি বছর এই উৎসব পালিত হয়ে আসছে। উৎসবটি দক্ষিণ ফ্রান্সের রিজোর্ট শহর কানে প্রতি বছর মে মাসে জমকালো আয়োজনের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়। আগামী ১১ মে শুরু হচ্ছে ৬৯তম কান চলচ্চিত্র উৎসব। শুরুর আগেই এবারো কান উৎসব ঘিরে সরব বাংলাদেশ।

সিনেপ্রেমীদের এক মিলন মেলার কান চলচ্চিত্র উৎসবে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অর্জন প্রয়াত তারেক মাসুদের ‘মাটির ময়না’ ছবির সাফল্য। ২০০২ সালে ‘মাটির ময়না’ কান চলচ্চিত্র উৎসবে ডিরেক্টরস ফর্টনাইট বিভাগে পুরস্কার জিতেছিল এই ছবিটি। এছাড়াও ফিপ্রেস্কি আন্তর্জাতিক সমালোচক পুরস্কারের আওতায় শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের পুরস্কার অর্জন করে।

৬৬তম কান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দেন প্রযোজক ও চিত্রনায়ক অনন্ত ও চিত্রনায়িকা বর্ষা। কান চলচ্চিত্র উৎসবের ডিস্ট্রিবিউটরগণ এমএ জলিল অনন্ত প্রযোজিত, পরিচালিত ও অভিনীত চলচ্চিত্র ‘নিঃস্বার্থ ভালোবাসা’ ছবিটি কান চলচ্চিত্র উৎসবে নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন। পরবর্তীকালে কান উৎসবের ডিস্ট্রিবিউটরগণ ‘নিঃস্বার্থ ভালোবাসা’ ছবিটি কান চলচ্চিত্র উৎসবের জন্য নেন, যা উৎসবের সবচেয়ে বড় স্ক্রিন অলিম্পিয়ায় প্রদর্শিত হয়।

এছাড়াও ৬৬তম কান চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দেন অভিনেত্রী জয়া আহসান। কান চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজকদের পক্ষ থেকে একজন ‘বহুমাত্রিক অভিনেত্রী’ হিসেবে জয়া আহসানকে সেবারের উৎসবে আমন্ত্রণ জানানো হয়।

এরপর বাংলাদেশের তরুণ নির্মাতা কামার আহমাদ অংশ নেন অনুষ্ঠানে। ২০১৪ সালে ‘শুনতে কি পাও’ তথ্যচিত্র নিয়ে ৬৭ তম কান চলচ্চিত্র উৎসবে হাজির হয়েছিলেন তিনি। তার প্রথম নির্মাণ ‘শুনতে কি পাও’ ফ্রান্সের ‘সিনেমা দ্যু রিলে’ আসরের গ্রাঁ প্রি খেতাব জিতেছিল। সেবার কানের ‘বিশ্বের চলচ্চিত্র’ এই সিরিজে নির্বাচিত হয়েছে তার সিনেমা ভাবনা। ১২৫টি আবেদন থেকে বাছাই করা ১০টির মধ্যে কামার আহমেদের স্থান পাওয়ার ঘটনাটি বাংলাদেশের জন্য ছিল প্রথম।

গতবছর কান উৎসবে প্রদর্শিত হয়েছিল খিজির হায়াত পরিচালিত ‘আই ফর অ্যান আই’ নামের একটি বাংলাদেশি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র। ছবিটি শর্ট ফিল্ম কর্নারে প্রদর্শিত হয়। বাংলাদেশ থেকে কান উৎসবে আরও যোগ দিয়েছিলেন পরিচালক স্বপন আহমেদ।

১৮ মিনিট দৈর্ঘ্যের এ শর্টফিল্মটি বাংলাদেশের নির্মাতার হলেও বাংলাদেশ থেকে সিনেমাটি উৎসবে জমা দেওয়া হয়নি। এটি জমা দেওয়া হয়েছিল কানাডা থেকে। রাজনৈতিক থ্রিলারধর্মী শর্টফিল্মটির চিত্রনাট্য লিখেছেন ক্যারিন ম্যাক্সি। এবং প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন শান রহমান এবং কানাডার অভিনেত্রী মমোনা কমাগত।

এবছর অনুষ্ঠিত হবে কান উৎসবের ৬৯ তম আসর। উৎসবের বাণিজ্যিক শাখা মার্কসে দু’ফিল্মে প্রথমবারের মত বাংলাদেশের ছবি হিসেবে প্রিমিয়ার হতে যাচ্ছে ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ছবি ‘অজ্ঞাতনামা’। ছবিটি পরিচালনা করেছেন তৌকির আহমেদ। চলচ্চিত্রটি কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রধান ভবন প্যালেস দু’ফেস্টিভ্যাল এর প্যালেস- আইতে আগামী ১৭ মে সন্ধ্যা ৬টায় প্রদর্শিত হবে।  কান চলচ্চিত্র উৎসবে সারা বিশ্ব থেকে আমন্ত্রিত প্রযোজক, পরিচালক, অভিনয় শিল্পী এবং সাংবাদিকরাই এই প্রিমিয়ার শোটি দেখার সুযোগ পাবেন।

ইতিমধ্যে ওয়ারনার ব্রাদার্স, এরস, এম কে ২ সহ বিশ্বের খ্যাতনামা ফিল্ম ডিসট্রিবিউটর কোম্পানিগুলো কান চলচ্চিত্র উৎসবে ছবিটি দেখার আগ্রহ ব্যক্ত করেছেন। কান চলচ্চিত্র উৎসব কর্তৃপক্ষ থেকে উৎসবে অংশগ্রহণের জন্য আনুষ্ঠানিক আমন্ত্রণ পেয়েছেন ইমপ্রেস টেলিফিল্ম-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, পরিচালক বিক্রয় ও বিপনন ইবনে হাসান খান ও ছবিটির পরিচালক তৌকির আহমেদ।


প্রবাসী বাঙালিদের প্রিয় শিল্পী সাদ

মঙ্গলবার, ০৩ মে ২০১৬

বাপসনিঊজ:আরেফিন সাদ। লেখাপড়ার জন্য প্রবাসে থাকলেও, বাঙ্গালীর সঙ্গীত চর্চাকে ঠিকই আঁকড়ে আছেন তিনি। দেশ থেকে দুরে থেকেও দেশের সঙ্গীতকে চর্চা করছেন মনে প্রাণে। সাম্প্রতিক সময়ে সুইডেন ও ডেনমার্কের বাঙালি বা বাংলাদেশের যে কোন ফেস্টিভ্যালের প্রিয় গায়ক হয়ে উঠেছেন আরেফিন সাদ। পারিবারিকভাবেই আরেফিন সাদের রয়েছে সঙ্গীতের প্রতি ভালবাসা। মা সঙ্গীত চর্চা করতেন ভালোবেসে। মাকে দেখেই আরেফিন সাদের সঙ্গীতের প্রতি ভালবাসা। পঞ্চম শ্রেণী থেকে গান লেখায় হাতেখড়ি তার। স্টেজ এ প্রথম গান গাওয়া ষষ্ঠ শ্রেনীতে পড়া অবস্থায়। ‘তোরে পুতুলের মত সাজিয়ে’ কুমার বিশ্বজিতের জনপ্রিয় সেই গান গেয়ে শিল্পী হিসাবে স্বীকৃতি পান আরেফিন সাদ। এরপর থেকেই বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গান করেন তিনি। 

Picture

বর্তমান সুইডেনের মাল্মো শহরের সুইডেন মাল্মো বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ পড়ালেখা করছেন সাদ। লেখাপড়ার ফাঁকে ফাঁকে লালন করছেন বাংলা সঙ্গীতকে। নিজে গান লিখেন, আবার সুরও করেন।জানা গেছে, ইতোমধ্যে আরেফিন সাদের বেশ কয়েকটি মৌলিক গান বের হয়েছে। মিউজিক ভিডিও তৈরী করছেন নিজের লেখা গান ও সুরে। আগামীতে আরেফিন সাদ মেলোডিয়াস গান করতে চান। তার অনেক স্বপ্ন গান নিয়ে। আরেফিন সাদ এর প্রিয় শিল্পী বাপ্পা মজুমদার, পার্থ বড়ুয়া। 


নিউইয়র্কের মঞ্চে একসঙ্গে গাইবেন তারা

শনিবার, ৩০ এপ্রিল ২০১৬

Picture

নিজেদের জনপ্রিয় গানের পাশাপাশি শ্রোতাদের অনুরোধের গানগুলো গেয়ে শোনাবেন দুজন। এ প্রসঙ্গে সাবিনা ইয়াসমীন বলেন, ‘শুধু আমাদের দুজনকে নিয়ে দেশের বাইরে এ ধরনের আয়োজন এটাই প্রথম। আশা করি কনসার্টটা সবাই এনজয় করবেন।’কনসার্টের আয়োজক শোটাইম মিউজিকের চেয়ারম্যান আলমগীর খান বলেন, ‘অনেক দিন ধরে আমরা এর
পরিকল্পনা করে আসছিলাম। অবশেষে সফল হয়েছি। আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতিই সম্পন্ন।’ কনসার্টের দু-এক দিন আগেই যুক্তরাষ্ট্রে  পৌঁছবেন রুনা লায়লা ও সাবিনা ইয়াসমীন। তাঁদের সঙ্গে বাজাতে যাবে একদল যন্ত্রশিল্পী ।


প্রবাসী শিল্পী শাহানা কাজীর নতুন অ্যালবাম

বুধবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৬

বাপসনিঊজ:শাহানা কাজী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত একজন কানাডিয়ান কন্ঠশিল্পী। কানাডার টরন্টো থেকে গত বছর পহেলা বৈশাখে তিনি তার প্রথম বাংলা গানের অ্যালবাম প্রকাশ করেন। ‘ভালোবাসার কথা’ নামের এ অ্যালবামে গান ছিল মোট নয়টি। সবগুলো গান লিখেন কবির বকুল।শাহেদ কাজীর প্রযোজনায় কানাডার ব্লুসম মিউজিক থেকে প্রকাশিত এ অ্যালবামটি বর্তমানে আই টিউনস, অ্যাপল মিউজিক, আমাজন, স্পটিফাই সহ সব জনপ্রিয় অনলাইন মিউজিক স্টোরে অডিও সিডি, এমপিথ্রি ডিজিটাল ফরম্যাটে এবং স্ট্রীমিং এ বিশ্বব্যাপী পাওয়া যাচ্ছে।

Picture

এবার তিনি তার দ্বিতীয় একক অ্যালবাম নিয়ে হাজির হচ্ছেন। প্রথম অ্যালবাম প্রসঙ্গে শাহানা কাজী বলেন, ‘ভালোবাসার কথা’ অ্যালবামটি রেকর্ড এবং মাস্টারিং করা হয়েছে কানাডার অন্যতম একটি রেকর্ডিং স্টুডিওতে। যেখানে অনেক বিশ্ব বিখ্যাত কন্ঠ শিল্পীরা তাদের গান রেকর্ড করেন যাদের মধ্যে রয়েছেন জাস্টিন বিবার এর মত অনেক খ্যাতিমান্ শিল্পীরা।তিনি আরও বলেন, আমার প্রথম অ্যালবামটি মুক্তির পর উত্তর আমেরিকা, ইউরোপ এবং বাংলাদেশ সহ বিশ্বের অনেক দেশের শ্রোতাদের কাছ থেকে বেশ ভালো সাড়া পেয়েছি। ফেসবুক ফ্যান পেজে ফ্যানদের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে সাড়ে ছয় লাখের উপর।তিনি বলেন, নস্টাগ্রাম এবং ইউটিউবেও ফলোয়ার আর সাবস্ক্রাইবার এর সংখ্যা বাড়ছে। শ্রোতা-ভক্তদের এই ব্যাপক সাড়া পেয়ে দ্বিতীয় অ্যালবামের কাজ শুরু করেছি।
 প্রবাসী শিল্পী শাহানা কাজীর নতুন অ্যালবাম
উল্লেখ্য, শাহানা কাজী কানাডার টরন্টোতে একজন প্রবাসী জনপ্রিয় শিল্পী। তিনি টরেন্টোর ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্র বিজ্ঞানে পড়াশুনা করেছেন। এছাড়া কানাডার সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ সঙ্গীত প্রতিষ্ঠান ‘মেরিয়াম স্কুল অফ মিউজিক’ থেকে সঙ্গীতের উপর শিা নিয়েছেন। ব্যক্তিগত জীবনে সঙ্গীত অনুশীলনের পাশাপাশি তিনি বর্তমানে টরন্টোর একটি আইটি প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বশীল অবস্থানে নিযুক্ত আছেন।


জনপ্রিয় মার্কিন সংগীতশিল্পী প্রিন্স আর নেই

শনিবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৬

জনপ্রিয় মার্কিন সংগীত শিল্পী ও ইতিহাসের অন্যতম সফল সুরকার প্রিন্স রজার্স নেলসন মারা গেছেন। আজ বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটায় নিজ বাসায় তিনি মারা যান। তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৭ বছর। খবর বিবিসি ও গার্ডিয়ানের।এর আগে জরুরি চিকিৎসাসেবার জন্য প্রিন্স রজার্সের বাসা থেকে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে।
_89380260_032576672-1
১৯৮০ সালে গানের অ্যালবাম ১৯৯৯, পার্পেল রেইন এবং সাইন ও’ দ্য টাইমস প্রকাশের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী তারকাখ্যাতি পান প্রিন্স রজার্স নেলসন। তাঁর সংগীত জীবনে ১০ কোটিরও বেশি সংখ্যক গানের রেকর্ড বিক্রি হয়। একই সঙ্গে তিনি ছিলেন গায়ক, গানের লেখক, যন্ত্র সংগীত শিল্পী ও ব্যবস্থাপক। তিনি মোট ৩০টি অ্যালবাম প্রকাশ করেছেন। লেটস গো ক্রেজি ও হোয়েন ডাভস ক্রাই তাঁর অন্যতম জনপ্রিয় অ্যালবাম। গত সপ্তাহেও এক স্টেজে অনুষ্ঠান করার সময় প্রিন্স অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। পরে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।


প্রধানমন্ত্রীকে গানের সিডি দিলো রুনা লায়লার দুই নাতি

বৃহস্পতিবার, ১৪ এপ্রিল ২০১৬

আয়েশা আকতার রুবী,বাপসনিঊজ:ঢাকা থেকে : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিজেদের গাওয়া দেশাত্মবোধক গানের সিডি উপহার দিলো বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত দুই ব্রিটিশ কিশোর জাইন ও অ্যারন। তারা বাংলাদেশের জীবন্ত কিংবদন্তি কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লার নাতি।বুধবার (১৩ এপ্রিল) প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন গণভবনে গিয়ে তার হাতে সিডি তুলে দেয় দুই কিশোর। তাদেরকে শুভেচ্ছা বক্তব্য লিখে দিয়েছেন শেখ হাসিনা।

Picture

 

প্রবাসে থেকে বাংলা গান চর্চা এবং দেশের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানিয়ে দেশাত্মবোধক গানটি গাওয়ায় জাইন ও অ্যারনের ভূয়সী প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী।এ সময় ছিলেন রুনা লায়লাও। বৃহস্পতিবার দুপুরে ফেসবুকে এ খবর জানিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘আমরা খুব সম্মানিত হলাম।’ গণভবনে আরও ছিলেন জাইন ও অ্যারনের মা তানি লায়লা এবং রুনার স্বামী অভিনেতা আলমগীর।

alt
 
গত মাসে স্বাধীনতা দিবসে জাইন ও অ্যারনের গাওয়া ‘আই লাভ মাই বাংলাদেশ’ শিরোনামের গানটি প্রকাশিত হয়। এর কথা লিখেছেন সুদীপ কুমার দীপ, সুর ও সংগীত পরিচালনায় ব্রিটিশ-এশিয়ান সংগীতশিল্পী রাজা কাশেফ।এদিকে কয়েকদিন আগে বলিউডের কমেডি অভিনেতা জনি লিভার এক ভিডিও বার্তায় রুনার দুই নাতির গায়কীর প্রশংসা করেন। তিনি বলেছেন, ‘ওরা দারুণ গেয়েছে। আমার খুব ভালো লেগেছে।’alt
 
গানটিতে আরও কণ্ঠ দিয়েছেন শিশুশিল্পী জাইনা ও নাজওয়া। জাইন ও অ্যারনের মতো তারাও বেড়ে উঠেছেন ব্রিটেনে। গানটির সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন ব্রিটিশ-এশীয় সংগীতশিল্পী রাজা কাশেফ। গানটিতে তার এবং রুবায়েত জাহানের কণ্ঠও আছে।

alt
 
এ গানের রেকর্ডিং হয় লন্ডনের হাইস্ট্রিট স্টুডিওতে। এর কথা লিখেছেন সুদীপ কুমার দীপ। ভিডিওর দৃশ্যায়ন হয়েছে লন্ডনে। এটি নির্মাণ করেছেন মিনহাজ কিবরিয়া।

* ‘আই লাভ মাই বাংলাদেশ’ গানের ভিডিও : https://www.youtube.com/watch?v=L7SNLOcHmOc