Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

যুক্তরাষ্ট্রের খবর

বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ যুক্তরাষ্ট্র কমান্ডের জাতীয় শোক দিবস ২০১৭ পালন

মঙ্গলবার, ১৫ আগস্ট ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজঃবাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ যুক্তরাষ্ট্র কমান্ড যথাযথ মর্যাদায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদাৎ বার্ষিকী, জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে নিউইয়র্কে জ্যাকসন হাইটস্থ খাবার বাড়ী চাইনীজ রেষ্টুরেন্টে গত ১৪ আগস্ট ২০১৭ সন্ধ্যা ৬ টায় সংগঠনের কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মুকিত চৌধুরী সভাপতিত্বে ও ডিপুটি কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা এএসএম মাসুদ ভুঁইয়ার সঞ্চালনায় এক আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সভার শুরুতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিবার, মুজিব বাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ডার শেখ ফজলুল হক মনি ও তার পরিবারসহ ১৫ আগস্ট ১৯৭৫ খুনীদের দ্বারা শাহাদৎ বরণকারীসহ মুক্তিযুদ্ধে সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

আলোচনা পর্বে ৭৫ পরবর্তী বাংলাদেশ ভিত্তিক আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মুক্তিযোদ্ধা আমানত উল্লাহ, মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল ইসলাম আজিম, মুক্তিযোদ্ধা একেএম আশরাফুল ইসলাম মৃধা, মুক্তিযোদ্ধা গিয়াসউদ্দিন আহমদ, মুক্তিযোদ্ধা এসএম রফিকুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা মিছবাহ উদ্দিন আহমদ, মুক্তিযোদ্ধা কাজী শফিকুল হক, মুক্তিযোদ্ধা কেএইচ এম মঞ্জুর আলী নন্তু, মুক্তিযোদ্ধা আেব্দুল আজিজ, মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মইনুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা  সাব্বির রহমান মতি, মুক্তিযোদ্ধা  নুরুল আমিন, মুক্তিযোদ্ধা  নুরুল আবছার, মুক্তিযোদ্ধা জাহাঙ্গীর খান, মুক্তিযোদ্ধা আলিয়া শরীফ, মুক্তিযোদ্ধা আবু আব্দুল্লাহ ভুঁইয়া,  মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আমিন মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা জামাল উদ্দিন মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা মোবারক হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা মনোয়ার হোসেন।খবর বাপসনিঊজ।


সভায় বক্তাগণ বলেন আমরা যদি জাতির জনকের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করতে চায় তবে বেশি বেশি করে বঙ্গবন্ধু প্রদত্ত ভাষণগুলো নিবিড়ভাবে শুনে তদনুসারে জীবন যাপন করে দেশকে কিছু দেওয়ার সংকল্প গ্রহণ করতে হবে।সভার সভাপতি কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মুকিত চৌধুরী তার বক্তব্যে যারা বঙ্গবন্ধু হত্যা ক্ষেত্র তৈরী করেছিল সেই চক্র আজও সক্রিয়। তাদের প্রতি সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। শোককে শক্তিতে বঙ্গবন্ধু ঘোষিত দ্বিতীয় বিপ্লব-সোনার বাংলা গড়ে তোলার জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কাজ করে যেতে হবে।  


৭৫এর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন ও আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন ডিপুটি কমান্ডার মীর আব্দুল কাদির মুক্তিযোদ্ধা আকতারুজ্জামান, মুক্তিযোদ্ধা ওয়াহিদর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা মলিন চন্দ্র সাহা, মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাসেম সরকার, মুক্তিযোদ্ধা মঞ্জুর এলাহি, মুক্তিযোদ্ধা ফারুক ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা ইমদাদুল হক, মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল আলম, মুক্তিযোদ্ধা ওয়াজেদ আলী, মুক্তিযোদ্ধা রমজান আলী, মুক্তিযোদ্ধা আবুল বাশার, মুক্তিযোদ্ধা হারুনুর রশিদ, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ, মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন, মুক্তিযোদ্ধা মোবারক হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা এম রহমান খুররম, মুক্তিযোদ্ধা ইলিয়াছ আহমেদ, মুক্তিযোদ্ধা  হারুন মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা মোঃ চান মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা  আশরাফ আলী খান, মুক্তিযোদ্ধা  মঈনউদ্দিন আজহার, মুক্তিযোদ্ধা  হুমায়ুন কবীর, মুক্তিযোদ্ধা তোজাম্মেল আলী ও মুক্তিযোদ্ধা  বাদল কান্তি দে শিকদার, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদ, মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা, মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট আলম খোকন, মুক্তিযোদ্ধা আসাব উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা আসাব আলী, মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আতিক ,মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম, মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ইকবাল, মুক্তিযোদ্ধা আবুল মনসুর, মুক্তিযোদ্ধা হাজী শহিদুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম ভুঁইয়া, মুক্তিযোদ্ধা আবুল মনসুর।


২৭ শে আগষ্ট লোক সঙ্গীত সম্মেলন

মঙ্গলবার, ১৫ আগস্ট ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজ : লোক গানের আনন্দধারায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে এবারের ৯তম আন্তর্জাতিক লোক সঙ্গীত সম্মেলন। ২৭ শে আগষ্ট কুইন্স প্যালেস অডিটোরিয়ামে সম্মেলনের বণার্ঢ্য উদ্বোধণ করবেন জননন্দিত অভিনেত্রী ও কণ্ঠশিল্পী মেহের আফরোজ শাওন। লোক গান-লোক সংস্কৃতির গৌরবউজ্জ্বল দিক নিয়ে সম্মেলনে জ্ঞান গর্ব বক্তব্য রাখবেন ঠিকানা প্রধান সম্পাদক ফজলুর রহমান, বাঙালী সম্পাদক কৌশিক আহমেদ, আজকাল সম্পাদক মনজুর আহমেদ, বাংলা পত্রিকা সম্পাদক আবু তাহের সহ অনেকে। শিশু কিশোর প্রতিযোগিতা, হুমায়নূ আহমেদ এর পছন্দের গানে সমৃদ্ধ সঙ্গীতানুষ্ঠান, গুনীজণ সম্মাননা, কাব্য নাট্য কবি এবিএম সালেহউদ্দীন সম্পাদিত স্মরণিকা ‘সুর’ ও লোকজ মেলার সমারোহে পরিপূর্ণ এবারের সম্মেলন দর্শকদের আনন্দ দেবে বলে আয়োজক কমিটি অভিমত পেশ করেন।

Picture

সম্মেলনের বিশেষ আকর্ষন মেহের আফরোজ শাওন অনুষ্ঠানে নিজে গান পরিবেশণ করবেন। এছাড়া বাংলাদেশের স্বনামধন্য কণ্ঠ শিল্পী সিলেট পূর্ণভূমির অহংকার সেলিম চৌধুরী সম্মেলনের প্রধান শিল্পী হিসেবে অংশ গ্রহণ করছেন। প্রবাসী শিল্পীদের মধ্যে খয়রুল ইসলাম সবুজ, চন্দন চৌধুরী, শাহরিন সুলতানা, মিলন কুমার রায়সহ আরো অনেক শিল্পী সম্মেলনে গান পরিবেশন করবেন বলে জানা গেছে। সম্মেলন প্রস্তুতি সভা গত ১২ই আগষ্ট জ্যাকসন হাইটস্থ প্রিমিয়াম সুইট এ কনভেনার এম আমিনউল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। খবর বাপসনিঊজ।

alt

সভায় সম্মেলনের অগ্রগতি নিয়ে মতামত পেশ করেন স্বাগতিক সংগঠন বৃহত্তর রংপুর জনকল্যাণ সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মাহবুব আলী বুলু, সমন্বয়কারী হাজী আব্দুর রহমান, কোঃ কনভেনার ফাহাদ সোলায়মান, সাংস্কৃতিক চেয়ারম্যান, ফটিক চৌধুরী, উপদেষ্টা আনোয়ার খন্দকার, জয়েন্ট কনভেনার আবু তালেব চৌধুরী চান্দু, প্রচার চেয়ারম্যান কণ্ঠশিল্পী বাবলী হক, জয়েন্ট কনভেনার কণ্ঠশিল্পী ডাঃ নার্গিস রহমান ও মনিকা চৌধুরী এবং সভা পরিচালনা করেন সদস্য সচিব নূর ইসলাম বর্ষন।জননন্দিত লেখক, চলচিত্রকার প্রয়াত হুমায়ূন আহমেদ স্মরণে অনুষ্ঠিত লোক সঙ্গীত সম্মেলন সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। অনুষ্ঠান শুরু হবে বিকাল ৩টায়।


নিউ ইয়র্কে রাসেল-সোহরাওয়ার্দীদের নিয়ে সাকিবের জমপেশ আড্ডা

মঙ্গলবার, ১৫ আগস্ট ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন:আয়েশা আকতার রুবী,বাপসনিঊজ:বিদেশি লিগের খেলা। সব সময় মাথার মধ্যে পারফরম্যান্সের ব্যাপারটি ঘোরপাক খায়। এর মাঝেও আমেরিকার নিউ ইয়র্কে বন্ধু-সতীর্থদের সময় দিলেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের পাঁচ ক্রিকেটার সৈয়দ রাসেল, মোহাম্মদ শরিফ, ইলিয়াস সানি, সোহরাওয়ার্দী শুভ ও নাদিফ চৌধুরীর সাথে নিউ ইয়র্কে চুটিয়ে আড্ডা দিতে দেখা গেল বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডারকে।

Picture

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) জ্যামাইকা তালাওয়াসের হয়ে ৯ আগস্ট শেষ ম্যাচ খেলেছেন সাকিব। তার দলের পরবর্তী ম্যাচ ১৫ আগস্ট। মাঝের এই সময়টাতে নিউ ইয়র্কে ঢু মেরেছেন বাংলাদেশ অলরাউন্ডার। স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশিরকে সময় দেয়া ছাড়াও দারুণ কিছু সময় কাটিয়েছেন জাতীয় দলের এক সময়ের সতীর্থদের সাথে।

সময়টা ভালোই কেটেছে সাকিব-রাসেল-শরিফদের। ছবি: সংগৃহীত

সময়টা ভালোই কেটেছে সাকিব-রাসেল-শরিফদের।

সাকিবের সব ব্যস্ততা ক্রিকেট নিয়েই। জাতীয় দল না হয় বিদেশি লিগ। ক্রিকেট বিশ্বের প্রায় সব লিগেই খেলেন দেশসেরা এই বাঁ-হাতি অলরাউন্ডার। তবে সৈয়দ রাসেল, মোহাম্মদ শরিফ, ইলিয়াস সানি, সোহরাওয়ার্দী শুভ ও নাদিফ চৌধুরীর কারোরই এমন ব্যস্ততা নেই। এদের মধ্যে কেউ জাতীয় দলের হয়েও খেলছেন না। ঘরোয়া টুর্নামেন্ট না থাকায় আপাতত ক্রিকেট নিয়ে ব্যস্ততা নেই তাদের।

সৈয়দ রাসেল ও মোহাম্মদ শরিফের সাথে সাকিব। ছবি: সংগৃহীত

সৈয়দ রাসেল ও মোহাম্মদ শরিফের সাথে সাকিব।

কয়েকজন মিলে গেছেন আমেরিকায় ঘুরতে। সেখানেই সাকিবের সাথে সময় কাটিয়েছেন তারা। আড্ডার কিছু মুহূর্ত ফ্রেমবন্দী করে রেখেছেন রাসেল-সোহরাওয়ার্দীরা। সেসব ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করেছেন বাঁ-হাতি স্পিনার সোহরাওয়ার্দী শুভ। 

সৈয়দ রাসেলের সেলফিতে সাকিব। ছবি: সংগৃহীত

সৈয়দ রাসেলের সেলফিতে সাকিব।

ছবি দিয়ে সোহরাওয়ার্দী লিখেছেন, ‘সবার সাথে দারুণ একটি রাত ছিলো।’ এই পোস্টের নিচে সাকিবও কমেন্ট করেছেন। লিখেছেন, ‘এখানে আসার জন্য ধন্যবাদ।’ বাঁ-হাতি পেসার সৈয়দ রাসেলও তার অ্যাকাউন্ট থেকে বেশ কয়েকটি ছবি পোস্ট করেছেন। 

নিউ ইয়র্ক পুলিশের সাথে সোহরাওয়ার্দী শুভ। ছবি: সংগৃহীত

নিউ ইয়র্ক পুলিশের সাথে সোহরাওয়ার্দী শুভ।

১৫ আগস্ট ম্যাচ থাকায় আজই (রোববার) ওয়েস্ট ইন্ডিজ চলে যাওয়ার কথা সিপিএলের শুরু থেকেই জ্যামাইকা তালাওয়াসের হয়ে খেলা সাকিবের। প্রথম ম্যাচে খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি বাংলাদেশ অলরাউন্ডার। ২৬ রান খরচায় একটি উইকেট পেলেও ব্যাট হাতে করেন মাত্র এক রান। তবে পরের ম্যাচেই আসল চেহারায় সাকিব। এক উইকেট ও হার নামা ৪৪ রান করে দলকে এনে দেন জয়। তৃতীয় ম্যাচে ১৬ রান করলেও বল হাতে কোনো উইকেট পাননি।


জাতীয় শোক দিবসে মুজিব সেনা নিউজের শ্রদ্ধাঞ্জলী

মঙ্গলবার, ১৫ আগস্ট ২০১৭

বাপ্ নিউজ : ‘তোমার নিষ্প্রাণ দেহখানি সিঁড়ি দিয়ে গড়াতে, গড়াতে, গড়াতে/ আমাদের পায়ের তলায় এসে হুমড়ি/ খেয়ে থামলো।/ কিন্তু তোমার রক্তস্রোত থামলো না।/ সিঁড়ি ডিঙিয়ে, বারান্দার মেঝে গড়িয়ে সেই রক্ত,/ সেই লাল টকটকে রক্ত বাংলার দূর্বা ছোঁয়ার আগেই…’ সূর্য ওঠে। ভোর হয়। রোদ এসে পড়ে ছোপ ছোপ রক্তে। তার আলোয় কালো মুখ তোলে বর্বরতার খ- খ- কতকগুলো ছবি। রক্তে গড়াগড়ি নিথর নিস্তব্ধ কতগুলো মানুষ। ছড়িয়ে ছিটিয়ে পাইপ, থালাবাসন, শিশুর দেহ। রক্তে গড়াগড়ি অন্তঃসত্ত্বা বধূ। সিঁড়িতে মুখ থুবড়ে একজন মানুষ। তার খানিক দূরে একটি কালো ফ্রেমের চশমা। কোনো কথা নেই। শব্দ নেই। কেবল বাতাসে ভাসে বাড়িটির চাপা কান্না, ঝরা পাতার খসখস শব্দ, আর দূর প্রতিবেশীর পাথরচোখ।

তারপর রক্তের সে স্রোত, সে বাড়ি ছাড়িয়ে, ছড়িয়ে পড়ে সবখানে, সব মানুষে। সকালে ঘুম ভাঙতেই শুনতে পায় কালরাতের সে নৃশংসতা। গগনবিদারী চিৎকারে কেঁদে ওঠে গোটা দেশ, দেশের মানুষ। বেদনায় কান্নায় দুমড়ে মুচড়ে ওঠে বাঙালির বুকের ভেতরটা। দেশ ছেয়ে যায় শোকে, হাহাকারে। প্রচ- ঘৃণা, লজ্জায়, অপমানে অবনত হয় মাথা। জাতির জনককে হারিয়ে এক কালো ইতিহাসের মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু হয় বাঙালির। পিতার রক্তে ভাসে স্বদেশ।
আজ সেই শোকাবহ ১৫ আগস্ট। ১৯৭৫ সালের এদিন ভোরেই এক নৃশংস ও বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞের মধ্য দিয়ে হত্যা করা হয় বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে। মাত্র এক ঘন্টার অপারেশনে বর্বর ঘাতকরা একে একে নৃশংস হত্যা করে ১৮ জনকে। এরা হলেন- বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিণী বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, তাদের তিন ছেলে মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামাল, নবীন সেনা অফিসার শেখ জামাল, শিশু শেখ রাসেল, দুই পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রোজী জামাল, বঙ্গবন্ধুর অনুজ পঙ্গু মুক্তিযোদ্ধা শেখ নাসের, ভগ্নিপতি আবদুর রব সেরনিয়াবাত, তার ছেলে আরিফ, মেয়ে বেবী ও শিশু পৌত্র সুকান্ত, বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে যুবনেতা শেখ ফজলুল হক মণি, তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী আরজু মণি, নিকটাত্মীয় শহীদ সেরনিয়াবাত, রিন্টু ও রাষ্ট্রপতির সামরিক সচিব কর্নেল জামিলসহ আরো দুজন নিরাপত্তাকর্মী। বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ রেহানা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদেশে থাকায় প্রাণে রক্ষা পান।

Picture
শোকাবহ স্মৃতির দুয়ারে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ।বাংলাদেশ ও বাঙালির সবচেয়ে হদয়বিদারক ও মর্মস্পর্শী শোকের দিন। প্রতিবছর ১৫ আগস্ট আসে বাঙালির হূদয়ে শোক আর কষ্টের দীর্ঘশ্বাস হয়ে।জাতির জনককে হারানোর দিনটি গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেছেন, মুজিব সেনা নিউজের সম্পাদক মণ্ডলির সভাপতি ও জর্জিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী হোসেন।


স্টেন্ড আউট মেন্টোরিং এন্ড টিউটোরিং এর ব্যতিক্রমধর্মী অনুষ্ঠান ষ্টুডেন্ড, পেরেন্ট এন্ড টেচার কনফারেন্স অনুষ্ঠিত

সোমবার, ১৪ আগস্ট ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ: গত শনিবার ১২ আগষ্ট জ্যাকসন হাইটস এর জুইশ সেন্টারে স্টেন্ড আউট মেন্টোরিং এন্ড টিউটোরিং আয়োজন করে ষ্টুডেন্ড, পেরেন্ট এন্ড টিচার কনফারেন্স। এতে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশী ছাত্র/ছাত্রী ও অভিভাবকদের পাশাপাশি ভারতীয়, স্প্যানিস, নেপালী, ভুটানি ছাত্র/ছাত্রী ও অভিভাবকরাও অংশ গ্রহণ করেন। এই কনফারেন্সের মূল উদ্দেশ্য ছিল বেশীর ভাগ ইমিগ্রেন্ট অভিভাবকরা আমেরিকান স্কুল/কলেজ সম্পর্কে কি ধারনা পোষণ করেন আর বাস্তবে স্কুল কলেজগুলি কি ভাবে পরিচালিত হয়, সে বিষয়ে আলোকপাত করা হয়। মেইন ষ্ট্রীম জবগুলিতে কর্পোরেট কোম্পানিগুলি আসলে কি চায়? এই কনফারেন্সে মূল বক্তাদের সকলেই ছিলেন আমেরিকান স্কুল, কলেজে পড়াশুনা করা বাংলাদেশী, স্প্যানিস, ভারতীয় ও শেতাঙ্গ আমেরিকান। সম্ভবত এই প্রথম প্রবাসী অভিভাবকরা শুনলেন নতুনরা কি বলতে চায়। নতুনরা তাদের অভিজ্ঞতার কথা বলেন যেন অন্যান্য অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের পড়ালেখার বিষয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।খবর বাপসনিঊজ।
অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন আলিফ আলম,যিনি ৪ বছর আগে বোষ্টনে তার ষ্টেন্ড আউট ম্যানন্টোরিং এন্ড টিউটোরিং শুরু করেন। তিনি নিউইয়র্কের ষ্টাইভেসেন্ট স্কুল থেকে গ্র্যাজুয়েশন করেন, বোস্টন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অংক ও অর্থনীতিতে ¯œাতক ডিগ্রী সম্পন্ন করেন। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত তার জীবনে সবচেয়ে বড় ভুল ষ্টাইভেসেন্ট স্কুলে যাওয়া। তিনি ব্যাখ্যা করেন ষ্টাইভেসেন্ট স্কুলে যেতে যে পরিবেশ বা পরিস্থিতি প্রয়োজন ঐ সময় সেটা তার অনুকূলে ছিল না। তিনি অভিভাবকদের অনুরোধ করেন সন্তানদের স্কুলে পাঠানোর সময় পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতিকে বিবেচনা করতে। না হলে সেটা ছাত্র/ছাত্রীদের পরবর্তী জীবনে ক্ষতি করতে পারে। তিনি আরো বলেন, অভিভাবকরা নিজেদের মধ্যে গর্ব করতে গিয়ে প্রায়শই সন্তানদের ক্ষতি করেন। সন্তানদের কথা ভাবেন না। ভাবেন অন্য অভিভাবকরা কি বলবেন। অথচ ঐ অভিভাবকও  ইমিগ্রান্ট, যিনি আমেরিকার শিক্ষা ব্যবস্থা সম্পর্কে জানেন না বললেই চলে। আর যারা জানেন তাদের সংখ্যা খুবই কম। তাই হুজুগে না চলে, সন্তানদের ভবিষ্যত এর কথা চিন্তা করে অভিভাবকদের উচিত আমেরিকান শিক্ষা ব্যবস্থা সর্ম্পকে সঠিক তথ্য জানা।

Picture
আরেক বাংলাদেশের নতুন প্রজন্মের বক্তা দেওয়ান আহমেদ বলেন, তিনি স্পেশালাইজড্ স্কুলে সুযোগ পেলেও সেখানে না গিয়ে বাড়ির কাছের স্কুলে যান। আর তাই কর্নেল ইউনির্ভাসিটিতে বিনা খরচে পড়াশোনা শেষ করেন। বর্তমানে তিনি “ওরাকল” কম্পানিতে কাজ করছেন। তিনি অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, “It’s not the School, It’s the Student”. অতএব আপনার সন্তানকে সাহায্য করতে সঠিক তথ্যাদি জানুন।
জর্ডানা চার্চিল নতুন প্রজন্মের শ্বেতাঙ্গ আমেরিকান যিনি পেশায় শিক্ষিকা তিনি বলেন ইমিগ্রেন্ট ছাত্র/ছাত্রীরা খুবই মেধাবী। কিন্তু সঠিক তথ্যের অভাবে অনেক অভিভাবক সন্তানদের শিক্ষার ক্ষেত্রে ভুল সিদ্ধান্ত নেন আর এর জন্য শিক্ষার্থীকে চরম মূল্য দিতে হয়। তিনি আরো বলেন, অভিভাবকরা অন্যদেশ থেকে এদেশে এসেও সন্তানদের আমেরিকান করতে চান না, চান তাদের দেশের মত করে গড়ে তুলতে। তারা ভুলে যান সন্তানটি তাদের হলেও ওরা আমেরিকান।
আরেক তরুনী স্প্যানিস বক্তা ডেনিস হার্নানডেজ যিনি আইভিলীগ ইউনির্ভাসিটিতে পড়ে এখণ আইন বিষয়ে পড়ছেন তিনি বলেন, ছাত্র/ছাত্রীদেরকে বুঝতে হবে মূলধারায় কিভাবে চলতে হয়। শুধু ভাল রেজাল্ট করলেই চলবে না, সামাজিক ভাবেও মূল ধারায় চলাফেরা করতে জানতে হবে। এর জন্য প্রয়োজন Proper Mentoring,    না হলে যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও, ভাল করতে পারবে না।
ভারতীয় বংশদ্ভূত আরতি পাটেল যিনি ইউনির্ভাসিটি অব ম্যাসাচুসেট্স থেকে পড়াশুনা করেছেন তিনি বলেন, আমাদের অভিভাবকদের একটি বড় সমস্যা সন্তানকে অন্যের সাথে তুলনা করা। অন্যের সন্তানের সাথে তুলনা করতে গিয়ে নিজের সন্তানদের ভাল মন্দের বিচার করেন না। সন্তানের জন্য কোনটা ভাল বুঝতে হবে, অন্যের কাছে গর্ব করা নয়।
অনুষ্ঠানের শেষের দিকে বক্তব্য রাখেন  সৈয়দ মহম্মদউল্লাহ, মিনজাহ আহমেদ ও দেওয়ান আলম। জনাব উল্লাহ বলেন, আমাদেরকে মূল ধারায় ভাল করতে হলে নতুন প্রজন্মের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাতে হবে। ওদেরকে মূল ধারায় যেতে হলে অভিভাবকদের মূল ধারা সম্পর্কে সঠিকভাবে জানতে হবে। জনাব আহমেদ বলেন, তিনি যেহেতু এদেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় কাজ করেন তিনি বলেন সন্তান কোন স্কুলে যাচ্ছে তার চাইতে সন্তান কিভাবে পড়াশুনা করছে সেটা বেশী গুরুত্বপূর্ণ। জনাব আলম যিনি আমাদের কমিউনিটিতে এই নতুন ধারার টিউটোরিং ব্যবস্থা Mentoring & Tutoring এর মূল উদ্যোক্তা তিনি বলেন তিনি তার নিজেদের সন্তানদের বড় করতে পিতা হিসাবে যে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন সেটাই অন্যান্য অভিভাবকদের জানাতে চান, যেন তারা তাদের সন্তানদের সঠিকভাবে বেড়ে উঠতে সাহায্য করতে পারেন।


থাইল্যান্ডে সস্তায় খাওয়া দাওয়া

সোমবার, ১৪ আগস্ট ২০১৭

মো:নাসির,বাপ্ নিউজ : (নিউ জার্সি, আমেরিকা থেকে)-: থাইল্যান্ড নিয়ে বাংলাদেশি পর্যটকদের একটা অদ্ভুত ফ্যান্টাসি আছে। ওখানে যাবার ইচ্ছা ও আগ্রহ আছে অনেকেরই। কিন্তু দিনকে দিন বিভিন্ন বিষয়ে থাইল্যান্ডে খরচ বাড়ছেই। তবে আজ কিছু টিপস থাকবে থাইল্যান্ডে কম খরচে খানাদানার বিষয়ে।কিছুদিন আগে জানা গেল তারা ট্রাভেল বা মেডিকেল ইনস্যুরেন্স ছাড়া আপনাকে থাইল্যান্ডে যেতে দেবে না। সেটাও না হয় মানা গেল, কারণ বিভিন্ন সময় ট্রাভেল ইনস্যুরেন্স থাকলে ব্যাগেজ হারিয়ে যাওয়া, যাত্রা ক্যানসেল হয়ে যাওয়া, কোন দুর্ঘটনা হলে খরচ সামলানো এগুলোর সহযোগিতা পাওয়া যাবে।

কিন্তু এর পরে আবার তারা নিয়ম জারি করল যে থাই ইমিগ্রেশন পার হতে হলে হাতে ৬০০ ডলার অথবা সমপরিমাণ স্থানীয় মুদ্রা দেখাতে হবে। এটা অনেকের জন্য থাইল্যান্ড যাওয়া কঠিন করে দেবে সন্দেহ নেই। সবার হাতে এত টাকা থাকে না যে তারা যাওয়া আসা টিকিট খরচ করার পরেও বাড়তি ৬০০ ডলার সমপরিমাণ টাকার ব্যবস্থা করতে পারবে।যাই হোক, এতসব কঠিন খবরের মাঝে একটি ভাল খবর এনেছেন রাশেদ রাহমান। তিনি সম্প্রতি থাইল্যান্ডে ভ্রমণ করেছেন এবং খুব দামী খাবারের ভিড়ে সস্তায় খাবারের খোঁজ বের করেছেন। আসুন, তার কথাতেই শুনে নেয়া যাক।


" থাইল্যান্ডের খাবার নিয়ে একটু বয়ান দেই। মোটামুটি খরচের দেশ হচ্ছে থাইল্যান্ড। তাই আমরা যারা বাজেটের টুরিস্ট তাদের জন্য খানাপিনার জন্য ভাল জায়গা হচ্ছে এই “সেভেন ইলেভেন”। এই চেইন সুপার শপটি আপনি পাবেন রাস্তার কোনায় কোনায় পুরো থাইল্যান্ডে। মাত্র ২২ বাথ দিয়ে আপনি ৬০০ এমএল কোক, মিরিন্ডা, লেমন/স্ট্রবেরি ফ্লেভারড বা সব গুলোর মিশ্রণে ড্রিংক পেতে পারেন বিশাল এক গ্লাস ড্রিংক নেবার জন্য কাউকে কিছু বলতেও হবে না, মেশিনের পাশে প্লাস্টিকের গ্লাসগুলো রাখা থাকে- একটা নিন, যেই ফ্লেভার পছন্দ করেন সেই ড্রিংক দিয়ে গ্লাস পূর্ণ করে কাউন্টারে গিয়ে ২২ বাথ দিয়ে চলে যান… কেউ কিছুই জিজ্ঞাসা করবে না। এই শপ থেকেই পানীয় জল কিনবেন- দাম পরবে ৭/১০/১২ বাথ প্রতি বোতল যা অন্য দোকানে ২০ বাথ নিবে। রাতে বা দুপুরে খাবারের জন্য রান্না করা এমন মেন্যু থাকে, দাম ৩০-৩৫ বাথ… খাবারের পরিমাণ একজনের জন্য অনেক। দোকানি আপনাকে ওভেনে গরম করে দিবে, আপনি শুধুই খাবেন। ব্যাংককের বাঙালি রেস্তোরাঁ গুলোতে একজন এক বেলা খেতে গেলে কম সে কম ১৫০ বাথ লাগবেই।থাইল্যান্ড হচ্ছে মজার মজার জুসের দেশ। এই সেভেন ইলেভেনেই পাবেন হরেক রকমের জুস, একেবারেই সেইরকম মজা। পুরো থাইল্যান্ড ট্যুরেই আমি এতো প্রিয় খাবার ছিল সেভেন ইলেভেনের ১৩-২০ বাথের ক্লাব স্যান্ডউইচ আর জুস।
 
আর আপনি চা খোর হয়ে থাকলে আপাতত এর কথা ভুলে যান- রাস্তার পাশেও যদি চা খান, তো আপনাকে পুরো ৫০ বাথ সালামী দিতে হবে এক কাপ দুধ চা এর জন্য। আর সকালে হোটেলে নাস্তার সাথে দেয়া চাও খুব একটা মুখে দেবার যোগ্য না। থাইল্যান্ডে কেএফসি এর খাবারের দাম অনেক কম। ব্যাংককের সিয়াম প্যারাগনের একটা কেএফসি এর আউটলেট থেকে ৪ পিস চিকেন আর একটা ড্রিঙ্ক কিনেছিলাম ১০৯ বাথ দিয়ে মাত্র! ওখানে কেক এর দাম ভয়ানক। এক পিস নিম্নে ১০০ বাথ (সেভেন ইলেভেনে কম দামে পাওয়া যায় ফ্রুট কেক)। তবে রাস্তার পাশে পশরা সাজিয়ে বিক্রি করা খাবার একটু এড়িয়ে চলাই ভাল, কারণ সেখানে তারা তাদের নিজস্ব রেসিপির যে আধা কাঁচা, কাঁচা টাইপ খাবার বিক্রি করে, সেটা আমাদের দেশি পেটে সহ্য নাও হতে পারে। সিপ্রসিন ট্যাবলেটের দাম নুন্যতম ২২০ বাথ (১০ টা)! তাই বিদেশ বিভূঁই বেড়াতে গিয়ে শরীর খারাপ করে বেড়ানো মাটি করার কোন কারণ নেই। তবে দেশে আসার সময় “ইলেক্ট্রোলাইট” এর কিছু প্যাকেট কিনে আনতে পারেন, ৫ বাথ প্রতি পাতা। অনেক ভাল জিনিস, ওরাল স্যালাইনের সাপ্লিমেন্টারি- পান করতে মজা, স্যালাইনের মতো বিস্বাদ না।” আপনি যদি হন একজন বাজেট ট্রাভেলার, তাহলে রাশেদ রাহমান এর দেয়া এই টিপসগুলো মেনে চলার চেষ্টা করে দেখতে পারেন। এক দেড়শ বাথে সারাদিনের খাবার হয়ে যাবে একজন টুরিস্টের।


১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবসে সাবেক প্রধানমন্ত্রী মিথ্যা জন্মদিন পালন করলে আইন অনুযায়ী নাগরিকত্ব বাতিল হবে --অধ্যাপক ড. এম মাকসুদ আর চৌধুরী, ই.এস.কিউ,এর্টনী এট ল ও জুরিস

সোমবার, ১৪ আগস্ট ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজ ঃ সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট বাঙ্গালী ,জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর শাহাদৎ বার্ষিকী ১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস জাতি শ্রদ্ধার সাথে পালন করবে এবং তার বিদেহী আতœার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন ও দোয়া কামনায় শ্রদ্ধার সাথে জাতীয় শোক দিবস স্মরণ করা হবে। জাতীয় এ শোক দিবসে যদি সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ভূয়া ও মিথ্যা জন্মদিন পালন করেন তাহলে আইন অনুযায়ী সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বাংলাদেশের নাগরিকত্ব বাতিল হবে বলে বাপসনিউজকে এক টেলিকনফারেন্সে জানান অধ্যাপক ড. এম মাকসুদ আর চৌধুরী, ই.এস.কিউ,এর্টনী এট ল, জুরিস ও  সভাপতি, প্রগতি ইন্টারন্যাশনাল ও চেতনায়-৭১, আহবায়ক, সম্মিলিত বিজ্ঞ আইনজীবিদের দাবী আদায় বাহতবায়ন ঐক্য পরিষদ এবং দেশে বিদেশের অন্যান্য সাংবাদিক, গবেষক সংগঠনের নেতা। তিনি এক বিজ্ঞপ্তীতে আরো বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া যদি তার মিথ্যা জন্মদিন পালন করেন এবং তার নির্দেশে  দেশে বিদেশে কোন সংগঠন তার মিথ্যা জন্মদিন পালন করেন তাহলে বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি তার নির্বাহী আদেশে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর নাগরিকত্ব বাতিল অথবা সুপ্রিম কোর্টে যথাযথ ভাবে রিট করে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর নাগরিকত্ব বাতিল করা যাবে ।

To:Mr.Morshed,D.A.BD,Mr.F.Ahmed,Ropobypress Statement:15-08-2017,we will Pray National Homage to the father of the nation Bangabandhu Sheikh Mujibur rahman;If Ex:PM Bagum khalada zia do her fake birth  dayon 15 August,I and whole nationtake actions I.E.Writ void her Nationality etc.By dr.M.Maksud Chowdhury,ESQ,Attorney.Co UNSELOR(Call at Bar+USA Embassys):


International “YOUTH DAY” -2017 celebrated at United Nations Headquarter, New York

সোমবার, ১৪ আগস্ট ২০১৭

Bapsnews:New York :- on Friday ,August11,2017 , international Youth Day -2017 celebrated at United Nations Headquarter in New York   The event, organized in partnership with United Nations department of Economic and social with the collaboration of International youth developmental agency and Youth peace & security The featuring keynote speaker Was Ms Daniela Bas ,Mr.Henk Jan Brinkman ,Ms Rashmi Thapa, Moderator Mr.Ahmed Badr ,Moderator Ms Juliana Garcia . the program started at 10am through the welcoming Remarks By the H.E secretary general of United Nation Mr. Antonio Guterres  and also remarks by H.E Mr.Liu Zhenmin  and H.E Mr.Fodee Seck ,Ambassador ,permanent Missioon Of Senegal to the United Nation , UN Secretary general Envoy on Youth Ms .Jayathma Wickramanayake .

Introduction Speech was given By Ms Daniela Bas . Many Organization Youth Delegate leaders, President, CEO, Representative including Founder and President Of SACO America Mr.  Mohammad Mahab ,Founder CHIPS,Co-founder of Syrian Youth assembly Ms. Haya Atassi ,Associate Expert and Board Member of Finland United Nations Youth association Ms. Emillia Hannuksela and Founder of Scholar CHIPS in the United State Of America Ms.Yasmine Arrington, were Participated at this international  Youth Day  program .Envoy on Youth, Ms. Jayathma Wickramanayake.

The event marked the first international mission of the new Envoy and the first International Youth Day since UN Secretary-General António Guterres took office with a commitment to placing young people at the centre of his agenda for conflict prevention and sustaining peace.Ms. Wickramanayake said, the current generation of youth are the largest in history and are critical actors in conflict prevention and sustaining peace.

The United Nation’s International Youth Day 2017 is dedicated to “Youth Building Peace.” As a global leader in democracy promotion, “The United Nations is with you and I, as your Envoy, will do everything within my power to ensure that your voices are heard. “the program ended through the  closing remarks at on   1:00pm


প্রধান বিচারপতির অপ্রাসঙ্গিক মন্তব্য এক্সপাঞ্জ করার দাবি --- যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের

সোমবার, ১৪ আগস্ট ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসবানিঊজ:ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা মামলার ‘ফ্যাক্ট অব ইস্যুর’ সঙ্গে সম্পর্কিত নয় এমন ‘অনেক অপ্রাসঙ্গিক’ মন্তব্য করেছেন যার মধ্যে ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা কোনো একক ব্যক্তির কারণে হয় নাই’-এই কথাটিও ছিল; যা শুনে পুরো জাতি আজ মর্মাহত। আর তাই প্রধান বিচারপতির উচিত ও আমাদের দাবি- যতদ্রুত সম্ভব অপ্রাসঙ্গিক মন্তব্যগুলো এক্সপাঞ্জ করা।খবর বাপসনিঊজ।  

যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বিভিন্ন রাজনৈতিক,সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ-এর মাঝে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আবদুস সামাদ আজাদ, আমেরিকা-বাংলাদেশ এলাইন্সের প্রেসিডেন্ট ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক এমএ সালাম,এবিসিডিআই সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ড. প্রদীপ রঞ্জন কর,লেখক ও এক্টিভিষ্ট সিকদার গিয়াস উদ্দিন, সিডিএলজি নির্বাহী পরিচালক আবু তালেব,যুক্তরাষ্ট্র সোহরাওয়ার্দী স¥ৃতি পরিষদের সভাপতি শিশু সাহিত্যিক হাসানুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন,সংগঠক আবদুর রহিম বাদশা, নিউইংল্যান্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ওসমান গণি ও সাধারণ সম্পাদক সুহাস বড়ুয়া, সেন্ট্রাল ফ্লোরিডা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহবুবুর রহামন মিলন ও সাধারণ সম্পাদক আলো আহমেদ,আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন  সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন ও সাধারণ সম্পাদক হেলাল মাহমুদ,  মুক্তিযোদ্ধা বিএম জাকির হোসেন হিরু ভূইয়া, মুক্তিযোদ্ধা গোলাম কুদ্দুস,বোস্টনবাংলানিউজ ডটকম সহযোগী সম্পাদক বিশ্বজিৎ সাহা ,নাসিম পারভীন,সামসুল আলম ও আয়েশ আক্তার রুবি, ইউএসএবাংলানিউজ এর সম্পাদক আবু সাঈদ রতন, কবি ও সঙ্গীত শিল্পী শামীমআরা আফিয়া, কবি আব্দুল আজিজ, ফিরোজ মাহমুদ, আশাফ মাসুক,জাহাঙ্গীর কবির,জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি হাজী আনোয়ার হোসেন লিটন ও সাধারণ সম্পাদক শামসুউদ্দিন আহমেদ শামীম, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জাসদ যুক্তরাষ্ট্র শাখার সিনিয়র সহ সভাপতি দেওয়ান শাহেদ চেীধুরী, এর সভাপতিত্ত্বে ও সাধারান সম্পাদক নূরে আলম জিকু এবং শেখ হাসিনা মঞ্চে যুক্তরাষ্ট্রের সভাপতি হাজী জালাল উদ্দিন জলিল ও সাধারণ সম্পাদক কায়কোবাদ খান প্রমুখ বলেন, ১৯৪৮ সাল থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত বাঙালির স্বাধীনতার লড়াইয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্ব ও তাঁর অবদানের কথা নিশ্চয়ই আমাদের প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা সাহেব জানেন। কিন্তু দুঃখজনক হলো, স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর হঠাৎ মামলার সাথে সম্পর্কিত না হওয়া সত্বেও এই ধরনের অপ্রাসঙ্গিক কথা নতুন প্রজন্মের সামনে তুলে ধরা হচ্ছে যা উদিয়মান যুব সমাজকে বিভ্রান্তকরণ বলেও আমরা মনে করছি  তারা ঁ আরও বলেন, সরকার ও বিচার বিভাগ একে অপরের প্রতিপক্ষ না হয়ে বরং দেশ ও জাতির স্বার্থে মামলার সাথে সম্পর্কিত নয় এমন সকল ধরনের অপ্রাসঙ্গিক মন্তব্য এক্সপাঞ্জ করার উদ্যোগ গ্রহণ এবং প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা সাহেব তাঁর বিতর্কিত মন্তব্য এক্সপাঞ্জ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করার মাধ্যমে সময়ের গ্রহণযোগ্য ও সুন্দর ইতিহাস সৃষ্টি করতে পারেন এবং এটা আমাদেরও দাবি।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর নেতৃত্ব, মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে বিভ্রান্তকর মন্তব্যকারী যেই হোক, এ জাতি কখনো ক্ষমা করবে না বলেও মন্তব্য করেন  যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বিভিন্ন রাজনৈতিক,সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ-।


যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা সংসদের জাতীয় শোক দিবস পালন

সোমবার, ১৪ আগস্ট ২০১৭

বাপ্ নিউজ :নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে : ১৫ই আগষ্ট ১৯৭৫ বাঙালী জাতির ইতিহাসের জঘন্যতম এক অধ্যায়ের নাম। এদিনে যে কলঙ্কের কালিমা পুরো জাতির তিলকে নিক্ষেপ করা হয়েছে, বাঙালী জাতির মহান নেতা হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙালী জাতির পিতাকে আপন বাসভবনে পরিবারের অন্যান্য সদস্য সহ হত্যা করার মাধ্যমে এবং বাঙালী জাতিকে আবারো গোলামির শৃঙ্খলাবদ্ধ করার হীন অপপ্রয়াস চালানো হয়েছিল তা থেকে আজো আমরা বেরুতে পারিনি। বঙ্গবন্ধু ও তার আদর্শকে লালন করার লক্ষ্যে এই দিনটিকে যথাযথ মর্যাদায় পালনের উদ্ধ্যোগ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা সংসদ গত ৮ আগষ্ট.মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্ক সিটির জ্যামাইকায় যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা সংসদের দোয়া ও আলোচনা সভায় যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আহবায়ক ড. আবদুল বাতেনের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব মশিউল আলম জগলুর সঞ্চালনায় মাধ্যমে সেই কাল রাত্রীতে শাহদাত বরণকারী বঙ্গবন্ধু, পরিবারের সদস্যবৃন্দ ও অন্যান্যদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো ও এক মিনিট নিরবতা পালন হয়।

Picture

সভায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট নিহতদের আত্মার মাগফেরাত ও দেশ জাতির কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন বীরমুক্তিযোদ্ধা মোঃ মনির হোসেন। শোক সভায় বীরমুক্তিযোদ্ধারা বলেন আমরা মুক্তিযুদ্ধে যোগ দিয়েছিলাম বাংলাদেশের অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধুর ডাকে। আমরা এই দেশের ইতিহাসের সাক্ষী, ইতিহাসের অংশ। আলোচনায় অংশগ্রহণকারী বীরমুক্তিযোদ্ধারা স্বাধীন বাংলাদশে প্রতষ্ঠিায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু মুজিব এর অবদান গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে বলেন  মুজিব মৃত হয়েও জীবিত কারণ মুজিব মানে লাল সবুজের পতাকা, মুজিব মানে বাংলাদেশ। মৃত মুজিব জীবিত মুজিবের চেয়েও অনেক শক্তিশালী। বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত সোনার বাংলা জাতির জনকের কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সম্পন্ন করতে হবে।


নিউইয়র্কে বাংলাদেশি পুলিশ কর্মকর্তার আত্মহত্যা

সোমবার, ১৪ আগস্ট ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টে (এনওয়াইপিডি) কর্মরত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কর্মকর্তা নিজের পিস্তলের গুলিতে আত্মহত্যা করেছেন। স্থানীয় সময় রবিবার বিকেলে ৩টায় কুইন্সে সেন্ট আলবেন্স এলাকার ১১৩ এভিনিউ ও ২০৫ স্ট্রিটের নিজ বাসার বেসমেন্টে আত্মহত্যা করেন তিনি।

নিহত হেমায়েত হোসেন সরকার (৩৭) নামে ওই পুলিশ কর্মকর্তা স্ত্রী ও সাড়ে তিন বছরের এক ছেলেসহ নিউইয়র্কের কুইন্স ভিলেজে বসবাস করতেন।লাশ উদ্ধারের পর নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমকে আত্মহত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। তবে কেন তিনি আত্মহত্যা করেছেন তা জানানো হয়নি। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সিটি মেডিকেল এক্সামিনারের অফিসে নেয়া হয়েছে।

Picture

খবর পেয়ে বাংলাদেশ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন এবং সহ-সভাপতি আব্দুল খালেক খায়েরসহ কমিউনিটি লিডার বাকির আজাদ ওই বাসায় যান এবং পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানান।

জানা যায়, সিরাজগঞ্জ জেলার বাসিন্দা হেমায়েত সরকার যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন ২০০০ সালে। পুলিশ অফিসার পদে যোগ দেন ২০০৫ সালে। বাসায় তার বাবা এবং অপর ভাইয়েরাও সেখানে থাকেন। কেউই তার আত্মহত্যার কারণ খুঁজে পাচ্ছেন না।

পুুলিশ ডিপার্টমেন্টের পক্ষ থেকে জানানো হয়, এ নিয়ে চলতি বছর মোট পাঁচ পুলিশ অফিসার আত্মহত্যা করলেন। গত বছর আত্মহত্যা করেছিলেন চার অফিসার এবং একজন স্কুল-সেইফটি অফিসার।

উল্লেখ্য, নিউইয়র্ক সিটিতে ৪৯ হাজার পুলিশ অফিসারের মধ্যে হাজারখানেক বাংলাদেশি রয়েছেন। এই প্রথম কোন বাংলাদেশি অফিসারের আত্মহত্যার ঘটনা ঘটলো। উল্লেখ্য, গত রবিবার নিউইয়র্ক সিটির কুইন্স এলাকায় নাদিয়া আফরোজ সুমী (৩২) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন।