Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

যুক্তরাষ্ট্রের খবর

প্রধানমন্ত্রীর নাম ভাঙ্গিয়ে প্রতারনার অভিযোগে অবিলম্বে এমদাদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে

বৃহস্পতিবার, ২১ ডিসেম্বর ২০১৭

বাপসনিঊজ; দপ্তর সম্পাদক মোহাম্মদ হাসান বাপসনিঊজকে জানান,নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ইমদাদ চৌধুরী কর্তৃক একের পর এক ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগকে বিভক্ত করার যে অপচেষ্টা চালাচ্ছেন তা ইতিমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী পরিবারের সকলের কাছে অত্যন্ত পরিষ্কার হয়ে গেছে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের  সভানেত্রী  মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যিনি আমাদের শেষ অশ্রয়স্থল তাঁর নাম বিক্রি করতেও এমদাদ চৌধরী দ্বিধা করছেন না। দলের সভানেত্রী কাউকে বহিষ্কার করলে সেটি বাংরাদেশ আওয়ামী লীগের প্যাডে দলীয় সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষর করে থাকেন। অথচ এমদাদ চৌধুরী গংরা কখনো আওয়ামী রাজনীতি করেননি বিধায় সে সত্যটি অস্বীকার করছেন। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ সভাপতি  ড. সিদ্দিকুর রহমান মাননীয় নেত্রীর সাথে সরাসরি কথা বলে এর কোন সত্যতা পায়নি। নেত্রী বলেছেন, “আমি কাউকে বহিষ্কার করার কথা কখনো বলিনি”। দলীয় সাধারণ সম্পাদক জনাব ওবায়দুল কাদের ভাইয়ের সাথে যোগাযোগ করেও এর কোন সত্যতা পাওয়া যায়নি। অথচ এই প্রতারক চক্র নিয়মিত ভাবে জনাব জাকারিয়া চৌধুরীর বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে যাচ্ছে। শুধু এখানেই তারা ক্ষান্ত হচ্ছে না। গত ১৭ই ডিসেম্বর নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগের ৫ জন সদস্য ও কয়েকজন বহিরাগত লোক নিয়ে মাহনগর আওয়ামীলীগের কার্যকরী পরিষদের তথাকথিত মিটিং এর নামে যে প্রতারনার নাটক সাজিয়েছেন তা নি¤œরূপ। নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগের কার্যকরী কমিটি ৭৬ সদস্য বিশিষ্ট অথচ উপস্থিত মাত্র ৫জন। কোরাম হতে কতজন লাগে তা কিন্তু তারা জানেন না। সে অবৈধ সভায় যাদেরকে পদায়ন করা হয় তাদের একজন নুরুল আমিন যিনি মুসলিম উম্মার সাথে সম্পৃক্ততার কারণে এমদাদ চৌধুরী তাকে ব্রুকলীন আওয়ামী লীগের সভাপতি হতে দেননি। মুসলিম উম্মার সাথে সম্পৃক্ততার প্রমাণ এমদাদ চৌধুরী মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যকরী পরিষদকে সেই সময় সরবরাহ করেন। অথচ দশ হাজার ডলারের বিনিময়ে এখন তাকে সহ সভাপতি বলে প্রচার করছেন। সৈয়দ ইলিয়াস খসরু যিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আইটি উপদেষ্টা  সজীব ওয়াজেদ জয়ের বিরুদ্ধে ইসরাইলী গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের কর্মকর্তা মেন্দী সাফাদির সাথে বৈঠকের যে নাটক টাইম টেলিভিশনে সাজিয়ে ছিলেন তার প্রধান নায়ক। যিনি বর্তমানেও টাইম টেলিভিশন এবং বাংলা প্রত্রিকার শীর্ষ কর্মকর্তা। তার মত ব্যাক্তিকে মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক পদে পদায়ন করা কিসের আলামত! কারন যুদ্ধাপরাধীদের মিডিয়া এমদাদ চৌধরীদের মিথ্যা প্রবাগান্ডার মূল কেন্দ্র। আরেকজনকে সহ সভাপতি পদে পদায়ন করা হয়েছে সেই সাইকুল ইসলাম যুক্তরাষ্ট্র যুবদলের এক সময়ের সক্রিয় কর্মী ছিলেন। যে রফিকুল ইসলামকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বলে প্রচার করছেন তিনি বিগত ৬ বৎসরে কখনো নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগের কোন কার্যকরী কমিটির মিটিং এ উপস্থিত ছিলেন না। অতএব দলীয় গঠনতন্ত্র মোতাবেক তিনটি কার্যকরী সভায় অনপোস্থিতির কারনে ৫ বৎসর পূর্বে ওনার সদস্যপদ বাতিল হয়ে গেছে।
পরিশেষে আমরা নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগের সকল সদস্যবৃন্দ এমদাদ চৌধরীর অবৈধ ভূয়া কার্যকরী কমিটির সকল সিদ্ধান্ত বাতিল ঘোষনা সাপেক্ষে অবিলম্বে তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহন করার উদ্যোগ গ্রহন করছি।


প্যাটারসনে বৃহত্তর নোয়াখালী অ্ যাসোসিয়েশন অফ নিউজার্সির শীতকালীন পিটা উৎসবে এবং বিজয় দিবস অনুষ্ঠিত

বৃহস্পতিবার, ২১ ডিসেম্বর ২০১৭

নিউজার্সি থেকে বিশ্বজিৎ দে বাবলু ,বাপ্‌স নিউজ : যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সি অঙ্গরাজ্যের প্যাটারসন সিটির প্যাটারসন মিউজিয়াম গত ১ ৬ ডিসেম্বর শনিবার পরিণত হয়েছিল বৃহত্তর নোয়াখালীবাসীর মিলন মেলায়। ওই দিন সেখানে বৃহত্তর নোয়াখালী অ্যাসোসিয়েশন অফ নিউজার্সি বাংলাদেশের ৪৬তম বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে  আয়োজন করে শীতকালীন পিটা উৎসবে এবং বিজয় দিবস ২০১৭ ।

alt

প্যাটারসন মিউজিয়ামে অনুষ্ঠিত ওই অনুষ্ঠানে নিউজার্সির বিভিন্ন শহড় থেকে বিপুল সংখক আমেরিকা প্রবাসী বৃহত্তর নোয়াখালী জেলাবাসীরা যোগ দিয়ে শীতকালীন পিটা উৎসবে এবং বিজয় দিবস ২০১৭কে মিলন মেলায় পরিনত করেন।।


শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সাইদ-উর রহমান-এর মাতার ইন্তেকালে নিউজার্সি আওয়ামী লীগের গভীর শোক প্রকাশ

বৃহস্পতিবার, ২১ ডিসেম্বর ২০১৭

নিউজার্সি থেকে বিশ্বজিৎ দে বাবলু।। বাপ্ নিউজ : নিউজার্সির প্রবীন প্রবাসী ডাক্তার ইলিয়াস-উর রহমান ও নিউজার্সি আওয়ামী লীগের  শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সাইদ-উর রহমান-এর মাতা আলতাবুন নেছা ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহ……রাজেউন)। তিনি স্থানীয় সময় গত সোমবার সকাল ৭ ঘটিকায় নিউজার্সীর হ্যাকেনসাক  হাসপাতালে শুক্রবার শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮০ বছর।দীর্ঘদিন ধরে যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সিতে বসবাসকারী জান্নাতবাসী আলতাবুন নেছা মৃর্ত্যুকালে ৫ ছেলেসহ অনেক আত্মীয়-স্বজনশ এবং গুনগ্রাহী রেখে গেলেন।
এদিকে নিউজার্সি আওয়ামীলীগের নিউজার্সি আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ও সুনামগঞ্জ জেলা জন কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাইদ-উর রহমান-এর মাতা আলতাবুন নেছার  মৃর্ত্যুতে আমেরিকা প্রবাসীদের মাঝে নেমে আসে শোকের ছায়া। নিউজার্সী আওয়ামী লীগ,যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন ব‍্যক্তিবর্গ মরহুমর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করেছেন
যুক্তরাস্ট্রের নিউজার্সি আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল মালিক চুন্নু,ও  সাধারন সম্পাদক শামীম আহমেদ।


গৃহকর্মী নির্যাতনের মামলায় বেকসুর খালাস জাতিসংঘের বাংলাদেশী কূটনীতিক হামিদুর

বৃহস্পতিবার, ২১ ডিসেম্বর ২০১৭

বাপ্‌স নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে : গৃহকর্মীকে ঠকানোর মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন বাংলাদেশী ক’টনীতিক হামিদুর রশিদ। জাতিসংঘের পদস্থ কর্মকর্তা ড. হামিদুর রশীদের বিরুদ্ধে তার গৃহকর্মী গুরুতর অভিযোগ করেছিলেন যে, চুক্তি অনুযায়ী তাকে পারিশ্রমিক দেয়া হয়নি। সাপ্তাহিক ছুটি কিংবা অভারটাইম প্রদান দূরের কথা, তাকে জিম্মি করে দিন-রাত কাজ করিয়ে নেয়া হয়। এসব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে গত ২০ জুন ম্যানহাটানের বাসা থেকে হামিদুরকে গ্রেফতার করা হয়। সাউদার্ন ডিস্ট্রিক্ট অব নিউইয়র্কের অধীনে ফেডারেল কোর্টে এ নিয়ে মামলার সর্বশেষ তারিখ ছিল ২০ নভেম্বর।

মাননীয় বিচারপতি এন্ড্র্যু জে প্যাক সামগ্রিক পরিস্থিতির পর্যালোচনা এবং তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণের পর মামলাটি খারিজ করে দিয়েছেন। অর্থাৎ যে অভিযোগ করা হয়েছিল তা থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে হামিদুর রশিদকে। ইউএস এটর্নী অফিসের মুখ্য জনসংযোগ কর্মকর্তা জেমস এম মারগলিন ১৯ ডিসেম্বর এনআরবি নিউজের এ সংবাদদাতাকে হামিদুর রশিদকে বেকসুর খালাসের তথ্য নিশ্চিত করেন। উল্লেখ্য যে, হামিদুর রশিদের গ্রেফতারের সংবাদটি মূলধারার সকল মিডিয়ায় ফলাও করে প্রকাশ ও প্রচারের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশী ক’টনীতিকসহ প্রবাসীরাও বিব্রত হয়েছিলেন। অনেকেই বলাবলি করেন যে, যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ীভাবে বসবাসের ক্ষেত্র তৈরীর অভিপ্রায়ে এর আগেও কয়েকজন ক’টনীতিকের বিরুদ্ধে গৃহকর্মীরা মামলা করেন। গৃহকর্মী নির্যাতনের মামলার কারণে ভারতীয় কন্সাল জেনারেল দেবযানি এবং বাংলাদেশের কন্সাল জেনারেল মনিরুল ইসলাম ২০১৪ সালে নিউইয়র্ক ত্যাগ করলেও হামিদুর রশিদ তা করেননি। অধিকন্তু তিনি নিজেকে নির্দোষ প্রমাণেই সচেষ্ট ছিলেন এবং অবশেষে মাননীয় আদালত সে প্রত্যাশারই প্রতিফলন ঘটালেন। প্রসঙ্গত: উল্লেখ্য যে, স্থায়ীভাবে বসবাসের ক্ষেত্র তৈরীর অভিপ্রায়ে নিউইয়র্কে বাংলাদেশের আরেক ক’টনীতিকের বিরুদ্ধে তার গৃহকর্মী মামলা করেছে। সেটি এখনও নিষ্পত্তি না হলেও হামিদুর রশিদের মত তিনিও নির্দোষ প্রমাণিত হবেন বলে তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে এটর্নীরা অভিমত পোষণ করেছেন।

=

হামিদুর রশিদের বিরুদ্ধে করা অভিযোগগুলো চার বছর আগের। এতদিন পর কেন পুলিশকে জানানো হলো? এছাড়া, অঙ্গিকার অনুযায়ী পারিশ্রমিক দেননি বলে যে অভিযোগ ছিল তাও ধোপে টিকেনি। কারণ, পারিশ্রমিক প্রদানের ডক্যুমেন্ট তার কাছে ছিল।

অভিযোগের পরই ক’টনীতিককে গ্রেফতারের ঘটনা বিদ্যমান ক’টনীতিক-শিষ্টাচারের পরিপন্থি বলে গুঞ্জন উঠেছিল। এখন যেহেতু তাকে বেকসুর খালাস দেয়া হলো, বাংলাদেশ কিংবা ইউএনডিপি তথা জাতিসংঘ অথবা ব্যক্তিগতভাবে হামিদুর রশিদ মানহানী মামলার কথা ভাবছেন কিনা জানতে চাইলে জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন এ সংবাদদাতাকে বলেন, ‘অভিযোগ প্রমাণের আগেই হামিদুরকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। মিডিয়ায় নেতিবাচক সংবাদে বাংলাদেশীরাও জাতিগতভাবে বিব্রতবোধ করেছেন। এখন সব দিবালোকের মত স্পষ্ট হলো যে, হামিদুর রশিদ কোন অন্যায় করেননি। এ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে তিনি আদালতে মানহানী মামলা করবেন কিনা তা নিয়ে তিনি নিশ্চয়ই তার আইনজীবী এবং কর্মস্থল জাতিসংঘ কর্মকর্তাদের সাথে পরামর্শ করছেন। তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে খুবই খুশী যে, সাউদার্ন ডিস্ট্রিক্টের মত শক্তিশালী একটি আদালতের কাঠগড়া থেকে সসম্মানে তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এটি বাংলাদেশী কূটনীতিকদের জন্যে অন্য ধরনের বিজয় বলে মনে করছি।’

রাষ্ট্রদূত মাসুদ উল্লেখ করেন, ‘বলতে দ্বিধা নেই, যুক্তরাষ্ট্রের কিছু কিছু আইন রয়েছে যা অনেককে অভিযোগে উৎসাহিত করে। গৃহকর্মীরা যদি ভিকটিম হিসেবে নিজেকে প্রমাণিত করতে পারেন, তাহলে সাথে সাথে গ্রীণকার্ড পেয়ে যান। এ অভিপ্রায়ে অনেকে ক’টনীতিকদের বিব্রতকর পরিস্থিতির মধ্যে নিপতিত করছেন। যা খুবই দু:খজনক।’

রাষ্ট্রদূত মাসুদ বলেন, ‘আমি স্বস্তিবোধ করছি এমন একটি অপবাদের দায় থেকে হামিদুর বেকসুর খালাস পাওয়ায়।’ ম্যানহাটানে জাতিসংঘের উন্নয়ন সংস্থা ইউএনডিপির একটি প্রকল্পের পরিচালক হামিদুর রশীদের (৫৯) বিরুদ্ধে ভিসা জালিয়াতি, বিদেশি কর্মী নিয়োগ চুক্তিতে জালিয়াতি এবং পরিচয় জালিয়াতির অভিযোগ আনা হয়েছিল।

হামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, সপ্তাহে ৪২০ ডলার মজুরিতে গৃহকর্মী নিয়োগের চুক্তি করে তার ভিসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরে চুক্তিপত্র দাখিল করেন। ২০১২ সালের নভেম্বরে গৃহকর্মী যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছালে হামিদ নতুন একটি চুক্তিতে তার সই নেন, যেখানে সাপ্তাহিক মজুরি ২৯০ ডলার লেখা হয়।

আরো অভিযোগ ছিল যে, হামিদুর রশীদ ওই গৃহকর্মীর পাসপোর্ট নিয়ে নেন এবং অন্য কোথাও কাজ করলে তাকে প্রথমে কারাগারে ও পরে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে বলে বিভিন্ন সময় হুমকি দেওয়া হয়।

অভিযোগে বলা হয়েছিল, হামিদুর রশীদ প্রথমে গৃহকর্মীকে কোনো টাকা দেননি। পরে বাংলাদেশে তার স্বামীকে মাসে ৬০০ ডলার করে পাঠান। ২০১৩ সালের অক্টোবরে ওই মাসের কাজের জন্য তাকে ৬০০ ডলার দেওয়া হয়। ইউনডিপির এই বাংলাদেশি কর্মকর্তা কখনোই তার গৃহকর্মী বা তার স্বামীকে মূল চুক্তি অনুযায়ী সপ্তাহে ৪২০ ডলার করে দেননি বলেও মামলায় অভিযোগ করা হয়েছিল।

তাছাড়া গৃহকর্মীকে যথাযথ বেতন দিচ্ছেন বলে জাতিসংঘে প্রমাণ হাজির তার নামে একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুললেও তা নিজে ও তার স্ত্রী নিয়ন্ত্রণ করতেন বলে অভিযোগ করা হয়েছিল।


নিউজার্সিতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদি ছাত্রদলের নিউজার্সি স্টেইট শাখার উদ্যেগে বাংলাদেশের ৪৬তম বিজয় দিবস পালন

বৃহস্পতিবার, ২১ ডিসেম্বর ২০১৭

নিউজার্সি থেকে বিশ্বজিৎ দে বাবলু,বাপসনিঊজ: যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সির প্যাটারসনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদি ছাত্রদলের নিউজার্সি স্টেইট শাখার উদ্যেগে বাংলাদেশের ৪৬তম বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে এক আলোচনা সভা, ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত শনিবার রাতে প্যাটারসনের নিউ জার্সি হেল্প সেন্টারে অনুষ্ঠিত ওই সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয়তাবাদি ছাত্রদল নিউজার্সি শাখার সভাপতি ছাব্বির আহমেদ মিফতা। সাধারণ সম্পাদক রুমেল হোসেন-এর পরিচলনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন  মৌলভীবাজার ১ বড়লেখা জুড়ী আসনের আগীম সংসদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাসি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জুড়ী উপজেলা বিএনপির  প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আছাদ উদ্দিন বটল।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন রাখেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদি দল বিএনপি নিউজার্সি স্টেইটের সভাপতি প্রসপেক্ট পার্ক সিটির বোর্ড অব এডুকেশনে কমিশনার আবুল হোসেন সুরমান সাবেক চেয়াম্যান মোহাম্মদ আনহার আলি, মোছাব্বির আলি, লুৎফুল হোসেন, ,নুরুল ইসলাম খসরু, শাহিন মোহাম্মদ ,সৈয়দ আব্দাল, সুলতান কবির তুহেলসহ  নিউজর্সি বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদল শ্রমিকদল সহ অংগসংঘঠনের নেতৃবন্দ উপস্থিত ছিলেন।এসময় বক্তাগন তাদের বক্তব্যে বলেন,আজ বাংলাদেশের গণতন্ত্র স্বৈরতন্ত্রে পরিণত হয়েছে। গণতন্ত্র পূর্ণরায় প্রতিষ্ঠা করার লক্ষে দেশনেত্রী সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও জননেতা তারেক রহমানের নেতৃত্বে ঐক্যবন্ধ আন্দোলন সংগ্রামে ঝাপিয়ে পড়তে আহবান জানান।


জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার বিজয় দিবস পালিত

মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খাকন,বাপসনিঊজ:গত ১৭ই ডিসেম্বও,রবিবার দুপুর ২টায় নিউইয়র্কস্থ এস্টোরিয়ায় ৩৬ এভিনিউ বৈশাখী রেষ্টুরেন্ট মিলনায়তনে জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার উদ্যোগে ৪৬তম মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাজী আব্দুর রহমানের সভাপতিত্বে, সাধারণ সম্পাদক আবু তালেব চৌধুরী চান্দুর পরিচালনায় সভার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টির উপদেষ্টা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ শওকত আলী, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাপার উপদেষ্টা গিয়াস মজুমদার, জাপার উপদেষ্টা ডাঃ লতিফুর রহমান, যুক্তরাষ্ট্র জাসদ সভাপতি শাহেদ চৌধুরী।

Picture

সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জাপার সহ সভাপতি এডভোকে হারিছ উদ্দিন আহমেদ, জাপার সহ সভাপতি খন্দকার আলী নাছিম। জাপার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ লুৎফুর রহমান, যুব বিষয়ক সম্পাদক শফিউল আলম, জাপার দপ্তর সম্পাদক শফিউল আলম, যুগ্ম দপ্তর সম্পাদক আকতার কবির, জাপার মহিলা সম্পাদিকা জেসমিন আকতার চৌধুরী, সদস্য আব্দুল মোতালেব, জাতীয় মহিলা পার্টির সভানেত্রী ফাহিমা রোজী, সাধারণ সম্পাদিকা শাহনাজ বেগম, যুগ্ম মহিলা সম্পাদিকা ফারজিন আহমেদ স্বর্ণা, জাতীয় যুব সংহতির সহ সভাপতি ইব্রাহিম আলী ও সহ সভাপতি আমির হামজা। চট্টগ্রামের আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ সভাপতি নাজিম, নিউইয়র্ক স্টেট কমিটির সভাপতি এডভোকেট মোহাম্মদ হানিফ ও সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ হাসান মিলন, নিউইয়র্ক সিটি কমিটির সভাপতি শুভংকর গাঙ্গুলী ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ রহমান, মহিলা সদস্য হাসিনা শিরিন প্রমুখ।

alt
সভার শুরুতে বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত ও ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে যাদের প্রাণের বিনিময়ে আজকে এই আমাদের বিজয় তাদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। বক্তরা বলেন, আমাদের এই বিজয় সহজ ভাবে আসেনি, এক সাগর রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এই বিজয়। এই বিজয় আমরা বাঙালী জাতিকে সম্মানের সহিত ধরে রাখতে হবে। কেউ কেন আমাদের এই বিজয়কে ছিনিয়ে নিতে না পারে সেজন্য সবাইকে সচেতনভাবে সজাগ থাকতে হবে। দেশ আজ সেই বিজয়ের আনন্দে উল্লাসিত কিন্তু দুঃখের বিষয় বাংলাদেশের মহান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সেই আহ্বান নিয়ে বাংলার দামাল ছেলেরা যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিলেন এবং স্বাধীন সার্বভৌমত্ব এক দেশ বাংলাদেশ সৃষ্টি করেছিলেন। কিন্তু আজ অবধি স্বাধীনের স্বাদ বাংলার জনগণ পায় নি।


ওয়াশিংটনে বিসিসিডিআই বাংলাস্কুলের বিজয়মেলা ও পৌষ পিঠা উৎসব

মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭

শিব্বীর আহমেদ,বাপসনিঊজ,ওয়াশিংটন: বাংলাদেশ সেন্টার ফর কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট বিসিসিডিআই বাংলাস্কুলের আয়োজনে ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত হল বিজয়মেলা ও পৌষ পিঠা উৎসব। লাখো শহীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ১৬ ডিসেম্বর শনিবার ভার্জিনিয়ার নোভা আনানডেল ক্যাম্পাসে ছোটছোট শিশুদের মুক্তিযুদ্ধের চিত্রাংকনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় বিজয় মেলার অনুষ্ঠান। একই সাথে শুরু হয় পৌষ পিঠা উৎসব।

Picture

বৃহত্তর ওয়াশিংটন প্রবাসী শতশত বাংলাদেশীদের পদচারনায় মুখরিত হয়ে ওঠে পুরো অনুষ্ঠানস্থল। একদিকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় লালিত বিজয় উৎসব অন্যদিকে দেশীয় পিঠাপুলির মৌ মৌ গন্ধ আর বাংলাস্কুলের ছোট ছোট শিশুদের মুক্তির চিত্রাংকন প্রতিযোগীতা ম্গ্ধু হয় অনুষ্ঠানে আগত অতিথিরা। চিত্রাংকন প্রতিযোগীতার পাশাপাশি শুরু হয় পিঠা প্রতিযোগীতার বিচারকার্য্য। চিত্রাংকন প্রতিযোগীতায় বিচার কার্য্য পরিচালনা করেন সোনালী সোহানা, সুনীল শুকলা, ও সামিনা আমিন। পিঠা প্রতিযোগীতায় বিচারকার্য্য পরিচালনা করেন বুশরা ওয়াহিদ, ড, তুহীন, ও নাসিমা খান পপি।alt

চিত্রাংকন প্রতিযোগীতা শেষে মুলমঞ্চের সামনে শুরু হয় শিশুদের অংশগ্রহনে যেমন খুশি তেমন সাজো প্রতিযোগীতা। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সজ্জিত হয়ে শিশুরা কেউ মুক্তিযোদ্ধা, স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্রের শিল্পী, চাষী, সৈনিক, ফেরিওয়ালা, গ্রামের বধু ইত্যাদি নানা সাজে সজ্জিত হয়ে অংশগ্রহন করে। যেমন খুশি তেমন সাজো বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন ওয়াহিদ হোসাইনী, হিরন চৌধুরী, ও মোজহারুল হক।alt

শিশুদের অংশগ্রহনে যেমন খুশি তেমন সাজো অনুষ্ঠানের পরপরই মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধে পুষ্পাস্তবক অর্পন করে প্রবাসের বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যক্তিবর্গ। এর পরেই অনুষ্ঠানের মুলমঞ্চে শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। শুরুতেই হাজারো কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে। বাংলাস্কুলের ছাত্রছাত্রীদের সাথে অনুষ্ঠানে আগত শতশত অতিথির কন্ঠে ভেসে ওঠে ”আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালবাসি। চীরদিন তোমার আকাশ তোমার বাতাশ…” বাঙালির জাতীয় সঙ্গীত। বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীতের পরপরই বাংলাস্কুলের ক্ষুদে শিল্পীরা আমেরিকার জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে।alt

জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনা শেষে শুরু হয় দলীয় সঙ্গীত। বিজয়ের গানে কাব্যগীতি শিরোনামে অনুষ্ঠিত এইপর্বের নির্দেশনায় ছিলেন বাংলাস্কুলের গানের ওস্তাদ নাসের চৌধুরী এবং গ্রন্থনায় ছিলেন আতীয়া মাহজাবীন নিতু। এইপর্বে অংশগ্রহন করেন সুমু, শিখাম উর্মীলা, অদিতি, নীতু, নিভা, নাসিমা, বুলবুলি, কামাল, স্বরোজ, জেসমিন, উজ¦ল, শাহিদা মেরিনা, ও সঞ্জয়। এইপর্বে তবলায় সঙ্গত করেন আশীষ বড়–য়া, মন্দীরায় জয় ও গীটারে ছিলেন অনু।

alt

দলীয় সঙ্গীত পেিরবশনা শেষে বাংলাস্কুল মিউজিক একাডেমীর পরিচলানায় অনুষ্ঠিত হয় গানের অনুষ্ঠান। এই পর্বে বাংলাস্কুলের ছাত্রছাত্রীরা ধন ধান্যে পুষ্পে ভরা, সর্যোদয়ে তুমি, আমার দেশের মতন, গ্রীষ্ম বর্ষা, যে মাটির বুকে, প্রতিদিন তোমায়, সেই রেল লাইনের, সালাম সালাম, আমার বড় ভাই, সোনা সোনা সোনা, ও মাঝি নাও ছাইড়া দে গানগুলো একের পর এক পরিবেশন করে। গানে অংশগ্রন করে ফারিয়াল, নোরা, অনুজ, তানিশা, পরাগ, অংকিতা, অবন্তি, সাবরিনা, ফারজান, হৃদিতা, মুহিত, কৌশিক, সুষ্ময়, সৃজন, রানিতা, সুসান, অনিতা, অতশী, তাসনুভা, ও অহনা।alt

এর পরপরই বাংলাস্কুল ড্যান্স একাডেমির ছাত্রছাত্রিদের নৃত্য পরিবেশিত হয়। একাত্তরের মা জননী কোথায় তোমার, ও পৃথিবী তোমায় জানাই ইত্যাদি গানে নৃত্য পরিবেশন করে অবন্তি, রানিতা, সুসান, অনিতা, অতশী, তাসনুভা, অহনা, অংকিতা, সাবরিনা, মরিয়ম ইজরা, নোরা, দর্পন, লাইবা, নাজিলা, হৃদিতা, আদিত্য, জেসিকা, নাইমা, মুহিত, ফারিয়াল, অনুবা, অনুসা, লানিকা, তানিসা, তাজ, সুমিত, সাবিনা, ও অবন্তিকা।

alt

অনুষ্ঠানের মুল মঞ্চে নৃত্য পরিবেশনা শেষে বিভিন্ন প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরন করা হয়। পুরষ্কার বিতরন শেষে ধন্যবাদ জানিয়ে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বিসিসিডিআই সাধারন সম্পাদক শিমুল সাহা। এরপরপরই মঞ্চে আসে ওয়াশিংটনের জনপ্রিয় ব্যান্ডদল শ্যাডো ড্রিম। পুরো অনুষ্ঠাটি পরিচালনা করেন শামীম চৌধুরী ও শতরূপা বড়ুয়া। প্রায় মধ্যরাতে বিসিসিডিআই বাংলাস্কুলের আয়োজনে অনুষ্ঠিত বিজয়মেলা ও পৌষ পিঠা উৎসবের সমাপ্তি ঘটে।

alt

বিসিসিডিআই নুতন বোর্ড গঠিত: নীতু সভাপতি শিমুল সাধারন সম্পাদক বাংলাদেশ সেন্টার ফর কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট বিসিসিডিআই এর দু’বছর মেয়াদী নুতন কমিটি গঠন করা হয়েছে। ৯ সদস্য বিশিষ্ট এই নুতন বোর্ডে সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন আতিয়া মাহজাবীন নীতু, সহ সভাপতি নাজিব আহমেদ, সাধারন সম্পাদক শিমুল সাহা, সহ সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ আবেদীন, কোষাধ্যক্ষ তাসলিম হাসান, শিক্ষা বিষয়ক পরিচালক নিভা বড়–য়া, প্রেস ও পাবলিকেশন পরিচালক জয়িতা দাসগুপ্তা, সাংস্কৃতিক ও ক্রিড়া পরিচালক আইরিন আক্তার এবং প্রোগ্রাম পরিচালক মোহাম্মদ জসিম।alt

বিসিসিডিআই বাংলাস্কুলে আর্থীক সহায়তায় সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানালেন নব নির্বাচিত সভাপতি আতিয়া মাহজাবীন বাংলাস্কুলের একটি নিজস্ব ভবন নির্মানে আর্থীক সহায়তা নিয়ে প্রবাসী সবাইকে এগিয়ে আসার উদাত্ত আহ্বান জানালেন বিসিসিডিআই’র নব নির্বাচিত সভাপতি আতিয়া মাহজাবীন। ১৬ ডিসেম্বর শনিবার বাংলাদেশ সেন্টার ফর কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট বিসিসিডিআই বাংলাস্কুলের আয়োজনে ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত বিজয়মেলা ও পৌষ পিঠা উৎসবে দু’বছর মেয়াদী বিসিসিডিআই বোর্ডের নব নির্বাচিত পরিচলাকদের পরিচিতি অনুষ্ঠানে তিনি এই উদাত্ত আহ্বান জানান।তিনি বলেন, ”আগামী দুবছরে আমাদের নুতন বোর্ডের লক্ষ্য বিসিসিডিআই বাংলাস্কুলের জন্য একটি স্থায়ী ভবন তৈরী করা যেখানে আমাদের নুতন প্রজন্ম বাংলা আর বাঙালির ভাষা সাংস্কৃরি চর্চা করবে।” আর এই লক্ষ্য অর্জনে তিনি প্রবাসী সবাইকে আর্থীক সহায়তা নিয়ে এগিয়ে আসার জন্য আহ্বান জানান।


জাকারিয়া চৌধুরীর বহিস্কারাদেশ কার্যকর করার সিদ্ধান্ত সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত : নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগ

মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭

Picture

সভায় সংগঠনের সভাপতি কমান্ডার নূরনবীর অনুপস্থিতিতে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুর রহমান চৌধুরী ইমদাদের কঠোর ধৈর্য্যরে সাথে পরিস্থিতির মোকাবেলা ও তার ত্যাগ তিতিক্ষার ভূয়সী প্রশংসা করা হয়। সভায় সুদুর বাংলাদেশ থেকে সকলকে বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে সংগঠনের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কমা-ার নূরনবী সংগঠনের সহসভাপতি রফিকুর রহমান রফিককে তার অনুপস্থিতিতে নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাÍ সভাপতির দায়িত্ব প্রদান করেন। সংগঠনকে গতিশীল করার লক্ষ্যে নিষ্ক্রিয় কর্মকর্তাদের স্থলে নিন্মোক্তদের স্থলাভিষিক্ত করা হয় সহ সভাপতি নুরুল আমিন, সহ সভাপতি শাহীন ইবনে দিলওয়ার, সহ সভাপতি সাইকুল ইসলাম, সহ সভাপতি ফারুকুল হক। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক-মোঃ শিমুল হাসান, দরুদ মিয়া রনেল, সৈয়দ ইলিয়াস খসরু। সাংগঠনিক সম্পাদক-মোঃ রশীদ রানা, আকবর হোসেন স্বপন। প্রচার সম্পাদক-মইনুর রহমান সোয়েব। পরবর্তীতে নিষ্ক্রিয় অন্যান্য কর্মকর্তাদের স্থলে নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগের কার্যক্রমে সামিল হতে আগ্রহীদের অন্তর্ভূক্ত করা হবে।

alt

বিজয় দিবস উদযাপনের কর্মসূচী শুরু হয় বাংলাদেশ ও ইউএসএর জাতীয় সংগীত পরিবেশনার মধ্য দিয়ে। এরপর সকল স্বাধীকার আন্দোলন ও মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এই অনুষ্ঠানটিতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সহসভাপতি আব্দুস শাকুর খান মাখন ও সঞ্চালনায় ছিলেন বিজয় দিবস উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব ও সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ শিমুল হাসান। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগ, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগ নিউইয়র্ক ষ্টেট আওয়ামীলীগ, যুক্তরাষ্ট্র স্বেচ্ছাসেবক লীগ, যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগ, যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রলীগের বিপুল সংখ্যক নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণে বিজয় দিবসের আলোচনা স্মৃতিচারণে মুখরিত হয়ে ওঠে বিজয় উৎসব। বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে সবাই তাদের মুক্তিযুদ্ধের বীরত্বগাঁথা শুনতে পেরে উদ্বুদ্ধ হোন। সভায় বক্তারা যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগ কর্তৃক অতীতে বহিস্কৃত জাকারিয়া চৌধুরীকে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের কতিপয় নেতৃবৃন্দের পৃষ্ঠপোষকতার তীব্র নিন্দা জানানো হয়।

alt

সভায় উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেনঃ বিজয় দিবস উদযাপন কমিটির আহবায়ক নাসিরউদ্দিন চৌধুরী, প্রধান অতিথি যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা ডঃ মনসুর আলী, বিশেষ অতিথি ছিলেন উপদেষ্টা ডাঃ মাসুদুল হাসান, ডঃ প্রদীপ কর, সাংগঠনিক সম্পাদক আঃ রহিম বাদশা, দপ্তর সম্পাদক মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, জনসংযোগ সম্পাদক কাজী কয়েস, আইন সম্পাদক এড. শাহ বকতিয়ার, নির্বাহী সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা শংকর সরকার, রেজাউল করিম চৌধুরী, শরীফ কামরুল হীরা। বিশিষ্ট সাংবাদিক মোজাহিদ আনসার, নিউইয়র্ক ষ্টেট আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহিন আজমল, যুক্তরাষ্ট্র যুবকর্মীদের আহবায়ক তরিকুল হায়দার চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সিনিয়র সহসভাপতি, দরুদ মিয়া রনেল, সাধারণ সম্পাদক সুবল দেব নাথ, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগের কর্মকর্তাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহসভাপতিবৃন্দ, নুরুল আমিন, শাহীন ইবনে দিলওয়ার, সাইকুল ইসলাম ও ফারুকুল হক, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সৈয়দ ইলিয়াস খসরু, সাংগঠনিক সম্পাদক রশীদ রানা, প্রচার সম্পাদক মইনুর রহমান সোয়েব, ব্রুকলীন আওয়ামীলীগের সভাপতি নুরুল ইসলাম নজরুল, চার্চম্যাকডোনান্ড ইউনিট কমিটির সভাপতি ইসমত হক খোকন।


বিসিসিডিআই বাংলা স্কুলের বিজয় মেলা ও পৌষ পিঠা উৎসব

মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ :যুক্তরাষ্ট্র থেকে:গত ১৬ই ডিসেম্বর ২০১৭, শনিবার ভার্জিনিয়ার এ্যনানডেল নোভা কলেজ ক্যাম্পাস মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হলো বিসিসিডিআই বাংলা স্কুলের বিজয় মেলা ও ১৩তম পৌষ পিঠা উৎসব-২০১৭।

Picture

পৌষের হিম ঝরানো শীত উপেক্ষা করে বিপুল উৎসাহ, উদ্দীপনায় আর মুক্তিযুদ্ধের বিজয় আনন্দস্মৃতি বুকে লালন করে অনুষ্ঠিত হল বৃহত্তর মেট্রো ওয়াশিংটন ডিসির এবছরের (শীতকালীন) প্রথম পৌষ পিঠা উৎসব ।

শতরুপা বড়ুয়া ও শামীম চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের সম্মিলিত জাতীয় সঙ্গীত -আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি - পরিবেশন করা হয় যেখানে হলভর্তি দর্শক দাঁড়িয়ে জাতীয় সঙ্গীতের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করেন।

এর আগে ১৯৭১সালের রক্তক্ষয়ী স্বাধীনতা যুদ্ধে যে সব বীর বাঙ্গালী শহীদগন তাদের জীবন উৎসর্গ বিজয় অর্জন করেছিলেন তাদের প্রতি অপরিসীম শ্রদ্ধা নিবেদন করে নির্মিত অস্থায়ী প্রতিকী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়। বাংলাদেশ দূতাবাস, বিসিসিডিআই, বাগডিসি, বাই, আবিয়া, আগামী, চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এ্যলামনাই এসোসিয়েশন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এ্যলামনাই এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ সহ মেট্রো ওয়াশিংটন এলাকার বিভিন্ন রাজনৈতিক , সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন পুস্পস্তবক অর্পন করেন।

প্রতিকী শহীদ মিনারটি নির্মাণ করেন চিত্রকর হারুন অর রশিদ। একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রায় দীর্ঘ দেড়যুগকাল সময় বাংলাদেশের স্মৃতিসৌধ বুকে লালন করে ২০১৬ সালে প্রথম মেট্রো ওয়াশিংটন এলাকায় শহীদ মিনারটি নির্মাণ করেন। বাংলা স্কুলের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে "এসো আঁকি বিজয়ের রঙে" শীর্ষক চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, দেশাত্মবোধক গান ও নৃত্য প্রদর্শন করা হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পর্বে বাংলা স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের পরিবেশনা ছাড়াও অতিথিশিল্পী হিসেবে গান পরিবেশন করেন জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী দিলরুবা খানের কন্যা শিমুল খান । সবশেষ পরিবেশনা ছিল মেট্রো ওয়াশিংটনের স্বনামধন্য ব্যান্ড শ্যাডো ড্রিমস্ ।

বিভিন্ন স্ষ্টলে শোভা পাচ্ছিল শাড়ী-চুরি-গহনা , ফতুয়া-পান্জাবীসহ বিভিন্ন খেলনাসামগ্রী। এছাড়াও সখীদের পিঠা ঘর, রকমারী খাবার ঘর, পিঠা ঘর, ভাই ভাবির দোয়ান, ঝাল টক মিষ্টি, পিঠা পল্লী, রসনা বিলাস ইত্যাদি দোকানে শোভা পাচ্ছিল বাংলার ঐতিহ্যবাহী নানান আকৃতি, নানান স্বাদ আর রঙের পিঠা। বিভিন্ন দোকানে শোভা পাচ্ছিল পাটিসাপ্টা, ভাপাপিঠা এলোগেলো, বুলশা, বিবিখানা, তেলেপিঠা, চিতইপিঠা, চানার সন্দেষ, গজাগজা, পাকুনপিঠা, মাংশেরপিঠা, নারিকেল পুলি, নিমকি, চুপতি পিঠা, ঝালপিঠা, সাবুদানার, ডালপুরি , ডালপাকন, পানতুয়া সহ প্রায় পঞ্চাশ রকমের পিঠা।

বাংলা স্কুলের সভাপতি আতিয়া মাহজাবিন এবং সাধারণ সম্পাদিকা শিমুল সাহাউপস্থিত দর্শকদের স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহণের জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং বাংলা স্কুলের সদস্যদের পরিচয় করিয়ে দেন।১৯৮৭ সাল থেকে যে সংগঠনের পথচলা, সেই বি সি সি ডি আই বাংলা স্কুল বিজয় মেলা ও ১৩তম পৌষপিঠা উৎসব আয়োজন করে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বাংলাদেশিদের  আবারও নজর কেড়ে নিল, সহস্রাধিক দর্শকদের উপস্থিতিতে মনে হচ্ছিল ওয়াশিংটনে ছোট্ট একটা বাংলাদেশ ।


নিউইয়র্ক পুলিশে বাড়ছে বাংলাদেশিদের সংখ্যা

মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,হেলাল মাহমুদ, বাপসনিঊজ-বিশেষ প্রতিনিধি : নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগের নতুন সদস্য হিসেবে গ্র্যাজুয়েশন হয়েছে আরও ১২০ জনের। এই ১২০ জনের ২৫ শতাংশই বাংলাদেশি। যাঁদের আবার ৩ জন নারী।
১১ ডিসেম্বর এই গ্র্যাজুয়েশন হয়। এঁদের প্রায় সবাই সিটি পুলিশের ট্রাফিক এনফোর্সমেন্ট বিভাগের সদস্য। নতুন শপথ নেওয়া এই সদস্যরা নিউইয়র্ক পুলিশের পোশাক গায়ে জড়িয়ে এঁরা এখন এই শহরের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করবেন।
একই দিন অর্থাৎ ১১ ডিসেম্বর ম্যানহাটনের ভূগর্ভস্থ পথে, যে সন্ত্রাসী হামলার চেষ্টা হয়েছে, সে ঘটনায় একমাত্র অভিযুক্ত হিসেবে একজন বাংলাদেশির নাম আসায় যাঁরা বেদনায়
মুষড়ে পড়ছেন তাঁদের জন্যই এই গর্বের খবরটি। কেননা, মুদ্রার অপর পিঠে বাংলাদেশি সন্তানেরা এই নগরে তাঁদের গৌরবগাথা সাজাচ্ছে।৮ ডিসেম্বর এসব নতুন পুলিশ সদস্যের সার্টিফিকেট দেওয়া হয়। নতুন নিয়োগ পাওয়া এই পুলিশ সদস্যদের একজন পাপিয়া শারমীন জানান, তাঁর ভালো লাগার কথা। বলেন, ‘আমি এই দেশের প্রতি, এই শহরের প্রতি কৃতজ্ঞ। কেননা, আমার নিজ দেশ বাংলাদেশের পুলিশ বাহিনীতে মামা-চাচা-অথবা মোটা অঙ্কের ঘুষ ছাড়া হয়তো কোনো দিনই চাকরি পেতাম না। কিন্তু, এই শহর আমাকে আমার আত্মমর্যাদা বোঝার সুযোগ দিয়েছে। আমি গর্ব করে বলতে পারছি আমি নিউইয়র্ক পুলিশে কাজ করি।’
পাপিয়ার মতো ১২০ জন নতুন পুলিশ সদস্য যাদের ২৫ ভাগই বাংলাদেশি, তাদের নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে দীর্ঘমেয়াদি পরীক্ষা-নিরীক্ষা আর ব্যাকগ্রাউন্ড চেক করার মধ্য দিয়ে। এখন পুলিশ বিভাগের ট্রাফিক এনফোর্সমেন্ট বিভাগে নিয়োগ পাওয়ার পর ভবিষ্যতে এনওয়াইপিডির মূল বিভাগে অফিসার হওয়ার জন্যও তাঁরা আবেদন করতে পারবেন। এখানে মূল বিভাগের অফিসার পদে এরই মধ্যে অন্তত ২০০ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কাজ করছেন। আর পাপিয়াদের মতো কর্মী আছেন আরও প্রায় ৭০০। সব মিলিয়ে নিউইয়র্ক পুলিশে প্রায় ৯০০ সদস্য আছেন, যাঁদের মূল শিকড় বাংলাদেশে।
নিউইয়র্ক পুলিশে বাংলাদেশি সদস্যদের সংগঠন বাংলাদেশ আমেরিকান পুলিশ অ্যাসোসিয়েশন-বাপার সাংগঠনিক সম্পাদক কবীর হ‌ুমায়ূন বলেন, ‘এটাই আমার আসল বাংলাদেশিদের চিত্র, যারা এই দেশের মাটিকে আপন করে নিয়েছে, একজন ভিনদেশি হিসেবে নয়, বরং আমেরিকার পতাকাকে সামনে নিয়ে, আমেরিকা গঠন আর আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করছে।’
কবীর হুমায়ূন বলেন, ‘সন্ত্রাসীর কোনো ধর্ম নেই, সন্ত্রাসীর কোনো জাতিগত পরিচয় নেই, তার একটাই পরিচয় সে সন্ত্রাস দলভুক্ত। আমরা নিউইয়র্ক পুলিশের সদস্যরা দুঃখিত যে, আরও একটি ঘটনা ঘটেছে ১১ ডিসেম্বর, যার নামের সঙ্গে বাংলাদেশ শব্দটি এসেছে। তবে তার এই নামকে আমাদের নামকে কলঙ্কিত করবে না। কেননা, আমরা যারা এই শহরের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় ভূমিকা রাখছি, আমাদের ভাবমূর্তি আমরা তিলে তিলে গড়ে তুলেছি। আজ আমাদের আলাদা সম্মান আছে। সেই সম্মান কোনো একজনের অপকর্ম দিয়ে ম্লান করা যাবে না। তবে এতটুকু অনুরোধ, আমাদের পিতামাতারা যেন সচেতন থাকেন। এমনকি নিজ সন্তান, ভাইবোন অথবা আত্মীয়স্বজন কারও গতিবিধি সন্দেহজনক দেখলে নিজেদের স্বার্থেই যেন পুলিশকে জানান। এতে আমাদের অবস্থান দুর্বল হবে না বরং আরও মজবুত হবে।’
কবীর হ‌ুমায়ূন আও বলেন, তিনি তাঁর কর্মে অসাধারণ দক্ষতা আর নিষ্ঠার জন্য নিউইয়র্ক পুলিশের সেরা পুলিশ হিসেবে পরপর তিনবার মনোনীত হয়েছেন। ২০১৪ সাল, ২০১৫ এবং ২০১৬ সাল, টানা তিনবার ‘কপ অব দ্য ইয়ার’ সম্মানে ভূষিত হয়েছেন। সেই পথের-ই পথিক হবে আরও অনেক সদস্য, যাঁরা নাম লিখিয়েছেন সদ্য নিউইয়র্ক পুলিশ বাহিনীতে।


যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের দোয়া-মাহফিলে মহিউদ্দিন ও সায়েদুলকে স্মরণ

মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭

বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে : প্রাণি সম্পদ মন্ত্রী সায়েদুল হক এবং চট্টগ্রাম সিটির সাবেক মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুতে দোয়া মাহফিল করলো যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ। ১৬ ডিসেম্বর শনিবার রাতে নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে মেজবান পার্টি হলের এ দোয়া -মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান এবং পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ। নেতৃবৃন্দের মধ্যে ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সৈয়দ বসারত আলী, মাহবুবুর রহমান, শামসুদ্দিন আজাদ এবং লুৎফুল করিম, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী, সহ-সভাপতি মাসুদ হোসেন সিরাজি, মোর্শেদা জামান, আলহাজ্ব আব্দুল কাদের মিয়া প্রমুখ। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সেক্রেটারি এম এ সালাম, বর্তমান কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন দেওয়ান, প্রবাসী কল্যাণ সম্পাদক সোলায়মান আলী, নির্বাহী সদস্য শাহানারা রহমান, খোরশেদ খন্দকারও ছিলেন দোয়া-মাহফিলে।

Picture

আওয়ামী লীগের এই দুই নেতার মৃত্যুতে সংগঠন তথা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিতদের অপূরণীয় ক্ষতি হলো বলে মন্তব্য করেন বক্তারা। সকলেই গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করেন দুই নেতাকে এবং তাদের আত্মার মাগফেরাতও কামনা করা হয়। মাহফিলে যুক্তরাষ্ট্র স্বেচ্ছাসেবক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীরা ছিলেন।