Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

যুক্তরাষ্ট্রের খবর

নায়ক রাজ রাজ্জাকের মৃত্যুতে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের শোক

বৃহস্পতিবার, ৩১ আগস্ট ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ: নায়ক রাজ রাজ্জাক বাংলা সিনেমার কিংবদন্তি নায়ক নায়করাজ রাজ্জাক আর নেই। গত ২১ আগষ্ট সোমবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় ৭৫ বছর বয়সে ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে তিনি মারা যান। (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নাইলাহি রাজেউন)। নায়ক রাজের আকষ্মিক মৃত্যুতে  গভিরভাবে শোকাহত যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ । যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।


কিশোরগঞ্জ ডিষ্ট্রিক্ট এসোসিয়েশনের আহবায়ক কমিটি গঠন

বৃহস্পতিবার, ৩১ আগস্ট ২০১৭

Picture

কমিটির সদস্যরা হলেন: আহবায়ক এ.বি,এম ওসমান গনি, যুগ্ম আহবায়ক বাবু ভজন সরকার, নূরুল ইসলাম খান, সদস্য সচিব হাসিব হাসান, সদস্য হোসেন আনোয়ার আঙ্গুর, বেলাল হোসেন, মো: ওয়াহিদ ভূইয়া। সভাপতি মফিজুর রহমান দুলাল, সাধারণ সম্পাদক সুজন রায় পদাধিকার বলে আহবায়ক কমিটির সদস্য থাকবেন। 

সভায় এ ছাড়াও নির্বাচন কমিটির নিকট ভোটার তালিকা হস্তান্তর ও সংগঠনকে গতিশীল করার জন্য ব্যাপক আলোচনা হয়। এতে সংগঠনকে গতিশীল করার পরামর্শ প্রদান করেন, মুক্তিযোদ্ধা অবিনাশ আচার্য্য, সাবেক সভাপতি এ.বি.এম ওসমান গনি, সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আলহাজ্ব ফজলুল হক, বাবু ভজন সরকার, আখতার হোসেন মনির, মাহফুজুল হাসান টুপন, ছাইদুর খান ডিউক, হাসিব হাসান, মো: হোসেন আনোয়ার (আঙ্গুর),  মো: কামাল উদ্দিন, মুক্তার হোসেন, নূরুল হুদা জুয়েল, সমির ঘোষ, মঞ্জুর হোসেন, মাহমুদ হোসেন, ওয়াহিদ ভূইয়া, আব্দুল হামিদ, শেখ মাহফুজুর রহমান টিটু, সেলিম চৌধুরী, মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, মো: আবুল কাসেম, স্বপন চন্দ্র বিশ্বাস, শফি উদ্দিন আহমেদ, নূরুল ইসলাম খান, মো: আইনুল ইসলাম, মো:

 আল মামুন ভূইয়া, মোহাম্মদ ফাইজুল ইসলাম, মালিক চন্দ্র বিশ্বাস, কাজল সরকার, মো: আব্দুল্লাহ ভুঞা, আলমগীর হোসেন, কামাল উদ্দিন, কামারুজ্জামান মুরাদ, সৈয়দ গোলাম কিবরিয়া, শাহাব উদ্দিন, পলাশ চন্দ্র রায়, উৎপল চন্দ্রবর্তী, রুপন দেব নাথ প্রমুখ । আলোচনার সভার পর নির্বাচন কমিশনারের নিকট কার্যকরী কমিটির পক্ষে সভাপতি মফিজুর রহমান দুলাল ও সাধারণ সম্পাদক সুজন রায় প্রায় সাতশত সদস্যদের নাম (ভোটার তালিকা) তুলে দেন। তালিকা গ্রহন করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার মো: আখতার হোসেন (মনির), কমিশন সদস্য মঞ্জুর হোসাইন (চুন্নু), কামাল উদ্দিন, শাহাব উদ্দিন ঠাকুর। উল্লেখ, চলতি বছরের এপ্রিল মাসে নির্বাচন কমিশনার গঠন করা হয়। সবশেষে সভাপতি উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে  সভার সমাপিÍ ঘোষণা করেন।


হুমায়ূনকে উৎসর্গ করে নিউইয়র্কে লোকসঙ্গীত সম্মেলন

বৃহস্পতিবার, ৩১ আগস্ট ২০১৭

Picture

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : প্রবাসের নতুন প্রজন্মের মাঝে বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতিকে ছড়িয়ে দেয়ার দৃঢ় প্রত্যয়ে নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত হলো আন্তর্জাতিক লোক সঙ্গীত সম্মেলন ও লোকজ মেলা-২০১৭। সম্মেলনের মূল আলোচনায় বক্তারা বলেন, মূলত: বাংলাদেশের গ্রাম বাংলার জনমানুষের কথা আর আচার-ব্যবহারই আমাদের সত্যিকারের লোকজ সংস্কৃতি। যার স্বীকৃতি অনেক আগেই ইউনেস্কো দিলেও কথা সাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদই তার লেখনী আর নাটক-সিনেমায় তুলে আনেন। 

বক্তারা বলেন, বাংলার লোকজ সংস্কৃতিই আমাদের অসল সংস্কৃতি, আমাদের সংস্কৃতির রুট। দেশ ও প্রবাসে লোকজ সংস্কৃতি ধরে রাখতে না পারলে আমরা আমাদের রুট (আসল সংস্কৃতি) হারিয়ে ফেলবো। বক্তারা বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে, অপসংস্কৃতির দাপটে যেনো বাঙালী-বাংলাদেশীদের সংস্কৃতি সহারিয়ে না যায়। এজন্য হুমায়ুন আহমদ সহ শাহ আব্দুল করীম, লালন ফকিরদের বারবার স্মরণ করতে হবে, তাদের নিয়ে অনুষ্ঠান করে নতুন প্রজন্মসহ সবার মাঝে বাংলা সংস্কৃতিকে ছড়িয়ে দিতে হবে।

বাংলাদেশের নন্দিত কথা সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ স্মরণে আয়াজিত এবারের এই সম্মেলনের প্রধান আকর্ষন ও উদ্বোধক ছিলেন বিশিষ্ট অভিনেত্রী ও শিল্পী মেহের আফরোজ শাওন। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে ছিলো শিশু-কিশোরদের প্রতিযোগিতা, আলোচনা, গুণীজন  সম্বর্ধনা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সিটির উডসাইডস্থ কুইন্স প্যালেসে ২৭ আগষ্ট রোববার এই আন্তর্জাতিক লোক সঙ্গীত সম্মেলন ও লোকজ মেলার আয়োজন করা হয়। সম্মেলন কমিটির আহ্বায়ক এম আমান উল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী পর্বে এক গুচ্ছ বেলুন উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন মেহের আফরোজ শাওন। এর আগে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় স্গংীত পরিবেশন এবং মরহুম হুমায়ুন আহমেদ সহ সকল শহীদের আতœার শান্তি কামনায় এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।  

উদ্বোধনী পর্বে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সম্মেলনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ডা. মোহাম্মদ হামিদুজ্জামান, সাংবাদিক জাকিয়া খান, সাবেক এমপি ও সাপ্তাহিক ঠিকানার সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি এম এম শাহীন, সাপ্তাহিক বাঙালী সম্পাদক কৌশিক আহমেদ, সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকার সম্পাদক ও  টাইম টেলিভিশন-এর সিইও আবু তাহের, বিশিষ্ট লেখক ডা. সিনহা মনসুর, বিশিষ্ট শিল্পী ডা. মেছের আহমেদ, নর্থ বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের সভাপতি আতোয়ারুল আলম ও বৃহত্তর রংপুর সমিতির সভাপতি মাহবুব আলী বুল। এর আগে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সম্মেলন ও মেলা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ফাহাদ সোলায়মান। এছাড়াও শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সম্মেলন ও মেলা কমিটির সদস্য সচিব নূরুল ইসলাম বর্ষণ এবং প্রধান সমন্বয়কারী এ কে এম নূরুল হক ও সহ সমন্বয়কারী হাজী আব্দুর রহমান। 

অনুষ্ঠানে বক্তারা এবারের ১৭তম আন্তর্জাতিক লোক সঙ্গীত সম্মেলন ও লোকজ মেলা বাংলাদেশের জনপ্রিয় কথা সাহিত্রিক হুমায়ুন আহমেদ সম্মরণে আয়োজন করায় উদ্যোক্তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন. মূলত: হুমায়ুন আহমেদই বাংলাদেশের আদি সংস্কৃতি বিশেষ করে লোকজ গান মানুষের মাঝে নতুন করে জনপ্রিয় করে তোলেন। বক্তারা হুমায়ুন আহমেদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, রবীন্দ্র-নজরুলের পরই হুমায়ুন আহমেদ-ই বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতির অন্যতম সফল ও জনপ্রিয়  লেখক। বক্তারা বলেন, এমন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে নতুন প্রজন্মকে বাংলা শিল্প-সংস্কৃতির সাথে পরিচিত করে তাদের মাঝে দেশীয় সংস্কৃতি ছড়িয়ে দিতে হবে। শুধু অভিভাবকরাই অনুষ্ঠানে আসলে চলবে না, সাথে নিজেদের সন্তান-সন্তুতিদের নিয়ে আসতে হবে। সবার মাঝে লোকজ সংস্কৃতির সুবাতাশ ছড়িয়ে দিতে হবে।  

অনুষ্ঠানে আশানরূপ লোক সমাগম না হওয়ায় অনুষ্ঠানের উদ্বোধক সহ একাধিক অতিথি বিষয়টির প্রতি গুরুত্বারোপ করে বলেন, এমন ভালো আয়োজনে দর্শক-শ্রোতা না থাকলে সম্মেলন ও মেলার লক্ষ্য উদ্দেশ্য সফল হবে না। এজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।  উদ্বোধনী পর্ব শেষে প্রবাসের ৭জন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে ‘গুণীজন’ সম্মাননা প্রদান করা হয়। এরা হলেন ড. আজিজুল ইসলাম (শিক্ষা), জাকিয়া খান (সাংবাদিকতা), হাসানুর রহমান (শিশু সংগঠক), ছদরুন নূর (সংগঠক), অবিনাশ চন্দ্র আচার্য (কবি), মেহের আফরোজ শাওন (অভিনয় ও সঙ্গীত) এবং হুমায়ুন আহমেদ (মরনোত্তর সম্মাননা)।

 এদের মধ্যে অসুস্থ্যতার জন্য ছদরুন নূর অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে না পাড়ায় তার পক্ষে সম্মানা গ্রহণ করেন তোফায়েল আহমেদ চৌধুরী। অপরদিকে মরহুল হুমায়ুন আহমেদের সম্মাননা গ্রহণ করেন তার স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন। গোপালগঞ্জ সমিতি ইউএসএ’র সভাপতি হাজী আকব্দুর রহমানের সৌজন্যে সম্মাননা প্ল্যাকগুলো প্রদান করা হয়। উভয় পবৃ উপস্থাপনায় ছিলেন বিশিষ্ট কবি ও লেখক এবিএম সালেউদ্দীন।গুণীজন সম্মাননা শেষে পরিবেশিত হয় মনোজ্ঞ স্ংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। টাইম টিভির সাবেক নিউজ প্রেজেন্টার দিমা নেফার তিতি ও বিশিষ্ট শিল্পী সেলিম ইব্রাহীমের উপস্থাপনায় এই পর্বে দেশ ও প্রবাষের বিশিষ্ট শিল্পীরা সঙ্গীত ও নৃত্য পরিবেশন করেন। আন্তর্জাতিক লোক সঙ্গীত সম্মেলন ও লোকজ মেলা-২০১৭ উপলক্ষে ‘সুর’ শীর্ষক একটি স্মরণিকা প্রকাশ করা হয়। 


আইএস সন্দেহে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মার্কিন তরুণ গ্রেফতার

বৃহস্পতিবার, ৩১ আগস্ট ২০১৭

এরপর থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটির ওজোনপার্কে তার বাবার বাড়িতে খোঁজ-খবর নিতে থাকে এফবিআই। ১৭ জুলাই পারভেজের কম্পিউটারসহ যাবতীয় কাগজপত্র অনুসন্ধান করে এফবিআই নিশ্চিত হয়, পারভেজ আইএসে যোগ দিতে সিরিয়ায় যেতে চেয়েছিল।

এফবিআইয়ের অনুরোধের প্রেক্ষিতে সৌদি পুলিশ তাকে ২৮ আগস্ট নিউইয়র্কে ফেরত পাঠায়। তাকে ২৯ আগস্ট ব্রুকলীনে অবস্থিত ফেডারেল কোর্টে সোপর্দ করা হয়।

পারভেজ তার মা-বাবার সাথে যুক্তরাষ্ট্রে আসার পর যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব পান। নিউইয়র্কের সেরা স্টাইভ্যাসেন্ট হাই স্কুলে অধ্যয়ন শেষে হান্টার কলেজে ভর্তি হন। কলেজে হঠাৎ করেই পারভেজ অনিয়মিত ছাত্রে পরিণত হন।

পরিবারের সদস্যরা জানান, হঠাৎ করেই বদলে যায় পারভেজ। সবকিছু ছেড়ে সে নিরব হয়ে যায়। গত জুন মাসে বাবার সাথে সৌদি আরবে যায় পারভেজ। সেখান থেকেই উধাও হয়।

ফেডারেল কোর্টে দায়েরকৃত অভিযোগ অনুযায়ী পারভেজ তার মা-বাবাকে সে লিখে জানায় যে, আমি যদি কোনো কারণে নিষ্ঠুর হয়ে থাকি/অতিরিক্ত কিছু করে থাকি, তাহলে আমাকে ক্ষমা করে দিয়ো। আমি যা তোমাদেরকে শেখাকে চেয়েছি দয়া করে তা স্মরণ করো।  

Picture

পারভেজের বিরুদ্ধে আইএসকে হত্যাযজ্ঞে যাবতীয় সহায়তা এবং সদস্য হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষতিসাধন তথা অসহায়-নিরপরাধ মানুষ হত্যার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত থাকার অভিযোগ করা হয়েছে। এগুলো প্রমাণিত হলে তাকে কমপক্ষে ২০ বছরের দণ্ড ভোগ করতে হবে।

এফবিআই জানিয়েছে, পারভেজের ফোনে আইএসের সাথে নিজের সম্পৃক্ততার ছবি ছাড়াও পাঁচ জনকে ঝুলিয়ে হত্যার ছবিও দেখা গেছে। সমকামীদের এভাবেই ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যা করা উচিত বলেও পারভেজ লিখে রেখেছে। ৯/১১ এ ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে সন্ত্রাসী হামলাকে যথার্থ বলেও অভিহিত করেছে পারভেজ। ফোনে আইএসের লিডার আবু বকর আল-বাগদাদীর ছবিও পাওয়া গেছে। পারভেজ ফোনে লিখেছে, 'আমরা শীঘ্রই জিহাদে অংশ নিচ্ছি এবং এরপরই আমরা শহীদ হবো। '

তদন্তের সময় এফবিআই বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পারভেজের সন্ত্রাসী নেটওয়ার্কে সম্পৃক্ত হবার ইচ্ছের তথ্য জানতে পেরেছে। সে আমেরিকানদের ইসলামের শত্রু হিসেবে মন্তব্য করে এদেরকে শেষ করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছে বিভিন্ন স্থানে।  

২০১৪ সালের অক্টোবরে পারভেজ একটি পোস্টে লিখেছে, ‌‌'কারা জিহাদি? অধিকাংশ মানুষের ইচ্ছা অনুযায়ী নিজের ভূমিতে যে সব মুসলমান শরিয়া আইন প্রতিষ্ঠার জন্যে আত্মত্যাগ করেন, তারাই জিহাদি। সত্যিকারের সন্ত্রাসী হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। '

এফবিআইসহ বিভিন্ন সংস্থার তদন্তের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়েছে যে, বাংলাদেশ থেকে জানুয়ারিতে নিউইয়র্কে ফেরার সময়েই জেএফকে এয়ারপোর্টে এফবিআই পারভেজের মুখোমুখি হয়েছিল। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঐসব পোস্টের ব্যাপারে পারভেজ তাদের বলেছিলেন যে, সে যখন গাঁজা-আফিমে বেশি আসক্ত হয়ে পড়েছিল, সে সময়েই ওই ধরনের মতামত প্রকাশ পেয়েছে। তা সত্যি কিছু ছিল না।

গতকাল মঙ্গলবার অপরাহ্ণে পারভেজকে ব্রুকলীনে ফেডারেল কোর্টের জজ জেমস ওরেনস্টাইনের এজলাসে সোপর্দ করার হয়। তাকে জামিনহীন আটকাদেশ গিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।


ঈদুল আজহা পহেলা সেপ্টেম্বর : নিউইয়র্কে ঈদের জামাত কখন কোথায়?

বৃহস্পতিবার, ৩১ আগস্ট ২০১৭

বাপ্ নিউজ : আগামী পহেলা সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কসহ পুরো আমেরিকায় পবিত্র ঈদুল আজহা পালিত হবে। পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে নিউইয়র্কসহ আমেরিকার বিভিন্ন মসজিদ ঈদ জামাত আয়োজন সময়ের ঘোষণা দিয়েছে। আবহাওয়া অনুকূল থাকলে বরাবরের মত নিউইয়র্কে সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত বাংলাদেশীদের পরিচালিত জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের আয়োজনে ৮টা ৩০ মিনিটে জ্যামাইকা স্কুল মাঠে।

আগে এক সময় আমেরিকায় ঈদ নিয়ে মুসলিম কম্যুনিটির মধ্যে বিভক্তি ছিলো। যে কারণে সর্বত্র দুই দিন ঈদ পালন করা হতো। কেউ লোকাল মুনসাইটিং ফলো করতেন আবার কেউ তা ফলো করতেন না। গত কয়েক বছর ধরে সেই বিভক্ত আর লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। সবাই একত্রেই ঈদ করছেন। অন্যদিকে ঈদ উপলক্ষ্যে নিউইয়র্ক সিটি স্কুল বন্ধ ঘোষণা করেছে। এবারো ঈদের ছুটি ছাড়াও এ সময়ে স্কুল বন্ধ। নতুন প্রজন্মের শিশু- কিশোররা তাদের বাবার সাথে ঈদ জামাতে যাবেন।

নিউইয়র্কের অধিকাংশ মসজিদের ইমাম ও মসজিদের কমিটির কর্মকর্তারা জানান, ইতোমধ্যে তাদের নিজ নিজ মসজিদে ঈদ জামাতের ঘোষণা ও প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। তারা জানান, আবহাওয়া ভাল থাকলে খোলা আকাশের নিচে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। আবহাওয়া খারাপ থাকলে মসজিদের ভিতরেই একাধিক জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এ সব ঈদ জামাতে মহিলাদের নামাজ আদায় করার সুযোগ রাখা হয়েছে।

এস্টোরিয়ার আল আমিন মসজিদের উদ্যোগে ঈদের ১টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে মসজিদ সংলগ্ন ৩৬ স্ট্রিটের ৩৬ ও ৩৭ এভিনিউর মাঝে। ঈদের জামাতটি অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে। মহিলাদের নামাজ আদায় করার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। আবহাওয়া খারাপ থাকলে মসজিদের ভিতরেই ঈদের তিনটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টা, সকাল ৯টা এবং সকাল ১০টায়। শেষ জামাতে মহিলাদের নামাজ আদায় করার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের উদ্যোগে ঈদের একটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে জ্যামাইকা স্কুল মাঠে। উল্লেখ্য, নিউইয়র্কে জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারেই সর্ব বৃহৎ জামাতের আয়োজন করা হয় এবং হাজার হাজার মানুষ এক সাথে নামাজ আদায় করেন।

জ্যামাইকার দারুস সালাম মসজিদের উদ্যোগে ঈদের চারটি জামাত মসজিদের ভিতরেই অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত সকাল ৭টায়, দ্বিতীয় জামাত সকাল ৮টায়, তৃতীয় জামাত সকাল ৯টায় এবং তৃতীয় জামাত সকাল ১০টায়। শেষ তিনটি জামাতে মহিলাদের নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

জ্যাকসন হাইটসের মোহাম্মদী সেন্টারের ব্যবস্থাপনায় নিউইয়র্ক ঈদগাহের উদ্যোগে ঈদের ৫টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে ৭৭স্ট্রিটের ৩৭ এভিনিউতে পিএস ৬৯ স্কুল ও জুইস সেন্টারের পাশে। প্রথম জামাত সকাল ৭টায়, দ্বিতীয় জামাত সকাল ৮টায়, তৃতীয় জামাত সকাল ৯টায়, চতুর্থ জামাত সকাল ১০টায় এবং পঞ্চম জামাত সকাল ১১টায়।
ম্যানহাটনের মদিনা মসজিদের উদ্যোগে একটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায় ওপেন রোড পার্কে।

ব্রঙ্কসের পার্কচেস্টার জামে মসজিদের উদ্যোগে ঈদের তিনটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে, দ্বিতীয় জামাত সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে এবং শেষ জামাত সকাল ১০টায়।
ব্রঙ্কসের পার্কচেস্টারের বাংলাবাজার মসজিদের উদ্যোগে ঈদের একটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে মসজিদ সংলগ্ন পিএস ১০৬ এর প্লে গ্রাউন্ডে।

ব্রুকলীন বাংলাদেশ মুসলিম সেন্টারের উদ্যোগে ঈদের ২টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম জামাত সকাল ৭টায় এবং দ্বিতীয় জামাত সকাল ৯টা ১৫ মিনিটে।


বাংলাদেশ সোসাইটি অব পেনস্যালভেনিয়ার আয়োজনে প্যারেড ও মেলা অনুষ্ঠিত

বৃহস্পতিবার, ৩১ আগস্ট ২০১৭

এম,এ,কালাম  (শৱীফ) , বাপ্ নিউজ : গত আগষ্ট ২৭ ৱবিবাৱ  পেনস্যালভেনিয়ার আপাৱ ডাৱবীতে  অনুষ্ঠিত  হয়েছে  বাংলাদেশ সোসাইটি অব  পেনস্যালভেনিয়ার  প্যারেড ও মেলা ২০১৭।  
এতে প্ৰধান অতিথি ছিলেন আপাৱডাৱবি মেযৱ থমাস্ এন  মেক্ কোজি এছাড়া বিশেষ অথিতিতে উপস্থিত ছিলেন মেলব'ৰ্ণ  কাউনটিৱ  মেযৱ  টম ক্রেমাৱ ফিলাডেলফিযা সিটিৱ ডেপুটি মেযৱ ডঃ নিনা আহমেদ, আইন বিশেষজ্ঞ এলি গাবাই ও ৱাবাট ডেটনাৱ।

এতে সভাপতি ছিলেন সংগঠনেৱ সভাপতি  ইফতেখাৱ হোসেন (ফৱহাদ)। সাধাৱন সম্পাদক মুনছুৱ  আলী  (মিঠু)   প্যারেড  এবং মেলাৱ বাংলাদেশেৱ জাতীয় আনুষ্ঠানটি  সাৰ্বজনীন ভাবে প্ৰবাসেৱ মাটিতে সফলভাবে  উপভোগ কৱাৱ জন্য সকলেৱ প্ৰতি  উদাত্ত   আহ্বান জানান।

সার্বিক  ত্বতাবধাযেনে  ছিলেন শেখ সিদ্দিক এবং এ,বি,এম,আলতামাস (বাবুল)

বেলা ১২:00 টায মেলব'ৰ্ণ  এৱ  পাৰ্কিং  লট থেকে  প্যারেড  শুৱু  হয এবং শেষ হয ৬৯  ষ্ট্রীট প্লে গ্রাউন্ড ।মেলা শুরু হয   দুপুর ২:০০ টায়
আলোচনা ও বক্তব্য  শুৱু হয ৩:৩০ মিনিটে. সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান  শুৱু হয ৩:৩০

তাছাড়া  বিভিন্ন সামাজিক ও ৱাজনৈতিক  শীর্ষ  স্থানীয় নেতাসকলক, মুক্তি যোদ্ধাগন মেলব'ৰ্ণ  ও  আপাৱ  ডাৱবীৱ  বাংলাদেশী কাউন্সিলমেনগন  উপস্থিত  ছিলেন।
 
   তাছাড়া নিউয়ৰ্ক, নিউ জাৱসী, দেলোযাৱ, নৰ্থ  ইষ্ট, বেনসালাম, লেনসডেল, এবং ফিলাডেলফিযাৱ সকল বাংলাদেশীগন ও নতুন  প্ৰজন্মেৱ শিশু কিশোৱ  এবং বযজষঠদেৱ আনাগুনা ছিল অনেক । প্ৰতিটি মহিলা ও পুৰুষদেৱ লাল সবুজেৱ ছন্দে  মেতে উঠেছিল এই মিলন মেলা।  ফিলাডেলফিযাৱ আপাৱ ডাৱবিতে এই  প্যারেড  এবং  মেলা  সংগঠনটি বেশ কয়েক  বছৱ  থেকে  কৱে  আসছে। এতে ছিল বিভিন্ন  ধৱনেৱ   খাবাৱ  ও কাপড়  এৱ   ইষ্টল। আৱো ছিল লটাৱীৱ  ব্যাবস্থা।

বাংলাদেশ সোসাইটি অব পেনস্যালভেনিয়ার আয়োজনে প্যারেড ও মেলায সংগীত ও নৃত্য  পরিবেশন করেন  বেবী নাজনীন, বিউটি দাস, শশী, নাদিৱা,
মনসুৱ,  রোখসানা মির্জা,  জলি দাস, এবং গনসংগীত  পৱিবেশন কৱেন ফকিৱ আলমগীৱ। তাছাড়া স্থানীয  শিল্পিবৃনদ ।  
সূৰ্য  অস্ত  যাওযাৱ সাথে সাথে সকলেই  আনন্দ চিততে বাড়ী ফিৱে যায় ।


14th Annual International Human Rights Summit was held at United Nation.

বৃহস্পতিবার, ৩১ আগস্ট ২০১৭

Bapsnews:NEW YORK CITY, August 26, 2017 the 14th Annual International Three day Human Rights Summit was held at United Nation, Headquarters in New York. Sponsored by the permanent  Mission of  Panama and kingdom of Cambodia to the united Nations   Dr. Mary Shuttle worth, Founder and President of Youth for Human Rights International, introduced the panelists who addressed important aspects of the state of human rights and human rights education: Ambassador Mahmud Saikal, Permanent Representative of the Islamic Republic of Afghanistan to the United Nations; Ambassador Michael Grant, Deputy Permanent Representative of Canada to the United Nations; and Nobel Laureate and former President of Costa Rica Dr. Oscar Arias Snchez.The Ambassadors of Panama and Cambodia announced their partnership with Youth for Human Rights.

The current generation of youth is the largest in history and is critical actors in conflict prevention and sustaining peace. young human rights activists representing about 42 nations attended the 14th annual Human Rights Summit at the United Nations from Aug. 24 to 27., at United Nations Headquarters in New York. Among the 360 people attending were ambassadors and other representatives of the permanent missions to the UN including Afghanistan, Bangladesh, Bahrain, Canada, Cuba, Cyprus, Equatorial Guinea, France, Ghana, Ireland, Italy, Mexico, Myanmar, Nepal, Pakistan, Panama, Romania, Sri Lanka, and Turkey for Best  performance  Mohammad M Mahab received the leadership certificate from the international youth human rights organization like other delegate ,Ambassador and representative of   members country those who attended  at united nation , On the second day of the Summit, also hosted by the U.N., two panels presented important human rights issues to the youth delegates and those attending.


The emphasis of the first panel was human trafficking42 Nations Represented at Annual Human Rights Youth Summit at the U.N.There were performances by local artists and by Miss New York 2016 Camille Sims and Wil Seabrook, founder of Rock for Human Rights. Youth delegates and directors of Youth for Human Rights chapters from the Congo, Nepal, Taiwan, and Venezuela made presentations on their activities. Youth delegates exchanged information on their successful actions and networked on resources others can use to accomplish their programs. There were also workshops and training sessions on skills to help the delegates become even more confident and effective in their activities. Youth delegates returned home equipped with the tools they need to accomplish their human rights plans for their zones. The 3 day international youth Human rights program which ended august, 26th, 2017  at united nation head quarter in New York it was also declared next international youth human rights summit will be held on 2018 at presidential palace in Washington DC .United State of america"the program ended through the  closing remarks


আনন্দঘন পরিবেশে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের বনভোজন অনুষ্ঠিত

বুধবার, ৩০ আগস্ট ২০১৭

Picture

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ: “ও সেই চোখের দেখা প্রাণের কথা সেই কি ভোলা যায়” এই পংক্তি টি বুকে ধারণ করে মহা উৎসাহ উদ্দীপনায় এফডিআর স্টেট পার্কের সবুজ চত্বরে ২০ আগষ্ট রবিবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন আয়োজন করেছিলো "বনভোজন ২০১৭”  বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের স্বত:স্ফুর্ত উপস্থিতিতে বনভোজনটি পারষ্পরিক সম্প্রীতির এক মনোমুগ্ধকর মিলনমেলায় পরিণত হয়।

alt

পার্কের সবুজ-শ্যামল মাটিতে শিশু-কিশোর ও বড়দের খেলাধূলা, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের অতীত স্মৃতি রোমন্থন, কুশল বিনিময়, অনুভূতি প্রকাশ এবং উচ্ছাসমুখর আনন্দঘন পরিবেশে দিনটিকে সকলে উপভোগ করেন।

alt

বনভোজনে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান ও বগুড়া পল্লী উন্নয়ন একাডেমির সাবেক মহাপরিচালক প্রফেসর ড. আশরাফ উদ্দিন আহমেদ। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য, সাবেক প্রক্টর ও লোকপ্রশাসন বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর সিরাজ উদ দৌল্লাহ এবং একুশে চেতনা পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি ওবায়দুল্লাহ মামুন।খবর বাপসনিঊজ।

alt

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন সভাপতি এমএ আজিজ নঈমীর নেতৃত্বে বনভোজন কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক লুৎফুর রহমান, প্রধান সমন্বয়কারী সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অধ্যাপক জাহাঙ্গীর শাহনেওয়াজ ডিকেন্স, সংগঠনের সাবেক সভাপতি পারভেজ কাজী, সংগঠনের সহ সভাপতি হাসান মাহমুদ, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সাবিনা শারমিন নিহার, বনভোজন কমিটির যুগ্ম আহবায়ক যথাক্রমে আবুল কাসেম,  আমিনুল ইসলাম ও বনভোজন কমিটির সদস্য সচিব শাহেদ আলীর তত্ত্বাবধানে অন্যান্যদের মধ্যে সার্বিক সহযোগিতা করেন - অধ্যাপক স্বপন দাস, রেজাউল করিম সগীর, অধ্যাপক আবুল কালাম চৌধুরী, দিলওয়ার হাসান, বিষ্ণু গোপ, অধ্যাপক গোলাম মোহাম্মদ মুহিত, অনুপ দাশ, অ্যাডভোকেট নাজনীন মামুন, অধ্যাপক একে আখতার হোসেন, আবদুল আউয়াল শামীম, অধ্যাপক নোয়াব মিয়া,  এয়াকুবউদ্দিন চৌধুরী, সলিল চৌধুরী, শিবলী ছাদেক, অধ্যাপক ছন্দা বিনতে সুলতান, রতন চৌধুরী, কাজী হাবিবুল ইসলাম, মফিজুল ইসলাম সেন্টু,  আনোয়ারুল করিম, হাফিজুল ইসলাম নাসির, সৈয়দা পারভিন আকতার, সামশুন্নাহার শিল্পী, শিলা মুহিত, শিল্পী হাসান ও রোকসানা আজিজ।

alt
ওবায়দুল্লাহ মামুন ও অধ্যাপক নোয়াব মিয়ার নেতৃত্বে বড়দের জমজমাট ফুটবল ও দৌঁড় প্রতিযোগিতা এবং বিভিন্ন বয়সী শিশু-কিশোরদের খেলাধূলা অনুষ্ঠিত হয়। মহিলাদের স্মৃতি পরীক্ষা প্রতিযোগিতা পরিচালনা করেন- অ্যাডভোকেট নাজনীন মামুন ও সাবিনা শারমিন নিহার।

alt

বনভোজনে শিশু-কিশোরদের যেমন খুশী তেমন সাজো সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। এতে বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন- সৈয়দা পারভিন আকতার, ডাঃ মিতা গোপ ও ইঞ্জিনিয়ার বিদ্যুৎ দাস।

alt
বনভোজনে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত আনন্দঘন পরিবেশে সুন্দর ও সুশৃঙ্খলভাবে বিভিন্ন কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়, বিকেলে পার্কের মনোমুগ্ধকর মায়াবী পরিবেশে সংগঠনের সভাপতি এম এ আজিজ নঈমীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভা ও স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন - সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সাবিনা শারমিন নিহার। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন - প্রধান অতিথি প্রফেসর ড. আশরাফ উদ্দিন আহমেদ, বিশেষ অতিথি প্রফেসর সিরাজ উদ দৌল্লাহ, সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অধ্যাপক জাহাঙ্গীর শাহনেওয়াজ ডিকেন্স, সংগঠনের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক স্বপন দাস, রেজাউল করিম সগীর, মীর আহসান কাদের রাসেল, ছন্দা বিনতে সুলতান অ্যাডভোকেট নাজনীন মামুন, অধ্যাপক মুহাম্মদ মোফাজ্জল হোসাইন প্রমুখ।

alt
পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান ও র‌্যাফেল ড্র পরিচালনা করেন - এমএ আজিজ নঈমী, সাবিনা শারমিন নিহার, অধ্যাপক লুৎফুর রহমান, হাসান মাহমুদ, আবুল কাসেম,  আমিনুল ইসলাম ও শাহেদ আলী। সহযোগিতা করেন- অধ্যাপক গোলাম মোহাম্মদ মুহিত, অধ্যাপক নোয়াব মিয়া, এয়াকুবউদ্দিন চৌধুরী, অনুপ দাশ ও শিবলী ছাদেক প্রমুখ। র‌্যাফেল ড্র বিক্রি করে সংগঠনের তহবিল সংগ্রহে বিশেষ অবদান রাখেন - সামশুন্নাহার শিল্পী, শিলা মুহিত ও শিল্পী হাসান। এজন্য সংগঠনের পক্ষ থেকে তাঁদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়।

alt
বনভোজনে ট্রফি, মেডেল এবং র‌্যাফেল ড্র স্পন্সর ও বিশেষ সহযোগিতা করার জন্য পারভেজ কাজী (কাকাতুয়া এজেন্সী), এটর্নী প্যারি ডি. সিলভার, দিলওয়ার হাসান, তাহমিনা ফারুক, আহসান হাবিব, সামছুদ্দীন আজাদ, রেজাউল করিম সগীর, কবিতা সেন, সনজীব তালুকদার, ওবায়দুল্লাহ মামুন, অ্যাডভোকেট নাজনীন মামুন, অধ্যাপক জাহাঙ্গীর শাহনেওয়াজ ডিকেন্স, মাহবুবুর রহমান সুমন (টেলেনটেক), মীর আহসান কাদের রাসেল ও সাহাব উদ্দিন সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে সংগঠনের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানানো হয়।  


জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার কর্মী সভা অনুষ্ঠিত

বুধবার, ৩০ আগস্ট ২০১৭

সভায় এক প্রস্তাবে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ক্ষণজন্মা নক্ষত্র নায়ক রাজ রাজ্জাক এর মৃত্যুতে শোকবাণীতে মরহুমের শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করে, মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়। অন্য এক প্রস্তাবে বাংলাদেশে পানি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের সাহায্যের জন্য সকল বৃত্তবানদেরকে এগিয়ে আসার আহবান জানান এবং সরকারের প্রতি দীর্ঘমেয়াদী সাহায্যের দাবী জানান।

Picture

সভায় বক্তারা বাংলাদেশের বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট নিয়ে বিশদ আলাপ আলোচনা করেন। তারা জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার অযোগ্য নেতৃত্বের তীব্র সমালোচনা করে তাদের মিথ্যা সেলফি তোলা, গোপনে বাসায় বসে কিংবা নির্জনে পার্টির কার্যত্রুমের ফিরিস্তি পত্র-পত্রিকায় প্রচার করে মিথ্যা পদ-পদবীর দাবী করে জাতীয় পার্টির অসংখ্যা নেতাকর্মীদেরকে বিভ্রান্ত করে তাদের শেষ রক্ষা হবে না। অতএব এহেন ঘৃণ্য কর্মকান্ড থেকে তাদেরকে বিরত থাকার জন্য আহবান জানান।

পাশাপাশি জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুব আলী বুলুর প্রতি পূনরায় অনুরোধ আপনি মরিচিকার মত শক্তি, সাহস ও সামর্থহীন ব্যক্তিদের পিছনে না ঘুরে কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যানের মত সম্মানিত পদবীর মর্যদা অক্ষুন্ন রাখার চেষ্টা করুন। নি:লজ্বের মতো ১৭/১৮ বছর যাবত সভাপতি পদে আকড়ে থাকায় কেন্দ্রীয় পর্যায়ে সম্মানিত পদ-পদবীতে অন্যান্য যাহারা রয়েছে তাদের কেও আপনি লজ্জ্বায় ফেলেছেন, তারাও আপনাকে ঘৃণা করে।

এখনো সময় আছে অনুগ্রহ করে অন্তত: পার্টির স্বার্থে যুক্তরাষ্ট্র শাখার একটি সম্মেলন প্রস্ততি কমিটি দিয়ে সম্মেলনের মাধ্যমে একটি অর্থবহ পূর্নাঙ্গ কমিটি উপহার দিয়ে কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যানের সম্মানিত পদবীর মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখুন।

পরিশেষে পার্টির চেয়ারম্যান ও মহাসচিব সুষ্ঠভাবে পবিত্র হজ্ব পালন ও তাদের সু-দীর্ঘায়ূ কামনা করে মহান সৃষ্টি কর্তার নিকট দোয়া করা হয়। অবশেষে সভাপতি উপস্থিত সকলকে রাতের খাবারের আপ্যায়ন করে সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।


ওয়াশিংটন ডিসি তে "জন্ম ঝড়ে বাংলাদেশ" গ্রন্থের এর উপর আলোচনা অনুষ্ঠিত

বুধবার, ৩০ আগস্ট ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজ ঃগত শনিবার ২৬শে আগস্ট ম্যারীল্যান্ড অঙ্গরাষ্ট্রের জার্মানটাউন পাঠাগারে বীর মুক্তি যোদ্ধা, বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী তথা বাঘা সিদ্দিকীর ঘনিষ্ঠ সহচর বঙ্গবন্ধু পরিষদ ইউএসএর  সভাপতি ও নিউজার্সি অঙ্গরাষ্ট্রের প্লেইন্সবোরো শহরের কাউন্সিল্ম্যান ড.নুরুন নবীর অধুনা প্রকাশিত ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর পুণ্য স্মৃতির উদ্দেশ্যে উৎসর্গিত গ্রন্থ "জন্ম ঝড়ে বাংলাদেশ" এর উপর আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশীদের সবচেয়ে প্রাচীনতম সংগঠন "বাই" এর প্রাক্তন সভাপতি, শিক্ষানুরাগী সমাজসেবক শাহ আলম মজুমদার।

alt
"জন্ম ঝড়ে বাংলাদেশ" গ্রন্থের রচয়িতা ডঃ নুরুন নবী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সাথে তাঁর স্ত্রী ড. জিনাত নবী ও উপস্থিত ছিলেন বইটির উপর আলোচক ছিলেন প্রফেসর নুরুল ইসলাম, সৈয়দ জিয়াউর রহমান, কবি ,সাহিত্যিক ও বাংলাদেশ দূতাবাস ওয়াশিংটন ডিসি র উপ প্রধান মাহবুব হাসান সালেহ , বিশিষ্ট লেখক, বিজ্ঞানী ও প্রাক্তন শিক্ষক ড.আশরাফ আহমেদ, ও দস্তগীর জাহাঙ্গীর তুঘ্রীল।

Picture
সার্বিক আলোচনা অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন তৌফীক মজুমদার।বাংলাদেশ জন্মের পর থেকে ১৯৭৫ ১৫ই আগস্ট পর্যন্ত এই লেখকের চারপাশে ঘটনা সমূহের সরল বর্ণনা ভুমিকা সহ ২৩টি অধ্যায়ে বিস্তারিত ও নিখুঁত ভাবে তুলে ধরেন।

alt
সকল আলোচকদের অভিমত , "জন্ম ঝড়ে বাংলাদেশ" গ্রন্থটি একটি অবশ্য পাঠ্য পুস্তিকা. বাংলাদেশের স্বাধীনতা পরবর্তী সামাজিক ও রাজনৈতিক অস্থিরাবস্তার উপর গবেষণা করার সংস্থান সহায়ক হবে পুস্তিকাটি। বইটিকে বিভিন্ন্য ভাষায় প্রকাশ করে পৃথিবীর সকল মানুষের কাছে পৌঁছে দিবার প্রত্যয় ঘোষণা করেন আলোচকগণ। বিশেষ করে ইউরোপে প্রচার ও প্রকাশের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন আলোচক ও কবি মাহবুব হাসান সালেহ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে লেখক এই বই লিখার কারণ বলতে গিয়ে বলেন যে, ইতিহাস বিকৃতির হোলি খেলায় , তাঁর ব্যক্তিগত দায়বদ্ধতা থেকেই তিনি নিজের দেখা ও সাক্ষী থাকা ইতিহাসের অংশ সকলের জন্য তুলে ধরছেন লিখার মাধ্যমে।


সুপ্রিম কোর্টের ষোড়শ সংশোধনীর রায়ে শপথ ভঙ্গ হয়ে থাকলে অবিলম্বে তাদের পদত্যাগ করা উচিৎ - ---যুক্তরাষ্ট প্রবাসী বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ

বুধবার, ৩০ আগস্ট ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজ ঃ গত ২৩ আগষ্ট বুধবার বিকাল ৩টায় নিউইয়র্কের এষ্টোরিয়ার একটি রেষ্টুরেন্টে এক জরুরী সভা ও টেলিকনফারেন্সে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের  ষোড়শ সংশোধনীর রায়ে শপথ ভঙ্গ হয়ে থাকলে অবিলম্বে তাদের পদত্যাগ করা উচিৎ বলে এক মত পুষণ করেছেন সভায় উপস্থিত যুক্তরাষ্ট প্রবাসী বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ এবং টেলিকনফারেন্সে বাংলাদেশসহ প্রবাসী নেতৃবৃন্দ। জরুরী এক সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মানবাধিকার পরিষদ যুক্তরাষ্ট্রের সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক এইচ আই খোকন।খবর বাপসনিঊজ।
জরুরী  সভায় বাংলাদেশ থেকে টেলিকনফারেন্সে অংশ নেন চেতনায়-৭১, বিজ্ঞ আইনজীবিদের দাবী বাস্তবায়ন সম্মিলিত ঐক্য পরিষদ ,প্রগতি ইন্টারন্যাশনাল(AFFILIATED WITH UNO)সভাপতি, আন্তজার্তিক খ্যাতি সম্পন্ন শিক্ষাবিদ ভিজিটিং প্রফেসর ড.এম মাকসুদ আর চৌধুরী এটর্নী এটল, ই.এস.কিউ এবং জুরিষ্ট, এডভোকেট আতাউর রহমান এডভোকেট অরূপ ভারঈ, এডভোকেট শিখা রায়, এডভোকেট স্বরলিপি পাল,  এডভোকেট অরিন্দম রাহা, অধ্যাপক ড. শ্যামল কুমার রায়, ব্যারিষ্টার হাফিজ সাদিয়া খান (ভারত -বাংলাদেশী বংশতভূত ), ড. জহিরুল হক জুরিষ্ট (অষ্ট্রেলিয়া ), নিউইয়র্কের বাংলাদেশী বংশভ’ত সিনিয়র ফার্মাসিষ্ট ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি  আকতার হোসেন ,প্রমুখ। সভায় মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ২১ আগষ্ট গ্রেনেট হামলা স্বরণে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিশাল জনসভায় তাঁর বক্তব্যে উল্লেখ করেন বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ (DISFUNCTIONAL)অকার্যকর এবং পাকিস্তানের সাথে বর্তমান বাংলাদেশ-এর সংসদীয় গণতন্ত্রকে তুলনা করেছেন ষোড়শ সংশোধনী রায়ে উল্লেখ করে প্রধান মন্ত্রী তার বক্তব্যে তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করেন এবং বিচার দাবী করেন।
সভায় আইন কমিশনের চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হক-এর ষোড়শ সংশোধনী রায় সম্পর্কে তার বক্তব্যের প্রতি সমর্থন জ্ঞ্াপন করা হয়।