Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

বাংলাদেশের খবর

ঢাকায় ফোবানার ডিনার পার্টি অনুষ্ঠিত

বৃহস্পতিবার, ০৫ জানুয়ারী ২০১৭

Picture

বাংলাদেশের সংস্কৃতি প্রসারে যুক্তরাষ্ট্রে ফোবানা যত কাজ করছে গণমাধ্যমে তার খুব কমই প্রচার হচ্ছে বলে তিনি অনুযোগ করেন। ফোবানার নির্বাহী কমিটির নির্বাচন সরাসরি প্রত্যক্ষ করার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশি আমেরিকানদের বৃহত্তম এই সংগঠনের নির্বাচন এত ট্রান্সপারেন্ট হয় তা কল্পনাও করিনি। তিনি ফ্লোরিডায় অনুষ্ঠিতব্য ফোবানা সম্মেলনের সাফল্য কামনা করেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মিডিয়া কমিটির সদস্য ওমর আলী। উপস্থাপনা করেন বাংলাদেশ লিয়াজোঁ কমিটির সদস্য আনিসুল কবির জসির।

alt
এসময় আরো বক্তব্য রাখেন ফোবানার সাবেক চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান, সাবেক চেয়ারম্যান রবিউল করিম বেলাল, ফ্লোরিডা হোস্ট কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ এমরান, বাংলাদেশ লিয়াজোঁ কমিটির সদস্য আনিসুল কবির জসির, মাহফুজ পলাশ, মিডিয়া কমিটির সদস্য মহিউদ্দীন সরকার, মুজিব মাসুদ, সাংস্কৃতিক কর্মী চিত্রা সুলতানা, শ্রাবনী প্রমুখ। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন, কথাসাহিত্যক মঈনুদ্দীন কাজল, এডভোকেট জিনাত শাহানা চৌধুরী, মনজুর আলম শাহীন, ফয়সল আজিজ প্রমুখ।


সরকারের ধারাবাহিকতা না থাকলে দেশের ক্ষতি: প্রধানমন্ত্রী

শনিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৬

বাপ্ নিউজ : ঢাকা থেকে : সেলিনা হায়াৎ আইভীকে আবারও নির্বাচিত করায় নারায়ণগঞ্জবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘সরকারের ধারাবাহিকতা না থাকলে দেশের ক্ষতি’। ক্ষতির দৃষ্টান্ত হিসেবে ২০০১ সালের নির্বাচন পরবর্তী সময়ের কথা উল্লেখ করেন তিনি।নির্বাচনে জয়লাভের পর শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করতে যান আইভী। এ সময় উপস্থিত নেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে বক্তৃতা দেন প্রধানমন্ত্রী।

Picture

এ সময় তিনি বলেন, ‘আইভীকে নির্বাচিত করার মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জের জনগণ উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় গুরুত্ব দিয়েছে’।শেখ হাসিনা বলেন, ‘একটা সরকারের ধারাবাহিকতা যদি থাকে, তাহলে উন্নয়ন অব্যাহত থাকে। এ বিষয়টি নারায়ণগঞ্জের মানুষ বুঝতে পেরেছে।’

আইভী পুনর্নির্বাচিত হওয়ায় চলমান উন্নয়ন প্রকল্পগুলো চালিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি নতুন নতুন প্রকল্প নিতে পারবেন বলে মন্তব্য করেন তিনি। ধারবাহিকতা না থাকলে ক্ষতির কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে যেসব অর্জন করেছিল, তা ২০০৮ সালে এসে আর পায়নি। ২০০১ সালের নির্বাচনে জয়ী হয়ে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট ক্ষমতায় আসার পর অনেক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বন্ধ করে দেওয়ায় এটা হয়েছিল।’


শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবসে এসএটিভিতে আ ক ম মোজাম্মেল হক, আ স ম আব্দুর রব ও সিকদার গিয়াসউদ্দিন

শনিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৬

বাপসনিউজ ঢাকা ঃ শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবসে জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল এসএটিভিতে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি, সাবেক মন্ত্রী স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলক আ স ম আব্দুর রব এবং যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী কলামিষ্ট ও এক্টিভিষ্ট সিকদার গিয়াসউদ্দিন-এর সাক্ষাৎকার প্রচারিত হয়। খবর বাপসনিউজ।

alt

টকসোতে এই তিন মহান নেতা স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ এবং বুদ্ধিজীবিদের নিয়ে ব্যাপক আলোকপাত করেন।সরাসরি সম্প্রচারিত এই অনুষ্টানটি দেশ ও প্রবাসে ব্যাপকভাবে প্রকাশিত হয়েছে। ছবি বাপসনিউজ।


মানবকন্ঠ সম্পাদক আবু বকর চৌধুরীর সাথে প্রবাসী সাংবাদিকদের সৌজন্য সাক্ষাৎ

বুধবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৬

Picture

উল্লেখ্য, সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন গত ৩০ অক্টোবর কুয়েত, ৩ নভেম্বর ঢাকা, ১৫ নভেম্বর মালয়েশিয়া ১৬ নভেম্বর সিংগাপুর, ১৯ ও ২০ নভেম্বর মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে অনুষ্ঠিত ২ দিন ব্যাপী বাংলাদেশ গ্লোবাল সামিট,  ৩০ নভেম্বর  আয়ারল্যান্ড সফর শেষে ৩০ নভেম্বর নিউইয়কে ফিরে আসেন। আয়েশা আক্তার রুবি ১৩ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী হয়েছেন এবং ৩০ নভেম্বর স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য নিউইয়র্ক এসেছেন। সৈয়দ আবুল হাসনাত রিয়েল তিন মাসের অবকাশে বাংলাদেশে অবস্থান করবেন। আমেনা আক্তার নিপা বাংলাদেশে কটিয়াদিনিউজ ডটকমের সহযোগী সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করবেন।


গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা শাখা জেএসডি’র সাধারন সম্পাদক আজগর আলী আরজকে অবিলম্বে মুক্তি দিন......... জেএসডি

বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৬

বাপ্ নিউজ : জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জেএসডি সভাপতি জনাব আ স ম আবদুর রব ও সাধারন সম্পাদক জনাব আবদুল মালেক রতন এক বিবৃতিতে বলেছেন, গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা শাখা জেএসডি’র সাধারন সম্পাদক আজগর আলী আরজকে  ষড়যন্ত্রমুলকভাবে গ্রেপ্তার করে থানায় নেয়া হয়েছে। আজগর আলী আরজ গাইবান্ধা এলাকার সকল গনতান্ত্রিক ও শোষিত মানুষের আন্দোলনের একজন অগ্রনী ব্যাক্তি। সাম্প্রতিক সাঁওতালদের উচ্ছেদের ঘটনায়ও তিনি ছিলেন প্রতিবাদমুখর। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে আজগর আলী আরজের নি:শর্ত মুক্তি দাবী করেছেন।


সাংবাদিক খোকন ও কবি সালেহ এবং কটিয়াদিনিউজ সম্পাদক রুবিকে বিধায় সংবর্ধনা

সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৬

বাপসনিউজ ঢাকা : আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন সভাপতি , আন্তজার্তিক বার্তা সংস্থা বাপসনিউজ  এডিটর, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী মুলধারার রাজনীতিক,সাংবাদিক ও এক্টিভিষ্ট হাকিকুল ইসলাম খোকন , কবি ও কলামিষ্ট এবিএম সালেহউদ্দিনের ঢাকা আগমন উপলক্ষে এবং কটিয়াদিনিউজ ডটকম  সম্পাদক ও হাকিকুল ইসলাম খোকনের সহধর্মিনীর যুক্তরাষ্ট্রে যাত্রা উপলক্ষে এক ডিনার পার্টি ও সংবর্ধনার আয়োজন করেন বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ, গ্রন্থ প্রনেতা, চিত্র পরিচালক ও নির্মাতা এম জসীম উদ্দীন তাঁর ঢাকা পরীবাগস্থ ভবনের কনফারেন্স রুমে তাঁর পক্ষে সংবর্ধনার আয়োজন করেন প্রবীন সাংবাদিক লেখক, নাট্যকার, জসীম উদ্দীন-এর উপদেষ্টা ও “ঞযব অসৎরপধহ উৎবধস” চলচ্চিত্রের সমন্বয়কারী প্রফেসর কামরুল হাসান বাবলু।খবর বাপসনিঊজ।গত ২৯ নভেম্বর মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় জসীম উদ্দীনের পরীবাগস্থ ভবনের অতিথিদের অভ্যার্থনা জানান এবং আয়েশা আক্তার রুবিকে ফুলের তোড়া দিয়ে স্বাগত জানান। এ সময় অতিথিদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী এজাজ আহমদ, ঢাকার বিশিষ্ট সংগঠক আব্দুল হাই চৌধুরীসহ বিশিষ্ট জন। সংবর্ধনা অনুষ্টানটি সার্বিক সমন্ময় করেন কমিউনিটি এক্টিভিষ্ট হাবিবুর রহমান।

alt 

হাকিকুল ইসলাম খোকন, এবিএম সালেহউদ্দীন এবং আয়েশা আক্তার রুবি তাদের সম্মানে এ আয়োজনের জন্যে আমেরিকার আলোচিত গ্রন্থ প্রনেতা এম জসীম উদ্দীনকে ধন্যবাদ জানান।তার ঢাকার ভবনে লাইব্রেরী ও চিত্রকলা পরিদর্শন করে তার প্রসংশা করেন। শেষে রকমারী আয়োজনে নৈশ ভোজে  অতিথিদের আপ্যায়ন করেন।
উল্লেখ্য, হাকিকুল ইসলাম খোকন, এবিএম সালেহ  উদ্দীন কুয়ালালামপুরে অনুষ্টিত বাংলাদেশ গ্লোবাল সামিটে যোগদান শেষে ঢাকায় আসেন এবং ৩০ নভেম্বর মঙ্গলবার আয়েশা আক্তার রুবিসহ নিউইয়র্কের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেন। এ সময় তাদের ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তজার্তিক বিমান বন্দরে ইয়াসমিন আহমেদ, লাকী,রিয়েল, নিপা ও খাদিজাতুল কুবরা রুমা এবং বিভিন্ন রাজনীতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ বিশিষ্ট জনরা বিদায় জানান।


পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে অশ্রুসজল বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা

রবিবার, ০৬ নভেম্বর ২০১৬

হাকিকুল ইসলাম খোকন:আয়েশা আকতার রুবী,বাপসনিঊজ:জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দুই কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা গতকাল শনিবার বিকালে ঢাকার পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগার পরিদর্শন করেন। স্মৃতিবিজড়িত কারাগারে প্রবেশ করেই প্রধানমন্ত্রী প্রদর্শনীর জন্য রক্ষিত ১৪৫টি দুর্লভ আলোকচিত্র দেখার পর বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে যান। সেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বঙ্গবন্ধুর এই দুই কন্যা। এরপর জাতির পিতা বাঙালি জাতির স্বাধীনতার জন্য দীর্ঘসময় যে কক্ষটিতে বন্দী থেকেছেন তা ঘুরে ঘুরে দেখেন। বিশেষ করে কারাবন্দী থাকা অবস্থায় বঙ্গবন্ধুর নিজের হাতে লাগানো কামিনী ও সফেদার গাছের নীচে দাঁড়িয়ে তাঁর দুই কন্যা আবেগ-আপ্লুত হয়ে পড়েন।

Picture

খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে বাবা বঙ্গবন্ধুর বন্দী জীবনে থাকার কক্ষ, ব্যবহূত চৌকি, টেবিল, চেয়ার, ভাঙা চায়ের কাপ, সিলভারের কেটলিসহ তৈজসপত্র দেখার সময় বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যার চোখ দিয়ে পানি গড়িয়ে পড়তে দেখা যায়। কখনো গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি, কখনো মাঝারি বৃষ্টির মধ্যেই স্মৃতির কারাগার পরিদর্শনকালে বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যার চোখে-মুখে ছিল বেদনার নীল রং। এসব জিনিসপত্র স্পর্শ করে দু’বোন যেন তাঁর পিতার স্পর্শ নেওয়ার চেষ্টা করেন। এ সময় দু’বোনের চোখেই ছিল অশ্রুতে ভেজা। বৃষ্টির মধ্যে এই আবেগাক্রান্ত পুরোনো স্মৃতি মনে হয় যেন আকাশটাও কাঁদছে। বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যার চেহারায় বিষাদের ছাপ আর সব হারানোর বেদনা যেন আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে ধরে। এরপর জাতির পিতার অজু করার স্থান ও রান্নাঘর হিসেবে ব্যবহূত ঘরটিও ঘুরে ঘুরে দেখেন তাঁরা। এ সময় তাদের সঙ্গে ছিলেন শেখ রেহানার পুত্র রেদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববি।
 alt
প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কারা স্মৃতি জাদুঘর থেকে বেরিয়ে এসে পুরাতন কারাগারের নকশা দেখেন। এ সময় আইজি প্রিজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন প্রধানমন্ত্রীর কাছে নকশার বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন। এখান থেকে প্রধানমন্ত্রী যান জাতীয় চার নেতা কারা স্মৃতি জাদুঘর ‘মৃত্যুঞ্জয়ী সেলে’। সেখানে প্রবেশের মুখেই রয়েছে জাতীয় চার নেতাকে হত্যার পর লাশ হস্তান্তরের আগ পর্যন্ত যে জায়গাটিতে মরদেহ রাখা হয়েছিল সান বাঁধানো সেই স্মৃতি চিহ্ন। জাতীয় চার নেতা কারা স্মৃতি জাদুঘরে প্রবেশের আগে সামনে সারিবদ্ধভাবে নির্মিত চার জাতীয় নেতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় শেখ রেহানা ও রেদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববিও শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
 alt
মৃত্যুঞ্জয়ী সেলের প্রথম কক্ষ, যে কক্ষে ৩ নভেম্বর কালরাতে ঘাতকরা জাতীয় চার নেতাকে একসঙ্গে জড়ো করে অত্যন্ত নিষ্ঠুর পৈশাচিক কায়দায় গুলি ও বেয়নেট দিয়ে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে হত্যা করেছিল, সেই কক্ষের সামনে এসে মুহূর্তের জন্য থমকে দাঁড়ান বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা। সারিবদ্ধভাবে তিনটি কক্ষে জাতীয় চার নেতা যেখানে থাকতেন, সেসব ঘরে প্রবেশ করে তাঁদের ব্যবহূত জিনিসপত্রও ঘুরে ঘুরে দেখেন তাঁরা। কক্ষটিতে প্রধানমন্ত্রী বেশ কিছুক্ষণ অবস্থান করেন। এরপর প্রধানমন্ত্রী দুর্লভ কিছু আলোকচিত্র নিয়ে তৈরি করা গ্যালারি পরিদর্শন করেন। এখানে ১৯৪৮ সালে ভাষা আন্দোলনের শুরুতে বঙ্গবন্ধুর কারাবরণের সময় থেকে নানা সময়ের আন্দোলন-সংগ্রামের প্রায় ১৪৫টি দুর্লভ আলোকচিত্র স্থান পেয়েছে।দেশ গঠনের নানা কার্যক্রম, বিভিন্ন রাষ্ট্রীয় সফর, বঙ্গবন্ধুর টানে হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের বাংলাদেশ ছুটে আসা, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব, তাঁর কন্যা শেখ হাসিনাসহ পরিবারের বিভিন্ন সদস্যের নানা সময়ের স্মৃতিকাতর ছবিগুলোও ছোট বোনকে সঙ্গে নিয়ে দেখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া কারাগারে প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশের মাত্র চার-পাঁচ হাত দূরেই বঙ্গবন্ধুর ব্যবহূত চশমা ও তামাকের পাইপের প্রতীকী স্থাপত্য নিদর্শনও প্রত্যক্ষ করেন তাঁরা। কারাগার পরিদর্শন শেষে যখন বেরিয়ে যাচ্ছিলেন তখনো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তাঁর ছোট বোন শেখ রেহানার চেহারায় বেদনার ছাপ ছিল স্পষ্ট।
 alt
প্রধানমন্ত্রীর কারা পরিদর্শনের সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, স্থানীয় সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিম, সাবেক এমপি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, সাবেক কূটনীতিক এ কে আবদুল মোমেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। ১৭৮৮ সাল ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি আমলে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে নির্মিত হয় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার। প্রথমে এটি ক্রিমিনাল ওয়ার্ড নামে পরিচিত ছিল। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার ইংরেজ, পাকিস্তান এবং স্বাধীন বাংলাদেশের নানা ঘটনার সাক্ষী। চলতি বছরের জুলাই মাসে কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়া ইউনিয়নের রাজেন্দ্রপুরে স্থানান্তর করা হয় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার। দেশের প্রাচীনতম এবং এক সময়ের সর্ববৃহত্ কারাগার পুরানা ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার এখন শুধুই ইতিহাস।


হাতিরঝিল: নগরে লুকিয়ে থাকা এক টুকরো সৌন্দর্য্য

রবিবার, ০৬ নভেম্বর ২০১৬

Picture

নগরীর হাতির ঝিলের ছোট্ট একটি অংশ রয়েছে টঙ্গি ডাইভারশন রোডের পশ্চিম দিকে। এই জলাশয়টির উত্তর দিকের পাড়ে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকলে আপনার মনটা ভালো হয়ে যাবে।

দক্ষিণপাশ ঘেঁঘে রেললাইন। একটু পরপর যখন সেই রেল লাইন ধরে ট্রেনগুলো ছুটে যায় আর তারও প্রতিচ্ছবি পড়ে ঝিলের পানিতে। তখন প্রকৃতি ও নাগরিক জীবনের এক অদ্ভুত মিশেলে তৈরি হয় বাড়তি altসৌন্দর্য্য। ক্যামেরায় কখনো পানিতে নীল আকাশ, কখনো কালো মেঘ আবার কখনো সাদা মেঘের ভেলা ধরা পড়ে।

আর রেললাইনটি এখানে এমন ভাবে প্রবাহিত যে সেখান থেকে দুটি ভাগ হয়ে উপরে ও নীচেও সৃষ্টি করে একই দৃশ্য। একই দালান কোঠা, একই রেল, এই মেঘ একই গালপালা দুই দিকেই।

এ ছাড়াও ঝিলের উত্তর দিকটা জুড়ে সবুল শ্যাওলা আর ঝিলপাড়ে ছাগল চড়ে বেড়ানো দৃশ্য আপনাকে এই নগরে গ্রামের সৌন্দর্য্যকেই মনে করিয়ে দেবে।


জেএসডি’র ৪৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

মঙ্গলবার, ০১ নভেম্বর ২০১৬

তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়ে এবারের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হবে - আ স ম আবদুর রব

আয়েশা আকতার রুবী,বাপসনিঊজ:জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি জনাব আ স ম আবদুর রব বলেছেন, গণতন্ত্র ও জনগনের স্ব-শাসন প্রতিষ্ঠায় দুই জোটের রাজনীতি অসার প্রমানিত হয়েছে। তাই বিভিন্ন উদার গণতান্ত্রিক ও বাম রাজনৈতিক শক্তি, পেশাজীবী ও সুশীল সমাজকে নিয়ে তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়ে আগামী ৩১ শে অক্টোবর জেএসডি’র ৪৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হবে। হত্যা, ধর্ষণ, লুটপাট, ঘুষ, দুর্নীতিমুক্ত দেশ গঠনেও তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি গড়ে তোলার কোন বিকল্প নাই। জনাব রব বিশে^র সেরা ম্যানগ্রোভ ফরেষ্ট সুন্দরবন রক্ষার্থে অবিলম্বে রামপাল থেকে কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র দুরে কোথাও সরিয়ে নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

alt
জেএসডি সাধারন সম্পাদক জনাব আবদুল মালেক রতন বলেন, দেশে নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। বাবা মা সন্তানকে ও সন্তান বাবা মাকে হত্যা করছে। এ অবস্থা পরিবর্তনের জন্য আইনী ব্যবস্থা গ্রহনের সাথে সাথে সামাজিক ও রাজনৈতিক নীতি-নৈতিকতার উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হবে।
আজ  বিকেল ৪টায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন কমিটির সভায় নেতৃবৃন্দ এ সকল কথা বলেন।
প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন কমিটির আহবায়ক জনাব এম এ গোফরানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় আরও বক্তব্য রাখেন জনাব আতাউল করিম ফারুক, জনাব মো: সিরাজ মিয়া, মিসেস তানিয়া ফেরদৌসী, জনাব শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন প্রমুখ।


জেএসডি’র ৪৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

শুক্রবার, ২৮ অক্টোবর ২০১৬

তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়ে এবারের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হবে...... আ স ম আবদুর রব
আয়েশা আকতার রুবী,বাপসনিঊজ:জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি জনাব আ স ম আবদুর রব বলেছেন, গণতন্ত্র ও জনগনের স্ব-শাসন প্রতিষ্ঠায় দুই জোটের রাজনীতি অসার প্রমানিত হয়েছে। তাই বিভিন্ন উদার গণতান্ত্রিক ও বাম রাজনৈতিক শক্তি, পেশাজীবী ও সুশীল সমাজকে নিয়ে তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়ে আগামী ৩১ শে অক্টোবর জেএসডি’র ৪৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হবে। হত্যা, ধর্ষণ, লুটপাট, ঘুষ, দুর্নীতিমুক্ত দেশ গঠনেও তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তি গড়ে তোলার কোন বিকল্প নাই। জনাব রব বিশে^র সেরা ম্যানগ্রোভ ফরেষ্ট সুন্দরবন রক্ষার্থে অবিলম্বে রামপাল থেকে কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র দুরে কোথাও সরিয়ে নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।
জেএসডি সাধারন সম্পাদক জনাব আবদুল মালেক রতন বলেন, দেশে নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। বাবা মা সন্তানকে ও সন্তান বাবা মাকে হত্যা করছে। এ অবস্থা পরিবর্তনের জন্য আইনী ব্যবস্থা গ্রহনের সাথে সাথে সামাজিক ও রাজনৈতিক নীতি-নৈতিকতার উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হবে।
আজ  বিকেল ৪টায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন কমিটির সভায় নেতৃবৃন্দ এ সকল কথা বলেন।
প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন কমিটির আহবায়ক জনাব এম এ গোফরানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় আরও বক্তব্য রাখেন জনাব আতাউল করিম ফারুক, জনাব মো: সিরাজ মিয়া, মিসেস তানিয়া ফেরদৌসী, জনাব শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন প্রমুখ।


রামপাল দু'দেশের সম্পর্ক বিনষ্ট করবে .....আ স ম আবদুর রব

রবিবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৬

বাপ্ নিউজ : স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলক, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী আ স ম আবদুর রব বলেছেন, রামপালের বিদ্যুৎ প্রকল্প নিয়ে ভারত, বাংলাদেশের দুই দেশের মানুষের মাঝেই উদ্বেগ দেখা দিয়েছে এবং এ প্রকল্প বাতিলের দাবী উঠছে। ইউনেসকো সহ সারা বিশ্বের পরিবেশবাদীরাও এ প্রকল্প বন্ধ করার আবেদন জানিয়েছে। সরকার যদি ক্ষমতার মোহগ্রস্ততায় একগুয়েমি বা জেদ করে এ প্রকল্প থেকে সরে না দাঁড়ায় তাহলে বাংলাদেশের জনগণের মাঝে ভারত বিরোধী মনোভাব বেড়ে উঠবে, যা দু'দেশের সম্প্রীতি ও সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ককে বিনষ্ট করবে। আমরা ভারত সরকারকেও অনুরোধ করবো এ প্রকল্প বন্ধ করে ভ্রাতৃপ্রতিম সম্পর্ক বিনষ্ট না করার উদ্যোগ নেয়ার জন্য। সরকার জেনেশুনে জনগণকে ভারত বিরোধীতায় ইন্দন জোগানো কোন ক্রমেই গ্রহণযোগ্য হবে না। এ প্রকল্প বাতিল করে সরকার দ্রুত দেশের পক্ষে অবস্থান নিবে-এটাই দেশবাসীর প্রত্যাশা।

alt
জনাব রব বলেন, স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান গুলোকে দলের অঙ্গ শাখায় পরিণত করা হচ্ছে-জনগণের প্রতিষ্ঠান দখল করা হচ্ছে। বিদ্যুৎ-গ্যাসের মুল্য বৃদ্ধির অপচেষ্টা বন্ধ করতে হবে। এছাড়া রাষ্ট্রের উচ্চ পর্যায় থেকে তৃণমূল পর্যন্ত ঘুষ-দুর্নীতি-নিয়োগ ও দখল বানিজ্যসহ হত্যা, গুম, খুন, অপহরণ করে দেশকে রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া করে দিচ্ছে। দেশবাসী জনগণকে এসবের বিরুদ্ধে দ্রুত প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।
জেএসডি সাধারন সম্পাদক জনাব আবদুল মালকে রতন বলনে,  জাতকিে সন্ত্রাস-জঙ্গীবাদ মুক্ত করার র্স্বাথে গনতন্ত্রকে তৃনমুল পর্যন্ত বিস্তৃত করে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন নিশ্চিত করতে হবে। দেশে গনতন্ত্র যত সম্প্রসারিত ও শক্তিশালী হবে- সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ ততই নিশ্চিহ্ন হবে।
আজ বিকেল ৪টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জেলা পরিষদ নির্বাচনের আগে পরিষদের ক্ষমতা ও করনীয় নির্ধারন, রামপাল থেকে  কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মানের স্থান পরিবর্তন, সন্ত্রাস-জঙ্গীবাদ নির্মূলে  জাতীয় ঐক্য গঠন ও গ্যাস-বিদ্যুতের মুল্য বৃদ্ধির অপতৎপরতা বন্ধ করার দাবীতে জেএসডি আয়োজিত সমাবেশ ও মানববন্ধনে নেতৃবৃন্দ এ সকল কথা বলেন। জেএসডি সভাপতি জনাব আ স ম আবদুর রব এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেএসডি সাধারন সম্পাদক জনাব আবদুল মালেক রতন, জনাব এম এ গোফরান, আতাউল করিম ফারুক, মো: সিরাজ মিয়া, মিসেস তানিয়া ফেরদৌসী, শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন প্রমুখ।
সমাবেশ শেষে একটি মিছিল জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে শুরু করে বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়।
এ পর্যন্ত প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসাবে বরিশাল, ঝালকাঠি, সিরাজগঞ্জ, যশোর, বগুড়া, রংপুর জেলা ও মহানগর, টাঙ্গাইল, খুলনা জেলা ও মহানগর, বাগেরহাট, চট্টগ্রাম উত্তর, দক্ষিন,মহানগর সহ বিভিন্ন জেলায় সমাবেশ, মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচী পালিত হয়। এখনও  খবর আসছে।