Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

নিউয়র্কের খবর

ছোট মনি জোনাইরা ফারিনের প্রথম জন্মদিন পালন

সোমবার, ০৯ অক্টোবর ২০১৭

Picture

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজ : কিশোরগঞ্জ জেলা সমিতি ইউএসএ’র সম্ভাব্য যুগ্ম সাধারন সম্পাদক জাবির হোসেন তাকবির ও ফাতেমাতুজ জোহরা বাবলি’র একমাত্র তনয়া জোনাইরা ফারিনের প্রথম জন্মদিন গত ১ অক্টোবর রবিবার সন্ধ্যা ৭টায় নিউইয়র্কের ১৬২-১৫ হাইল্যান্ড এভিনিউ জ্যামাইকায় অনুষ্ঠিত হয়। খবর বাপসনিউজ।

alt

ছোট মনির ফারিনের প্রথম জন্মদিন উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রবাসের বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

alt

বিশেষ করে কিশোরগঞ্জ জেলাবাসী স্বপরিবারে অংশনেন।

alt

ছোট মনি ফারিনের জন্মদিনের কেক কাটার সময়  কিশোরগঞ্জের আরো অনেক শিশুরা উপস্থিত হয়ে তাকে আনন্দ দেয়।

alt
কিশোরগঞ্জ জেলা-বাসীদের উপস্থিতিতে ছোট মনি ফারিনের জন্মদিন উৎসবে পরিণত হয়।

alt

শেষে রকমারী ও সুস্বাদু আয়োজনে সবাইকে নৈশ্যভোজে আপ্যায়ণ করা হয়।


নিউইয়র্কে সাবেক রাষ্ট্রদূত ড. আবদুল মোমেন সংবর্ধিত

সোমবার, ০৯ অক্টোবর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজ : জাতিসংঘে বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত অধ্যাপক ডঃ একে আব্দুল মোমেনকে নিউইয়র্কে নাগরিক সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের বেলিজিনো পার্টি হলে কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে উক্ত সংবর্ধনা দেয়া হয়।

alt

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি সৈয়দ বশারত আলী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সংবর্ধনা কমিটির সদস্য সচিব ইফজাল আহমেদ চৌধুরী ও যুগ্ম সদস্য সচিব হুমায়ুন আহমেদ চৌধুরী।  

alt
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর আলেয়া সারোয়ার ডেইজী,যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা  সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম এ সালাম,  বাংলাদেশ লীগ অব আমেরিকা’র সাবেক সভাপতি ও ড. মোমেনের বড় ভাই শেলী এ মুবদী, বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ, জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকার ট্রাষ্ট্রি সদস্য জহিরুল ইসলাম, ফার্মাসিস্ট আব্দুল আওয়াল সিদ্দিকী, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ডা. মাসুদুল হাসান,যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন,যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা এম এ জলিল ও তোফায়েল আহমেদ চৌধুরী, সহ সভাপতি আবুল কাশেম,  সাধারণ সম্পাদক  আবদুস সামাদ আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন দেওয়ান, মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক মিসবাহ আহমেদ, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক ফরিদ আলম, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ যুক্তরাষ্ট্র কমান্ডের কমান্ডার ডা. এম এ বাতেন, মুক্তিযোদ্ধা সরাফ সরকার, দি অপটিমিস্ট-এর প্রধান সমন্বয়কারী রানা চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাজী আব্দুর রহমান, যুক্তরাষ্ট্র জাসদ- সভাপতি দেওয়ান শাহেদ চৌধুরী, নিউইয়র্ক ষ্টেট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন আজমল, কানেকটিকাট আওয়ামী লীগের সভাপতি জুনেদ এ খান, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ফকু চৌধুরী, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিস্ট ছদরুন নূর ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতা খসরুজ্জামান খসরু।

alt

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত ও বিশেষ মুনাজাত পরিচালনা করেন ডাউন টাউন ম্যানহাটান মসজিদের খতিব মওলানা কারী মোহাম্মদ রহমত উল্লাহ। এরপর বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের পর প্রজেক্টটরে ড. মোমেনকে নিয়ে বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের অংশ বিশেষ ও কর্মকান্ড তুলে ধরা হয়।

alt
 
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সোসাইটি ’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপিকা রানা ফেরদৌস চৌধুরী। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন, সংবর্ধনা কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাজী এনাম, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আশরাফুজ্জামান, আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ কফিল আহমেদ, যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা আহবায়ক রেজাউল করীম চৌধুরী, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আহসান হাবিব, মূলধারার রাজনীতিক আব্দুস শহীদ, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিস্ট শাহ মিজানুর রহমান, নাসির উদ্দিন, জাহাঙ্গীর কবীর, এএফ মিসবাহউজ্জামান, কবি সোনিয়া কাদের, বাংলাদেশ সোসাইটি নিউইয়র্ক’র সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক মনিকা রায়, ওসমানী স্মৃতি পরিষদের সভাপতি নজমুল ইসলাম চৌধুরী, নিউইয়র্ক ষ্টেট আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ এম এইচ মতিন, নিউজার্সী আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক টিপু সুলতান, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ নেতা এমাদ উদ্দিন, জাভেদ সিরাজ, যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক শেখ জামাল হোসেন, সেবুল মিয়া ও রহিমুজ্জামান সুমন, যুবলীগ নেতা শোয়েব আহমেদ, জর্জিয়া যুবলীগের সভাপতি নূরুল তালুকদার নাহিদ প্রমুখ।

alt
 
সংবর্ধিত ডঃ এ. কে. আবদুল মোমেন বলেন, জাতিসংঘের স্থায়ী প্রতিনিধির হিসেবে ৬ বছর কাজ করার পর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে দেশে ফিরিয়ে নিয়ে গেছেন এবং কিছু দায়িত্ব দিয়েছেন। আমি সেই দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সরকারের অর্থমন্ত্রীর সহযোগিতায় সিলেটের উন্নয়নে কিছু কাজ করে চলেছি।

alt

ড. মোমেন বলেন, বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলেছে। এই বাংলাদেশকে আরো এগিয়ে নিতে হবে। তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে আমি জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হই বা না হই, সিলেটের জন্য কাজ করে যাবো। আমি সিলেটকে দৃষ্টি নন্দন সিলেট আর উন্নত বাংলাদেশ দেখতে চাই।

alt

এজন্য দেশে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে, মানব সম্পদ কাজে লাগাতে হবে, সন্ত্রাসমুক্ত সমাজ গড়তে হবে, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে হবে। তিনি বলেন, দীর্ঘ প্রবাস জীবন ছেড়ে দুই বছর ধরে আমি বাংলাদেশে বসবাস করছি। আমি ভালো আছি, শান্তিতে আছি, উই আর ভেরী হ্যাপি। আগামী দিনের পথ চলায় তিনি সকল প্রবাসীর সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

alt
 
অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশীসহ ড. মোমেনের বড় ভাই শেলী এ মুবদী, মেঝো ভাই এস এ মুইজ সুজন, ছোট ভাই এবিএম মুমিত ফুয়াদ ও কন্যাসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্য ও স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।


কিশোরগঞ্জ ডিষ্ট্রিষ্ট এসোসিয়েশন ইউএসএ’র নির্বাচনে = সভাপতি আনোয়ার ও সাধারণ সম্পাদক এনামুলসহ সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

রবিবার, ০৮ অক্টোবর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন ,বাপসনিউজ : কিশোরগঞ্জ ডিষ্ট্রিষ্ট এসোসিয়েশন অব ইউএসএ’র ২০১৮-২০১৭ এর নির্বাচনে সভাপতি আনোয়ার উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক এনামুল হকের নেতৃত্বে একটি পূণাঙ্গ প্যানেল নির্বাচন কমিশনের কাছে জমা হওয়ায় এই প্যানেলকে নির্বাচন কমিশন এক সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে গত ৫ অক্টোবর বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় নিউইয়র্কের বাঙ্গালী অধ্যুাষিত জ্যাকসন হাইটসের ইত্যাদি রেষ্টুরেন্টে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার এএসএম ফেরদৌস। এ সময় নির্বাচন কমিশনার অধ্যক্ষ মোক্তার হোসেন, হাবিব রহমান হারুন, এবং কার্যকরী কমিটির আহবায়ক ফার্মাসিষ্ট আব্দুল আওয়াল সিদ্দিকী, সদস্যবৃন্দ ইঞ্জিনিয়ার একেএম আশরাফুল হক ,হেলাল উদ্দিন আহমেদ, সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন ও জাইদুল কবীর খান সারোয়ার   উপস্থিত ছিলেন। খবর বাপসনিউজ।

Picture

উল্লেখ্য, কিশোরগঞ্জ ডিষ্ট্রিষ্ট এসোসিয়েশনের ইউএসএ’র নির্বাচনে মনোনয়নপত্র বিতরণের তারিখ ছিল ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে ২৫ সেপ্টেম্বর , মনোনয়নপত্র বাছাই ২৭ সেপ্টেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ৪ অক্টোবর, চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা ৫ অক্টোবর এবং ৫ নভেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠান হওয়ার কথা থাকলেও,আনোয়ার উদ্দিন সভাপতি ও এনামুল হক সাধারন সম্পাদক হিসেবে তাদের নেতৃত্বে একটি মাত্র প্যানেলে জমা ঘওয়ায় আর কোন প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী না থাকায় নির্বাচন কমিশন তাদেরকে নির্বাচিত ঘোষণা করেছেন।

alt
নির্বাচনে পূণ্াঙ্গ কমিটিতে নির্বাচিতরা হলেন ১। সভাপতি – আনোয়ার উদ্দিন,২।সিনিয়র সহ সভাপতি  জয়ন্ত কে শর্মা,৩। সহ –সভাপতি  হুমায়ুন কবীর, ৪। সহ সভাপতি  মোহাম্মদ -ই –হাসান,৫। সহ সভাপতি মীনা ইসলাম,
৬। সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ এনামুল হক,৭। যুগ্ম-সাধাঃ সম্পাদক মোঃ জাবির হোসেন তাকবির,৮। যুগ্ম সাধারন  সম্পাদক  মহিবুর রশিদ সুজন,৯। সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আলী আহসান আকন্দ শামিম,১০। কোষাধ্যক্ষ  মোঃ বদরুল ইসলাম,১১। সমাজ কল্যাণ সম্পাদক  মোঃ আব্দুল আলীম,১২। জনসংযোগ সম্পাদক  মোঃ ফয়সল কবীর,১৩। যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক  জাহাঙ্গীর জামিল,১৪। সাংস্কৃতিক সম্পাদক ঃ মোঃ গোলাম শামীম,১৫। শিক্ষা সম্পাদক  তানবীর রায়হান মিঠু,১৬। মহিলা বিষয়ক সম্পাদক  খালেদা আক্তার কিরন,
১৭। ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক  তপন কুমার বিশ^াস,১৮। সহ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ঃ ফয়সল উদ্দিন খান,১৯। দপ্তর সম্পাদক  হাবিবুর রহমান,২০। আইন বিষয়ক সম্পাদক  রাহাত বিন মোক্তার রিমিক,২১। কার্যকরী সদস্য মেজবাহ উদ্দিন,২২। কার্যকরী সদস্য  নজরুল ইসলাম,২৩। কার্যকরী সদস্য  মোঃ আলাউদ্দিন,২৪। কার্যকরী সদস্য  মোঃ এইচ. ওহমান,২৫। কার্যকরী সদস্য  মোঃ এ, উদ্দিন,২৬। কার্যকরী সদস্য  মোঃ সাইফুল ইসলাম,
২৭। কার্যকরী সদস্য  মোঃ শহীদুল হাসান,২৮।কার্যকরী সদস্য ঃ মোঃ জেকে খান,২৯। কার্যকরী সদস্য  হেলাল উদ্দিন আহমেদ,৩০। কার্যকরী সদস্য  একেএম আশরাফুল হক  এবং ৩১ । কার্যকরী সদস্য  আব্দুল আওয়াল সিদ্দিকী ।

alt

কিশোরগঞ্জ ডিষ্ট্রিষ্ট এসোসিয়েশন ইউএসএ’র নির্বাচনে
সভাপতি আনোয়ার ও সাধারণ সম্পাদক এনামুলসহ সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত  হওয়ায়  নবনির্বাচিত সকল কর্মকর্তাদের প্রবাসের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন অভিনন্দন জানিয়েছেন আমেরিকা- বাংলাদেশ এলাইন্সের প্রেসিডেন্ট ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক এমএ সালাম, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ যুক্তরাষ্ট্র কমান্ড-এর আব্দুল মুকিত চৌধুরী,যুক্তরাষ্ট্র সোহরাওয়ার্দী স¥ৃতি পরিষদের সভাপতি শিশু সাহিত্যিক হাসানুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন, নিউইংল্যান্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ওসমান গণি ও সাধারণ সম্পাদক সুহাস বড়ুয়া, সেন্ট্রাল ফ্লোরিডা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহবুবুর রহামন মিলন  ও সাধারণ সম্পাদক আলো আহমেদ, আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন  সভাপতি সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন ও সাধারণ সম্পাদক হেলাল মাহমুদ, বোস্টনবাংলানিউজ ডটকম সহযোগী সম্পাদক বিশ্বজিৎ সাহা ও নাসিম পারভীন, ইউএসএ বাংলানিউজ এর সম্পাদক আবু সাঈদ রতন, বঙ্গবন্ধু সেনটার  মহাসচিব ভূতত্ত্ববিদ গিয়াস উদ্দিন আহম্মদ ,কবি ও সঙ্গীত শিল্পী শামীমআরা আফিয়া, কবি আব্দুল আজিজ, ফিরোজ মাহমুদ ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি হাজী আনোয়ার হোসেন লিটন ও সাধারণ সম্পাদক শামসুউদ্দিন আহমেদ শামীম এবং প্রমুখ।

জানা গেছে মহান বিজয় দিবসের ৪৬তম বার্ষিকীতে  নবনির্বাচিত কর্মকর্তাদের অভিষেক অনুষ্ঠিত হবে ডিসেম্বর মাসে।


নিউইয়র্কে এবিসিসিআই’র ‘বাংলাদেশে অর্থ প্রেরণে প্রবাসীদের ভূমিকা’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

রবিবার, ০৮ অক্টোবর ২০১৭

Picture

‘বাংলাদেশে অর্থ প্রেরণে প্রবাসীদের ভূমিকা’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তব্য উপস্থাপনকালে রূপালী ব্যাংকের এই কর্মকর্তা আরো বলেছেন, রাজধানী ঢাকাসহ বিভাগীয় শহরে এপার্টমেন্ট ক্রয় এবং নিজ ভূমিতে এপার্টমেন্ট নির্মাণের জন্যে এই ঋণ প্রকল্প চালূ করা হয়েছে। তবে আবেদনকারি প্রবাসীকে ৩০% ব্যয় করতে হবে। ব্যাংক ঈস্খদান করবে ৭০%। যুক্তরাষ্ট্র থেকে রূপালী ব্যাংকের (যা শীঘ্রই নিউইয়র্কে চালু হতে যাচ্ছে) রেমিটেন্স হাউজের মাধ্যমে ঋণের কিস্তি পরিশোধ করতে হবে।’ ঋণের আবেদনপত্রে নিজের পাসপোর্ট এবং কর্মক্ষেত্রের প্রত্যায়নপত্র অথবা ট্যাক্স প্রদানের কপি দিতে হবে। বাংলাদেশের একজন গ্যারান্টারও লাগবে। এ প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করতে রূপালী ব্যাংকের সদর দফতরে ‘প্রবাসী হেল্্প ডেস্ক’ চালু করা হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন আতাউর রহমান প্রধান।

alt

ইংল্যান্ডে সোনালী এক্সচেঞ্জে সাড়ে তিন বছর দায়িত্ব পালনের অভিজ্ঞতায় আতাউর রহমান বলেন, ‘স্বদেশে নীড় রচনায় রূপালী ব্যাংক প্রবাসীদের পাশে দাঁড়াতে চায়। প্রবাসীদের প্রেরিত অর্থে বাংলাদেশের অর্থনীতি চাঙ্গা রয়েছে। রূপালী ব্যাংকের এই কর্মসূচি অবশ্যই প্রবাসীদের প্রত্যাশার প্রতিফলন ঘটাতে অপরিসীম ভ’মিকা রাখবে-এতে কোনই সন্দেহ নেই।’

alt

এ সময় আতাউর রহমান প্রধান বিশেষভাবে উল্লেখ করেন, ‘স্বদেশে ছোট-বড়-মাঝারি শিল্প কারখানার জনেও রূপালী ব্যাংক প্রবাসীদের ঋণ দিচ্ছে ঐ একই বিধিতে অর্থাৎ ৩০% বিনিয়োগের পর ৭০% প্রদান করছে রূপালী ব্যাংক। ইতিমধ্যেই অনেক প্রবাসী সে সুযোগ গ্রহণ করেছেন।’

alt

সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন রূপালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান মঞ্জুর হোসেন। তিনি বলেন, ‘প্রবাসীদের কষ্টার্জিত অর্থ জাতীয় কল্যাণে ব্যয় করা হয়। তবে সে অর্থ যদি বৈধপথে বাংলাদেশে যায়। বৈধপথে প্রেরিত অর্থে নিজ দেশে প্রবাসীরা অনেক কিছু করছেন। শুধু তাই নয়, অর্থ প্রেরণকারিদের সম্মান জানানোর ব্যবস্থাও রয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে।’

alt
রূপালী ব্যাংক সব সময় প্রবাসীদের পাশে উদারচিত্তে অবস্থান করে দাবি করে মঞ্জুর হোসেন বলেন, ‘সহজ শর্তে বাড়ির মালিক হবার ঋণের এ প্রস্তাব আমেরিকা প্রবাসীরা লুফে নেবেন বলে আশা করছি। এ ঋণের ক্রাইটেরিয়া পূরণের পর কোন ঝক্কি-ঝামেলা থাকবে না। হেল্্প ডেস্কের মাধ্যমে যাবতীয় সহায়তা প্রদানের নিশ্চয়তা রয়েছে।’

alt

যুক্তরাষ্ট্রস্থ ‘এবিসিসিআই’ নামক একটি সংস্থার উদ্যোগে জ্যাকসন হাইটসে বেলাজিনো পার্টি অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন সংস্থাটির প্রধান হাসানুজ্জামান হাসান। সেমিনারে প্যানেলিস্ট হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান ড. এ কে এ মোমেন। ড. মোমেন বলেন, ‘বাংলাদেশ এগিয়ে চলছে শেখ হাসিনার বিচক্ষণতাপূর্ণ নেতৃত্বের গুণে। এগিয়ে চলার এই গতি ত্বরান্বিত করছেন প্রবাসীরা। বাংলাদেশের মত এই প্রবাসেও উন্নয়নের সাথে প্রায় সকল প্রবাসীই একিভ’ত হয়েছেন।’ উপস্থিত সুধীজনের মধ্য থেকে বিষয়ের উপর আলোকপাত করেন ফাহাদ সোলায়মান, পল খান এবং আব্দুর রাজ্জাক।  সর্বস্তরে প্রতিনিধিত্বকারি প্রবাসীরা উপস্থিত ছিলেন এ অনুষ্ঠানে।


নারীর উন্নয়নে সম্মণনা জানালো ড. আফরোজা পারভীনকে

শুক্রবার, ০৬ অক্টোবর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজ ঃ নিউইয়র্কে সফররত নারী উন্নয়ন শক্তি (নাস) এর নির্বাহী পরিচালক ড. আফরোজা পারভীনকে গত ৩০ সেপ্টেম্বর শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় নিউইয়র্কের বাঙ্গালী অধ্যুাষিত জ্যাকসন হাইটসের পালকির চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে কুষ্টিয়া জেলা সমিতি ইউএসএ’র উদ্যোগে এক সংবর্ধনা এবং নারীর উন্নয়নে বিশেষ অবদানের জন্য তাকে সম্মাণনা এ্যওয়ার্ড প্রদান করা হয়। খবর বাপসনিউজ।

alt

কুষ্টিয়া জেলা সমিতি ইউএসএ’র  উপদেষ্টা ও সাংস্কৃতিক সংগঠন সুর-ছন্দ শিল্পী গোষ্ঠীর সভাপতি ইমদাদুল হকের সভাপতিত্বে এবং সাধারন সম্পাদক আসাদুজ্জামানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ড. আফরোজা পারভীনকে প্রথমে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।
 alt
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন সভাপতি ও বাপসনিউজ এডিটর হাকিকুল ইসলাম খোকন, তারার আলো ইউএসএ’র সভাপতি মিনা ইসলাম ও প্রবাসী রহমতউল্লাহ।

Picture

জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশ ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা ও সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা আহবায়ক এমএ রহমান রমিও’র সার্বিক তত্ত্ববধানে ড. আফরোজা পারভীনকে নারী ও শিশুর উন্নয়নে বিশেষ অবদানের জন্য প্রবাসীদের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে সম্মননা এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

alt

প্রবাসের বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

alt

বক্তব্য রাখেন জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশ ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা ও সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা আহবায়ক এমএ রহমান রমিও, তারার আলোর সাধারণ সম্পাদক মনি হক, কুষ্টিয়া জেলা সমিতি ইউএসএ’র প্রচার সম্পাদক আম্বিয়া বেগম অন্তরা, সমাজসেবক আক্তারুজ্জামান। অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আসাদুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মুনছুর আলম মুন্না, সাংগঠনিক সম্পাদক জগলুল হক শাহীন,সমাজকল্যান সম্পাদক আশরাফুল আলম, শাহীন আলম, সহ প্রচার সম্পাদক সাজেদুর রহমান টেনটু, আলমগীর হোসেন প্রমুখ।

alt
উক্ত অনুষ্ঠানে তারার আলোর সভাপতি মিনা ইসলাম ড. আফরোজা পারভীনের জীবন বৃত্তান্ত পাঠ করেন। আফরোজা পারভীন নারী উন্নয়ন শক্তির প্রতিষ্ঠাতা এবং নির্বাহী পরিচালক হিসেবে তার সুদীর্ঘ ২৫ বছরের অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন। অনুষ্ঠানে সমিতির উপদেষ্ঠা মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম হেইট ক্রাইমের স্বীকার হয়ে এলমহাষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় তার সুস্থতা কামনা করা হয়।

alt

সংবর্ধিত অতিথি ড. আফরোজা পারভীন কুষ্ঠিয়া জেলা সমিতিসহ প্রবাসীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান তাকে এ সম্মাণ দেওয়ার জন্য।  শেষে সবাইকে নৈশভোজে আপ্যায়ণ করা হয়।


কিশোরগঞ্জ ডিষ্ট্রিক্ট এসোসিয়েশন ইউএসএ’র নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র দাখিল

বৃহস্পতিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭

Picture

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজ : কিশোরগঞ্জ ডিষ্ট্রিক্ট এসোসিয়েশন ইউএসএ’র নির্বাচনে ২০১৭ এর নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনোযায়ী গত ২৬ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার রাত ৮টায় নিউইয়র্কের বাঙ্গালী অধ্যষিত জ্যাকসন হাইটসের পালকির চাইনিজ রেষ্টেুরেন্টে প্রধান নির্বাচন কমিশনার এএসএম ফেরদৌস, কমিশনার অধ্যক্ষ মোক্তার হোসেন ও হাবিব রহমান হারুনের উপস্থিতিতে তাদের নিকট সভাপতি প্রার্থী আনোয়ার উদ্দিন খান ও সাধারন সম্পাদক প্রার্থী এনামুল হকের নেতৃত্বে ৩৯ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ একটি প্যানেল মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন ।

alt

মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জ ডিষ্ট্রিক্ট এসোসিয়েশন ইউএসএর আহবায়ক ফার্মাসিষ্ট আব্দুল আওয়াল সিদ্দিকী, সদস্যবৃন্দ ইঞ্জিনিয়ার একেএম আশরাফুল হক ,হেলাল উদ্দিন আহমেদ, সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন ও জাইদুল কবীর খান সারোয়ার ।

alt

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আলী আহসান আকন্দ শামীম, জাবির হোসেন তাকবীর,হুমায়ুন কবীর, সাইফুল ইসলাম, মহিবুর রশিদ সূজন,নজরুল ইসলাম,কামাল উদ্দিনপ্রমুখ। নৈশভোজের মাধ্যমে নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জ্ঞাপনের পর অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

alt

উল্লেখ্য ৫ অক্টোবর বৃহষ্পতিবার চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হবে। ধারণা করা হচ্ছে রাত ৮টায় নির্বাচনের প্রার্থীদের একই পদে প্রতিদন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হবে।


কিশোরগঞ্জ ডিষ্ট্রিক এসোসিয়েশন ইউএসএ’র ঈদ পূর্নমিলনী ও গুনীজন সম্মানণা অনুষ্ঠিত

বৃহস্পতিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭

Picture

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজ ঃ প্রবাসের অন্যতম সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন কিশোরগঞ্জ ডিষ্ট্রিক এসোসিয়েশন অব ইউএসএ’র উদ্যোগে ঈদ পূর্ণমিলনী ও গুণীজন সম্মনণা অনুষ্ঠিত হয় গত ২৪ সেপ্টেম্বর রবিবার সন্ধ্যা ৮টায় নিউইয়র্কের বাঙ্গালী অধ্যাষিত জ্যামাইকার ঘরোয়া রেষ্টুরেন্টের হলরুমে (১৬৪-৪১ হিলসাইড এভিনিউ, জ্যামাইকা, এনওয়াই ১১৪৩২)।খবর বাপসনিঊজ।

alt

উক্ত ঈদ পূর্ণমিলনী ও গুণীজন সম্মানণা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কিশোরগঞ্জ ডিষ্টিক এসোসিয়েশন অব ইউএসএ’র আহবায়ক আব্দুল আওয়াল সিদ্দিকী ও  পরিচালনা করেন কিশোরগঞ্জ ডিষ্টিক এসোসিয়েশন অব ইউএসএ’র সাবক সভাপতি  স ালনায় ছিলেন সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান হারুন ও  সাবেক সহ সভাপতি আনোয়ার উদ্দীন খান।

alt

পূর্ণমিলনী ও গুণীজন সম্মানণা অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র সফররত অধ্যক্ষ এডভোকেট এমএ রশিদ,অধ্যক্ষ নাজিম উদ্দিম,অধ্যক্ষ মোক্তার হোসেন এবং  নারী উন্নয়ন শক্তি (নাস)- নর্বিাহী পরচিালক যুক্তরাষ্ট্র সফররত মানবাধিকার কর্মী ড.আফরোজা পারভীন ।

alt

সভায় বক্তব্য রাখেন সদস্যবৃন্দ ইঞ্জিনিয়ার একেএম আশরাফুল হক ,হেলাল উদ্দিন আহমেদ , সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন, এবং জাইদুল কবীর খান সারোয়ার , আব্দুর রাজ্জাক,আনোয়ার উদ্দিন খান, এনামুল হক ,আলী আহসান আকন্দ শামীম, জাবির হোসেন তাকবীর,হুমায়ুন কবীর, সাইফুল ইসলাম, মহিবুর রশিদ সূজন,নজরুল ইসলাম,কামাল উদ্দিন প্রমুখ।


alt
সংবর্ধিত অতিথীদের ফুলের তোড়া দিয়ে স্বাগত জানায় ছোটশিশু  আপনান প্রিয় ও রুপকথা।

alt

সংগঠন কিশোরগঞ্জ ডিষ্ট্রিক এসোসিয়েশন অব ইউএসএ’র পক্ষ থেকে গুণীজন সম্মানণা প্রদান করা হয় যুক্তরাষ্ট্র সফররত অধ্যক্ষ এডভোকেট এমএ রশিদ,অধ্যক্ষ নাজিম উদ্দিম,অধ্যক্ষ মোক্তার হোসেন এবং  নারী উন্নয়ন শক্তি (নাস)- নর্বিাহী পরচিালক যুক্তরাষ্ট্র সফররত মানবাধিকার কর্মী ড.ড.আফরোজা পারভীন ।

alt
 সভার প্রারম্ভে ‘৭১এর মুক্তিযুদ্ধ ও মহান ‘৫২’এর ভাষা আন্দোলন সহ আজ পর্যন্ত সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নিহতদের স্মরণে দাঁড়িয়ে ১ মিনিটকাল নীরবতা পালন করা হয়। শেষে প্রীতি ভোজের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।


জাতিসংঘের বাইরে আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ

সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্‌স নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে :প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন শান্তির বার্তা নিয়ে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭২তম অধিবেশনে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পৌনে ৭ টায় ভাষণ দেন, তখন জাতিসংঘ সদর দপ্তরের বাইরে আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ করে ।

জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কেন্দ্র করে পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী দুপুর থেকেই জা্তিসংঘ সদর দপ্তরের সামনে জড়ো হতে শুরু করেন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা।

প্রধানমন্ত্রীর ভাষণকে স্বাগত জানাতে জাতিসংঘের সামনে পূর্বনির্ধারিত শান্তি সমাবেশের আয়োজন করে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠন। এর নেতৃত্ব দেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান।

alt

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান ছাড়াও শান্তি সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন, দলটির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক আহমেদ, আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন ও সাধারণ সম্পাদক হেলাল মাহমুদ, এবিসিডিআই সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ড. প্রদীপ রঞ্জন কর, আব্দুর রহিম বাদশা, মিনাল কাদির বাপ্পা , সেন্ট্রাল ফ্লোরিডা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহবুবুর রহামন মিলন ও সাধারণ সম্পাদক আলো আহমেদ ,মুক্তিযোদ্ধা বিএম জাকির হোসেন হিরু ভূইয়া, মুক্তিযোদ্ধা গোলাম কুদ্দুস,জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি হাজী আনোয়ার হোসেন লিটন ও সাধারণ সম্পাদক শামসুউদ্দিন আহমেদ শামীম, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জাসদ যুক্তরাষ্ট্র শাখার সিনিয়র সহ সভাপতি দেওয়ান শাহেদ চেীধুরী ও সাধারান সম্পাদক নূরে আলম,শেখ হাসিনা মঞ্চে যুক্তরাষ্ট্রের সভাপতি হাজী জালাল উদ্দিন জলিল ও সাধারণ সম্পাদক কায়কোবাদ খান, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাফজুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুর রহমান চৌধুরীপ্রমুখ।


ঢাকা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান মাহবুব-এর সংবর্ধনা ২৫ সেপ্টেম্বর

সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজ : ঢাকা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, আওয়ামী লীগনেতা ও মুক্তিযোদ্ধা মাহবুবুর রহমান মাহবুব-এর সার্বজনীন সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হবে ২৫ সেপ্টেম্বর সোমবার নিউইয়র্কেও জ্যাকসন হাইটসের পালকি সেন্টারে ।

দোহার উপজেলা প্রবাসী নিউইয়র্কের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা সভায় সকল প্রবাসীদের স্বাদর আমন্ত্রণ জানিয়েছেন সংবর্ধনা কমিটির আহবায়ক এম আনোয়ার হোসেন, সদস্য সচিব দুলাল বেহেদু, প্রধান সমন্বয়কারী আব্দুর রাজ্জাক নানুসহ সংবর্ধনা কমিটির নেতৃবৃন্দ।


বিএনপির সঙ্গে রাজনৈতিক সমঝোতা নয় : প্রধানমন্ত্রী

শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্‌স নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে : বিএনপির সঙ্গে যেকোনো রাজনৈতিক সমঝোতার কথা নাকচ করে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ভবিষ্যতে কেউ যেন এ ধরনের প্রস্তাব নিয়ে না আসে।শুক্রবার সকালে নিউইয়র্কে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা সন্ত্রাস ও হত্যার রাজনীতির সঙ্গে জড়িত আমি তাদের কাছে ফিরে যেতে আগ্রহী নই। তাই বিএনপির সঙ্গে রাজনৈতিক সমঝোতার প্রস্তাব দেয়া কারও উচিত হবে না।শেখ হাসিনা বলেন, যারা হত্যা ও সন্ত্রাসের রাজনীতি, বঙ্গবন্ধুর বর্বরোচিত হত্যাকাণ্ড এবং দেশকে ধ্বংসে বিশ্বাসী তাদের সঙ্গে কোনো রাজনৈতিক সমঝোতা হতে পারে না।তিনি বলেন, যারা আমার বাবা-মাকে হত্যা করেছে তাদের সঙ্গে কখনও সমঝোতা হতে পারে না।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭২তম অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর অংশগ্রহণের সফলতার সম্পর্কে তুলে ধরতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী এবং জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলন সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম। প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার অথবা তার বাবা-মার খুনিদের কারও সঙ্গে সমঝোতার চিন্তা করা অসম্ভব। তিনি বলেন, ২০১৪ সালে নির্বাচনের আগে আমি বিএনপি নেত্রীর সঙ্গে সমঝোতার চেষ্টা করেছি। শেখ হাসিনা খালেদা জিয়ার ছোট ছেলের মৃত্যুর পর তাকে ফোন করা এবং সান্ত্বনা দেয়ার জন্য তার অফিসে যাওয়ার কথা উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া তার অফিসে প্রবেশ করার অনুমতি দেননি।

বাংলাদেশে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের প্রবেশ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশ যদি ১৬ কোটি মানুষকে খাওয়াতে পারে, তাহলে ৭ থেকে ৮ লাখ শরণার্থীকেও খাওয়াতে পারবে।তিনি বলেন, আমি এ ব্যাপারে শেখ রেহানার সঙ্গে কথা বলেছি। সেও একই মতামত ব্যক্ত করেছে।চীন ও ভারতের সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে কোন আলোচনা হয়েছে কিনা প্রশ্ন করা হলে শেখ হাসিনা বলেন, চীন ও ভারতসহ সকল দেশের কূটনীতিকরা কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির পরিদর্শন করেছেন। তারা সবাই শরণার্থীদের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, চীন ও ভারত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে বাংলাদেশের পাশে এগিয়ে এসেছে। তারা সব ধরনের সহযোগিতা করছে।শেখ হাসিনা বলেন, ৫টি প্রতিবেশি দেশের সঙ্গেই মিয়ানমারের বিরোধ রয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভাষণে তিনি জাতিসংঘ ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে ধর্ম, বর্ণ ও জাতিগত নির্বিশেষে সকল বেসামরিক মানুষকে রক্ষার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধানে অবিলম্বে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণেরও আহ্বান জানান।জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে তাঁর অংশগ্রহণকে সফল ও ফলপ্রসূ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বে শান্তি, নিরাপত্তা ও উন্নয়নে অবদান রেখে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি আরো উজ্জ্বল হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর সরকার প্রবাসী বাংলাদেশীদের কল্যাণে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। অপর এক প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, স্থপতি নভেরা আহমেদ ও হামিদুর রহমানের স্মৃতি সংরক্ষণে সরকার ঢাকার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার সম্প্রসারণের পরিকল্পনা নিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের দাবি নিউ ইয়র্ক-ঢাকা বিমান চালুর বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিমানের যে সর্বনাশ সেটা বিএনপি করে গেছে। বিএনপি-জামায়াত সরকারের আমলে লোকসান দেখিয়ে বিমানকে ধংস করেছে।১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার আগে চলাচলের অনুপযোগী মাত্র দুটি বিমান ছিল। আমরা নিউ ইয়র্ক-ঢাকা বিমান চালুর ব্যাপারে সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছি। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় নিউ ইয়র্কের জাতিসংঘের বাংলাদেশ মিশন কার্যালয়ের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।গত দুবছর আগে জাতিসংঘের ৭০তম সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে এসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিউ ইয়র্ক-ঢাকা বিমান চালুর আশ্বাস দিয়েছিলেন প্রবাসীদের। সেই সূত্র ধরে নিউ ইয়র্ক-ঢাকা বিমান চালুর বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে আবারও স্মরণ করিয়ে দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী বলেন, '৯৬ সালের আগে যদি কারো কাছে বিমানবন্দরের কোনো ছবি থাকে তাহলে একটু দেখে নেবেন ওই সময়ের বিমানবন্দরের অবস্থা কতটা শোচনীয় ছিল। একটা বোর্ডিং ব্রিজও ছিল না ঢাকা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে। কিন্তু এখন সবকিছুই ঠিক করা হয়েছে। নতুন বিমানও কেনা হয়েছে।


মুসলমানরা কেন রিফিউজি হয়ে ঘুরে বেড়ায়?” : নিউইয়র্কে নাগরিক সংবর্ধনা সমাবেশে শেখ হাসিনা

বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজ: নিউইয়র্ক থেকে : নিউইয়র্কে এযাবতকালের বিশাল এক নাগরিক-গণসংবর্ধনা সমাবেশে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী সামনের জাতীয় নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হতে আগ্রহীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘ভোটাররা ভোট দেবেন প্রার্থীর আচার-আচরণ এবং সামগ্রিক গুনাবলী বিবেচনা করে। বড় গাড়ি, বাড়ি আর টাকা দিয়ে ভোট পাওয়া যাবে না। জনগণের মন জয় করেই নির্বাচনে জিততে হবে। গত ৮ বছরে যে অর্জন সে সব বিস্তারিতভাবে এলাকার মানুষের কাছে জানাতে হবে।’ সমাবেশে উপস্থিত প্রবাসীদের প্রতি আহবান জানিয়ে শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘আমার এই বার্তা নিজ নিজ এলাকার নেতাদের কাছে পৌছে দিন। কারণ, সামনের নির্বাচনে সকল ভোটার তার ভোটাধিকার যথাযথভাবে প্রয়োগের মধ্য দিয়ে যোগ্য ব্যক্তিদেরকেই নির্বাচিত করনে।’ এ সময় তিনি তার ভাগ্নি বৃটিশ এমপি টিউলিপের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলেন, ‘জনপ্রিয়তা কীভাবে বাড়াতে হয় সে হচ্ছে তার অনন্য উদাহরণ। প্রথম নির্বাচনে সামান্য ভোটের ব্যবধানে সে জয়ী হয়েছিল। পরবর্তী নির্বাচনে ভোটের সে ব্যবধান ১১ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। বৃটেনে ভোট চুরি করা সম্ভব নয় অর্থাৎ টিউলিপ তার জনপ্রিয়তা বাড়াতে সব সময় ভোটারদের মন জয় করতে সচেষ্ট থেকেছে।’ শেখ হাসিনা আরেকটি মৌলিক প্রসঙ্গের অবতারণা করে বলেন, ‘এলাকাবাসী গভীর পর্যবেক্ষণ রাখেন তার নেতা বানানোর ক্ষেত্রে। তাই দলীয় নেতা-কর্মীদের সন্তানরাও যাতে প্রতিবেশীদের সাথে সৎ-সম্পর্ক এবং ভালো আচরণ করে।’

নাগরিক সংবর্ধনা সমাবেশে শেখ হাসিনা। ছবি-বাপসনিঊজ
দলীয় নেতাকর্মীদের মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জনের তাগিদ দিয়ে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী আরো বলেন, “আমি আমার এমপিদেরও বলেছি, আপনারা দেখেন, শেখেন। কীভাবে ভোটারের আস্থা-বিশ্বাস অর্জন করা যায়। ওই বড় বড় গাড়ি-বাড়ি হলেই ভোটাররা ভোট দেবে না। ভোটারের সমস্যা জানতে হবে। সেগুলোর সমাধান করতে হবে। তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে। তাদেরকে আপনজন ভাবতে হবে। আগামীতে নির্বাচন। এই ইলেকশনটা বিরাট চ্যালেঞ্জ, এটা মনে রাখতে হবে।”প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘সামনেই নির্বাচন আসছে। আমাকে টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হতে হলে জনগণের ভোট পেতে হবে। জনগণ যেন পছন্দের প্রার্থী বাছাই করতে পারে, তা নিশ্চিত করতে চাই।’


১৯ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার রাতে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দেওয়া এ নাগরিক সংবর্ধনা-সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় বিশ্বখ্যাত টাইমস স্কোয়ারে হোটেল ম্যারিয়ট মারকুইসের বলরুমে। আগের বছরের তিক্ত অভিজ্ঞতার আলোকে এবার সুধীজনের প্রবেশ পথকে সুবিন্যস্ত করার পাশাপাশি কয়েক হাজার মানুষের আসনবিশিষ্ট হলরুম ভাড়া করায় কোন ধরনের বিড়ম্বনায় পড়তে হয়নি কাউকেই।
নিউইয়র্কে বসবাসরত ৩ কন্ঠযোদ্ধা রথীন্দ্রনাথ রায়, ফকির আলমগীর এবং শহীদ হাসানের নেতৃত্বে স্থানীয় বিশিষ্ট শিল্পীরা জাতীয় সঙ্গীতে অংশ নেন। তবে সমাবেশের কার্যক্রম শুরু হয় প্রবাসের জনপ্রিয় শিল্পী শাহ মাহবুব কর্তৃক ‘মুজিব বাইয়া যাওরে’ গান দিয়ে।

alt
জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭২তম অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৭ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে এসেছেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের সাধারণ সভাসহ নিউইয়র্কে তাঁর ব্যস্ততার কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘প্রবাসীদের ভালোবাসা আর উচ্ছ্বাস দেখে সব ক্লান্তি দূর হয়ে গেছে।’ তাঁর প্রতি প্রবাসীদের ভালোবাসার উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, জনগণের এ ভালোবাসাই তাঁকে প্রেরণা জোগায়। এ সময় তিনি প্রবাসীদের অবদানের কথাও বিশেষভাবে স্মরণ করেন।প্রধানমন্ত্রী বলেন, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বেড়েছে। প্রতিটি খাতে দেশের উন্নয়নের সংক্ষিপ্ত চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘এক সময় আমাদের যারা ক্ষুধা আর ভিক্ষুকের দেশ মনে করত, এখন তারা সম্মানের চোখে দেখে। বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে।’যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান সংবর্ধনায় সভাপতিত্ব করেন এবং পরিচালনা করেন সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ।
প্রধানমন্ত্রীর ছেলে ও তথ্যপ্রযুক্তি-বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ছিলেন প্রধান বক্তা। তবে তিনি বক্তব্য দিয়েছেন খুবই স্বল্প সময় এবং সংক্ষেপেই অনেক কথা বলেছেন তার নানার ভঙ্গিতে। জয় বলেছেন, ‘প্রযুক্তি খাতে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা এখন বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয়। বাংলাদেশে এখন খাদ্যের অভাব নেই, বিদ্যুতের অভাব নেই। আমরা এখন পাশের দেশের (রোহিঙ্গা)নাগরিকদের সাহায্য করার কথা গর্বের সঙ্গে বলতে পারি।’


জয় উল্লেখ করেন, ‘মালয়েশিয়াকে আজকের পর্যায়ে আনতে সে দেশের মানুষ মাহাথির মোহাম্মদকে ২০ বছর ক্ষমতায় রেখেছিলেন। ২০১৪ সালের আগের নির্বাচনে অনেকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন যে, আমাদেরও একজন মাহাথির দরকার। আমি এখন গর্বভরে সকলকে জানিয়ে দেই যে, আমাদের মাহাথিরতো (তার মা শেখ হাসিনার প্রতি ইঙ্গিত করে) আমাদের সামনেই আছেন।’ এ সময় উপস্থিত প্রবাসীরা বিপুল করতালিতে মেতে উঠেন এবং যুবলীগ-ছাত্রলীগের কর্মীরা স্লোগানে স্লোগানে শেখ হাসিনাকে অভিবাদন জানান।
এ সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক ও এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের চেয়ারম্যান নিজাম চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক  আইরিন পারভিন,,আওয়ামী লীগ নেতা  ফারুক আহমদ, মহিউদ্দিন দেওয়ান, আব্দুর রহিম বাদশা, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী, সেক্রেটারি ইমদাদ চৌধুরী, নিউইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হারুন ভ’ইয়া এবং সেক্রেটারি শাহীন আজমল, মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী মমতাজ শাহনাজ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নুরুজ্জামান সর্দার, শ্রমিক লীগ সভাপতি কাজী আজিজুল হক খোকনসহ বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য শাখার নেতারা।


পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ এম মাহমুদ আলী, প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী পলক, আওয়ামী লীগ নেতা এস এম কামাল হোসেন প্রমুখ মঞ্চে উপবেশন করেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশের মানুষ প্রয়োজনে এক বেলা খেয়েও নির্যাতনের মুখে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেবে, কিন্তু এই শরণার্থীদের যে ফিরিয়ে নিতে হবে, সে কথা মিয়ানমারকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, “মিয়ানমারকে আমরা বলেছি, আপনাদের নাগরিক, তাদেরকে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে হবে। তাদেরকে নিরাপদ রাখতে হবে। তাদের আশ্রয় দিতে হবে। তাদের ওপর জুলুম অত্যাচার চলবে না।”
তিনি বলেন, “তাদের (মিয়ানমার) ওপর যেন চাপ সৃষ্টি হয়। তাদের নাগরিক তারা ফেরত নিয়ে যাবে। কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়ন করবে। সেটাই আমরা চাই।”
শেখ হাসিনা বলেন, “আজকে দুর্ভাগ্য যে, মিয়ানমারে যে ঘটনা ঘটেছে, হাজার হাজার মানুষকে হত্যা করা, বাড়িঘর পুড়িয়ে দেওয়া, মেয়েদেরকে ধর্ষণ করা, এমন পরিবেশ-পরিস্থিতি যেখানে সৃষ্টি হয়েছে, সেখান থেকে দলে দলে মানুষ এসেছেৃ আমরা কী করব? মানবিক কারণে তাদের আশ্রয় দিতে হয়েছে।”


কক্সবাজারে গিয়ে নিজের চোখে রোহিঙ্গাদের এই দুর্দশা দেখে আসার অভিজ্ঞতা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমি সেখানে গিয়েছিলাম। তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। আমার কেবল নিজেদের কথা মনে হয়েছে। আমরাও তো একদিন এইভাবে ওই হানাদার পাকিস্তানিদের কারণে এ ঘর থেকে ওঘরেৃ আমাদের আশ্রয় খুঁজে বেড়াতে হয়েছে। আমাদের ঘড়বাড়ি সব জ্বালিয়ে ছারখার করেছে। সমগ্র বাংলাদেশে আমাদের আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী থেকে শুরু করে সাধারণ জনগণ, তাদের ঘরবাড়ি পুড়িয়েছে। মানুষকে গুলি করে হত্যা করেছে।
“আমাদের দেশের মানুষও তো আশ্রয় নিয়েছিল। ভারতে প্রায় এক কোটি শরণার্থী ছিল। আজকে যখন তারা বিপদে পড়েছে, অবশ্যই তাদের জায়গা দিতে হবে।”
শেখ হাসিনা বলেন, “অনেকেই প্রশ্ন করেছে, এত মানুষের খাবার দেবেন কীভাবে? আমি তাদের একটা কথাই বলেছি; ১৬ কোটি মানুষ আমাদের। এই ১৬ কোটি মানুষকে যদি খাবার দিতে পারি তাহলে এই সাত-আট লাখকে খাবার দিতে পারব না?”

alt
বাংলাদেশের মানুষকে ‘অনেক উদার’ হিসেবে বর্ণনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “প্রয়োজনে তারা একবেলা খাবে। অন্যবেলার খাবার এই আশ্রিত মানুষকে তুলে দেবে সেই মানসিকতা তাদের আছে। আমরা সেখানে লঙ্গরখানা খুলে দিয়েছি, চিকিৎসা, থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছি।”
“কিন্তু মিয়ানমারকে তাদের নাগরিকদের ফিরিয়ে নিতেই হবে,” জোরের সঙ্গে বলেন তিনি।
শেখ হাসিনা বলেন, কোনো দেশে কোনো ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ঘটুক, তা বাংলাদেশ চায় না। বাংলাদেশের মাটি ব্যবহার করে প্রতিবেশী কোনো দেশে কাউকে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালাতে দেওয়া হবে না- সরকার তা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে।
“আমরা শান্তিপূর্ণ পরিবেশ চাই। দেশের মানুষের কল্যাণ চাই। দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন আমরা করতে চাই। কাজেই সকলের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রেখে, প্রতিবেশীদের সঙ্গে যোগাযোগ সমুন্নত রেখে ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণ করাৃ আমরা সেই ব্যবস্থা নিতে চাই।”

alt
রোহিঙ্গা বিষয়ে আন্তর্জাতিক জনমত গড়ে তোলার ওপর জোর দিয়ে তিনি বলেন, “আমরা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ধন্যবাদ জানাতে চাই। আজকে জাতিসংঘে যাদের সঙ্গেই দেখা হচ্ছে, প্রত্যেকেই কিন্তু এ ব্যাপারে যথেষ্ঠ সচেতন।
শেখ হাসিনা কয়েক ঘন্টা আগে ওআইসির এক শীর্ষ বৈঠকে অংশগ্রহণের প্রসঙ্গ টেনে বলেন, “জাতিসংঘে ওআইসির এক বৈঠকে আমি প্রশ্ন রেখেছি, আজকে মুসলমানরা কেন রিফিউজি হয়ে ঘুরে বেড়ায়? আপনারা সকলে কেন এক হন না? কেন সকলে ঐক্যবদ্ধ হন না?”


শেখ হাসিনা তার বক্তব্যে দেশের বিভিন্ন খাতের আগ্রগতির কথা তুলে ধরেন এবং বিএনপি-জামায়াত জোটের নানা কর্মকান্ডের সমালোচনা করেন।
“আমরা দেশের উন্নতি চাই। আর তারা মানুষকে পুড়িয়ে মারে। ধ্বংসাত্মক কাজ ছাড়া তারা আর কিছুই করতে পারে না।”
টানা ৪০ মিনিটের বক্তব্যে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া এবং তার দুই পুত্রের বিরুদ্ধে নানা অপকর্ম, ঘুষ, দুর্নীতি, এতিমদের অর্থ চুরির অভিযোগ সবিস্তারে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেছেন যে, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশ এগিয়ে যায়, আর বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করে।