Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

নিউয়র্কের খবর

নিউইয়র্কের রিয়েল এষ্টেট ইনভেষ্টর আনোয়ার হোসেনের উদ্যোগে একাত্তরের কন্ঠাযোদ্বাদের সঙ্গীতের আসর ১৩ ডিসেম্বর

মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৫

হাকিকুল ইসলাম খোকন:বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে :১৯৭১ সালের মুক্তিযোদ্বের সময়ে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের চার প্রবাসী শিল্পীর সমন্বয়ে এ বছর বিজয় দিবসকে সামনে একটি ব্যাতিক্রমধর্মী সঙ্গীতানুষ্টান আয়েজিত হবে। অনুষ্টানে একাত্তরের মুক্তিযোদ্বের স্মৃতি জাগানিয়া গানের পাশাপাশি স্মৃতি চারনমূলক ‘টকশো’তে ও অংশ নেবেন মুক্টিতযোদ্বের চার কন্ঠযোদ্বা । বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী শিল্পী রথীন্দ্রনাথ রায়, কাদেরী কিবরিয়া, শহীদ হাসান এবং মঞ্জুর আহমেদ । গত সোমবার বাপসনিঊজকে নিউইয়র্কের বিশিষ্ট রিয়েল এষ্টেট ইনভেষ্টর এবং সাংস্কৃতিক সেবী মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, বিজয় দিবসউপলক্ষে ব্যাতিক্রমধর্মী এ অনুষ্টান ১৩ ডিসেম্বর ,রবিবার অনুষ্টিত হবে। নিউইয়র্কের কুইন্সের উত্তরসাইডস্থ কুইন্স প্যালেস পার্টি হলে । সকল সঙ্গীত প্রেমিদের প্রবেশ উন্মুক্ত এই অনুষ্টানে গানে আর গানে প্রবাসীদের সুরের ভেলায় ভাসিয়ে নেবেন ঐ চার কন্ঠযোদ্বা । গানের মাঝে ছোট্র একটি ‘টক শো’ পরিবেশিত হবে। এর সঞ্চালনায় থাকবেন জাতিসংঘে কর্মরত লেখক হাসান ফেরদৌস ও নাজমুল আহসান।

Banner Baps
 অনুষ্টানে কন্ঠযোদ্বাদের সম্মাননা এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে বলে জানান আনোয়ার হোসেন ।তিনি আরও জানান , অনুষ্টানের সময় কন্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী নিউইয়র্কে থাকার কথা । তিনি এলে অনুষ্টানের উপস্থাপনা করবেন সুবীর নন্দী । অনুষ্টানে কি -নোট স্পীকার থাকবেন একুশের সম্মানা এ্যাওয়ার্ড বিজয়ী নাট্যজন জামাল উদ্দিন হোসেন। আনোয়ার হোসেন বাপসনিঊজকে বলেন , পুরো অনুষ্টানকে আমরা দুইটি ভাগে সাজিয়েছি। প্রথমে গান। একজন শিল্পী দুইবার করে গান পরিবেশনের সুযোগ পাবেন। গান আর গানে দর্শকদের মুগ্ধ করবেন চার কন্ঠযোদ্বা । তিনি অনুষ্টানকে সুন্দর ও স্বার্থক করতে মিডিয়া এবং কমিউনিটির সহযোগিতা কামনা করেন।
সজজন  এই সাংস্কৃতিকসেবী আনোয়ার হোসেন বিগত এক বছর যাবৎ কমিউনিটির উন্নয়নে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের অনুষ্টানে  সহযোগীতা করে আসছেন। এতে তিনি প্রসংশিত হয়েছেন । সংবাদ সম্মেলন সঞ্চালনা করেন সুজন রায়। অনুষ্টানের আয়োজক আনোয়ার হোসেন নিজেই। শেষে উপস্থিত সবাইকে   নৈশভোজে আপ্যায়ন করাহয়।


ফাঁসি কার্যকরে নিউইয়র্কে আনন্দ-উললাস

সোমবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৫

Picture

হাকিকুল ইসলাম খোকন:বাপ্‌স নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে :মানবতাবিরোধী অপরাধে সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরী এবং আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের ফাঁসি কার্যকর হবার পরই ‘মুজিবের বাংলায় রাজাকারের ঠাঁই নেই’ এমন শ্লোগান আর আনন্দ-উল্লাসে মেতে উঠেন নিউইয়র্কের প্রবাসীরা। প্রায় এদিন সকলের মধ্যেই স্বস্তির ভাব পরিলক্ষিত হয়। বিভিন্ন স্থানে তারা মানবন্ধন ও আনন্দ সমাবেশ করে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

alt

স্থানীয় সময় শনিবার সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটস, জ্যামাইকা, ওজনপার্ক এবং ব্রুকলীনের অলি-গলিতে মিষ্টি বিতরণসহ উল্লাস ধ্বনির শব্দ শুনতে পাওয়া যায়।এ সময় রাস্তায় নেমে পড়েন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, গণজাগরণ মঞ্চ, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগ, শ্রমিক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা।

alt
ব্যানারসহ তারা ডাইভার্সিটি প্লাজা, আওয়ামী লীগ অফিস, পালকি পার্টি সেন্টারসহ বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধন ও সমাবেশ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানান প্রবাসী বাংলাদেশিরা। এছাড়া গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে তারা শহীদ জননী জাহানারা ইমামকে স্মরণ করেন।মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন ,যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আহবায়ক ড. এম এ বাতেন, মুক্তিযোদ্ধা সরাফ সরকার, মুক্তিযোদ্ধা তফাজজল করিম, মুক্তিযোদ্ধা কামরুল চেীধুরী,খোরশেদ খন্দকার, একুশের পদকপ্রাপ্ত নাট্য ব্যক্তিত্ব জামালউদ্দিন হোসেন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের মুুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ডের সভাপতি ও নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিতাংশু গুহ, প্রবাসের প্রবীণ সাংবাদিক সৈয়দ মুহম্মদউললহ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল -জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি হাজী আনোয়ার হোসেন লিটন ও  কবি হাসান আল আব্দুল্লাহ।

alt
এছাড়া বিভিন্ন আনন্দ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাহবুবুর রহমান, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের   সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন , বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও আওয়ামী লীগ নেতা জয়নাল আবেদীন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম, মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী মমতাজ শাহানা, গণজাগরণমঞ্চের মুজাহিদ আনসারী, যুক্তরাষ্ট্র শ্রমিক লীগের সভাপতি কাজী আজিজুল হক খোকন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা দরুদ মিয়া রনেল, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির যুক্তরাষ্ট্র শাখার সাধারণ সম্পাদক স্বীকৃতি বড়ুয়া, মুক্তিযোদ্ধা কামরুল ইসলাম, মনিরুল হক এবং সুব্রত বিশ্বাস, যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগের সভাপতি আব্দুল কাদির মিয়া, সাংবাদিক মাহফুজুর রহমান প্রমুখ।


ঢাকায় এম এইচ গ্রুপের স্বপ্নীল ‘লেক আইল্যান্ড’ প্রকল্প দেখে -শুনে রিয়েল এষ্টেটে বিনিয়োগ সব সময়ই লাভ জনক ও নিরাপদ -----মোবারক হোসেন

রবিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৫

হাকিকুল ইসলাম খোকন:বাপ্‌স নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে :বাংলাদেশের রিয়েল এষ্টেট কোম্পানি এম এইচ গ্রুপ্রের স্বত্ত্বাধিকারী মোবারক হোসেন বলেছেন , দেখে -শুনে রিয়েল এষ্টেটে বিনিয়োগ সব সময়ই লাভ জনক ও নিরাপদ । তিনি জানান , তার এম এইচ গ্রুপ মিরপুর চিড়িয়াখানার পশ্চিম পাশে এবং উত্তরার তৃতীয় প্রকল্পের মেট্রো রেলের কাছে গড়ে তুলেছে এক স্বপ্নীল ‘লেক আইল্যান্ড’ প্রকল্প। নিস্কন্টক , নির্ভেজাল একবিংশ শতাব্দীর উপযোগী একটি নিরাপদ ও পরিকল্পিত আবাসন গড়ে তোলার দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে এম এইচ , গ্রুপ এই প্রকল্প হাতে নিয়েছে। মিরপুর চিড়িয়াখানার পশ্চিম পাশে এবং উত্তরা তৃতীয় প্রকল্পের মেট্রোরেলের সন্নিকটের এই লেক আইল্যান্ড এর পরিবেশ কোলাহল মুক্ত , দূষণমুক্ত, খোলামেলা, সবুজ সৌন্দর্যে ঘেরা। এখানে আছে একটি প্রাকৃতিক লেক। এক কথায় প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যরে লীলাভূমি হচ্ছে এই স্বপ্নীল ‘লেক আইল্যান্ড’। খবর বাপসনিঊজ।

Picture
গত ৯ নভেম্বর সোমবার, নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে খাবার বাড়ির পালকিতে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে  মোবারক হোসেন তার এই লেক আইল্যান্ডের বর্ণনা তুলে ধরেন।সাংবাদিক সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, আলাউদ্দিন বুলু এবং এম মাসুদুর রহমান। মোবারক হোসেন জানান, এ প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে চার হাজার কোটি টাকা।৩,৫,৭ ও ১০ কাঠার মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে স্থানভেদে ৮ থেকে ১৪ লাখ টাকা । প্রবাসীদের জন্য ৬০ কিস্তিতে মূল্য পরিশোধের সুযোগ রাখা রয়েছে।অতীতে রিয়েল এষ্টেট খাতে বিনিয়োগকারীদের অনেকেই প্রতারিত হয়েছেন এমন প্রশ্নের জবাবে মোবারক হোসেন বলেন, আমি এখানে ক্রেতাদের ঠকাতে আসিনি। জমি তো আর কোট-টাই এর মত পণ্য নয়।ক্রেতারা বিনিয়োগের আগে কেন যাচাই -বাচাই করেন না। তিনি বলেন, আমার জমি শতভাগ নিরাপদ। আমার পক্ষ থেকে ক্রেতাদের গ্যারান্টি দিচ্ছি। প্রকল্পের জমি আমার দখলে , সামনে ওয়াল স্থাপন কার হয়েছে। তিনি জানান,কুয়াকাটাতে ও তার আরেকটি আবাসন প্রকল্প রয়েছে। দেশে ভূমিদস্যুদের প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন ভূমিদস্যু সম্পর্কে তার কিছু জানা নেই।

alt
লিখিত বক্তব্যে মোবারক হোসেন বলেন , বাংলাদেশে আয়তনের তুলনায় জনসংখ্যা অনেক বেশি। দেশের এই স্বল্প আয়তনের জমির উপর পড়ছে বর্ধিত জনগোষ্টির চাপ। রাজধানী ঢাকা ও নগরীর আশপাশে এই চাপের মাত্রা অন্যান্য জায়গার তুলনায় অনেক বেশি। তিনি বলেন, একখন্ড নিস্কন্টক জমি বা একটি স্থায়ী ঠিকানা প্রতিটি মানুষের লালিত স্বপ্ন। বিশেষ করে প্রতিটি প্রবাসী চা তার শেকঢ়ে একটি স্থায়ী বাসস্থান বা একটি স্থায়ী ঠিকানা । দেশের জনগোষ্টীর একটি বিরাট অংশ রাজধানী ঢাকামুখী হওয়ায় ঢাকা ও ্এর আশে পাশের জমি হয়ে উঠেছে দূস্প্রাপ্য। অদূর ভবিষ্যতে এই সংকট আরো প্রকট হবে।

alt
মোবারক হোসেন বলেন, ঢাকাসহ দেশের মানুষের এই প্রকট আবাসিক সমস্যা ও চাহিদার কথা বিবেচনা করে দেশের মানুষ ও প্রবাসীদের স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যকে ধারণ করে একখন্ড নিস্কন্টক, নির্ভেজাল, নিরাপদ ও পরিকল্পিত আবাসন গড়ে তোলার দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে এম এইচ, গ্রুপ মিরপুর চিড়িয়াখানার পশ্চিম পাশে এবং উত্তরা তৃতীয় প্রকল্পের মেট্রোরেলের  সন্নিকটে গড়ে তুলেছে এই স্বপ্নীল ‘লেক আইল্যান্ড’ ঢাকা। তিনি বলেন, সরকার ইতোমধ্যে এ এলাকাকে “শিক্ষা জোন” হিসাবে ঘোষণা দিয়েছেন। ব্রাক, ডেফোডিল, সিটি ও এশিয়া বিশ্ববিদ্যালয় ইতোমধ্যেই সেখানে স্থাপনা গড়ে তুলেছে। এছাড়া ও বন্যা ও দূষণমুক্ত, পরিবেশে গ্যাস, পানি ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিদ্যমান। প্রকল্পটি প্রাকৃতিকভাবে উঁচু এলাকায় গড়ে ওঠার কারণে এখনই সেখানে বাড়ি করে বসবাস করা সম্বভ। ভৌগলিকভাবে প্রকল্পটির অবস্থান এমন এক জায়গায় যেখান থেকে খুব সহজেই ঢাকার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ৫/১০ মিনিটের মধ্যে যাওয় যায়।মোবারক হোসেন বলেন,‘লেক আইল্যান্ড’ ঢাকা শুধু আকাশ ছোয়া স্বপ্নই নয়, ক্রেতাদের সাধ আর সাধ্যের কথা বিবেচনা করে প্রবাসীসহ সকল শ্রেণীর ও পেশার মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে তুলনামূলক স্বল্পমূল্যে দীঘ মেয়াদী কিস্তির সুবিধা নিয়ে যে কেউ হতে পারেন এই প্রকল্পের একটি আকর্ষণীয় প্লটের মালিক।


বাংলাদেশ-আমেরিকা কালচারাল একাডেমীর সঙ্গীত সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত

রবিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৫

Picture

সমবেত কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি পারভীন বানু। তিনি বলেন, প্রবাসে বাঙ্গালীদের মাঝে বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক চর্চার ও সকলকে আনন্দদানের উদ্দেশ্যেই ব্যক্তিগত উদ্যোগে প্রতি বছর এই সংগীত সন্ধ্যা আয়োজন করা হয়। তিনি অনুষ্ঠানে আগত সবাইকে ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জানান। খবর বাপসনিঊজ।

alt
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আইনজীবি মোহাম্মদ এন মজুমদার। সংক্ষিত শুভেচ্ছা বক্তব্যে তিনি এমন একটি সুন্দর ও চিত্ত বিনোদনমুলক অনুষ্ঠান উপহার দেয়ার জন্য আমেরিকা বাংলাদেশ কালচারাল একাডেমী বিশেষ করে পারভীন বানুকে ধন্যবাদ জানান। তিনি চিত্ত বিনোদনের পাশাপাশি প্রবাসী সকলকে মুলধারার বিভিন্ন তৎপরতায় অংশগ্রহন ও বিভিন্ন সরকারী চাকুরীতে আবেদন করার আহবান জানান ।

alt
অনুষ্ঠানে কবিতা আবৃত্তি, গান ও হাস্য কৌতুক উপস্থাপনের মাধ্যমে উপস্থিতদের  মনোরঞ্জন করা হয়। কবিতা আবৃত্তি করেন ফেরদৌসী সুমী, রবিউল, নুরুল মোস্তফা রাইসী, আবদুল্লা তারেক মোহাম্মদ। গান গেয়ে শুনান পারভীন বানু, জিবন পরী, সামছুন্নাহার ডলী, কাজী জামান, সাহরীন সুলতানা, রহমান, জুয়েল, বাবলী হক সুলতানা খানম, মোহর খান, নুরুল মোস্তফা রাইসী প্রমুখ। যন্ত্র সংগীতে ছিলেন তবলায় সাত্তার মাহমুদ, ঢোলে সফীক ঢুলি, কিবোর্ডে জুয়েল ও সাউন্ডে হারুন। সার্বিক অনুষ্ঠানটি পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন নুরুল মোস্তফা রাইসী।


নিউইয়র্কের রিয়েল এষ্টেট ইনভেষ্টর আনোয়ার হোসেনের উদ্যোগে একাত্তরের কন্ঠাযোদ্বাদের সঙ্গীতের আসর ১৩ ডিসেম্বর

রবিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৫

হাকিকুল ইসলাম খোকন:বাপ্‌স নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে :১৯৭১ সালের মুক্তিযোদ্বের সময়ে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের চার প্রবাসী শিল্পীর সমন্বয়ে এ বছর বিজয় দিবসকে সামনে একটি ব্যাতিক্রমধর্মী সঙ্গীতানুষ্টান আয়েজিত হবে। অনুষ্টানে একাত্তরের মুক্তিযোদ্বের স্মৃতি জাগানিয়া গানের পাশাপাশি স্মৃতি চারনমূলক ‘টকশো’তে ও অংশ নেবেন মুক্টিতযোদ্বের চার কন্ঠযোদ্বা । বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী শিল্পী রথীন্দ্রনাথ রায়, কাদেরী কিবরিয়া, শহীদ হাসান এবং মঞ্জুর আহমেদ ।

Picture

গত ৯ নভেম্বর সোমবার ,নিউয়র্কের জ্যামাইকাস্থ ১৪৮ ষ্ট্রীট হিলসাইড এভিনিউর উপরে স্টার কাবাব পার্টি হলে এক সংবাদ সম্মেলনে বিজয় দিবসউপলক্ষে ব্যাতিক্রমধর্মী এ অনুষ্টানের ঘোষণা দেন নিউইয়র্কের বিশিষ্ট রিয়েল এষ্টেট ইনভেষ্টর এবং সাংস্কৃতিক সেবী মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন । এ সময় সংবাদ সম্মেলনে মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন একুশে পদক প্রাপ্ত নাট্যজন জামাল উদ্দিন হোসেন । সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আনোয়ার হোসেন বলেন , ১৩ ডিসেম্বর ,রবিবার এ অনুষ্টান হবে নিউইয়র্কের কুইন্সের উত্তরসাইডস্থ কুইন্স প্যালেস পার্টি হলে । সকল সঙ্গীত প্রেমিদের প্রবেশ উন্মুক্ত এই অনুষ্টানে গানে আর গানে প্রবাসীদের সুরের ভেলায় ভাসিয়ে নেবেন ঐ চার কন্ঠযোদ্বা । গানের মাঝে ছোট্র একটি ‘টক শো’ পরিবেশিত হবে। এর সঞ্চালনায় থাকবেন জাতিসংঘে কর্মরত লেখক হাসান ফেরদৌস ও নাজমুল আহসান।

alt

ছবিতে আনোয়ার হোসেন-এর সাথে স্ত্রী কন্যাও পুত্রকে দেখা যাচ্ছে। ছবি বাপসনিউজ।
 অনুষ্টানে কন্ঠযোদ্বাদের সম্মাননা এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে বলে জানান আনোয়ার হোসেন ।তিনি আরও জানান , অনুষ্টানের সময় কন্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী নিউইয়র্কে থাকার কথা । তিনি এলে অনুষ্টানের উপস্থাপনা করবেন সুবীর নন্দী । অনুষ্টানে কি -নোট স্পীকার থাকবেন একুশের সম্মানা এ্যাওয়ার্ড বিজয়ী নাট্যজন জামাল উদ্দিন হোসেন।সাংবাদিক সম্মে,লনে আনোয়ার হোসেন বলেন ,পুরো অনুষ্টানকে আমরা দুইটি ভাগে সাজিয়েছি। প্রথমে গান। একজন শিল্পী দুইবার করে গান পরিবেশনের সুযোগ পাবেন। গান আর গানে দর্শকদের মুগ্ধ করবেন চার কন্ঠযোদ্বা । তিনি অনুষ্টানকে সুন্দর ও স্বার্থক করতে মিডিয়া এবং কমিউনিটির সহযোগিতা কামনা করেন।
সজজন  এই সাংস্কৃতিকসেবী আনোয়ার হোসেন বিগত এক বছর যাবৎ কমিউনিটির উন্নয়নে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের অনুষ্টানে  সহযোগীতা করে আসছেন। এতে তিনি প্রসংশিত হয়েছেন । সংবাদ সম্মেলন সঞ্চালনা করেন সুজন রায়। অনুষ্টানের আয়োজক আনোয়ার হোসেন নিজেই। শেষে উপস্থিত সবাইকে   নৈশভোজে আপ্যায়ন করাহয়।


নিউইয়র্কে মিলেনিয়াম টিভি ইউএসএ’র দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি উদযাপিত

বৃহস্পতিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৫

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ:নিউইয়র্ক: নিউইয়র্কে উদযাপিত হয়েছে বাংলাদেশ ও আমেরিকার জনপ্রিয় টেলিভিশন চ্যানেল মিলেনিয়াম টিভি ইউএসএ’র দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি উৎসব। ১৪ নভেম্বর শনিবার এ উপলক্ষে সিটির জ্যাকসন হাইটসে পিএস-৬৯ স্কুলে আয়োজন করা হয় অনুষ্ঠানমালার। আনন্দঘন পরিবেশে জন্মদিনের এ উৎসব চলে এদিন বিকেল থেকে রাত ১১ টা পর্যন্ত। অনুষ্ঠানমালায় ছিলো জন্মদিনের কেক কাটা, আলোচনা সভা, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশনাসহ নানা কর্মসূচি। উৎসবে বিপুল সংখ্যক প্রবাসী যোগ দেন। দর্শক-শ্রোতার গভীর ভালোবাসায় সিক্ত হয় মিলেনিয়াম টিভি।খবর বাপসনিঊজ:

Picture


অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ও আমেরিকার জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। শহীদদের স্মরণে পালন করা হয় এক মিনিট নিরবতা। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান হয় মিলেনিয়াম টিভিকে।নিউইয়র্ক সিটি কম্পোট্রলার, সিটি পাবলিক এডভোকেট এবং কুইন্স বরো প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে মিলেনিয়াম টিভি ইউএস কে সাইটেশন প্রদান করা হয়। নিউইয়র্ক সিটি কম্পোট্রলারের পক্ষে কম্পোট্রলার অফিসের প্রতিনিধি আনাস মিলেনিয়াম টিভি ইউএসএ’র প্রেসিডেন্ট ও ম্যানেজিং ডাইরেক্টর নূর মোহাম্মদ, মিলেনিয়াম টিভি ইউএসএ’র চেয়ারম্যান আয়শা সিদ্দিকা নূর, মিলেনিয়াম টিভি ইউএসএ’র প্রধান সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সেলিম, কনসালটেন্ট এম মাহাব ও মঈনুল আলমকে সাইটেশন প্রদান করেন।

alt

এছাড়া অনুষ্ঠানে নিউইয়র্ক সিটি পাবলিক এডভোকেট অফিস প্রতিনিধি তনময়ী এবং কুইন্স বরো প্রেসিডেন্ট অফিস প্রতিনিধি হাকও তাদের সাইটেশন প্রদান করেন।সামাজিক সংগঠন বাংলাদেশ সোসাইটি, বাংলাদেশ সোসাইটি অব ব্রঙ্কস, ব্রঙ্কস বাংলাদেশ এসোসিয়েশনসহ বিভিন্ন সংগঠনের কর্মকর্তারা ফুলেল শুভেচ্ছা জানায় মিলেনিয়াম টিভিকে।

alt
মিলেনিয়াম টিভি ইউএসএ’র প্রেসিডেন্ট ও ম্যানেজিং ডাইরেক্টর নূর মোহাম্মদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রধান অতিথি নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল শামীম আহসান, মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মুকিত চৌধুরী, এন মজুমদার, আবদুর রহিম হাওলাদার, শেখ আল মামুন,  ড. শওকত আলী, মিলেনিয়াম টিভি ইউএসএ’র চেয়ারম্যান আয়শা সিদ্দিকা নূর, সাংবাদিক আবু তাহের, মিলেনিয়াম টিভি ইউএসএ’র প্রধান সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সেলিম,আবদুস শহীদ, দেওয়ান বজলু, সিপিএ সারোয়ার চৌধুরী,মো. আলী,মো: সাঈদ,আবিদুর রহিম, শাহাদাত হোসেন সবুজ,শিবলী চৌধুরী কায়েস, শামীম মিয়া, এ ইসলাম মামুন, কমিউনিটি এক্টিভিস্ট রফিকুল ইসলাম,সংবাদ পাঠিকা নিশাত নূর, রিপোর্টার মনজুুরুল হক, কনসালটেন্ট এম মাহাব, মনিকা রায়, গাজী শাহ জুয়েল, মো. আলী, মাহবুব হোসেন, মোহাম্মদ হাকিম, মাকসুদা আহমেদ, কবি জুলি রহমান, মামুন রহমান প্রমুখ। উপস্থাপনায় ছিলেন ফাতেমা শাহাব রুমা।

alt
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি আজমল হোসেন কুনু,সাপ্তাহিক আজকালের প্রধান সম্পাদক জাকারিয়া মাসুদ জিকো, সাপ্তাহিক ঠিকানার সম্পাদক লাভলু আনসার, মইনুদ্দিন নাসের, সময় টেলিভিশনের যুক্তরাষ্ট্র ব্যুরো চীফ শিহাব উদ্দিন কিসলু,আজকালের বিশেষ প্রতিনিধি শওকত ওসমান রচি, একুশে টেলিভিশনের যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি ইমরান আনসারী, ডিআর ইউ’র সাবেক সেক্রেটারি মনোয়ারুল ইসলাম, আজকালের রিপোর্টার আনিসুর রহমান, শামিম আরা, রেক্সোনা মজুমদার, ইয়াসমীন আক্তার শিবলী ও রনী শাহ, সঙ্গীত শিল্পী তানভীর শাহীন প্রমুখ।নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল শামীম আহসান মিলিনিয়াম টিভির সাফল্য কামনা করে বলেন, বিশ্ব জুড়ে বাংলা এ শ্লোগানকে ধারণ করে বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতিকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরে ঐতিহাসিক দায়িত্ব পালন করছে মিলেনিয়াম টিভি ইউএসএ।

alt
অনুষ্ঠানে মিলেনিয়াম টিভির প্রতিষ্ঠার প্রেক্ষাপট তুলে ধরে মিলেনিয়াম টিভি ইউএসএ’র প্রেসিডেন্ট ও ম্যানেজিং ডাইরেক্টর নূর মোহাম্মদ বলেন, মিলেনিয়াম টিভি ইউএসএ বাংলাদেশ সরকারের পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র সরকারেরও অনুমোদিত চ্যানেল। বাংলাদেশ, আমেরিকাসহ সারা বিশ্বে স্যাটেলাইট, ক্যাবেল সহ ইন্টারনেটে দেখা যায় মিলেনিয়াম টিভি।তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করে ভবিষ্যতে আরো ভাল প্রোগ্রাম উপহার দেয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তিনি প্রবাসীসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে মিলেনিয়াম পরিবারকে সার্বিক বিষয়ে পরামর্শ ও সহযোগিতা প্রদানের অনুরোধ জানান।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, মিলেনিয়াম টিভি ভবিষ্যতে আরো ভাল করবে এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

alt
অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন প্রবাসের জনপ্রিয় শিল্পী শাহ মাহবুব, মনিকা রায়, খায়রুল ইসলাম সবুজ, নেন্সী খান, পারভীন বানু, সুলতান, শিবলী সাদেক, মোহর খান, জুয়েল সহ শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীরা।বিপুল সংখ্যক দর্শক-শ্রোতা গভীর রাত পর্যন্ত অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।


৭ই নভেম্বর সৈনিক-জনতার অভ্যূত্থান দিবস পালন করবে-জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখা

শনিবার, ০৭ নভেম্বর ২০১৫

Picture

সৈনিক-জনতার অভ্যূত্থান দিবস ৭ নভে¤¦র শনিবার সন্ধ্যান ছয় টায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখা যথাযথ মর্যাদার সাথে পালন করবে। এ উপলক্ষে নিউইয়র্কের বাঙালি অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটসের  ৩৭-০৬ ,৭২ স্ট্রীটস-এর বিটুইন ব্রডওয়ে এবং ৩৭ এভিন্যুর মাঝে  এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। তাহের সৈনিক-জনতার অভ্যূত্থান দিবস-এর  আলোচনা সভায় সকল প্রবাসীদের অংশ গ্রহণে সাদর আমন্ত্রণ জানিয়েছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি হাজী আনোয়ার হোসেন লিটন ও সাধারণ সম্পাদক সামসুউদ্দিন আহমেদ শামীম।খবর বাপসনিঊজ:

alt
 জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি কেন্দ্রিয় সভাপতি সাবেক মন্ত্রী আ স ম আব্দুর রব ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক রতন এক বিবৃতিতে সবার প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তাহের সৈনিক-জনতার অভ্যূত্থান দিবসতে। বাপসনিউজ।


নিউইয়র্কে দি আমেরিকান ড্রীম মুভির সংবাদ সম্মেলন অনুষ্টিত

বুধবার, ০৪ নভেম্বর ২০১৫

হাকিকুল ইসলাম খোকন:বাপ্‌স নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে :দি আমেরিকান ড্রীম এবং রুপালী ইলিশ প্রেমের সীমান্তে গ্রন্থের লেখক সাবেক ছাত্রনেতা এম জসীম উদ্দিন পরিচালিত দি আমেরিকান ড্রীম মুভির সংবাদ সম্মেলন অনুষ্টিত হয়েছে গত ২ নভেম্বর ,সোমবার , সন্ধ্যা ৭ টায় নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের ইত্যাদি গার্ডেন মিলনায়তনে । এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক ছাত্রনেতা আলতাফ হোসেন, নিউইয়র্ক প্রবাসী কমিউনিটি লিডার কেএম নাসিম,আমেরিকান প্রেসক্লাব বাংলাদেশ অরিজিন সভাপতি সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন , কমিউনিটি লিডার লিয়াকত আলী , তোফায়েল আহমদ চৌধুরী প্রমুখ ।
এম জসীম উদ্দিন তার পরিকল্পনায় বাস্তবধর্মী -মুলধারায় বাঙ্গালী অভিবাসীদের নিয়ে প্রথম মুভির সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন, প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুগণ,

alt
আমার শুভেচ্ছা গ্রহণ করুন।
আমেরিকান মূলধারার চলচ্চিত্রে যোগ হতে যাচ্ছে  “দি আমেরিকান ড্রীম”
এই ছবিটির 1st Language English .আমার লেখা উপন্যাস “দি আমেরিকান ড্রীম” থেকে এই চলচ্চিত্রের গল্প নেয়া হয়েছে।আশা করি, এই চলচ্চিত্রটি সুচারুরুপে নির্মাণ কাজ শেষ করতে পারবো। আমি বুঝি Conception is a Direction. এই চলচ্চিত্রটির টেকনিক্যাল কাজে আমাকে সাহায্য করছে বাংলাদেশ, ইন্ডিয়া এবং নিউইয়র্ক থেকে কয়েকজন তরুণটেকনিক্যাল সহযোগী।২০১৬ জানুয়ারী ইংরেজীতে ১০দিন বাংলাদেশে এই চলচ্চিত্রের ২০ শতাংশ চিত্রায়িত করা হবে এবং চলচ্চিত্রটির ৮০ শতাংশ আগামী ২০১৬ এপ্রিলে নিউইয়র্কের সিটিতে চিত্রায়ন করা হবে।প্রিয় সংবাদিক বন্ধুগণ,২০১৬ সালে ১৬ ডিসেম্বর “ দি আমেরিকান ড্রীম” বিশ্বব্যাপী মুক্তির জন্য প্রস্তুত করা হবে। কয়েকটি  পরিবেশনা কোম্পানী আমার গল্পটি পছন্দ করেছেন, আরো প্লাস হচ্ছে উপন্যাসটি আমেরিকান মুলধারার পাবলিশিং এর কারনে মুভিটি মুক্তির সহায়ক হবে।আরও একটি সুখবর আপনাদেরকে দিচ্ছি এই ছবিটি নায়িকা, সহ নায়ক ও বেশ কয়েকটি চরিত্রে অভিনয়ের জন্য বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত বাংলাদেশী আমেরিকান আমি নির্বাচন করব গণ বিজ্ঞপ্তি মাধ্যমে। এই চলচ্চিত্রের মূল চরিত্র, একজন High School Droop  কিভাবে কঠিন পরিশ্রম করে তার জীবনকে প্রতিষ্ঠিত করেছে এই Land of opportunity  দেশ আমেরিকাতে।বাংলাদেশী এক তরুণ যুবকের  অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠা পেতে মুক্তির জন্য প্রেম, ভালবাসা, ব্যর্থতাসহ  ইস্পিত গ্রীন কার্ড না পাওয়ার যন্ত্রনা।এই গল্পকে গাইড করেছেন , নিউইয়র্কের একজন ওয়ার্কিং জার্নালিস্ট।এই চরিত্রটিতে আমি নিজেই রুপদান করবো।

alt
বাংলাদেশের Islamic Fundamentalist - দের বিরুদ্ধে সামাজিকভাবে সচেতন করার জন্য, জনগণকে কিছু  ম্যাসেজ এই চলচ্চিত্রে দেয়া হবে। চিত্রনাট্য সেই আলোকে আমি তৈরী করেছি।টোটাল গল্পটিতে নিউইয়র্ক সিটিকে প্রমোট করার পাশাপাশি একটি আধুনিক বাংলাদেশকে উপস্থাপন করা হবে। মাঝে মাঝে বাংলাদেশের রাজনীতি ও রাজনীতি বিদদের পরিবর্তনের কথাও আছে।একটি চলচ্চিত্র মানুষকে বিনোদনের পাশাপাশি কিছু সভ্যতা, ইতিহাস ও সমাজের নিস্পেষিত মানুষের অধিকারের কথা বলে।বন্ধুগণ,
স্বপ্ন নয় লক্ষ্য- মানে এড়ধষ. মানুষকে এনে দেয় সমৃদ্ধি । এই মূল বক্তব্য ফুটে উঠবে এই চলচ্চিত্রে।

Picture

সাংবাদিক বন্ধুগণ-আমার উপন্যাসটি “দি আমেরিকান ড্রীম ” ইংরেজীতে অনুদিত হয়ে আমেরিকার  ঢষরনৎরং (এক্সলিবরিস ) কোম্পানী এখন চৎড়ফঁপঃরড়হ – এ আছে । আগামী  ১৬ ডিসেম্বরে ইংরেজী ভাষায় উপন্যাসটি কাগজে মুদ্রিত বই আকারে আপনাদের হাতে তুলে দিতে পারবো। কয়েকটি চলচ্চিত্র পরিবেশনা কোম্পানী আমার গল্পটি পছন্দ করেছেন। আরো প্লাস পয়েন্ট হচ্ছে , আমেরিকান মূল ধারায় নির্মিত চলচ্চিত্রটি মুক্তির সহায়ক হবে ইংরেজী ভাষায় প্রকাশিতব্য “দি আমেরিকান ড্রীম” উপন্যাসটি বলে আশা রাখি ।সকলের সহযোগীতা, বিশেষ করে আপনাদের কলমের কালির আল্পনা আমার অনুপ্রেরণা ও পাথেয় হয়ে থাকবে।একজন ক্রিয়েটিভ Writer & Director – এর ক্যাটাগরীতে NYC মেয়রস অফিসের Film & Media Department এর অনুমোদন নিয়ে চলচ্চিত্রটি তৈরী হবে। সেহেতু আমি গল্পটি NYC কে Promot করছি ।আশা করি একদিন সবাই এক সাথে বসে চলচ্চিত্রটির প্রিমিয়ার শো উপভোগ করতে পারবো।সেই আশা রেখে সকলের দোয়া কামনা করছি। সবাই ভাল থাকুন।

alt
Thank you,Jashim Uddin,Writer & Director ,The American Dream। সংবাদ সম্মেলন শেষে প্রীতি ভোজের আয়োজন করা হয় । ছবিতে বাথেকে ২য় এম জসীম উদ্দিন সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে রাখছেন।ছবিতে ডান থেকে সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খাকন, কমিউনিটি লিডার কেএম নাসিম, দি আমেরিকান ড্রীম মুভির পরিচালক এবং :দি আমেরিকান ড্রীম এবং রুপালী ইলিশ প্রেমের সীমান্তে গ্রন্থের লেখক ও সাবেক ছাত্রনেতা এম জসীম উদ্দিন এবং সাবেক ছাত্রনেতা আলতাফ হোসেনকে দেখা য়াচেছ।ছবি:বাপসনিঊজ।


ত্রি-রাহু থেকে দেশকে মুক্ত করতে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের আহ্বান জে.এস.ডি’র ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনায় নেতৃবৃন্দ

মঙ্গলবার, ০৩ নভেম্বর ২০১৫

Picture

প্রধান বক্তা ছিলেন সমাজতান্ত্রিক দল -জেএসডি কেন্দ্রিয় কমিটির প্রবাস বিষয়ক সম্পাদক ও মুলধারার রাজনৈতিক এডভোকেট মুজিবুর রহমান ।সম্মানীত বিশেষ অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রস্থ সোহরাওয়ার্দী স্মৃতি পরিষদের সভাপতি প্রবীণ শিশু সাহিত্যিক হাসানুর রহমান, নিউইয়র্ক-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকার সম্পাদক আবু তাহের,নিউইয়র্ক-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি ও আইঅন-বাংলাদেশ টিভি পরিচালক রিমন ইসলাম , আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন সভাপতি ও বার্তা সংস্থা বাপসনিউজ এডিটর হাকিকুল ইসলাম খোকন, যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টির সাধারন সম্পাদক আবু তালেব চৌধুরী চান্দু, রাজনীতিক ও লেখক এডভোকেট মনির হোসেন , টিভিএন-২৪ টিভির আশরাফুল হাসান বুলবুল, জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার উপদেষ্ট্রা এডভোকেট জসিম উদ্দিন, বাংলাদেশ সোসাইটি নিউইয়র্কের অন্যতম সদস্য আবুল কাশেম চেীধুরী,প্রগ্রেসিপ ফোরামে জাকির হোসেন বাচ্চু, জাতীয় পার্টি নিউইয়র্ক ষ্টেট কমিটির সাধারন সম্পাদক ফিরোজ হাসান মিলন , কমিউনিষ্ট্ এক্টিভিষ্ট বছির আহমেদ ,কমিউনিষ্ট লিডার লিয়াকত আলী, বাংলাটাইম এর নির্বাহী সম্পাদক আলমগীর হোসেন সরকার , সাংবাদিক মামুন, সাংবাদিক আনোয়ার উদ্দিন আলোচনা ।সভায় অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সহ -সভাপতি সুভাষ মজুমদার ও হেলাল উদ্দিন হেলাল প্রমুখসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

alt

সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন- সামাজিক বিপ্লবের মাধ্যমে শ্রমিক, কৃষক, সর্বহারা জনতা, মেহনতি মধ্যবিত্ত এবং প্রগতিশীল বুদ্ধিজীবি মানুষের মধ্য হতে গড়ে উঠা নতুন নেতৃত্বের অধিকারী শ্রমিক, কৃষক মেহনতি মানুষের সত্যিকার প্রতিনিধিদের উপর রাষ্ট্রীয় শাসন ব্যবস্থা অর্পন এবং বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্রের মাধ্যমে শ্রেনীহীন, শোষণহীন সমাজ প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্য নিয়েই ১৯৭২ সালের ৩১ শে অক্টোবর জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জেএসডি জন্ম লাভ করে। সমাজ বিকাশের নতুন সম্ভাবনাকে বিকশিত করে তোলার জন্য পুরনো বিজাতীয় শক্তির বিরুদ্ধে আপোষহীন সংগ্রামের ঐহিত্য নিয়ে বাঙালী জাতির জন্ম। স্বাধীনতা যুদ্ধে উপনিবেশীক স্বৈরাচারী শক্তিকে পরাভুত করে বাঙালী জাতি পৌরুষত্বের পরিচয় দিয়েছে। স্বাধীনতার পর বার বার এ জাতি বিজয়ের সাফল্যগুলোকে সুসংহত করে শ্রেনীহীন সমাজব্যবস্থার পথে এগিয়ে যেতে চেয়েছে। কিন্তু দলীয় শাষনের যাঁতাকলে পড়ে গত ৪৪ বছর ধরে এদেশের নেতৃবর্গ জাতির এ উর্ধ্বমূখী আকাঙ্খাকে উপলব্দি করতে ব্যর্থ হয়েছে। তাই জাতি আজ হাতাশা ও বিক্ষুব্ধ। রাজনৈতিক দলগুলি দেউলিয়া ও দিশেহারা। এখন জাতি চায় এমন একটি রাজনৈতিক কর্মসূচী- যা শান্তি দিবে, সংহতি দিবে, উন্নয়ণ আর প্রগতির নতুন যুগের সূচনা করবে। কিন্তু এক্ষেত্রে উপনিবেশিক ধাঁচের রাজনৈতিক দলগুলি ব্যর্থ-অক্ষম-অর্থব। একমাত্র জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জেএসডি জাতির আশা আকাঙ্খার স্বার্থক প্রতিনিধি। যারা সংগ্রামের আপোষহীন ও নির্মম; আবার শান্তির জন্য আন্তরিক ও অঙ্গীকারাবদ্ধ।

alt

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সাবেক সংসদ সদস্য ও মুক্তিযোদ্বা আনিসুজ্জামান খোকন বলেন- স্বাধীনতা যুদ্ধের ৪৪ বছর পরে জাতি যখন দেশ গড়া ও উন্নয়নের এমন একটি কর্মসূচী ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশের কামনায় উন্মূখ- ঠিক সেই মূহুর্তেই জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জেএস.ডি ‘দুইকক্ষ’ বিশিষ্ট পার্লামেন্ট গঠন, ফেডারেল গর্ভামেন্ট পদ্ধতির প্রর্বতন, বাংলাদেশে ৯টি প্রদেশ গঠন, কেন্দ্রে জাতীয় ঐক্যমতের সরকার, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য ‘উচ্চকক্ষ’ থেকে তত্বাবধায়ক সরকার গঠন, স্বাধীন বিচার ব্যবস্থা নিশ্চিত করে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা, প্রবাসীদের বিনিয়োগের জন্য ‘উপজেলা শিল্প এলাকা’ গঠন, সার্কের আলোকে উপ-আঞ্চলিক জোট গঠন সহ দশ দফা কর্মসূচী হাজির করেছে; যা শান্তি ও জাতিয় সংগতির যুগোপযুগির দিকদর্শন। তিনি আরো বলেন, আওয়ামীলীগ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে ভোটার বিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে দখলদারের মতো দেশ চালাচ্ছে। তারা মানুষের ভোটের অধিকার, কথা বলার স্বাধীনতা হরণ করেছে। বিরোধী দলের আচরণেও জনগণ হতাশ। মানুষ তাদেরও বিশ্বাস করে না। যুদ্ধাপরাধী জামায়াতকে মানুষ ‘৭১-এ বয়কট করেছে। এ ত্রি-রাহু থেকে জনগণ মুক্ত হতে চায়। তারা বিকল্প শক্তিকে দেখতে চায়। তাই ’৭১ সালের মতো আবার রাজনৈতিক কর্মসূচীর ভিত্তিতে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলে এ ত্রি-রাহু থেকে দেশকে মুক্ত করে এই অচলাবস্থার অবসান ঘটাতে হবে।

alt

সভায় বক্তাগণ বলেন, স্বাধীনতা উত্তর কালে জাতীর জন্য প্রয়োজন ছিল মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহনকারী সকল দল, সমাজ ও শক্তির সমন্বয়ে একটি “বিপ্লবী জাতীয় সরকার” গড়ে তোলা। স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব সুসংহত করা ও জাতীয় উন্নয়নের মৌলিক করণীয় সমূহ সম্পাদনের জন্য এ ছিল অপরিহার্য। কিন্তু তা না করে বৃটিশ-পাকিস্তানি উপনিবেসিক মডেলের রাজনীতি ও রাষ্ট্র ব্যবস্থাপনার উপর নির্ভর করেই স্বাধীন দেশের যাত্রা শুরু করা হয়। যার ফলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন ও বাঙ্গালী জাতীয়তাবাদের উত্তরোত্তর বিকাশ বাধাগ্রস্থ হয়, মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহনকারী শক্তি বহুধা বিভক্ত হয়ে পড়ে, মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে গড়ে উঠা জাতীয় ঐক্য বিনষ্ট হয়।

alt

এমতাবস্থায় ইতিবাচক রাজনীতির ধারাকে এগিয়ে নেয়ার স্বার্থে ‘৬২’র নিউক্লিয়াসের অনুপ্রেরনাতে আওয়ামী লীগের প্রগতিশীল ও সংগ্রামী অংশ, ছাত্র লীগের সংগ্রামী অংশ এবং মুক্তিযোদ্ধাদের সমন্বয়ে ‘৭২’র ৩১শে অক্টোবর ঢাকার পল্টন ময়দানে লক্ষ লক্ষ ছাত্র-জনতার উপস্থিতিতে স্বাধীনতার প্রথম পতাকা উত্তেদালক আ. স. ম আবদুর রব মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন ও শোষনমুক্তি নিশ্চিত করার লক্ষে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি নামে একটি রাজনৈতিক দলের নাম আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষনা করেন। জন্মের পর থেকে জাতীর প্রতিটি সংকটে বাস্তবসম্মত কর্মসূচী প্রদান ও আপোষহীন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে জেএসডি প্রতিষ্ঠা লাভ করেছে প্রগতিশীল ধারার প্রতিনিধিত্বকারী ইতিবাচক রাজনৈতিক শক্তি হিসাবে। সকল অত্যাচার, নির্যাতন ও কারাবন্দীত্বের দূর্ভোগ সত্বেও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি বৃটিশ, ভারত, পাকিস্তানি কলোনিয়েল আইনের পরিবর্তে স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহনকারী জাতীয় চেতনা সমন্বিত আইনের জন্য দাবী জানানো অব্যাহত রাখে। দলের ত্বাত্তিক নির্দেশক, স্বাধীনতার রূপকার সিরাজুল আলম খান এর নির্দেশনায় ও স্বাধীনতার প্রথম পতাকা উত্তোলক আ স ম আবদুর রব দ্বি-কক্ষ বিশিষ্ট সংসদীয় রাজনীতি, ফেডারেল সরকার পদ্ধতি ও প্রদেশ গঠনের প্রস্তাব করে আসছেন। স্ব-শাষিত স্থানীয় সরকারের দাবী জেএসডি’র অন্যতম প্রস্তাব।

alt

জেএসডি’র নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, আসুন পুরোনো মডেলের রাজনীতি, দলীয় আধিপত্ববাদী রাজনৈতিক-সংস্কৃতি ও উপনিবেসিক ধাচের রাষ্ট্র ব্যবস্থা পরিবর্তন করে স্বাধীন দেশের উপযোগী নতুন মডেলের রাজনীতি ও রাষ্ট্র ব্যবস্থা গড়ে তোলার আন্দোলনকে বেগবান করি। আমরা আস্থা রাখি, স্বাধীনতার পথম পতাকা উত্তোলক জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি’র প্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমান সভাপতি আ স ম আবদুর রব দীর্ঘ রাজনৈতিক অভিজ্ঞতায় রাষ্ট্র শাষনে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে সক্ষম। বর্তমান যুগে জ্ঞান অভিজ্ঞতা শিক্ষার সমন্বিত শক্তি ঐক্যবদ্ধ জাতীয় নেতৃত্বের জন্য মূল্যবান উপকরণ। সমযোতা ও বিতর্কের এ আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে আমরা আছি সরকার ও অন্যান্য জাতীয় নেতৃত্বের ঐক্যের ভিত্তিতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় রাষ্ট্রীয় নেতৃত্ব দেখার অপেক্ষায়।  সবার প্রারম্ভে ১৯৭৫-এর ১৫ আগষ্ট স্বপরিবারে নিহত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু, ডাকা কেন্দ্রিয় কারাগারে চার জাতীয় নেতা, একাত্তর-এর মুক্তিযুদ্ধ ও ১৯৫২- এর মহান ভাষা আন্দোলনসহ আজ পর্যন্ত সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নিহতদের স্মরনে সভায় দাঁড়িয়ে এক মিনটি কাল নিরাবতা পালন করা হয়।


জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল -জেএসডি‘র ৪৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করবে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল -জেএসডি যুক্তরাষ্ট শাখা

শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০১৫

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ:এনজেবিডিনিউজ:জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি‘র ৪৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ৩১ অক্টোবর  উপলক্ষে আগামী ১ নভে¤¦র রবিবার সন্ধ্যান ছয় টায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখা যথাযথ মর্যাদার সাথে পালন করবে। খবর বাপসনিউজ। এ উপলক্ষে নিউইয়র্কের বাঙালি অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটসের দেশবাংলা ও বাংলাটাইমস  অফিস, ৩৭-০৭,৭৪ স্ট্রীটস-এর বিটুইন ব্রডওয়ে এবং ৩৭ এভিন্যুর মাঝে  এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। জেএসডি‘র ৪৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভায় সকল প্রবাসীদের অংশ গ্রহণে সাদর আমন্ত্রণ জানিয়েছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি হাজী আনোয়ার হোসেন লিটন ও সাধারণ সম্পাদক সামসুউদ্দিন আহমেদ শামীম।খবর বাপসনিঊজ:

JSD USA   Baps
 জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি কেন্দ্রিয় সভাপতি সাবেক মন্ত্রী আ স ম আব্দুর রব ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক রতন এক বিবৃতিতে সবার প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি‘র ৪৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে। বাপসনিউজ।


জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল -জেএসডি‘র ৪৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করবে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি যুক্তরাষ্ট শাখা

বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০১৫

হাকিকুল ইসলাম খোকন:বাপ্‌স নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে :জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি‘র ৪৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ৩১ অক্টোবর উপলক্ষে আগামী ১ নভে¤¦র রবিবার সন্ধ্যান ছয় টায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখা যথাযথ মর্যাদার সাথে পালন করবে। খবর বাপসনিউজ। এ উপলক্ষে নিউইয়র্কের বাঙালি অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটসের দেশবাংলা ও বাংলাটাইমস  অফিস, ৩৭-০৭,৭৪ স্ট্রীটস-এর বিটুইন ব্রডওয়ে এবং ৩৭ এভিন্যুর মাঝে একটি রেস্টুরেন্টে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। জেএসডি‘র ৪৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভায় সকল প্রবাসীদের অংশ গ্রহণে সাদর আমন্ত্রণ জানিয়েছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি হাজী আনোয়ার হোসেন লিটন ও সাধারণ সম্পাদক সামসুউদ্দিন আহমেদ শামীম।খবর বাপসনিঊজ:

Picture
 জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি কেন্দ্রিয় সভাপতি সাবেক মন্ত্রী আ স ম আব্দুর রব ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক রতন এক বিবৃতিতে সবার প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি‘র ৪৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে। বাপসনিউজ।