Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

নিউয়র্কের খবর

বাংলাদেশ একাডেমী অব ফাইন আর্টস (বাফা)’র উদ্যোগে ব্রঙ্কসে প্রথম বারের মত প্রভাত ফেরির মধ্য দিয়ে আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন ,ওসমান গনি,সুহাস বডুয়া, হেলাল মাহমুদ,আয়েশ আক্তার রুবি,বাপসনিউজ: নিউইয়র্ক শহরের ব্রঙ্কসে এই প্রথম বারের মত মহান শহীদ দিবস এবং আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন করা হয়। খবর বাপসনিউজ। গত ২১ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টায় বাংলাদেশ একাডেমী অব ফাইন আর্টস (বাফা)’র উদ্যোগে ১৪৫৪ ওলমষ্টেড এভিনিউ, ব্রঙ্কস নিউইয়র্ক-- এনওয়াই-১০৪৬২ এর অপ্টিমাম টিউটোরিয়াল এর সম্মুখ থেকে প্রভাত ফেরির সূচনা করা হয়।

alt

সংগঠনের কর্মকর্তা, শিক্ষার্থী, অভিভাবক, কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক, লেখক, কবি ,সাহিত্যিক, রাজনীতিক, বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ মুলধারার নেতৃবৃন্দদের উপস্থিতিতে প্রভাত ফেরি, শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ অর্পন, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি উদযাপন করা হয়।

alt

ব্রঙ্কসের বাঙ্গালী অধ্যুষিত ষ্টারলিং- বাংলাবাজার – ওলমষ্টেড এভিনিউর বাফার কার্যালয়ের সামনে থেকে বিশাল প্রভাত ফেরিটি শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন শেষে ওই এলাকার এশিয়ান ড্রাইভিং স্কুলের দেয়ালে এসএ লিংকনের চিত্রায়িত শহীদ মিনারের সামনে নির্মিত বেদীতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পন করা হয়।

alt

আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারী-আমি কি ভুলিতে পারি গান গেয়ে ফুলের তোড়া হাতে প্রথমে ভাষা শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রভাত ফেরির উদ্যোক্তা বাংলাদেশ একাডেমী অব ফাইন আর্টস (বাফা)’র প্রেসিডেন্ট ফরিদা ইয়াসমীনের নের্তৃত্ত্বে বাফার শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকবৃন্দ।

unnamed

এরপর এক এক করে শহীদ বেদীতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পন করেন নতুন প্রজন্ম, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, পেশাজীবি, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ নানা শ্রেনী পেশার মানুষ।

alt

দলমত নির্বিশেষে সর্বস্তরের প্রবাসীরা প্রভাতফেরিসহ একুশের অনুষ্ঠান মালায় অংশ নেন। বাফার এই আয়োজনে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত হন ব্রঙ্কস থেকে নির্বাচিত নিউইয়র্ক ষ্টেট এ্যাসেম্বলির এ্যাসেম্বলিম্যান মুলধারার রাজনীতিক লুইস সিপুলভেদা।

alt

বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সহকারী সাধারন  সম্পাদক ব্রঙ্কস প্রবাসী বিশিষ্ট কমিউনিটি এক্টিভিষ্ট সিরাজ উদ্দিন আহমদ সোহাগের সুচারু সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন  বাংলাদেশ একাডেমী অব ফাইন আর্টস (বাফা)’র প্রেসিডেন্ট ফরিদা ইয়াসমীন, ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন  বাংলাদেশ একাডেমী অব ফাইন আর্টস (বাফা)’র শামীম আরা বেগম।

alt
অতিথিদের মাঝে বক্তব্য রাখেন মুলধারার রাজনীতিক ও আইনজীবি মোহাম্মদ এন মজুমদার, মুলধারার রাজনীতিক ও রিয়েলেট জাকির এইচ খান, কবি পতœী ও সাহিত্যিক নিরা কাদরী, মুক্তিযোদ্ধা তোফায়েল আহমদ চৌধুরী, রুনি ডিজাইয়ারের সত্ত্বাধিকারী,সাংবাধিক ও এক্টিভিষ্ট নিসার জামিল শুড্ডু ,যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও মুলধারার রাজনীতিক আবদুর রহীম বাদশা, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা, বাপসনিউজ এডিটর, মুলধারার রাজনীতিক ও সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন,  কবি জুলি রহমান, গল্পকার ও লেখক নাসরিন চৌধুরী আবৃতি শিল্পী আনোয়ারুল হক, লাভলু, ডাঃ শাহানারা আলী রেনু আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম, বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও সাহিত্য একাডেমীর সভাপতি মোশারফ হোসেন, বাফার আবদুল মুকিত চৌধুরী এবং এস এ লিংকন।

alt
অনুষ্ঠানের বিশেষ সহযোগীতায় ছিলেন বাফার শামীম আরা বেগম,ফারজানা ইয়াসমীন, রনজিত কুমার দাস, মোঃ নাসির উল্লাহ, অনুপ কুমার দাস, মামুন আহমেদ এবং আব্দুল মুকিত চৌধুরী প্রমুখ।

alt
সার্বিক সহযোগীতায় ছিলেন অপ্টিমাম টিউটোরিয়াল, ব্রঙ্কস বাংলাদেশ উইমেন’স এসোসিয়েশন এবং ড্রাইভিং স্কুলপ্রমুখ।সবশেষে বাফার শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। এবং অতিথিদের প্রাতঃরাশে আপ্যায়ন করা হয়।

alt

প্রভাত ফেরির প্রধান আকর্ষণ নিউইয়র্ক ষ্টেট এ্যাসেম্বলির এ্যাসেম্বলিম্যান মুলধারার রাজনীতিক লুইস সিপুলভেদা বলেন পৃথিবীর কোথাও ভাষার জন্য প্রাণ দেয় তা আমার জানা নেই। আমি বাংলাদেশের বন্ধু।বাংলা ভাষাকে আমি ভালবাসী।এবং প্রভাত ফেরীতে উপস্থিত হতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করি। তিনি বাফার কর্মকান্ডের ভূষসী প্রশংসা করেন। অনুষ্ঠানের প্রারম্ভে ভাষা শহীদদের স্বরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

 


জেনারেল এমএজি ওসমানীর ৩৩তম মৃত্যুবার্ষিকী উদযাপন করেছে বালাগঞ্জ ওসমানী নগর প্রবাসী কল্যান সমিতি যুক্তরাষ্ট্র

বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৭

Picture

হাকিকুল ইসলাম খোকন ,বাপসনিউজঃ বালাগঞ্জ ওসমানী নগর প্রবাসী কল্যান সমিতি যুক্তরাষ্ট্রের উদ্যোগে এবং বঙ্গবীর এমএজি ওসমানী স্মৃতি পরিষদ যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগীতায় মুক্তি বাহিনীর সর্বাধিনায়ক বঙ্গবীর জেনারেল (অব ঃ) এমএজি ওসমানীর ৩৩তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে গত ১৯ ফেব্রুয়ারী রবিবার নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের ইত্যাদি পার্টি হলে। খবর বাপসনিউজ।

alt

সংগঠনের সভাপতি আজিজ আহমদ সালিক এর সভাপতিত্ত্বে ও অন্যতম উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা আকতার আহমদ চৌধুরীর সুচারু পরিচালনা ও উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকার সভাপতি বদরুল হোসেন খান।

unnamed 22

প্রধান বক্তা ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারন সম্পাদক ও সংগঠনের অন্যতম উপদেষ্ঠা এম এ সালাম।

alt

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা নাজমুল ইসলাম চৌধুরী, সিলেট এমসি গভমেন্ট কলেজ বিশ^বিদ্যালয় এলামনই এসোসিয়েশনের সভাপতি বেলাল উদ্দিন, জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি ও বিশিষ্ট .সংগঠক  আব্দুল বাসিত, জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাজী আব্দুর রহমান, সাধারন সম্পাদক আবু তালেব চৌধুরী চান্দু, জাতীয় ছাত্র ফ্রন্ট ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় শাখার সাবেক সভাপতি আক্তার হোসেন, ওসমানী নগর  ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মিয়া মোঃ আনছার, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্ঠা সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম, সংগঠনের উপদেষ্টা আব্দুল কাদির , আব্দুল মান্নান, আখতার আহমেদ চৌধুরী, কাজী ওয়াদুদ আহমেদ। হবিগঞ্জ জেলা সমিতির সভাপতি শফি উদ্দিন তালুকদার।

alt

বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন মদিনা মসজিদের সাবেক সাধারন সম্পাদক হাফিজ জুলফিফল চৌধুরী।


চিটাগাং এসোসিয়েশন অব নর্থ আমেরিকার আসন্ন নির্বাচন এবং সাম্প্রতিক বিভিন্ন বিষয়ে চট্রগ্রাম নাগরিক ঐক্য’র সংবাদ সম্মেলন

বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,ওসমান গনি,সুহাস বডুয়া, হেলাল মাহমুদ,আয়েশ আক্তার রুবি,বাপসনিউজ ঃ গত ১৯ ফেব্রুয়ারী রবিবার সন্ধ্যা সাতটায় নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের পালকি সেন্টারের চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে চিটাগাং এসোসিয়েশন অব নর্থ আমেরিকার আসন্ন নির্বাচন এবং সাম্প্রতিক বিভিন্ন বিষয়ে চট্রগ্রাম নাগরিক ঐক্য’র ব্যানারে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। খবর বাপসনিউজ। চট্রগ্রাম সমিতি অব নর্থ আমেরিকার সাধারন সদস্যদের পক্ষ থেকে এই সাংবাদিক  সম্মেলনে বিপুল সংখ্যক চট্রগ্রামবাসী উপস্থিত ছিলেন।
সাংবাদিক  সম্মেলনে মুল বক্তব্য পাঠ করেন সাবেক ছাত্রনেতা বিশিষ্ট সংগঠক কামাল হোসেন মিঠু।
তিনি সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন.

বাঁচাও চট্টগ্রাম সমিতি
সম্মানিত প্রিন্ট এবং ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রিয় সাংবাদিক ভাইয়েরা,
আস্সালুমাআলাইকুম এবং আদাব। আপনাদের সবাইকে অশেষ ধন্যবাদ আজকের এই মত-বিনিময় সভায় উপস্থিত হওয়ার জন্য।
১৯৮৯ সালের কোন এক সন্ধ্যায় করোনার একটি বাড়ীতে প্রবাসের কয়েকজন চট্টগ্রামবাসী মিলে চট্টগ্রাম সমিতি গঠন করেছিলেন, চট্টগ্রামবাসীর কল্যাণ এবং সমৃদ্ধির আশায় সেদিন যারা সেই স্বপ্নবীজ বুনে ছিলেন তারা অনেকেই আজো চট্টগ্রাম সমিতির সাথে জড়িত আছেন এবং নিশ্চিতভাবে বলতে পারি সেই স্বপ্নচারী যুবকেরা আজ কোন না কোন ভাবে আশাহত। দীর্ঘ ২৮ বছরের পথ পরিক্রমায় আমাদের অনেক অর্জনের পাশাপাশি আমাদের ব্যর্থতার দায়ভার কম নয়।
আপনারা অবগত আছেন, আগামী ২রা এপ্রিল, ২০১৭ চট্টগ্রাম সমিতির নির্বাচন ঘোষনা করা হয়েছে। যা ইতিমধ্যেই নির্ধারিত সময়সীমা অতিক্রম করেছে। এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিলো গত সেপ্টেম্বর/অক্টোবর মাসে। দীর্ঘ সূত্রিতা সত্ত্বেও আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই চট্টগ্রামবাসীর মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে। তার পাশাপাশি অত্যন্ত দুঃখজনক হলেও সত্য এক শ্রেণীর লোক, যারা চট্টগ্রাম অধিবাসী কিনা আমাদের সাথে সন্দেহ রয়েছে তারা সমিতির ভাবমূর্তিকে নষ্ট করার অপ্রপ্রয়াস চালাচ্ছে।


সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে বিশেষ করে ফেসবুকে অত্যন্ত কুরুচিপূর্ণ ভাষায় আক্রমনাত্বক বক্তব্য রেখে চলেছেন, নির্বাচন আসে, নির্বাচন যায় কিন্তু নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এ ধরনের আচরণ মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়। আমরা চট্টগ্রাম সমিতির সাধারণ সদস্যদের পক্ষ থেকে এই ধরনের কার্য্যকলাপের সাথে জড়িত আছেন, তাদের বয়কট করায় জোর দাবী জানাচ্ছি।
এবার আমি বর্তমান কার্য্যকরী কমিটির কার্যক্রম এবং তাদের ভূমিকা প্রসঙ্গে। নির্বাচনের আজ যে দীর্ঘসূত্রিতা সৃষ্টি হয়েছে, বর্তমান কমিটি তার দায়ভার কোনভাবেই এড়াতে পারেন না। নির্বাচন দিতে ব্যর্থ হয়ে বর্তমান কমিটি শুধুমাত্র যে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন তা নয়। তাদের এই ব্যর্থতার ফলশ্রুতিতে চট্টগ্রাম সমিতি আর্থিক ভাবেও ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। বর্তমান কার্যকরী কমিটি তাদের নিজস্ব স্বার্থ সিদ্ধির জন্য চট্টগ্রাম সমিতিকে ব্যবহার করেছেন। তাদের ব্যক্তিগত স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য তারা চট্টগ্রাম সমিতির সম্মানিত, ব্যক্তিবর্গের সম্মান হানি করেছেন। ভোটে নির্বাচিত একটি কমিটির কাছে চট্টগ্রাম বাসীর এমন প্রত্যাশা ছিলো না। বিশেষ করে ট্রাষ্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কমিটির ভানুমতির খেল চট্টগ্রামবাসী স্বচক্ষে দেখেছেন।
এবার আসি, চট্টগ্রাম সমিতির আর্থিক অনিয়মের প্রসঙ্গে। ২০১২ সালের নির্বাচিত কমিটি অনেক চড়াই উৎরাই পার হয়ে তাদের মেয়াদের শেষার্ধে চট্টগ্রাম সমিতির ভবনের ঋণকৃত সমস্ত টাকা শুধুমাত্র একটি চেকের মাধ্যমে পরিশোধ করেন। আমরা সমিতির সাধারণ সদস্যরা সেদিন আশান্বিত হয়েছিলাম এই ভেবে, এইবার চট্টগ্রাম সমিতির আর্থিকভাবে স্বচ্ছলতার মুখ দেখবে। কিন্তু বিধিবাম। ৪০,০০০ হাজার ডলার হাতে নিয়ে দায়িত্ব গ্রহণের পরেও বর্তমান কার্য্যকরী কমিটি চট্টগ্রাম সমিতিকে একটি দেওলিয়া প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেছেন। ৩০ মাসের ক্ষমতায় থাকাকালে মাসে ঘরভাড়া বাবৎ শুধুমাত্র আয় হয়েছে ২,১৬,০০০ ডলার। এছাড়া ও সমিতির প্রতিটি ইভেন্টে সমিতির দাতা এবং সাধারণ সদস্যরা সবসময় কন্ট্রিবিউট করেছেন। আজ অবধি সমিতির প্রধান দায়িত্বে থাকা সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক/কোষাধ্যক্ষ চট্টগ্রাম বাসীর কাছে হিসাব দিতে ব্যর্থ হয়েছেন।
আমাদের কাছে এই মর্মে তথ্য প্রমান আছে যে, সমিতির বর্তমান সভাপতি এবং কোষাধ্যক্ষ চট্টগ্রাম সমিতির ব্যাংক একাউন্ড নিয়ে যথেচ্ছাচার করেছেন। সমিতির ভাড়া সংগ্রহ করা হয়েছে নগদ টাকায় যা নজীরবিহীন। চট্টগ্রাম সমিতির ব্যাংক হিসাব নং ৪৩০৬২৮০৪৫৭ থেকে বারই সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখে কোষাধ্যক্ষ মোক্তাদির বিল্লাহ $১১৪৯০.০০ ডলার নগদে উত্তোলন করেছেন খাত হিসেবে দেখানো হয়েছে ঈড়হংঃৎঁপঃরড়হ ধহফ ঊঈ সভাপতি মহোদয় এই চেকে সই করেছেন। আমাদের প্রশ্ন একটি অলাভজনক (৫০৪) প্রতিষ্ঠানে কেমন করে এতো বড় অংকের টাকা নগদে লেনদেন হলো? কাদেরকে এই টাকা দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে ঊঈ, ঊঈ র মানে কি? ঊষবপরঃড়হ ঈড়সসরংড়হ নাকি অন্য কিছু?
এই ধরনের আরো ব্যাপক আর্থিক অনিয়মের খবর আছে আমাদের কাছে। দীর্ঘ ২৮ বছর পেরিয়ে চট্টগ্রাম সমিতি যখন এই প্রবাসে অগ্রগণ্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিবেচিত হবার কথা, তখন বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে এবং মিডিয়ার চট্টগ্রাম সমিতির ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হওয়ার মতো সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। আমরা প্রবাসী চট্টগ্রামবাসীরা চাই চট্টগ্রাম সমিতি তার হৃত গৌরব ফিরে পাক।
আমরা চট্টগ্রামবাসীরা চাই, ঘোষিত তফসীল অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হোক, আমরা  চাই সচল চট্টগ্রাম সমিতি, সমৃদ্ধ চট্টগ্রাম সমিতি। যারা আর্থিক দূর্নীতি এবং অনিয়মের সাথে জড়িত হয়েছেন, তাদেরকে আগামী দিনের যে কোন ধরনের নেতৃত্বে দেখতে চাই না। আমরা চাই সৎ এবং যোগ্য নেতৃত্ব, যারা চট্টগ্রাম সমিতির পবিত্রতা রক্ষা করবেন।
নির্বাচনে অংশগ্রহণ এবং প্রতিদ্বন্ধিতা একটি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার জন্য যারা মিশনে নেমেছেন তাদের কাছ থেকে সর্তক থাকার জন্য চট্টগ্রাম বাসীকে উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি।  সেই সাথে এ যাবত কালের সমস্ত আর্থিক অনিয়মের শ্বেতপত্র প্রকাশের ব্যবস্থা করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।
সকলকে ধন্যবাদ।
নাগরিক ঐক্য, চট্টগ্রাম প্রবাসী, নিউইয়র্ক।

সাংবাদিক সম্মেলনে ধন্যবাদ জানান হেলাল মাহমুদ। তিনি সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, চট্রগ্রাম সমিতির কর্মকর্তাদের দুর্নীতির সঠিক হিসাব না দিলে তাদের বিরুদ্ধে সাধারন সদস্যগত আইনি ব্যবস্থা নিবেন। সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরদেন এবং অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন আবু তালেব চৌধুরী চান্দু, সৈয়দ এম রেজা, মফজল আহমেদ চৌধুরী, মোঃ হারুন, আব্দুল করিম, নবী হোসেন, নাজিম উদ্দিন, এম এ লতিফ নয়ন, মতিউর রহমান, আরশাদ ওয়ারেশ, সাহাবউদ্দিন চৌধুরী লিটন, মীর কাদের বাশল, গিয়াস উদ্দিন, সাধন ধর, সামসুল আলম, মোঃ ইসহাক, আবদুর রহীম, মোহাম্মদ হারুন সেলিম, আইয়ুব আনসারী, দিলীপ বড়–য়া এবং নাজিম উদ্দিন সহ অর্ধশতাধিক সাধারন সদস্যবৃন্দ। সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, সাবেক সভাপতি, উপদেষ্টা এবং সাবেক বিভিন্ন কর্মকর্তাগন।
সংবাদ সম্মেলনে শেষে নৈশভোজে আপ্যায়ন করা হয়।


যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত কক্সবাজারবাসীর সংবর্ধনা

বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,ওসমান গনি,সুহাস বডুয়া, হেলাল মাহমুদ,আয়েশ আক্তার রুবি,বাপসনিউজ : নিউইয়র্ক থেকে : যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত কক্সবাজারবাসী সংবর্ধনা দিয়েছে কক্সবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক এবং কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমলকে।নিউ ইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসের নান্দুস পার্টি হলে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ‘কক্সবাজার এসোসিয়েশন অব নর্থ আমেরিকা’।

Picture

আইপিইউ এবং জাতিসংঘের যৌথ উদ্যোগে সম্প্রতি নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে অনুষ্ঠিত সামুদ্রিক সম্পদ রক্ষা তথা পরিবেশ সুরক্ষায় করণীয় সম্পর্কে দু’দিনব্যাপী এক পার্লামেন্টারি হিয়ারিং-এ কক্সবাজার অঞ্চলের সমস্যা আর সম্ভাবনা যথাযথভাবে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে উপস্থাপনের জন্যে এ সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে বলে জানায় সংগঠনটি।

alt

সংগঠনের সভাপতি এহতেশামুল হক শিমুলের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন আরটিভি’র যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি আশরাফুকুল হাসান বুলবুল।অনুষ্ঠানের শুরুতেই দুই এমপি’কে কক্সবাজারবাসীর পক্ষ থেকে ক্রেস্ট দেন এসোসিয়েশনের উপদেষ্টা নূরুল আজিম এবং সেক্রেটারি গিয়াসউদ্দিন।

alt
এ সময় অতিথি হিসেবে মঞ্চে ছিলেন চট্টগ্রাম সমিতির সাবেক সভাপতি কাজী আজম, সেক্রেটারি আবু তাহের, যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি আব্দুল কাদের মিয়া এবং কক্সবাজার অ্যাসোসিয়েশনের উপদেষ্টা মুজিবুর রহমান, বোর্ড অব ট্রাষ্টি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, নিউইয়র্ক স্টেট যুবলীগের আহ্বায়ক তারেকুল হায়দার।

alt

সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে সাইমুম সরওয়ার কমল বলেন, “কক্সবাজারের ঐতিহ্য সমুন্নত রাখার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে নতুন করে বিশ্বের দরবারে উপস্থাপনের এ সুযোগ দিয়েছিলেন সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার বিচক্ষণ নেতৃত্বে গোটা বাংলাদেশ আজ সমৃদ্ধির পথে ধাবিত হচ্ছে-এমন মন্কব্যও শুনেছি জাতিসংঘে বিভিন্ন দেশ থেকে ওই শুনানীতে অংশগ্রহণকারীদের মুখ থেকে।”

alt

আশেক উল্লাহ রফিক এমপি বলেন, “কক্সবাজারের উন্নয়নের অর্থ হচ্ছে বাংলাদেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত করা। সেভাবেই আমরা কাজ করছি সকল ফোরামে। জাতিসংঘে এসে আমরা কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের বিস্তারিত বর্ণনা উপস্থাপনে সক্ষম হয়েছি। বিশ্বে অন্যতম বৃহত্তম এই সমুদ্র সৈকতের সৌন্দর্য অটুট রাখতে আন্তর্জাতিক মহলের সহায়তা চেয়েছি।”সংসদ সদস্য সাইমুন সরোয়ার কমল বলেন, “বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে   যতদিন বাংলাদেশ থাকবে, ততদিন বিশ্বের কোন দেশ বাংলাদেশকে খাটো করে দেখার সুযোগ পাবেনা।”

alt
উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন জালালাবাদ সোসাইটির প্রেসিডেন্ট বদরুল খান,মুক্তিযোদ্ধা শরাফ সরকার, চট্টগ্রাম সমিতির সাবেক সভাপতি মোঃ হানিফ, চট্টগ্রাম সমিতির সাবেক নির্বচন কমিশনার রেজা, চট্টগ্রাম সমিতির ট্রাষ্টি বোর্ডের কো-চেয়ারম্যান সামসুল আলম, কমিউিনিটি এক্টিভিষ্ট এনাম চৌধুরী, সাবেক সাংস্কৃতিক সম্পাদক লিটন চৌধুরী, আশ্রাফ আলী লিটন, চট্টগ্রাম সমিতির আসন্ন নির্বচনের সভাপতি প্রার্থী আব্দুল হাই জিয়া, নির্বাচন কমিশনার মাকসুদুল হক চৌধুরী, চট্টগ্রাম সমিতির আসন্ন নির্বাচনের সভাপতি প্রার্থী মোঃ জাহাঙ্গির আলম, মোক্তাদির বিল্লাহ, উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান, উপদেষ্টাএম. নাদের প্রমুখ।


সঙ্গীত শিল্পী ও টিভি উপস্থাপক শাহরিন আশরাফ লিটা এবং প্রকৌশলী জারিফ আশরাফ দম্পত্’ির বসন্তবরণ, ভালবাসা দিবস উদযাপন

রবিবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৭

alt

হাকিকুল ইসলাম খোকন ,ওসমান গনি,সুহাস বডুয়া, হেলাল মাহমুদ,আয়েশ আক্তার রুবি,বাপসনিউজ : নিউইয়র্ক প্রবাসী শিক্ষাবিদ,সঙ্গীত শিল্পী এবং আশির দশকের টিভি’র জনপ্রিয় সুপরিচিত উপস্থাপক শাহরিন আশরাফ লিটা এবং প্রকৌশলী জারিফ আশরাফ দম্পতি’র উদ্যোগে গত ১২ ফেব্রুয়ারী অপরাহ্ন ১টায় ৮৪-৬৭, ১২৯ ষ্ট্রীট কিউ গার্ডেন-এর বাসায়

alt

জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী শাহ মাহবুব-এর সহধর্মিনী এবং আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন সভাপতি , বাপসনিউজ এডিটর সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন এর সহ ধর্মিনী জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল কটিয়াদিনিউজ ডটকম সম্পাদক আয়েশা আক্তার রুবি’র যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসী হয়ে স্থায়ীভাবে নিউইয়র্ক আগমনে বসন্ত বরণ,

alt

ভালবাসা দিবস উদযাপন এবং শাহরিন আশরাফ লিটার শাশুড়ী,প্রকৌশলী জারিফ আশরাফ’র মহীয়সী মা’র ৮৬ তম জম্মদিন উদযাপন করা হয়। খবর বাপসনিউজ।

alt
আমন্ত্রিত অতিথিদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন বিটিভি’র এক সময়ের খ্যাতিমান প্রযোজক সঙ্গীত শিল্পী সাহিদা আরবি ,কবি ও সাংবাদিক সালেম সুলেরী, হাকিকুল ইসলাম খোকন,অভিনেতা ও সংগঠক আর্থার আজাদ, মিসেস আজাদ, শিল্পী দম্পতি শাহ মাহবুব ও শর্মী জনপ্রিয় শিল্পী তানভীর শাহীন, সারা শাহীন,

alt

স্মার্ট রিয়েলেটর নাসরিন, যন্ত্রসংঙ্গীত তারকা পার্থ বড়–য়ার সহধর্মিনী পপি এবং সিয়াম সুলেরীসহ প্রবাসের বিশিষ্ট জন এবং শাহরিন আশরাফ লিটা ও প্রকৌশলী জারিফ আশরাফের একমাত্র তনয় আনাতুল এবং সহধর্মিনী জেনিফার আনাতুল প্রমুখ।

alt
প্রথমত বসন্তকে বরণ,সাথে দুই নববধু বরণ, ভ্যালেন্টাইন্স ডে বা ‘বিশ^ ভালবাসা’ দিবসের শুভেচ্ছা জ্ঞাপন।

alt
নানা স্বাদে বিমুগ্ধ মধ্যাহ্ন ভোজ। শাশুরী-মা’র ৮৬ তম জন্মদিনে যথারীতি ছিলো কেককাটা পর্ব ও । কেককাটার পূর্বে কবি সালেম সুলেরীর নিবেদন।

alt

‘ জন্মদিনের পদ্য ’ সবাইকে আনন্দ দিয়েছিলো। কেকের পাশাপাশি দধি, নানা পদের মিষ্টান্ন, ফলরাজি, তরল পানীয়-ইত্যাদি ছিল অফুরন্ত। বাইরে ছিলো শীতল-মৃদু তুষারপাত। ভেতরে উত্তাপভরা আড্ডা, কবিতা , কৌতুক এর ব্যাতিক্রমধর্মী আয়োজন সবাইকে মুগ্ধ করেছে।

alt


নিউ ইয়র্ক প্রবাসী গাইবান্ধাবাসীদের মানববন্ধন

সোমবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,মো:নাসির, ওসমান গনি,সুহাস বডুয়া,হেলাল মাহমুদ, বাপসনিঊজ:গাইবান্ধায় গণউন্নয়ন কেন্দ্র পরিচালিত কুন্দের পাড়া গণউন্নয়ন একাডেমি পুড়িয়ে দেওয়ার প্রতিবাদে নিউ ইয়র্ক প্রবাসী গাইবান্ধাবাসীদের এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত শনিবার বিকেলে জ্যাকসন হাইটস ডাইভারসিটি প্লাজায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এ প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্র উদীচীর সহ-সভাপতি সুব্রত বিশ্বাস। মানববন্ধনের শুরুতেই বাংলাদেশ থেকে টেলিকনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন গণউন্নয়ন কেন্দ্রের নির্বাহী প্রধান এম আব্দুস সালাম। কুন্দের পাড়া গণউন্নয়ন একাডেমি পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ এবং এই নাশকতার সাথে জড়িত সন্ত্রাসীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে অবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বক্তব্য দেন প্রাবন্ধিক ও সাংবাদিক শিতাংশু গুহ, সাপ্তাহিক বর্ণমালা ও ৭১ টিভি যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি মাহফুজুর রহমান, বিশিষ্ট রাজনীতিক ও সমাজসেবক জাকির হোসেন বাচ্চু,

alt

আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন সভাপতি ও বাপসনিউজ এডিটর হাকিকুল ইসলাম খোকন , উত্তরবঙ্গ ফাউন্ডেশনের সভাপতি মো. আতোয়ারুল ইসলাম, আয়োজকদের পক্ষে দীলিপ মোদক। সমাবেশে প্রস্তাবনা পাঠ করেন মিষ্টি বর্মণ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সনজীবন কুমার।
alt
সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক মোহাম্মদ আবুল কাশেম, ঠাকুরগাঁও জেলা সমিতির সভাপতি মোস্তফা কামাল মামুন, সমাজসেবক লিয়াকত হোসেন, সাবেক ছাত্রনেতা জীবন শফিক, গাইবান্ধা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক কমিশনার নাজমা শওকত, শওকত হোসেন, প্রতীমা সরকার, পপি ঘোষ, মেহেদী ইসলাম মিথুন, এম ডি মাহফুজুল ইসলাম তুহিন, ফাহমিদা লুনা তুহিন, শরিফ হোসেন, নিয়ন ইসলাম, সুমনা লিয়ন প্রমূখ। বিদ্যালয়টি অগ্নিকাণ্ডে ভস্মীভুত হওয়ায়, ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বক্তারা। তারা বলেন, যে বা যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তারা মানুষ না, অমানুষ। যারা এই অপরাধটি করেছে, তারা মানুষকে, সমাজকে অন্ধকারে রাখতে চায়।

alt

সমাবেশে থেকে এর তীব্র প্রতিবাদ করে এই নাশকতার সাথে জড়িত সন্ত্রাসীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে অবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়। সেই সাথে চরাঞ্চলে সুবিধা বঞ্চিত শিক্ষার্থীদের শিক্ষার উন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কুন্দের পাড়া গণউন্নয়ন একাডেমি বিদ্যালয়কে এমপিওভুক্ত করা এবং সরকারি আর্থিক সহায়তায় জরুরিভিত্তিতে বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন নির্মাণসহ আসবাবপত্র, লাইব্রেরির, বই পুস্তক, ও শিক্ষা উপকরণের সরবরাহ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি করা হয়। আর যে সমস্ত শিক্ষার্থীর সনদপত্র পুড়ে গেছে, তাদের সনদপত্রের ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বোর্ড কর্তৃপক্ষের কাছে আহ্বান জানানো হয়।


কন্ঠশিল্পী তানভীর শাহীনের “গানের ফেরিওয়ালা”জাতীয় স্বিকৃতি পাবে

শুক্রবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন , আয়েশ আক্তার রুবি ,বাপসনিউজ : নিউইয়র্কের জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী তানভীর শাহীনের ৩য় অডিও অ্যালবাম ‘গানের ফেরিওয়ালা’-এর মোড়ক উন্মোচন ও প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে গত ৫ ফেব্রুয়ারী রবিবার রাত সাড়ে ৭টায় ৩৫-১৫, ৩৬ এভিনিউ, এষ্টোরিয়া, নিউইয়র্ক-এনওয়াই-১১১০৬,এর ক্লাব সনমে। খবর বাপসনিউজ।

alt

বাংলাদেশী-আমেরিকান আর্টিস গ্রুপ-এর আয়োজনে ক্লাব সনম, অনলাইন সনম-টিভির’র সত্ত¦াধিকারী এবং সেঞ্চরী ২১,আমেরিকান হোমস অ্যাসোসিয়েট ব্রোকার কিন কাদেরের সভাপতিত্বে এবং এনটিভি ইউএসএ’র অনুষ্ঠান সমন্বয়কারী জনপ্রিয় উপস্থাপক ও সাংস্কৃতিক সংগঠক আবীর আলমগীরের সুচারু উপস্থাপনা ও পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আড়ম্বরপূর্ন আয়োজনের মাধ্যমে “গানের ফেরিওয়ালা” অ্যালবাম-এর মোড়ক উন্মোচন করেন বিশিষ্টজনেরা। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ,আজম খান, নিলয় দাস, জাফর ইকবাল, হ্যাপী আকন্দ, জুয়েল এবং শেখ ইশতিয়াক এর গান তানভীর শাহীনের অ্যালবামে স্থান পেয়েছে।

alt
নিউইয়র্ক প্রবাসী সনামধন্য ও প্রখ্যাত সুরকার এবং গীতিকার মাহফুজুর রহমান মাহফুজ-এর “গানের ফেরিওয়ালা” মুল গানটি অ্যালবামের সর্বশেষ গান এবং “দূরে চলে গেলে যদি” প্রথম গান হিসেবে স্থান পেয়েছে।এ সময় অনুষ্ঠানে তানভীর শাহীনের শিল্পী জীবনের সাফল্য এবং তার নতুন অডিও অ্যালবামের সাফল্য কামনা করে বক্তব্য রাখেন আগত অতিথিবৃন্দ।

alt

প্রথমে স্বাগত এবং উদ্ধোধনী বক্তব্য রাখেন ক্লাব সনম,ও সনমটিভি সত্ত্বাধিকারী এবং সেঞ্চরী ২১,আমেরিকান হোমস অ্যাসোসিয়েট ব্রোকার কেন কাদের। আমন্ত্রিত অতিথিদের মাঝে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সভাপতি নার্গিস আহমদ, রুনি ডিজায়ারের সত্ত্বাধিকারী, সাংস্কৃতিক সংগঠক ও সাংবাদিক নিসার জামিল শুড্ডু, সনামধন্য গীতিকার ও সুরকার মাহফুজুর রহমান মাহফুজ,সুরকার ও গীতিকার নাদিম আহমদ,কলামিষ্ট হাসান ফেরদৌস , শোটাইম মিউজ্যিকের প্রেসিডেন্ট আলমগীর খান আলম, এটর্নী মঈন চৌধুরী, সাংস্কৃতিক সংগঠক নিরা কাদরী,সংগীত শিল্পীবৃন্দ জাকারিয়া মহিউদ্দিন, কামরুজ্জামান বকুল ,শামীম সিদ্দিকী, অমিত দে প্রমুখ।

alt
অতিথিদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন আন্তজার্তিক চিত্রশিল্পী খুরশিদ আলম সেলিম, আমেরিকান-প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন সভাপতি ও বাপসনিউজ এডিটর সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন, আই-অন বাংলাদেশ টিভি পরিচালক রিমন ইসলাম,কটিয়াদিনিউজ ডটকম সম্পাদক আয়েশা আক্তার রুবি, কন্ঠশিল্পী শাহরীন সুলতানা সহ প্রবাসের বিশিষ্ট কবি, সাহিত্যিক, সাংবাদিক, লেখক, শিল্পী-কলাকুশলীবৃন্দ।

alt
অনুষ্ঠানে কন্ঠশিল্পী তানভীর শাহীন অ্যালবামের সবগুলো গানই পরিবেশন করেন। শুধু আজম খানের গানটি তানভীর শাহীনের অনুরোধে জাকারিয়া মহিউদ্দিন পরিবেশন করেন।অনুষ্ঠানের মাঝে কন্ঠশিল্পী তানভীর শাহীনকে সঙ্গীতে অভাবনীয় অবদানের জন্য সম্মাননা এ্যাওয়ার্ড প্রদান করেন কেন কাদের ।

alt

এ সময় কেন কাদের বলেন,সঙ্গীত শিল্পী তানভীর শাহীন বাংলাদেশ এবং উত্তর আমেরিকার জনপ্রিয় শিল্পী হিসেবে ইতি স্থান করে নিয়েছে। এ বছরের শেষের দিকে ইউরোপ অর্থাৎ যুক্তরাজ্যের লন্ডন শহরে “গানের ফেরিওয়ালা” অ্যালবামের উৎসব করা হবে বলে আশ^াস প্রদান করেন।

alt
অনুষ্ঠানে বক্তাগণ কন্ঠশিল্পী তানভীর শাহীনকে পৃষ্ঠপোশকতা করার আহবান জানান। তারা বলেন, সঙ্গীতে তানভীর শাহীনের পরিশ্রম এবং সাথনা রয়েছে, আছে আবেগ, যা তাকে অনেকের মধ্যে একজন করেছে।অনুষ্ঠানে কন্ঠশিল্পী তানভীর শাহীন তার প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করতে গিয়ে বলেন,প্রবাসীদের অকুন্ঠ সমর্থন সহযোগীতা এবং ভালোবাসার জন্য তিনি এতদূর আসতে পেরেছেন। ভবিষ্যত পথ চলায় সবার সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আহবান জানান,। এ সময় উপস্থিত সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন তানভীর শাহীন।

alt
উপস্থিত দর্শক-শ্রোতারা বিপুল করতালী দিয়ে অভিনন্দন জানান তানভীর শাহীনকে তার সঙ্গীত পরিবেশন কালে । দীর্ঘদিন পর নিউইয়র্ক বাসীরা মনোমুগ্ধকর সংগীতানুষ্ঠান উপভোগ করেছেন।অনুষ্ঠান শেষে সবাইকে নৈশভোজে আপ্যায়ন করা হয়।


গাঙচিল এর ৭২তম আসরে বঙ্গবন্ধু নাটক মঞ্চস্থ

বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন, মো:নাসির,ওসমান গনি,সুহাস বডুয়া, হেলাল মাহমুদ,বাপসনিঊজ:নিউইয়র্ক থেকে : এ পর্যন্ত বহির্বিশ্বের কাছে বাঙালি জাতি যে সকল অর্জন নিয়ে স্মরণীয় হয়েছে এসবের মধ্যে অন্যতম আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। ১৯৫২ সালে রাষ্ট্রভাষা প্রতিষ্ঠার জন্যে সালাম-রফিক-বরকত-শফিকেরা দেশপ্রেম এবং ভাষার জন্যে ভালাবাসার যে ইতিহাস সৃষ্টি করে গেছেন বিশ্ব ইতিহাসে তা বিরল এবং অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত। এমনই একটি বিষয় নিয়ে ভাষা আন্দোলন এবং আজকের বাংলাদেশ শীর্ষক গাঙচিল এর আসরে উপস্থিত হয়ে আজ আমি অনেক কিছুই দেখলাম ও জানলাম।

alt

ভাগ্যান্বষনে প্রবাসী হওয়া কবি লেখক ও শিল্পীদের সাথে নতুন প্রজন্মের ছেলে মেয়েরা এই গাঙচিল আসরে সাহিত্য, আবৃত্তি, অভিনয় ও সঙ্গীত চর্চা করছেন এবং যেখানে বাংলাদেশ এবং পশ্চিম বঙ্গের লেখক ও শিল্পীরাও উপস্থিত আছেন এ এক বিরল মূহুর্ত। এই আসরে এসে উপভোগ করলাম খান শওকত রচিত ঐতিহাসিক নাটক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব এর একাংশ। আমি লেখকও নই, রাজনীতিবিদও নই, আমি একজন কুটনীতিক।

alt

প্রচলিত রাজনীতির অনেক জটিল বিষয়কে যেভাবে সহজ-সরল ও বিতর্কহীন করে এ নাটকে উপস্থাপন করা হয়েছে তা নাট্যকারের কৃতিত্ব। বিশেষ করে নাটকটির তিনটি চরিত্রের অভিনয়ের মাধ্যমে স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ের রাজনীতির যে বিষয়গুলে উঠে এসেছে তা সত্যিই মনে রাখার মতো বিষয়। কথাগুলো বলছিলেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি নিউইয়র্কস্থ কনসাল জেনারেল শামীম আহসান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ টেলিভিশনের সাবেক মহা পরিচালক সালামত উল্লাহ, প্রবীন গীতিকার এবং নাট্যকার জীবন চৌধুরী, কবি এবিএম সালেহ উদ্দীন, কবি কাজী জহিরুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু পরিষদের শিতাংশু গুহ, কলামিষ্ট প্রদীপ মালাকার এর সুর ও ছন্দ শিল্পী গোষ্ঠীর ইমদাদুল হক। বক্তব্য রাখেন, গাঙচিল এর উপদেষ্টা  আখতার হোসেন, নাট্যশিল্পী শাহাদাত হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল হক, লেখক আঃ খালেক, কম্যুনিটি লিডার আলম খন্দকার, বঙ্গবন্ধু থিয়েটারের ডাঃ নার্গিস রহমান, মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল খান আনসারী, চিত্র শিল্পী প্রবীর গুন, শিক্ষাবিদ শৈরেন বিশ্বাস, ফজলুল কাদের এম এ জামাল।স্বাগত ভাষনে গাঙচিল সভাপতি কবি নিখিল কুমার রায় বাংলা ভাষা আন্দোলন এবং বাংলা ভাষার ইতিবৃত্ত বিষয়ে বক্তব্য রাখেন এবং তার লেখা তথ্য সমৃদ্ধ “ইতিবৃত্তে বাংলা ভাষা” কবিতাটি পাঠ করেন।

alt 

অনুষ্ঠানটি উপস্থাপন করেন গাঙচিল সাধারণ সম্পাদক মৌসুমী রহমান এবং বিশিষ্ট আবৃত্তি শিল্পী শ্যামলিপি শ্যামা। আসরে কবিতা পাঠ করেন এবিএম সালেহ উদ্দীন, কানিজ আয়শা, কানিজ ফাতেমা, শাওন, সাদিয়া আফরিন, শিবলী সাদিক এবং ফজলুর রহমান। সুরছন্দ শিল্পী গোষ্ঠীর ইমদাদুল হক এর নেতৃত্বে নতুন প্রজন্মের কৈশী ও অন্তু সঙ্গীত পরিবেশণ করেন। নতুন প্রজন্মের তানজিলা বাংলাদেশ সম্পর্কে তার অনুভূতি বলেন এবং ইকবাল ইসলাম এর গান সকলকে আকৃষ্ট করে। প্রবাসের জনপ্রিয় শিল্পী সেলিম ইব্রাহিমের নেতৃত্বে একদল শিল্পী কোরাস সঙ্গীত পরিবেশন করেন। এরপর সঙ্গীত পরিবেশন করেনঃ বাবলী হক, মৌসুমী রহমান, ইমান জিয়া, রুবিনা শিল্পী, কানিজ আয়শা, শাহনাজ বেগম, ডাঃ নার্গিস রহমান এবং আয়শা বেগম।

alt 

১৯৯৩ সালে নিউইয়র্কে মুক্তি পেয়েছিলো কম্যুনিটির প্রথম ভিডিও চলচ্চিত্র “স্বপ্ন সুখের আমেরিকা”। এটি রচনা করেছিলেন নাজিম উদ্দীন নাজিম এবং পরিচালনা করেছিলেন খান শওকত। ঐ চলচ্চিত্রের কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন শ্যামলিপি শ্যামা। চলচ্চিত্রের একটি ডিভিডি শ্যামার হাতে হস্তান্তর করেন কনসাল জেনারেল শামীম আহসান। বঙ্গবন্ধুর জীবন ভিত্তিক একটি ডকুমেন্টারী চলচ্চিত্র নির্মিত হয়েছিলো খান শওকত এর পরিচালনায়। উক্ত ডিভিডি একটি কপি (কেন তিনি জাতির পিতা) প্রধান অতিথির হাতে হস্তান্তর করেন খান শওকত।

alt 

এছাড়াও খান শওকত রচিত ২টি ঐতিহাসিক নাট্যগ্রন্থ “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব এবং বাংলার নবাব সিরাজউদ্দৌলা, গ্রন্থ দুটির কপি প্রধান অতিথির হাতে তুলে দেয়া হয়। সবশেষে কবি নিখিল কুমার রায় এর সমাপনী বক্তব্যের পর মৌসুমী রহমানের নেতৃত্বে সমবেত কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীতের সুরে সুরে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানা হয়। বরাবরের মতো প্রতিমাসের ১ম রোববার হিসেবে আগামী ৫ই মার্চ রোববার সন্ধ্যা ৬ ঘটিকায় গাঙচিল এর ৭৩তম আসরটি হবে জ্যাকসন হাইটসে। উক্ত আসরের বিষয় থাকবেঃ তোমাকে পাওয়ার জন্য হে স্বাধীনতা। উক্ত আসরে বঙ্গবন্ধু থিয়েটার এর শিল্পীদের উপস্থাপনায় জেনারেল জিয়াউর রহমান, খন্দকার মোশতাক এবং বঙ্গবন্ধু চরিত্রের অভিনয় তুলে ধরা হবে।


এম এ সালাম---রবার্ট মেন্ডেজ / সেক্যুলার বাংলাদেশ এগিয়ে চলায় খুশি মার্কিন সিনেটর মেন্ডেজ

বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,ওসমান গনি,সুহাস বডুয়া,হেলাল মাহমুদ, বাপসনিঊজ: মার্কিন সিনেটে পররাষ্ট্র বিষয়ক কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান এবং বর্তমানে প্রভাবশালী সদস্য, নিউজার্সি থেকে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির সিনেটর রবার্ট মেন্ডেজ খুব খুশি হয়েছেন সত্যিকারের সেক্যুলার ডেমোক্রেসি চালুর পথে বাংলাদেশ অনেক এগিয়ে যাওয়ায়। সিনেটর মেন্ডেজ বলেন, ‘ইট্স ডিমান্ড অব হিউম্যানিটি’, ইট্স দ্য ভেল্যু অব হিউম্যানিটি’।
৫ ফেব্রুয়ারি রোববার নিউজার্সির প্যাটারসনে গ্রেট ফল্স পার্কে ‘ইন্টারফেইথ মার্চ’ শেষে অনুষ্ঠিত সমাবেশের সাইড লাইনে সিনেটরের সঙ্গে একান্তে কথা বলেন আমেরিকা-বাংলাদেশ এ্যালায়েন্স’র চেয়ারপার্সন এবং যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম এ সালাম। Lei evcmwbER:
এম এসালাম তাকে জানান যে, ‘নানা প্রতিবন্ধকতা এবং প্রতিকূলতা সত্ত্বেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক আগ্রহে বাংলাদেশে সত্যিকারের অসাম্প্রদায়িক চেতনা প্রতিষ্ঠার বলিষ্ঠ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে এবং সামাজিক-রাজনৈতিক-প্রশাসনে সেভাবেই সবকিছু পরিচালিত হচ্ছে।’  
প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কর্তৃক ৭ মুসলিম দেশের নাগরিকদের ভিসা নিষিদ্ধের নির্বাহী আদেশ জারির পর কম্যুনিটিতে সৃষ্ট উদ্বেগ-উৎকন্ঠার পরিপ্রেক্ষিতে আয়োজিত এই কর্মসূচীতে সকল ধর্ম-বর্ণ-গোত্রের আমেরিকানরা অংশ গ্রহণ করেন।

alt
ইউএস সিনেটর কোরি বুকার, কংগ্রেসম্যান বিল প্রেসক্রল, প্যাটারসন সিটি মেয়র জয়ে টরেসসহ নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরাও বক্তব্য রাখেন।
মঞ্চে উঠে এম এ সালাম মেন্ডেজকে জানান, ‘ট্রাম্পের মুসলিম বিদ্বেষমূলক কর্মকা যুক্তরাষ্ট্রের সেক্যুলার ইমেজ আজ প্রশ্নবিদ্ধ। তেমনি অবস্থায় মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ হওয়া সত্ত্বেও বাংলাদেশ সত্যিকারের সেক্যুলার কান্ট্রিতে পরিণত হতে যাচ্ছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে।’
বাংলাদেশের ব্যাপারে প্রচ আগ্রহ দেখে সালাম জিএসপি প্রসঙ্গ উত্থাপন করে বাংলাদেশের খেটে খাওয়া মানুষের স্বার্থে অবিলম্বে তা পুনর্বহালে যথাযথ সহায়তার আহ্বান জানান। জবাবে সিনেটর মেন্ডেজ বলেন, ‘নতুন প্রশাসন কীভাবে ঐ বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়, তা দেখার অপেক্ষায় রয়েছি। তবে ইতিপূর্বে যে সব শর্ত বেঁধে দেয়া হয়েছিল, সেগুলোর কতটা পূরণ হয়েছে, তাও খতিয়ে দেখার অবকাশ রয়েছে। বাংলাদেশের শ্রমিকদের স্বার্থেই সবকিছু করা হয়।’ স্মরণ করা যেতে পারে, সিনেটে পররাষ্ট্র সম্পর্কিত কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন এই মেন্ডেজ এবং সে সময়েই (২০১৩) জিএসপি রহিতের নির্দেশ দেয় ওবামা প্রশাসন। অভিযোগ রয়েছে যে, শান্তিতে নোবেল বিজয়ী ড. মুহম্মদ ইউনূসের সুপারিশে তদানীন্তন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টনের প্রভাবে হোয়াইট হাউস ঐ সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে।
জঙ্গীবাদ-সন্ত্রাসবাদ ইত্যাদি প্রতিহত করে বাংলাদেশের সামগ্রিক এগিয়ে চলার আলোকপাতও করেন সালাম। এসব তথ্য এ সংবাদদাতাকে জানিয়ে এম এ সালাম উল্লেখ করেন, ‘সিনেটরের সঙ্গে আলাপে মনে হয়েছে যে, বাংলাদেশের গার্মেন্টস সেক্টরের সামগ্রিক কল্যাণে শেখ হাসিনা সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা রয়েছে এই সিনেটরের।


গাইবান্ধায় স্কুল পুড়িয়ে দেয়ার প্রতিবাদে নিউইয়র্কে মানববন্ধন

সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন:আয়েশা আকতার রুবী,বাপসনিঊজ:গত ৪ ফেব্রুয়ারী বিকেল ৫ টায় জ্যাকসন হাইটস ডাইভারসিটি প্লাজায় নিউইর্য়কের গাইবান্ধাবাসী এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে। প্রচন্ড ঠান্ডার জন্য অনুষ্ঠানটি সংক্ষিপ্ত করা হয়। গত ২৮ জানুয়ারী গাইবান্ধায় গণ উন্নয়ণ কেন্দ্র পরিচালিত,দুর্গম চরাঞ্চলের নারী শিক্ষার লীলাভূমি, কুন্দের পাড়া গণ উন্নয়ণ একাডেমী পুড়িয়ে দেয়া হয়।


সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট কলামিষ্ট ও যুক্তরাষ্ট্র উদীচীর সহ-সভাপতি সুব্রত বিশ্বাস। মানববন্ধনের শুরুতেই বাংলাদেশ থেকে টেলিকন্ফারেন্সে বক্তব্য করেন গণ উন্নয়ন কেন্দ্রের নির্বাহী প্রধান এম আব্দুস সালাম।অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সনজীবন কুমার।এরপর স্কুল পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ এবং এই নাশকতার সাথে জড়িত সন্ত্রাসীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে অবিলম্বে দৃষ্টান-মূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বক্তব্য করেন প্রাবন্ধিক ও সাংবাদিক শিতাংশু গুহ, সাপ্তাহিক বর্ণমালা ও ৭১ টিভি যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি মাহফুজুর রহমান, বিশিষ্ট রাজনীতিক ও সমাজসেবক জাকির হোসেন বাচ্চু, বাপ্স’র সম্পাদক হাকিকুল ইসলাম খোকন, উত্তরবঙ্গ ফাউন্ডেশনের সভাপতি মোঃ আতোয়ারুল ইসলাম, আয়োজকদের পক্ষে দীলিপ মোদক। সমাবেশে প্রস্তাবনা পাঠ করেন মিষ্টি বর্মণ।
alt
সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক মোহাম্মদ আবুল কাশেম,ঠাকুরগাও জেলা সমিতির সভাপতি মোস্তফা কামাল মামুন,সমাজসেবক লিয়াকত হোসেন, সাবেক ছাত্র নেতা জীবন শফিক, গাইবান্ধা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক কমিশনার নাজমা শওকত, শওকত হোসেন, প্রতীমা সরকার,পপি ঘোষ,মেহেদী ইসলাম মিথুন, এম ডি মাহফুজুল ইসলাম তুহিন, ফাহমিদা লুনা তুহিন, শরিফ হোসেন, নিয়ন ইসলাম, সুমনা লিয়ন প্রমূখ।

alt

বিদ্যালয়টি অগ্নিকান্ডে ভস্মিভুত হওয়ায়,ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বক্তারা বলেন, যে বা যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তারা মানুষ না, অমানুষ। যারা এই অপরাধটি করেছে, তারা মানুষকে,সমাজকে অন্ধকারে রাখতে চায়।
alt
সমাবেশে থেকে এর তীব্র প্রতিবাদ করে,এই নাশকতার সাথে জড়িত সন্ত্রাসীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে অবিলম্বে দৃষ্টান-মূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়। সেই সাথে চরাঞ্চলে সুবিধা বঞ্চিত শিক্ষার্থীদের শিক্ষার উন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কুন্দেরপাড়া গণ উন্নয়ন একাডেমি বিদ্যালয়কে এমপিওভূক্ত করা এবং সরকারি আর্থিক সহায়তায় জরুরী ভিত্তিতে বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন নির্মাণসহ আসবাবপত্র, লাইব্রেরীর, বই-পুস্তক, ও শিক্ষা উপকরণের সরবরাহ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি করা হয। আর যে সমস্থ- শিক্ষার্থীর সনদপত্র পুড়ে গেছে, তাদের সনদপত্রের ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বোর্ড কর্তৃপক্ষের কাছে আহ্বান জানানো হয়।|


যুক্তরা‌ষ্ট্রে "আমরা বাঙ্গালী ফাউন্ডেশন" নামের সংগঠনের আত্ম প্রকাশ

শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন, ওসমান গনি,সুহাস বডুয়া, হেলাল মাহমুদ,বাপসনিঊজ:নিউইয়র্ক থেকে : জীবক বড়ুয়া‌কে সভাপ‌তি ও দস্তগীর জাহাঙ্গীর তুগরিলকে সাধারণ সম্পাদক‌ ক‌রে প্রবাসী বাঙ্গালী‌দের "আমরা বাঙ্গালী ফাউন্ডেশন" নামের সংগঠনের আত্ম প্রকাশ ঘ‌টে‌ছে ।গত ৩১ শে জানুয়ারি যুক্ত্ররাষ্ট্রের রাজধানী মেট্রো ওয়াশিংটন এলাকার আরলিংটনের পাবলিক লাইব্রেরী মিলনায়তনে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে  প্রবাসী বাঙালীরা এর অাত্ম প্রকাশ ক‌রেন।

alt

অনুষ্ঠা‌নে অনেক উচ্চাভিলাষী লক্ষ্য নিয়ে নতুন এ সংগঠনটির প্রধান অ‌তি‌থি হি‌সে‌বে শুভ পথ চলার সূচনা ক‌রেন ভয়েস অফ এমেরিকার বাংলা বিভাগের প্রধান ও "আমরা বাঙালী ফাউন্ডেশন' এর প্রধান উপদেষ্টা রোকেয়া হায়দার।অামরা বাঙালী ফাউ‌ন্ডশনের উদ্ধোধনী  অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে  উপ‌স্থিত ছি‌লেন যথাক্রমে সম্প্রচার সাংবাদিকতার দুই কিংবদন্তী পুরুষ কাফি খান ও সরকার কবিরুদ্দিন।অন্যান্যদের মাঝে শুভেচ্ছা বক্তব্য করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এ্যাসোসিয়েশনের (ডুয়াফী) সভাপতি সাব্রিনা রহমান শর্মী ও এডঃ অমর ইসলাম।

Picture

"আমরা বাঙ্গালী ফাউন্ডেশন" এর আত্মপ্রকাশের এই অনুষ্ঠানে নতুন প্রজন্মের কিশোর চিত্র শিল্পী উচ্ছ্বাস চৌধুরীর ( ১১ বছর)  প্রায় অর্ধশতেক চিত্র নিয়ে একক চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন ক‌রেন । যা প্রদর্শনী‌তে অাসা‌বোদ্ধা দর্শকদের প্রশংসা কু‌ড়ি‌য়ে‌ছে ।

alt

"আমরা বাঙ্গালী ফাউন্ডেশন" কিশোর চিত্র শিল্পী উচ্ছ্বাস চৌধুরীকে তাঁর কাজের জন্য "আমরা বাঙ্গালী"  ট্রফি প্রদান করে।এছাড়াও অনুষ্ঠা‌নে "আমরা বাঙ্গালী ফাউন্ডেশন"  " আমরা বাঙালী" পুরস্কার প্রবর্ত ন করা হয় । সম্প্রচার সাংবাদিকতা ও বাংলা সংস্কৃতিতে আজীবন কৃতিত্বের জন্য এই নবগঠিত সংগঠনের ইতিহাসে প্রথমবারের মত  কাফি খানকে  " আমরা বাঙালী" পুরুষ্কা‌রে ভূষিত করা হয়।

alt

এই আজীবন সম্মাননা তাঁর হাতে তুলে দেন সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রধান অতিথি ও প্রধান উপদেষ্টা রোকেয়া হায়দার ও সংগঠনের সভাপতি জীবক কুমার বড়ুয়া এবং সাধারণ সম্পাদক দস্তগীর জাহাঙ্গীর।জীবক কুমার বড়ুয়া ও দস্তগির জাহাঙ্গীর সংগঠনের আদর্শ উদ্দেশ্য তুলে ধরেন।সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজনের সা‌র্বিক দা‌য়ি‌ত্বে ছি‌লেন দেওয়ান আরশাদ আলী বিজয়, আপ্যায়নে জুয়েল বড়ুয়া, প্রচারে মোঃ আলতাফ হোসেন, সার্বিক তত্ত্বাবধানে আমান উল্লাহ আমান, মোস্তাফিজুর রহমান সহ অনেকে।

alt

"আমরা বাঙালী" আয়োজনে হোয়াইট হাউস এর সামনে ২১ অনুষ্ঠান আয়োজনের আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব যথাক্রমে এডঃ অমর ইসলাম ও সাইফুল আলমকে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়।শেষ পর্বের গানের অনুষ্ঠানে গান করেন এ অঞ্চলের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মেরিনা রহমান, দিনার মণি, কামাল মোস্তাফা ও অসীম রানা।অনুষ্ঠানের উপস্থপনা করেন বিশ্ব ব্যাংকে কর্মরতা কবি ও চিত্রশিল্পী সামিনা আমিন। শব্দ নিয়ন্ত্রণে ছিলেন অসীম রানা ও জুয়েল বড়ুয়া। রাতের খাবারে মাঝে অনুষ্ঠানের পরিসমাপ্তি ঘটে।

alt
সংগঠ‌নের প‌রি‌চি‌তি:

সংগঠ‌নের আদর্শঃ শিক্ষা ও প্রগতি

সংগঠ‌নের লক্ষ্যঃ

১." আমরা বাঙালী মিলনায়তন" প্রতিষ্ঠা ও বাঙালীর সংস্কৃতিচর্চার অন্যতম প্রধান কেন্দ্র হিসেবে চালু করণ।

২. বাঙালী সংস্কৃতি, কৃষ্টি, ইতিহাস, ঐতিহ্য, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, সমকালীন শিল্প ও সাহিত্য লালনের মাধ্যমে বাঙালী জাতীর মানসিক বিকাশ ও উৎকর্ষ সাধন করা।

৩. আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বাংলা সাহিত্যের এবং  বাঙালী সংস্কৃতি, কৃষ্টি, ইতিহাস, ঐতিহ্য, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা প্রচার ও প্রসার।

৪. আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে " সাহিত্য ও সংস্কৃতি চর্চার , বিজ্ঞান, সংবাদ, সাংবাদিকতা, সমাজ সেবাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে " আমারা বাঙালী" পুরস্কার প্রবর্তন ও প্রদান এবং ফেলো, জীবনসদস্য ও সদস্যপদ প্রদান।

৫.মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পাঠক্রমে বাংলা ভাষা ও সাহিত্য অন্তর্ভুক্ত করার জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ এবং প্রচার ও পরিচিতকরণ।

৬. "আমরা বাঙালী" মেধা বৃত্তি চালু করণ।

৭." আমরা বাঙালী" গ্রন্থাগার চালু করণ ।

৮.পুস্তক , পত্র পত্রিকা প্রকাশনা ও গ্রন্থ মেলা চালু করণ ।

৮. চারুকলা,  সঙ্গীত, নৃত্য ও নাট্যকলার চর্চা ও প্রসার এ প্রতিষ্ঠানের একটি লক্ষ্য।

৯.মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ প্রবাসে মূল ধারার রাজনীতিতে প্রবেশে  অনুপ্রাণিত করণ কর্মসূচী চালু করণ।

১০. বাঙালী নতুন অভিবাসীদের জন্য বিভিন্ন শিক্ষামূলক কর্মসূচী চালু করণ।

১১. সৎকার সেবা কর্মসূচী চালু করণ।

১২. "আমরা বাঙালী " সমাধিস্থল নির্মাণ।