Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

নিউয়র্কের খবর

নিউ ইয়র্কে বাংলা নববর্ষ উদযাপন

রবিবার, ১৭ এপ্রিল ২০১৬

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ :দেশ থেকে বহু দূরে থাকলেও নাড়ির টান কখনো ভুলে যাওয়ার নয়। তাইতো দেশ থেকে হাজার কিলোমিটার দূরে থেকেও নিজ সংস্কৃতিকে চিত্তে ধারণ করে পহেলা বৈশাখে বাংলা নববর্ষ উৎসবের রং ছড়িয়ে পড়ে যুক্তরাষ্ট্রেও। আনন্দে-উচ্ছ্বাসে মেতে উঠে প্রবাসী বাংলাদেশিরা। ধর্ম-বর্ণ, শ্রেণি-পেশা নির্বিশেষে সব বয়সের মানুষ একযোগে গাইলেন, 'এসো হে বৈশাখ, এসো এসো'। সব গ্লানি মুছে নবোদ্যমে শুরু হয়েছে পথচলা।

গত বৃহস্পতিবার সকালে পূর্বাকাশে লাল টকটকে সূর্যের কিরণছটার মধ্য দিয়ে নতুন বছরের যাত্রা শুরু করেন প্রবাসীরা। যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করে প্রায় অর্ধশতাধিক বাংলাদেশি সংগঠন। এসব অনুষ্ঠানের ছিল হরেক রকমের ভাজি-ভর্তাসহ পান্তা-ইলিশ খাওয়ার উৎসব এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।রং-বেরংয়ের বাহারি পোশাকে তাদের সদর্প পদচারনায় থিক থিক ভিড়ে অনুষ্ঠানস্থল হয়ে উঠেছিল ক্ষণিকের জন্য একখণ্ড মিনি বাংলাদেশ।


বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে জেএসডি’র যুক্তরাষ্ট্র শাখার শুভেচ্ছা

রবিবার, ১৭ এপ্রিল ২০১৬

alt
হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ:জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি হাজি আনোয়ার হোসেন লিটন এবং সাধারন সম্পাদক সামসুঊদিদন আহমদ শামীম এক বিবৃতিতে বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে বাংলাদেশ ও বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে অবস্থানরত ৪০ কোটি বাংগালীর প্রতি আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে নতুন বছরে তাদের সুখ, শান্তি, নিরাপত্তা ও সমৃদ্ধি কামনা করেছেন।

alt

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বাংলা নববর্ষ ২০২৩কে সংঘাত- সহিংসতামুক্ত রাজনীতি ও রাষ্ট্র ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলার বছর হিসাবে গ্রহণ করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জােিয়ছেন।বাপসনিঊজ:


“সমকালীন চ্যালেঞ্জের ধমীয় শিক্ষা”আন্ত ধর্মীয় সংলাপ

বৃহস্পতিবার, ১৪ এপ্রিল ২০১৬

alt

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিউজঃ গত ৩ এপ্রিল রবিবার, বিকাল ৩টায় ১৮৮-১৫ ম্যাগলিন এভিনিউ হলিস, নিউইয়র্ক, এনওয়াই ১১৪ ২৩-এর  বায়তুজ জাফর মিলনায়তনে অনুষ্টিত হলো আন্ত , ধর্মীয় কনফারেন্স, ঈমাম শামসি আলীর সঞ্চালনায় “ধর্মীয় শিক্ষা ও সমকালীন চ্যালেঞ্জ” বিষয়ক ইন্টারফেইথ কনফারেন্সে বুদ্ধিটস, খ্রিষ্টান , ইসলাম, হিন্দু, ইহুদী এবং শিখ ধর্মাবলম্বী নেতারা অংশ নেন ।

alt

শুরুতেই মুহাম্মদ আফজালের তেলাওয়াত কৃত আয়াতের অনুবাদ করেন আসলাম আলী মুহাম্মদ।নিরবতা পালনের পর হিন্দু ধর্মের সারা পাটেল, ইউনিভার্সেল পিয ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট রিচার্ড ডি সেনা, জুইস কমিউনিটি রিলেশন্স কাউন্সিল অব নিউইয়র্ক এর ডিরেকটর রাবী বব কাপলান , ঈমাম শামসি আলী , কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটির গ্রাজুয়েট স্কুল জার্নালিজম এর প্রফেসর ও নিউইয়র্ক টাইমস এর সাংবাদিক এরি এল গ্লোডম্যান এবং ইসলামিক স্কলার আফ্রিকান ,আমরিকান ঈমাম আজহার হানিফ বক্তব্য রাখেন ।

alt

উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন  প্রেসিডেন্ট হাকিকুল ইসলাম খোকন, বাংলাদেশ পরিবেশ নেটওয়ার্ক বেন নিউইয়র্ক ট্্রাইটেস্ট সমন্বয়কারী সৈয়দ ফজলুর রহমান, কমিউনিটি এক্টিভিষ্ট এম জি রাব্বী আহমেদ , আইটিভি ইউএসএ প্রধান নির্বাহী আন্তঃধর্মীয় নেতা মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ, বিশেষ অতিথি বিশেষে অনুষ্টানের শুরুর দিকে বক্তব্য রাখেন নিউইয়র্ক ষ্টেট এস্যাম্বলিম্যান ডেভিড ওয়েপ্রিন।খবর বাপসনিঊজ ।

alt
কসরা বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্টায় ধর্মীয় মুল্যবোধ বৃদ্ধি এবং বাস্তবায়নের শাধ্যমে আন্তঃ ধর্মীয় সম্পর্ক উন্নয়নের ওপর জোর দেন।

alt
 ইন্টারফেইথ কনফারেন্স ও সেম্ফুজিয়ামে বুদ্ধিজম, খৃষ্টানিটি, ইসলাম, হিন্দুজম ও শিখ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

alt

আহমদিয়া মুসলিম কমিনিউনিটির উদ্যোগে আয়োজিত এ সেমিনারে বিপুল সংখ্যাক প্রবাসীর অংশ গ্রহন লক্ষনীয়।

alt

মুলধারার নারী পুরুষসহ বাংলাদেশী নারী পুরুষদের অভাবনীয় মিলন মেলায় পরিনত হয় অনুষ্টানটি। আহমদিয়া মুসলিম কমিউনিটির অন্যতম সংগঠক এমজি রাব্বী অতিথিদের বিশেষ অভ্যার্থনা জানান।

alt

alt

alt


তনু ও নাজিম হত্যার বিচার এবং যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাংলাদেশীদের বহিষ্কার স্থগিতের দাবিতে নিউইয়র্কে মানববন্ধন

মঙ্গলবার, ১২ এপ্রিল ২০১৬

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ :যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন ডিটেনশন সেন্টারে আটক ১৬৯ বাংলাদেশীকে বহিস্কার না করা এবং বাংলাদেশে সোহাগী জাহান তনু এবং অনলাইন অ্যাক্টিভিষ্ট ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র নাজিমুদ্দিন সামাদ হত্যার বিচার দাবিতে নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে ডাইভার্সিটি প্লাজায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। ‘ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইটস ডেভেলপমেন্ট’  সংস্থার ব্যানারে গত ১০ এপ্রিল রোববার অপরাহ্নে এ কর্মসূচিতে যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টি, যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগ এবং মানবাধিকার সংস্থা ‘ড্রাম’র কয়েকজন কর্মকর্তাও বক্তব্য রাখেন।
Picture
আয়োজক সংগঠনের সভাপতি শাহ শহীদুল হক সাইদ তার বক্তব্যে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন,‘ সোহাগী জাহান তনু হত্যা একটি সুপরিকল্পিত জঘন্যতম অপরাধ। সেনানিবাস পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে নিরাপদ স্থান, সেই সেনানিবাস অর্থাৎ কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্টে একজন ছাত্রীকে প্রথমে পাশবিক অত্যাচার, তারপরে হত্যা করা কি করে সম্ভব? তনু হত্যার সঙ্গে কে বা কারা জড়িত তা অবশ্যই সেনাবাহিনীকে খুঁজে বের করতে হবে। তনু হত্যাকারীকে/দেরকে ৭ দিনের মধ্যে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনতে হবে।’ সাইদ আরো বলেন, ‘নিরাপদ আশ্রয়ের সন্ধানে ১৭ দেশের সীমান্ত অতিক্রমের পর যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের সময় গ্রেফতার হওয়া সকল বাংলাদেশীর এসাইলাম মঞ্জুর করতে হবে। কাউকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বহিষ্কার করা চলবে না। বাংলাদেশে তারা নিরাপত্তাহীন হবার কারণেই যুক্তরাষ্ট্রে এসেছেন।’ বহিস্কারের এহেন প্রক্রিয়া থেকে বিরত না হলে আগামী সপ্তাহে নিউইয়র্কে মার্কিন হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্টের (২৫ ফেডারেল প্লাজা) সামনে বিক্ষোভ করার হুমকিও দেন সাইদ।

alt

মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন সৈয়দ মোহাম্মদ উল্লাহ,আবদুর রহীম হাওলাদার, কাজী ফওজিয়া, হাকিকুল ইসলাম খোকন,আনোয়ার হোসেন, আবু তালেব চৌধুরী চান্দু, আকতার হোসেন, শাহাদৎ হোসেন, জাকির হোসেন, খান শওকত, হেলাল মাহমুদ, সালমা খান, দেওয়ান আশরাফুল আলম,লিয়াকত আলী,জাকির হোসনে বাচচু,ফারজানা হক,সপন বসু,রিফাত সুলতানা রিমা,সবিতা দাস,নিরা রাববানি, প্রমুখ।খবর বাপসনিঊজ:
alt
উল্লেখ্য, টেক্সাস, ক্যালিফোর্নিয়া, ফ্লোরিডা, আলাবামা, লুইঝিয়ানা প্রভৃতি রাজ্যের ডিটেনশন সেন্টার থেকে আরো ১৬৯ বাংলাদেশীকে আরিজোনা রাজ্যে অবস্থিত ইমিগ্রেশনের ডিটেনশন সেন্টারে জড়ো করা হয়েছে। মার্কিন প্রশাসনের নিজস্ব এয়ারলাইন্সে তাদেরকে ঢাকায় নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে বলে হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্টের কর্মকর্তারা কদিন আগে এ সংবাদদাতাকে জানান। তারা আরো উল্লেখ করেন যে, ‘বেআইনীভাবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের পর তারা রাজনৈতিক আশ্রয় (এসাইলাম) প্রার্থনা করেন। তাদের আবেদনের ব্যাপারে বিস্তারিত শুনানী হয়েছে ইমিগ্রেশন কোর্টে। মাননীয় বিচারক এই ১৬৯ জনের আবেদনও নাকচ করে তাদেরকে অবিলম্বে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। একই নির্দেশে গত ৪ এপ্রিল আরো ২৭ বাংলাদেশীকে যুক্তরাষ্ট্র হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্টের বিশেষ বিমানে নেয়া হয়।’


বাংলাদেশীদের সমর্থন বার্নি সেন্ডারসকে

সোমবার, ১১ এপ্রিল ২০১৬

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্কে ডেমোক্র্যাটিক প্রাইমারির দিনক্ষন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই নির্বাচনী উত্তাপ বাড়ছে শহরটিতে। এই উত্তাপের অংশ হিসেবে ৯ এপ্রিল শনিবার নিউইয়র্কে জ্যাকসন হাইটসের জুইস সেন্টারে আনুষ্ঠানিকভাবে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির অন্যতম প্রেসিডেন্ট মনোনয়ন প্রত্যাশি বার্নি সেন্ডারসকে সমর্থন জানালো বাংলাদেশী আমেরিকান এডভোকেসি গ্রুপের ব্যানারে শতাধিক বাংলাদেশী। মাত্র তিন মাস আগেও বাংলাদেশী কমিউনিটিতে বার্নি সেন্ডারস নামটি অপরিচিত থাকলেও এখন বাংলাদেশী অধ্যুষিত এলাকায় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে উঠে এসেছেন হিলারির প্রতিদ্ধন্ধি বার্নি সেন্ডারস।

jamica volanter 00

একজন জুইস হওয়া স্বত্ত্বেও মুসলিমদের প্রতি তাঁর কমিটমেন্ট , ইমিগ্রান্ট কমিউনিটির প্রতি তার সহানূভূতি ও পরিকল্পনা সর্বোপুরি নিgb আয়ের মানুষের সমস্যাগুলো সেন্ডারস অত্যন্ত সাহসের সাথে তুলে ধরতে পেরেছেন বলে তাঁর নির্বাচনী পালে হাওয়া লেগেছে বলে মনে করেন প্রবাসী বাংলাদেশীরা। বার্নি সেন্ডারসকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি প্রাক্কালে বাংলাদেশী আমেরিকান এডভোকেসি গ্রুপের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার কামাল ভূইয়া বলেন, বাংলাদেশী আমেরিকান এডভোকেসি গ্রুপ কয়েকটি কারণে বার্ণি সেন্ডারসকে সমর্থন করছে। প্রথমত; তিনি আমাদের মতো ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জাতিগোষ্ঠীর অধিকারগুলোকে স্বীকৃতি দেবার কথা বলেছেন।

jamica volanter 7

বিশেষ করে ইসলামোফোবিয়ার বিরুদ্ধে তাঁর শক্ত অবস্থানের কথা জানান দিয়েছেন। দ্বিতীয়ত; বার্ণি সেন্ডারসের প্রতিদ্ধন্ধী হিলারি ক্লিনটনে নির্বাচনী ফান্ডে অর্থ সহায়তা দিচ্ছেন ওয়াল ষ্ট্রীটসহ কর্পোরেট হাউজগুলো। পক্ষান্তরে বার্ণি সেন্ডারস আমার মতো ক্ষুদ্র মানুষের অর্থে প্রতিদ্ধন্ধিতা করছেন। মানবাধিকার কর্মী ও আইনজীবি সোমতলি হক বলেন, বার্ণি সেন্ডারসই হচ্ছেন এবারের নির্বাচনে একমাত্র প্রার্থী যিনি জানতে চেয়েছেন আমাদের মতো বাংলাদেশী কমিউনিটির একজন প্রেসিডেন্ট এর কাছে কি চাইবার আছে।

jamica volanter 1

এছাড়া তিনি যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ থেকে আগত রাজনৈতিক আশ্রয়প্রার্থীদের পক্ষে প্রকাশ্যে অবস্থান নিয়েছেন। তাছাড়া সকলের জন্য বিনামূল্যে উচ্চশিক্ষা ও শ্রমিকের মজুরি ইস্যুতে তিনি আমাদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। সুতরাং সার্বিক বিবেচনায় প্রাইমারিতে আমি তাকেই ভোট দিব। কমিউনিটি এক্টিবিস্ট শাহানা মাসুম বলেন, বার্ণি সেন্ডারস কোনো ধর্মকে ছোট করে কাজ করছেন না, তিনি সকল ধর্মকে সম্মান দেখিয়ে কাজ করছেন । কিন্তু অন্য প্রার্থীদের মধ্যে তা কম দেখা যাচ্ছে । তাঁর দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনের কার্যক্রম, তাঁর ধর্মীয় বিশ্বাস আমাদের মুসলমানদের সাথে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ করে। হিউম্যান রাইটস ডেভেলপমেন্ট ফর বাংলাদেশ এর সভাপতি মাহতাব উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, বার্নি সেন্ডারস স্বল্প আয়ের মানুষের অধিকারের বিষয়ে কাজ করার অঙ্গীকার করেছেন। তিনি ইরাক যুদ্ধের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন । তাই আমি তাকে সমর্থন করছি। বাংলাদেশী আমেরিকান আমেরিকান এডভোকেসি গ্রুপের সেক্রেটারি জয়নাল আবেদিন বলেন, আমরা দীর্ঘ দিন ধরে যে ইস্যুগুলোকে নিয়ে কাজ করছি বিশেষ করে ধর্মীয় স্বাধীনতা , সামাজিক অবিচার এসব বিষয়ে তিনি আমাদের ইস্যুগুলোকে সমর্থন করছেন । এজন্যই আমরা আমাদের সংগঠনের ব্যানারে বার্ণি সেন্ডারসকে সমর্থন করছি। এতে অনেক মুসলিম কমিউনিটি এক্টিভিস্ট সমর্থন জানাচ্ছেন।

jamica volanter 5
উল্লেখ্য আগামী ১৯ এপ্রিল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রাইমারি অনুষ্ঠিত হবার কথা রয়েছে। নির্বাচনী জরিপগুলোর প্রাপ্ত তথ্যে বার্ণি সেন্ডারস হিলারি ক্লিনটনের কাছাকাছি অবস্থানে রয়েছেন বলে জানা গেছে। নিউ ইয়র্কের প্রাইমারিতে বার্ণি সেন্ডারস জয়ী হতে পারলে হিলারির প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হবার বিষয়টি অনেকটাই ঝুলে যাবে বলে মনে করছেন যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।


আমার জীবন স্বার্থক সম্বর্ধনা সভায় নাসির আলী খান পল : জ্যামাইকাবাসীদের কাছে ঋণী হয়ে গেলাম

শুক্রবার, ০৮ এপ্রিল ২০১৬

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে :নিউইয়র্ক প্রবাসী বাংলাদেশীদের পরিচিতি মুখ, বিশিষ্ট সংগঠন , সমাজসেবক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসির আলী খান পলকে সম্বর্ধিত করেছে জ্যামাইকাবাসী। এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত সভায় তিনি বলেন, জ্যামাইকাবাসীরা আমাকে এতো ভালোবাসেন আগে কখনো বুঝতে পারিনি। আমি ঋনমুক্ত থাকা মানুষ, আমি ঋণমুক্ত থাকার নীতিতে বিশ্বাসী। কিন্তু জ্যামাইকাবাসী বাংলাদেশীদের ভালবাসায় আমি আমৃত্যু ঋণী হয়ে গেলাম। আমার জীবন স্বার্থক হয়েছে। আমার আর জাওয়া পাওয়ার কিছু নেই।

Picture
নিউইয়র্ক তথা উত্তর আমেরিকায় বাংলাদেশী কমিউনিটির সুপ্রতিষ্ঠিত সামাজিক সংগঠন জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটি (জেবিএফএস)-এর দীর্ঘদিনের ‘সফল’ বিদায়ী প্রধান উপদেষ্টা নাসির আলী খান পলের সম্মানে জ্যামাইকার সুশিল সমাজের ব্যানারে ৪ এপ্রিল সোমবার সন্ধ্যায় এই সম্বর্ধনা সভার আয়োজন করা হয়। এছাড়াও অনুষ্ঠানে জেবিএফএস’র উদেষ্টাবৃন্দ এবং বর্তমান ও সাবেক সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিকে ফুলেল শুভেচ্ছায় অভিষিক্ত করাহয়।খবর evc&mwbDR’র।

alt
জ্যামাইকার হিলসাউড এভিনিউস্থ তাজমহল পার্টি হলে আয়োজিত সম্বর্ধনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সম্বর্ধনা আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক,নাট্য সংগঠন জ্যামাইকা থিয়েটারের সভাপতি ও জেবিএফএস’র সহ সভাপতি এবং প্রতিষ্ঠাতা উপদেষ্টা শেখ হায়দার আলী। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন এবং বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান, একুশে পদকপ্রাপ্ত নাট্যাভিনেতা জামালউদ্দিন হোসেন, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি গিয়াস আহমেদ, বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম, জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের খতিব ও ইমাম মির্জা আবু জাফর বেগ,  জেবিএফএস’র নবনির্বাচিত প্রধান উপদেষ্টা এবিএম ওসমান গণি, অন্যতম উদেষ্টা সালেহ আহমেদ, ছদরুন নূর ও মনজুর আহমেদ চৌধুরী, প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার, সভাপতি মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম এবং আমেরিকা-বাংলাদেশী বিজনেস এলায়েন্স (এবিবিএ)’র সভাপতি ও জেবিএফএস’র সাবেক সভাপতি বিলাল চৌধুরী।

alt
অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সাপ্তাহিক ঠিকানা’র প্রধান সম্পাদক মুহাম্মদ ফজলুর রহমান, সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা’র সম্পাদক ও টাইম টিভি’র সিইও আবু তাহের,সাপ্তাহিক জন্মভূমি সম্পাদক রতন তালুকদার,আমরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন-এর সভাপতি ও এডিটর বাপসনিঊজ সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন,  আইঅন বাংলাদেশ টিভি’র পরিচালক রিমন ইসলাম, নিউইয়র্ক সিটি ইউনিভার্সিটির প্রাক্তন অধ্যাপক ড. দীন আর রশীদ, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি সামসুদ্দীন আজাদ, জেবিএফএস’র উপদেষ্টা অধ্যাপিকা হুসনে আরা বেগম ও রেজাউল করীম চৌধুরী, শাহানা রহমান, সম্বর্ধিত পল খানের পতী স্বপ্না খান, নর্থ বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের সভাপতি ডা. আব্দুল লতিফ,যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের সভাপতি ও জেবিএফএস’র উপদেষ্টা মিসবাহ আহমেদ, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেবিএফএস’র উপদেষ্টা ফরিদ আলম, জেবিএফএস’র সহ সভাপতি সৈয়দ আতিকুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক রেজাউল আজাদ ভূঁইয়া, নিউ আমেরিকান ওমেন্স ফোরামের সভাপতি রোকেয়া আক্তার, জ্যামাইকা থিয়েটারের সহ সভাপতি জাহাঙ্গীর কবীর, যুক্তরাষ্ট্র শ্রমিক লীগের সভাপতি কাজী আজিজুল হক খোকন, জেবিএফএস’র কার্যকরী পরিষদের সদস্য দরুদ মিয়া রনেল প্রমুখ।

alt
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন জেবিএফএস’র সহ সভাপতি শেখ আনসার আলী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জ্যামাইকা থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক ও সম্বর্ধনা কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী এডভোকেট কামরুজ্জামান বাবু। এছাড়া মানপত্র পাঠ করেন এবিবিএ’র সাধারণ সম্পাদক ও জেবিএফএস’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক এএফ মিসবাহউজ্জামান। যৌথভাবে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সম্বর্ধনা কমিটির সদস্য সচিব ও এবিবিএ’র সাধারণ সম্পাদক ইফজাল আহমেদ চৌধুরী এবং জেবিএফএস’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক এএফ মিসবাহউজ্জামান। সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানটি আয়োজনে সহযোগিতায় ছিলো আমেরিকা-বাংলাদেশী বিজনেস এলায়েন্স, জ্যামাইকা থিয়েটার, জ্যামাইকা কমিউনিটি ক্লাব ও সুরবাহার। Lei evc&mwbDR।

alt
অনুষ্ঠানে সম্বর্ধিত নাসির আলী খানের বড় ভাই ফরিদ আলী খান, মূলধারার রাজনীতিক মোর্শেদ আলম, জেবিএসএ’র অন্যতম উদেষ্টা এবিএম সালাহউদ্দিন আহমেদ, ডা. নার্গিস রহমান, যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টির সহ সভাপতি খন্দকার আলী নাসিম, ফ্রেন্ডস সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সেবুল মিয়া, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিস্ট শিরীন কামাল সহ কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ সপরিবারে উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে সম্বর্ধিত নাসির আলী খান পল আরো বলেন, দুই বছর বয়সে মা-কে হারিয়ে অভাগা মানুষ হিসেবে আমি সংগ্রাম করে বড় হয়েছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী বিভাগের ২৯টি আসনের জন্য ৩৫ হাজার শিক্ষার্থীর মধ্যে আমিও ভর্তির সুযোগ পাই। তিনি বলেন, ৪০ বছর ধরে নিউইয়র্ক তথা যুক্তরাষ্ট্রে বাস করছি। ব্যক্তিগতভাবে আমি কঠিন মনের মানুষ। কারো মৃত্যু আমাকে কাঁদায়নি। কিন্তু জ্যামাইকাবাসীদের সম্বর্ধনা আর ভালোবাসায় আমি এই মঞ্চে বসে চোখে জল এসেছে। অনেক কষ্টে চোখের জল ধরে রেখেছি।

alt
নাসির আলী খান পল তার জীবনের সাফল্যের পিছনে স্ত্রী স্বপ্না খানের অবদানের কথা উল্লেখ করে বলেন, যেকোন পুরুষের সাফল্যের পিছনের মানুষটি হচ্ছেন তার স্ত্রী। স্বপ্না শুধু আমার স্ত্রীই নয়, সে আমার বাল্যবন্ধুও। আমার ১৯ বছর বয়সে আমি তাকে বিয়ে করি। এখন আমাদের বিবাহিত জীবনের ৪৪ বছর চলছে। তিনি আরো বলেন, স্ত্রীর সহযোগিতা ছাড়া কোন বীর পুরুষের পক্ষেই সফলতা অর্জন করা সম্ভব নয়, কমিউনিটির সেবা করা সম্ভব নয়।

alt
জামালউদ্দিন হোসেন বলেন, নাসির আলী খান পল ‘জ্যামাইকার কলাম্বাস’ এটা যথার্থ তার জন্য। তিনি একজন সদাহাস্যময় প্রিয়ব্যক্তি, সমাজসেবক। কমিউনিটির সকল ক্ষেত্রেই তার বিচরণ। আমার ৯ বছরের প্রবাস জীবনে কমিউনিটির কোন কাজ পল খান ছাড়া হতে দেখিনি। আরো আগেই তার সম্বর্ধনা প্রাপ্য ছিলো। আমি তার শতায় নয়, শতায়ুর চেয়েও অধিক আয়ু কামনা করি।ড. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, নাসির আলী খান পল আমাদের কমিউনিটির জন্য উদাহরণ। কমিউনিটির এমন কোন অনুষ্ঠান নেই যেখানে স্বস্ত্রীক পল খান সামনের সারিতে নেই। তাকে অনুসরণ করলে কমিউনিটিই উপকৃত হবে।

alt
ইমাম মির্জা আবু জাফর বেগ হাদিসের আলোকে স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের কথা তুলে ধরে বলেন, সামাজিক কর্মকান্ডের মধ্য দিয়েই মানুষকে বড় হতে হয়। পল খান এমনি মানুষ যিনি জ্যাসাইকা মুসলিম সেন্টার প্রতিষ্ঠা থেকে শুরু করে অনেক ভালো কাজের সাথে জড়িত। আর এসব কাজে তার স্ত্রীর সহযোগিতা তাকে এগিয়ে নিয়ে গেছে। পল খান আর স্বপ্না খান ভালো দম্পতি। প্রসঙ্গত তিনি জ্যামাইকাবাসীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আজ ২৩ বছর ধরে জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের সাথে জড়িত। কতদিন বাঁচবো জানি। তবে যতদিন বেঁচে থাকবো ততদিন আমি আপনাদের ইমাম নয়, বন্ধু হিসেবে বেঁচে থাকতে চাই।

alt
মুহাম্মদ ফজলুর রহমান বলেন, প্রতিদিন সকালে কমিউনিটির কয়েকজন মানুষের কথা আমার স্মরণ হয়, তাদের মধ্যে পল খান একজন। তিনি বলেন, সর্বগুণে গুনান্বিত নাসির আলী খান পলকে সম্বর্ধিত করার আয়োজন আমাদেরকে আনন্দ দিচ্ছে। তার ভালো কাজের স্বীকৃতি পাচ্ছে। তিনি বলেন, বিষন্ন মানুষদের মন ভালো করার মন্ত্র পল খানের মধ্যে রয়েছে। তাই পল খানের মতো মানুষদের দীর্ঘায়ু হওয়া জরুরী, অন্য মানুষদের দীর্ঘায়ু বৃদ্ধি করতে।

alt
আবু তাহের বলেন, ২৫ বছর ধরে পল খানের সাথে আমার পরিচয়। পরিচয়ের শুরু থেকে আজ পর্যন্ত তাকে একই ভাবে দেখছি। তাকে আর তার কর্মকান্ড অনুসরণ করলে কমিউনিটি আরো এগিয়ে যাবে।
ফখরুল আলম বলেন, নাসির আলী খান পলের সাথে আমার দীর্ঘ দিনের পরিচয়। তার গুণ গেয়ে শেষ করা যাবে না। তিনি বলেন, গুণীজনদের মৃত্যুর আগে নয়, মৃত্যুর পরে আমরা স্মরণ করা আমাদের স্বভাব। তারা জীবিত থাকতে তাদের সম্মান দিতে কৃপণতা করি। কিন্তু আজকের অনুষ্ঠান ব্যতিক্রমী দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো। জ্যামাইকাবাসী যোগ্য ব্যক্তিকে সম্মান জানালো। তিনি আরো বলেন, কমিউনিটিকে সঠিকভাবে পথ দেখাতে, উৎসাহিত করতে পল খান একাই ১০০।

alt
রিমন ইসলাম বিগত ২৫ বছর ধরে পল খানকে চিনি, জানি। বিগত ৪০ বছর ধরে তিনি কমিউনিটিকে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন, আমেরিকান বাংলাদেশী ফার্মাসিস্ট এসোসিয়েশন, নর্থ বেঙ্গল ফাউন্ডেশন বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানের তিনি প্রতিষ্ঠাতাদের একজন। ব্যক্তিগ জীবনে তিনি ফর্মাসিস্ট হলেও প্রবাসে একজন রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী হিসেবে সফল। তিনি একজন সফল সংগঠক, একজন সফল মানুষ। সম্বর্ধনা তারই প্রাপ্য।রতন তালুকদার বলেন, পল খানের সাথে ৩৫ বছর ধরে পরিচয়। সেই ১৯৮১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের এক অনুষ্ঠানে নিউইয়র্কেই তার সাথে পরিচয় ঘটে। কমিউনিটির এমন কোন জায়গা নেই যে, সেখাতে তাকে পাওয়া যায় না। তিনি বলেন, আমেরিকা আবিষ্কার করেন কলাম্বাস, আর বাংলাদেশীদের জন্য জ্যমাইকা আবিষ্কার করেন নাসির আলী খান পল। তাই তো তিনি জ্যামাইকার কলাম্বাস। তিনি তার বত্তব্যে ইমাম মির্জা আবু জাফর বেগের বক্তব্যের ভূয়সী প্রশংসা করেন।গিয়াস আহমেদ বলেন, বিগত ২৮ বছর ধরে পল খানের সাথে পরিচয়। তিনি একজন অমায়িক, মানবসেবী আর ভালো মনের মানুষ।মনজুর আহমেদ বলেন, পল খান কাজের লোক বলেই সব খানেই তাকে দেখেছি, পেয়েছি। আর তার মতো মনের মানুষের পক্ষেই কমিউনিটির জন্য কাজ করা সম্ভব।এবিএম ওসমান গণি বলেন, কমিউনিটির মুরুব্বী হিসেবে নাসির আলী খানকে সম্মানিত করার মধ্য দিয়ে কমিউনিটিতে দৃষ্টান্ত স্থাপিত হলো। ভভিষ্যতে এই ধারা অব্যহত থাকবে। কমিউনিটির গুণীজনদের পর্যায়ক্রমে সম্মানিত করা হবে। এজন্য তিনি আয়োজক ও উদ্যোক্তাদের ধন্যবাদ জানান।

alt
সামসুদ্দীন আজাদ বলেন, পল খানের মতো কমিউনিটির আলোকিত মানুষদের সম্মানিত করলে কমিউনিটিই লাভবান হবে। তিনি সকল প্রবাসীকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান।
অধ্যাপিকা হুসনে আরা বেগম বলেন, আমাদের সৃষ্টিকর্তা মহান আল্লাহায়ালার গুণবাচক ৯৯টি নাম রয়েছে। অনুষ্ঠানের বক্তারা যেভাবে পল খানের গুণ-গান করছেন তাতে ৯৯টির অধিক যাতে না হয় সেই বিবেচনায় পল খান সম্পর্কে নতুন করে আর কিছুই বলার নেই।স্বপ্না খান বলেন, আমার স্বামীকে প্রবাসীরা এতো ভালোবাসেন তা আগে বুঝতে পারিনি। তার গর্বে আমার বুক ফুলে যাচ্ছে। আমি অভিভুত, আমার চোখে পানি চলে এসেছে। তিনি মানুষকে খুব ভালবাসেন। তার মতো মানুষ পৃথিবীতে কমই আছেন।

alt
মিসবাহ আহমেদ বলেন, পল খানের সাথে আমার ২৯ বছরের পরিচয়। তার সাথে আমাদের সস্পর্ক বাবা আর বড় ভাইয়ের মতো। তিনি জ্যামাইকার গর্ব।
ফরিদ আলম বলেন, চিন্তা চেতনায় পল খান একজন মুক্তিযুদ্ধের চেতনার মানুষ। তার মতো আমরা মুক্তিযুদ্ধেও চেতনা লালন-পালন করতে পারি তাহলে প্রবাসী বাঙালী কমিউনিটিসহ দেশ-জাতি উপকৃত হবে।
মনির হোসেন বলেন, পল খান কমিউনিটির নিবেদিত প্রাণ। তার নেতৃত্বে আমরা দেশের প্রাকৃতিক দূর্যোগ ‘আইলা’ সহ বিভিন্ন সময়ে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষদের জন্য রাস্তায় দাঁড়িয়ে এক একটি ডলার সংগ্রহ করে লাখো ডলার সংগ্রহ করে দেশে পাঠিয়েছি। তিনি পল খানের মতো শত মানুষের জন্ম কামনা করেন।

alt
সাইফুল ইসলাম বলেন, জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস সোসাইটি একটি অরাজনৈতিক সামাজিক সংগঠন। আমরা সবাইকে নিয়ে মিলেমিশে কমিউনিটির কল্যাণে কাজ করতে চাই।
বিলাল চৌধুরী বলেন, আমরা গুণীজনকে সম্মান জানাতে চাই, সম্মান দিতে চাই। কমিউনিটির জন্য সেবা দিয়ে পল খান সবার সম্মান অর্জন করেছেন। আজকের সম্মান তার প্রাপ্য।
ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার তার বক্তব্যে পল খানের কর্মকান্ড আর জেবিএফএস প্রতিষ্ঠার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস তুলে ধরে বলেন, গুণীজনদের সম্মানিত করলে কমিউনিটি, জাতিই সম্মানিত হবে। পল খানের সম্বর্ধনার মধ্য দিয়ে জ্যামাইকায় নতুন ইতিহাস সৃষ্টি হলো। তিনি বলেন, কমিউনিটির উন্নয়ন আর কল্যাণের জন্য এখন সকলে ঐক্য জরুরী। আমরা সকল বাংলাদেশী ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে পারলে অনেক সমস্যার সমাধান সম্ভব।

alt
অনুষ্ঠানে জাহাঙ্গীর কবীর তার বক্তব্যে পল খানের গুণ-গান করেন এবং বলেন, জ্যামাইকার নাম যদি একটি ক্যারিবিয়ান দ্বীপ রাষ্ট্রের নামে নামকরণ হয়ে থাকে। তাহলে ভবিষ্যতে নিউইয়র্কের জ্যামাইকার নাম বাংলাদেশ-ও হতে পারে। কেননা, নিউইয়র্কের জ্যামাইকায় এখন আর জ্যামাইকানরা বসবাস করেন না, বসবাস করেন বাংলাদেশীরা। তাই জ্যামাইকার নাম বাংলাদেশ করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।প্রবাসের জনপ্রিয় শিল্পী শাহ মাহবুবের একক সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে মধ্যরাতে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। এর আগে ছিল নৈশভোজ।


জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি হাজী আনোয়ার হোসেন লিটনকে অভিনন্দন

শুক্রবার, ০৮ এপ্রিল ২০১৬

alt

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ :জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি হাজী আনোয়ার হোসেন লিটন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জে এস ডির জাতীয় সম্মেলনে কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জে এসডি যুক্তরাষ্টের পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানিয়েছে কার্যকরী কমিটি I

alt


সোনার হরিন না পেয়ে জাফর চৌধুরী ২৫ বছর পর দেশে চলে গেছেন

মঙ্গলবার, ০৫ এপ্রিল ২০১৬

Picture
জাফর চৌধুরী বাপসনিউজকে সময়ের স্বল্পতায় প্রবাসীদের সাথে সাক্ষাৎ করতে পারেন নাই বলে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। ছবিতে নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের ডাইভার টিটি প্লাজার সামনে দেশে যাবার প্রাক্কালে এক রাতে বা থেকে ৩য় জাফর চৌধুরী ,ডান থেকে আমরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন-এর সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন, জাফর চৌধুরী ,সমাজতান্ত্রিক দল -জেএসডি কেন্দ্রিয় কমিটির প্রবাস বিষয়ক সম্পাদক ও মুলধারার রাজনৈতিক এডভোকেট মুজিবুর রহমান এবং নিউইয়র্ক-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি ও আইঅন-বাংলাদেশ টিভি পরিচালক রিমন ইসলামকে য়াচেছ।


ব্রঙ্কসে মিলেনিয়াম টিভির প্রধান কার্যালয় উদ্বোধন

মঙ্গলবার, ০৫ এপ্রিল ২০১৬

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক প্রতিনিধি : ব্রুকলিন ও জ্যাকসন হাইটস এ শাখা অফিসের পর এবার ব্রঙ্কস এ উদ্বোধন হলো মিলেনিয়াম টিভির প্রধান কার্যালয়। আজ শনিবার ব্রঙ্কসের ছায়াঘেরা টেলর এভিনিউতে অতিথিদের সঙ্গে নিয়ে ফিতা কেটে এর উদ্বোধন করেন মিলেনিয়াম টিভির প্রেসিডেন্ট নূর মোহাম্মদ এবং চেয়ারম্যান আয়েশা নূর।

Picture

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন এসেম্বলীম্যান লুইস সেপুলভেদা। পবিত্র কোরআন তেলোয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। তেলওয়াত করেন নর্থ ব্রঙ্কস জামে মসজিদের ইমাম মোঃ মাসুদ ইসলাম। এ সময় ব্রঙ্কসসহ নিউইয়র্কের কমুনিটি নেতা ও বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

alt 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে লুইস সেপুলভেদা বাংলাদেশীদের প্রশংসা করে বলেন, জাতি হিসেবে বাংলাদেশীরা সংগ্রামী ও কর্মনিষ্ঠ। ব্রঙ্কসে এথনিক টিভি হিসেবে মিলেনিয়াম টিভির যাত্রা এক সাহসী পদক্ষেপ উল্লেখ করে তিনি বলেন, এজন্য নূর মোহাম্মদকে ব্রঙ্কস বাসীর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই। এখানকার বাংলাদেশী কমুনিটির রাজনীতি, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড এগিয়ে নিয়ে যেতে মিলেনিয়াম বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে আমি মিশ্বাস রাখি।

alt 

মিলেনিয়াম টিভির প্রেসিডেন্ট নূর মোহাম্মদ বলেন, বিশ্বজুড়ে বাংলা ছড়িয়ে দিতেই মিলেনিয়াম টিভি যাত্রা শুরু করেছে। তিনি বলেন, এই টিভির বিশেষত্ব হচ্ছে এটা বাংলাদেশ সরকার এবং আমেরিকান সরকারের লাইসেন্স প্রাপ্ত টিভি স্টেশন। বিবিসি, সিএনএন, ফক্স, এবিসি যে লাইসেন্স নিয়ে কাজ করছে আমরা সে একই লাইসেন্স নিয়েছি। তাই এটা শুধুমাত্র কমুনিটি টিভি নয়, মূলধারার টিভি হিসেবে খুব শিগগিরই ইংরেজী ভাষায় সম্প্রচার শুরু করবে।

alt 

অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন মিলেনিয়াম টিভির এ্যাডভাইজার ও হোস্ট দিমা নেফারতিনি ও চীফ নিউজ এডিটর সাখাওয়াত সেলিম।অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শিক্ষাবিদ নাইমা খান, আইনজীবি এন. মজুমদার, নাসরিন আহমেদ, রিয়েলেটর জাকির খান, ডেমোক্রেট নেতা শহীদ খান, আরএলবি গ্রুপের চেয়ারম্যান আকতার হোসেন বাদল, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহিম বাদশা, কবি ও লেখক নাসরিন চৌধুরী, নরসিংদী জেলা সমিতির সহ সভাপতি আহসান হাবিব, এ্যাডভোকেক আব্দুল কাইয়ুম, এ্যাডভোকেট নাসির, কন্ঠশিল্পী রোজি আক্তার, ব্যবসায়ী এমএ মালেক প্রমুখ।

alt 

এদের মধ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, শিক্ষাবিদ নাইমা খান, নাসির উদ্দীন, শহীদ খান, ডাঃ প্রবাল দাস, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মুকীত চৌধুরী, ডাঃ আলী আহমেদ, আশরাফুল মৃধা, আকতার হোসেন বাদল, রফিকুল ইসলাম, নাসরনি আহমেদ, আব্দুর রহিম বাদশা, হেলাল উদ্দিন চৌধুরী, মিলেনিয়াম টিভির প্রেসিডেন্ট নূর মোহাম্মদ, চীফ নিউজ এডিটর শাখাওয়াত সেলিম, টিভির ব্রুকলিন ব্যুরো চীফ মোহাম্মদ মাহাব, মাইনুল আলম বাপ্পী, পরিচালক নিশাত নূর প্রমুখ।

alt 

অনুষ্ঠানে দেশের গান পরিবেশন করেন প্রবাসের পরিচিত শিল্পী জিল্লুর রহমান ও রোজি আক্তার। স্বরচিত কবিতা পড়ে শোনান কবি ও লেখক নাসরিন চৌধুরী।


জাফর চৌধুরীকে জেএসডি’র বিদায়

মঙ্গলবার, ০৫ এপ্রিল ২০১৬

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ :প্রবাসের সুপরিচিত ও প্রগতিশীল সংগঠক জাফর চ্যেধুরী দীর্ঘ ২৫ বছর পর দেশে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়ার গত ৩১ মার্চ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় নিউইয়র্কের বাঙ্গালী অধ্যাষিত জ্যাকসন হাইটসের মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর মাহমুদ এর অফিস ভবনে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার কর্তৃক এক বিদায় সংবর্ধনা দেওয়া হয়। সভাপতি হাজী আনোয়ার হোসেন লিটনের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক শামসুউদ্দিন আহমেদ শামীমের পরিচালনায় অনুষ্টিত সংবর্ধনা অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধা কল্যান সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান আবু জাফর মাহমুদ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি যুক্তরাষ্ট্র শাখার উপদেষ্টা হাজী আহসান মাসুদ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল -জাসদ যুক্তরাষ্ট্র শাখার সাধারন সম্পাদক নূরে আলম জিকু, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি কেন্দ্রীয় নেতা সারোয়ার হোসেন , জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি -যুক্তরাষ্ট্র শাখার সহ- সভাপতি সুভাষ মজুমদার, নূর আলম সেলিম এবং তারেক মাহমুদ প্রমুখ।খবর বাপসনিঊজ।

alt সংবধৃনা সভায় জাফর চৌধুরী বলেন, ২৫ বছর নিউইয়র্ক প্রবাসীদের সাথে একত্রে ছিলাম। যা আমার জীবনের একটি বিশেষ মুহূর্ত । কোন দিন ভুলবনা। সবাইকে মিস করবো ।এই সভার জন্য উপস্থিত সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। জাফর চৌধুরী সকল প্রবাসীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান তাকে বিভিন্নভাবে সহযোগীতা করার জন্য।ছবিতে বাথেকে নূরে আলম জিকু, জাফর চৌধুরী ,মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর মাহমুদ, তারেক মাহমুদ,শামসুউদ্দিন আহমেদ শামীম, নূর আলম সেলিম, হাজী আনোয়ার হোসেন লিটন এবং হাজী আহসান মাসুদকে দেখায়াচেছ।ছবি:বাপসনিঊজ।
 


২৫ মার্চকে আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস ঘোষণার দাবি

মঙ্গলবার, ০৫ এপ্রিল ২০১৬

হাকিকুল ইসলাম খোকন, বাপসনিউজ:২৫ সে মার্চ শুক্রবার, দিবাগত রাত ৮ থেকে ১২টা ০১ মিনিট,নিউইয়র্কের বাঙ্গালী অধ্যাষিত জ্যাকসন হাইটসের পালকি সেন্টারে জেনোসাইড’ ৭১ ফাইন্ডেশন ইউএসএ-এর আয়োজনে এবং মুক্তিযোদ্ধা সংসদ এর যুক্তরাষ্ট্র কমান্ড , মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদ , বঙ্গবন্ধু প্রচার কেন্দ্র সমাজকল্যান পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র, মুক্তিযোদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন মঞ্চ, ঘাতক দালাল র্নিমুল কমিটি নিউইয়র্ক শেখ হাসিনা মঞ্চ যুক্তরাষ্ট্র, স্বাধীনতা চেতনা বাস্তবায়ন মঞ্চ, বাংলাদেশ আওয়ামী ফোরাম ইউএসএ, স্বদেশ ফোরাম ,আমেরিকা-বাংলাদেশ কমিউনিটি ডেভলাপমেন্ট ইনিশিয়েটিভ (এবিসিডি আই), বাংলাদেশ আওয়ামী আইনজীবি পরিষদ, বাংলাদেশ পেশাজীবি সমন্বয় পরিষদ , বঙ্গবন্ধু সমাজকল্যান পরিষদ নিউইয়র্ক, বঙ্গমাতা পরিষদ,বনলতা-শিল্পী -সাহিত্যিক সাংবাদিক গোষ্ঠী, আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন, যুক্তরাষ্ট্রস্থ সোহরাওয়ার্দী স্মৃতি পরিষদ এবং মক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সম্মিলিত জোট প্রমুখের সহযোগিতায় অনুষ্টিত ২৫মার্চ কালরাত্রি স্বরণ এবং ৪৫তম মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে কর্মসূচী ছিল গণহত্যার শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন, জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা জানানো , দেশের গান ও কবিতা আবৃতি, গণহত্যা শীর্ষক সেমিনার ও আলোচনা সভা ১২:০১ মিনিটে আলো নিবিয়ে গনহত্যার শহীদের স্বরণ এবং সম্মিলিত কন্ঠে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনার মধ্যে দিয়ে স্বাধীনতা দিবসের উদযাপন।
alt
একাত্তরের পঁচিশে মার্চ কালরাতে বর্বর পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর গণহত্যার শিকার বীর বাঙালিদের গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করলেন নিউইয়র্কের বাংলাদেশিরা। ভয়াল কালরাতের সেই গণহত্যার প্রতিশোধ স্পৃহায় মুক্তির সংগ্রামে শামিল হয়ে বীর বাঙালি ঝাঁপিয়ে পড়েছিল মুক্তি সংগ্রামে। নয় মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে হানাদার পাক বাহিনীকে পরাজিত করে বাংলার দামাল মুক্তিযোদ্ধারা ছিনিয়ে এনেছিল স্বাধীনতার লাল সূর্য।একাত্তরের বিভীষিকাময় সেই ভয়াল রাতের স্মরণে এবং মহান বিজয় বিজয় দিবস উপলক্ষে ‘জেনোসাইড ৭১ ফাউন্ডেশন, ইউএসএ জ্যাকসন হাইটসের পালকি পার্টি সেন্টারে স্থানীয় সময় ২৫ মার্চ শুক্রবার দিবাগত রাতে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে রাত ১২টা ১ মিনিটে আধারে নিমজ্জিত কক্ষে মোমবাতি জ্বালিয়ে কালরাতকে স্মরণ করা হয়। নিউইয়র্কে বসবারত একাত্তরের রণাঙ্গণের বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ প্রগতিশীল মুক্তচিন্তার মানুষেরা এতে অংশ নেন। এর আগে সন্ধ্যা থেকে কালরাতের গণহত্যার শিকার বীর বাঙালি এবং মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের স্মরণ করেন অনুষ্ঠানে যোগ দেয়া বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষেরা। এ অনুষ্ঠানে ২৫ মার্চকে আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস ঘোষণার দাবি জানানো হয়।
 alt
প্রবাসের সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব জিএইচ আরজুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে নিহতদের স্মরণে প্রার্থনা সঙ্গীত পরিবেশন করেন জলি কর এবং কাবেরী দাস তার দল । এরপর স্বাগত বক্তব্য দেন জেনোসাইড ৭১’-এর সভাপতি ড. প্রদীপ রঞ্জন কর। অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণমূলক বক্তব্যের পাশাপাশি ছিল গান ও কবিতা। অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধের গান পরিবেশন করেন সঙ্গীত পরিষদের শিল্পীরা। পরিচালনায় ছিলেন সঙ্গীত পরিষদের সভাপতি বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী কাবেরী দাশ। কবিতা আবৃত্তি করেন আবীর আলমগীর, মুমু আনসারী, সেমন্তী ওয়াহেদ, পারভীন সুলতানা, শুক্লা রায় প্রমুখ। প্রার্থনা সঙ্গীত পরিবেশন করেন সুব্রত দত্ত। অনুষ্ঠানে ‘জেনোসাইড’ শীর্ষক এক সেমিনারের আয়োজন করা হয়। এতে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন জেনোসাইড ৭১’র সভাপতি ড. প্রদীপ রঞ্জন কর। আলোচনায় অংশ নেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন, নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল  শামীম আহসান, সাপ্তাহিক ঠিকানার প্রধান সম্পাদক মুহাম্মদ ফজলুর রহমান প্রমুখ।
alt
আলোচনায় অংশ নেন মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদ ,কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা খান মেরাজ, , মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদ যুক্তরাষ্ট্রের সভাপতি খুরশীদ আনোয়ার বাবলু, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহিম বাদশা, পেশাজীবী সমšয় পরিষদের নেতা কৃষিবিদ আশরাফুজ্জামান, আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সভাপতি মোর্শদা জামান, প্রকৌশলী আশরাফুল হক, ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইটসের সাধারণ সম্পাদক আকতার হোসেন, বঙ্গমাতা পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজ উদ্দিন আহম্মেদ সোহাগ, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি নিউইয়র্ক চ্যাপ্টারের সাধারণ সম্পাদক স্বীকৃতি বড়ুয়া প্রমুখ।  
 alt
মূল প্রবন্ধে ড. প্রদীপ রঞ্জন কর একাত্তরের গণহত্যার ইতিহাস তুলে ধরার পাশাপাশি দেশে দেশে গণহত্যা, বাংলাদেশে গণহত্যা, গণহত্যার পাশাপাশি ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন, বাঙালিদের ওপর পাক সেনাদের নির্যাতনের নমূনা, বীরঙ্গণা নারী, গণহত্যা নিয়ে নিরবতা, পাকিস্তানিদের গণহত্যা অস্বীকারসহ নানা বিষয় তুলে ধরেন। পাশাপাশি বেশকিছু প্রস্তাবনা পেশ করে। এসবের মধ্যে রয়েছে- গণহত্যাকারীদের বিচার ও গণহত্যা রোধে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে জনমত সংগঠিত করা, একাত্তরে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর চিহ্নিত ১৯৫ যুদ্ধাপরাধীর বিচার, বিশ্বশান্তি ও মানবতার বোধের প্রতি বিশ্বের সব জাতি জাতি ও রাষ্ট্রকে দায়বদ্ধ থাকা, মানব ইতিহাসে যত গণহত্যা হয়েছে এর মধ্যে বাংলাদেশের ১৯৭১’র গণহত্যা স্বপ্নতম সময়ে সর্ববৃহৎ। তাই ২৫ মার্চকে আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস হিসাবে ঘোষণার দাবি জানানো হয়।
জেনোসাইড ৭১ ফাউন্ডেশন ইউএসএ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা ড. প্রদীপ রঞ্জন কর শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন এবং মুল প্রবন্ধ পাঠ করেন। আলোচনা করেন সাপ্তাহিক ঠিকানার প্রধান সম্পাদক ফজলুর রহমান। বক্তব্য রাখেন, প্রমুখ।

http://www.mujibsenanews.com/uploads/images/1459848564_2.jpg" style="width: 900px; height: 431px;" alt="">


উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাম শামসুউদ্দিন আজাদ , ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ সহ-সভাপতি সৈয়দ বশরত আলী,আবুল কাসেম, উপদেষ্টা হাকিকুল ইসলাম খোকন, দপ্তর সম্পাদক প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ যুক্তরাষ্ট্র শাখার সাধারন সম্পাদক নূরে আলম জিকু ,  মুক্তিযোদ্ধা সংসদ যুক্তরাষ্ট্র কমান্ড কাউন্সিলের আহবায়ক আব্দুল মুকিত চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা কামরুল হাসান চৌধুরী, , মুক্তিযোদ্ধা ডা:টমাস দুলু রায়, মুক্তিযোদ্ধা রাশেদ আহমেদ,, মুক্তিযোদ্ধা অবিনাশ আচার্য , আশরাফ জামান, জালাল উদ্দিন জলিল, কায়কোবাদ খান, , মুক্তিযোদ্ধা গোলাম কুদ্দুস, হারুন অর রশীদ, নূরই আজম বাবু, শওকত আকবর , হেলাল মাহমুদ, মুনির মোস্তফী,আলী হাসান কিবরিয়া অনু, জাকির হোসেন ,হিরু ভূইয়া ,মোর্শেদা জামান, সাইদুর রহমান রেনু,আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নূরুজামান সরদার , সাধারন সম্পাদক সুবল দেবনাথ, শেখ রাসেল শিশু কিশোর পরিষদের সভাপতি শাখাওয়াত বিশ্বাস , প্রবাসী কল্যান বিষয়ক সম্পাদক সোলাইমান আলী, মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান সাইড, ওয়ার্ল্ড হিউম্যান রাইটস ডেভোলাপমেন্ট সাধারন সম্পাদক আক্তার হোসেন, খায়রুল আলম , মোজাহিদ আনসারী  সহ যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের বিপুল সংখ্যক নেতৃবৃন্দ অনুষ্টানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন জলি কর , কাবেরী দাস এবং তার সঙ্গীত একাডেমী, আবৃতি করেন আবীর আলমগীর, মিঠুন আহমেদ মুমু আনসপরী ও সেমনতি ওয়াহেদ ,কবিতা আবৃতি পারভিন সুলতানা।এবং তবলায় ছিলেন পিনাক পানী গোসসামী।