Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

যুক্তরাষ্ট্রের খবর

কুইন্স লাইব্রেরিতে ‘শেকড়ের খোঁজ’ গ্রন্থ নিয়ে আলোচনা

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’-র পর এবার পাঠকের পাতা নির্বাচন করেছে কাজী জহিরুল ইসলামের ইতিহাস ভিত্তিক গ্রন্থ ‘শেকড়ের খোঁজ’। ক্লাবের সদস্যরা কুইন্স লাইব্রেরির হলিস শাখা থেকে বইটি সংগ্রহ করে পড়ছেন। লাইব্রেরিয়ান আবদুল্লাহ জাহিদের তথ্যমতে অনেকেই বেশ আগ্রহ নিয়ে লাইব্রেরি থেকে গ্রন্থটি সংগ্রহ করছেন, এ ছাড়া কেউ কেউ বাণিজ্যিক বিক্রয়কেন্দ্র থেকেও কিনে নিয়েছেন। ২১ মার্চ শনিবার গ্রন্থটি নিয়ে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছে কুইন্স লাইব্রেরি। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন ড. বিলকিস রহমান দোলা। অন্যান্যের মধ্যে আলোচনা করবেন ড. মাহবুব হাসান, ওবায়েদুল্লাহ মামুন, ফরহাদ ইসলাম প্রমূখ। যেহেতু এটি বাংলা নববর্ষের মাস, তাই ক্লাবের সদস্যরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবার অনুষ্ঠান শুরু হবে দুপুর বারোটায়, প্রথম দুই ঘণ্টা ১৪২৫ বঙ্গাব্দ বরণ উপলক্ষে থাকবে নানান স্বাদের পিঠার সমাহার, বৈশাখী গান ও কবিতা পাঠ। সঙ্গীতে অংশ নেবেন শারমীন মোহসীন, সূতপা মণ্ডল, ভায়লা সালিনা লিজা, মুক্তি জহির, কনিকা, রুমা দিলরুবা প্রমূখ। কবিতা আবৃত্তি করবেন শ্যামা শ্যামলিপি, নজরুল কবীর, মোহাম্মদ মোহসীন ও রাজিয়া নাজমী।

শেকড়ের খোঁজ গ্রন্থটি রচিত হয়েছে বাংলা ভাষার উৎপত্তি ও সাহিত্য চর্চার মধ্য দিয়ে এর বিকাশ, বাংলার শাসন ব্যবস্থার ইতিহাস, মহাত্মা গান্ধী ও বঙ্গবন্ধুর জীবন, ৫২র ভাষা আন্দোলন এবং ৭১-এর মুক্তিযুদ্ধসহ সব গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ঘটনার ধারাবাহিক ইতিহাস প্রভৃতি ঘটনাপ্রবাহকে কেন্দ্র করে। গ্রন্থটির ফ্ল্যাপ থেকে জানা যায়, ‘আমি বাঙালী, বাংলা আমার ভাষা। এই ভাষাকে মহিমান্বিত করেছে একুশ। সংস্কৃত মাগধী প্রাকৃত হয়ে,  চর্যাপদের লুইপা কাহ্নপা’র হাত ধরে, চন্ডীদাসের মস্তিস্কের কোষে কোষে বসত করে,  বঙ্কিম,  মাইকেল হয়ে রবীন্দ্রনাথের স্পর্শে যে ভাষা এনেছে নোবেলের সম্মান,  কতটুকু আমি জানি তার শেকড়ের খোঁজ? বাংলা নববর্ষের উত্থান পুনরুত্থানের গল্পই বা কী। কিভাবে ছাব্বিশে মার্চ হলো স্বাধীনতা দিবস আর কিভাবেই বা হলো ষোলই ডিসেম্বর আমাদের মহান বিজয় দিবস?  এইসব প্রশ্নের উত্তর একটি ধারাবাহিক গল্প প্রবাহের মধ্য দিয়ে পরিস্ফুট হয়েছে এই গ্রন্থে। মহাত্মা গান্ধীর জীবনপ্রবাহের মধ্যে যেমন রয়েছে ভারতবর্ষের স্বাধীনতার ইতিহাস তেমনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন প্রাবাহের মধ্য দিয়েই উৎসারিত হয়েছে বাংলাদেশের স্বাধীনতা। এইসবই আমাদের শেকড়ের খোঁজ।’

Picture

বাংলা ভাষার জন্মকথা অনুচ্ছেদে লেখক উল্লেখ করেন, ‘প্রায়শই আমরা প্রাচ্য এবং পাশ্চাত্য শব্দ দুটি শুনে থাকি। এখন যে অঞ্চলের মানুষ বাংলা ভাষায় কথা বলে অর্থাৎ বাংলাদেশ এবং ভারতের পশ্চিমবাংলা,  প্রাচীনকালে এর নাম ছিল প্রাচ্য। তাই আমাদের শিল্প, সাহিত্য, অর্থনীতি ইত্যাদি বোঝাতে আমরা এখনো প্রাচ্যের শিল্প, সাহিত্য বা অর্থনীতি বলে থাকি। আর পাশ্চাত্য  অর্থ হচ্ছে ইওরোপ। তাই ইওরোপের কোনো কিছু বোঝাতে পাশ্চাত্যের বলে থাকি।

মগধ রাজ্যের শাসন ও সংস্কৃতির আধিপত্য ছিল প্রাচ্যে। তাই আজকের বাংলা ভাষা মাগধী ভাষা থেকেই এসেছে বলে পণ্ডিতেরা মনে করেন। এটি ইন্দো-ইওরোপীয় ভাষা পরিবারের একটি ভাষা। ইন্দো-ইওরোপীয় ভাষারই একটি শাখা ভারতীয়-আর্য ভাষা। এই ভাষায়ই বেদ রচিত হয়েছে। তাই একে বৈদিক সংস্কৃত ভাষা বলা হয়। সংস্কৃত ভাষা থেকে এসেছে মাগধী প্রাকৃত,  যা থেকে বাংলা ভাষার উৎপত্তি হয় বলে পণ্ডিতেরা মনে করেন। মাগধী প্রাকৃত কোনো মৌলিক ভাষা নয়। এর উৎপত্তি বৈদিক সংস্কৃত থেকে। মাগধী প্রাকৃত বলে কোনো ভাষা আজ আর ব্যবহৃত হয় না। কিন্তু ধর্মশাস্ত্র বেদ সংস্কৃত ভাষায় রচিত হয়েছে বলে সংস্কৃত ভাষার চর্চা এখনো রয়েছে। তাই আমরা বলবো বাংলা ভাষার উৎস সংস্কৃত। সংস্কৃত থেকেই বাংলা ভাষা এসেছে।’

উল্লেখ্য যে কুইন্স লাইব্রেরির পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলা বুক ক্লাব গড়ে ওঠে এ বছরই ফেব্রুয়ারী মাসে। প্রতি মাসে কর্তৃপক্ষ একটি গুরুত্বপূর্ণ বাংলা বই নির্বাচন করে, সদস্যরা বইটি লাইব্রেরি থেকে সংগ্রহ করে সারা মাস পাঠ করেন এবং মাসের একটি নির্দিষ্ট দিনে একত্রিত হয়ে বইটি নিয়ে আলোচনা করেন। একজন মূল আলোচক থাকেন, তিনি লিখিত প্রবন্ধ পাঠ করেন, অন্যরা মুক্ত আলোচনা করেন। এই আলোচনা প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে গ্রন্থটি সম্পর্কে নিজস্ব পাঠলব্ধ ধারণা অন্যদের সাথে শেয়ার করার সুযোগ পান।


বর্ণিল আয়োজনে নেত্রকোনা জেলা এসোসিয়েশন ইউএসএ’র বাংলা বর্ষ বরণ

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

Picture

বর্ষ বরণ উৎসবে নেত্রকোনা প্রবাসীদের ঢল নামে। প্রবাসের জনপ্রিয় শিল্পীদের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা ছাড়াও জমজমাট এ উৎসবে ছিল ইলিসসহ বাঙালী সব খাবার-দাবার।

 alt

নেত্রকোনা জেলা এসোসিয়েশন ইউএসএ’র সভাপতি মো. বজলুর রহমান সভাপতিত্বে এবং জাহাঙ্গীর হোসেন খান শামীমের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধান উপদেষ্টা বাংলাদেশের সাবেক ডিআইজি জহুরুল হক।

 alt
আনন্দঘন ও উৎসবমুখর পরিবেশে তিনি এ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ঘোষণা করেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন সংগঠনের উপদেষ্টা ইকবাল হায়াৎ খান ও বজলুর রহমান নয়ন, প্রধান পৃষ্ঠপোষক উপদেষ্টা মো. বশির ফারুক।

alt

স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম আনোয়ার।

alt
অনুষ্ঠানে অতিথিরা ছাড়াও বর্ষবরণ কমিটির আহ্বায়ক জামাল উদ্দিন, প্রধান সমন্বয়কারী মো. আনোয়ারুল আলম ভূইয়া, সমন্বয়কারী অধ্যাপক ¯েœহাংশু সরকার, অর্থ সচিব হাবিবুর রহমান হাবিব, নাসির উদ্দিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

alt

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, পহেলা বৈশাখ উৎসব প্রিয় বাঙালীদের প্রাণের উৎসব। হাজার বছরের ঐতিহ্যে লালিত এ সংস্কৃতি প্রবাস প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে।

alt
এ আয়োজন প্রবাসে জন্ম নেয়া ও বেড়ে ওঠা আমাদের নতুন প্রজন্মকে বাংলাদেশের কৃষ্টি-কালচারের সাথে পরিচিত করার একটি বড় সুযোগ। আলোচনার ফাঁকে বিভিন্ন জন বৃহত্তর ময়মনসিংহ সহ নেত্রকোনা জেলার হাস্য রসাত্বক ও ঐতিহ্যমন্ডিত কৌতুক পরিবেশন করেন।

alt

পরে সাংস্কৃতিক পর্বে প্রবাসের জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী শশী, সম্পা জামান ও নাজিয়া নীনা সঙ্গীত এবং সাদিয়া নৃত্য পরিবেশন করেন। সাউন্ড সিস্টেমে ছিলেন অনুপ।

alt
 বিপুল সংখ্যক প্রবাসী অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন সংগঠনের কর্মকর্তাগণ।


নিউজার্সিতে আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

বিশ্বজিৎ দে বাবলু ,বাপসনিঊজ,নিউজার্সি প্রতিনিধি ।। নিউজার্সিতে সাংগঠনিক সফরে আসা যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামিলীগ-এর তিন নেতা ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ ,সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হাসিব মামুন ,ও মহিউদ্দিন দেওয়ান-এর সাথে নিউজার্সি আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের  মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত , ৮ এপ্রিল রবিবার সন্ধ্যায় প্যাটারসনের চেম্বারলাইন এভিনিউর হালাল ফুড রেস্টুরেন্টে আয়োজিত ওই সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আব্দুল মালিক চুন্নু ।

766
সম্মেলনসহ সাংগঠনিক বিষয়ে নিয়ে আয়োজিত ওই সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামিলীগ-এর আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক দেওয়ান বজলু, নিউজার্সি আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মোশারফ আলম, ফয়সাল আহমেদ,  লোকমান তরফদার, সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ ,যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক বিশ্বজিৎ দে বাবলু ,সাংগঠনিক সম্পাদক রকিবুল হাসান রিপন,প্রচার সম্পাদক নৃপেন্দ্র পাল,  শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সাইদুর রহমান সাইদ, ত্রাণ ও সমাজ কল্যান সম্পাদক মোঃ আব্দুল হান্নাণ,  প্রবাসী কল্যাণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলম, দপ্তর সম্পাদক আব্দুর রকিব লুলু, নিউজার্সী আওয়ামী সাবেক আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক কমিটির সিনিয়র সদস্য সেলিম আহমেদ চৌধুরী, আবুল কে মজুমদার,  সৈয়দ আলী, আহমাদুর নোমান, শাহাব উদ্দিন ,মোহাম্মদ রব্বানী শাহীন প্রমুখ।


জাতিসংঘের ৩টি গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনে বাংলাদেশের বিজয়

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

বাপ্ নিউজ : জাতিসংঘের ইকোসক চেম্বারে জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কমিশন (ইকোসক) এর সহযোগী অঙ্গসমূহের (ঊঈঙঝঙঈ ঝঁনংরফরধৎু নড়ফরবং) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে ইকোসকের ৫৪টি সদস্য রাষ্ট্র ভোটে অংশগ্রহণ করে। ইকোসকের বিভিন্ন সহযোগী অঙ্গসমূহের এই নির্বাচনে বাংলাদেশ এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে এবং নির্বাচিত হয়। যে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গে বাংলাদেশ নির্বাচিত হয়েছে তার বিবরণ নি¤œরূপ :
১)কমিশন অন দ্যা স্ট্যাটাস অব উইমেন (সিএসডব্লিউ) এর ১১ সদস্যের নির্বাচন: মেয়াদ ৪ বছর (২০১৯-২০২২)। ফলাফল: এশিয়া ও প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়া নির্বাচিত।
২)ইউনিসেফ এর তহবিল পরিচালনা পরিষদের ১৪ সদস্যের নির্বাচন: মেয়াদ ৩ বছর (২০১৯-২০২১)। ফলাফল: এশিয়া ও প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে বাংলাদেশ, মঙ্গোলিয়া ও পাকিস্তান নির্বাচিত।
৩)ইউএন উইমেন এর পরিচালনা পরিষদের ১৭ সদস্যের নির্বাচন: মেয়াদ ৩ বছর (২০১৯-২০২১)। ফলাফল: এশিয়া ও প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে বাংলাদেশ, ভারত, মঙ্গোলিয়া, নেপাল ও সৌদিআরব নির্বাচিত।

ইকোসকের উপরিউক্ত যে ৩টি সহযোগী অঙ্গে বাংলাদেশ নির্বাচিত হয়েছে তা আমাদের নারী ও শিশুদের অধিকার সুরক্ষা এবং জীবনমান উন্নয়নের জন্য বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। নারীর ক্ষমতায়নে বর্তমান সরকারের অবদান, অব্যাহত সাফল্য ও আর্ন্তজাতিক স্বীকৃতির কারণে তাৎপর্যপূর্ণ এই নির্বাচনগুলোতে বাংলাদেশ জয়ী হতে পেরেছে। সিএসডব্লিউ এর বর্তমান সদস্য রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ আরও ৪ বছরের জন্য পুন: নির্বাচিত হলো। এরফলে নারীর অধিকার সুরক্ষা ও অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে বিশেষ গুরুত্ব বহনকারী এই কমিশনে বাংলাদেশ আগামী বছরগুলোতে আরও সক্রিয় ভূমিকা পালনে সক্ষম হবে। উল্লেখ্য চলতি বছরে সিএসডব্লিউ-এর ৬২তম অধিবেশনে বাংলাদেশ বুরে‌্যর ‘ভাইস চেয়ার’ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছে।
এছাড়া ইউনিসেফ এবং ইউএন উইমেন এর পরিচালনা পরিষদের সদস্য হওয়াতে বাংলাদেশ আগামী তিন বছর সক্রিয়ভাবে সংস্থা দুটির কার্যাবলী, অর্থ সংস্থান ও এর যথাযথ ব্যবহারে ভূমিকা রাখতে পারবে। বাংলাদেশসহ উন্নয়নশীল দেশসমূহের স্বার্থ সংরক্ষণ এবং ‘এজেন্ডা ২০৩০’ এর বাস্তবায়নেও সংস্থা দুটিকে আরও ভালোভাবে কাজে লাগাতে পারবে।
উপরিউক্ত ৩টি গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনে বিজয় আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের অব্যাহত কূটনৈতিক অগ্রযাত্রার সাফল্য প্রমাণ করে। এই নির্বাচনে বিজয়ের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের অবস্থান আরও সুসংহত হলো।


ওয়াশিংটনে ইমিগ্রান্ট বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

বাপ্ নিউজ : ওয়াশিংটন: ওয়াশিংটনে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস এবং বাংলাদেশস্থ আমেরিকান দূতাবাসের যৌথ উদ্যোগে ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত হল ”ইমিগ্রান্ট ভিষা পদ্ধতি সহজীকরন” বিয়ষক সেমিনার। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ও শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দীন এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া বার্নিকাট।

অনুষ্ঠানে সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন ওয়াশিংটস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের মিনিষ্টার কনস্যুলার শামসুল আলম চৌধুরী। অনুষ্ঠানে মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশে নিযুক্ত আমেরিকার কন্সাল জেনারেল শ্যারন অ্যান ওয়েভার রিভেরা। আমেরিকার কন্সাল জেনারেল শ্যারন অ্যান ওয়েভার রিভেরা তার বক্তব্যে ইমিগ্রান্ট ভিসা সহজীকরন সংক্রান্ত নানা বিষয় যেমন স্পন্সরশীপ, পুলিশ ভেরিফিকেশন সার্টিফিকেট, ডাক্তারী পরীক্ষা, ছবি, ভিষা ফি ইত্যাদি নানা বিষয়ে সঠিক পদ্ধতি করনীয় বিষয়ে স্লাইডের মাধ্যমে উপস্থিত দর্শক শ্রোতাদের সামনে তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন রাজ্য থেকে আগত প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যবসায়ী কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক বুদ্ধিজীবী সহ বৃহত্তর ওয়াশিংটন প্রবাসী বাংলাদেশীরা অংশগ্রহন করেন। আমেরিকার কন্সাল জেনারেল শ্যারন অ্যান ওয়েভার রিভেরা তার মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন শেষে প্রশ্নোত্তর পর্বে দর্শক শ্রোতাদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া বার্নিকাট এ ধরনের একটি সেমিনার আয়োজনের জন্য বাংলাদেশ দূতাবাসের ভুঁয়সী প্রশংসা করেন। রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দীন প্রবাসীদেরকে বাংলাদেশের প্রতি তাদের দায়িত্বের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে এগিয়ে আসার জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশস্থ আমেরিকান দূতাবাসের বিভিন্ন কর্মকর্তা ষ্টেট ডিপার্টমেনট এবং হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্টের কর্মকর্তা সহ বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দ অংশগ্রহন করেন। রাতের খাবারের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করা হয়।

More Video on this YouTube channel:

https://www.youtube.com/channe l/UCuCoWCGFy8vPoBy565It7kg


প্রবাসীরা ড. নীনা আহমেদকে পেনসিলভেনিয়ার লেফটেন্যান্ট গভর্নর দেখতে চান

রবিবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৮

হাকিকুল ইসলাম খোকন, বাপসনিঊজ,বিশেষ প্রতিনিধি, যুক্তরাষ্ট্র,:প্রবাসী বাংলাদেশিরা প্রেসিডেন্ট ওবামার আমলের উপদেষ্টা ড. নীনা আহমেদকে যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভেনিয়া রাজ্যের লেফটেন্যান্ট গভর্নর পদে দেখতে চান । তিনি এই রাজ্যের ফিলাডেলফিয়া সিটির ডেপুটি মেয়র ছিলেন। আসন্ন প্রাইমারিতে জয়ী হলে নীনা আহমেদ ডেমোক্রেটিক পার্টি থেকে লেফটেন্যান্ট গভর্নর পদে লড়ার সুযোগ পাবেন। প্রাইমারিতে জয়ী হতে তিনি জোরেশোরে প্রচার কাজ শুরু করেছেন।

Picture

নির্বাচনী প্রচারের অংশ হিসাবে শনিবার দুপুরে ড. নীনা আহমেদ নিউইয়র্কের বাংলাদেশি অধ্যুষিত কুইন্সে একটি সমাবেশ করেছেন। দুই শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি ওই সমাবেশে যোগ দিয়ে তাকে বিজয়ী করতে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। 

     alt

৩১ মার্চ নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে বেলজিনো পার্টি হলে ‘ফ্রেন্ডস অব ড. নীনা’ ব্যানারে অনুষ্ঠিত এ সমাবেশে নীনা আহমেদ বলেন, ব্যালট যুদ্ধে ব্যাপকভাবে অংশ নিয়ে আমাদের অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। যারা যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব গ্রহণ করেছেন, তাদের ভোটার হিসেবে তালিকাভুক্ত হওয়া জরুরি বলে মত দেন ড. নীনা আহমেদ।

alt
সমাবেশ সঞ্চালনা করেন আয়োজক কমিটির কো-চেয়ার ও মার্কিন শ্রমিক ইউনিয়নের নেতা মাফ মিসবাহউদ্দিন ও জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন অব নর্থ আমেরিকার সাধারণ সম্পাদক জেড চৌধুরী জুয়েল এবং আমেরিকা বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের (এবিপিসি) সভাপতি লাবলু আনসার।

alt

সমাবেশে অনেকের মধ্যে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন নিউইয়র্ক সফররত জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, নিউজার্সির কাউন্সিলম্যান ও মুক্তিযোদ্ধা ড. নূরন নবী, সমাজকর্মী ডা. জিয়াউদ্দিন আহমেদ,‘পিপলএনটেক’-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও আবু হানিফ বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম, রিয়েল এস্টেট ইনভেস্টর আনোয়ার হোসেন।

alt
ড. নীনার সমর্থনে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন পেনসিলভেনিয়ার আপার ডারবি সিটির কাউন্সিলম্যান শেখ সিদ্দিক, মিলবোর্ন বরোর ভাইস প্রেসিডেন্ট নূরুল হাসান, কাউন্সিলম্যান মনসুর আলী মিঠু, নিউইয়র্কের হাডসন সিটির কাউন্সিলম্যান শেরশাহ মিজান, নিউজার্সির হেলিডন সিটির ম্যানচেস্টার ইউটিলিটিস অথরিটির কমিশনার দেওয়ান বজলু চৌধুরী, নিউইয়র্কের সাবেক স্টেট সিনেটর প্রার্থী ও মূলধারার রাজনীতিক গিয়াস আহমেদ প্রমুখ।

alt

জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ড. নীনা আহমেদ একজন বাঙালি নারী। সবকিছুর ওপরে তিনি মানবিক বিবেকসম্পন্ন একজন মানুষ। এজন্য দলমত নির্বিশেষে সকলেই তাকে সমর্থন দিচ্ছেন।

alt
নিউজার্সির কাউন্সিলম্যান নূরন নবী বলেন, এখন সময় হচ্ছে ঘুরে দাঁড়ানোর। ড. নীনার মত সৎ, পরিশ্রমী, উদ্যমী মানুষকে নির্বাচিত করার মধ্য দিয়েই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বাঙালির উত্থানের পথ সুগম হতে পারবে।

alt

‘পিপলএনটেক’-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও আবু হানিফ বলেন, প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে ড. নীনা নিজের সামগ্রিক যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখেছেন।

alt
সেই ধারাবাহিকতায় লেফটেন্যান্ট গভর্নরের পথ ধরে স্টেট গভর্নর ও পরবর্তীতে ইউএস সিনেটর হতে সক্ষম হবেন, যদি আমাদের সমর্থন অব্যাহত রাখতে পারি।

  alt
সমাবেশের শুরুতে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। এছাড়া সাম্প্রতিক বাংলাদেশ,

  alt
যুক্তরাষ্ট্রসহ সারাবিশ্বে জঙ্গি হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

alt

alt


যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন প্রক্রিয়ায় ফিরে আসলো এক বাংলাদেশী

রবিবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৮

অনলাইন নিউজার্সি জার্নালে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে। এতে বলা হয়, নিউ জার্সির রানেমেডে বসবাস করতেন সেলিনা সিকান্দার। তিন সন্তানকে ফেলে তাকে দেশে ফিরে আসতে হচ্ছে। বিদায়ের কয়েকটি ঘন্টা তার কাছে, তার সন্তানদের কাছে ছিল রোজ কিয়ামতের মতো। মনে হচ্ছিল পৃথিবীর সবটুকু কষ্ট তাদেরকে গ্রাস করেছে।

Picture

কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের আইন, তা কোনো মানবতাকে স্পর্শ করে নি। সেলিনা সিকান্দারকে উঠিয়ে দেয়া হয়েছে বিমানে। যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে দাঁড়িয়ে তখন তিন সন্তানের মধ্যে বড় মেয়ে সাজেদা সিকান্দার আর্ত চিৎকারে আকাশ বাতাস ভারি করছিলেন। সাজেদা হাইস্কুল জুনিয়র। এ কষ্ট তিনি সহ্য করতে পারছেন না। বাংলাদেশী এ পরিবারটি যেন তছনছ হয়ে গেছে এমন যন্ত্রণায়। সেলিনা সিকান্দারের অভিবাসন ও কাস্টমস এনফোর্সমেন্টের মুখপাত্র নিশ্চিত করেছেন তাকে দেশে ফেরত পাঠানোর কথা।

ওই মুখপাত্র বলেছেন, সেলিনাকে অভিবাসন বিষয়ক বিচারক যুক্তরাষ্ট্র থেকে বের হয়ে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, তাকে বাংলাদেশে ফেরত যেতে হবে। ২০১০ সালের আদালতের সেই নির্দেশ নিয়ে আইনি লড়াই চলছিল এতদিন। সেলিনা আশ্রয় চেয়ে বার বার আবেদন করেছেন।

সেই আবেদন প্রত্যাখ্যান করেছেন আদালত। উল্লেখ্য, সেলিনা সিকান্দারের পিতার নাম শামসুদ্দিন সিকান্দার। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছেন ১৯৯৩ সালে। সেখানে তিনি রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনা করেন। কিন্তু ১৯৯৮ সালে অভিবাসন বিষয়ক বিচারক প্রথম সেই আবেদন প্রত্যাখ্যান করেন। ২০১০ সালে একই রায় আসে। ফলে দেশেই উড়ে আসছেন সেলিনা। রেখে আসছেন তার সন্তানদের।


ব্যাপক পরিবর্তন আসছে যুক্তরাষ্ট্রের এইচ-১বি ভিসায়

রবিবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৮

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : বড় ধরনের পরিবর্তন আসতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের এইচ-১বি ভিসা কোটায়। আসন্ন অর্থ বছরে এই পরিবর্তন করা হবে বলে জানা গেছে। ইউএসসিআইএসের বরাতে এই তথ্য জানা গেছে।জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্র নাগরিকত্ব ও অভিবাসনসেবা (ইউএসসিআইএস) ২০১৯ সালের অর্থবছরের জন্য কংগ্রেস অনুমোদিত সর্বোচ্চ ৬৫ হাজার এইচ-১বি ভিসার জন্য অসংখ্য আবেদন পেয়েছে। এ জন্য চলতি বছরের ১ অক্টোবর থেকে কাজ শুরু হবে।

Picture

ইউএসসিআইএস-এর ঘোষণা, এইচ-১বি ভিসার জন্য একাধিক আবেদন করা হয়েছে এমন সব দরখাস্ত বাতিল করা হবে। যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন কর্তৃপক্ষ এক নতুন নীতি স্মারকে জানায়, কোনো ব্যক্তির পক্ষে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের করা একাধিক আবেদন বা অনুমোদিত ভিসা বাতিল বা আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হবে।বাছাই প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে সব ভিসা আবেদনকারীকে তাদের পুরনো ফোন নম্বর, ই-মেইল নম্বর এবং সোশ্যাল মিডিয়ার ইতিহাস লিপিবদ্ধ করতে হবে। সব আবেদনকারীকে আগের পাঁচ বছরে তাদের ব্যবহার করা ফোন ও মোবাইল নম্বর জানাতে হবে।


অটিজম আক্রান্তদের সব ধরনের সুযোগ দিতে হবে: সায়মা ওয়াজেদ

রবিবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৮

Picture

হাকিকুল ইসলাম খোকন: বাপ্ নিউজ : জাতিসংঘে অটিজম আক্রান্ত ব্যক্তিদের সমাজের অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে উল্লেখ করে তাদের কল্যাণে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশের অটিজম বিষয়ক জাতীয় উপদেষ্টা কমিটির চেয়ারপারসন ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণপূর্ব এশিয়া অঞ্চলের ‘শুভেচ্ছা দূত’ সায়মা ওয়াজেদ হোসেন।

 alt
স্থানীয় সময় ৫ এপ্রিল জাতিসংঘ সদরদপ্তরে বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত একটি প্রদর্শণীর উদ্বোধনকালে একথা বলেন তিনি। তাঁর প্রতিষ্ঠান সূচনা ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ সরকার, সংশ্লিষ্ট অংশীজন ও এনজিওদের সাথে সমন্বিতভাবে অটিজম স্পেক্ট্রাম ডিসঅর্ডারসহ অন্যান্য ডিসঅর্ডারে আক্রান্ত ব্যক্তিবর্গের কল্যাণে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে মর্মেও তিনি উল্লেখ করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেন আরও বলেন, “অটিজম আক্রান্তদেকে সফল, ক্ষমতায়িত ও কর্মক্ষম ব্যক্তিতে পরিণত করতে আমাদেরকে সমন্বিত ও সামগ্রিক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে কাজ করতে হবে”। “সকলেরই সমাজে সমানভাবে এবং সম্মানের সাথে বসবাস করার অধিকার রয়েছে। অটিজম আক্রান্তদের বিশেষ করে মেয়ে ও নারীদের সব ধরণের সুযোগ দিতে হবে যা তাদের প্রয়োজন”।

alt

এর আগে দিনব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে মিজ্ সায়মা সকালে জাতিসংঘ সদরদপ্তরের ইকোসক চেম্বারে বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস উপলক্ষে জাতিসংঘ আয়োজিত ‘অটিজম আক্রান্ত নারী ও মেয়েদের ক্ষমতায়ন’ শীর্ষক প্যানেল আলোচনায় অংশ নেন। ইভেন্টটিতে ‘অ্যবলিজম, সেক্সিজম, রেসিজম…হাউ দে ইন্টারসেক্ট’ বিষয়ে প্রথম প্যানেলে প্যানেলিস্ট বক্তব্য প্রদানকালে তিনি অটিজম আক্রান্ত ব্যক্তিবর্গ বিশেষ করে নারী ও মেয়েদের যে সকল সামাজিক ও পারিবারিক চ্যালেঞ্জ রয়েছে তা মোকাবিলায় করণীয় বিষয়ে আলোকপাত করেন। তিনি তুলে ধরেন অটিজমের শিকার নারীদের বিভিন্ন বৈষম্য ও তাঁদের প্রতি গতানুগতিক সামাজিক ও পারিবারিক ধারণার কথা, তাদের নাজুক পরিস্থিতি এবং পরিবারের সদস্যসহ আশে-পাশের মানুষের দ্বারা নিগ্রহ ও নির্যাতনের বিষয়গুলো।

alt
তিনি বলেন, অটিজম আক্রান্ত নারী ও মেয়েরা নানবিধ সীমাবদ্ধতার কারণে নিজেদের একান্ত চাওয়া পাওয়ার কথাও ঠিকমতো বোঝাতে পারেন না। এসকল নারীদের বিবাহ ও দাম্পত্য জীবনসহ প্রাত্যহিক জীবন-যাপন বিষয়ে পর্যাপ্ত ব্যবহারিক শিক্ষা ও জ্ঞান অর্জনের সুযোগ সৃষ্টির উপর জোর দেন তিনি। পাশাপাশি তারা যাতে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড অংগ্রহণের মাধ্যমে তাদের অন্তর্নিহিত শক্তি ও সম্ভাবনার প্রকাশ ঘটাতে পারে সে বিষয়টির উপরও বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, অটিজম আক্রান্তদের সমাজে জায়গা করে দিতে হবে যাতে তারা তাদের অবদান রাখতে পারে, অন্যথায় সমাজে বড় ধরণের বিভেদ তৈরি হবে।

alt

জাতিসংঘের কমিটি অন দ্য রাইট অব পারসন উইথ ডিসঅ্যাবিলিটি-এর মেম্বার প্রফেসর জোনাস রুজকুস এর এক প্রশ্নের জবাবে মিজ্ সায়মা হোসেন বলেন, কনভেনশন অন দ্য রাইট অব পারসন উইথ ডিসঅ্যাবিলিটি-এর সদস্যরাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ সরকার অটিজম আক্রান্ত ব্যক্তিবর্গ বিশেষ করে নারীদের ক্ষেত্রে বহুমাত্রিক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে আন্ত:মন্ত্রণালয় পরামর্শক কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে নীতি প্রণয়ন ও কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। এরফলে এক্ষেত্রে ব্যাপক সাফল্য অর্জিত হয়েছে।

alt
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দূত হিসেবে সায়মা ওয়াজেদ হোসেন আরও জানান বাংলাদেশ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় অটিজম স্পেকট্রাম ডিজঅর্ডার আক্রান্ত ব্যাক্তিবর্গের কল্যাণে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া কার্যালয়ের সহযোগিতায় আঞ্চলিক সমন্বিত কাঠামো গঠন করা হয়েছে যা সরকার ও বেসরকারি সংস্থার সাথে একযোগে কাজ করে।

alt

ইভেন্টটির অন্যান্য প্যানেলিস্ট ছিলেন অটিজম উইমেন নেটওয়ার্কের চেয়ারপারসন মরেনিকি গিওয়া- ওনাইয়ু, অটিজম কনসালট্যান্ট অ্যামি গ্রাভিনো এবং জাতিসংঘের কমিটি অন দ্যা রাইট অব পারসন উইথ ডিসঅ্যাবিলিটি-এর মেম্বার প্রফেসর জোনাস রুজকুস। মডারেটর ছিলেন জাতিসংঘের এনজিও সম্পর্ক বিষয়ক অফিসের প্রধান জেফ্রি ব্রিজ।

alt
দুপুরে দিবসটি উপলক্ষে জাতিসংঘে বাংলাদেশ ও কাতার মিশনের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন মিজ্ সায়মা ওয়াজেদ হোসেন। অটিজম নিয়ে কাজ করছে এমন সংস্থাসমূহ এ প্রদর্শণীতে অংশ নেয়। প্রদর্শনীটির সহ আয়োজক ছিল জাতিসংঘে ভারত, কুয়েত ও দক্ষিণ কোরিয়ার স্থায়ী মিশন এবং অটিজম বিষয়ক প্রতিষ্ঠান অটিজম স্পীকস্। প্রদর্শণীতে বিভিন্ন সদস্য দেশ, জাতিসংঘের সহযোগী সংস্থা যেমন ইউনিসেফ ও বিভিন্ন এনজিও স্টল স্থাপন করে। মিজ্ সায়মা ওয়াজেদ হোসেনের প্রতিষ্ঠান ‘সূচনা ফাউন্ডেশন’ এই প্রদর্শণীতে অংশ নেয় যা দর্শকদের মধ্যে যথেষ্ট আগ্রহের সৃষ্টি করে।

alt

প্রদর্শণীর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সরকার গত ৯ বছরে অটিজম ও অন্যান্য নিউরোডেভোলপমেন্টাল ডিজঅর্ডার আক্রান্ত ব্যক্তিবর্গের কল্যাণে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে মর্মে উল্লেখ করে স্থায়ী প্রতিনিধি বলেন, “এজেন্ডা ২০৩০ গ্রহণকালে আমরা ‘কেউ পিছনে পড়ে থাকবে না’ বিশেষ করে যারা অসহায়- মর্মে প্রতিশ্রতি দিয়েছিলাম।

alt
 অটিজম ও অন্যান্য নিউরোডেভোলপমেন্টাল ডিজঅর্ডার আক্রান্ত ব্যক্তিবর্গ যাতে অধিকার ও মর্যাদা নিয়ে উন্নত জীবন যাপন করতে পারে তার অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টির জন্য আমরা প্রতিবছর অটিজম সচেতনতা দিবস পালনের মাধ্যমে আমাদের সেই প্রতিশ্রতি পূনর্ব্যক্ত করছি”। প্রদর্শনীর উদ্বোধনীতে অন্যান্যদের মাঝে আরও বক্তব্য দেন জাতিসংঘে নিযুক্ত কুয়েত ও কাতারের প্রতিনিধিগণ।প্রদর্শনীর উদ্বোধন শেষে উচ্চপর্যায়ের মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন মিজ্ সায়মা ওয়াজেদ হোসেন। এছাড়া বিকালে অটিজম স্পীকস্ এর প্রতিনিধিদলের সাথেও একটি সৌজন্য বৈঠকে মিলিত হন তিনি।


যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির ৮ শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে জ্যাকব মিল্টনের মিথ্যা মামলা খারিজ

রবিবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৮

বাপ্ নিউজ : যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির ৮ শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে জ্যাকব মিল্টনের মিথ্যা মামলা নিউইয়র্ক সুপ্রিম কোর্ট কুইনস কাউন্টি বাতিল করে দিয়েছেন। গত ১৩ এপ্রিল শুক্রবার ২০১৮ সুপ্রিম কোর্ট এই রায় দেন। এই মামলা দীর্ঘদিন চলে আসছিল। এই রায়ের ফলে মিথ্যার পরাজয় এবং সত্যের জয় হয়েছে বলে অবহিত করেছেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শরাফত হোসেন বাবু ও  সাবেক কোষাদক্ষ জসীম উদ্দীন ভূইয়া। তারা বলেন এটি একটি মিথ্যা মামলা ছিল। জ্যাকব মিল্টন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য উক্ত মামলাটি দায়ের করেন। যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতারা জ্যাকব মিল্টনের মিথ্যা মামলার তীব্র ঘৃণা ব্যক্ত করেন। তারা আরো বলেন আমরা সত্যের পথে ছিলাম তাই আমাদের বিজয় হয়েছে। মহান আল্লাহকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। সাথে যারা এই মামলায় সহযোগিতা করেছেন সকলকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।
এই মামলায় যে সকল অঃড়ৎহবু মামলা পরিচালনা করেছেন এবং যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির যে সমস্ত নেত্রীবৃনধ সহযোগীতা করেছেন  বিশেষ করে  বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশ নায়ক তারেক রহমান ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীর।
মামলার বিবাদী : যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শরাফত হোসেন বাবু, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক কোষাদাক্ষ্য জসিম উদ্দিন ভূইয়া ও নিউইয়র্ক মহানগর বিএনপির সভাপতি হাবিবুর রহমান সেলিম রেজা বিশেষ ভাবে ধন্যবাদ জানান। পাশাপাশি আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের দরবারে শুকরিয়া জ্ঞাপন করেন।


নিউইয়র্কে বাংলাদেশের নতুন কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুন্নেছা

রবিবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৮

Picture

বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক বাংলাদেশ কনস্যুলেটের নতুন কনসাল জেনারেল হিসাবে যোগ দিচ্ছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক সাদিয়া ফয়জুন্নেছা। তিনি বর্তমান কনসাল জেনারেল মো. শামীম আহসানের স্থলাভিষিক্ত হবেন। বাংলাদেশ সরকার পেশাদার

alt

কূটনীতিক শামীম আহসানকে পদোন্নতি দিয়ে নাইজেরিয়ায় বাংলাদেশের হাইকমিশনার হিসাবে নিয়োগ দিয়েছে।সাদিয়া ফয়েজুন্নেছা ২০১৫ সালে জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে উপস্থায়ী প্রতিনিধির দায়িত্ব পালন করেছিলেন।জানা যায়, নিউইয়র্ক ছাড়াও সিডনি, ভারতের আগরতলাসহ বিদেশে বাংলাদেশের ২৫টি মিশনে বিভিন্ন পর্যায়ে দায়িত্ব পালনের অভিজ্ঞতা রয়েছে সাদিয়া ফয়েজুন্নেছার।