Slideshows

ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার
ব্যানার

পরিচালনা পরিষদ 

সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি

ওসমান গনি
 

প্রধান সম্পাদক

হাকিকুল ইসলাম খোকন
 

সম্পাদক

সুহাস বড়ুয়া হাসু
 

সহযোগী সম্পাদক

আয়েশা আকতার রুবী

যুক্তরাষ্ট্রের খবর

কে এই শামশি আলী? দ্বিধাবিভক্ত জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার

মঙ্গলবার, ০৯ জানুয়ারী ২০১৮

বাপসনিঊজ:নিউইয়র্ক প্রবাসী বাংলাদেশীদের দীর্ঘদিনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় গড়ে উঠছে জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার। সম্প্রতি আজকালসহ কিছু পত্রিকায় উদ্ধতি দিয়ে ইমাম শামশি আলীর খবর প্রচারিত হয়েছে, যিনি ইন্দেনেশিয়ান কমিউনিটিতে প্রশ্নবৃদ্ধ হওয়ার কারণে মামলার মাধ্যমে অপসারিত হয়ে বিতাড়িত হয়েছেন। যার সাক্ষ্য প্রমাণসহ আদালতের রায়, ইউটিউবে ধারণকৃত সচিত্র প্রতিবেদনে রয়েছে। মসজিদ আল হিকমাতে নামাযরত মুসল্লী ও জুমার খুতবা দানকারী ইমামকে হঠাৎ করে খুতবা চলাকালীন পুলিশসহ প্রবেশ করে ধরিয়ে দেওয়াকে কি কোন ইসলামিক স্কলার এর কাজ হতে পারে?
বাংলাদেশী কমিউনিটিতে এমন কি প্রয়োজন রয়েছে যে ওনারমত বিতর্কিত ব্যক্তিকে মাসে একটি জুমার নামায আদায় করার জন্য ষোলশত ডলার বেতন দিয়ে রাখতে হবে? ইমাম দাউদ রশিদ এস্টোরিয়া মসজিদ আল হিকমায় যখন জুমার খুতবা দিচ্ছিলেন তখন ইমাম শামশী পুলিশসহ মসজিদে প্রবেশ করে ইমামকে দেখিয়ে পুলিশে ধরিয়ে দেন। অথচ দাউদ রশিদ আল আজাহার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিগ্রি প্রাপ্ত একজন আলেম। ইমাম শামশিকে নিয়ে যারা বাংলাদেশ কমিউনিটিতে বিভক্তি আনছেন তারাই এই প্রশ্নের যেন জবাব দেন। সাপ্তাহিক আজকাল পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে কতিপয় ব্যক্তি ঊনার পক্ষে বিপক্ষে কথা বলেছেন। গত ১৭ ডিসেম্বরে সাধারণ সভায় কমপক্ষে ১৫জন আজীবন সদস্য সহ আরো অনেকেই শামশি আলীর অপসারণ চেয়ে বক্তব্য রেখেছেন। এদের মধ্যে ড. নাজিম উদ্দিন, সেলি মুবদি, বদরুজ্জামান চৌধুরী, ফাতেমা গ্রোসারীর নজরুল ইসলাম, বদরুল ইসলাম, সিরাজ উদ্দিন জোবায়ের, হাজী শামসুল ইসলামসহ আরো অনেকে। এই সময় ড. মেছের, কাজী হালিম ও জাহেদসহ আরো অনেকেই বক্তব্য দেন। জেএমসিতে নিজস্ব স্বার্থের জন্য কেন এই বিদেশীর প্রয়োজন আছে। তার কাছ থেকে বাংলাদেশী কমিউনিটি কি পাচ্ছে। এই সব প্রশ্নের জবাব আজীবন সদস্যরা জানতে চান। হল ভর্তি আজীবন সদস্যদের মধ্যে কেউই শামশি আলীর পক্ষে কথা বলেননি। সাধারণ সভায় উপস্থিত আজীবন সদস্যরা কমিটির কাছে জানতে চান ৪৭০জন মুসল্লী যেখানে ইমাম শামশি আলীকে চান না এমন লিখিত স্বাক্ষর আবেদন জমা দেওয়ার পরও কমিটি মুখ খুলছেন না কি কারণে। সাধারণ সভায় কমিটির দায়িত্ব প্রাপ্তরা কোন সৎ উত্তর দিতে পারে নি। আজীবন সদস্যদের দাবী জুমার নামাযে মুসল্লীদের কাছে জিজ্ঞাস করলে জানতে পারবে তার পিছনে মুসল্লীরা নামায পড়তে চান কিনা। একজন ইমামের জন্য শর্ত শুধু ইংরেজীতে বক্তৃতা দেওয়া নয়, এলেম, আমল, পোশাক আশাক, চরিত্রিক বিষয় গুরুত্বপূর্ণ। ইমাম শামশি আলীকে ইতিপূর্বে ৯৬ ষ্ট্রিট মসজিদ থেকে বর্হিস্কার ও নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সম্প্রতি মুসলিম ডে প্যারেড এর সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেন তিনি। সেখানে মোস্তাফিজুর রহমানের সাথে আর্থিক লেনদেনের সুরাহা হয়নি বলে জানা গেছে।
আমাদের ৪৭০ জন ব্যক্তির স্বাক্ষরিত আবেদনসহ জেএমসির কমিটির কাছে জানতে চায় কেন, কোন স্বার্থে ইমাম শামশে আলী জুমার নামাযে ইমামতি করছেন। নাকি এখানেও সষের ভিতরে ভুত লুকিয়ে আছে। বিতর্কিত একজন ব্যক্তিকে নিয়ে আমাদের বাংলাদেশী কমিউনিটিতে কেন এই দ্বিধা বিভক্তি। মসজিদ আল্লাহর ঘর, ইমামতি করবেন বির্তকমুক্ত একজন ইমাম এটাই আমাদের দাবী। বিতর্কিত ব্যক্তিদের পিছনে নামায হবে কিনা এই বিষয়েও ফতোয়া রয়েছে। যারা ইমাম শামশে আলীর পক্ষে নিচ্ছেন এবং মনে করেন তার প্রতি অবিচার করা হচ্ছে তবে তাদের উচিত শামশি আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগগুলো খন্ডন করা। শামশে আলী যে ইসলামের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন তার দলিল প্রমাণ ওয়েব সাইড এবং ইউটিউবে রয়েছে। দুই একজন দন্তবিদ এই ইমামকে নিয়ে লাফালাফি করছেন। এই সব বিষয়ে আমাদের কমিউনিটির লোকজন জানতে চাই। আমাদের একটাই দাবী আমরা বিতর্কিত ইমাম চায় না, আমরা চাই জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার তার ঐতিহ্য ধরে রাখুক এবং একজন আমলধারী ইমাম, পরহেজগার ব্যক্তি ইমামতির নেতৃত্ব দিক। জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের এই অচল অবস্থা দ্রুত সমাধান হোক এটাই কমিউনিটির চাওয়া।,নিবেদক.বদরুল ইসলাম, ৩৪৭-৬৪৪-৫৩৪৭,ডা. জুন্নুন চৌধুরী, ৬৪৬-২৮৮-৮৩২৯,ড. নাজিম উদ্দিন,ফারুক বকত চৌধুরী ও নজরুল ইসলাম।


রূপসী চাঁদপুর ফাউন্ডেশনের নতুন কমিটি গঠিত

বৃহস্পতিবার, ০৪ জানুয়ারী ২০১৮

Picture

সভাপতি মামুন মিয়াজী ও সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলাম মাসুম
হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ:গত ২৬ ডিসেম্বর প্রধান নির্বাচন কমিশিনার জাহাঙ্গীর সরকার রূপসী চাঁদপুর ফাউন্ডেশনের ২০১৮-২০১৯ সনের জন্য ৩৯ সদস্য বিশিষ্ট্য নতুন কার্যকরী কমিটি ঘোষনা করেন।


আনন্দ-উল্লাসে জাতীয় পার্টির ৩২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করলো জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখা

বৃহস্পতিবার, ০৪ জানুয়ারী ২০১৮

বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে : ১লা জানুয়ারী ২০১৮ সাল রোজ সোমবার দুপুর ২ ঘটিকায় এস্টোরিয়ায় ৩৬ এভিনিউস্থ বৈশাখী রেষ্টুরেন্টে এক ঝমকালো অনুষ্ঠানে বিপুল নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে ৩২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করে জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখা। উক্ত প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদ্যাপনে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সদস্য হাজী আব্দুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী সাবেক ছাত্রনেতা আবু তালেব চৌধুরী চান্দুর পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য ও চেয়ারম্যান হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ এর প্রবাসী বিষয়ক উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী।

Picture

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার উপদেষ্টামন্ডলীর চেয়ারম্যান সৈয়দ শওকত আলী, জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার উপদেষ্টা গিয়াস মজুমদার ও চেয়ারম্যান এর রাজনৈতিক উপদেষ্টা সাবেক সভাপতি গোলাম মেরাজ। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় শ্রমিক পার্টির সহ সভাপতি শাহজাহান আলী, জাতীয় যুব সংহতির সহ সভাপতি ইব্রাহিম আলী ও আমির হামজা। জাতীয় মহিলা পার্টির সভানেত্রী ফাহিমা রোজী ও সাধারণ সম্পাদিকা শাহনাজ বেগম, জাতীয় পার্টি নিউইয়র্ক সিটির সভাপতি শুভংকর গাঙ্গুলী, জাতীয় পার্টি নিউইয়র্ক স্ট্রেট কমিটির সভাপতি এডভোকেট মোহাম্মদ হানিফ, জাতীয় পার্টির মহিলা বিষয়ক সম্পাদক জেসমিন আকতার চৌধুরী, জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আব্দুল করিম, জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় সদস্য মোহাম্মদ লুৎফুর রহমান, জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সহ সভাপতি খন্দকার আলী নাছিম, জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সহ সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সদস্য এডভোকেট হারিছ উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

সভার শুরুতে পবিত্র কুরআন থেকে তেলওয়াত করেন এডভোকেট মোহাম্মদ হানিফ, এর পর পর বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয় এবং দলীয় সকল নেতৃবৃন্দরা দাড়িয়ে একযোগে হাততালি দিয়ে জাতীয় পার্টির দলীয় সংগীত পরিবেশন করেন। বক্তারা বলেন, জাতীয় পার্টি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল বাংলাদেশের গরীব, মেহনতি দুঃখী মায়ের মুখে হাঁসি ফুটানোর জন্য। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ সাহেব ৯ বৎসর শাসন আমলে তিনি যে উন্নয়নের জোয়ার বাংলাদেশে বয়ে এনেছিলেন তা কোন সরকার আজও পারেনি। তিনি গরীব মেহনতি মানুষের জন্য তাদের দেয়ারে আইন আদালতের ব্যবস্থা করে উপজেলা প্রশাসনের ব্যবস্থা করে ছিলেন। যাতে তারা শহরে এসে কোন প্রতারণায় না পড়ে। বাংলাদেশের গর্বিত সন্তান সশস্ত্র বাহিনীকে জাতিসংঘে পাঠিয়ে দেশের সুনাম অর্জন করেছিলেন। বাংলাদেশের মানুষ আজও জাতীয় পার্টির শাসনকে ভুলতে পারেনি। তার প্রমাণ চলিত নির্বাচন থেকে শুরু হয়েছে জাতীয় পার্টির জয় জয়যাত্রা। আগামী দিনে জাতীয় পার্টিকে বাংলার মানুষ ক্ষমতায় দেখতে চাই এবং হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ সাহেবের সেই ভালবাসাটুকু তাদের কাছে আবার পেতে চাই। পরিশেষে চেয়ারম্যান হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ সাহেবের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।


যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা সংসদের মহান বিজয় দিবস উদযাপন

বৃহস্পতিবার, ০৪ জানুয়ারী ২০১৮

বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে :৩১শে ডিসেম্বর রোববার সিটির জ্যামাইকায় স্মার্ট একাডেমিয়া পার্টি হলে যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আলোচনা সভায় বীর মুক্তিযোদ্ধা শরাফ সরকারের সভাপতিত্বে এবং ইসমাইল খান আনসারী র সঞ্চালনায় সভার শুরুতেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু, জাতীয় চার নেতা, মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদ, দুইলক্ষ মাবোনদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানানো হয়। প্রবাসীদের পক্ষ থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের ফুল দিয়ে সম্মাননা জানানো হয় ।যুদ্ধাপরাধ মুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন পূরণের পথে জাতিকে বলিষ্ঠ নেতৃত্ব’ প্রদানের জন্যে সমাবেশ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানানো হয়।

Picture

মহান বিজয় স্মৃতিচারণ করেন যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা ডঃ আব্দুল বাতেন। সর্ববীর মুক্তিযোদ্ধা ডঃ মহসিন আলী, ডাঃ মাসুদুল হাসাণ, মুজবিুর রহমান মিয়া , ওমরফারুক খসরু , কাজী শামসুল আলম , আমিনুল ইসলাম(বাবুল) , মোঃ মহসিন ভুইয়া,শওকত আকবর রিচি, মোঃমনির হোসেন ,আলতাফ হোসেন সরদার, সরদার আলাউদ্দিন, ), মকবুল আহমেদপাটোয়ারী, প্রিন্সিপাল বোরহান হাওলাদার , জালাল উদ্দিন সরকার , মিজানুর রহমান চৌধুরী, মোঃ নুরুজ্জামান, সভায় উপস্থিত ছিলেন সর্ববীর মুক্তিযোদ্ধা মশিউল আলম জগলু,মোঃ নাসিম, হারুন অর রশীদ, মোঃ হুমায়ুন কবির, গ।জী গোলাম সরয়ার ,ড:খুরশীদ আলম মিয়া, আর, আমিন, মাহবুবুর রহমান, মোঃ কামরুজ্জামান সিকদার , আফাজ উদ্দিন ভুইয়া,মোঃ আবুতাহোর,মোঃশাহআলম,আশরাফুল হক, নাসির উদ্দিন, সহিদুল্লাহ, হুমায়ন কবির, সন্তষ কুমারচৌধুরী ,খন্দকারনাসিম,শহিদুল ইসলাম,রুহুল আমিন সামসুদোহাবাবুল, মইনুলইসলাম(মানিক), অবীনাশআচার্য্য,আবুল কালম, আবুল কাসেম, এনায়েতহোসেন ,এলডি কামাল উদ্দিন, ইঞ্জি:তাজুল ইসলাম, কামাল উদ্দিন,মোঃরফিকুল ইসলাম, কাজী জহির উদ্দিন ফারুক, আমির আলী, ওবায়েদুল হক, আবুল মনসুর, ,সায়িদ মজিবুর রহমান, মোঃ সনামউদ্দিন, কাজী মোঃমনির , রেজাউল হোসেন, আনোয়ার হোসেন বাবুল, মোঃ জাহিদ হোসেন, , রফিকুল আলম, মোবারক হোসেন, ,আবুল কালম, খলিলুর রহমান , আব্দুল ওয়াহেদ , গিয়াস উদ্দিন খান , আবুল হোসেন , মোঃ কাইউম, সহ মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত বিপুলসংখ্যক প্রবাসী কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ । সম্পূর্ণ অনুষ্ঠানটি অত্যন্ত্য গোছানো ও সুষ্ঠ ভাবে পরিচালনায় আন্তরিক সহায়তা করেন কণ্ঠশিল্পী ফিরুজ ।নৈশভোজের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।


নিউইয়র্কে রংধনু সোসাইটির ভিন্ন আমেজের পিঠা উৎসব

বৃহস্পতিবার, ০৪ জানুয়ারী ২০১৮

বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে :নিউইয়র্কে আনন্দঘন ও উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে রংধনু সোসাইটি অব ব্রঙ্কস’র পিঠা উৎসব। ২৪ ডিসেম্বর রোববার সন্ধ্যায় বাঙালী অধ্যুষিত ব্রঙ্কসের স্টারলিং-বাংলাবাজার এলাকার গোল্ডেন প্যালেসে বর্ণিল আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় এ পিঠা উৎসব।

Picture

চমৎকার এ আয়োজনে প্রতিধ্বনিত হয় বাঙালী সংস্কৃতির জয়গান। ভিন্ন আমেজে বসেছিল প্রবাসী বাঙালীদের মিলন মেলা।

alt

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশী-আমেরিকান কমিউনিটি কাউন্সিল’র প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ এন মজুমদার। পিঠা উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন শেরপুর সমিতির সভাপতি আলাউদ্দিন পলাশ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব সরকার আব্দুল মতিন।

alt

উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ইসলাম দিলসাদের সভাপতিত্বে এবং রেজা আব্দুল্লাহর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন কমিউনিটি এক্টিভিস্ট মো. তফাজ্জল হোসেন, অধ্যাপক হাবিবুল্লাহ, ব্রঙ্কস বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের সভাপতি এ ইসলাম মামুন, পার্কচেস্টার ব্রঙ্কস রিয়েলিটির প্রেসিডেন্ট সালেহ উদ্দিন সাল, কমিউনিটি এক্টিভিস্ট বখতিয়ার রহমান খোকন, মো. ইকবাল হোসেন, alt

সাদিকুর রহমান, তাসলিমা আহমেদ, উদযাপন কমিটির যুগ্ম সদস্য সচিব দরবার সফিক, আল মামুন সরকার, রবিউল ইসলাম, আব্দুল মতিন সরকার, হিরক, ওয়াহেদ, সাইফুল, খোরশেদ আলম প্রমুখ।alt

অনুষ্ঠানে সাংবাদিক, কমিউনিটির নের্তৃবৃন্দসহ বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশী উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী গ্রাম বাংলার এ পিঠা উৎসবে ছিল আলোচনা সভা, যাদু প্রদর্শণী, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশনাসহ নানা কর্মসূচি। পিঠা উৎসবে শোভা পাচ্ছিল পাটিসাপ্টা, ভাপাপিঠা, তেলেপিঠা, চিতইপিঠা, চানার সন্দেষ, পাকুনপিঠা, মাংশেরপিঠা, নারিকেল পুলি, চুপতি পিঠা, ঝালপিঠা, ডালপাকন, ডালপুরি সহ হরেক রকমের পিঠা।

alt

আয়োজকদের বন্ধু-বান্ধবদের হাতে তৈরী বাংলার ঐতিহ্যবাহী নানান আকৃতি, নানান স্বাদ আর রঙের এসব পিঠা অতিথিদের জন্যে ছিল ফ্রী। উৎসবে প্রবাসের জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী কৃষ্ণা তিথী, আফজাল হোসেন ও সুমন সঙ্গীত পরিবেশন করেন। গভীর রাত পর্যন্ত বিপুল সংখ্যক দর্শক-শ্রোতা মনোজ্ঞ এ সাংস্কৃতিক পরিবেশনা উপভোগ করেন। alt

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, পিঠা উৎসব বাঙালীর হাজার বছরের সংস্কৃতির একটি অংশ। এ উৎসব আমাদের মন প্রাণ বাঙালীত্বের আমেজে ভরে দেয়। প্রবাসে জন্ম নেয়া ও বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্মকে বাংলাদেশের কৃষ্টি-কালচারের সাথে পরিচিত করার সুযোগ তৈরী করে দেয়। সেই সাথে নতুন প্রজন্মকে শেকড়ের সন্ধান দেবে। তারা বলেন, প্রবাসে নতুন প্রজন্মের কাছে বাঙালী সংস্কৃতিকে তুলে ধরা না হলে বাঙালী সংস্কৃতি একদিন হারিয়ে যাবে।


নিউইয়র্কে প্রবাসীদের অধিকারের প্রশ্নে একযোগে কাজের অঙ্গিকার

বৃহস্পতিবার, ০৪ জানুয়ারী ২০১৮

বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক থেকে : চলমান পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে মূলধারার রাজনীতিতে বাংলাদেশিদের আরো জোরালোভাবে সম্পৃক্ত করার অভিপ্রায়ে গঠিত হলো বাপাফ (বাংলাদেশি আমেরিকান পাবলিক এফেয়ার্স ফ্রন্ট) এর নতুন কমিটি।

মূলধারার সংগঠক অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন সভাপতি এবং আমজাদ হোসেন সেলিমকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট কার্যকরী কমিটির।
২৯ ডিসেম্বর শুক্রবার রাতে নিউইয়র্ক সিটির জ্যামাইকায় স্টার পার্টি হলে সর্বস্তরের প্রবাসীর উপস্থিতিতে বাপাফ’র বার্ষিক সাধারণ সভায় সভাপতিত্ব করেন বিদায়ী সভাপতি রুবাইয়া রহমান। আলোচনায় অংশগ্রহণকারী নেতৃবৃন্দের মধ্যে ছিলেন ডা. মোহাম্মদ বিল্লাহ, আতিকুর রহমান সালু, বাংলাদেশ সোসাইটির বোর্ড অব ট্রাস্টির অন্যতম সদস্য অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, আলী ইমাম শিকদার, কম্যুনিটি বোর্ড মেম্বার ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার, কমিউনিটি লিডার আহসান হাবীব, এটর্নী সোমা সাঈদ প্রমুখ।

Picture
সকলেই নিজ নিজ অবস্থান থেকে কমিউনিটির সামগ্রিক কল্যাণে কাজের অঙ্গিকার করেন। এছাড়া, কমিউনিটির স্বার্থ আদায়ের জন্যে কংগ্রেস ও সিটি প্রশাসনে তদ্বির জোরদারে বিভিন্ন পরিকল্পনারও আলোকপাত করেন।
নবগঠিত কমিটির সভাপতি অধ্যাপক দেলোয়ার এ সংবাদদাতাকে বলেন, ‘নিউইয়র্কে ৩ লাখের বেশী বাংলাদেশি বাস করছি। অথচ এখন পর্যন্ত কংগ্রেসম্যান দূরের কথা, সিটি কাউন্সিলের মেম্বার হিসেবে কেউই জয়ী হতে পারিনি। অথচ সময়ের প্রয়োজনে মূলধারার সুযোগ-সুবিধা আদায়ের স্বার্থেই বাংলাদেশিদের সিটি, অঙ্গরাজ্য এবং ফেডারেল প্রশাসনে জায়গা করে নিতে হবে। সে অভাব পূরণেই আমরা কাজ করবো। এ লক্ষ্য অর্জনে আমরা সবকিছুর ঊর্ধ্বে অবস্থান করতে সকলকে অনুরোধ জানাবো।’
উল্লেখ্য, মূলধারায় বাংলাদেশিদের আরোহনের সিড়ি হিসেবে ব্যবহারের অভিপ্রায়ে দুই দশক আগে বাপাফের জন্ম হয়েছে। ইতিপূর্বে এই সংগঠনের নেতৃত্ব প্রদানকারীদের অনেকেই ডেমোক্রেটিক পার্টির ডিস্ট্রিক্ট লিডার হয়েছেন। এখনও কুইন্স ডেমোক্রেটিক পার্টির উচ্চপদে রয়েছেন বেশ কয়েকজন। একইভাবে রিপাবলিকান পার্টির সাথে যুক্তদের তালিকাও করা হচ্ছে। জাতিগত স্বার্থে সকল বাংলাদেশি আমেরিকানকে ঐক্যবদ্ধ করার সংকল্পের কথাও জানালেন বাপাফের নতুন কমিটি।


যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টির ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন

বৃহস্পতিবার, ০৪ জানুয়ারী ২০১৮

বাপ্ নিউজ : নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে : গত ১ জানুয়ারী সোমবার সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের ইত্যাদি পার্টি হলে জাতীয় পার্টির ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মাহবুবুর রহমান চৌধুরী। প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও পার্টির চেয়ারম্যানের বর্হি:বিশ্ব উপদেষ্টা গোলাম মেরাজ। সভা যৌথভাবে পরিচালনা করেন জাতীয় পার্টি যুক্তরাষ্ট্র শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ওসমান চৌধুরী ও যুক্তরাষ্ট্র যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক এ,বি,এম খায়রুল আলম।পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত এবং জাতীয় ও দলীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে সভার কার্যক্রম শুরু হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য ও যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টির প্রধান সমন্বয়কারী আব্দুর নূর বড় ভূইঁয়া, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য ও যুক্তরাষ্ট্র শাখার সিনিয়র সহ সভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টির উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা ইসমাঈল খান আনসারী, যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টির সহ সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সদস্য মাহবুুবুর রহমান অনিক, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য আলতাফ হোসেন, জাতীয় পার্টির সিলেট মহানগরের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড: আব্দুল হাই কাইয়ূম, যুক্তরাষ্ট্র শাখার সহ সভাপতি ছব্বির লস্কর, তোফায়েল আহমেদ চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টির সহ সাধারণ স¤পাদক জাফর মিতা, যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় মহিলা পার্টির সভানেত্রী সুজাতা সরকার, যুক্তরাষ্ট্র যুব সংহতির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সদস্য আব্দুল কাদের লিপু, যুব সংহতির কেন্দ্রীয় সদস্য শাহজাহান সাজু, যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টির আহবায়ক জহিরুল করিম, সদস্য সচিব উত্তম কুমার ডাকুয়া, যুব সংহতি নেতা মো: শাহজাহান, জামাল উদ্দিন, শক্তিদাস গুপ্তা, যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় মহিলা পার্টির সাধারণ সম্পাদিকা শামসুন্নাহার, সাংস্কৃতিক পার্টির মির্জা আজম, মেহেদী হাসান প্রমুখ।

Picture

নেতৃবৃন্দ জাতীয় পার্টির জন্মলগ্ন থেকে বর্তমান প্রেক্ষাপট নিয়ে বিশদ আলোচনা করা হয়। বাংলাদেশে একমাত্র জাতীয় পার্টি সত্যিকারার্থে গণতন্ত্র ও সংবিধানকে শ্রদ্ধা করে সংসদ বর্জন না করে সংসদীয় গণতন্ত্রের প্রতি প্রতোক্ষ ও পরোক্ষ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছে। বৃহৎ রাজনৈতিক দলের মতো প্রতিহিংসা পরায়ণ না হয়ে স্বেচ্ছায় সংবিধানকে রক্ষা করে পদত্যাগ করেছিল। আর সে সুবাদেই পরবর্তীতে বৃহৎ দুটি রাজনৈতিক দলের পক্ষে ক্ষমতার স্বাদ গ্রহন করতে সক্ষম হয়েছিল। নতুবা হাসানুল হক ইনুর কথাই সত্যি হতো। প্রেসিডেন্ট এরশাদের দীর্ঘ নয় বছরের শাসন আমলে ছিল না কোন প্রতিহিংসার রাজনীতি, ছিল না কোন বিডিআর হত্যার মতো কিংবা ২১ আগষ্টের মতো গ্রেনেড হত্যার মতো বড় ধরনের হত্যাকান্ড কিংবা ঘটেনি কোন দিন লগি বৈঠা কিংবা প্রেট্রোল দিয়ে বোমা মেরে মানুষ হত্যার নোংরা রাজনীতি।

এরশাদের আমলে ঘটেনি শেয়ার ধসের ঘটনা, ছিল না সেদিন রক্ষিত ব্যাংকের দেশীয় অর্থ বিদেশে পাচারের সুযোগ। ছিল না কোন জঙ্গি তৎপরতা,  মাদক কিংবা ইয়াবা বাণিজ্য, ছিল না লাগামহীন দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতি। এরশাদের সময় সকল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদ নির্বাচনমুখী ছিল। আজ কৌশলে কোমলমতি ছাত্র অনিশ্চিয়তার দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে। পরিস্থিতি ভয়াবহ তার উপরে বর্তমান রোহিঙ্গা তৎপরতা। এহেন পরিস্থিতিতে দেশ বাঁচাতে হলে নয় বছরের সফল যোগ্য রাষ্ট্র নায়ক হিসেবে এরশাদের পক্ষে জনমত তৈরী করা প্রয়োজন। আমরা মনে করি, জাতীয় পার্টির আমল ছিল স্বর্ণোজ্জ্বল সময়। যে কারণে আজও পুরো বাংলাদেশের মানুষ এরশাদকে স্বরণ করে পূনরায় জাতীয় পার্টির সরকার দেখতে চায়। যার প্রমাণ রংপুরের সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। তাই দলমত নির্বিশেষে জাতীয় পার্টির পতাকা তলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এরশাদের হাতকে শক্তিশালী করার উদাত্ত আহবান জানান। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টির বর্তমান বিবাদমান প্রেক্ষাপটে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে পার্টির মাননীয় চেয়ারম্যান, মহাসচিব ও বর্তমান সভাপতির সাথে আলাপ আলোচনা করে অবিলম্বে সম্মেলনের মাধ্যমে আশু সমাধানের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টির উদ্যোগে পরে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পরিশেষে সভাপতি রাতের খাবারের আপ্যায়ন করে সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।


ভার্জিনিয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগ এর বিজয় দিবস উজ্জাপন

শুক্রবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০১৭

Picture

কবিতা পাঠ করেন এডঃ অমর ইসলাম, জীবক বড়ুয়া, আমান উল্লাহ আমান, দেওয়ান আরশাদ আলী বিজয়, আলতাফ হোসেন , মোস্তাফিজুর রহমান, দস্তগীর জাহাঙ্গীর ও কাব্যলক্ষ্মী দেব প্রিয়া।দেশের গান পরিবেশনায় ছিলেন দেওয়ান আরশাদ আলী বিজয় ও শারমিন দিনার। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ভার্জিনিয়া আওয়ামীলীগ এর যুগ্মসম্পাদক প্রকাতন তুখোড় ছাত্রলীগ নেতা চট্রলার বীর সন্তান আমান উল্লাহ আমান।

alt
বিকেল ৫টায় শুরু হয় "হৃদয়ে বাংলাদেশ মম" মুক্তিযোদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের উপর প্রামান্য চিত্র প্রদর্শনী ও মুক্তিযোদ্ধাদের কাছ থেকে মুক্তিযোদ্ধের বীরত্বের কথা শুনা। এ পর্যায়ে অংশগ্রহন করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মন্সুর আহমেদ। তাঁদের সাথে যুদ্ধে যাবার কথা তুলে ধরেন আনোয়ারুল আজিম। সাথে বিদেশে অবস্থানরত সে সেময়ে অমর ইসলাম (জননেত্রীর দেশ প্রত্যাবর্তনের সফর সঙ্গী ) তার পারিবারিক ও পিতার কর্ম ক্ষেত্রের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।ব্যতিক্রমধর্মী এই আয়োজনে ছিলনা কোন গতানুগতিক চর্বিত চর্বণ বক্তৃতা বা একঘেয়ে কোন আলোচনা।আয়োজনের শুরুতে সকল শহীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেন করে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নিরবতা পালন করা হয়।

alt
শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করা হয় জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে।সকল উপস্থিতির সম্মিলিত কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনার মাঝে, বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন আওয়ামীলীগের বর্ষিয়ান নেতা, ভার্জিনিয়া আওয়ামীলীগের কাণ্ডারি, জননেত্রীর দেশ প্রত্যাবর্তনের সফর সঙ্গী ও ভার্জিনিয়া ষ্টেট আওয়ামীলীগ এর সভাপতি সর্বজনাব রফিক পারভেজ।যে সকল আওয়ামীনামধারী ব্যক্তিগোন রক্তের দামে কেনা বাংলাদেশের পতাকার অসম্মান করে তাঁদের সকলকে মুক্তিযোদ্ধের সংগঠক এই দল, " বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে বিতাড়িত করার আহ্বান জানানো হয়। এসকল ব্যক্তিবর্গ কে ভার্জিনিয়া আওয়ামীলীগের সকল অনুষ্ঠানে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়। শেষে জয় বাংলার জয় ও শোন একটি মুজিবরের কণ্ঠে গানদ্বয়ের সম্মিলিত পরিবেশনার মাঝে মহান বিজয় দিবসের এমন অপুর্ব আয়োজনের পরিসমাপ্তি ঘটে।


বিয়ানীবাজার সমিতি ইউএসএ-এর সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

শুক্রবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ:গত ২৫ ডিসেম্বর এস্টোরিয়ার জনতা অডিটোরিয়ামে বাংলাদেশ বিয়ানীবাজার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সমিতি ইউএসএ-এর সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সাধারণ সভায় সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি মাসুদুল হক ছানু ও সভা পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক মুহিবুর রহমান রুহুল। মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন সমিতির উপদেষ্টা আজিজুর রহমান সাবু, আব্দুল আহাদ ফারুক, ছমির উদ্দিন ও গৌছ উদ্দিন খান, বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ, বিয়ানীবাজার সমিতির সাবেক সভাপতি আজিমুর রহমান বোরহান, বিয়ানীবাজার সমিতির সাবেক উপদেষ্টা মকবুল রহিম চুনই, অডিট কমিটির সদস্য মোহাম্মদ আব্দুল জলিল ও আবুল হোসেন। সভার প্রারম্ভে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন কোষাধ্যক্ষ হেলিম উদ্দিন। সাধারণ সম্পাদক তার লিখিত সম্পাদিকীয় রিপোর্টে ইংরেজি নর্ববষের অগ্রিম শুভেচ্ছা জানিয়ে সামাজিক কার্যক্রম, বনভোজনসহ বিগত দিনের কার্যক্রমের বিবরণী পেশ করেন। তিনি বলেন সমিতির ভবনের রেন্টাল ইনকাম ছয় হাজার পঞ্চাশ ডলার থেকে আমরা  আট হাজার ৮৫ ডলারে উন্নতি হয়েছে। গত ৩০শে জুলাই ভোটার হওয়ার শেষ দিন ৪৬১ জন ভোটার তালিকাভুক্ত হন। বর্তমানে সমিতির আজীবন সদস্য ৭৯৪ জন। সব মিলিয়ে এবারের সদস্য ১২৫৫ জন। সম্পাদকীয় রিপোর্টে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা শিবিরে ত্রান সহায়তা দিয়ে ফেরার মতে বিয়ানীবাজারের যে ৬ জন মারা যাওয়ায় তাদের রুহের মাগফেরাতের জন্য ওজন পার্কে আল আমান মসজিদে বিশেষ দোয়ার ব্যবস্থা করা হয়। বর্তমানে বিয়ানীবাজার সমিতির ওয়াশিংটন মেমোরিয়াল পার্কে ১০৭টি কবর  আছে। সমিতির নামে নিউজার্সির মালবোরো মুসলিম মেমোরিয়াল সেমিট্রিতে ১১৩টি নতুন কবর ক্রয় করা হয়। কবরের মূল্য ৫৬ হাজার ৫০০ ডলারের মধ্যে ২৫শ ডলার ডিসকাউন্ট দেওয়া হয়। ৫৪ হাজার ডলারের মধ্যে ১১ হাজার ডলার ব্যক্তিগত অনুদান আমরা পেয়েছি। বাকী ৪৩ হাজার ডলার সমিতির তহবিল থেকে পরিশোধ করা হয়।

alt
কোষাধ্যক্ষ তার রিপোর্টে গত ছয় মাসের পরিবর্তে ৫মাসের হিসাব উপস্থাপন করার ব্যাখ্যায় বলেন ডিসেম্বর মাসের চেক ক্লিয়ারেন্স, ব্যাংক স্টেটমেন্ট এবং সমিতির আসন্ন নির্বাচনী ব্যয় আমাদের হাতে আসার পর জানুয়ারীতে অডিট করে উপস্থাপন করা হবে। বর্তমানে সমিতির ব্যাংক একাউন্টে নভেম্বর মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট অনুযায়ী ৫০ হাজার ১২০ ডলার ৫৩ সেন্ট জমা আছে। সম্পাদকীয় রিপোর্ট ও কোষাধ্যক্ষের রিপোর্ট এর পর  আলোচনায় অংশ নেন বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ, বিয়ানীবাজার সমিতির সাবেক সভাপতি আজিমুর রহমান বোরহান, বিয়ানীবাজার সমিতির সাবেক উপদেষ্টা মকবুল রহিম চুনই, বিয়ানীবাজার সমিতির সাবেক উপদেষ্টা মোস্তফা কামাল, সমিতির সাবেক সহ সভাপতি শহিদুল ইসলাম দুখু, সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমদ, আতিকুল আহমদ বেলাল প্রমুখ।
সভাপতি মাসুদুল হক সানু সাধারণ সম্পাদক রিপোর্ট ও কোষাধ্যক্ষ রিপোর্ট এর উপর প্রশ্নোত্তর পর্বে উত্তর প্রদান করেন। তিনি বলেন গত ৩০ শে জুলাই সদস্য সংগ্রহের দিন সদস্য সংগ্রহ বাবদ টাকা জমা দেওয়ার পর কতিপয় ব্যক্তি ওনাদের টাকা ফেরত চান। সভাপতি বলেন, গঠনতন্ত্র মোতাবেক সমিতির তহবিলে টাকা জমা হওয়ার পর কোন টাকা ফেরতযোগ্য নহে। তিনি বলেন, সার্বিক অবস্থা পর্যালোচনা করে ও উপস্থিত মুরব্বীদের অনুরোধে আমি টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হয়।
গত ২৫ শে আগষ্ট ২০১৭ সমিতির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংগঠনের সদস্য আব্দুল মান্নান ও সদস্য আবুল হোসেন বাদী হয়ে কুইন্সের সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেন বিয়ানীবাজার সমিতির উপর। অভিযোগ ছিল টাকা সংগ্রহ করে বাদীদের সমিতিতে ভোটার অন্তভূক্তি করা হয়নি। ফলে মহামান্য মহামান্য আদালত সমিতির নির্বাচনী কার্যবিধির উপর স্থগিত আদেশ জারি করেন। এর বিরুদ্ধে সমিতির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, কোষাধ্যক্ষ ও প্রধান নির্বাচন কমিশনার আপিল করেন। বাদীপক্ষের আনিত অভিযোগ পর্যালোচনা শেষে মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় মহামান্য আদালত গত ৬ই ডিসেম্বর মামলাটি খারিছ করে দেন। ফলে বিয়ানীবাজার সমিতির নির্বাচনী কার্যক্রম চালিয়ে যেতে কোন বাধ্য রইল না।

alt
সভাপতি তার সমাপনী বক্তব্যের এক পর্যায়ে আবেগআপ্লুত হয়ে পড়েন এবং বলেন, গত ৩০ জুলাই ২০১৭ সদস্য সংগ্রহের সময় আমার জীবনের প্রতি হুমকি, অপমান, দুর্ব্যবহার এবং ফেইস বুকে ভিডিও প্রচার করার কেউ বিচার করেন নাই। আমি আজ এই সাধারণ সভায় সবার কাছে এর বিচার প্রার্থী। সভাপতির বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে সাধারণ সভায় ঐ দিন যারা সভাপতির প্রতি অনৈতিক আচরণে জড়িত ছিল তাদের প্রতি নিন্দা জ্ঞাপন প্রস্তাব সর্ব সম্মতিক্রমে গৃহিত হয়। সভাপতি সবাইকে সাধারণ সভায় উপস্থিত হওয়ার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং বিগত ২ বৎসরের কার্যকালীন সময়ে অজানা অবস্থায় ভুল ত্রুটি হয়ে থাকলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার অনুরোধ জানান এবং সবাইকে ইংরেজী নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে সভার কার্যক্রম সমাপ্তি ঘোষণা করেন।
অডিট রিপোর্টঃ সাধারণ সভা চলাকালীন সময়ে সমিতির অডিট কমিটির সদস্যদের মধ্যে মোহাম্মদ আব্দুল জলিল বিগত ১ বৎসর ১১ মাসের অডিট রিপোর্ট তুলে ধরেন। সাধারণ সভায় তার রিপোর্টে কমিটি কর্তৃক হিসাব নিকাশে স্বচ্ছতার কথা স্বীকার করে বলেন তাদের কাছে কোন ত্রুটি ধরা পড়ে নাই, ব্যাংক স্টেটমেন্ট, কাগজপত্র সব কিছু আমরা কুটিনাটি পরীক্ষা করে দেখেছি।

বিয়ানীবাজার সমিতির বিজয় দিবস উদ্যাপন
হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ:
বাংলাদেশ বিয়ানীবাজার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সমিতি ইউএসএ ইন্ক এর উদ্যোগে এস্টোরিয়ার জনতা অডিটোরিয়ামে ২৫ শে ডিসেম্বর রাত ৮টায় বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনায় বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস উদ্যাপন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি মাসুদুল হক ছানু, সভা পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক মহিবুর রহমান রুহুল। অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত পরিবেশণ করেন শিল্পী আব্দুল আলীম। সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নিরবতা পালন করা হয় এবং অদ্যবধি যারা দেশের জন্য প্রাণ দিয়েছেন সকলের জন্য দোয়া করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন অডিট কমিটির সদস্য মোহাম্মদ আব্দুল জলিল।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অহিদুর রহমান কয়েছ, শাহাব উদ্দিন, মোঃ আতিকুর রহমান হেলাল, মোঃ আব্দুল কালাম আজাদ, আহমুদুল হক কুনু, মিজবাহ উদ্দিন প্রমুখ।
কার্যকরি পরিষদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহ সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আমিনুল হোসেন, প্রচার সম্পাদক মোহাম্মদ জাকির হোসেন, ক্রীড়া সম্পাদন নজরুল ইসলাম, সমাজ কল্যান সম্পাদক মোহাম্মদ জয়নুল হক, কার্যকরি সদস্য নুরুল ইসলাম, কাওছার হক সেলিম প্রমুখ।


জাতির পিতার ৭ মার্চের ভাষণ ‘বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য’ হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ায় নিউইয়র্কে আনন্দ-শোভাযাত্রা

বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ :সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রদত্ত ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইউনেস্কোর ‘বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য’ হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ায় জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন ও নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল এর যৌথ উদ্যোগে আজ নিউইয়র্কে একটি আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় এস্টোরিয়ার এথেন্স পার্কে সকাল ১১ টায় শুরু হয় এই শোভাযাত্রা।


কনকনে শীত ও অনবরত বৃষ্টির মতো প্রতিকূল আবহাওয়াকে উপেক্ষা করে আনন্দ-উচ্ছ্বাসে মুখরিত এই আনন্দ শোভাযাত্রায় বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশী নারী-পুরুষ, শিশু-কিশোর এর পাশাপাশি বাংলাদেশ মিশন ও কনস্যুলেট এর কর্মকর্তা-কর্মচারিরা অত্যন্ত উৎসাহ ও উদ্দীপনা নিয়ে অংশ নেন। শোভাযাত্রার নেতৃত্ব দেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন এবং বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল নিউইয়র্ক এর কনসাল জেনারেল শামীম আহসান, এনডিসি।


জাতির পিতার ৭ মার্চের ভাষণকে পটভূমিতে রেখে তার উপর লাল-সবুজের উড্ডীন জাতীয় পতাকা অঙ্কিত ব্যানার, জাতীয় পতাকা, ফেস্টুন, বেলুনসহ নিউইয়র্ক প্রবাসী বাংলাদেশী নেতৃবৃন্দ এবং মিশন ও কনস্যুলেট এর কর্মকর্তা-কর্মচারিগণ ও তাদের পরিবারের সদস্যরা যখন পার্ক এলাকা প্রদক্ষিণ করেন তখন সেখানে তৈরি হয় ভিন্ন রকম একটি আবহ। শোভাযাত্রার পাশ দিয়ে হেটে যাওয়া পথচারি ও যানবাহনের যাত্রীগণ, নিরাপত্তাকর্মী অনেকেই থমকে দাঁড়ায়। তারা শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারীদের অভিনন্দন জানান।


জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন এবং কনসাল জেনারেল শামীম আহসানসহ উপস্থিত কমিউনিটির প্রতিনিধিরা এ উপলক্ষ্যে প্রদত্ত মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বাণীর বিভিন্ন অংশ পালাক্রমে পড়ে শোনান। রাষ্ট্রদূত এ সময় বলেন “জাতির পিতার ভাষণ আজ বিশ্ব ঐতিহ্যের দলিল। যে ঐতিহাসিক পদক্ষেপ ইউনেস্কো থেকে নেওয়া হয়েছে, তা এ রকম আনন্দ শোভাযাত্রার মাধ্যমে আমরা সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দিতে পারি”। আনন্দ শোভাযাত্রায় অংশ নেওয়ার জন্য উপস্থিত সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন।


কনসাল জেনারেল শামীম আহসান বলেন, “জাতির পিতার ৭ মার্চের ভাষণের এই স্বীকৃতি স্বাধীন বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয়। এই ভাষণ আর বাংলাদেশের ভূখন্ডের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই, এটি এখন সারা পৃথিবীর মানুষের অনুপ্রেরণা দানকারী একটি দলিলে পরিণত হয়েছে যা মানুষকে জাগ্রত রাখবে তাদের দাবী আদায়ের ঈপ্সিত লক্ষ্যে পৌঁছতে”।
এ সময় জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক শ্লোগানে মুখরিত হয় এস্টোরিয়ার এথেন্স পার্ক। ৭ মার্চের ভাষণ ১৯৭১ এর দিনগুলোতে মুক্তিকামী মানুষদের কতটা প্রবলভাবে নাড়া দিয়েছিল তা উপস্থিত প্রবাসীদের উচ্ছ্বাস ও আনন্দের মধ্যে ফুটে ওঠে।  উল্লেখ্য, গত ৩০ অক্টোবর ইউনেস্কো, ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ রমনার রেসকোর্স ময়দানে জাতির পিতার দেওয়া ঐতিহাসিক ভাষণকে ‘বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য’ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে ‘ইন্টারন্যাশনাল মেমোরি অব দ্যা ওয়ার্ল্ড রেজিস্টার’-এ অন্তর্ভুক্ত করে।


সুষ্ঠু নির্বাচনেই আওয়ামীলীগ আবারো রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসবে -----এডভোকেট শ ম রেজাউল করিম

বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৭

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বাপসনিঊজ : নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র) থেকে :বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আইন বিয়ক সম্পাদক এডভোকেট শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, বাংলাদেশের নতুন প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষের শক্তিকে আর রাষ্ট্র ক্ষমতায় দেখতে চায় না। অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমেই আওয়ামীলীগ আবারো রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে বিএনপির দেয়া লিগ্যাল নোটিশের প্রতিবাদে নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগ আয়োজিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।নিউইয়র্কে জ্যাকসন হাইটসের বাংলাদেশ প্লাজা কনফারেন্স হলে স্থানীয় সময় গত ২৫ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এডভোকেট শ ম রেজাউল করিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে বিএনপির দেয়া লিগ্যাল নোটিশের কোন ভিত্তি নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেগম জিয়া ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে যেসব দুর্নীতির কথা বলেছেন সেসব দুর্নীতির খবর আন্তর্জাতিক মিডিয়ায়ও এসেছে। ইতোমধ্যে বেগম জিয়ার ছোট ছেলে দুর্নীতির মামলায় কনিভিক্টেড হয়েছে। বেগম জিয়া ও তারেকের দুর্নীতির মামলাও রায়ের অপেক্ষায়।

Picture

মহানগর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুর রহমান রফিকের সভাপতিত্বে এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. শিমুল হাসানের পরিচালনায় এ প্রতিবাদ সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের অন্যতম উপদেষ্টা ড. মহসীন আলী, ডা. মাসুদুল হাসান ও ড. প্রদীপ রঞ্জণ কর, জাতীয় শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক বিষয়ক সমন্বয়কারী ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহিম বাদশা, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক প্রকৌঃ মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, জনসংযোগ সম্পাদক কাজী কয়েস, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. শাহ মোঃ বখতিয়ার আলী, কার্যকরী সদস্য সরাফ সরকার, মুক্তিযোদ্ধা শংকর সরকার ও শরীফ কামরুল হীরা, নিউইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন আজমল, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি শাহীন ইবনে দিলওয়ার, সাইকুল ইসলাম ও ফারুকুল হক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দরুদ মিয়া রনেল ও সৈয়দ ইলিয়াস খসরু, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ রশীদ রানা, আকবর হোসেন স্বপন, প্রচার সম্পাদক মইনুর রহমান সোয়েব, নাসিরউদ্দিন চৌধুরী, নাফিকুর রহমান তুরান, যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের আহবায়ক তরিকুল হায়দার চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক সুবল দেব নাথ, ব্রুকলীন আওয়ামীলীগের সভাপতি নুরুল ইসলাম নজরুল, চার্চম্যাকডোনান্ড ইউনিট কমিটির সভাপতি ইসমত হক খোকন, যুক্তরাষ্ট্র শ্রমিক লীগের সহ সভাপতি মঞ্জুর আহমেদ চৌধুরী, খান শওকত, ইলিয়ার রহমান, সহ সাধারণ সম্পাদক লস্কর মঈদুল জুয়েল, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জেড এ জয় প্রমুখ।

alt

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়শনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শ ম রেজাউল করিম বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডের বিভিন্ন চিত্র তুলে ধরে বলেন, বাংলাদেশ আজ অনেক এগিয়ে গেছে। বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেছে। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষ শক্তি দীর্ঘ সময় রাষ্ট্রী ক্ষমতায় থাকার কারণে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাংলাদেশ আজো গড়ে তোলা সম্ভব হয়নি। স্বাধীনতাবিরোধীদের বিভিন্নভাবে পুনর্বাসন করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নস্যাৎ করা হয়।

এডভোকেট শ ম রেজাউল করিম বলেন, বাংলাদেশকে যেকোনো উপায়ে পূর্ব পাকিস্তানে পরিণত করার একটি স্বপ্ন নিয়ে বেগম খালেদা জিয়া এবং জামায়াতে ইসলামীর লোকেরা স্বক্রিয়ভাবে ভূমিকা রাখছে। তাদের সে স্বপ্ন কখনো বাস্তবায়ন হবে না।সমাবেশে অন্যান্য বক্তারা যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান ও যুগ্ম সম্পাদক নিজাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে তীব্র সমালোচনা করে বক্তব্য রাখেন। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের বর্তমান কমিটি বিলুপ্তিরও দা্িব জানান হয় সভা থেকে।

গভীর রাত পর্যন্ত চলা এ সমাবেশে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীসহ বিপুল সংখ্যক প্রবাসী উপস্থিত ছিলেন।সমাবেশটি শুরু হয় বাংলাদেশ ও আমেরিকার জাতীয় সংগীত পরিবেশনার মধ্য দিয়ে। এরপর বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধসহ দেশের জন্য আত্মত্যাগকারী শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।